নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ট্রুথ নেভার ডাই্‌জ

নিজের সম্পর্কে লেখার কিছু নেই । সাদামাটা ।

আহমেদ জী এস

পুরোপুরি একজন অতি সাধারন মানুষ । আমি যা আমি তাই ই । শয়তানও নই কিম্বা ফেরেশতা । একজন মানুষ আপনারই মতো দু'টো হাত, চোখ আর নিটোল একটা হৃদয় নিয়ে আপনারই মতো একজন মানুষ । প্রচন্ড রকমের রোমান্টিক আবার একই সাথে জঘন্য রকমের বাস্তববাদী...

আহমেদ জী এস › বিস্তারিত পোস্টঃ

দেখা হয় নাই চক্ষু মেলিয়া তব মুখখানি.....

১৩ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ১২:৫৭

সুন্দরী মুখের আড়ালে মৃত্যুর পরোয়ানা । (২)


আজ সকালে বাসা থেকে বেড়িয়ে খুব হেলেদুলে কাজে যাচ্ছেন। মেজাজটা বেশ ফুরফুরে । মোড়ের জব্বারের চা দোকানে বরাবরের মতোই ভীড় । কাজের জায়গায় ঢোকার আগে এককাপ চা’য়ের সাথে সিগ্রেটের ধোঁয়া উড়িয়ে খানিকটা জম্পেশ আড্ডা মেরে গেলেন । অফিসে গাধার খাটুনি খাটার আগে একটু রিফুয়েলিঙ আর কি !
কিন্তু দেখলেন না , বুঝলেন না কি ঘটনা ঘটে গেছে সবার অজান্তে। আপনি জানলেন না , দশ-বারো কি বিশ জনের ভীড় থেকে ছড়িয়ে গেছে নিরব কোনও ঘাতক ! ঠাঁই নিয়েছে আপনার ঘাড়ে । যাদের আপনি খালি চোখে দেখছেন না । আপনার হয়তো জানা নেই যে , আপনার চারপাশের এইসব পরিবেশে সুন্দরের মুখোশ এঁটে লক্ষ কোটি নিরব ঘাতক কিলবিল করছে ।

এইসব ঘাতকদের চেহারা সুরৎ “তোমাকে খুঁজছে বাংলাদেশ” এর মতো ফেয়ার এ্যান্ড লাভলি মার্কা সব মুখ । সুন্দর সুন্দর এইসব মুখ দেখেই আপনার ইচ্ছে হবে এদের খপ্পরে পড়তে । কিন্তু আপনি নিশ্চয়ই ভুলে জাননি, যতো বেশী সুন্দরীর খপ্পরে পড়বেন ছ্যাকা খাওয়ার সম্ভাবনাও ততো বেশী আর সেই ছ্যাকার ব্যথাটাও যে কতো বেশী ভয়ঙ্কর তা ও মনে দগদগে ঘা হয়ে আছে হয়তো !
এই “সুন্দর” এর মুখোশের আড়ালে “ অসুন্দর” এর কতো যে আয়োজন, ভয়ঙ্কর সুন্দরতার আড়ালে লুকানো মৃত্যুর যে কতো হরেক পরোয়ানা ; তারই কেচ্ছা এখানে ।



অপরূপ আর ভয়ঙ্কর সব সুন্দরতার মাঝে অমঙ্গলের যে অশনি-সংকেত কালবৈশাখীর আকাশ চিরে বিজলীর মতো আমাদের জীবনাকাশেও যে ঝিলিক দিয়ে যায়, তারই টুকরো গল্প লিখতে বসেছি আমি। জীবন-মৃত্যুর মাঝখানে সুন্দর-অসুন্দরের যতো টানাপোড়েন, তার দূতিয়ালীতে সদা ব্যস্ত সব সুন্দর-সুন্দরীদের নিয়ে এই কাহিনী --------------------

অনুজীব তথা ইনফেকটিভ এজেন্টগুলো মানুষের শরীরে সংক্রমন ঘটায়, এটা আমরা সবাই জানি। আপনার বুকের নিউমোনিয়া থেকে শুরু করে ত্বকে ফোঁড়া হওয়া সবই এই অনুজীব বা ইনফেকটিভ এজেন্টগুলোর কাজ । এইসব ছোটখাটো রোগ আপনার জীবনকে দূর্বিসহ করে তোলে নিঃসন্দেহে । তেমনি আবার ডায়রিয়া, কলেরায় আপনার লাইফের “ওয়ারেন্টি” কার্ডের মেয়াদ এক ঝটকায় বাতিল হয়েও যেতে পারে ।

এইসব রোগগুলোকে আমরা জানি, চিনি । শুধু জানিনে এইসব হলিউড – বলিউড সুন্দর কিম্বা সুন্দরীদের কার কার কারনে আমাদের শরীরে ঘুণ পোকাদের এই বাসা ।

দেখি নাই , জানি নাই তাহারে
তুলিয়া আনিয়াছি শুধু ভুল করে,
তবুও কেন সে মোর প্রানসংহারে…………….



--------হেপাটাইটিস – বি ভাইরাস । ক্রায়োইলেক্ট্রন মাইক্রোস্কোপির ৩ডি রিকন্সট্রাকশানে খোলতাই তার রূপ....


----------------------হেপাটাইটিস – সি ভাইরাস । মরনঘাতী সুন্দরী ধরা পড়েছে ইলেক্টোমাইক্রোগ্রাফিতে ।

আপনি প্রাচীন মিশরীয় সুন্দরী ফারাও “হাটসেপসুত” এর নাম নাও শুনে থাকতে পারেন কিন্তু সুন্দরী “হেপাটাইটিস” জগৎজোড়া যার নাম; সে নামটি শোনেননি, তা হতে পারেনা !
স্ফটিক স্বচ্ছ , রঙীন এই সুন্দরীরা এতো চুপিচুপি আপনাকে জাপটে ধরবে যে প্রথম প্রথম আপনি কিছুই টের পাবেন না। সোনার চামচ মুখে নিয়ে আপনি এই ধরাতলে না এলেও ক্ষতি নেই । এই সুন্দরীরা আপনাকে সোনার বরনে সাজিয়ে দেবে । গায়ের চামড়া থেকে শুরু করে চোখ পর্য্যন্ত সোনা রঙে রাঙিয়ে দিয়ে মায় আপনার মূত্রকে পর্য্যন্ত স্বর্নালী করে তুলবে । এতো ভালোবাসা পেয়ে আপনার কলিজা ( লিভার ) বড় হয়ে উঠবে । তবে এ সুখ সইবেনা বেশীদিন । ওপারের টিকিট কেটে ফেলতে পারেন ।
আপনার প্রতিবেশী খালাম্মা আৎকে উঠে বলবেন , ওমমা....বাছা তোমার গায়ে তো দেখি বদ-হাওয়া লেগেছে । হলদে-পালঙ হয়েছে তোমার। ওঝা ডেকে ঝারিয়ে নাও শিগগির।
খবরদার , এমন কাজটি করবেন না । করলে আপনার কলিজাটিকে ( লিভার ) আর অক্ষত পাবেন না । সুন্দরী বলে কথা ! গায়ের লেখাপড়া না জানা মূখ্যুসুখ্য ওঝাকে কি মানায় তার ধারে কাছে আসার ? পাশ করা ডাক্তারের কাছে ধর্ণা দেবেন । আপনার এমন সোনার বরন দেখে ডাক্তার বলবেন, “হেপাটাইটিসের কারনে আপনার জন্ডিস হয়েছে । বিশ্রাম .. বিশ্রাম.... আর বিশ্রাম. সাথে ঘন ঘন মিষ্টি তরল খেয়ে যান অবিরাম............................”।
সাথে এই পরীক্ষা সেই পরীক্ষা । জীবনটা জেরবার ।


------------------------------------------সোনালী চোখ নিয়ে হেপাটাইটিস রোগিনী...................


-----------------------------------------মুখের লালাও হতে পারে মরনঘাতী বাহক .... অতএব সাবধান !

বুঝতেই পারছেন, জব্বারের চা’য়ের দোকান থেকেই এই সুন্দরীরা আপনার পিছু নিয়েছে । এমন সুন্দরের পাল্লায় পড়লে এমন ঝক্কি ঝামেলায় তো পড়তেই হবে ! আর দ্রুত চিকিৎসা না হলে মৃত্যু যে বেশী দূরে নয়, তা হয়তো আপনাকে বুঝিয়ে বলতে হবেনা ।

তোমার ঐ আবির রাঙা অধর পাড়ে
চোরকাঁটাতে বিঁধিয়ে দিলাম মন
আমার এই টুকরো কথা, টুকরো হাসি
পড়বে মনে ঘরে ফিরে,
একটু একটু করে.......


---------------------------------------------অনিন্দ্য সুন্দর হারপিস সিমপ্লেক্স...


------------------------হারপিস লেবিয়ালিস ভাইরাস। হীরকদ্যুতির মতো ছড়ায় ব্যথার মায়াজাল .............

চুম্বন ভালোবাসার প্রতীক । আনন্দদায়ক ও স্বর্গীয়। তা যদি আবার কোনও সুন্দরীর চুমু হয় তো কথাই নেই ! মধুও তার চেয়ে মধুর নয় !
তবে হীরক সুন্দরী লেবিয়ালিস এর চুম্বন কিন্তু সে চুম্বন নয় । এ চুম্বন নরকের । লেবিয়ালিস আপনার রক্তিম ঠোটে শুধু চুমু নয় কামড়ও দিয়ে বসবে । আনন্দ নয় তীব্র ব্যথার লজ্জায় আপনার মাথা ছিঁড়ে পড়তে চাইবে । গায়ে উত্তাপ ছড়াবে । এমন চুমুতে আপনার ঠোট জ্বলতে থাকবে । আপনার দিনগুলোর আনন্দ মিশে যাবে মাটিতে। সুন্দরী লেবিয়ালিস যে তার মনখানা আপনার অধরে বিঁধিয়ে রেখে গেছে চোরকাঁটার মতো ,তাতে সারাক্ষন তার কথাই আপনার মনে পড়বে ।


----------------------------------------হারপিস সিমপ্লেক্স ভাইরাস।


-------------------------------------হারপিস লেবিয়ালিস ভাইরাস। হারপিস সিমপ্লেক্স এর ছানাপোনা !

লেবিয়ালিস এর চুম্বন গাঢ় হলে আপনার অধরে বড়-ছোটো ফোস্কা ( ব্লিষ্টার) পড়ে যাবে । পুঁজ জমবে সেখানে আর তা ফেটে গিয়ে বিতিকিচ্ছিরি ঘা দেখা দেবে । এটা আপনার ঠোটেই শুধু নয় ছড়িয়ে পড়তে পারে মুখের ভেতরেও ।
এমন চুমু আপনি কামনা করেন কিনা এখন ভেবে দেখতে পারেন ! কামনা করেন কি করেন না , এটা কোনও ব্যাপার না ! না চাইলেও সুন্দরী লেবিয়ালিস বছরে বারকয়েক আপনাদের অনেককে চুমু খেয়ে যাবেই ............


------------------------------------------যন্ত্রনার আর এক নাম ...............


----------------------------------------কি যাতনা বিষে, বুঝিবে সে কিসে .....................

আমি যে ভয়ঙ্কর এক সুন্দর
তার কাছে আসি, সর্বনাশী
কেড়ে নেই দুরন্ত কৈশোর
শিশুর মুখের হাসি ,
আমি যে অন্যরকম ভালোবাসি
তাকে -


---------------------------------------------------পোলিও ভাইরাস ।


---------------------------------------------------ইলেক্টোমাইক্রোগ্রাফিতে ।

পোলিওর নামটি শোনেননি এমন কেউ নেই হয়তো এখানে । আতঙ্কের একটি নাম । ঠিকঠাক চিকিৎসা না হলে সারাজনমের মতো পঙ্গু হয়ে থাকতে হতে পারে আপনার আদরের সন্তানটিকে । আপনার এ রোগটি হবার সম্ভাবনা প্রায় একেবারেই নেই । আপনাকে তাদের পছন্দ নয় , পছন্দ বাচ্চাকাচ্চা । চেহারা সুন্দর এমন কেউ কেন যে বেছে বেছে কেবল শিশুদেরই আঁকড়ে ধরে তাকে অসহায় করে তুলতে চায় তা কে জানে ! হয়তো শিশুরা যা পায় তাই-ই মুখে দিয়ে ফেলে তাই তাদের পাকড়াও করা সহজ !
ফিকাল ওরাল রুট । কারন মানুষের “মল” এর মতো অসুন্দর কিছুতেই যে এমন সুন্দরের বসবাস । আর তা থেকে মুখে। এমন আদরে সে মাথায় চড়ে বসবেই । মুখ থেকে পেটে , সেখান থেকে রক্তে মিশে স্নায়ুরজ্জুকে কাবু করে ফেলবে ধীরে ধীরে । হাত-পা অবশ হয়ে যাবে । প্রথমে বুঝতে দেবেনা কিছুতেই যে সে ভর করেছে কোনও শিশুর উপর । শুধু জ্বর আর জ্বর । তারপর একদিন .................


------------------------------------পোলিওতে কেড়ে নেয়া শৈশবের আনন্দ উল্লাস ।


-------------------------------------এ জীবন বয়ে চলতে হবে এমনিই .............

আশার কথা এই অভিসম্পাৎ থেকে পৃথিবী এখন অনেকটাই মুক্ত । জগৎ জুড়ে পোলিও ভ্যাকসিনেশানের কারনে এই সুন্দর ঘাতক তার কামড় বসাতে পারছেনা আর । প্রতি বছর পাঁচ বছরের শিশুদের জন্যে এমন আয়োজন নিশ্চয়ই আপনার অজানা নয় ।


----------------------ওরাল পোলিও খাওয়ানোর চিরাচরিত দৃশ্য হলেও এই দৃশ্যটি বিরল।

বাতাসে বাতাসে আছি
তোমারই কাছাকাছি ।
টেনে নেবে মোরে, আদরে
রঙ্গনফুলের মতো জড়াবো সাদরে ...



------------------------------------------------- আহালে বাবুলে.................

সন্তানের টুসটুসে গালে একটি দু’টি মশার কামড়ের মতো দাগ দেখে হয়তো গা করবেন না । এরপর আপনার সন্তানটি ঘ্যানঘ্যান করা শুরু করবে । কোলে তুলে ঠান্ডা করতে চাইলে টের পাবেন যে , গা গরম । একটু একটু কাশি শুরু হবে । চোখ লালচে হয়ে উঠবে । নাক দিয়ে ঝরবে পানি । আহালে বাবুলে.................
মশার কামড়ে এতো কিছু, তাই মশার চৌদ্দগোষ্ঠী উদ্ধার করে ছাড়বেন । আসলে সুন্দর দেখতে মিজেলস ভাইরাসের আদর এমনিই । আস্তে আস্তে তার আদর ছড়িয়ে যাবে সারা মুখে, তারপর রঙ্গন ফুলের মতো থোকা থোকা লালরঙে ভরে যাবে আপনার বাচ্চাটির বুকে পিঠ ।



কি হলো বাচ্চাটির ভেবে ভেবে কুল পাবেন না । ভাববেন, কি খেয়েছিলো বাচ্চাটি যে এমন মারাত্মক এলার্জী হলো তার !
এলার্জি হয়নি তার , হয়েছে “হাম” । অতি পরিচিত নাম । আপনিও হয়তো শিশুকালে এই মিজেলস ভাইরাসের আদরের খপ্পরে পড়েছিলেন এক-আধবার । মনে আছে ?


------------------------------ কী অনিন্দ্য সুন্দর মিজেলস ভাইরাস !


------------------------------- মিজেলস একটি প্যারামিক্সো ভাইরাস প্রজাতি । যেন গোলাপের কুঁড়ি ......

বাচ্চাকে কাবু করে ফেলা এই ঝাঁ-সুন্দর ভাইরাসটি বাতাসে ভেসে ভেসে আসবে আপনার সন্তানটির কাছে । তারপরে বাচ্চার সাদরে টেনে নেয়া শ্বাসের সাথে ঢুঁকে পরবে শরীরের অন্দরমহলে । এর কয়েকদিন পরেই যতো বিপত্তি ।
কয়েকদিনেই এই সুন্দরী রঙ্গন লাপাত্তা হয়ে যায় বলে ভাববেন না , ভয়ঙ্কর কিছু নয় । পৃথিবী জুড়ে প্রতিদিন গড়ে তিনশতাধিক শিশু মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে আপাত নিরীহ এই রোগটির কারনে । মৃত্যুর প্রধান কারন, ডায়রিয়া ও শরীরে পানিশূণ্যতা, মস্তিষ্কের প্রদাহ (এনকেফালাইটিস) অথবা নিউমোনিয়া। আর বেঁচে গেলেও ক্ষতির দিকটি হলো - অন্ধত্ব ।


-----------------------------------ট্রান্সমিশন ইলেক্ট্রন মাইক্রোস্কোপের চোখে...............

কী বিচিত্র এই সৃষ্টিজগৎ আর প্রতি পরতে পরতে কী এর নান্দনিকতা ! পাশাপাশি কী ভয়ঙ্কর কারো কারো ছোঁয়া !


চলবে………………………..


ছবির কৃতজ্ঞতা - ইন্টারনেট ।

মন্তব্য ৮০ টি রেটিং +২৩/-০

মন্তব্য (৮০) মন্তব্য লিখুন

১| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ১:১৬

কাবিল বলেছেন: আগে লাইকটা মাইরা লই, হের পর পরা শুরু করি।

১৩ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ১:৩০

আহমেদ জী এস বলেছেন: কাবিল ,




হা..........হা.........হা......... কাবিল লোকের মতো কাজটি সেরে ফেললেন সবার আগে "লাইক" সীলটি মেরে !!!!!!
ফার্স্ট হয়েছেন । তবে ওসব সুন্দরীদের আবার যেন লাইক মেরে না আসেন........... ;)
আই লাইক্ড দ্য ষ্টাইল ।

শুভেচ্ছান্তে ।

২| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ১:১৯

মোঃ সাইফুল্লাহ শামীম বলেছেন: কি বলবো!!!
পুরো পোষ্ট পড়ে মাথা ঘুরাচ্ছে!!!
বাঁচার উপায় কি?
আর অবশ্যই এমন সুন্দর এবং উপকারী লেখার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।

১৩ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ১:৫৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: মোঃ সাইফুল্লাহ শামীম ,




যদি "কাবিল" লেড়কা হতে চেয়ে ওসব সুন্দরীদের লাইক করে বসেন তবে তো বাঁচার কোনও আশা দেখিনা ! :P
পানি পড়া খেয়ে দেখতে পারেন , বাঁচা যায় কিনা ! B:-)

হ্যা... রসিয়ে রসিয়ে ভয়ঙ্কর সব রোগজীবানুর কথা একটু অন্যভাবে স্মরন করিয়ে দেয়ার একটা প্রচেষ্টা বলতে পারেন ।

সুন্দর মন্তব্যের জন্যে আপনাকেও ধন্যবাদ ।

৩| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ১:৩৫

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: সাধে কি আর গিয়ানীগণ বলে গেছেন-

জাতের মাইয়া কাল ভাল নদীর জল ঘোলাও ভাল ;)

কি ভয়াবহ সন্দরীরা সব ! যাদের কেউ কামনা করে না! অথচ না চাইতেই ঝাপিয়ে পড়তে চায় সবসময়!!!

পড়তে পড়তে্ই গা কাটা দিয়ে উঠছিল :)

++++++++++++++++

১৩ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ২:৪৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: বিদ্রোহী ভৃগু ,



গিয়ানীগন এক্কেরে খারাপ কোনও জ্ঞান দান করেন না মনে হয় ! ঠিকই কইছেন হেরা । জাতের মাইয়া কালাও ভাল । :(

এই যেমন ল্যাকটোব্যাসিলাস । খারাপের চেয়ে ভালোটাই বেশী । দেখতে রূপবতী নয় অন্যদের মতো । আপনার পাকস্থলীতে যে দুধ এতোদিন ঢেলেছেন তার হজম প্রক্রিয়ার শুরু ,ফার্মেন্টেশানটা এই অপরূবতীই করে এসেছে এ্যাদ্দিন। আপনার ঘরে যে দধি বানানো হয় তাও দুধের ফার্মেন্টেশান । আর এটা করে থাকে এই ল্যাকটোব্যাসিলাস । দেখুন কেমন সে --



ফুড ইন্ডাষ্ট্রীতে ব্যাপক ব্যবহার আছে এর ।

গায়ে কাঁটা দেয়ার দরকার নেই , এরা আপনার কোলে একবার ঝাঁপিয়ে পড়লে ঠেকানোর উপায় নেই । ;)
সো, বি কেয়ারফুল নেক্সট টাইম ........................

৪| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ২:১১

কল্লোল পথিক বলেছেন:





ভয়ংকর অবস্থা!
পোস্টে++++++++++++++

১৩ ই জুলাই, ২০১৬ বিকাল ৩:১৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: কল্লোল পথিক ,




একজন পথিকের তো কল্লোলিত কন্ঠে বলা উচিত -- " পথ হারাবো বলেই এবার পথে নেমেছি ..." !
ভয়ংকর অবস্থা দেখে থেমে গেলে চলবে কি ? :|| জিতে নিতেই হবে এ যুদ্ধ ।

শুভেচ্ছান্তে ।

৫| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ২:২৩

কাবিল বলেছেন: ভয়াবহ সুন্দরী।
তয় এদের থেকে একশত এক হাত এক ইঞ্চি এক মি মি দূরে থাকুন সবাই।
অনিন্দ্য সুন্দর হারপিস সিমপ্লেক্স তো অসাম---- সন্দর লাগছে।
সোপিস করে রাখতে ইচ্ছা করছে। আচ্ছা, মাইক্রোস্কোপে কি এমন কালারফুল দেখায়?
এগুলান জঙ্গিদের পিছু নেয়না ক্যান X(( :P


এবারের পোস্টও অনেক ঝাঁঝালো হয়েছে। সিরিজটা ভালই হচ্ছে।
চলতে থাকুক সাথেই আছি।

১৩ ই জুলাই, ২০১৬ সন্ধ্যা ৭:৪০

আহমেদ জী এস বলেছেন: কাবিল ,



ভয়াবহ সুন্দরীদের কাছ থেকে দূরে থাকার যে তরিকা ফরমাইলেন, সেরাম স্কেল পামু কনে ? B-))
( B-)) হে হে হে! হুরাই মুকলেছ অই গেলাম রে! ব্লগার মিসির আলীর সৌজন্যে )
হের চাইয়া টেরাকের পিছনে ল্যাহা থাহেনা - " একশো হাত দূরে থাকুন " ? সেরাম দূরে থাকলে ভালা না ? B-)
( B-) কি মেয়া! আর কতা জোস অইছে নাহ্!!? / এটাও ব্লগার মিসির আলীর সৌজন্যে )

সাধারন মাইক্রোস্কোপে নয় , ইলেকট্রন মাইক্রোস্কোপে এমনটাই দেখতে পাবেন । ক্রায়োইলেক্ট্রন মাইক্রোস্কোপির ৩ডি রিকন্সট্রাকশান করে এগুলোর ছবি এভাবেই রঙীন করে তোলা হয় । আমার স্বল্প বিদ্যায় এটুকুই জানি ।

নেবে নেবে , মহান সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছে হলেই নেবে ।

বরাবরের মতোই সাথে থাকুন । থাকুন ভালো এবং নিরাপদে ।

৬| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ২:২৬

মো: হাসানূর রহমান রিজভী বলেছেন: হায়রে সুন্দরী

১৩ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ৮:০৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: মো: হাসানূর রহমান রিজভী ,




কষ্ট পেলেন মনে হয় ! :(
সুন্দরীদের আগলে রাখতে না পারলে যতো কষ্টই পান না কেন আখেরে ভালো আপনারই ।

ভালো থাকুন ও নীরোগ থাকুন ।

৭| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ২:৫৭

সাহসী সন্তান বলেছেন: পোস্টটা পড়তে গিয়ে গা ঘিনঘিন করছিল! পৃথিবীতে এতসব সুন্দরের আনাগোনা, অথচ তাদের ব্যবহার বড়ই পিড়া দ্বায়ক! এদের থেকে যতটা সম্ভব দূরত্ব বজায় রেখে চলাটাই বোধহয় বেটার হইবেক! ;)

অনবদ্য পোস্ট! অবশ্যই পোস্টে লাইক! শুভ কামনা জানবেন জী এস ভাই!

১৩ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ৮:৪৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: সাহসী সন্তান ,



গা ঘিনঘিন করলেও উপায় নাই গোলাম হোসেন ! :( এদের নিয়েই আমাদের দিন যাপন । আপনার এক বর্গ ইঞ্চি চামড়ায় কতো মিলিয়ন যে এরা আছে জানলে মাথাটি ঘুরে যেতে পারে , তাই বললুম না ।

হুম , দূরে থাকার জন্যে আপনার ইমিউন সিষ্টেমটাকে টিউনিং করতে হবে ।

মন্তব্যে ধন্যবাদ । সাথেই থাকুন নীরোগ থাকুন ।
শুভকামনা আপনার জন্যেও ।

৮| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ বিকাল ৩:৪৪

ক্লে ডল বলেছেন: সুন্দরীদের দেখে যে ভীত হয়ে পড়লাম।

তবে আপনার বর্ণনা কিন্তু বড়ই সুন্দর! :)

১৩ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ৯:৪০

আহমেদ জী এস বলেছেন: ক্লে ডল ,



এসব সুন্দরীরা আসলেই ভয় ধরিয়ে দেয়ার মতো, যতোই আমি হাসাঠাট্টার ছলে লিখি না কেন !

আপনার মন্তব্যটিও সুন্দর ।
শুভেচ্ছা জানবেন ।

৯| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ বিকাল ৫:১২

কামরুন নাহার বীথি বলেছেন: ভয়াবহ ভাইরাস আর রোগের অসাধারণ উপস্থাপনা!!!!!
আপনি পারেনও!!!!! :)

১৩ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ৯:৫০

আহমেদ জী এস বলেছেন: কামরুন নাহার বীথি ,




অনেকদিন পরে !
মন্তব্যে প্রীত ।

শুধু ভাইরাসই নয় , বাকী অনুজীব যেমন - ব্যাকটেরীয়া , ফাঙাস , প্রটোযোয়া নিয়ে ও লেখার ইচ্ছে আছে ।

সাথেই থাকুন । শুভেচ্ছান্তে ।

১০| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ সন্ধ্যা ৬:১৯

জুন বলেছেন: সুন্দরীরা যত মরনঘাতীই হোক তার আকর্ষন ছোট থেকে বুড়ো কেউ এড়াতে পারেনা এটাই দ্রুব সত্য। করহায় বলে না আগে রুপ বিচারি তার পর গুন।
হেপাটাইটিস বি আর তারপর হারপিস যা ঠোটে ফোসকার মত দুটোই রূপবতী। আপনার প্রথম পর্বে ব্লগার শায়মা তার একাধিক মন্তব্যে এ বিষয়ে আতংক প্রকাশ করেছিল। যার উত্তর আপনি আপনার অসাধারন লেখনীতে বিস্তারিত ভাবে এই পর্বে তুলে ধরেছেন ভাইরাস ও ঠোটের ছবির মাধ্যমে। কি সুন্দর সব ভাইরাস।
লেখা বরাবরের মতই অনাবদ্য যা নিয়ে নতুন করে কি আর বলবো। অনেক ভাললাগা রইলো।

১৩ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ১০:২৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: জুন ,




সম্ভবত অনেকবারই বলেছি , আপনার স্মরনশক্তি প্রখর । নইলে কবে কোথায় কাকে কি বলেছি মনে থাকার কথা নয় । তবে সঠিক সময়ে এই স্মরনশক্তি খুঁইয়ে বসেন বোধহয় মাঝেমাঝে ।
বলেছেন - "কথায় বলে না আগে রূপ বিচারি তার পর গুন।" কথাটি সর্বাংশে ঠিক নয় ।
স্মরনশক্তি খুঁইয়ে না বসলে ৩নং মন্তব্যে " বিদ্রোহী ভৃগু"র উল্লেখিত গুণীজনের এই কথাটি - "জাতের মাইয়া কাল ভাল নদীর জল ঘোলাও ভাল" বিস্রুত হতেন না ।

সবসময় সাথে থাকার জন্যে ধন্যবাদ । মন্তব্যে প্রীত ।

১১| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ সন্ধ্যা ৬:৩৬

দিশেহারা রাজপুত্র বলেছেন:
ভিন্নভাবে উপস্থাপন করলেন।
ব্যাপারখানা বিদঘুটে।
সুন্দরীরাই বেশি প্রব্লেমেটিক।

১৪ ই জুলাই, ২০১৬ সকাল ১০:০৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: দিশেহারা রাজপুত্র ,




আমি সাধারনত সহজ পথে চলিনে । খারাপ মানুষ তো, তাই একটু ভিন্নভাবে বা বাঁকাত্যাড়া পথে চলি ।

হা............হা............... ঠিক বলেছেন - সুন্দরীরাই বেশি প্রব্লেমেটিক। এ কারনেই তো মানুষ দিশেহারা হয় ।

শুভেচ্ছান্তে ।

১২| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ৮:০৭

সুমন কর বলেছেন: ভয়ঙ্কর সুন্দরতার আড়ালে লুকানো মৃত্যুর যে কতো হরেক পরোয়ানা .......... -- আসলেই আমরা বোঝার আগেই আঘাত দেয়।

ভাই, ভয় পাইলুম। বাচ্চাদেরগুলো দেখে বেশি খারাপ লাগল।

১৪ ই জুলাই, ২০১৬ সকাল ১০:৫২

আহমেদ জী এস বলেছেন: সুমন কর ,




এই “সুন্দর” এর মুখোশের আড়ালে “ অসুন্দর” এর কতো যে আয়োজন, ভয়ঙ্কর সুন্দরতার আড়ালে লুকানো মৃত্যুর যে কতো হরেক পরোয়ানা ; তারই কেচ্ছা এখানে বলে সবাইকে কিছুটা সজাগ করতে চেষ্টা করা মাত্র ।
সরাসরি রোগশোকের কথা লিখলে পানসে পানসে লাগতো তাই একটু ঘসামাজা করে সুন্দর চটকদার করার চেষ্টা আর কি !

মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ ।
শুভেচ্ছান্তে ।





১৩| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ৯:৪৩

পুলহ বলেছেন: আগের পর্বটার মতই চমৎকার। চিকিতসা শাস্ত্রের সাথে কাব্যভাব যে কত স্মার্টলি যেতে পারে- আপনার এ ধরণের পোস্টগুলো তার প্রমাণ; বিশেষত পোস্টের সূচনা অংশটুকু...
ভালো আছেন আশা করি। বিলেটেড ঈদের শুভেচ্ছা আহমেদ জী এস ভাই।

১৪ ই জুলাই, ২০১৬ সকাল ১১:২৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: পুলহ ,




আগেই বাসি ঈদের তরতাজা শুভেচ্ছা জানিয়ে রাখি ।
যে কোনও বিষয়ের উপরেই কাব্যভাব আনাটাই এই ব্লগের প্রানভোমরা মনে হয় । নয়তো কঠিন- রসকষহীন লেখা তো যে কেউই বইয়ে, পত্রিকায় বা যেখানে সেখানে পেতে পারেন । আমরা সবাই সে পথে না গিয়ে যার যার সাধ্যমত কাব্যগন্ধী লেখা লিখি বলেই দিনশেষে ব্লগটাকে নিয়ে বসি । একটু কোয়ালিটি রিফুয়েলিংয়ের জন্যে , তাইনা ?

প্রশংসার জন্যে কৃতজ্ঞ হয়ে রইলুম ।
সাথেই থাকুন বরাবরের মতোন । শুভেচ্ছান্তে ।

১৪| ১৩ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ১১:৪৭

ভ্রমরের ডানা বলেছেন: আমার মতে,
জী এস ভাই ইনডাইরেক্টলি সুন্দরীদের বান্দরী বানায় দিলেন।

তবে জী এস ভাই এর হাতের ছোয়ায় বান্দরীরা সুন্দরীও হতে পারে। বাস্তব উদাহরন এই সিরিজ পোষ্ট!


আগে লাইক মেরে তবেই কমেন্ট করলাম!

১৪ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ১:০৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: ভ্রমরের ডানা ,



ইনডাইরেক্টলি নয় বরং ডিরেক্টলি বান্দরী বানিয়েছি । চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়েছি, সুন্দর আসলে সুন্দর নয় যদি না তার স্পর্শ মানুষকে আলোকিত করে, সঞ্জীবিত করে !
চিকিৎসা বিজ্ঞানের কথা । বিজ্ঞান আসলেই কাটখোট্টা একটা বিষয় । এই কাটখোট্টাকেই খানিকটা সহজপাচ্য করে আপনাদের পাতে তুলে দিতে চেয়েছি ।

প্রশংসায় কে খুশি না হয়, বলুন ? আমিও ব্যতিক্রম নই । আপনার এই নির্মোহ প্রশংসায় তাই খুশি ।

ভালো থাকুন আর নীরোগ .................

১৫| ১৪ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ২:০৩

হাসান মাহবুব বলেছেন: চমৎকার উপস্থাপনা।

১৪ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ১:৪৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: হাসান মাহবুব ,




উপস্থাপনা না হয় চমৎকার কিন্তু যাদের সুন্দর মুখ দেখালুম তারাও কি চমৎকার ?

১৬| ১৪ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ২:৩৭

জেন রসি বলেছেন: আপনি আর প্রোফেসর শঙ্কু মিলে এ কি ষড়যন্ত্র শুরু করলেন? তিনি আনন্দময় জীবনের উদাহরন দেখিয়ে ভয়াবহ সব রোগের সাথে আমাদের পরিচয় করিয়ে দিচ্ছেন! আর আপনি সুন্দরীদের নামে কি সব ভাইরাস দেখিয়ে ভয় দেখাচ্ছেন! এরপর কিন্তু আমাদের ঘুম পাড়ানি মাসি পিসীর গানও শোনাতে হতে পারে! :P

যদি রাজনীতিবিদদের মত সব মিডিয়ার অপপ্রচার বলে নাকে তেল দিয়ে ঘুমাতে পারতাম তবে মন্দ হতনা! তবে আপনি যেসব ভাইরাসের সাথে পরিচয় করিয়ে দিলেন তা আসলেই হেলেনের মতই সুন্দরী। এদের পাল্লায় পরলে আমরা সবাই ট্রয় হয়ে যাব!

বরাবরের মতই অসাধারন উপস্থাপনায় মুগ্ধ হলাম জী এস ভাই। আসলেই অনেক ভয়ংকর কিছুর সাথে প্রতিনিয়ত লড়াই করে বেঁচে থাকতে হয় বলেই হয়ত বেঁচে থাকার একটা আলাদা আনন্দ আছে। যার যা কিছুই হোকনা কেন জীবন থেকে তার প্রাপ্য বুঝে নেওয়ার লড়াই যেন কেউ থামিয়ে না দেয়! জগতের সকল প্রাণী সুখি হোক! :)

১৪ ই জুলাই, ২০১৬ বিকাল ৩:৪৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: জেন রসি ,




আহমেদ জী এস সম্পর্কে এটা হলো একটি জেন রসি অপপ্রচার প্রযোজনা । সুন্দরী ভাইরাসদের সাথের পরিচয় করিয়ে সতর্ক করে দিলুম তা ও আপনার কাছে ষড়যন্ত্র মনে হলো ? :( তাদের সাথে যদি লং ড্রাইভে যেতে বলতুম তবে খাসা হতো মনে হয় ! আরে আমি তো সা...বো....ধান করেছি এই বলে যে, এদের পাল্লায় পড়লে শুধু ডেষ্ট্রয়ই হবেন না সাথে জীবনের রস ও শুকিয়ে যাবে রাস্তার খাদে পড়ে। B-))

হ্যা .. আসলেই এমন ভয়ংকর কিছুর সাথে প্রতিনিয়ত লড়াই করেই বেঁচে থাকতে হচ্ছে আমাদের । আপনার আমার শরীরে যতো কোষ আছে ততোই আছে এই সব মাইক্রোবস আমাদের গায়ের চামড়ায় , মুখে , খাদ্যনালীতে। আমাদের শরীরে আছে ৩৭ ট্রিলিয়ন কোষ । এটা হলো আমেরিকান একাডেমী অব মাইক্রোবায়োলোজীর ২০১৪ সালের হিসেব । আর আকাশে বাতাসে কি আনন্দে ভেসে বেড়ানো মাইক্রোবস এর কথা না হয় বাদই দিলুম । এদের মাঝেও আমরা বেঁচে-বর্তে আছি । কী অদ্ভুত তাইনা ?

আপনার সাথে গলা মিলিয়ে বলি - জগতের সকল প্রাণী সুখি হোক!

১৭| ১৪ ই জুলাই, ২০১৬ সকাল ৭:৫১

কাওছার ঠাকুরগাঁও বলেছেন: tahole restaurent e khawa bondho korbo

১৪ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ৮:১৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: কাওছার ঠাকুরগাঁও ,




আমার ব্লগে স্বাগতম আপনাকে ।
না... পথে ঘাটে খাওয়া ছাড়া আমাদের অনেকেরই উপায় থাকেনা কোনও কোনও সময় । শুধু সতর্ক থাকতে হবে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারে ।

ভালো থাকুন , নীরোগ থাকুন ।

১৮| ১৪ ই জুলাই, ২০১৬ সকাল ৮:০৮

মাদিহা মৌ বলেছেন: ভয়ঙ্কর সব রোগের কী সুন্দর চেহারা!!

১৪ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ৮:৪৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: মাদিহা মৌ ,



তাই-ই বোঝাতে চেয়েছি । আমি প্রকৃতির সুন্দরতাকে ভালোবাসি তাই ঐ সব নান্দনিক চেহারার, যাদের আবার খালি চোখে দেখা যায়না; তাদের কে তুলে এনে দেখাতে চেয়েছি আপনাদের - আহা মরি... মরি........ রূপ ।

মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ । শুভেচ্ছান্তে ।

১৯| ১৪ ই জুলাই, ২০১৬ সকাল ৯:২১

শামছুল ইসলাম বলেছেন: রোগ নিয়েও যে এত সুন্দর পোস্ট দেওয়া যেতে পারে, আপনার পোস্টটা না পড়লে বিশ্বাস করা মুশকিল।

রোগীর ছবিগুলো ছাপিয়ে রঙ্গিন জীবাণুদের ছবিগুলোই চোখে ভাসছে।

ভাল থাকুন। সবসময়।

১৪ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ৯:৪৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: শামছুল ইসলাম ,




এমন সুন্দর মন্তব্যে কৃতজ্ঞ ।

আসলে আমি প্রকৃতির সব সুন্দরতাকে খুঁজে বেড়াই । হোক তা দৃশ্যমান, নয় হোক তা শুধু অনুভবের । তাই ঐ সব দৃশ্য-অদৃশ্য নান্দনিকতা নিয়ে লিখি । আর তাই আমাদের অজান্তে থাকা অনুজীবদের আহা মরি... মরি........ রূপ দেখাতে চেয়েছি আপনাদের । এই যেমন আপনিও এদের দেখে চোখ ফেরাতে পারেন নি ।
আসলে প্রকৃতি যে কতো বৈচিত্রময় !!!!!!!!!!!!!

ভালো থাকুন আপনিও ।

২০| ১৪ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ১:৩৪

প্রামানিক বলেছেন: চমৎকার বিষয়

১৫ ই জুলাই, ২০১৬ সকাল ৯:৩৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: প্রামানিক ,




দেখা ও মন্তব্যের জন্যে আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ।
ভালো থাকুন, নীরোগ থাকুন ।

২১| ১৪ ই জুলাই, ২০১৬ দুপুর ১:৪৫

বৃতি বলেছেন: ভয়াবহতার কি নান্দনিক উপস্থাপনা!!! :) পোস্টে অনেক ভালো লাগা থাকলো।

১৬ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ১০:১০

আহমেদ জী এস বলেছেন: বৃতি ,



অনেকদিন পরে আমার ঘরে এসেই ভয়ানক কিছুর দেখা পেলেন মনে হয় । যে ভয়ানকতা কিছুটা হলেও নান্দনিক ।
ছোট্ট মন্তব্যে ভালো লাগা থাকলো জেনে প্রীত ।

শুভেচ্ছান্তে ।

২২| ১৫ ই জুলাই, ২০১৬ ভোর ৫:৪১

সচেতনহ্যাপী বলেছেন: আমার লাইক আপনার তথাকথিত সুন্দরীদের জন্য না।। সুন্দরীদের আগমনবার্তা আর তার ভালবাসা নিয়ে লেখাটায়।।

১৬ ই জুলাই, ২০১৬ রাত ১০:৩৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: সচেতনহ্যাপী ,




লাইকটা যে সুন্দরীদের দেননি তা বুঝতে পেরেছি । লেখাটায় লাইকটা পড়েছে সুন্দরীদের খপ্পরে যেন না পড়েন সে ব্যাপারে সচেতন করেছি বলে । :P

২৩| ১৫ ই জুলাই, ২০১৬ বিকাল ৪:৩৪

নীলপরি বলেছেন: তথ্যসমৃদ্ধ পোষ্টে ++

১৯ শে জুলাই, ২০১৬ দুপুর ২:০৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: নীলপরি ,




খুব দেরী হয়ে গেছে আপনার মন্তব্যের জবাব দিতে । ক্ষমার চোখে দেখবেন নিঃশ্চয়ই ?

প্লাস দেয়াতে ধন্যবাদ ।
ভালো থাকুন । নীরোগ থাকুন ঐসব আপাতঃ সুন্দর কিন্তু ঘাতক অনুজীব থেকে ।

২৪| ১৯ শে জুলাই, ২০১৬ দুপুর ২:১০

শায়মা বলেছেন: এইগুলা সুন্দরী আর বলা যাচ্ছে না ভাইয়া!

এরা হলো রাক্ষুসী, ডাকিনী , যোগিনী, ভুলভুলাইয়া বা অজান্তেই ঘাড়ে চেপে বসা জ্বীনভুতের মত শয়তাননী আর কি ......

১৯ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ১০:৪১

আহমেদ জী এস বলেছেন: শায়মা ,



দেরীতে দেখলেন বলেই সুন্দরটুকু চোখে পড়েনি, ভুলভুলাইয়া মনে হয়েছে । আপনার এই "ডাকিনী , যোগিনী" শব্দগুলো দেখে গান মনে পড়লো -

............ডাকিনী যোগিনী এলো শত নাগিনী
এলো পিশাচিরা এলোরে ।
শত পাঁকে বাধিয়া নাচে তাথা তাথিয়া নাচেরে.........
কূটিলের মন্ত্রে শোষনের যন্ত্রে
গেল প্রান শত প্রান গেলোরে ..............।

এরাও শত প্রান নেবে বলে সুন্দরের পেখম মেলে বসে আছে । ঘাড়ে তো চাপবেই :(
ঘাড়ে চাপা সবাই-ই কি শয়তাননী হয় ? B-)

যাক, মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ । ভালো থাকুন আর নীরোগ থাকুন ।

২৫| ১৯ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ১০:৫৬

শায়মা বলেছেন:
ভাইয়া উত্তর দেখে এই পোস্টে এসে তাড়াতাড়ি নীচে নেমে এলাম যেন এই ডাকিনী যোগিনীদের চেহারা আর দেখতে না হয় !!!!!!!!! কি যে ভয়ংকর!!!!!!!!!


মন্তব্যে গানটা হঠাৎ মনে পড়ছিলো না কবে যেন এমন একখানা নাচ করিয়াছিলাম!!!!!!!!! তারপর হঠাৎ মনে পড়ে গেলো!!!!!!!:)


যাই হোক শেষে এসে "ঘাড়ে চাপা সবাই-ই কি শয়তাননী হয় ? " পড়িয়া একটু মুচকি হাসিলাম ভাইয়া!!!!! :P


ওহ আরেকটা কথা তুমি হেমন্তের গানের মহা ফ্যান সে আমি আগেই বুঝেছিলাম !!!!!!:) :) :)

২৩ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ৮:৫৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: শায়মা ,




আগেভাগে বুঝে ফেলা ঠিক হয়নি । আমি হেমন্তের গানের মহা ফ্যান নই । সুন্দর, হৃদয়হরনকারী সব গানেরই ফ্যান । তবে হেমন্তের ঐ গানখানি আমার খুব প্রিয় ।

"ঘাড়ে চাপা সবাই-ই কি শয়তাননী হয় ? " পড়িয়া একটু মুচকি হাসিলেন কেন ?????
ঘাড়ে চাপা সবাই-ই শয়তাননী হয় । B-)
ঘাড়ে মাথা রাখে যারা তারা শয়তাননী হয়না .................... :||

২৬| ২৩ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ৯:১৬

শায়মা বলেছেন: হা হা হা ঠিক ঠিক ঠিক তোমার ঘাড়ে কয়টা মাথা ভাইয়া?????????


:P

যাইহোক বৃষ্টিস্নাত এই দিনে মানে রাতদিনে আমার প্রিয় গানা শোনো ভাইয়া :) :) :)

এপারে মুখর হলো কেকা ঐ, ওপারে নীরব কেনো কুহু হায় !

২৫ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ১০:২৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: শায়মা ,




আমার ঘাড়ে একটাই মাথা ........ :(
দু'টো তিনটে থাকলে এতোদিনে পেপারেই দেখতে পেতেন " বহু মাথাওয়ালা মানুষটি এখনও বেঁচে আছে .." :P

২৭| ২৭ শে জুলাই, ২০১৬ বিকাল ৫:০৩

মহা সমন্বয় বলেছেন: অতীব জরুরী পোস্ট, আপাদত প্রিয়তে। সময় করে পড়তে হবে। :)

৩০ শে জুলাই, ২০১৬ সকাল ১১:০৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: মহা সমন্বয় ,



অতীব জরুরী না হলেও কার্যকরী । প্রিয়তে জায়গা করে দিয়েছেন বলে কৃতজ্ঞ ।

এরমধ্যে সময় করে হয়তো পড়ে ফেলেছেন । আবার দেখতে পাবো আপনাকে আশা করি ।
শুভেচ্ছান্তে ।

২৮| ৩০ শে জুলাই, ২০১৬ বিকাল ৪:২৭

শাহরিয়ার কবীর বলেছেন: গুরুত্বপুন বিষয় ।।
ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য ।
প্রিয়তে রাখলাম।

৩০ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ১০:২৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: শাহরিয়ার কবীর ,



অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে পোস্টটি প্রিয়তে নেয়ার জন্যে ।
শুভেচ্ছান্তে । ভালো থাকুন , থাকুন নীরোগ ।

২৯| ৩১ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ১২:৪৫

শাহরিয়ার কবীর বলেছেন: আপনিও ভালো থাকুন ভাই।

৩১ শে জুলাই, ২০১৬ সকাল ১০:২৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: শাহরিয়ার কবীর ,



ফিরে এসে, ভালো থাকার কথা বলেছেন ।

আমিও বলি, " ভালো থাকুক পৃথিবী, ভালো থাকুক সব..........." ।

৩০| ০২ রা আগস্ট, ২০১৬ রাত ১১:৫১

মোঃ মঈনুদ্দিন বলেছেন: অনন্য অসাধারণ পোস্ট! যত না দীর্ঘ তারচেয়ে বেশী দরকারী! জীবনমুখী। ধন্যবাদ এত তথ্যবহুল পোস্টের জন্য। ভালো থাকুন।

০৩ রা আগস্ট, ২০১৬ দুপুর ১২:৫৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: মোঃ মঈনুদ্দিন ,



অনেক খুশি হয়েছি আপনার এমন আন্তরিক মন্তব্যে ।
কাঠখোট্টা ভাষায় না লিখে, আসলে কথার ছলে কিছু প্রয়োজনীয় কথা বলতে চেয়েছি ।

ভালো থাকুন আপনিও আর এদের থেকে দূরে ...................।

৩১| ০৩ রা আগস্ট, ২০১৬ সকাল ১০:০৯

অদিতি চক্রবর্তী বলেছেন: অনেকটা জানা ছিলো। আজ ছবিও সাথে পেয়ে পড়তে ভালো লাগলো। খুব উপকৃত হলাম।

০৩ রা আগস্ট, ২০১৬ দুপুর ১:৫৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: অদিতি চক্রবর্তী ,




রোগশোকের ব্যাপারটা অনেকেই জানেন । কিন্তু অনেকেই জানেন না, এর পেছনের কারনটি কি ! কারনটি যে ভয়ঙ্কর সুন্দর কিছু, সে কথাই রসিয়ে লিখেছি ।
কাঠখোট্টা ভাষায় না লিখে, আসলে কথার ছলে প্রয়োজনীয় কিছু কথা বলেছি ।

মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ । ভালো থাকুন , নীরোগ থাকুন ।

৩২| ০৮ ই আগস্ট, ২০১৬ সন্ধ্যা ৭:২৩

মোহাম্মদ গোফরান বলেছেন: অসাধারণ ব্রাদার। অনেক ভালো লাগলো।

পুরোপুরি একজন অতি সাধারন মানুষ । আমি যা আমি তাই ই । শয়তানও নই কিম্বা ফেরেশতা । একজন মানুষ আপনারই মতো দু'টো হাত, চোখ আর নিটোল একটা হৃদয় নিয়ে আপনারই মতো একজন মানুষ ।
প্রচন্ড রকমের রোমান্টিক আবার একই সাথে জঘন্য রকমের বাস্তববাদী...

অনেক ভালো লাগলো আপনার সম্বন্ধে জেনে। আপনাকে আমার ব্লগে এবং আমার শহরে ইনভাইট করলাম।

০৮ ই আগস্ট, ২০১৬ রাত ৮:১১

আহমেদ জী এস বলেছেন: মোহম্মদ গোফরান ,



আমার ব্লগে স্বাগতম ।
নেমন্তন্নের জন্যে ধন্যবাদ ।
শুভেচ্ছান্তে ।

৩৩| ২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ১০:০৩

অগ্নি সারথি বলেছেন: মাই গড! অসাধারন ভাই।

২৩ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ১০:১৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: অগ্নি সারথি,




অনেকদিন পরে । ভালো লাগলো দেখে ।
অসাধারন বলায় ধন্যবাদ ।
ভালো থাকুন, থাকুন নীরোগ ।

৩৪| ২৮ শে আগস্ট, ২০১৬ বিকাল ৫:৩০

রিফাত ২০১০ বলেছেন: ভালো লাগলো।

২৯ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ৯:৩৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: রিফাত ২০১০,




স্বাগতম আমার ব্লগে ।
মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ ।

শুভেচ্ছান্তে ।

৩৫| ২৯ শে আগস্ট, ২০১৬ সকাল ৭:৪৭

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: অসাধারণ পোস্ট । আনেক
অজানা বিষয় বিস্তারিত
ভাবে জানা হল ।
অবার আসব
এটা পাঠের
জন্য ।
শুভেচ্ছা রইল

২৯ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১০:৪৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: ডঃ এম এ আলী,



থাকুন সাথেই বরাবরের মতো ।
লেখাটিকে অসাধারন বলাতে, প্রীত ।

শুভেচ্ছান্তে ।

৩৬| ২৯ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ১১:৩৩

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: ধন্যবাদ সুন্দর প্রতি উত্তরের জন্য ।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৬ সন্ধ্যা ৬:৪৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: ডঃ এম এ আলী ,



অনেকদিন পরে ধন্যবাদ জানাচ্ছি আপনাকেও ।
ঈদের শুভেচ্ছা রইলো ।

৩৭| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ২:২২

সোহানী বলেছেন: শিরোনাম আগ্রহ নিয়ে পড়লাম, ভঅবলাম কোন সুন্দরীর খবর মনে হয় দিবেন !!! :P :P হায় হায় একি দেখাইলেন... পুরাই টাসকি। বাচার তো দেখি কোন উপায় নাই!!! সুন্দরীরা যেভাবে উৎ পেতে আছে :( :( :(

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৬ রাত ৯:০৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: সোহানী ,



সুন্দরীদের খবরই তো দিলুম ! :P
সুন্দরীরা তো ওৎ পেতেই থাকে কার ঘাড়ে সওয়ার হওয়া যায় ভেবে ভেবে । আর আমরা তো “তোমাকে খুঁজছে বাংলাদেশ” এর মতোই সব সুন্দরীদের খুঁজেই বেড়াই । :( :|| কেন হেপাটাইটিস - বি ভাইরাস সুন্দর নয় ? চোখ ধাঁধানো সুন্দরই তো । তবে সুন্দরীদের সামলানো বড় বেকায়দার । তাদের আবদারের কোনও শেষ নেই । হয়তো আবদার করেই বসবে , " আমার জন্যে তুমি মরতে পারো ? "
জবাবটা আপনার জন্যে তোলা রইলো ।

দুঃখিত, অনিবার্য কারনে এমন রসালো মন্তব্যের উত্তর দিতে দেরী হলো বলে ।

ঈদের শুভেচ্ছা জানবেন ।

৩৮| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৬ সন্ধ্যা ৬:৫৬

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: আপনার জন্যও রইল ঈদ শুভেচ্ছা

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৬ রাত ১০:৫১

আহমেদ জী এস বলেছেন: ডঃ এম এ আলী ,



ধন্যবাদ , আবারও এসেছেন বলে ।

৩৯| ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ রাত ৮:৫২

মাহমুদ০০৭ বলেছেন: এ যে সব অধরা সুন্দরী B-)
চমৎকার উপস্থাপনা । দারুণ লাগ ল ।
ভাল থাকুন জি এ৪স ভাই ।

২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৬ রাত ১০:৫৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: মাহমুদ০০৭ ,



আপনিও দেখি ঝট করে এইসব সুন্দরীদের মতো হঠাৎ করে উদয় হলেন ! :D এ্যাদ্দিন অধরা অবস্থায় কই ছিলেন ?

দেখে ভালো লাগলো । আরও ভালো লাগলো চমৎকার বলায় ।

আপনিও ভালো থাকুন আর এসব সুন্দরীদের থেকে ১০০ হাত দূরে থাকুন । :P

৪০| ০১ লা অক্টোবর, ২০১৬ বিকাল ৩:০০

বিলিয়ার রহমান বলেছেন: সুন্দর +দরকারী পোস্ট।


লেখাটির জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।

০১ লা অক্টোবর, ২০১৬ রাত ৮:২৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: বিলিয়ার রহমান ,



ভালোলাগলো আপনার মন্তব্যখানি ।
আর পোস্টটি দরকারী তো বটেই ।

সাথেই থাকুন । ভালো থাকুন ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.