নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

পড়াশোনা করি। লেখালেখি করি। চাকরি করি। লেখালেখি করে পেয়েছি ৩টি পুরস্কার। জাতিসংঘের (ইউনিসেফ) মীনা মিডিয়া এ্যাওয়ার্ড ২০১১ ও ২০১৬ প্রথম পুরস্কার। জাদুর ঘুড়ি ও আকাশ ছোঁয়ার গল্পগ্রন্থের জন্য অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদ শিশুসাহিত্য পুরস্কার ২০১৬।

বিএম বরকতউল্লাহ

জানতে চাই।

বিএম বরকতউল্লাহ › বিস্তারিত পোস্টঃ

ভূতের গল্প লেখার পর

১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:২৩



অমাবস্যার রাত। সমস্ত আকাশ যেন দোয়াতের কালি দিয়ে লেপে দেওয়া হয়েছে। আমি বসে আছি ঘরে। বাইরে লক্ষ্মীপেঁচার হুতুম ভুতুম ডাক।

একটা ভূতের গল্প লিখে মন দিয়ে পড়ছিলাম। গল্পটা ভীষণ ভয়ংকর হয়ে গেছে। খুব ভয় ভয় করছিল আমার।

এমন সময় জানালার ধারে হিস্ হিস্ শব্দ! কে যেন আমাকে সাবধান করে দিচ্ছে। শরীরটা ঝাড়া দিয়ে উঠল।

একটু পর কর্কশ গলায় প্রশ্ন, এত রাতে কী লিখছিস তুই?

প্রশ্নের জবাব দেব কীভাবে, আমার কান দিয়ে শোঁ শোঁ করে বাতাস বেরুচ্ছে। বুক ডিব ডিব করছে।

আবার বলল, হেই, কথা বলছিস না কেন? কী লিখছিস, বল।

শুকনো মুখে বললাম, একটা গল্প লিখেছি, ভূতের গল্প।

ভূতের গল্প? ভূত দেখেছিস?

মাথা নেড়ে বললাম, নাহ্, দেখিনি।

না দেখেই গল্প লিখেছিস? যদি দেখতিস?

সেদিনই লেখার ইতি টানতে হতো আমার।

কেন?

ভারি মুশকিল। তখন না আমার কল্পনাগুলো খালি দেখা ভূতের মধ্যেই হাবুডুবু খেতো, এর বাইরে যাওয়াটা খুব কঠিন হয়ে যেতো না! না-দেখা জিনিসকে আমি আমার মতো করে বানিয়ে লিখতে পারি। এতে ভারি সুবিধে! আচ্ছা, তুমি কে?

আমি ভূত, আমি কি তোর সামনে আসবো এখন?

ভূত! আমার শরীরের ভেতর দিয়ে ঠান্ডা বাতাস বয়ে গেল। আমি থতমত খেয়ে ফ্যাকাসে মুখে বললাম, না, না, না, ভুল করেও না। কোনোদিন না।

কেন? জানতে চাইল ভূতটি।

কেন আবার, তুমি কি চাও না আমি ভয়ংকর ভূতের গল্প লিখে নামকরা ’ভূত-লেখক’ হই? তুমি কি চাওনা আমি গল্প লিখে দুটো পয়সা কামাই করি? তুমি কখনও আমার সামনে এসো না ভাই, প্লিজ, এক্ষুনি চলে যাও এখান থেকে।

তোদের কারণেই মানুষ আমাদের খুব ভয়ংকর বলে জানে, ভয় পায়। আমরা কি সবাই খারাপ? তোদের মধ্যে যেমন ভালো-মন্দ মানুষ আছে, আমাদের মধ্যেও তেমন ভালো-মন্দ ভূত আছে। আর আমাদের মধ্যে ভালো ভূতের সংখ্যাই বেশি। কই, তোরা ক‘জন ভালো ভূতের কথা লিখেছিস?

তোরাই মানবসমাজে আমাদের অসভ্য আর ভয়ংকর করে তুলে ধরেছিস। তোরাই আমাদেরকে মানুষের শত্রু বানিয়ে রেখেছিস। অথচ আমরাও চাই মানুষের সাথে বন্ধুত্ব করে চলতে। তোদের জন্য পারি না। এতে তোদের ওপর আমরা কতটা নাখোস তা অচিরেই টের পাবি।

একটা বাঁকা হাসি দিয়ে বললাম, হুঁহ্, আমরা হলাম গিয়ে লেখক। আমরাই তোদেরকে এ জগৎ সংসারে ভয়ংকর করে তুলেছি। তোদের নাম শুনলে ধনী-গরিব, শিশু-বুড়ো, রাজা-প্রজা, দুর্বল-পালোয়ান সকলেই ভয়ে অস্থির হয়ে যায়, এটা বুঝি জুত লাগছে না? বেশি বাড়াবাড়ি করলে তোদের এমন দুর্বল বানিয়ে গল্প লিখে বাজারে ছেড়ে দেবো যে, যেখানে যাবি সেখানেই খাবি মাইর। মারতে মারতে তোদের ছাতু করে ফেলবে। তারপর বুঝবি লেখক কী জিনিস।

আর তুই এখন দেখ, ভূত কী জিনিস! একথা বলেই সে আমার মুখ বরাবর জোরে ফুঁ দিল। গরম ফুঁ। আমার চোখ দুটো প্রায় বন্ধ হয়ে গেল। ফুঁ দিয়ে ভূতটি বলল, তোর ঠিক পেছন দিক থেকে একটা লেজ গজাবে। তখন দুষ্টু শিশুরা তোর লেজ দেখেই ঠিক করবে, তুই গরু, গাধা না বান্দর। তখন বুঝবি ভূতের গল্প লেখার আসল মজা! কথাটা মনে রাখবি, বলেই সে লাটিমের মতো ঘুরতে ঘুরতে উধাও হয়ে গেল।

ক’দিন যাবত আমার শরীরটা মোটেও ভাল যাচ্ছে না। আমার পেছন দিকটায় টনটন ব্যথা করছে। হাত দিয়ে দেখি গোল আলুর মতো কী একটা ঠেলে উপরের দিকে উঠছে। এটা যে কিসের আলামত আমি ঠিক বুঝে উঠতে পারছি না!

মন্তব্য ১৯ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (১৯) মন্তব্য লিখুন

১| ১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


বই মেলায় আপনার অনেকগুলো বই ছিলো ভুতের উপর, পাঠকের সংখ্যা কেমন?

১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৩

বিএম বরকতউল্লাহ বলেছেন: পাঠকের সংখ্যা তো ঠিক করে বলা যায় না। বই িকনে একজনে আর পড়ে অনেক জনে। তবে ক্রেতার একটা হিসাব করা যায়।
বইমেলাচলাকালীন রিপ্রিন্ট করতে হয়েছে এই যা! চলেছে ভাল। প্রকাশকের মতো আমিও খুশি। ভাল থাকবেন।

২| ১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৯

গেম চেঞ্জার বলেছেন: আপনার ভূতের গল্প পড়ে ভয় পেল না, তবে বড্ড মজা লাগল।

১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৪

বিএম বরকতউল্লাহ বলেছেন: শিশুদের জন্যে লেখা। তাই অনেক কিছু ভেবে লিখতে হয়। আবার কিছু ম্যাসেজও থাকতে হয়। শুভকামনা।

৩| ১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৪৯

ফুয়াদের বাপ বলেছেন: হাহাহাহা...ভালোই মজা পেলাম। পেছনে গজানো লেজের একটা ছবি দেয়েন ব্লগবাসী দেখুক কেমন ভূতের কেরামতি...

১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৫

বিএম বরকতউল্লাহ বলেছেন: ্‌াপনি মজা পেয়েছেন জেনে আমি আনন্দিত। ধন্যবাদ রইল।

৪| ১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০১

তারেক ফাহিম বলেছেন: ভুতের কেরামতি দেখতে চাই।

১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৬

বিএম বরকতউল্লাহ বলেছেন: আপনার সাহস তো কম না!



ভাল থাকুন।

৫| ১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৪

মিরোরডডল বলেছেন:




এটাতো ভুতের গল্প না ফর সিওর ।
কমেডি :)

১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৭

বিএম বরকতউল্লাহ বলেছেন: আমি লিখলাম গল্প আর আপনি বলছেন গল্প না, কই যাই বলুন!!

৬| ১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৬

আকিব ইজাজ বলেছেন: হা হা হা হা

ভুত অবশ্য মন্দ বলেনি, লেখকরাই ভুতগুলিকে ভয়ংঙ্কর করে রেখেছে। অবশ্য মাঝে মাঝে কেউ কেউ ভুতেদের মজার করেও পরিচয় করিয়ে দেয়।

যাই হোক লেজ দেখে দুষ্ট শিশুরা কোনটা ডাকবে বলে ঠিক করলো জানাবেন কিন্তু =p~ =p~

১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩১

বিএম বরকতউল্লাহ বলেছেন: ভারি লজ্জায় ফেলে দিলেন ভাই!
এমন আবদার কি কেউ করে?

৭| ১৩ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: দেশে ছোটদের লেখকের বড়ই অভাব।
আপনাকে দিয়ে সেই অভাব কিছুটা পুরন হোক এই প্রত্যাশা রইল।

১৩ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:১৪

বিএম বরকতউল্লাহ বলেছেন: আমি আনন্দিত। ধন্যবাদ রইল।

৮| ১৩ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৮:৫৭

পদ্ম পুকুর বলেছেন: ইদানিং ভুতসমাজ ব্লগে বেশ ইতিবাচক প্রচারণা চালাচ্ছে দেখছি! গতকাল রাজীব নুরকে দিয়ে একটা ক্যাম্পেইন চালালো শাকচুন্নিরা, আহা, ওরা কতই না ভালো, দয়াপরবশ, সুন্দরী... আর আজকে আপনাকে দিয়ে খানিকটা থ্রেট দিয়ে হলেও বুঝিয়ে গেলো যে তারা মানুষের সাথে সহাবস্থানে থাকতে চায়...
সামু একটা ভুত ব্রাঞ্চ খুললেই পারে!


খুবই ইউনিক গল্প। সুন্দর। পোস্টে প্লাস।
বাই দ্য ওয়ে লেজের একটা ছবি দিবেন পরে।

১৩ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:১৬

বিএম বরকতউল্লাহ বলেছেন: ভাল থাকবেন।
এমন আবদার কি কেউ করে?

৯| ১৩ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪১

রাজীব নুর বলেছেন: গল্পটি বাচ্চাদের জন্য হলেও আমার পছন্দ হয়েছে। আমার ভালো লেগেছে।

১০| ১৩ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১০:১০

নেওয়াজ আলি বলেছেন: ছবিটা ভুতের গল্পের আরেক রূপ

১১| ১৭ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৪৮

বিএম বরকতউল্লাহ বলেছেন: আমার শুভেচ্ছা রইল আপনাদের জন্য।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.