নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ট্রুথ নেভার ডাই্‌জ

নিজের সম্পর্কে লেখার কিছু নেই । সাদামাটা ।

আহমেদ জী এস

পুরোপুরি একজন অতি সাধারন মানুষ । আমি যা আমি তাই ই । শয়তানও নই কিম্বা ফেরেশতা । একজন মানুষ আপনারই মতো দু'টো হাত, চোখ আর নিটোল একটা হৃদয় নিয়ে আপনারই মতো একজন মানুষ । প্রচন্ড রকমের রোমান্টিক আবার একই সাথে জঘন্য রকমের বাস্তববাদী...

আহমেদ জী এস › বিস্তারিত পোস্টঃ

ঢিল !

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১০:৩৬



--তা আপনি কোৎ করে বড়শিটা গিলে ফেললেন ?
--ধুর.....ভাইজান ! কোৎ করে গিলে ফেলবো কেন ? একটু খেলিয়ে না নিলে চলে ? ঐ যে দাবা খেলার মতো । আপনি কখনও দাবা খেলেছেন ? আড়াই লাফে ঘোড়ার চাল ! দিয়েছেন কখনও ?
--খেলার কথা আবার আসছে কেন ! বলছিলেন লোভনীয় একটা প্রস্তাবের কথা ....
--আরে সেটাই তো বলছি । খেলাটা তো ওখানেই ।এই যে দাবার যারা গ্রান্ড মাষ্টার, আমাদের নিয়াজ মোর্শেদের কথাই ধরুন , তারা কি সব অপনেন্ট চালই কপ করে গিলে ফেলে ? ফেলেনা । অনেক ভাবে, অপনেন্ট চালটাকে এ্যানালিসিস করে, তারপরে নিজের চালটা দেয় । তেমনি আমারও প্রস্তাবটা এলো । এ জাতীয় প্রস্তাব অনেক ধরনের হয় । ঠিক মতো না বুঝে ধরলে বোকামী হয়ে যাবেনা ? আর এলেই কি ধরতে হবে এমন কোনও কথা আছে ?
-- না তা নেই অবশ্য ।
--তাহলে আমিও প্রথমটাতে ধরিনি ।
-- ঈশশশশশ.... এমন একটা প্রস্তাব আপনি ধরেন নি ! আমার সাথেও কি আপনি ঐ....ঐ
দাবা খেলা শুরু করলেন ?
-- না ...না... আপনার সাথে খেলবো কেন ! খেলছি তো তার সাথে । বললো , দুজনে একান্তে একটা নিরিবিলি জায়গাতে বসে ....
-- আরে এটা একটা কথা হলো ! নিরিবিলি কতো জায়গা-ই তো আছে । তা গেলেন তেমন কোনও জায়গাতে ?
--কি যে বলেন ! নিরিবিলি জায়গাটা এই মেগা সিটিতে কই বলুন তো ? একটু একা একা নিরিবিলি কোথাও বসবেন তেমন জায়গা কি আছে কোথাও ? রাস্তা -মাঠ-ঘাট- উদ্যান-রেস্তোরা সবখানেই তো মানুষ গিজগিজ । নিরিবিলিতে একটু যে প্রস্রাব করবেন তারও উপায় নেই । তার উপর ময়লা আবর্জনা আর সে কি দূর্গন্ধ । আমার সবচেয়ে খারাপ লাগে ঐ প্রস্রাবের গন্ধটা ! আচ্ছা আপনি কখনও খোলা রাস্তার পাশে দেয়ালের দিকে মুখ করে হিসু করেছেন ?
-- ছি....ছি.... আমাকে কি ভেবেছেন আপনি !
-- না এমনি জানতে চাইছিলাম । আমি মাঝে মাঝে করি কিনা ! সেদিন হয়েছে কি জানেন , আমাদের এই পুরানো ঢাকা থেকে টঙ্গি যাবো একটা কাজে । হিসুর একটু বেগ থাকলেও গাজীপুর চৌরাস্তার বাসটা এসে পড়ায় ঝটপট উঠে পড়লুম বাসে । শিক্ষাভবনের পরে একটু গিয়ে বাস তো আর চলেনা, যা জ্যাম । শাহবাগের কাছে আসতেই তলপেট ফাইট্টা যায় যায় অবস্থা । মমতাজের ঐ গানটা শোনেন নি , বন্ধু আমার হাইট্টা যায় ................ বুকটা আমার ফাইট্টা যায়..... ? আমার ও সেই একই অবস্থা । তো ভিড় ঠেলেঠুলে নামলুম । তারপর তো বুঝতেই পারছেন । সর সর করে ঝেড়ে দিচ্ছি তো এক মহিলা পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় বিড়বিড় করে মনে হয় গালি দিলো একটা , বেআক্কল ।
-- আপনি একটা শিক্ষিত ছেলে হয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়ে হিসু করেন ? তাও আবার হেসে হেসে বলছেন আমাকে ?
--না আপনাকে সিচ্যুয়েশনটা বোঝাচ্ছি । কোনও কিছু অবশ্যম্ভাবী হলে সেটা ঘটতে দেয়াই উচিৎ নইলে বিতিক্চ্ছিরি একটা না একটা কেচাইন হয়ে যেতে পারে । আর শিক্ষিত বললেন ? শেখাটা আর হলো কই, ভাইজান ! তেমন শিক্ষিতও তো হওয়া হলোনা । ইচ্ছে তো ছিলো ডাক্তার -ইঞ্জিনীয়র -জজ- ব্যারিষ্টার হবো । আমার মায়ের স্বপ্নটাও ছিলো তাই । শুধু টেনেটুনে মাষ্টার্স অনার্স ডিগ্রীটা কোনও মতে সারলুম ।
-- কি বলেন ! পাড়ায় আপনার যা কদর । আমিতো ভাবলুম আপনি অনেক শিক্ষিত । চেহারাটাও তো সেই রকম, হিরো হিরো টাইপ । দশবারোটা টিউশানি করে বেড়ান । শুনেছি দুটো তিনটে ব্যাচেও নাকি পড়াতে হয় । কত্তো কত্তো ছাত্রছাত্রী আপনার । আপনার ছাত্রছাত্রীরা তো আপনার অনেক সুনাম করে । আমার কাজিন মেঘনাও তো আপনারই ছাত্রী । খুব প্রশংসা করে আপনার । তবে আমার নিজের বোন যমুনা একদম বদের হাড্ডি । আপনাকে কিন্তু সে একদম পছন্দ করে না । বলে, ধারে কাছে আর তেমন কোনও টিচার নেই বলে আপনার কাছে পড়তে যায় , নইলে ফুঃ..........
-- তা ছাত্রছাত্রীরা তো তাদের টিচারের সুনাম করবেই , এটাই তো স্বাভাবিক । কেউ কেউ তো আবার অন্যকিছুও বলে । বলে, আমি নাকি মেয়েদের মাথা খাচ্ছি ।
-- তা একটু তো ও রকমের গুজব ছড়াতেই পারে । তা আপনি কিন্তু ঐ আসল কথাটাতেই আসছেন না .....
-- কোন কথাটা ?
--ঐ যে কোন নিরিবিলিতে বসার প্রস্তাব ! আমি হলে তো কপ করে গিলে ফেলতুম প্রস্তাবটা ।
-- গিলে ফেলতেন ? কোন নিরিবিলিতে যেতেন আপনি ? এতোক্ষন যাবৎ একটাও তেমন জায়গার খবর দিতে পারলেন না । কেবল চন্দ্রিমা উদ্যান , বোটানিক্যাল গার্ডেন ঐসব সস্তা জায়গার কথা বললেন । আপনি হলে কি আপনার তাকে নিয়ে ওসব জায়গায় যেতেন ?
--কি যে বলেন ! ওসব জায়গায় কি তেমন কাউকে নিয়ে যাওয়া যায় ? যা বিশ্রী সব লোকজন ঘুরঘুর করতে থাকে চারপাশে ।
-- তা হলেই বুঝুন, এসব জায়গায় কি তাকে নিয়ে যাওয়া সাজে ? বড় লোকের মেয়ে । আমাকে কিনতে পারে দিনে দশবার । তাকে নিয়ে কি ওসব যায়গায় যাওয়া যায় ?
-- বড়লোকের মেয়ে ? আরে ব্রাদার, তবে তো আপনার হোটেল সোনারগাঁ, রেডিসন, লা-মেরিডিয়ানে যাওয়া উচিত ।
-- এইতো , আপনি আমার সমস্যাটাই বুঝতে চাইছেন না সেই তখন থেকে ! মহল্লায় টিউশানি করে খেতে হয়। মারা যাবার আগে জেলা জর্জকোর্টের কেরানী বাপ তো টাকার বস্তা রেখে যায়নি যে আমি আপনার ঐ রেডিসন, লা-মেরিডিয়ান করে বেড়াই ।
-- তা মেয়েটি দেখতে কেমন ? বড় লোকের মেয়েরা নাকি সুন্দরী হয় শুনেছি । তাদের আবার বায়নাক্কাও থাকে অনেক ।
-- এইতো পয়েন্টে এসেছেন এতোক্ষন পরে । বায়নাক্কার কথা তুললেন । আচ্ছা বলেন তো, ব্রান্ডেড খাবার দাবার বলতে আছে কি কোথাও ?
--ব্রান্ডেড খাবার ! ভাইজানের কি মাথা খারাপ হয়েছে ? ব্রান্ডেড জামা-কাপড়, জুতো -ঘড়ি-কলম এই রকম কিছু হয় শুনেছি কিন্তু.............
-- হুমমমম , শোনেন নি । ব্রান্ডেড খাবারও হয় । ম্যাকডোনাল্ড’স , পিজ্জা হাট, কেএফসি এসব নাম শোনেন নি ? কিন্তু তিনি খেতে চান খাস দেশী ব্রান্ডেড খাবার । এই যেমন মামার হালিম . ফখরুদ্দিনের আর হাজির বিরানী, মুসতাকিনের চাপ, বউ-জামাই চানাচুর। আপনি কি মামার হালিম খেয়েছেন কোনো দিন ?
---আমাদের বাসায় ওসব বাজে খাবার আসেই না । আমরাও বাইরে ওসব খাইনা ।
----- তাহলে বুঝুন, ঐ সব কি কোনও শখ করে খাওয়ার মতো খাবার হলো ? কিন্তু সেটা তাকে কে বোঝাবে ? ঐ যে সদরঘাটের মতি মিয়ার হালিমও নিশ্চয়ই কখনও খাননি । না কি খেয়েছেন ? খেলে বুঝতেন মামার হালিমও ওর কাছে নস্যি । মতির হালিমের সোয়াদ জিহ্বায় লেগে থাকবে ঝাড়া তিন দিন । অথচ মতি মিয়ার হালিমে ব্রান্ড সীল নেই । বললুম, মতির দোকানের মহিলা কেবিন যেমন নিরিবিলি তেমনি মতির হালিম হলো এক নম্বর । একবার খেলে তিন তিনে নয় দিন আমার কথা মনে করবে । এমন প্রস্তাব শুনে সে তো নাক সিঁটকে অস্থির....
---- তা নাক সিঁটকোবে না ? বড়লোকের মেয়ে আর আপনি কিনা তাকে সদরঘাটের কোন মতি মিয়ার হালিম খাওয়াতে চান । আপনাকে তো স্মার্ট ভেবেছিলুম কিন্তু আপনি দেখি গেঁয়োই রয়ে গেলেন ।
----- তা ঠিক বলেছেন । গ্রামের ছেলে তো, তাই এখন শহরে এসে একটু শহুরে হতে চেষ্টা করছি আর কি ! অতশত কি আর বুঝি ? এই আপনাদের মতোন ...............
--- আপনি কিন্তু কথা ঘোরাচ্ছেন ।
---আমি আবার কথা আর ঘোরালুম কই ? এসেছিলুম আপনার কাছ থেকে একটা সাজেশান নিতে অথচ আপনি ভালো কোনও একটা সাজেশান দিতে পারলেন না এখনও ।
----- কতোই তো দিলুম । কিন্তু আপনিই তো সবটা বাতিল করে দিলেন ! এটা হবেনা, ওটা হবেনা করে করে !
----আচ্ছা বাসে করে মাওয়া ফেরী ঘাটে যাওয়া যায়না ? ওখানে পদ্মার ব্যান্ডেড ইলিশ মাছ খাওয়া যাবে । আর একটা লং ড্রাইভও হয়ে যাবে ?
---- বলেছিনা আপনি এখনও গেঁয়োই রয়ে গেলেন ! তেমন কাউকে নিয়ে বাসে করে মাওয়া যাবেন ? যা রাস্তার শ্রী আর জ্যাম তাতে আপনার জীবনের হাওয়া ফুঁস হয়ে যাবে । মাওয়া যেতে কতোক্ষন লাগে জানেন ? এখান থেকে ঝাড়া দুই ঘন্টা । ঐ সময়ে ব্যাংকক-সিঙ্গাপুর করা যায় !
----আরে ভাইজান , ব্যাংকক-সিঙ্গাপুর যাবার পয়সা পকেটে থাকলে তো ওখানেই যেতাম । কি কপাল নিয়ে যে এসেছি !
---- তাহলে ....তাহলে ..... দাঁড়ান একটু ভেবে নেই । আপনাকে বলা যাবে কিনা জায়গাটার কথা ! অনেকেই ওখানে যায় শুনেছি । সিকিওরড জায়গা নাকি ......
--- কোন জায়গা ?
----- লিটনের ফ্লাট । আপনাদের মতো ছেলেমেয়ের জন্যে নাকি নিরাপদ জায়গা । অনেকেই নাকি ওখানে যায় শুনেছি ......
----ওয়াও ! এই তো .. এই এতোক্ষন পরে একটা জোস আইডিয়া দিলেন । আমিও শুনেছি । শুধু আপনার কাছ থেকে গ্রীন সিগন্যালটা পাওয়া বাকী ছিলো । আপনি চা টা শেষ করেন আমি যাই, যমুনার সাথে ডেট এ্যান্ড প্লেসটা ফাইনাল করে আসি ....................

মন্তব্য ১০৬ টি রেটিং +২২/-০

মন্তব্য (১০৬) মন্তব্য লিখুন

১| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১০:৫২

বিজন রয় বলেছেন: হুম!!

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:০৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: বিজন রয় ,





হুমমমমমমমম... অনেকদিন পরে আপনার দেখা মিললো ।
শুধু "হুম" বলে ছেড়ে দিলেন, "ধুম" করে কিছু বলে গেলেন না কেন ? :(

২| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১০:৫৩

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: গল্প অনেক ভাল লেগেছে ভাইয়া।

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:১০

আহমেদ জী এস বলেছেন: মোস্তফা সোহেল ,




ভালো লেগেছে জেনে অনেক ভালো লাগলো ।
ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা রইলো ।

৩| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:০১

রাজীব নুর বলেছেন: গল্পের প্লট দুর্বল।

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:২৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: রাজীব নুর ,





যথারীতি লেখায় চোখ বুলিয়েই করে যাওয়া মন্তব্য ।
এ গল্পে কোনও প্লট নেই । গল্পের বুনোটের দিকে খেয়াল করুন , তেমন কোনও কাহিনীও নেই এখানে । আবার সবটা মাথার ভেতরে নিলে অনেক কাহিনীই তৈরী হতে পারে ।

ধন্যবাদ গল্পটি দেখা ও মন্তব্যের জন্যে ।

৪| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:০৯

স্রাঞ্জি সে বলেছেন: খবর বুঝি ভাল

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:৪৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: স্রাঞ্জি সে ,




খবর ভালো না থাকলে তো ব্লগেই ঢোকা হতোনা ! ভালো বলেই তো আনন্দে একটি ঢিল ছুঁড়লুম । B:-/

ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্যে ।

৫| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:২২

মিথী_মারজান বলেছেন: চমৎকার স্যাটায়ার!
খুব সুন্দর করে লিখেছেন।:)

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:১০

আহমেদ জী এস বলেছেন: মিথী_মারজান ,




খুব সুন্দর করে করা আপনার এই মন্তব্যটিও চমৎকার ।

হাতে যে ক'টি ভারী লেখা আছে তা শেষ করতে অনেক পড়াশোনা করতে হয় । আলসেমী লাগছে বলে এই হালকা ধাঁচের লেখাটিই দিতে হলো, লেখার মাসিক কোটা পূরণ করার জন্যর । :-P

শুভেচ্ছান্তে ।

৬| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:৩৩

বিজন রয় বলেছেন: চলিলাম, আমি চলিলাম, ............ চম্পকনগরে, আমি যে পরিযায়ী "ধুম" তোলা নাগরীর ঝংকার!!


রাজীব নুরের আর জ্ঞান হলো না!!

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:৩৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: বিজন রয় ,





ওয়াও ....ঝংকার তুলে গেলো যেন মন্তব্যের লাইনটি , একটি কবিতা হয়ে !

মন্তব্যে +++

৭| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:৫৬

কানিজ রিনা বলেছেন: হা হা হা বিজন রয় হুম থেকে ধুম করে
আর একটি মন্তব্য দিয়েছেন। নিত্য অবলকন
যাহা সত্য তাহাই লিখেছেন বেশ সুন্দর।
অনেক ধন্যবাদ।

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১:৪৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: কানিজ রিনা ,



বিজন রয় না হয় হুম থেকে ধুম করে মন্তব্য একটি করে গেছেন কিন্তু আপনিও তো রিনরিন করে বলে গেলেন - যাহা সত্য তাহাই লিখেছেন বেশ সুন্দর !

অনেক ধন্যবাদ আপনাকেও আর সাথে শুভেচ্ছাও ।

৮| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:১৫

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: ওয়াও!! অবশেষে লিটনের.... । আমি কিন্তু দারুণ মজা পেয়েছি । হা হা হা। জী এস ভাই ++ দিলাম। লাইকও দিয়েছি।

শুভেচ্চা নিয়েন।

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৩৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: পদাতিক চৌধুরি ,



প্লাস আর লাইক দেয়ার জন্যে ধন্যবাদ ।
বেশ ক'দিন হলো কিছু লিখিনি । হাতে যে ক'টি ভারী লেখা আছে তা শেষ করতে অনেক পড়াশোনা করতে হয় । আলসেমী লাগছে বলে সেগুলোতে আর হাত দিইনি । লেখার মাসিক কোটা পূরণ করার জন্য এই হালকা ধাঁচের লেখাটিই দিতে হলো ঝটপট ।
শুভেচ্ছা রইলো আপনার জন্যেও ।

৯| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৮

ওমেরা বলেছেন: হায় হায় ভাইয়া করলেন কি লিটনের ফ্লাটের খবর তো সবাই জেনে গেল !! এখন বাংলাদেশের অলি গলি সব পাক পবিত্র হয়ে যাবে ।

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৮:০২

আহমেদ জী এস বলেছেন: ওমেরা




ফ্লাটের খবর তো সবাই জেনে গেল না , আমার আগেই জানে সবাই । এটা নাকি একটা ব্রান্ডেড প্লেস :P । আমি নিজেও জেনেছি এই ব্লগ থেকেই । আপনি দেশ থেকে দূরে থাকেন বলে এর নাম শোনেন নি ।
সুতরাং হায় হায় করার কিছু নেই ।

মন্তব্যে ধন্যবাদ ।

১০| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ২:৪৪

পাঠকের প্রতিক্রিয়া ! বলেছেন: অবজেকশন ইয়োর অনার, :P
পড়তে সমস্যা হচ্ছে। লেখার মধ্যে বিরাম চিহ্নের পূর্বে একটা অতিরিক্ত স্পেস ব্যবহার করা হয়েছে।X(
যেমনঃ (ওয়াও ! এই তো .. এই এতোক্ষন পরে একটা জোস আইডিয়া দিলেন । আমিও শুনেছি । শুধু আপনার কাছ থেকে গ্রীন সিগন্যালটা পাওয়া বাকী ছিলো ।)

ঠিক করে দিলুমঃ
ওয়াও! এই তো .. এই এতোক্ষন পরে একটা জোস আইডিয়া দিলেন। আমিও শুনেছি। শুধু আপনার কাছ থেকে গ্রীন সিগন্যালটা পাওয়া বাকী ছিলো।


জী ভাই,
গল্পটা ভালোই হয়েছে। যাই, আমিও যমুনার সাথে ডেট এ্যান্ড প্লেসটা ফাইনাল করে আসি ....................:P

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৮:৩৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: পাঠকের প্রতিক্রিয়া !



মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় সবিনয়ে জানাচ্ছি , ইয়োর অবজেকশান ইজ সাসটেইন্ড এ্যান্ড এ্যাট দ্য সেম টাইম অবজেকশান ইজ ডিনাইড ঠ্যু। B:-/

কারন , লেখার নিয়ম অনুযায়ী বিরাম চিহ্নের পরে জমি-জিরেত থাকার কথা নয় । যে কারনে ঐ জমি ডিঙিয়ে যেতে একটু থামতে হচ্ছে আপনাকে কিন্তু পড়তে সমস্যা হবার কথা নয় , চোখের সমস্যা হতে পারে, পাঞ্চুয়েশনের কল্যানে দৃষ্টিকটু লাগতে পারে । B-) তাই অবজেকশান সাসটেইন্ড এর রায় দিতে হলো ।
কিন্তু আমি যে এই ষ্টাইলেই সব লেখা লিখি ! বাক্যের গা ঘেসে ঘেসে ঠায় দাঁড়িয়ে থাকতে প্রানটা হাঁসফাঁস করে যে ! দম ফেলা যায়না ঠিক মতো মনে হয় । এই যেমন কাঠগড়ায় তুললেন, এখানে কি দম ফেলার জায়গা আছে ?
তাই দম ফেলতে একটু নিজস্ব ষ্টাইলে জমি-জিরেত ভোগ দখল করি আর কি .... :P তাই "অবজেকশান ইজ ডিনাইড" এটা না বলে উপায় নেই গোলাম হোসেন !

ঠিক করে দেয়ার জন্যে ধন্যবাদ তবে স্বভাব আমার যাবেনা মলে ! :#)

১১| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৩:২১

তৌফিক জোয়ার্দার বলেছেন: অনেক দিন পর, ভাইজান। ভালো লাগল। ফুরফুরে টাইপ লেখা।

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৮:৫৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: তৌফিক জোয়ার্দার ,




অনেক দিন পর আপনার মন্তব্য পেয়েও ভালো লাগলো ।
বেশ ক'দিন হলো কিছু লিখিনি । হাতে যে ক'টি ভারী লেখা আছে তা শেষ করতে অনেক পড়াশোনা করতে হয় । আলসেমী লাগছে বলে সেগুলোতে আর হাত দিইনি । লেখার মাসিক কোটা পূরণ করার জন্য এই ফুরফুরে লেখাটিই দিতে হলো ঝটপট ।

শুভেচ্ছান্তে ।

১২| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৩:২৬

শামছুল ইসলাম বলেছেন: অনেক কথা বলে গেলেন,
লিটনের ঘাড়ে চেপে ।
........
ব্যঙ্গ গুলো সূক্ষ্ণ ও চমৎকার হয়েছে ।

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:৪৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: শামছুল ইসলাম ,




আমি আবার লিটনের ঘাড়ে চাপলুম কবে ? আর কি কথাই বা বললুম ?
আপনিও কি আমার সাথে দাবা খেলা শুরু করলেন ? না কি পেঁজা পেঁজা মেঘের ভেতরে পাখির মতো লুকোচুরি ? :||

মন্তব্যে চমৎকৃত । শুভেচ্ছা জানবেন ।

১৩| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৯

অচেনা হৃদি বলেছেন: আহমেদ জী এস



ভালো হয়েছে গল্প । +
:)

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১০:০৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: অচেনা হৃদি ,



ভালো বলাতে ভালো লাগা ।

১৪| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৪:১৬

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: রাজীব নুর ,
যথারীতি লেখায় চোখ বুলিয়েই করে যাওয়া মন্তব্য ।
এ গল্পে কোনও প্লট নেই । গল্পের বুনোটের দিকে খেয়াল করুন , তেমন কোনও কাহিনীও নেই এখানে । আবার সবটা মাথার ভেতরে নিলে অনেক কাহিনীই তৈরী হতে পারে ।

ধন্যবাদ গল্পটি দেখা ও মন্তব্যের জন্যে ।


না পরে মন্তব্য করার অভ্যাস আমার নেই।
তবে অনেক লেখা মন দিয়ে পড়ি, অনেক লেখা মন দিয়ে পড়ি না।

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১০:১৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: রাজীব নুর ,




আবারও এসেছেন দেখে ধন্যবাদ ।
অনেক লেখা মন দিয়ে পড়েন না, এটা ঠিক নয় । লেখা পড়বেনই যখন তখন মন দিয়েই পড়া উচিৎ । নইলে মন্তব্য করবেন কি করে ? ব্যাটেবলে হবেনা যে তাতে !

১৫| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৫:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমাদের সমাজ অস্হিরতার মাঝ দিয়ে যাচ্ছে, মানসিকতার ধ্বস নেমেছে; এভাবে চলতে থাকলে, এটা বিশৃংখল, সংস্কৃতিহীন জাতিতে পরিণত হবে।

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১০:৪৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: চাঁদগাজী ,




আমাদের সমাজের অস্থিরতার বর্তমান হাল হকিকত অর্থাৎ প্রাত্যহিকতা হয়তো তুলে আনতে চেয়েছি এই লেখায় । আমাদের জীবনের এক একটি আলেখ্য মনে হয় এমন করেই ঘুরে ফিরে আসে কারো না কারো চিন্তা-চেতনা-কাজে-কর্মে । তারই একটি গাল্পিক রূপ ও বলতে পারেন লেখাটিকে ।

মন্তব্য বিবেকবানের মতো , ধন্যবাদ ।

১৬| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:০২

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: আপনিও কোর্ট দেখিয়ে দিলেন। #:-S !:#P

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১১:০৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: সেলিম আনোয়ার ,




কোন কোর্ট ? লোয়ার-হাই না সুপ্রীম কোর্ট ? :( :||

জোশ মন্তব্য ।

১৭| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪২

সে্‌নসেটিভ শিমুল বলেছেন: এত সুন্দর পরিবেশ কেন তারা ফ্ল্যাটে যাবে । তাদের কে চরে যেতে হবে। :D

২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১১:৪১

আহমেদ জী এস বলেছেন: সে্‌নসেটিভ শিমুল ,



তারা কেন ফ্লাটে যাবেনা ? তখন কি চর টরের কথা বলেছিলেন তাদের যে সেখানে যাবে ? :`>

আপনিও তো ভালো একটা নিরিবিলি জায়গা খুঁজে দিতে পারলেন না । আমাদের চরগুলো কি আর নিরিবিলি আছে ? যতো চর ছিলো সবই তো এখন মিনি সৈকত হয়ে গেছে ! আর সেখানে কি যে মানুষ আর মানুষ................. :P :-*

১৮| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫১

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:


১৪ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা। ক্লিন শেভ, গোসল শেষে করে নতুন কেনা পাঞ্জাবি পরলেন জিসান সরকার (জিএস)B:-)। সঙ্গে বউয়ের খালার লন্ডন থেকে আনা পারফিউম মেখে বের হলেন; তবে কারো সঙ্গে যেন না দেখা হয় এজন্য অন্য রাস্তা দিয়ে শহরের দিকে রওনা হলেন তিনি।

৯টা ৩০ মিনিট। অনেকবার মোবাইলের রিংটোন বেজেছে রিসিভ করেননি। তন্ময়ের কল কয়েকবার মিসড কলে পরিণত হওয়ার পর রিসিভ করলেন।

— হ্যালো, কই তুই?

খুব মৃদু স্বরে বললেন, দোস্ত আমি বিশেষ কাজে শহরে আছি।

— শহরে মানে, কোথায়?

— দোস্ত, ইয়ে.... মানে.... লিটনের ফ্ল্যাটে। গুরুত্বপূর্ণ মিটিংয়ে আছি।

— তুই লিটনের ফ্ল্যাটে মানে? সবাইকে খেলার কথা বলে শালা তুই নিজে গেছিস আকাম করতে?

— দোস্ত, তোর সঙ্গে পরে কথা হবে। আর তুই ওইদিকটা একটু ম্যানেজ করে নিস।

বলে কল কেটে ফোন বন্ধ করে দিলেন জিএস সাহেব :-B

তারপরের ঘটনা তো ইতিহাস হয়ে গেল। বিকেলে এলাকায় পৌঁছানোর আগেই এলাকায় মুখে মুখে রটে গেছে জিসান সরকার লিটনের ফ্ল্যাটে গেছেন। সন্ধ্যায় তাদের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হলো। তাদেরকে অনেক করে বোঝানোর চেষ্টা করলেন;

এই লিটন হেই লিটন নয়........... :-B, আপনেরা ভুল বুইজেন না;

এই লিটন প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক, লেখক লিটন আব্বাস। তার বাসায় গিয়েছিলাম বইমেলা উপলক্ষে তার নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে!!!

জিসান সরকার হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন; ইউনিভার্সিটি লাইফে মাঝে মাঝে লিটনের ফ্লাটে গলেও এখন এই বয়সে, আর হয় না; বন্ধুরা হয়তো আগের ঘটনাগুলো মনে রেখেছে..... :-B B:-)

গল্পে ভাল লাগা রইলো B-)

২৬ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:০৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: কাওসার চৌধুরী ,




ওয়াও ... আপনার ঢিল ছোঁড়াটাও জোশ হয়েছে । আমার গল্পে এটি আর একটি অধ্যায় যোগ করে গেলো ।
তা হলে বুঝতে হয় , এমন ঘটনা আপনাদের জীবনেও ঘটে !!!!!! B-)

তা "জীএস" শব্দটাতে বউয়ের খালার লন্ডন থেকে আনা পারফিউম মাখিয়ে একটু সুগন্ধী করে " গ্রেট সোল " বলতে পারতেন না ? লেখককে এই রকম " কাওসার" দান করতে এতো কেপ্পন হলেন কেন ? :-P

দারুন একটি মন্তব্য । মন্তব্যে প্লাস ।

১৯| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৮:০২

বাকপ্রবাস বলেছেন: জাষ্ট সুপার B-)

২৬ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:৪২

আহমেদ জী এস বলেছেন: বাকপ্রবাস ,




থ্যাংকস । :|

২০| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৮:০৫

নীলপরি বলেছেন: দারুণ লিখেছেন । তীক্ষ্ণ ব্যঙ্গ । ++

শুভকামনা

২৬ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:৫২

আহমেদ জী এস বলেছেন: নীলপরি ,




শুধু ব্যঙ্গই নয় , প্রতিদিনকার ছবিগুলোর অনেকটাই তুলে ধরার চেষ্টা ছিলো এতে ।

প্লাস দেয়াতে ধন্যবাদ ।
শুভকামনা আপনার জন্যেও ।

২১| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১০:৪৯

পাঠকের প্রতিক্রিয়া ! বলেছেন: @ঠিক করে দেয়ার জন্যে ধন্যবাদ তবে স্বভাব আমার যাবেনা মলে!
.. ওকে! আমিও অবজেকশন দিয়েই যাব..:D

২৬ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:২৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: পাঠকের প্রতিক্রিয়া !




‌এমন মন্তব্যে লেখকের প্রতিক্রিয়া এই --------
আপনাকে এরকম করে বারবার অবজেকশান তুলে আদালতের মূল্যবান সময় কিছুতেই নষ্ট করতে দেয়া হবেনা । ;)

এটা বিচার প্রক্রিয়াকে বিলম্বিত করার একটি কূঁটচাল । আদালত আপনাকে সতর্ক করে দিচ্ছে এই বলে যে , এভাবে ভবিষ্যতে বারবার অবজেকশান তুলে আদালতের সুষ্ঠ কার্যপ্রনালীতে বিঘ্ন সৃষ্টি করলে আপনাকে কোর্ট কাচারীর চৌদ্দ সীমানায় ঢুকতে দেয়া হবেনাআআআআআআআআআআআআআ.... :P :)

২২| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১০:৫৬

সোহানী বলেছেন: শেষ পর্যন্ত লিটনের ফ্লাটে..............হাহাহাহাহাহা

যথারীতি নিজ গুনে হাজির হলেন!!!! কথোপকথন স্টাইলে, সুক্ষ্ণ ব্যঙ্গাত্বকভাবে বাস্তবতা ফুটিয়ে তুলেছেন। যে বোঝার সে ঠিকই বুঝে যাবে স্যাটোয়ারধর্মী এ লিখায় মহামান্য জী এস কি বোঝাতে চেয়েছেন... :P

যাক্ কোটা পূর্ণ হলেও আমরা একটি অসাধারন লিখাই পেলাম যথারীতি। সবার মন্তব্যে সুপার লাইক তবে গাজি ভাই বাস্তবতা তুলে ধরেছেন। রাজীব নুর আপনার অন্য লিখা হয়তো পড়েনি বলে লেখক জী এস কে বুঝতে পারেনি। লেখক জী এস কে বুঝতে হলে সময় লাগে ;)

২৭ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:২১

আহমেদ জী এস বলেছেন: সোহানী ,



মাস যায় যায় , লেখা হয়নি । তাই মাসিক কোটা পুরণের জন্যে এটা দেয়া ।
গল্পের আসল মজাটা ধরতে পেরেছেন সহ ব্লগার ভুয়া মফিজ । মাছ শিকারী বড়শীতে যেভাবে মাছকে খেলায়, লেখকও পাঠকদেরকে সেভাবে খেলাতে চেয়েছেন । গল্পের মজাটা এখানেই --- আসল প্রসঙ্গ এড়িয়ে এড়িয়ে একথা সেকথায় পাঠককে এ গলি সে গলিতে ঘুরিয়ে আনা আর কি ! অবশ্য ,এ কথা সে কথার ভেতর দিয়ে নাগরিক জীবনের কিছু সত্য তুলে ধরার প্রয়াসও আছে ।

আর লেখক "জী এস" সম্পর্কে যা বললেন তা আপনার মহানুভবতা । লেখকের প্রতি তা আপনার শ্রদ্ধাবোধ ।
অনেক অনেক শুভেচ্ছা । ভালো থাকুন ।

২৩| ২৫ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১১:০২

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: রাজীব নুর ,

আবারও এসেছেন দেখে ধন্যবাদ ।
অনেক লেখা মন দিয়ে পড়েন না, এটা ঠিক নয় । লেখা পড়বেনই যখন তখন মন দিয়েই পড়া উচিৎ । নইলে মন্তব্য করবেন কি করে ? ব্যাটেবলে হবেনা যে তাতে !

ধন্যবাদ। ভালো থাকুন।

২৭ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:৩৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: রাজীব নুর ,



ধন্যবাদ ।


২৪| ২৬ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৩:২৮

চঞ্চল হরিণী বলেছেন: আপনাকে চেনার অনেক আগেই টিভিতে ব্র্যান্ডেড আহমেদ প্রোডাক্টস এর একটা এড দেখতাম। আহমেদ টম্যাটো কেচাপ, আহমেদ টম্যাটো সস আরও অনেক কিছু। আহমেদ সয়া সস আমার খুব পছন্দ ছিল ;)। এখন এই লেখা পড়ার পর মনে হচ্ছে, আহমেদ টম্যাটো সস কিনে লিটনের ফ্ল্যাটে গিয়ে বসে বসে আমিষ খাই, আর দেখি পদ্মা-মেঘনা-যমুনা কোনোদিক দিয়ে আসে B-))

২৭ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:২১

আহমেদ জী এস বলেছেন: চঞ্চল হরিণী ,



হ্যা ... একসময় টিভিতে এই বিজ্ঞাপনটা চলতো । এখনও হঠাৎ হঠাৎ দেখা যায় হয়তো । বেশ চালু প্রোডাক্ট ছিলো "আহমেদ" এর ।
তবে "আহমেদ জী এস" প্রোডাক্ট দেখে যে আপনিও লিটনের ফ্লাটে গিয়ে উঠবেন বলে মনোবাসনা প্রকাশ করে ফেলবেন জানলে এই প্রোডাক্ট কিছুতেই বাজারেই ছাড়তুম না , ছেলেমেয়ে নষ্ট করা প্রোডাক্ট :( ;) :P

পদ্মা-মেঘনা-যমুনা নদীরা যেদিকে যাওয়ার সেদিকেই যায় কেবল কপোতাক্ষ নদ ঘুরে ঘুরে মরে ! B:-)

পড়ে বেশ মজা পেয়েছেন বোঝা গেলো । আসলে গল্পটার বুনোটটাই এমন যে, আসল প্রসঙ্গ এড়িয়ে এড়িয়ে একথা সেকথায় পাঠককে এ গলি সে গলিতে ঘুরিয়ে আনা । অবশ্য ,এ কথা সে কথার ভেতর দিয়ে নাগরিক জীবনের কিছু সত্য তুলে ধরার প্রয়াসও আছে ।
মন্তব্যের আন্তরিকতা ভালো লাগলো । শুভেচ্ছান্তে ।

২৫| ২৬ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ৮:৪৪

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: টি টুয়েন্টি যখন হট আইটেম, ৫ দিনের ট্যাষ্ট ম্যাচে সাকিবরাও আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে ;)

ব্রান্ডেড জীবন বোধ আমাদের দাড় করিয়ে দিচ্ছে এমন সত্যে-যেখান থেকে
কেউ ফিরতে চাইছে না। ইচ্ছায় বা অনিচ্ছায়।
শেকড় হারালে কি এমনই হয়?

ভাল লাগা অফুরনা ।
মন্তব্য প্রতিমন্তব্যেও প্রাণময়তা ছুঁয়ে গেল ।
+++

২৭ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: বিদ্রোহী ভৃগু ,



শেকড় হারিয়েছি আমরা অনেক আগেই । এখন আমরা নব্য আধুনিকতার পাউডার গায়ে মাখাচ্ছি আর তাতে যে সুগন্ধ বেরুচ্ছে
তারই খানিকটা ছবি আঁকতে চেষ্ট করেছি এখানে । জীবন যন্ত্রনার কথাও আছে ।

চমৎকার মন্তব্যে ভালোলাগা রইলো ।

শুভেচ্ছান্তে ।

২৬| ২৬ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:০৪

জুন বলেছেন: দৌড়ের উপর আছি ---তারপরও মৌচাকে ঢিল মেরে গেলাম । আসছি সময় নিয়ে :)
+

২৭ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১:১৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: জুন ,



ঢিল ছুঁড়ে গেলেন, এখন মৌমাছিরা তো মৌচাকটি ছেড়ে উড়ে উড়ে ফুলে ফুলে মধু খেয়ে বেড়াবে । তাদের মধু খাওয়ার সুযোগ করে দেয়াতে সাধুবাদ । :(

২৭| ২৬ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:১০

সুমন কর বলেছেন: হাহাহাহা...........ভিন্ন রকম উপস্থাপন। অনেক কিছুই তুলে ধরেছেন। হয়ত, সবাই ধরতে পারেনি।

আর মতি মিয়ার হালিম খাওয়া হয়নি !! আপনি খেয়েছেন?

২৭ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১:৫৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: সুমন কর ,




আপনিই প্রথমে ধরতে পেরেছেন যে , লেখক পাঠকদেরকে মূল প্রসঙ্গে না নিয়ে এ গলি সে গলি ঘুরিয়েছেন । ধন্যবাদ ।

মতি মিয়ার হালিম খেয়ে তার নাম তিন তিনে নয়বার মনে পড়েছে বলেই তো তাকে গল্পে টেনে আনলুম । ;)

২৮| ২৬ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:২১

শামছুল ইসলাম বলেছেন: ঢিলটা জায়গা মতো পড়েছে ।
অনেক মজার মজার মন্তব্য ও তার মজার প্রতিউত্তর পড়ে বেশ মজাই লাগছে ।

অবশ্য গাজী ভাই একটু ভারী (সত্য) মন্তব্য করে ফেলেছে । অবশ্য তাতে পোস্টের মজাটা কিছুমাত্র কমেনি ।

২৭ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ২:১৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: শামছুল ইসলাম ,



হা...হা...... ধরতে পেরেছেন যে ঢিলটা জায়গামতো লেগেছে ? ব্যথা পাবার কথা নয় , এ হলো ভালোলাগার ঢিল ।

আবারও ফিরে এসে বলে যাবার জন্যে ধন্যবাদ ।

২৯| ২৬ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ২:২০

আখেনাটেন বলেছেন: হা হা হা; ছোট্ট লেখায় অনেক কিছুই তুলে ধরেছেন।

আসলে আমরা একটা ঘোরের মধ্যে রয়েছি। কি করছি কীভাবে চলছি কি খাচ্ছি কি পরছি কি পড়ছি সব গুবলেট হয়ে যাচ্ছে।

২৭ শে জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৪৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: আখেনাটেন,




ঠিকই বলেছেন , আমরা এক একজন মিশরের পিরামিডের মতোই আমাদের প্রাত্যহিকতার ভেতরে কতো যে রহস্য লুকিয়ে রেখেছি ! গল্পটি পাঠকদেরকে মূল প্রসঙ্গে না নিয়ে এ গলি সে গলি ঘুরিয়ে সেগুলোই তাদের সামনে তুলে ধরেছে মাত্র ।

ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্যে ।


৩০| ২৬ শে জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৪

করুণাধারা বলেছেন: আগে লাইকটা দিয়ে দিলাম, কারণ গল্পটা ভালো লেগেছে।

অতি সাধারণ কথোপকথন, কিন্তু তবুও কি হয় কি হয় করতে করতে পুরোটা পড়ে ফেললাম। আর শেষটা পড়ে মাথায় ঢিলের বাড়ি খেলাম- এই অমার্জিত ছোকরা কিনা শেষ পর্যন্ত হয়ে গেল আপন বোন যমুনার প্রেমিক!!

সমাপ্তিটা দারুন! অতি ছোট গল্প, ১০০ শব্দের অনুগল্পের এমন শেষ বাক্যে এসে টুইস্ট থাকে। গল্পটি পড়ে অনুগল্প পড়ার অনুভূতি পেলাম।

২৭ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৮:১৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: করুণাধারা ,



"অতি সাধারণ কথোপকথন, কিন্তু তবুও কি হয় কি হয় করতে করতে পুরোটা পড়ে ফেললাম।"
আসলেই গল্পের ইট-পাথর সে ভাবেই গাঁথা হয়েছে যাতে পাঠক আপনার মতোই ভাবতে বসেন - কি হয়.. কি হয় ...।

অনেক ভালো লাগলো এমন সুন্দর করে করা মন্তব্যটি ।

৩১| ২৬ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:৩৫

কথাকথিকেথিকথন বলেছেন:





হা হা! শেষে এসে লিটনের ফ্ল্যাট! শিক্ষক চরিত্রের এমন আলাপ দেশের জন্য অশনি সংকেত।

২৭ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৮:২৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: কথাকথিকেথিকথন ,




হা...হা... সে উদাহরণও তো বাস্তবে আছে অনেক ! :||

তবে শিক্ষক কি মানুষ নয় ? ;)

৩২| ২৭ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১২:৪২

ভুয়া মফিজ বলেছেন: মাছ শিকারী বরশীতে যেভাবে মাছকে খেলায়, আপনিও পাঠকদেরকে সেভাবে খেলালেন দেখছি!!! ;)

চমৎকার শুরু, মাঝের সাসপেন্স আর শেষের চমক.......সবমিলিয়ে এককথায়.....দারুনস।
লিটনের ফ্ল্যাট তাহলে এখন ব্র্যান্ডেড ডেটিং স্পট! =p~

পড়ে অনেক মজা পেলুম!

২৭ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১০:০৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: ভুয়া মফিজ ,




একমাত্র আপনিই গল্পের বুনটটি ঠিকঠাক বুঝতে পেরেছেন । ব্রাভো !
বড়শীর কথা লিখেছেন । ভুয়া নয় সত্যি বলছি, এই "বড়শী" নামটিই গল্পে দিতে চেয়েছিলুম একবারে প্রথমে কিন্তু কি মনে করে যেন " ঢিল" নামটাই বেছে নিলুম !

"লিটনের ফ্ল্যাট তাহলে এখন ব্র্যান্ডেড ডেটিং স্পট !" - না । এটা ব্রান্ডেড হয়ে যেতে অনেক আগেই দেখেছি ব্লগে।

মন্তব্যে +++

৩৩| ২৭ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১২:৫৬

এখওয়ানআখী বলেছেন: এমন একটা লেখায় এতোগুলো কমেন্ট! ব্যক্তি আহমেদ জী এস হয়তো অনেক কিছু! হয়তো এটাই ব্লগিং

২৮ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:১২

আহমেদ জী এস বলেছেন: এখওয়ানআখী ,




লেখাটি একটি গল্প তবে আলাদা চরিত্রের । পাঠককে এক প্রসঙ্গ থেকে ঝট করে আরেক প্রসঙ্গে নিয়ে যাওয়া । এটা যে কেমন একটা লেখা তা ব্লগার ভুয়া মফিজ আর ডঃ এম এ আলীর মন্তব্য দু'টি থেকেই বুঝতে পারবেন ।

আর ব্যক্তি আহমেদ জী এস কিছুই নয় । ব্লগ একটি মিথস্ক্রিয়ার জায়গা । সে জায়গা থেকেই হয়তো এতোগুলো মন্তব্য এসেছে । যেমন আসে অনেক ব্লগারের লেখাতেই ।

সম্ভবত আপনি আমার ঘরে এই প্রথম এলেন । স্বাগতম ।
মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ । শুভেচ্ছান্তে ।

৩৪| ২৭ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ২:২৫

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: গল্পটি পাঠে মনে পড়ে যায় সৈয়দ শামসুল হক তাঁর ‘শ্রেষ্ঠ উপন্যাস’ খেলারাম খেলে যা গ্রন্থের ভূমিকায় ‘খেলারাম খেলে যা’-কে ‘এদেশের সবচেয়ে ভুল বোঝা উপন্যাস’ হিসেবে অভিহিত করে লিখেছিলেন –
‘রচনার প্রায় কুড়ি বছর পরও এর জন্যে আমাকে আমার অন্যান্য রচনার চেয়ে অনেক বেশি জবাবদিহি করতে হয়।… আমি খুব কম পাঠককে জানি, যিনি উপন্যাসের একেবারে শেষ বাক্যটি লক্ষ্য করেছেন। আমার বিশ্বাস, এই শেষ বাক্যটিতে দাঁড়িয়ে কেউ এ উপন্যাসের জন্যে আমাকে তিরস্কার করতে পারবেন না। ’ঠিক তেমনিভাবে এই সুপাঠ্য গল্পটির সবটুকু মায় মন্তব্যসহ পাঠ করে মনে হলো এ গল্পটি মনযোগ দিয়ে শেষ বাক্যটি পর্যন্ত পাঠ না করলে এর অন্তরনিহিত মুল ভাবটি বুঝা বেশ কষ্টকর হবে । ডিল টা মনে ঠিক কাজটিই করবে , বুঝা যাবে গল্পের বুঝদার পাঠকের প্রতিক্রিয়াগুলি কি কি ,বুঝা যাবে ডিলটা কোন জাযগায় কেমন করে লেগেছে । ধন্যবাদ সুন্দর একটি গল্পাংশ আমাদের সন্মুখে উপস্থাপন করার জন্য । ছোট এই গল্পাংশটুকু নিয়ে অনেক কথাই বলার ছিল সময় অভাবে আজ আর পারলামনা । তবে শুভেচ্ছার সাথে আপনার নিকট হতে এমনতর আরো সুন্দর সুন্দর চোঙ্গা গল্প পাবার কামনা থাকল ।

২৮ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:৪২

আহমেদ জী এস বলেছেন: ডঃ এম এ আলী ,



এমন মন্তব্যের জন্যে অজস্র ধন্যবাদ । তবে গল্পটির শেষ লাইন পর্যন্ত মনযোগ দিয়ে না পড়লে মূল রসটুকু বুঝে উঠতে পারবেননা অনেক পাঠকই । আপনিও এমনটা বলেছেন । পুরো গল্প জুড়ে পাঠককে এক প্রসঙ্গ থেকে ঝট করে আরেক প্রসঙ্গে নিয়ে যাওয়ার ভেতর দিয়ে আমাদের দৈনিন্দিকতার কিছু খন্ডিত ছবি ধরার প্রয়াস রয়েছে । যা যথার্থই অনুধাবন করতে পেরেছেন আপনি ।

গোছানো এবং বিশ্লেষণ ধর্মী এই মন্তব্যে প্লাস +++
নিরন্তর শুভেচ্ছা আপনার জন্যেও ।

৩৫| ২৮ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১২:০৬

চঞ্চল হরিণী বলেছেন: আপনার ঢিলটা একদম পরিষ্কারই বুঝেছি, আহমেদ জী এস ভাই। এবং জানতাম যারা শেষ পর্যন্ত পড়বে তাঁরা সবাইই বুঝবে । তাই ইচ্ছে করেই লিটনের ফ্ল্যাটে গিয়ে ‘আমিষ’ খাওয়ার রসিকতাময় মন্তব্য করেছি। কি নেই এই কথোপকথনে । ব্র্যান্ডেড প্রডাকশনের দৌড়াত্মে নিজস্ব রুচিবোধের স্বকীয়তা হারিয়ে যাওয়া, পুঁজিবাদী ব্যবসায়ীদের নীতিহীন প্রচারণায় তীব্র প্রভাবিত হয়ে আধুনিকতার ট্রেন্ড ভেবে অনুকরণ করে যাওয়া আর দেশীয় ঐতিহ্য ইলিশ মাছকে গেঁয়ো ভাবা, আবার যতটা নয় শিক্ষিত তার অধিক মেকি হিরোভাবে থাকা, নিজের সীমা জানা সত্ত্বেও ধনী মেয়ের দিকে লোলুপ দৃষ্টি, রাস্তাঘাটের অবস্থা, পদ্মার পাড়ের মত মনোরম প্রাকৃতিক জায়গাকে মুখোশ আধুনিকতায় অবহেলার ধাক্কা দেয়া আর সবশেষে লিটনের ফ্ল্যাটের মত একটা কামজর্জর স্থানের ইঙ্গিত। যেখানে স্থানের সন্ধানদাতা নিজেই জানে না, সে আরেকজনকে যে পথ দেখালো সে পথে তার নিজের আপনজনই ভিক্টিম হতে যাচ্ছে। মোটকথা কোন নীতি নৈতিকতার এবং চিন্তা ভাবনার স্বচ্ছতার ধারে কাছেই কেউ নেই। এসব তো ভয়ঙ্কর ক্যান্সার রোগের মতই সমাজে ছড়িয়ে যাচ্ছে। সমাধানের সামান্য আলোকও অনেক বিস্তৃত আলোচনার অবকাশ নেবে। তাই অমন পদ্মা-মেঘনা-যমুনাদের পাহারা দেবার কথা বলে কেটে পড়েছিলাম। কপোতাক্ষ নদের কথা পরে অন্যসময় আলাপ করবো ;)

২৯ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ৯:৩১

আহমেদ জী এস বলেছেন: চঞ্চল হরিণী ,





ছোঁড়া ঢিলটি কিন্তু পাথরের ছিলোনা , ছিলো ফুলের । তাই ব্যথা লাগার কথা নয় । ;)

হ্যা , ঠিকই ধরেছেন, অনেক কিছুই আছে কথোপকথনে । মোদ্দা কথা, আমাদের চারপাশের একটা অস্থির সময়ের চলমান ছবিই্ তুলে ধরতে চেয়েছি ঠিক যেমনটি আপনি বলেছেন । এগুলোই আমাদের চিন্তা-মননে খেলে যায় সারাক্ষন কারন সময় ও জীবন
এখন ভুগছে নষ্টতার জ্বরে ।

এমন সুন্দর বিশ্লেষণে ভরা মন্তব্য পেলে লিখেও সুখ ।

মন্তব্যে প্লাস ।
শুভেচ্ছান্তে ।

৩৬| ২৮ শে জুলাই, ২০১৮ ভোর ৫:৪৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: লেখা‌টি সাবলীল। প‌ড়ে আরাম পেলাম।

২৯ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ৯:৪৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন ,





ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্যে ।
ইয়ে আরাম কি মামলা হ্যায় ................. :D :)

৩৭| ২৮ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ২:১৩

নুরুন নাহার লিলিয়ান বলেছেন: ভাল লাগা রেখে গেলাম ভাইয়া ।

২৯ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ৯:৫৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: নুরুন নাহার লিলিয়ান ,




"ভাল লাগা"টুকু বুঝে পেয়েছি । ধন্যবাদ ।

৩৮| ২৮ শে জুলাই, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:২৯

কথাকথিকেথিকথন বলেছেন:




শিক্ষক মানুষদের এমন হওয়া কী চলে ! যারা মনস্তাত্ত্বিক সৌন্দর্য্যের মানুষ গড়ে !!

৩০ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:৫১

আহমেদ জী এস বলেছেন: কথাকথিকেথিকথন ,




আবারও এসে মন্তব্য করেছেন , ধন্যবাদ কিন্তু পুরোপুরি সায় দেয়া গেলোনা !
কবিতা লিখলেই কি কঠিন বাস্তবে বাস করা হয়ে ওঠেনা ? এই গল্পটি কিন্তু বাস্তবেরই ছবি ।

শিক্ষক মানুষদের এমন হওয়া যে চলে এবং সামনেও চলবে ( না চললেই ভালো ) , এই সরল সত্যটি দিব্যি ভুলে বসে আছেন ?
মনস্তাত্ত্বিক সৌন্দর্য্যের মানুষ গড়ার কারিগর একসময় হয়তো ছিলো, আজ তার দেখা মেলা ভার !

৩৯| ২৯ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ১:৩৯

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: খুব মজা করে কৌতূহল মনে পুষে পুরোটা পড়ে শেষ করলাম একটানে, কি আকর্ষণ আপনার লিখনিতে! ঠিক কথাসাহিত্যিক যেভাবে রসবোধ করে লিখে থাকেন, সেরকম।
কি যেন আক্ষেপ বুঝাতে চেয়েছেন, ঠিক বুঝে উঠতে পারছিনা। আসলে লিটনের ফ্ল্যাট সম্পর্কেই আমি এখনো অজ্ঞ, কেবল লোক মুখে শুনেছি, এখনো বিস্তর জানা হয়নি লিটনের ফ্ল্যাট সম্পর্কে।

৩০ শে জুলাই, ২০১৮ দুপুর ১২:৩৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন ,





আমাদের চারপাশের একটা অস্থির সময়ের চলমান ছবিই্ তুলে ধরতে চেয়েছি গল্পটিতে। এমনটাই আমাদের চিন্তা-মননে খেলে যায় সারাক্ষন কারন সময় ও জীবন এখন ভুগছে নষ্টতার জ্বরে ।
আর লিটনের ফ্ল্যাট সম্পর্কে না জানাই ভালো । ওটা নাকি একটি কুখ্যাত "কাপল ডেটিং প্লেস" । আমিও ব্লগের লেখা থেকে জেনেছি আর সেটা সুযোগ বুঝে প্রাসঙ্গিক ভাবে এই গল্পে জুড়ে দিয়েছি ।

৪০| ২৯ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ১১:৩৪

জাহিদ অনিক বলেছেন:

মানুষ যে একটু মন খুলে প্রেম করবে তারও জো নেই। এই মহানগরে কোথাও কোন নিরিবিলি স্থান নাই। সব যায়গায় খাই খাই - হাউকাউ। পার্কে আছে ফটকাবাজ ছেলেপেলে।
লোকজন চুমু পর্যন্ত খেতে পারে না। খাবে টা কি ?

৩১ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:৫৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: জাহিদ অনিক ,



অনেক সহব্লগারদের মনের কথাটিই মনে হয় বলে দিলেন নইলে আপনার এই মন্তব্যে আমি বাদে ৩টি ভালো লাগা পড়বে কেন ? :( তাই বুঝতেই পারছেন, আপনাদের দিকে চেয়েই এই লেখাটি লেখা !!!!!!! ;)

ঠাঁই নাই ঠাঁই নাই ছোট যে মহানগরের তরী ,
ফটকাবাজ ছেলেপেলেতে তা গিয়েছে তো ভরি ! :P



৪১| ৩১ শে জুলাই, ২০১৮ সকাল ৯:৫৮

খায়রুল আহসান বলেছেন: নগর জীবনের বিভিন্ন প্রসঙ্গ উঠে এসেছে এ লেখায়। মন্তব্যের সংখ্যা আর বক্তব্য দেখে মনে হচ্ছে, ঢিলটা জায়গামতই পড়েছে।
লেখায় সবাই সর্বজনগ্রাহ্যভাবে ব্যঙ্গ ফুটিয়ে তুলতে পারেনা; আপনি পেরেছেন।
অনেকগুলো মন্তব্য/প্রতিমন্তব্য ভাল লেগেছে। তবে চঞ্চল হরিণী এর দুটো মন্তব্যই বেশী ভাল লেগেছে।

১১ ই আগস্ট, ২০১৮ সকাল ১০:১৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: খায়রুল আহসান,




প্রতিমন্তব্য করতে খুব বেশি দেরী করে ফেলাতে দুঃখিত ।
আসলে আমাদের চারপাশের একটা অস্থির সময়ের চলমান ছবিই্ তুলে ধরতে চেয়েছি গল্পটিতে যেমনটা আপনি বলেছেন --"-নগর জীবনের বিভিন্ন প্রসঙ্গ উঠে এসেছে এ লেখায়"।
পুরো গল্প জুড়ে পাঠককে এক প্রসঙ্গ থেকে ঝট করে আরেক প্রসঙ্গে নিয়ে যাওয়াটাই লেখাটির ষ্টাইল । বড়শী গেলা মাছকে যেমন খেলিয়ে খেলিয়ে ডাঙায় তুলতে হয় , তেমনই আর কি !

ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানবেন ।


৪২| ৩১ শে জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:৩৩

উম্মে সায়মা বলেছেন: এই লিটন ভাইজানটা কে সেটা জানতে মন চায় আমার :P

আর এ খবর জানানোর জন্য তো আমাদের টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পর্যন্ত ঘুরিয়ে আনলেন আহমেদ জী এস ভাই #:-S

১১ ই আগস্ট, ২০১৮ সকাল ১১:৩১

আহমেদ জী এস বলেছেন: উম্মে সায়মা ,




দুঃখিত , খুব দেরী করে ফেলেছি প্রতিমন্তব্য করতে ।
হা....হা...হা...টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পর্যন্ত ঘুরে আসলেন বিনে পয়সায় । ;) তা আপনি কি মুফতে বা বিনে পয়সায় বাদাম-টাদাম খেয়েছেন কখনও ? এই যেমন, বাদামওয়ালার কাছ থেকে ৪/৫টা বাদাম নিয়ে খোসা ভেঙে বাদাম খেয়ে পরে থুঃ...থুঃ করে বলেছেন , এই ব্যাটা তোমার বাদাম তো পঁচা, নাহ.... কেনা যাবেনা ? আমি শয়তানীর বয়সকালে অমন কতো করেছি !
:P । এখন আবার বলে বসবেন না যেন , "শয়তানীর বয়সকাল" আবার কি জিনিষ ! :( শয়তানীর বয়সকাল হলো, ঐযে ; যেদিন ঠ্যা...ফো করতে করতে জগৎ আলো করে এই ধরাধামে এলেন তার পর থেকে কয়েকটা "ফুলপরী" বছর পার করে যে বয়সে পড়লেন সেটাই হলো "শয়তানীর বয়সকাল" । তখন স্বয়ং শয়তানও পেরে উঠতোনা আপনার সাথে , মনে আছে ?
এই যাহ.... বিনে পয়সায় এতো বালিকাকাল থেকে আপনাকে আর ঘুরিয়ে আনতে পারবোনা .... B:-/ /:)

৪৩| ০৩ রা আগস্ট, ২০১৮ বিকাল ৩:০৫

জেন রসি বলেছেন: সবাই শিকারী। আবার সবাই শিকার।

লিটনের ফ্ল্যাটকে মেটাফোর হিসাবেই ধরলাম। ভোগবাদ একসময় মানুষকে অসুস্থ করে ফেলে। যেখানে উপভোগের গভীর উপলব্ধি বা আনন্দ থাকেনা।

১১ ই আগস্ট, ২০১৮ দুপুর ১২:১৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: জেন রসি ,




গল্পটা ঠিক ভোগবাদ নিয়ে কিছু বলেনি । পুরো গল্প জুড়ে পাঠককে এক প্রসঙ্গ থেকে ঝট করে আরেক প্রসঙ্গে নিয়ে যাওয়ার নিঃশব্দ ষ্টাইল জুড়ে দেয়া রয়েছে । এই কারিশমার ফাঁকেই আবার আমাদের চারপাশের একটা অস্থির সময়ের চলমান ছবিই্ তুলে ধরার একটা চেষ্টা আছে গল্পে, আছে আমাদের দৈনন্দিকতার কিছু খন্ডিত ছবি ।
এগুলোই আমাদের চিন্তা-মননে খেলে যায় সারাক্ষন কারন সময় এবং জীবন এখন ভুগছে নষ্টতার জ্বরে ।

৪৪| ১১ ই আগস্ট, ২০১৮ বিকাল ৩:৩১

বিজন রয় বলেছেন: ঢিল তো মারলেন সেই কবে! এখন পাটকেল দিবেন কখন?

১২ ই আগস্ট, ২০১৮ দুপুর ১২:৩২

আহমেদ জী এস বলেছেন: বিজন রয় ,



পাটকেলের ঘসামাজা চলছে । কি সাইজের হলে কার কার কপাল ফাঁটবে , কতোটুকুই বা ব্যথা লাগবে কার , কার কোন জায়গায় কতোখানি লাগলো তা দেখে কে কে তালিয়া বাজাবে , এই রকম অনেক হিসেব-নিকেশ আছে । :P

৪৫| ১২ ই আগস্ট, ২০১৮ রাত ৩:২৩

শিখা রহমান বলেছেন: দারুন স্যাটায়ার!! লেখার শেষ পর্যন্ত পাঠকের কৌতূহল ধরে রাখতে পেরেছেন।

লেখায় ভালোলাগা রইলো। শুভকামনা।

১৪ ই আগস্ট, ২০১৮ সকাল ১০:৫০

আহমেদ জী এস বলেছেন: শিখা রহমান ,




লেখার শেষ পর্যন্ত পাঠকের কৌতূহল ধরে রাখতে পেরেছেন। আপনার এমন কথায় লেখাটির সার্থকতা খুঁজে পেলুম ।
ধন্যবাদ এমন মন্তব্যের জন্যে ।

শুভকামনা রইলো আপনার জন্যেও ।
শুভরাত্রি ( আপনার ঘড়ি অনুসারে )

৪৬| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৮ দুপুর ১২:৩৩

পাঠকের প্রতিক্রিয়া ! বলেছেন: জী এস ভাইয়া,

আপনাকে অনুসরণ করলুম...;)

১৬ ই আগস্ট, ২০১৮ সকাল ১০:৫০

আহমেদ জী এস বলেছেন: পাঠকের প্রতিক্রিয়া !





আমার কাছে ক্ষমতা নেই, টাকা - পয়সা নেই ; অনুসরণ করে লাভ কি ! :P
তবুও এ অভাজনকে অনুসরণে রেখেছেন জেনে কৃতজ্ঞ ।

৪৭| ১৮ ই আগস্ট, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫৬

অয়ি বলেছেন:




গল্পে কুৎসিত ব্যাপার রয়েছে যা খুব সহজভাবে বর্ণিত হয়েছে । কিন্তু তা খুব ঘৃন্য ।

১৯ শে আগস্ট, ২০১৮ রাত ৮:২৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: অয়ি ,



মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ তবে গল্পে কুৎসিত কোনও ব্যাপার স্যাপার নেই । ও সম্ভবত আপনার বোঝার ভুল । গল্পের সকল শরীর জুড়ে যা আছে তা চায়ের টেবিলের আলাপ সালাপ । চায়ের টেবিলে যেমন হয় আর কি ! কথার পিঠে কথা, প্রসঙ্গ থেকে প্রসাঙ্গন্তর । আপনি যে ইঙ্গিতটাকে কুৎসিত ও ঘৃন্য বলে ধরে নিয়েছেন তা গল্পের শেষের একটি বাক্য মাত্র, যদিও তা আজকালকার বাস্তবতা । আপনার চোখে গল্পের বুননটা চোখে পড়েনি হয়তো বা এড়িয়ে গেছে ।

শুভেচ্ছান্তে ।

৪৮| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৮ দুপুর ১২:৩৮

মুরাদ মুরসাল বলেছেন: অনেক ভালো লেগেছে।

১৯ শে আগস্ট, ২০১৮ রাত ১০:৩৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: মুরাদ মুরসাল ,




আমার ব্লগে আপনাকে স্বাগতম ।
ভালো লেগেছে জেনে ভালো লাগলো।

শুভেচ্ছান্তে ।

৪৯| ২১ শে আগস্ট, ২০১৮ রাত ২:০৩

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: জ্যামের কথা আর কি বলবো ভাই! মহাখালী থেকে ময়মনসিংহ পৌঁছাতে বাসে লাগলো আজ পুরো সাড়ে আট ঘন্টা! শেরপুর পর্যন্ত আসতে আজ লাগলো প্রায় বারো ঘন্টা, ও অসয্য গাড়িতে এত সময় বসে থাকা।


ঈদ-উল-আজহা'র শুভেচ্ছা রইল শ্রদ্ধেয়,
ঈদ মোবারক

২৩ শে আগস্ট, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৪০

আহমেদ জী এস বলেছেন: নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন ,



কি আর করবেন !!!! এভাবেই ঈদের দিনগুলোর আনন্দ খানিকটা ফিকে হয়ে যাবে এখানে , যেখানে কোনও শৃংখলা নেই , নেই নিয়ম কানুন ।
তবুও মনে হয় এতো কষ্টকর যাত্রার পরে ঈদের আনন্দ গাঢ় হয়েছে অনেকটা ।

ঈদ পরবর্তী শুভেচ্ছা আপনাকে ও আপনার পরিবারবর্গের জন্যে ।

৫০| ২২ শে আগস্ট, ২০১৮ রাত ১১:১৫

বিজন রয় বলেছেন: ঈদ মোবারক।
শুভকামনা রইল।

২৩ শে আগস্ট, ২০১৮ রাত ৯:০১

আহমেদ জী এস বলেছেন: বিজন রয় ,



ঈদ পরবর্তী শুভেচ্ছা আপনাকেও ।
ভালো থাকুন আর সুখে ...............

৫১| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৫৯

প্রামানিক বলেছেন: হাজার হইলেও গুরুর গল্প না পইড়া পারি। পড়লাম খুব ভালো লাগল। আহারে! ব্রান্ডেড খাবারের টেস্টিং সল্ট খাইয়া কত জনের মুখ যে নষ্ট হইছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ধন্যবাদ গুরু

২৮ শে আগস্ট, ২০১৮ সকাল ৯:৫৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: প্রামানিক ,




ঢিলটি ছুঁড়েছি সেই কবে , আর আপনার মাথায় গিয়ে লাগলো এই এ্যাদ্দিন পর ? :(
মনে হয় ঢিলটা জ্যামে পড়েছিলো । :P


৫২| ২৯ শে আগস্ট, ২০১৮ সকাল ১১:৪৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: শেষ মেষ লিটনের ফ্ল্যাট? |-) |-)
আপনি আর জায়গা পেলেন না!!!!

৩০ শে আগস্ট, ২০১৮ সকাল ১০:৫৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: গিয়াস উদ্দিন লিটন ,




এ্যাদ্দিন বসে আপনিও তো একটা নিরিনিলি জায়গার খোঁজ দিতে পারলেন না !!!! :P
নিজে মানুষের সাথে আলাপ সালাপ করে একটা জায়গা বাছা হলো , সেখানেও আপনার আপত্তি ? #:-S
বাঙালীর ঐ এক দোষ ! নিজে কিছু করবেনা অথচ কিছু করা হয়ে গেলে দেখা যাবে ছালা ভরা জ্ঞান নিয়ে হাজির .............. :-P

৫৩| ০৭ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:২৩

নীল আকাশ বলেছেন: চঞ্চল হরিণী বলেছেন: এখন এই লেখা পড়ার পর মনে হচ্ছে, আহমেদ টম্যাটো সস কিনে লিটনের ফ্ল্যাটে গিয়ে বসে বসে আমিষ খাই, আর দেখি পদ্মা-মেঘনা-যমুনা কোনোদিক দিয়ে আসে? - আপু এখন শুধু পদ্মা-মেঘনা-যমুনা না জোয়ারের মতো সবাই আসে আর ফলাফল হলো Click This Link

মুক্তা নীল আপু আমার ব্লগে একটা দারুন কথা বলে গেছেন- আপনার কি মনে আছে, সেই পরশ পাথর এ্যালবাম এর কথা। শ্রুতিনাটক(নিমা রহমান + অঞ্জন দত্ত)। আমাদের আগের দিনএর ভালোবাসাটা এমনই ছিলো। ২জন প্রতিষ্ঠিত ছেলে মেয়ে সম্পর্ক করেও শারীরিক সম্পর্কে যায়নি। নীল খামের চিঠির যে আনন্দ এখনকার ছেলেমেয়ে কি তা বুঝেবে? অডিও ক্যাসেট, মেমসাহেব, সাতকাহন, কালবেলা, কাল পুরুষ,গভধারণী,(আরও অনেক লেখক)এর বইগুলোর আদান প্রদান হতো। এই জেনারেশন কি বুঝবে কস্ট করে টাকা জমিয়ে একে অপরের জন্য শাড়ি আর পাঞ্জাবি উপহার দিতো। পবিত্র ভালোবাস আর নেই, সব হারিয়ে গেছে। - আমি শুধুই এই কাহিনী গুলি পড়ি আর ভাবি, কোথায় সেই আলতো হাতের শিহরনের দিন গুলি হারিয়ে গেল, কোথায় নীল বা গোলাপী কাগজে নিজের হাতে ইকোনো বা রাইটার কলম দিয়ে প্রেম পত্র লেখার দিন গুলি হারিয়ে গেল.........আহ!

কথোপকথন দারুন লেগেছে, শুধুই মুগ্ধতা, আপনার লেখা যতই পড়ছি ততই শিখছি.....
শুভ কামনা রইল!

০৭ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৪০

আহমেদ জী এস বলেছেন: নীল আকাশ ,



ভালো লাগলো আপনাকে এমন করে ঢিল ছুঁড়তে দেখে ।
মুগ্ধতার কথা বলেছেন । পাঠকের তেমন চোখ থাকলে পরেই কারো লেখা মুগ্ধতা ছড়ায় পাঠকের চোখে ।

শুভেচ্ছান্তে ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.