নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ট্রুথ নেভার ডাই্‌জ

নিজের সম্পর্কে লেখার কিছু নেই । সাদামাটা ।

আহমেদ জী এস

পুরোপুরি একজন অতি সাধারন মানুষ । আমি যা আমি তাই ই । শয়তানও নই কিম্বা ফেরেশতা । একজন মানুষ আপনারই মতো দু'টো হাত, চোখ আর নিটোল একটা হৃদয় নিয়ে আপনারই মতো একজন মানুষ । প্রচন্ড রকমের রোমান্টিক আবার একই সাথে জঘন্য রকমের বাস্তববাদী...

আহমেদ জী এস › বিস্তারিত পোস্টঃ

বছর শেষের সামুর মুখ.........

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫৬



উপক্রমনিকাঃ
২০১৮য়ের “ব্লগ-ডে”র আয়োজনটি একেবারেই ছিলো প্রচলিত প্রথার বিপরীতে। ব্লগার “অগ্নি সারথী”র উচ্ছাসী আমন্ত্রনে আর সামু নিবেদিত ক’টি হৃদয়ের অশ্রুত আহ্বানে সাড়া দেয়া সামুর কিছু মুখের দেখা মিলেছিলো সেদিন। হাসি-গল্পে বিকেলটা গড়িয়ে গেছে সন্ধ্যায়। আনুষ্ঠানিক পরিচয় পর্ব, প্রানের উচ্ছাসে আর তেমন আনুষ্ঠানিক থাকেনি। যেন এক পড়ন্ত বিকেলে একঝাঁক অচেনা মুখেরা নিজেদের চিনে নেবার বাসনায় ঝাঁপটে গেছে পাখা!

মিলনমেলা সাঙ্গ হলে সামুর সদর দরজায় তার সব ছবি ঝুলিয়ে দিয়ে গেলেন নাহিদ০৯। সে দরজার কড়া নাড়া শেষ হতেই সহব্লগার “অপু দ্যা গ্রেট” এর পোস্টকৃত “এক ঝাক তারার মেলায় সামুর ১০ম ব্লগ ডে উদযাপন এবং বিস্তারিত - ছবি ব্লগ”টি চোখে পড়লো। মন্তব্য করলুম। কিন্তু আমার করা মন্তব্যটি বেশ বড় হয়ে গেছে মনে হতেই ভাবলুম মন্তব্যটিকে একটা পোস্ট করে দিলে কেমন হয়! নিভৃত কোনে একটি মন্তব্য হয়ে নয়, একটা পোস্টের লেখা দলিল, বিশেষ করে ব্লগারদের পুণর্মিলনীর দলিল হিসেবে সবার চোখের সামনে থেকে যেতে পারে তাহলে!
অন্যদিকে সহব্লগার নাহিদ০৯ এর “এক ঝাঁক হাসিমুখ - ব্লগারদের পুণর্মিলনী অনুষ্ঠান ২০১৮” নিয়ে “দৃষ্টি আকর্ষণ” পাতার লেখাটির প্রলম্বন হতে পারে তা। হতে পারে এর মধ্যেই ব্লগ দিবসটিকে নিয়ে যারা যারা লিখেছেন তাদের লেখারও সম্পূরক।

এ প্রয়াসটি সে সব লক্ষ্য করেই..........................

অপু দ্যা গ্রেট,


ব্লগারদের পুণর্মিলনীতে উৎসর্গের এই কবিতাখানি দিয়েই শুরু করি এক ঝাঁক তারার মেলায় বিজয় অভিযান ----

তোমাকে দেখবো বলে,
হে পৌষের সোনাঝরা বিকেলের দিন!
চালসে পড়া চোখে মেখেছি সুরমা স্মৃতির।

কতোটি বছর ধরে যে বেড়ে ওঠা তরতর
তাতে ধরেছে ক’টা ফুল চৈতালীর,
তাকে দেখবো বলে ক্ষয়ে ক্ষয়ে আসা মাংস-হাড়
জড়ো করে মেলেছি তোমার উঠোনে তার
অমৃত সম্ভার।

মিলেছে তারে আনন্দ ঝংকারে
বিকেলের রোদে হেটে আসা যতো মুখ
অপার নিঃস্বর্গের হাসি ধরে
জোছনা ফুটিয়ে গেছে সংস্কৃতি বিকাশ চত্বরে!

হে একুশের সোনাঝরা বিকেলের দিন!
তোমাকে দেখবো বলে
চালসে পড়া চোখে আবার মাখাবো সুরমা স্মৃতির।


শুরু থেকে অনুষ্ঠানের ধারাবাহিকতা অনেকটাই ধরে রেখেছেন আপনার পোস্টের ছবির ক্রম তালিকায়। তবে চনমনে মনের, ছটফটে নবীন তরুন অপুর ছবিখানা থাকলে তা আরও পূর্ণতা পেতো। এই ঘাটতিটা গ্রেট হয়নি!
পূর্ণতা পেতো, হাসিমুখের বিদ্রোহী ভৃগু, বলিষ্ঠ ব্লগার হামিদ আহসান, বিয়ের ভয়ে কাতর সৈয়দ তাজুল ইসলাম, ব্লগ অন্তপ্রান সৌম্য দর্শন সত্যপথিক শাইয়্যান, চৌকস চেহারা আর কথার মাহতাব সমুদ্র, এমনি আরো অনেকের ছবি থাকলে।

অনুষ্ঠানের আগে পিছের ফাঁকে ফাঁকে চকিতে যাদের সাথে হঠাৎ কিছু কথা হয়েছে, যাদের মুখ সৌষ্ঠবে এই আনন্দমেলা কি আলো জ্বেলে দিয়ে গেছে তার কিছুটা না বললে আপনার এই “গ্রেট” পোষ্টটির আকুতির প্রতি অবিচার করা হবে।

কায়সার চৌধুরী - মনে হয় নিভৃতচারী এক মানুষ। এসেছেন সেই সুদূর সিলেট থেকে বাংলায় সেরা ব্লগ সামুর টানে । টানটা তার বাংলা ভাষার প্রতিও অদম্য। বাংলা যে কেন শিক্ষার একমাত্র বাহন হয়না, আক্ষেপ তা নিয়েও। নিজের ভাষনে বলেছেন তাও। নিজেকে লুকিয়ে রাখার চেষ্টায় রত এই মানুষটির প্রতি আকর্ষণ বাড়লো বটে।

বিদ্রোহী ভৃগু - যতো দাঁত ভাঙা সব জটিল শব্দের সমাহার ঘটিয়ে যিনি কবিতা সাজান, সে মানুষটির হাসি কিন্তু মোটেও জটিল নয়, ঝকঝকে আস্ত দাঁতে মিষ্টি হাসির জোছনা ছড়িয়ে দেয়া এক মানুষ। দেখে মনে হলোনা বিদ্রোহ করতে জানেন, একদম বিপরীত মানুষ প্রেমে ও পুজায়।

সেলিম আনোয়ার - সরল অতি সরল একটি মাটির মানুষ। পাথুরে মাটি খুঁড়ে খুঁড়ে যে মানুষটি কঠিন শিলা তুলে আনেন, সে মানুষটি যে পলিমাটির মতো এতো নমনীয় হবেন বুঝতে পারিনি। সহজ-সরল-শিশুর মতো অপাপবিদ্ধ তার চোখ, কথা বলার ধরন। ভালো লাগলো-খুব ভালো লাগলো এমন আবেগী মানুষটিকে।

প্রামানিক - ভাঙা হাত, লোহা-লক্কর, বল্টু লাগানো শরীর নিয়ে এখানে এসে প্রমান করলেন - ভালোবাসি....ভালোবাসি....ব্লগটাকে ভালোবাসি। আমার নাম বলতেই এ্যায়সা জোড়ে বুকে জড়িয়ে ধরলেন যে মনে হলো, তার মতো না আমাকেও বুকের খাঁচায় নাট-বল্টু লাগাতে হয়!
আগাপাস-তলা রসিক একজন।

নিমচাঁদ - মনের তারুন্যে ভরপুর একজন। রসিকতা করছিলেন সবার সাথেই। তবে তার নিকটি যে ধার করা সে বয়ান শুনিয়েই বুঝিয়ে দিলেন, নিমপাতার মতো তেঁতো নন তিনি। অনুষ্ঠান অনেকটা তিনিই জমিয়ে রেখেছিলেন ।

রসায়ন - এতোটুকু এক তরুন যে কবিতায় গা না ভাসিয়ে বিজ্ঞান নিয়ে লেখেন , বোঝার উপায় নেই। তার লেখা পড়ে আমার তো মনে হতো তিনি মধ্যবয়েসী কেউ। ভুলটা ভাঙলো কথা বলে। স্বল্পভাষী মনে হলো। অমায়িক একজন।

সাইনবোর্ড - রাজনীতির মতো উথাল-পাতাল বিষয় নিয়ে যিনি লেখেন, তিনি মোটেও উথাল-পাতাল-জটিল কিছু নন। হাসি হাসি মুখে লজ্জা ছড়ানো শান্ত-স্নিগ্ধ এক মানুষ। কথা বলতে গিয়েও যেন ভেঙে পড়ছিলেন লজ্জায়!

এস এস ইসমাইল - ভেবেছিলুম কে এলেন! কিন্তু যিনি এলেন তিনি অনুষ্ঠাটিকে যেন অন্য আমেজে ভরিয়ে দিয়ে গেলেন। পড়ন্ত বেলার একজন। না, তাঁর সাথে সরাসরি কথা হয়নি। বলিনি, মনে হয় তিনি অনেকটা অসুস্থ্য ছিলেন এবং কথা বলতে তাঁর কষ্ট হচ্ছিল বলে। সেটাকে বাড়াতে চাইনি। তাঁর উপস্থিতিতে একটা সুরই মনে এলো - “যখন পড়বে না মোর পায়ের চিহ্ণ এই বাটে.....”। উনি যেন এই চির সত্যটাকে আবারও উসকে দিয়ে গেলেন।

অগ্নি সারথী - ধংশের সারথী নয়, সৃষ্টির সারথী হয়ে আসা যে জন! ব্লগটাকে অনেকের আরো কাছে এনে সৌহার্দ্য সৃষ্টি করে গেছেন বাঁধা পেড়িয়েও। একেবারে শুরুর দিকে আঙুল গোনা যে পাঁচ সাতজন ছিলুম আমরা তাদের উষ্ণতায় বরণ করে নিলেও সেই থেকে তাঁর মুখে একটি আশংকা-উৎকন্ঠা আর অতৃপ্তির ছায়া লেপ্টে থাকতে দেখেছি। “বোধ হয় জমলোনা, তবে কি এই ক’জন মানুষ নিয়েই হবে মিলন মেলা!” এমন একটা গুমোট ভাব ছিলো চোখে মুখে । সময় বাড়তেই যখন আরো আরো মানুষের দেখা মিললো, সে মুখের গুমোট ভাব কাটলো বটে অনেকটা কিন্তু পরিতৃপ্তির দেখা অধরাই রয়ে গেলো।
“ব্লগতরী”টিকে তবুও শেষতক ভালোবাসার ঠিকঠাক ঘাটে এনে লাগানোর এই মানুষটিকে তাই “ব্লগ সারথী” বলা ছাড়া আর উপায় থাকেনা।

নুরুন নাহার লিলিয়ান - পরিচয় করতে গিয়ে তাঁকে একটি ধাঁধাঁর উত্তর জিজ্ঞেস করতেই আমার নামটি বলে দিলেন। আনন্দ-হাসি খুঁজে পেতে খুব উৎসাহী মনে হলো, সবার সাথে তার কথা ও ছবি তোলার বহর দেখে। সহজ, প্রানবন্ত একজন মানবী মনে হলো।

মৌরী হক দোলা - এতোটুকুন একটি মেয়ে। প্রথম দেখাতেই আমি যখন বললুম, “পিচ্চি মেয়েটি আবার কে?”, তাঁর সপ্রতিভ উত্তর-মৌরী হক দোলা। দোলাই দিয়ে গেলো মনে। চোখে মুখে দারুন প্রত্যাশা নিয়ে এসেছেন মা’কে সঙ্গে করে। ব্লগিংয়ের প্রতি কতোখানি প্রানের টান থাকলে এমনটা হয়! যে বয়সে সোস্যাল মিডিয়ার নষ্ট স্রোতে তাঁর ভেসে যাবার কথা, সেই বয়সে সেই স্রোতের বিপরীতে সৃজনশীলতার তরী বেয়ে যাবার প্রত্যয় তার চোখে। এতোগুলো পরিনত মানুষের ভীড়ের মাঝেও ঘাবড়ে যায়নি এতোটুকু।

মনিরা সুলতানা - চোখে মুখে অনেকটা দুষ্টু হাসির ঝিলিক। কবিতার প্রতি যেমন জোড়ালো আস্থায় তার অবস্থান তেমনি নিজের উপরেও দেখলুম তার আস্থার জায়গাটি। উপস্থাপক ও উৎসাহীদের বারবার ধরিয়ে দিতে চাওয়া মাইক্রোফোন অবলীলায় ঠেলে সরিয়ে, চোখের চকিত চাহনী হেনে দৃপ্ত গলায় বলে গেলেন নিজের কথা। এ পর্যন্ত তাঁর সাথে পরিচিত হইনি। শেষে উপস্থিত প্রায় সবার হাতেই দেখি এক একখানা বই। বিলিয়েছেন নাকি সেই একজনা। কাছে গিয়ে বই চাইতেই আবাক তাকিয়ে রইলেন মুখের দিকে। বললুম , আমি জী এস... আহমেদ জী এস। বিস্ময়ে ফেটে পড়ে কপাল চাপড়ে বলে উঠলেন-- ও মাই......জী এস ভাই আপনি!
চোখে মুখে হাসির ঝিলিক ঝলসে উঠলো আরো একবার। ঐটুকুই ।

কাল্পনিক_ভালোবাসা - আন্ডারস্কোর দিয়ে যার নিক, তার পানে না চাইতেও চোখে যে পড়তেই হয়! কি অক্লেশে সবার কথা ধীর-শান্ত হয়ে উপস্থাপন করে গেলেন আমাদের। বর্ষীয়ান ব্লগার এস এস ইসমাইলকে তুলে ধরলেন পরম মমতায়। শোনালেন নিজের কথাও নিজের স্বভাবজাত চপলতায়। প্রশ্নের জবাব দিয়ে গেলেন একটুও না থেমে হাসি ঠাট্টা আর গাম্ভীর্যতা মিশিয়ে। মডারেটের এমন না হলে হয়না। সবাই-ই মডারেটর হতে পারেনা। মডারেটর হো তো এ্যায়সা- কাভা য্যায়সা..

আর...... আর .....আর শেষে -

অপু দ্য গ্রেট - গিয়ে যখন উঠেছি আসমা হলের ছাদে তখন আঙুল গোনা পাঁচ-সাতজন। কাভা আমার নাম ধরে লাফিয়ে উঠতেই টগবগে তারুন্যের শুভ্রতা মাখা আরো একটি ছটছটে- মুখ এগিয়ে এলো সামনে -“ আমি অপু।” স্নেহমাখা ধমকের সুরে বললুম “অপু আবার কি ? অপু দ্য গ্রেট , তাইনা ?” স্মিত হাসি ছড়িয়ে গেলো আপনার সারাটি মুখে। সে হাসি, মনে হলো, আলেকজান্ডার দ্য গ্রেটের মতো বিশ্বজয় করে ফেলতে পারে। পেরেছেনও তাই। আসমা হলের ছাদে জড়ো হওয়া সেদিনের সবার মন জয় করতে পেরেছেন আপনি অনায়াসে। ভাঙা হৃদয়ের শোকও যে অবলীলায় জয় করে ব্লগ জয়ে বের হয়েছেন আপনি, বললেন অকপটে তাও। জীবনের সেই ক্রান্তিকালটাকে সামাল দিয়েই আপনি সত্যি সত্যিই “গ্রেট” বনে গেলেন মনে হয়!



সংযুক্তি -
সে সব মুখের ছবির জন্যে

নাহিদ০৯ ................. এক ঝাঁক হাসিমুখ - ব্লগারদের পুণর্মিলনী অনুষ্ঠান ২০১৮
অপু দ্যা গ্রেট ..........এক ঝাক তারার মেলায় সামুর ১০ম ব্লগ ডে উদযাপন এবং বিস্তারিত - ছবি ব্লগ

মন্তব্য ১০৩ টি রেটিং +২৯/-০

মন্তব্য (১০৩) মন্তব্য লিখুন

১| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:০৪

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: চমৎকার !!!!

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:২৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: আর্কিওপটেরিক্স,



ধন্যবাদ, প্রথম মন্তব্যটির জন্যে।

২| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১১

নাহিদ০৯ বলেছেন: বিশেষন গুলো দারুন। অনুমতি দিলে আপনার এই মন্তব্য আমার পোস্ট এর ছবির সাথে নাম মেনশন করে যোগ করতাম।

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৩৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: নাহিদ০৯,



লেখার টেক্সটগুলো আপনার ভালো লেগেছে বুঝতে পারছি। যোগ করতে পারেন তবে কোথা থেকে যোগ করেছেন তার উল্লেখ থাকলে ভালো হয়। শোভনীয়ও হয় ।
শুভেচ্ছান্তে ।

৩| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১২

সম্রাট ইজ বেস্ট বলেছেন: চমৎকার বর্ণনা। আপনার লেখার নতুন করে প্রশংসার কিছু নেই। খুবই সুন্দর করে অসম্ভব আন্তরিকতার সাথে সবকিছু তুলে ধরেছেন।

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:১২

আহমেদ জী এস বলেছেন: সম্রাট ইজ বেস্ট,




আন্তরিক ভাবেই করা এই মন্তব্যে কৃতজ্ঞতা।

ভালো থাকুন আর বছর শেষের শুভেচ্ছা রইলো জানুন।

৪| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১৭

আরোগ্য বলেছেন: আজকের পোস্ট যেন ব্লগ ডের মিলনায়তনকে সম্পুর্ণ করলো।

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:১৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: আরোগ্য,



তেমন তাড়না থেকেই লিখেছি। যেন ব্লগ-ডে'র প্রীতিমিলনী নিয়ে লেখা সব ক'টি পোস্ট মিলে একটা পূর্ণাঙ্গ ছবি সামু ব্লগারদের চোখে থাকে।
মন্তব্যে প্লাস ++++

বছর শেষের শুভেচ্ছা।

৫| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৩৫

শায়মা বলেছেন: ভাইয়া

হা হা হা

পড়তে পড়তে দেখতে পেলাম আবারও তোমাকে ভাইয়ামনি!!! :)

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৪৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: শায়মা,




হা...হা...হা.... এবারে আর অসূর্য্যস্পর্শা হয়ে নয়, সংস্কৃতি বিকাশকেন্দ্রের ছাদস্পর্শা হয়েই এসেছি। ;)

আর দেখে কি হবে! চালসে পড়া চোখ আর ক্ষয়ে ক্ষয়ে আসা মাংস-হাড়ের একটা মানুষকে দেখে কি এমন মোক্ষলাভ হলো যে ফিচকে হাসি দিতে হলো ? :( :|| :-P

৬| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৪৫

খায়রুল আহসান বলেছেন: পোস্টটা শুরু হয়েছে যেমন চমৎকার একটা কবিতা দিয়ে, স্মৃতির সুরমা মাখা চালসে চোখে দেখা চৈতালী ফুলগুলোর বর্ণনাও হয়েছে ঠিক তেমনি চিত্তাকর্ষক। অভিনন্দন এমন একটি আকর্ষণীয় পোস্ট লেখার জন্য।
সুবচেয়ে ভাল লেগেছে অল্প কথায় সেলিম আনোয়ার এর বর্ণনাটুকু। যথার্থ একজন কবি'র প্রতিচ্ছবি ফুটে উঠেছে কথায়। বাকীসব গুণীজনদের পরিচয়ও খুব সুন্দর করে তুলে ধরেছেন। এখন থেকে তাদের লেখা পড়ার সময় আপনার দেয়া তাদের পরিচিতির কথাগুলো কানে বাজবে।
পঞ্চম প্লাস + +

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:০৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: খায়রুল আহসান,



দেখা ও বোঝার চোখ যে আপনার আছে, সে কথা আর নতুন করে নাইবা বললুম!
"স্মৃতির সুরমা মাখা চালসে চোখে দেখা চৈতালী ফুলগুলো"--- অমন কথারা কবিতায় বলেছি নিজেকে পূর্ণভাবে তুলে ধরতে।

সবার সাথে ফাঁকতালে আলাপ হয়নি কেবল তাদের পরিচিতি পর্বে তাদের কথা শোনা ছাড়া। তাই সবাইকে ছেঁকে তুলতে পারিনি। এ আমারই অক্ষমতা।
আপনাকে আশা করেছিলুম খুব মনে মনে। তেমনটাই বলেছিলেন কোনও এক মন্তব্যে যে, দিনটি খালি রেখেছেন এজন্যে।
হয়তো দেখা হবে কখনও কোথাও একদিন।

মন্তব্যে কৃতজ্ঞতা ও সাথে প্লাস +++++

বিদায়ী বছরের শেষ দিনগুলোর শুভেচ্ছা।

৭| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৪৭

নাহিদ০৯ বলেছেন: এখানে আপডেট করলাম আপনার মন্তব্য গুলো। সাথে মন্তব্য পাতার লিংক এবং মন্তব্যকারীর নাম সংযুক্ত করেছি। একবার দেখে আসবেন প্লিজ!!

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:৩৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: নাহিদ০৯,



দেখেছি। কৃতজ্ঞ ।
মন্তব্যও করে এসেছি ওখানে।

বছর শেষের শুভেচ্ছা।

৮| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৫০

ঢাবিয়ান বলেছেন: ভাল লাগল ব্লগারদের সম্পর্কে জানতে পেরে। ছবিতে আপনি কোন জন?

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:০৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: ঢাবিয়ান,



আমি কোন জন সেটা বড় নয় , বড় হলো আমরা যে অনেকজন একত্র হতে পেরেছি সেটাই।
আপনাকে জানতে পারলেও ভালো লাগতো।

( আমি অধম সামনের সারিতে দাঁড়ানো। আপনার বা-দিক থেকে ৩য় জন। নীল পোলো গেঞ্জী গায়ে। এবার খুশিতো? )


৯| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:০৫

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: মনে তো হচ্ছে মহা মিস করলাম, কোন একদিন হয়তো আবার দেখা হয়েই যাবে........শুভ কামনা জানবেন ভাই।

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:২৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: সাদা মনের মানুষ,



মহা মিস নয় , ইহকাল-পরকালের সব মিস করলেন!
হ্যাঁ.... ঘুরতে ঘুরতে একদিন কোথাও দেখা হয়ে যেতেই পারে, কারন পৃথিবীটা তো গোল! B-)

আসছে নতুন বছরের শুভেচ্ছা।

১০| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:১২

নজসু বলেছেন:



প্রিয় ব্লগারদের সম্পর্কে আপনার সংক্ষিপ্ত অনুভূতি
জেনে ভালো লাগলো।

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:৫৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: নজসু,



ব্লগ-ডে'র মিলন মেলায় গিয়েছি। নিজের অনুভূতি একটা তো হয়-ই। আর সেটা জানাতে দ্বিধা করতে কুন্ঠিত হইনি, এই আর কি!

১১| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:২৪

হাবিব স্যার বলেছেন: আমি যেতে পারি নাই.... খুব বড় একটা সুযোগ মিস করছি

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:২৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: হাবিব স্যার,




মহাপাতক হয়েছেন। সুযোগ থাকতেও তা মিস করেছেন হেলায়!
আসতেও তো পারতেন। আমরা এক নবীন ব্লগারের দেখা পেতুম!

১২| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৩৩

অপু দ্যা গ্রেট বলেছেন:




এইবার আমার পালা

মুহাহাহা

ভাই,

আমি শুধু চেষ্টা করেছি আপনাদের কে একটা সুন্দর বিকেলের সাথে থাকতে । আপনারা এসে বুঝিয়ে দিয়েছেন এই ব্লগটাকে আপনার কত ভালবাসেন । আপনারা আমাকে এটাই বুঝিয়েছেন । ভালবাসতে হয় এভাবেই ।

ব্লগটা আমার ভালবাসার একটা জায়গা দখল করে আছে । আমি এক দিন ফেসবুকে না গেলেও পারব কিন্তু ব্লগে না আসলে কেমন জানি লাগে । আপনার ব্লগ এসে ঘুরে যাই । নতুন লেখা আসে কিনা দেখি ।

আপনার শেষ পোস্ট হওয়ার পর প্রায় প্রতি দিন ই এসে ঘুরে গেছি । নতুন পোস্ট না পেয়ে বার বার ফিরে গেছি । নাজকা লাইন্স পড়েছি । অপেক্ষায় ছিলাম নতুন পোস্ট আসবে । এটাই আসবে ভাবিনি ।

তারপর ও এসেছে । তাই আবার পড়লাম ।

কেন জানি ভালো লাগে ।

আশা করি চায়ের আড্ডা আবার হবে ।

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:২৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: অপু দ্যা গ্রেট,




আপনার কথাতেই বলি, ভালবাসতে হয় এভাবেই, কোনও দেনা-পাওনায় না জড়িয়ে। ভালোবাসায় দিতে হয়, নিতে নয়!
আপনাকে করা ঐ মন্তব্যটি এখানে এনেছি কেন তা বলা আছে শুরুতে। মনে হয় খারাপ একট কাজ হয়নি।

আমার কল্পনার ঘট অতো উর্বর নয় যে ঘন ঘন লেখার প্রসব বেদনা উঠবে! B:-) কবিতা আছে অনেক, দিতে ইচ্ছে করেনা কবিতায় ব্লগখানি ভারাক্রান্ত হবার ভয়ে। সব ধরনের পোস্টই দেই ঘুরিয়ে ফিরিয়ে। তবে গল্প তেমন একটা পারিনে, সত্য মিথ্যে বানিয়ে লিখতে হয় বলে, যেটা আবার আমার আসেনা খুব একটা। আমার কিছু গল্প আছে পড়ে দেখতে পারেন যেহেতু আপনি গল্পকার।
এখানে ----
যে জোনাকি লুকিয়ে রেখেছি চোখে, পলকে অশ্রুজল.......

কি কথা তাহার সাথে .....

ভাগীদার..

বছর শেষের শুভেচ্ছা।

১৩| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৫৪

প্রামানিক বলেছেন: গুরু তো গুরুই, আপনাকে আমি এমনি এমনি গুরু বলি না, আপনার লেখার মধ্যে সেই ভাবটা পাই বলেই গুরু মানি। আজকের লেখাতেও সেইভাবের এতটুকুও ব্যতয় ঘটেনি। কাজের ব্যস্ততার মাঝেও একটানে পড়ে ফেললাম। রসিকতার মাঝেও ব্লগারদের যথাযথ মূল্যায়ন করেই লিখেছেন। আমিও বাদ যাইনি। খুবই ভালো লাগল বর্ননা। ধন্যবাদ গুরু।

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৫২

আহমেদ জী এস বলেছেন: প্রামানিক,



কাজের ব্যস্ততার মাঝেও একটানে যেমন করে পড়ে ফেললেন, তেমনি একটানে বুকেও জড়িয়ে ধরেছিলেন। মনে আছে!

আপনার মতো যারা যারা লেখার ভেতর ভাবের খোঁজ করেন, মূলত তাদের জন্যেই আমি লিখতে চেষ্টা করি।

আসছে নববর্ষের আগাম শুভেচ্ছা।

১৪| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:২০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: একদম ঝরঝরে বর্ননা। যেন ব্লগের এক একজন রথী মহারথীকে চোখের সামনে দেখছি।

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:১২

আহমেদ জী এস বলেছেন: গিয়াস উদ্দিন লিটন,



চোখের সামনে নয় চর্মচোখেই সরাসরি দেখতে পেতেন চেষ্টা করলে। :)

বিদায়ী বছরের শুভেচ্ছা।

১৫| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:৩০

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: আপনি আমাকে নিয়েও লিখেছেন!! এতোসব গ্রেট ব্লগারে সঙ্গে আপনার শৈল্পিক বর্ণনায়। এই ঋণ কিভাবে শোধ করবো। একদিন গিয়াস উদ্দিন লিটন ভাইয়ের সঙ্গেও হয়তো দেখা হবে কথা হবে, খায়রুল আহসান ভাইয়ের সাথেও ,তার সঙ্গেও....
চমৎকার লিখেছেন হে শ্রদ্ধেয়.....
সুন্দর।+প্রাণবন্ত।



২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: সেলিম আনোয়ার,




আপনাকে যেমনটা মনে হয়েছে আমার কাছে তেমনটাই তো লিখেছি! বেতস লতার মতো নমনীয়।

হ্যাঁ ... দেখা হবে সবার সাথে, এমন প্রত্যাশা তো করাই যায়! সেই সুন্দর প্রাণবন্ত একটি দিনের প্রতীক্ষা যেন ঘনিয়ে আসে কাছে।

ভালো থাকুন আর থাকুন অমন সহজ-সরল মনটি নিয়ে চিরকাল।

১৬| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:৫৬

শায়মা বলেছেন: ভাইয়া মোক্ষ লাভ কার কিসে হয় কেই বা তা জানে!!!!!!

তবে আমার একটা মহা বদভ্যাস বা সদভ্যাস যাই বলো আছে সেটা মানুষকে দেখে ফেস রিড মাইন্ড রিড করার মহা প্রচেষ্টা।এই অভ্যাস ব্লগে লেখালিখি করতে গিয়েও এসে যায় আর তাই গ্রাফোলজীর মত টাইপোলজী দেখে এক একজন মানুষকে এঁকে ফেলি। তোমাকেও এঁকেছিলাম মনে আছে!!!!! সেটাতে এক্কেবারে গোল্লা পেয়েছি মানে তোমাকে তো আমি ধরেই নিয়েছিলাম মোটাসোটা সুলতান টাইপ কোনো মোঘল বাদশা......

সেই টাইপোলজী দেখে তোমার কল্পনায় নিজে নিজেই ফেইল করে এই মহানন্দ মোক্ষ লাভ! তুমি যেভাবে লুকিয়ে থেকেছো ভেবেছিলাম ইহজীবনে কি আর তোমা দর্শন হবে!!! :( আর তাই দেখে খুশিতে চিৎকার ( টাইপে টিৎকার বলতে পারো) মানে আরে ভাইয়া!!!!!!!!! তুমি!!!!!!!!!!! এই টাইপ আর কি ভাইয়া!!!!!!! :) :) :)

তবে মাঝে মাঝে হেরে যাবার মাঝেও আনন্দ হয় জানোই সেটা আর তোমার কাছে হেরে গেলেই আমি খুশি! :)

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:২৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: শায়মা,



লুকিয়ে তো থাকিনি! জন্ম থেকেই তো উদোম হয়ে আছি যে ব্লগের মাঠে! :P তাহলে কি এখন হেড়ে গলায় গাইতে হবে - আমার হিয়ার মাঝে লুকিয়ে ছিলে, দেখতে তোমায় পাইনি.....? :((

আসলে, আমি যা, আমি তাই!

টাইপোলজী, ফেসলজী, লেখালজী নিয়ে কি আর মানুষ চেনা যায় তেমন করে? গেলে, এই অধমকে নিয়ে "সবলোজী"তে ফেলটুস মারতেন না। :||

হার মানা হারের আনন্দ নিয়েই একগুচ্ছ লিখে গেলেন। ভালো লাগলো এমন মসকরা করে লেখা মন্তব্যটি।

ক্ষীন হয়ে আসা আয়ুর বছরটির বাকী দিনগুলোর শুভেচ্ছা।

১৭| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:০৫

ফরিদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন: একটা ইশতেহার নিয়ে ভাবছিলাম। আপনার পোষ্ট দেখলাম, পড়লাম এবং উপভোগ করলাম। তা’ আপনার পোষ্ট অবশেষে আপনার মতই হলো।

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:৪৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: ফরিদ আহমদ চৌধুরী,



হা...হা...হা... আমার পোস্ট আমার মতো হবেনা তো কার মতো হবে?
ইশতেহার নিয়ে ভেবে সময় নষ্ট করে লাভ নেই। আমজনতার ইশতেহার নিয়ে কারোই মাথাব্যথা নেই।

নতুন বছরের শুভেচ্ছা, অগ্রিম।

১৮| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:২৬

দিশেহারা রাজপুত্র বলেছেন: প্রত্যেকের প্রসঙ্গে পড়তেই ভালো লাগল। কিন্তু আপনার প্রসঙ্গে কিছু লেখা নাই যে!

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:০৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: দিশেহারা রাজপুত্র,



নিজের প্রসঙ্গে নিজে লেখা মনে হয় শোভনীয় নয়।
তবে ব্লগ নিয়ে আমি যে কেমন মানুষ তা পোস্টের কবিতার মধ্যে দেয়া আছে।

ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্যে। নতুন বছরের আগাম শুভেচ্ছা।

১৯| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:২৭

নীল আকাশ বলেছেন: ভাই, কি যে সুন্দর করে লিখলেন! বার বার শুধুই পড়তেই ইচ্ছে করে! চমৎকার প্রেজেন্টেশন।
সবাই কে নিয়ে এত সুন্দর করে লিখেছেন যেন মনে হচ্ছিল চোখের সামনে দেখতে পাচ্ছি।
ধন্যবাদ আপনাকে আর শুভ কামনা রইল!

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:০৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: নীল আকাশ,



সবার চোখের সামনেই তো তুলে ধরতে চেয়েছি। তা যে আপনার চোখে ধরা পড়েছে সে জন্যে ধন্যবাদ।

মন্তব্যে প্লাস ++

২০| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:৩৩

রাকু হাসান বলেছেন:

ব্লগ ডে নিয়ে দারুণ পোস্ট । যেন কাব্যিক সারর্মম । আপনার গত পোস্ট টি অনেক ভালো ছিল । আমি অর্ধেক পড়েছি । বাকিটাও পড়ার ইচ্ছা । ভালো থাকবেন ।

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:১৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: রাকু হাসান,



বেশ কিছুদিন পরে আপনার দেখা মিললো।
আমার গত পোস্টটি পুরোটাই পড়ে ফেলুন।

ভালো থাকুন আপনিও। আসছে নতুন বছরের আগাম শুভেচ্ছা।

২১| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:১৫

এ.টি.এম.মোস্তফা কামাল বলেছেন: খুব সুন্দর করে তুলে ধরলেন ব্লগ দিবসের মিলন মেলাকে। আমরা যারা যেতে পারলাম না তাদের বুকে এটা দীর্ঘশ্বাস হলো। যেটা আগামীতে যাবার প্রেরণা হবে। ভালো থাকবেন।

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:৫৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: এ.টি.এম.মোস্তফা কামাল,



ঢাকাতে বা আশেপাশে যারা ছিলেন তারা আসতেই পারতেন! হয়তো একটু কষ্ট হতো কিন্তু দীর্ঘশ্বাস পড়তো না।

মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ।
আসছে নববর্ষের শুভেচ্ছা।

২২| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:৩০

সাইন বোর্ড বলেছেন: এত অল্প সময়ে এতগুলো ব্লগারের ভেতরে ঢোকা চাট্টি খানি কথা না, সেই অসম্ভবকে আপনি সম্ভব করেছেন । দারুণ বিশ্লেষণ আপনার !

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:১৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: সাইন বোর্ড,




আমি মানুষকে বুঝতে চেষ্টা করি। এতে সময় লাগে বটে তবে মানুষের অঙ্গভঙ্গি, চোখমুখের ভাব, কথার গভীরতা, পরিবেশের সাথে তার একাত্মতার ধরন ইত্যাকার কিছু কিছু দেখে অল্প সময়েও একটা সিনোপসিস করা যায়।

দারুন এই মন্তব্যে প্লাস ++++

বিদায়ী বছরের শুভেচ্ছা।

২৩| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:৩৫

জাহিদ অনিক বলেছেন:

বাংলা ব্লগ দিবসের শুভেচ্ছা সবাইকে(দেরী করে যদিও)
সবাইকে নিয়ে যা যা লিখেছেন তা যেন না দেখেও মনে হছে সত্য সত্য।

আপনাকে লাইভে দেখেছিলাম, আপনি বড্ড অমায়িক মানুষ।
ভালো থাকুন সতত।

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:১১

আহমেদ জী এস বলেছেন: জাহিদ অনিক,



লাইভ হয়েছিলো কিনা আমি জানিনে। উপস্থিত সবার কথা মনোযোগ দিয়ে শুনতেই ব্যস্ত ছিলুম। খেয়ালই করিনি।
আশা করেছিলুম আপনাকেও।

ভালো থাকুন আপনিও।
ঝরে পড়া বছরটির রয়ে যাওয়া দিনগুলির শুভেচ্ছা।

২৪| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১২:২২

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: শুভেচ্ছা আপনার জন্যও

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:৩৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: সাদা মনের মানুষ,




সাদা মনেই আপনার শুভেচ্ছা গ্রহন করলুম।

২৫| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১২:২৫

বলেছেন: চমৎকার বর্ণনা


কি যে অবাক করা সুন্দর করে লিখলেন! -----
কবি আপনাকে ইমোতে লাইভ দেখেছিলাম,
আপনি বড্ড অমায়িক মানুষ--ঠিক আপনার কবিতার মতো -----------


সেলিম আনোয়ার আর কাওছার ভায়াকে বর্ণনা বর্ণনা দিলেন ---
শুভেচ্ছা ----

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:০০

আহমেদ জী এস বলেছেন: ল,



হা....হা...হা... ভালোই বলেছেন - "আপনি বড্ড অমায়িক মানুষ--ঠিক আপনার কবিতার মতো -----------"
কিন্তু তেমন একটি কবিতা যে কঠিন সত্যে মুড়ে হৃদয়ে ক্ষরণ এনে দেয়! তাহলে কি হলো!!!!!!!!!!!!!!

মন্তব্যে প্লাস +++

আসছে নতুন বছরের শুভেচ্ছা।

২৬| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১২:২৫

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: এককথায় অনবদ্য ! আপনার অনুভূতি প্রকাশ এবং সুন্দরভাবে পরিচয় করানোর জন্য। পোস্টে প্লাস ++

ব্লগ ডে তে আপনার সিম্প্লিসিটিতে আমরা অবাক ! যে এরকম ক্ষুরধার কমেন্ট এমন সরল মানুষের মনের মধ্যে কি করে আসে - তা ভেবে।

বিনম্র শ্রদ্ধা ও শুভকামনা জানবেন।


২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:১৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: পদাতিক চৌধুরি,




এমন করে বললে, কি আর বলা যায় আপনাকে! শুধু বলি- আপনার এমন ভালোবাসায় আটকে রইলুম কৃতজ্ঞতায়!
( আপনিও কিন্তু সরলতায় কম যান না!)

আসছে নববর্ষের আগাম শুভেচ্ছা।

২৭| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৩:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:



ছবি থেকে অনেক কিছু ধারণা করেছেন; অনেকটা সঠিক মনে হচ্ছে।

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:২৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: চাঁদগাজী,



ব্লগারদের ব্যাপারে আপনার নজরদারী ভালো লাগলো।
তবে ছবি থেকে কিছু ধারণা করিনি, সামনে থেকে যে কয়েক মূহুর্ত সময় তাদের সানিধ্য পেয়েছি তা থেকে করেছি।

২৮| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ ভোর ৪:১৫

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ব্লগ ডে'তে আপনার মত গুণীজনকে কাছে পাওয়া আমার জন্য ছিল দারুণ এক অনুভূতি। আপনার চনমনে ভাব আর সদা হাস্যজ্জ্বল মুখ মিলনমেলাকে পূর্ণতা এনে দিয়েছে। আপনি গুণী ব্লগারদের পাশাপাশি আমাকে নিয়েও নিজের আত্ম জিজ্ঞাসা আর ফিলোেসফির উপর নির্ভর করে লিখেছেন। বলতেই হয় আপনার চোখের দৃষ্টি সাধারণের দৃষ্টিকে সহজে পরাস্ত করতে সক্ষম।

আমার সম্বন্ধে যা লিখেছেন তা কতটুকু আমি ডিজার্ভ করি জানি না। তবে আমার ছোট্ট জীবন আর সামান্য বোধ থেকে যা জেনেছি তাই পরিচয় পর্বে বলার চেষ্টা করেছি। আমি বিশ্বাস করি, মাতৃভাষায় জ্ঞান অর্জনের কোন বিকল্প নেই। বিজাতীয় ভাষায় দীক্ষা নিয়ে হয়তো ভাষাটাকে রপ্ত করা যায়; কিন্তু প্রকৃত শিক্ষা অর্জন করতে হয় মাতৃভাষায়। কোন বিষয়কে শিকড় থেকে জানতে হলে মাতৃভাষায় জানতে হয়, বিজাতীয় ভাষা এক্ষেত্রে সহায়ক হতে পারে কিন্তু 'মাস্টার' অবশ্যই নয়। আপনি পৃথিবীর যেকোন দেশে তাদের ভাষা/বহুল প্রচলিত ভাষায় কথা বলতে না পারায়, লেখতে না পারায় লজ্জা নেই; কিন্তু নিজের মাতৃভাষায় যদি পড়তে, কথা বলতে আর লিখতে পটু না হন তাহলে এটা আপনার জীবনের সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা। হ্যা, সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা।

আমাদের দেশের ইংলিশ মিডিয়ামে পড়া ছেলে মেয়েদের বাংলা লেখা-পড়া ও শেখায় ভীষণ অনীহা! গার্ডিয়ানরাও তাই!! মাতৃভাষা না জানলে নিজের ভাষা, ইতিহাস, সংস্কৃতি, মা-মাটি আর দেশের প্রতি কখনো নাড়ির টান আসবে না। এ বিষয়গুলো সরকারের ভাবা উচিৎ। এসব স্কুল ইমিডিয়টলি বন্ধ করে দিতে হবে। না হলে প্রজন্ম শেষ হয়ে যাবে।

আর, আমি জীবনের ছোট্ট এ গন্ডিতে কিছুই অর্জন করতে পারি নাই। টুকটাক লেখালেখি করি মাত্র। কোন অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দিতে কিংবা সামনে বসা পাবলিককে অতিথি হয়ে উপদেশ দিতে কিংবা জ্ঞান বিতরণ করতে আমার বড্ড অনিহা। এজন্য কোন অনুষ্ঠানে দাওয়াত পেলে সবিনয়ে ফিরিয়ে দেই। কোন লেখক পারিষদ কিংবা লেখকদের আসরে যাই না নিজে এগুলোর যোগ্যতা অর্জন করিনি বলে।

আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, একজন লেখক/গবেষক/কবিকে যতটুকু সম্ভব পাবলিক মিটিং এড়িয়ে চলা বাঞ্ছনীয়। একজন লেখকের কাজ হলো নিভৃতে সমাজ-সংস্কৃতি নিয়ে নিজের ভাবনায় শান দেওয়া, নিজের ফিলোসফিকে যুক্তি দিয়ে আরো পরিপূর্ণ করে তোলা। আপনাকে কে চিনলো; কেন চিনলো না; এসব সস্তা পাবলিসিটিতে গা ভাসিয়ে দিলে চলবে না। নিজের কাজটি করতে হবে নীরবে, নিভৃতে। সময় ও কাজ একটা সময় আপনাকে মূল্যায়ন করবে।

ইতিহাস ঘাটলে দেখা যায়, পৃথিবী বিখ্যাত লেখক/দার্শনিকদের উল্লেখযোগ্য অংশ জীবিত থাকাকালীন মূল্যায়িত হন নাই। কিন্তু তাদের কর্ম হাজারো বছর ধরে তাঁকে বিশ্ব দরবারে পরিচিত করেছে। লেখকদের সস্তা পাবলিসিটির মানসিকতা পরিত্যাগ করতে হবে।

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৩৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: কাওসার চৌধুরী,



ভালো লাগলো, এই সুবিশাল মন্তব্যে আপনার বিনয়টুকু।

এটা একদম ঠিক বলেছেন, লেখকদের সস্তা পাবলিসিটির মানসিকতা পরিত্যাগ করতে হবে। একজন লেখক যখন অহেতুক হাততালি পেয়ে আত্মতৃপ্তিতে ভোগেন তখন তার সৃজনশীলতা মরে যায়। ভালো লিখিয়েরা অতৃপ্ত থাকেন জীবনভর।

২৯| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ ভোর ৪:২২

সচেতনহ্যাপী বলেছেন: সাড়া জীবনে একাই থেকে গেলাম :( থাকবোও বেচে থাকার শেষ দিনটি পর্যন্ত।।

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:১৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: সচেতনহ্যাপী,



হাযারো ভীড়ের মাঝেও প্রতিটি মানুষই বোধহয় একা থেকে যায়!

তা এতো দুঃখের কি হলো!!!!! :(


৩০| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৩৫

নীলপরি বলেছেন: শব্দ দিয়ে চিত্র সাজিয়ে দিলেন । খুব ভালো লাগলো বর্ণনা ।

শুভকামনা

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:৩২

আহমেদ জী এস বলেছেন: নীলপরি,



মন্তব্যে ভালোলাগা আমারও।

আসছে নতুন বছরের আগাম শুভেচ্ছা।

৩১| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:০৩

সোহানী বলেছেন: যাক্ অবশেষে স্বর্গালোকের কিছু দেব-দেবী মর্তালোকে ধরা দিলো। অনেক দিনের সম্পর্কের সূতোয় বাধাঁ কিছু প্রিয় মুখের দেখা পেলাম অবশেষে। নিজে উপস্থিত না থাকার দু:খটা লাঘব করছি চমৎকার লিখাগুলো পড়ে। প্রতিটা লিখার বিষয় একই হলেও উঠে এসেছে পারস্পরিক আন্তরিকতা, শ্রদ্ধা, ভালোবাসা, এক অদৃশ্য বন্ধন। ভার্চুয়াল জগতে এর চেয়ে বেশী আর কি চাই?

বেচেঁ থাকুক এ বন্ধন সবসময়, চিরদিন।

এবার আসি সবাইকে বিশ্লেষন নিয়ে। আপনি যেভাবে ব্যাখ্যা করেছেন বিশ্বাস করেন ঠিক সেভাবেই আমিও ভেবেছি। মানে যখন আমি কারো লিখা পড়ি তখন তাকে কল্পনায় একটা ছবি একেঁ নেই। আমার কল্পনার ছবির সাথে আপনার অভিজ্ঞতা বলতে গেলে অনেকটাই মিলে গেছে। তবে কিছু পার্থক্য আছে যেমন,

অপুকে ভেবেছি আরেকটু মধ্যবয়স্ক কেউ!
কাওসার ভাইকে ভেবেছি অনেক ভারিক্কি মানুষ।
নিমচাঁদ, রসায়ন বা সাইনবোর্ড এর সাথে কল্পনায় মিলে গেছে।
কাভা ভাই, অগ্নি সারথী ভাই, সেলিম ভাই, মনিরা, নাহিদ, বিগু, লিলিয়ান, প্রামানিক ভাইদের আগেই দেখেছি ফেবুতে।

আর আপনাকে কিন্তু আমি ভেবেছি .............হাহাহাহাহা তা কিন্তু বলবো না!!! সামনা সামনি দেখা হলে বলবো।

২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:৫৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: সোহানী,




ভার্চুয়াল জগতে এর চেয়ে বেশী আর চাওয়ারও কিছু নেই! আর ব্লগ লিখিয়েদের কিছুটা হলেও মুখের পরিচিতি থাকাটা সুবিধাজনক যাতে বোঝা যায় কাদের সাথে ব্লগে মতামত বিনিময় হচ্ছে।

আমাকে ভেবেছিলেন তো....তো....তো..। হে হে হে..... আমিও বলবোনা কি ভেবেছিলেন! ;)

বিদায়ী বছরের শেষদিনগুলোর শুভেচ্ছা দিলুম।

৩২| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪৭

রাজীব নুর বলেছেন: আমি ভীষন মিস করেছি। এই যন্ত্রনা এখনও আমায় কুড়ে কুড়ে খাচ্ছে।

২৭ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৩৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: রাজীব নুর,



আসার ইচ্ছে থাকলে মিস হতোনা আর না থাকার যন্ত্রনা কুড়ে কুড়ে খেতোনা। :||

৩৩| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:৩১

কথাকথিকেথিকথন বলেছেন:




খুবই চমৎকার এবং আন্তরিক বিশ্লেষণ । আয়োজনটির সফলতা কাম্য ছিলো এবং তাই হলো । লেখা পড়ে মনে হলো লেখক মানেই আন্তরিক এবং বিনয়ী ।

কবিতাটি চমৎকার লেগেছে । কাছে পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা এবং পেয়ে গেলেন এবং পেতে চান আরো ।

আপনাকে দেখলাম । বেশ সিরিয়াস ! হা হা!

২৭ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৫০

আহমেদ জী এস বলেছেন: কথাকথিকেথিকথন,




লেখক মাত্রেই আন্তরিক এবং বিনয়ী হওয়াটাই উচিৎ। কারন সে জীবনের কথা কয়!

সিরিয়াস তো বটেই। যে কারো কথা আমি সিরিয়াসলিই শুনি, কারো লেখা আমি সিরিয়াসলিই পড়ি এবং মন্তব্যও সিরিয়াসলিই করি। বাজে অভ্যেস বলতে পারেন।

একটি সুন্দর মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ।
আসছে নববর্ষের শুভেচ্ছা।

৩৪| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:১৫

স্বপ্নীল ফিরোজ বলেছেন:
খুবই ভালো্ আয়োজন।

২৭ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:০২

আহমেদ জী এস বলেছেন: স্বপ্নীল ফিরোজ,




আসলেই আয়োজনটা ভালোই আন্তরিক ছিলো!
শুভেচ্ছান্তে।

৩৫| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:৫৫

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: অবশেষে অপেক্ষা ফুরোল :)

দারুন কবিতাই বলে দিয়েছে অনেককিছু। আপনার সংবেদনশীলতা, অনুভবের গহন গভীরতা
ছবিগুলো সব মোটামুটি পেয়েছি । বসা হয়ে উঠছে না ইযার এন্ডিংয়ের চাপাচাপিতে!
আমার অনুভব প্রকাশ যাতনায় গুমড়ে মরছে!

চলে আসবো হুট করে এক সময় ঝাঁপি লয়ে!
সবার আন্তরিকতা অমূল্য, অতুলনীয়
মুগ্ধতার ঘোরেই স্পিচলেস হয়ে গেচিলাম জেনো!

অনেক অনেক ভাললাগা রইল প্রিয় আহমেদ জিএস ভায়!
এ হৃদ্যতা বাড়ুক শৈনে শৈনে
হৃদয়ের গহনে
আবার ফুল ফল হয়ে ঝড়ে পড়ুক
সামনের কোন মিলন দিবসে :)

২৭ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:৩৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: বিদ্রোহী ভৃগু,




"এ হৃদ্যতা বাড়ুক হৃদয়ের গহনে
আবারও ফুল হয়ে ফুটুক ব্লগ কাননে....."


শেষ হয়ে আসা বছরের বিদায়ী শুভেচ্ছা।

৩৬| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:০৫

জাহিদ হাসান বলেছেন: আমি কেমন?

২৭ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:০৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: জাহিদ হাসান,



আপনি ? আপনার মতোনই। নাদুস-নুদুস। আহ্লাদী। বাবা-মা'য়ের ছেলে। সহজ, সরল। জটিলতা বোঝেন না। জীবন সম্পর্কে অভিজ্ঞতা কম ( অবশ্য বয়সটাও তো কম )। সম্ভবত সুখের ভেতরে বসবাস।

শুভেচ্ছা আসছে বছরের। ভালো থাকুন।

৩৭| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৫৮

ব্লগার_প্রান্ত বলেছেন: সামনে, আপনার সাথে দেখা হবে!

২৭ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:১০

আহমেদ জী এস বলেছেন: ব্লগার_প্রান্ত,




সামনে!!!!!!! :||
কতোদূরে ? কয় মাইল নাকি গজ-ফুট ? B-)

হ্যাঁ... দেখা হয়তো হবে কখনও, কোথাও, কোনদিন............

৩৮| ২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪৭

অগ্নি সারথি বলেছেন: ভাই, মানুষের ভেতরটা ক্যামনে পড়ে ফেলেন আপনি? সত্যি বলতে কি, দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকা প্রোগ্রামটায় নিরাপত্ত্বার বিষয়টা খুব করে মাথায় আসছিল আমার। একই সাথে ব্লগারগনের উপস্থিতি একটা বিষয় ছিল।
তবু আমি অনেক খুশি জানেন, আপনাদের মত ব্লগারগনের স্বরব উপস্থিতিতে। আহমেদ জি এস নামের অন্তরালে এমন অমায়িক এবং আন্তরিক লোকটাকে দেখে আমি যারপরনাই আনন্দিত। ভালোবাসা জানবেন আমার অন্তরের অন্তস্থল থেকে ভাই।

২৮ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৫০

আহমেদ জী এস বলেছেন: অগ্নি সারথি,



যিনি পথ দেখান তিনিই "সারথী"। আপনি পথ দেখালেন, এবার হয়তো সামনের পথ আরও সহজ হবে।

এমন মন্তব্যে আনন্দিত এবং একই সাথে আপ্লুত।

বিদায়ী বছরের শুভেচ্ছা। ভালো থাকুন আপনিও।

৩৯| ২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:০৪

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: কি সুন্দর করে সবার কথা একে একে বলে গেলেন!আর সেই সাথে নিজের সুন্দর মনের পরিচয়ও রেখে গেলেন নিজের এই লেখার মাধ্যমে।
কবিতাটি খুব ভাল লেগেছে।
এমনই কোন এক আয়োজনে হয়তো আপনাকে দেখার সৌভাগ্য হবে।এত সুন্দর করে যিনি লেখেন।এত সুন্দর করে যিনি বলেন,তাকে দেখার ইচ্ছে ছিল মনের ভেতরে অনেক দিন থেকে।
তবুও ছবিতে দেখেই মন ভরল এখন তবে বাস্তবে না দেখার আক্ষেপ থাকবেই যত দিন না সরাসরি আপনাকে না দেখছি ভাইয়া।
এ ভাবে আরও অনেক বছর এই ব্লগ পরিবারে আমাদের পাশে ছায়ার মত থাকুন সে প্রত্যাশাই করি।

২৮ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:২৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: মোস্তফা সোহেল,



সেই আশা করেই তো গিয়েছিলুম যে অনেকের সাথেই হয়তো দেখা হবে এতোদিন ধরে যাদের যাদের সাথে অদেখা একটা আত্মীয়তা গড়ে উঠেছে ধীরে ধীরে !

নবীন কবির মতো বিনীত এই মন্তব্য ভালো না লেগে উপায় নেই। কৃতজ্ঞ হয়ে রইলুম।

৪০| ২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:৫১

সামিয়া বলেছেন: দারুন বর্ণনা, পড়তে পড়তে তো ইমোশনাল হয়ে গেলাম। সবার জন্য শুভকামনা----------

২৮ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:২৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: সামিয়া,




হায়রে!!!!!!!! ক্যামেরাখানা ব্যাগে ভরে নিয়ে এসে আপনিও তো পথে ঘাটের মতো করে আমাদের ছবি তুলতে পারতেন! ;)

আসছে বছরের শুভকামনা আপনার জন্যেও।

৪১| ২৬ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:০২

সুমন কর বলেছেন: ভিন্ন রকম এবং দারুণ পোস্ট। সবার সম্পর্কে দু-চার কথা যা লিখেছেন, পড়ে মুগ্ধ।
+।

০১ লা জানুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১০:২৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: সুমন কর,




নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়ে আপনার এমন মন্তব্যে ধন্যবাদ।

৪২| ২৭ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:২৪

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: সত্যি সেদিন দেরি করে যাওয়ায় আপনার সাথে পরিচয় পর্বটা মিস করেছি, যাক তবুও আপনি ছিলেন জেনে ভাল লাগলো।

০১ লা জানুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:১৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: তারেক_মাহমুদ,




এসেছিলেনই যখন পরিচয় হতে পারতো! হলোই যখন দেরী তখন বিলম্বিত দেখাটা হলেও ভালো লাগতো।

শুভেচ্ছা নতুন বছরের।

৪৩| ২৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:২৪

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনি আপনার উপস্থিতি এবং আপনার সাথে পরিচয় পর্ব সবকিছু ই ছিল আসলে ওহ মাই আল্লাহ !!!! বলার মত। আপনি নিঃসন্দেহে একজন লা জবাব, প্রশংসনীয়, অনন্য এক ব্যক্তিত্বের অধিকারী ভাইয়া। ব্লগ দিবসের অনুষ্ঠানে আপনার সাথে পরিচয়ের কয়েক মুহূর্তের অনুভূতি আমার জীবনের অন্যতম মুহূর্ত।

কী যে দারুণ মমতায় আর পরিপূর্ণতায় সবাই কে সাজিয়েছেন; অসম্ভব ভালোলাগা!! অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া আমাদের সাথে থাকার জন্য আমাদের হয়ে থাকবার জন্য।

০১ লা জানুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:৪১

আহমেদ জী এস বলেছেন: মনিরা সুলতানা,




এমন আন্তরিক মন্তব্যের জবাব আমার জানা নেই!
তবে " একটুকু ছোঁয়া লাগে...."র মতোই লেগেছিলো ব্লগারদের সাহচর্য্য।

নতুন বছরের শুভেচ্ছা।


৪৪| ৩১ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:২৩

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
দারুণ।

মুদ্ধ।

ধন্যবাদ।
++++++++++

০১ লা জানুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১২:১৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: মোঃ মাইদুল সরকার,




ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্যে।

শুভ নববর্ষ।

৪৫| ০৮ ই জানুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:৪১

ধ্রুবক আলো বলেছেন: খুব মিস করলাম। কাজে আটকে গিয়েছিলাম তাই উপস্থিত হতে পারিনি।

০৮ ই জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:১৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: ধ্রুবক আলো,




আসলেই মিস করেছেন। পরে এমনতরো কিছু হলে পুষিয়ে নেবেন।

৪৬| ০৯ ই জানুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৩

কঙ্কাবতী রাজকন্যা বলেছেন: শুভেচ্ছা সকলের জন্য।

০৯ ই জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:০৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: কঙ্কাবতী রাজকন্যা,



অনেক দিনের পরে!

ব্লগের পক্ষ থেকে বিলম্বিত ব্লগ-ডে ও নতুন বছরের শুভেচ্ছা আপনার জন্যেও।

৪৭| ১৫ ই জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ১১:০৪

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: পড়ে গেলাম মিলনমেলার সংবাদ, মুগ্ধ হয়েছি। আমারও কিছু কথা আছে দিনটি সম্পর্কে যা বলার একটা জায়গা পেলাম, কিন্তু এখন আর সময় কুলোচ্ছে না, পরে একসময় অবশ্যই বলে যাবো।

সবার হাসিমাখা মুখ টিকে থাকুক শতশত কোটি পেরিয়ে পৃথিবীর শেষদিন পর্যন্ত, টিকে থাকুক সামহোয়্যারইন ব্লগ সগৌরবে।
শুভকামনা সবার জন্য, আপনার জন্য শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা সবসময়।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:০৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন,



এখন তো ব্লগ দিনটি সম্পর্কে কিছু বলার একটা জায়গা পেলেন, সময় করে বলেই ফেলুন।

মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ।
ভালোবাসা আপনার জন্যেও।

৪৮| ১৮ ই জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ১১:২৮

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: হ্যা শ্রদ্ধেয় জায়গা পেয়েছি মনের অপূর্ণতা প্রকাশ করার মতো, কিন্তু .... তবুও বলেই যাই কিছু কথা

গত সতেরো সালে আমার পুষ্টিং নেত্রকোনা জেলার হাওড় অঞ্চলে ছিল, ডিসেম্বরে ব্লগে কোন এক পোষ্টে ব্লগদিনটির মিলন মেলার পোস্ট পড়েছিলাম, উম্মুক্ত আয়োজন ভেবে মনে মনে আফসোস করেছিলাম এইভেবে যে যদি আমার পোষ্টিংটি ঢাকায় হতো তাহলে কত প্রিয় মানুষগুলোর সাথে দেখা করা কথা বলার একটা সুযোগ ছিলো!
এখন আমার পোস্টিং ঢাকায়, এইবারও ডিসেম্বর নাকি নভেম্বর মাসে কার যেন ব্লগদিনটির নিমন্ত্রণ পড়েছিলাম আর মনে মনে ভেবেছিলাম যাক এইবার যাবো প্রিয় সব মানুষগুলোকে দেখবার জন্য যদিও মনে একটা সংশয় ছিলো যে অজ্ঞানী স্বল্পশিক্ষিত ও নিচু তলার মানুষ হিসেবে গুরুত্ব নয় নাই থাকলো আমার তবুও যাবো, না হয় দূর থেকেই দেখবো হাসিমাখা মুখ গুলো। হ্যা, মনে মনে স্থির করেই নিয়েছিলাম যে যাবোই, কিন্তু দেখেন কি দুর্ভাগ্য আমার নিজের পোস্টিং নিয়ে মানসিক অবস্থা এতই খারাপ ছিলো যে কোনকিছুই মাথায় ছিলো না, আমি নেটের বাইরেই ছিলাম এতদিন একরকম, মাঝেমধ্যে ফেসবুকে ঘুরলেও ব্লগে ঢুকে বেশি সময় থাকতেই পারতাম না, হঠাৎ পোস্ট রেখে বেরিয়ে পড়তাম। হারিয়ে গেল এত কাঙ্খিত দিনটি আমার বেখেয়ালে, মনেই ছিলো না নিমন্ত্রণের কথা, আমি হয়তো সেই পোস্টে মন্তব্য রেখেছিলাম যে যাবো, কিন্তু হলো না আমার যাওয়া! সেদিন আপনার ব্লগে এসে পোস্টি পড়েই মনে হলো কি হারিয়ে গেল এবারও আমার! খুব আফসোস হলো মনে মনে, এরপর কোথায় থাকি তার কি ঠিক আছে এইভেবে!

শুভকামনা জানবেন সবসময়

২৭ শে জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:৪৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন ,



কোনও কারন ছাড়াই দেরীতে দেখা ও এই প্রতিমন্তব্য দিচ্ছি বলে দুঃখিত।
সবার সব ইচ্ছেই তো সব সময় পুরো হয়না! আর ব্লগে "অজ্ঞানী স্বল্পশিক্ষিত ও নিচু তলার মানুষ..." বলে কিছু নেই। আমার তো মনে হয় ব্লগে সবাই সমান। ব্লগে উঁচু-নীচু ভেদ যিনি টানেন, ব্লগে তার আত্ননিবেদন নেই নয়তো প্রবেশাধিকার।

আশায় থাকি, আগামী দিনে ব্লগের কোনও এক মিলনমেলায় আপনার হারানো কিছু আবার যেন খুঁজে পান।

৪৯| ২৭ শে জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ১২:০৭

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আমার কাছে জটিল একটা ছবি আছে যেটা কারো কাছে নেই! ২১ তারিখের!
ভাবছিলুম আপনার কাছে পৌছে দিবু, কিন্তু কেমনে দেই ;)
আপনি একটা মেইল করুন Syedtaju[email protected]


২৭ শে জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:৩১

আহমেদ জী এস বলেছেন: সৈয়দ তাজুল ইসলাম,



ওয়াও .... তাই নাকি! তা এতো মহব্বতের কারনটা কি? ;) বিয়ের ছাদনা তলার আয়োজন হচ্ছে???? :P

করবো, হাতে সময় হলেই করবো.......................

৫০| ২৭ শে জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:৫১

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন:

সেটা হলে মাইক ভাড়া করে ব্লগে প্রোপাগান্ডা চালামু Boss ;) (সাহস কিন্তু আমার হেব্বি আছে কয়ে দিলুম, নিজের বিয়ের ঢোলটা নিজেই পিটামো =p~)



আমার কাছে একটা ফ্রেম আছে! ফ্রেমটার জন্য মেইলে জরিমানা পাঠিয়ে দিবেন! মেইলরা কিন্তু মধ্যখানে বসে নাস্তা করার অভ্যাস নেই সো জালিয়াতির পথ বন্ধ ;)


তারপর আপনি ভাল আছেন তো?

০১ লা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:৫৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: সৈয়দ তাজুল ইসলাম,



মন ফসকে এই মন্তব্যটির উত্তর দেয়া হয়নি! এখন এই উত্তরটা কিন্তু জালিয়াতি নয়... একদম হাচা! ;)

পাঠাতে ফ্রেম
হলো কি ভ্রম ? :||

৫১| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১২:৩৫

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: মেইল চ্যাক করুন ;) আর মিষ্টি পাঠান ;)

৫২| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৯:২২

উম্মে সায়মা বলেছেন: প্রিয় সব মুখ এক ফ্রেমে বন্দী দেখে খুব ভালো লেগেছে :)

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:৪৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: উম্মে সায়মা,




অনেকদিন পরে আপনাকে দেখেও ভালো লাগছে।

প্রথম ফাগুনের শুভেচ্ছা।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.