নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সবাই যখন নীরব, আমি একা চীৎকার করি \n--আমি অন্ধের দেশে চশমা বিক্রি করি।\n

গিয়াস উদ্দিন লিটন

গিয়াস উদ্দিন লিটন › বিস্তারিত পোস্টঃ

ইতালিতে এইচএসসি সমমানের পরীক্ষায়, প্রতি বিষয়ে ১০০ তে ১১০ প্রাপ্ত মাহিয়া আবেদিন রাখী (গুণীজন; একের ভিতর চার)

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ১২:৪০

প্রবাসে বাংলাদেশের রক্তের উত্তরাধিকারী গুণীগন-৪৩,৪৪,৪৫,৪৬ ।

৪৩/ ইতালিতে এইচএসসি সমমানের পরীক্ষায়, প্রতি বিষয়ে ১০০ তে ১১০ প্রাপ্ত মাহিয়া আবেদিন রাখি।



বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জের মেয়ে রাখী এখন ইতালীয় বাবা-মা'র সন্তানদের লেখাপড়ার রোলমডেল। সব ইতালীয় বাবা মার চাওয়া একটাই তাদের সন্তান যের রাখীর মতো পড়াশোনা করে সাফল্য নিয়ে আসে। রাখীর অসামান্য সাফল্য ইতালিয়ানদের দারুন আলোড়ন তুলেছে। এ এক অনন্য গৌরব।

ইতালিতে ২০১২ সালে ভিসেন্সা প্রভিন্সের চেক্কাতো দি মোনতেক্কিয় কলেজ থেকে এইচএসসি সমমানের পরীক্ষায় অংশ নেয় রাখী।
রাখীর ফলাফল সবার মাথা ঘুরিয়ে দেয়। ইতালির প্রায় সকল জাতীয় মিডিয়া ঘিরে ধরে তাকে। সবার আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে রাখী। তাকে নিয়ে এতো নাচানাচি আর গৌরবের কারণ একটাই-। পরীক্ষায় রাখীর অসাধারণ সাফল্য।

সে প্রতিটা বিষয়ে ১০০ তে ১০০ নম্বর পেয়ে গোটা ইতালিতে প্রথম হয়েছে। কেবল প্রথম হয়েছে বললে অবশ্য ভুল বলা হবে। ১০০ তে ১০০ নম্বর পেয়ে প্রথম বারের মতো ইতালির ইতিহাসে জাতীয় রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশের মেয়ে রাখী।

মজার ব্যাপার হচ্ছে ,রাখীর ১০০ তে ১০০ প্রাপ্তিতে আবিভুত হয়ে ইতালির প্রেসিডেন্ট জর্জ নাপোলিতানো তাকে সম্মানসূচক আরো ১০টি করে নম্বর বাড়িয়ে ১০০ তে ১১০ করে দিয়েছিলেন এবং রাখীকে প্রেসিডেন্ট ভবনে নিমন্ত্রণ করে বিশেষ পুরস্কার প্রদান করেছিলেন।

এক পরীক্ষাতেই ইতালি কাঁপানো রাখীর জন্ম জন্ম বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর থানার হালিমপুর ইউনিয়নের সাতবাড়িয়া গ্রামে। রাখীর বাবা জয়নাল আবেদিন। মা মাসুদা আবেদিন শান্তা।

ভবিষ্যতে কম্পিউটার বিজ্ঞানী হওয়ার স্বপ্নে বিভোর রাখী নিজের এই সাফল্য ধরে রাখতে চান। বাবা-মা আর দেশবাসীর স্বপ্ন পূরণে সকলকে গৌরবান্বিত করার মতো আরো বড় বড় সাফল্য বয়ে আনতে চান।



তথ্য সুত্র-এখানে


৪৪/ বিশ্বখ্যাত অপেরা শিল্পী - মনিকা ইউনুস



তার একটা পরিচয় হতে পারে তিনি নোবেলজয়ী ড. ইউনুসের বড় কন্যা। কিন্তু বাবার নোবেল জয়ের পর নয় বরং এর আগে থেকেই স্বনামে ও স্ব অবস্থানে নিজেকে বিখ্যাত করে ফেলেছেন নোবেলজয়ীমোহাম্মদ ইউনুসের বড় কন্যা মনিকা ইউনুস।

১৯৭৯ সালে চট্টগ্রামে জন্ম নেয়া মণিকার শৈশব কৈশোর আর বাড়ন্ত বেলার পুরোটাই কেটেছে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ায় । বাংলাদেশি-রাশিয়ান-আমেরিকান মনিকার মূল খ্যাতি একজন অপেরাশিল্পী হিসেবে। মনিকার মা ড. ইউনুসের সাবেক স্ত্রী ভেরা ফরোসটেনকো। ড. ইউনুস যখন ভ্যানডারবিল্ট ইউনিভার্সিটিতে পড়তেন তখনই ভেরা ফরোসটেনকোর সঙ্গে পরিচয় ও পরিণয়।

১৯৭০ সালের শুভ বিয়েটা খুব বেশিদিন টেকেনি। মনিকার জন্মের কয়েক মাস পরেই বিচ্ছেদ ঘটে। এরপর মনিকার মা ও তার মেয়ে যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যান। এরপর আর বাবার সানি্নধ্য পাননি মনিকা। তবে তার জীবন থেকে বাবার স্মৃতি মুছে যায়নি মোটেই। ছোটবেলা থেকে বাবাকে না দেখলেও মনিকা ২০০৪ সালে ড. ইউনুসের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। ২০০৫ সালে তিনি বাবার সঙ্গে দেখা করতে বাংলাদেশে বেড়াতে আসেন।

মায়ের সঙ্গে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্র চলে যাবার পর মনিকার শৈশব কেটেছে নিউ জার্সিতে নানানানির স্নেহে। ছোট বেলা থেকেই ইংরেজির পাশাপাশি রাশিয়ান এবং অন্যান্য শ্লোভিক ভাষায় লেখাপড়া চালিয়ে যান। তবে সঙ্গীতের ব্যাপারে মনিকার আগ্রহ তৈরিতে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা ছিল তার নানীর। বেশ ছোট বেলাতেই তিনি তাকে রাশিয়ান অর্থোডঙ্ গীর্জায় কোরাস গাওয়ার সুযোগ করে দেন।
সেই থেকে মনিকা ক্লাসিক্যাল মিউজিকের প্রেমে পড়েন।

আস্তে আস্তে জড়িয়ে যান অপেরা সঙ্গীতের সমৃদ্ধ সম্রাজ্যে। ২০০২ সালে জুলিয়ার্ড স্কুুল থেকে তিনি ভোকাল পারফরমেন্সে মাস্টার ডিগ্রী অর্জণ করেন। বর্তমানে নিউইয়র্কের বাসিন্দা মনিকা ইউনুস মানবিক সহযোগিতার জন্য তহবিল সংগ্রহকারি সিং ফর হোপের সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছেন।

তথ্য সুত্র-এখানে

৪৫/ ইউএস নেভিতে - আবু হেনা সাইফুল ইসলাম



বাংলাদেশি আবু হেনা সাইফুল ইসলাম। তিনি যুক্তরাষ্ট্র সামরিক বাহিনীতে প্রথম বাংলাদেশী। ১৯৬৩ সালে বাংলাদেশে জন্মগ্রহণকারী সাইফুল ইসলাম উচ্চতর শিক্ষার জন্য তিনি ১৯৮৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রে যান। পড়াশোনা করেন সাউদার্ন নিউ হ্যাম্পশায়ার ইউনিভার্সিটিতে।

১৯৯২ সালে অর্জন করেন এমবিএ ডিগ্রি। একই বছর তিনি যোগ দেন যুক্তরাষ্ট্রের মেরিন কোরে। তাকে ১৯৯৫ সালের শেষদিকে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব দেয়া হয়। তখন তিনি যুক্তরাষ্ট্র নৌবাহিনীতে নিয়োজিত। নাগরিকত্ব পাওয়ার পর তিনি নেভি চ্যাপলাইন কোরে দুই বছরের প্রশিক্ষণ করেন। এরপর ১৯৯৮ সালে তার সামনে সুযোগ আসে। তিনি এ বছর কমিশন লাভ করেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ ডবি্লউ বুশের খুব আনুগত্য পেয়েছিলেন।


তথ্য সুত্র-এখানে


৪৬/ ফোর্বস ম্যাগাজিনে প্রকাশিত ৪০ বছরের কম বয়সী ,পৃথিবীর সবচেয়ে সম্ভাবনাময় ৪০ জন ব্যক্তির তালিকায় পাওয়া - সালমান ।



যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে প্রভাবশালী ম্যাগাজিন টাইম প্রতিবছরই বিশ্বের ধনী, প্রভাবশালী, ক্ষমতাধর, উদ্যোক্তা প্রভৃতি বিষয়ক তালিকা প্রকাশ করে থাকে। আর এবছর টাইম ম্যাগাজিন নির্বাচিত বিশ্বের প্রভাবশালী ১০০ ব্যক্তির মধ্যে স্থান করে নিয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত সালমান খান।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, হিলারি ক্লিনটন কিংবা ধনকুবের ওয়ারেন বাফেটের মতো মানুষদের সঙ্গে তার নাম উচ্চারিত হওয়াটা বিস্ময়করই বটে। তবে এর আগেই খান একাডেমির মাধ্যমে নিজের যোগ্যতা ও অবস্থানের কথা বিশ্ববাসীর কাছে ভালোভাবোই জানান দিয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণ উদ্যোক্তা সালমান খান।

বেশ কিছুদিন ধরে গোটা বিশ্বই ভাসছে খান একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা সালমান খানের প্রশংসায়। আর সেই ধারবাহিকতাতেই টাইমের তালিকায় ওঠে এসেছে তার নাম। মজার ব্যাপার হলো টাইমের এই তালিকায় সালমান সম্পর্কে আর্টিকেল লিখেছেন স্বয়ং মাইক্রোসফট গুরু বিল গেটস।

সালমান অবশ্য নিজেও জানতেন না এভাবে ম্যাজিকের মতো বদলে যাবে তার জীবন। ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব আইটি (এমআইটি) থেকে তিন বিষয়ে স্নাতক আর হার্ভার্ড বিজনেস স্কুল থেকে এমবিএ শেষ করে তাঁর দিনরাত ব্যবসা জগতের জটিল হিসাব-নিকাশেই কেটে যেত সালমানের। এতে অবশ্য তার খুব একটা আফসোস ছিল না।

কিন্তু ছকে বাঁধা জীবনে বাদ সাধল ছোট্ট কাজিন নাদিয়া। অঙ্ক নিয়ে বড়ই হিমশিম খাচ্ছে সে। অগত্যা বড় ভাই সালমান সিলিকন ভ্যালির অ্যাপার্টমেন্টে বসে ইন্টারনেটে নিউ অরলিন্সে থাকা নাদিয়াকে অঙ্ক শেখানো শুরু করলেন। আস্তে আস্তে আরও অনেকে সালমানের কাছে পড়তে আগ্রহী হয়ে উঠল। এতজনকে কীভাবে একসঙ্গে শেখানো যায়! ভাবতে ভাবতে সালমান কিছু টিউটরিয়াল ভিডিও বানিয়ে ইউটিউবে আপলোড করে দিলেন। ঘটনাটা ২০০৬ সালের।

খুব অল্প সময়ের মধ্যেই দারুন জনপ্রিয় হয়ে ওঠলো ভিডিওগুলো। কিছু হবে বুঝতে পেরে ২০০৯ সালে সবকিছু ছেড়ে পরিপূর্ণভাবে আত্মনিয়োগ করে শুরু করেন 'খান একাডেমি'।

২০০৯ সালেই মাইক্রোসফটের পক্ষ থেকে সালমান লাভ করেন শিক্ষা ক্ষেত্রে প্রযুক্তি ব্যবহারের জন্য সম্মানসূচক পুরস্কার। ২০১০ সালে গুগল খান একাডেমির ভিডিওগুলোকে পৃথিবীর বিভিন্ন ভাষায় অনুবাদের জন্য ২০ লাখ ডলারের অর্থ সহায়তা প্রদান করে। একই বছর

ফোর্বস ম্যাগাজিনের প্রকাশিত ৪০ বছরের কম বয়সী পৃথিবীর সবচেয়ে সম্ভাবনাময় ৪০ জন ব্যক্তির তালিকায় নিজের স্থান করে নেন সালমান। বিল গেটসের উপস্থাপনায় টিইডি সম্মেলনে খান একাডেমি নিয়ে বক্তব্য দেন তিনি। শুধু বড় বড় পুরস্কার আর সম্মাননাই নয়, সালমান খান এক বৈপ্লবিক শিক্ষাপদ্ধতির সূচনা করে জয় করে নিয়েছেন সাধারণ মানুষের হৃদয়।

তথ্য সুত্র - উইকিপিডিয়া


পূর্বের পর্ব সমুহ- (অনেকটা ''বাঁশের চেয়ে কঞ্চি বড়'' অবস্থ্যা =p~

১/ রাশিয়ার শ্রেষ্ঠ জিমন্যাস্টিক রিতা
২/ ওবামার উপদেষ্টা , বিজ্ঞানী ড. এন নীনা আহমাদ
৩/ কানাডার ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির প্রেসিডেন্ট ও ভাইস চ্যান্সেলর ড. প্রফেসর অমিত চাকমা ।
৪/ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত জাপানি সুপার মডেল রোলা ।
৫/ বাংলাদেশি মেয়ে প্রিয়তি যখন 'মিজ আয়ারল্যান্ড' ।
৭/ ইউটিউব এর প্রতিষ্ঠাতা জাভেদ করিম।
৮/ বিশ্বের সেরা ৫০ উদ্যোক্তার একজন সুমাইয়া কাজী
৯/ পৃথিবীতে প্রেরণার আলোক ছড়ানো সাবিরুল
১০/জাতিসংঘের আন্ডারসেক্রেটারি জেনারেল আমিরা হক ।
১১/ সৌদি আরবের শ্রেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম
১২/ মার্কিন সেরা সংবাদ প্রযোজক তাসমিন মাহফুজ
১৩/ কাতার আমিরের উপদেষ্টা ডক্টর হাবিবুর রহমান ।
১৪/ ইউরোপে নিউক্লিয়ার গবেষণায় প্রথম বাংলাদেশি অনন্যা ।
১৫/ যুক্তরাষ্ট্রের বিদ্যুৎশক্তি গবেষণা ইনস্টিটিউটের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট -আরশাদ মনসুর
১৬/ কৃত্রিম মানব ফুসফুসের উদ্ভাবক; জিনবিজ্ঞানী আয়েশা আরেফিন টুম্পা
১৭/ বিশ্বের সেরা ৫০ বিজ্ঞানীর একজন , ড. আনিসুর রহমান ।
১৮/ নাফিস বিন জাফর - প্রথম অস্কারজয়ী বাংলাদেশি
১৯/ যুক্তরাষ্ট্রের ‘প্রেসিডেন্ট অ্যাওয়ার্ড ফর এডুকেশনাল এক্সেলেন্স’ বিজয়ী আনিকা জাহান
২০/ রাজশাহীর মেয়ে আনিকা পেলেন মার্কিন রাষ্ট্রপতি পুরস্কার
২১/ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের রূপকার কুমিল্লার কৃতিসন্তান রফিকুল ইসলাম
২২/ কোরিয়ার জনপ্রিয় চিত্রাভিনেতা সজল ।
২৩ / লন্ডনের সর্ববৃহত সেইন্সবারি চেইন শপের ব্যাগ ডিজাইনার বাংলাদেশী বালিকা শারমীন
২৪/ নেদারল্যান্ডসের ইউরোপীয় কালচারাল আর্ট ফেলোশিপ বিজয়ী বুননশিল্পী শফিকুল কবির চন্দন
২৪/ নেদারল্যান্ডসের ইউরোপীয় কালচারাল আর্ট ফেলোশিপ বিজয়ী বুননশিল্পী শফিকুল কবির চন্দন

২৫/ ইউনেসকোর মহাপরিচালকের সিনিয়র স্পেশাল অ্যাডভাইজার - তোজাম্মেল টনি হক

২৬/ আমেরিকায় বায়ো-টেরোরিজম প্রতিহত করার পদ্ধতি আবিষ্কারক বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত মার্কিন বিজ্ঞানী ড. জাফরুল হাসান

২৭ / ব্রিটেনে প্রথম বাংলাদেশি নারী বিচারক - ব্যারিস্টার স্বপ্নারা খাতুন

২৮/ সানডে টাইমস অ্যাওয়ার্ড, ছোটগল্পের সংক্ষিপ্ত তালিকায় বাংলাদেশি তাহমিমা আনাম।

২৯/ যুক্তরাষ্ট্রে লিডারশীপ এ্যাওয়ার্ড বিজয়ী সামিহা উদ্দিন।

৩০/ দুর্ধর্ষ গতির রেসিং ট্র্যাকে বিশ্ব মাত করা জুবায়ের হক ।

৩১/ আমেরিকার ‘ইয়ং গভর্নমেন্ট সিভিল ইঞ্জিনিয়ার অব দ্য ইয়ার’ অ্যাওয়ার্ড বিজয়ী প্রকৌশলী আশেক রহমান ।

৩২/ কেমব্রিজ বিশ্ব বিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. জামাল নজরুল ইসলাম - যার গ্রন্থ কেমব্রিজ, অক্সফোর্ড, প্রিন্সটন, হার্ভার্ডসহ নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠ্য ।

৩৩/ বিশ্বের প্রথম সোশ্যাল স্টক একচেঞ্জ প্রতিষ্ঠা করেছেন বাংলাদেশি নারী -দূরীন শাহনাজ

৩৪/ ফিনল্যান্ডের গণমাধ্যমে বাংলাদেশি তরুণের সাফল্য গাঁথা

৩৫/ আন্তর্জাতিক অলিম্পিয়াডে স্বর্ণপদক পেলেন ইশরাক

৩৬/ বাংলাদেশের মেয়ে শাহজা আলীর পেইন্টিং , কানাডার জাতীয় আর্ট প্রদর্শনীতে প্রথম ।

৩৭/ মাদ্রাসা থেকে ফাজিল পাস মুসলিমা এখন অস্ট্রেলিয়া ডুবুরিদের প্রশিক্ষক

৩৮/ অস্ট্রেলিয়ান মিনিস্টার অ্যাওয়ার্ড জয়ী সারা হোসেন ।

৩৯/ বৃটেনের শীর্ষ ধনী ইকবাল আহমদ
৪০/ ইটালির কোন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রথম ডিগ্রী প্রাপ্ত তাহমিদা ইসলাম তানিয়া
৪০/ ইটালির কোন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রথম ডিগ্রী প্রাপ্ত তাহমিদা ইসলাম তানিয়া

৪১/ অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশি শাকির করিম এর ট্যালেন্ট অ্যাওয়ার্ড ২০১৫ লাভ ।

৪২/ কৃত্রিম কিডনি আবিষ্কারক বাংলাদেশের বিজ্ঞানী ড. শুভ রায়

মন্তব্য ৮৮ টি রেটিং +১৪/-০

মন্তব্য (৮৮) মন্তব্য লিখুন

১| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ১২:৫১

প্রামানিক বলেছেন: প্রথম হইলাম

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৬:২৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পোস্টটি পাবলিশ এর সাথে সাথেই পাওয়ার ফেইল , তাই রিপ্লাই দিতে দেরি হল । অসংখ্য ধন্যবাদ প্রামানিক ভাই ।

২| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ১২:৫৯

জুন বলেছেন: সুযোগ সুবিধা পেলে আমরাও যে মেধায় মননে কারো চেয়ে কোন অংশে কম নই তারই প্রমান আমাদের এই প্রবাসী বাংলাদেশিরা ।
শেয়ারের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ গিয়াসলিটন ।

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৬:২৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সুযোগ সুবিধা পেলে আমরাও যে মেধায় মননে কারো চেয়ে কোন অংশে কম নই তারই প্রমান আমাদের এই প্রবাসী বাংলাদেশিরা ।

যথার্থ বলেছেন জুন , আপনার জন্য শুভ কামনা ।

৩| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ১:১৪

কামরুন নাহার বীথি বলেছেন: বাংলাদেশ এদের মূল্যায়ন করতে পারে না! তাই সব মেধাই দেশের বাইরে চলে যায়।
যাক, তবুও এরা আমাদের বাংলাদেশের রক্ত, প্রতিনিধিত্ব করছে এই দেশের !!!
অনেক অনেক শুভেচ্ছা ভাই আপনাকে!

প্রামানিক ভাই প্রথম হয়েছে, চা খাওয়ান !!!! :D :D

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৬:৫২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: কামরুন নাহার বীথি , আমাদের দেশে গুণীদের মুল্যায়ন কম হয় বা ক্ষেত্র বিশেষে হয়না এটা সত্য ।
এর পেছনে যতটা না অর্থনৈতিক কারণ জড়িত তার ছেয়ে বেশি জড়িত রাষ্ট্রের কর্তাদের অদূরদর্শিতা ও আমলাতান্ত্রিক জটিলতা ।
প্রতিকূল পরিস্থিতিতে থেকে এদেশেও অনেকে নানা ক্ষেত্রে সফল হচ্ছেন , কিন্তু এরা রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা পান না ।
যার ফলশ্রুতিতে এদেশীয়দের অনেক আবিস্কারের প্যাটেন্ট বিদেশে চলে গেছে ।

সুন্দর মন্তব্যের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ ।

চা আপনাকে খাওয়াবো নাকি প্রামানিক ভাইকে ? :D :D :D :D

৪| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ২:২১

টয়ম্যান বলেছেন: ভাই উনারা আমাদের গৌরব ।

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:০০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সঠিক বলেছেন , মন্তব্যের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ টয়ম্যান ।

৫| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ২:২৯

লেখোয়াড়. বলেছেন:
আপনি খুঁজে খুঁজে কিভাবে বের করছেন এসব!!

এনারা সবাই আমাদের গৌরব।

আপনিও ব্লগের সৌরভ।

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:২০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: এনারা সবাই আমাদের গৌরব।

আপনিও ব্লগের সৌরভ।
হাহাহাহাহা
আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ লেখোয়াড়. ভাই ।

৬| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ২:৫০

সাহসী সন্তান বলেছেন: অনেক সুন্দর তথ্যবহুল এবং প্রানবন্ত পোস্ট! সাবলিল পোস্টের জন্য আপনাকে প্রানঢালা শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন! অবশ্যই আপনার পোস্টের উল্লেখিত ব্যক্তি বৃন্দ আমাদের গর্ব, বাঙ্গালি জাতির গর্ব!

সামান্য একটা টাইপিংয়ের ভুল পেলাম ভাই! সেটাকেই শুধরে দেওয়ার চেষ্টা করলাম! ভুল যে আমারও হয়না তা নয়, তবে শিরোনামের ভুলটা একটু বেশি দৃষ্টিকটু লাগে সেজন্য!

HSC (Higher Secondary School Certificate)-এর বাংলাটা 'এইসএসসি' না হয়ে হবে "এইচএসসি"! আশাকরি ভুলটা শুধরে নেবেন!

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:১৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমার ভুল ধরিয়ে দেয়াদের আমি সব সময় স্বাগত জানাই ,শিরোনাম সংশোধন করে দিয়েছি , শিরোনামে আরও একটা তথ্যগত ভুল আছে ,সাহসী সন্তান দেখি আপনি ধরতে পারেন কিনা ? হাহাহাহা । আপনাকে ধন্যবাদ ।

৭| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ২:৫২

সাহসী সন্তান বলেছেন: অনেক সুন্দর তথ্যবহুল এবং প্রানবন্ত পোস্ট! সাবলিল পোস্টের জন্য আপনাকে প্রানঢালা শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন! অবশ্যই আপনার পোস্টের উল্লেখিত ব্যক্তি বৃন্দ আমাদের গর্ব, বাঙ্গালি জাতির গর্ব!

সামান্য একটা টাইপিংয়ের ভুল পেলাম ভাই! সেটাকেই শুধরে দেওয়ার চেষ্টা করলাম! ভুল যে আমারও হয়না তা নয়, তবে শিরোনামের ভুলটা একটু বেশি দৃষ্টিকটু লাগে সেজন্য!

HSC (Higher Secondary School Certificate)-এর বাংলাটা 'এইসএসসি' না হয়ে হবে "এইচএসসি"! আশাকরি ভুলটা শুধরে নেবেন!

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:২৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: শিরোনাম শুধরে দিয়েছি , বাট পোস্টের শুরুতে ভুলটা রয়েই গেছে ।
উপরের রিপ্লাইয়ে আপনার জন্য একটা কুইজ দিয়েছে , ধরতে পারলে দুটো এক সাথে সংশোধন করে দেব =p~

৮| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৩:০১

অন্ধবিন্দু বলেছেন:
গিয়াসলিটন,

আপনার পোস্টগুলোতে চোখ রাখছি। খুব ভালো কাজ করছেন। কৃতজ্ঞতা।

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:২৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পোস্টে চোখ রাখছেন জেনে আনন্দিত , ''কৃতজ্ঞতা'' লিখে শরমিন্দা করলেন । আপনাকে ধন্যবাদ অন্ধবিন্দু ।

৯| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৩:০৬

প্রামানিক বলেছেন: ১০০ তে ১১০ নাম্বার পাওয়া মেয়েটিকে অভিনন্দন। ডঃ ইউনুসের যে আরেকটি মেয়ে আছে এটা ভুলেই গিয়েছিলাম। ধন্যবাদ আপনাকে। আপনার বদৌলতে অনেক কিছু জানা হচ্ছে।

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৩৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পুনঃ মন্তব্যের জন্য আপনাকে আবারো ধন্যবাদ প্রামানিক ভাই ।

১০| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৩:২৬

হামিদ আহসান বলেছেন: মাহিয়া অাবেদিন রাখীসহ সবাইকে অভিনন্দন ..

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:০২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনাকে ধন্যবাদ হামিদ আহসান ভাই ।

১১| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৪:০০

সচেতনহ্যাপী বলেছেন: শিরোনামে বোধহয় একটু ভুল আছে বলে মনে হয়েছলো।। তবে বিষয়বস্তুতে গেলে বোঝা যায় কেন।।
ডঃ ইউনূসের কিছু অজনা তথ্য জানলাম।।
বরাবরের মতই ভললাগার।।

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:০৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সচেতনহ্যাপী, শিরোনামে একটু মার্কেটিং পলিসি এপ্লাই করেছি :D :D :D :D

১২| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৪:০৭

কথাকথিকেথিকথন বলেছেন: দারুণ সব খবর জানলাম । মনটা খুশি হয়ে যায় ।

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:১৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: চমৎকার একজন কবির মন্তব্য পেয়ে ভাল লাগছে । আপনাকে ধন্যবাদ ।

১৩| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:০১

গেম চেঞ্জার বলেছেন: ১০০ তে ১১০? বাহঃ এক্সট্রা ট্যালেন্ট।

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:২৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: চমৎকার গল্পকার গেম চেঞ্জারকে ধন্যবাদ ।

১৪| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:২২

সাহসী সন্তান বলেছেন: ভুলটা যতদূর মনে হয় এইচএসসি/সমমান হবে! অথ্যাৎ এইচএসসি এবং সমমান দুইটাই একই শব্দ, এবং এর মাঝখানে একটা (/) চিহ্ন হবে!

যদি এটা হয় তাহলে বলবো আমি আগেই দেখেছিলাম। তবে দেখার আগেই আমার মন্তব্যটা প্রকাশ হয়ে যায়। মন্তব্য করার পরেই আমি ওটা লক্ষ করি! তাছাড়া তখন মোবাইল থেকে মন্তব্য করেছিলাম বলে আমি আর দ্বিতীয় মন্তব্য করতে চায়নি! ইতোমধ্যে দেখছেন মন্তব্য করেছি একটা আর হয়েছে দুইটা!

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৩২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আরেকটু সহজ করে দিচ্ছি ,তথ্যগত ভুলটা ব্র্যাকেটের ভিতর । B-)

১৫| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:২৭

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: আজকের পর্বটা অন্য গুলো চেয়ে বেশি ভাল লাগলো । তবে অপেরা সিংগার ব্যাপারটি আমার কাছে হাস্যকর মনে হয় ।তাদের চিৎকার চেচামেচিতে অনেকের কর্ণকুহর বিদীর্ণ হয় বলে আমার আশংকা । ;) !:#P

তবে একশতে একশ দশ ব্যাপারটি সত্যি মুগ্ধকর ।
তবে একটু বিনোদিত করি আমাদের ঢাবির সামাদ স্যার ৫০ নম্বরের পরীক্ষায় সর্বোচ্চ ত্রিশ নম্বর দিতেন মনে আছে ।তিনি এই মেয়েকে ১০০ তে দিতেন ৫৫ ।আমাদের স্যার গুলো এমন কেন? B-)


শুনেন লিটন ভাই আপনি ইদানিং যে হারে বিদেশে বাংলাদেশের ছেলে মেয়েদের কৃতিত্ব নিয়ে পোস্টাচ্ছেন । এগুলো পড়ে সব দেশ ছাড়া না হয় !!! ;)

পোস্টে +

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:৩৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: তাদের চিৎকার চেচামেচিতে অনেকের কর্ণকুহর বিদীর্ণ হয় বলে আমার আশংকা । ভাল বলেছেন সেলিম ভাই ।
এক সময় ব্যান্ডের গানকেও সবাই এরকম বলতো , আস্তে আস্তে গা সওয়া হয়ে গেছে ;)

সামাদ স্যারের কথা শুনে ভাল লাগলো ।
বিদেশ গেলেও তাঁরা আমাদেরই জন । গুণীরা যেখানে বসেই জ্ঞ্যানের চর্চা করুন না কেন , এতে উপকৃত হয় সারা বিশ্ব ।
সুন্দর মন্তব্যের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ সেলিম ভাই ।

১৬| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৩৭

সাহসী সন্তান বলেছেন: ভাই হাসতে হাসতে আমি আর নেই! :P একদমই লক্ষ করিনি! ওটা একের ভিতর পাঁচ না হয়ে হবে 'একের ভিতর চার'! কারন আজ আপনি একটা কম দিয়েছেন?

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৫৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ইউ আর সো ব্রিলিয়ানট !
সব কমেন্টের রিপ্লাই দিয়ে ওটাও সংশোধন করে দেব ।
আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ।
ও হ্যাঁ , গুগলের 'হল অব ফেম' পুরস্কার প্রাপ্তি সংক্রান্ত লিঙ্ক দিয়ে এসেছি , পেয়েছেন কি ?

১৭| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৩৯

কিরমানী লিটন বলেছেন: অভাগা বঞ্চিত জনপদের অনন্য গৌরবের মুখগুলি,যাদের মননের হাত ধরে একদিন আমরা আঁধার ডিঙ্গাব,এইসব উদ্ভাসিত মুখের দ্যুতি চোখের সামনে তুলে ধরার জন্য সশ্রদ্ধ অভিবাদন।সতত শুভকামনা জানবেন ...

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:৩৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: কাব্যিক মন্তব্যের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ মিতা কিরমানী লিটন ।

১৮| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:২৩

সাহসী সন্তান বলেছেন: ও হ্যাঁ , গুগলের 'হল অব ফেম' পুরস্কার প্রাপ্তি সংক্রান্ত লিঙ্ক দিয়ে এসেছি , পেয়েছেন কি ?

-যেই তথ্য সূত্র দিছেন হেইডার কোন তুলনা হয় না! দেইখা তো পুরা টাস্কি খাইয়া গেছি। এখন হাসুম ;) না কান্দুম |-) বুঝতাছি না! তবে আপনার তথ্য সূত্রের আগেই সেটা পোস্টে সংযুক্ত করা হয়ে গিয়েছিল! কারন আমি জানি আপনি ভুল বলেন কম! আর সেই বিশ্বাস থেকেই কাজটা এ্যাডভান্স করেছি।

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:৩৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমি এক্ষুনি আপনার পোস্টে যাচ্ছি , দেখে আসি ------------

১৯| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:৩৩

আহমেদ জী এস বলেছেন: গিয়াসলিটন ,



বরাবরের মতোই থাম্বস আপ .....

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৯:২২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অসংখ্য ধন্যবাদ আহমেদ জী এস ভাই ।

২০| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:৪২

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: কি বললেন ??? ব্যান্ড মিউজিক কোথায় আর কোথায় আপনের অপেরা সিঙ্গার । #:-S
অপেরা আমাকে কেউ টাকা দিলেও শুনবো না । গান গওয়ার সময় তাদের যে অবয়ব খানা হয় । মনে হয় এই বুঝি মরে গেল ।

হাজার দর্শক মন মাতাইয়া নাচেরে সুন্দরী কমলার গায়িকারে নিয়ে একটা পোস্ট দেন । মন্দ হবে না ।

আমার কিন্তু এখন দেশ ছাড়তে মন চায় ।

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৯:৩১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সেলিম ভাই , অপেরা সঙ্গিতটা আমাদের কাছে এখনো ভিন দেশি সংস্কৃতি , আমরা এখনো এতে অভ্যস্থ হইনি । আপনি বা আমাকেও
''কেউ টাকা দিলেও '' হয়তো আমরা এটা দেখতে যাবনা , আবার অনেকে সেখানে গাঁটের পয়সা খরচ করেই যাচ্ছে ।

বেটার কিছুর প্রত্যাশায় বিদেশ যান আপত্তি নাই বাট সামু ছেড়ে যাবেন না সেলিম ভাই =p~

২১| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৯:২৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সেলিম ভাই , অপেরা সঙ্গিতটা আমাদের কাছে এখনো ভিন দেশি সংস্কৃতি , আমরা এখনো এতে অভ্যস্থ হইনি । আপনি বা আমাকেও
''কেউ টাকা দিলেও '' হয়তো আমরা এটা দেখতে যাবনা , আবার অনেকে সেখানে গাঁটের পয়সা খরচ করেই যাচ্ছে ।

বেটার কিছুর প্রত্যাশায় বিদেশ যান আপত্তি নাই বাট সামু ছেড়ে যাবেন না সেলিম ভাই =p~

০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৯:৩২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: :D

২২| ০২ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ১১:১০

অগ্নি সারথি বলেছেন: অভিনন্দন রাখীকে।

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সকাল ৯:৪৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনাকে ধন্যবাদ অগ্নি সারথি ।

২৩| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ১২:২১

সাহসী সন্তান বলেছেন: সবাই কিন্তু সেই ভুলটাই এখনও পড়ে যাচ্ছে ভাই? পাঠককূল পোস্টে এতটাই মুগ্ধযে ভুলটা মনে হয় কারোরই খুব বেশি চোখে পড়ছে না! আপনিও কিন্তু এখনও সেটাকে ঠিক করেন নি?

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সকাল ১০:৩৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক রাত পর্যন্ত ব্লগে ছিলাম , আপনাদের চমৎকার সব লিখা পড়তে পড়তে এডিট করার সময় পাইনি ।
এখন এডিট করে দিলাম , সাথে সকল পর্বের লিঙ্কও যুক্ত করে দিয়েছি ।
বিষয়টা রিমাইনড করে দেয়ায় সাহসী সন্তান আপনাকে আবারও ধন্যবাদ ।

২৪| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ১:০১

রোদেলা বলেছেন: মেধা চলে যাচ্ছে দেশের বাইরে।কিন্তু আমাদের যেন হাত পা বাঁধা।অনেক ধন্যবাদ সুন্দর তথ্য দেবার জন্য।

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সকাল ১০:৪৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ফাইনান্সিয়াল ও লজিস্টিক সাপোর্ট দিয়ে এঁদের ধরে রাখা গেলে দেশ উপকৃত হত । বিদেশে চলে গেলেও এঁরা এদেশেরই রক্তের উত্তরাধিকারী। সে সুত্রে আমরা কিছুটা হলেও গর্ব করার অনুষঙ্গ খুঁজে পাই ।
মন্তব্যের জন্য আপনাকেও ধন্যবাদ রোদেলা ।

২৫| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ১:১২

কলমের কালি শেষ বলেছেন: এরাই তো আমাদের গর্ব । পৃথিবী অবাক তাকিয়ে রয় ।

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ১২:১৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ @কলমের কালি শেষ ।

২৬| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৩:১৬

এ কে এম রেজাউ করিম বলেছেন:
আমার ছেলে যুক্তরাষ্ট্রে হাই স্কুল সিনিয়র যা আমাদের দেশের 'এইস এস সি' সমমানের ক্লাশ। সব বিষয় Straight "A" পাওয়া ছাত্র। গত সেমিষ্টারে তার ফাইনাল পরীক্ষাইয় সে কিছু বিষয় ১১০ ও ১২০ পাওয়া দেখিয়া আমিও বিস্ময়নিয়া তাহাকে জিজ্ঞাসা করিয়াছিলাম- তুমি ১০০'র মধ্যে ১১০ কিভাবে পাও ? সে বলিয়াছিল, দেখেন আব্বা, আমি আমাদের ক্লাশে সবচেয় সৌম্য ছাত্র হিসেবে পুরুষ্কার পাইয়াছি।

এ দেশে ছাত্র/ ছাত্রীদের ব্যাবহারের জন্যেও সেই ক্লাশে নন্মর দেওয়া হয়।

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৫:০৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: এ কে এম রেজাউ করিম ,ওসব দেশে যে সাধারন ছাত্রেরও ১০০তে ১১০ পাওয়ার বিধান আছে , আপনার কমেন্ট থেকে জানতে পারলাম । আপনাকে ধন্যবাদ নতুন অতিথি ।

২৭| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সকাল ৭:৩৯

টু-ইমদাদ বলেছেন: ইতালিতে্ও কি পরীক্ষার আগে প্রশ্ন পা্ওয়া যায়. . . !!!

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৫:৫১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আগে জানতে হবে , ইতালি'র শিক্ষা মন্ত্রী আমাদের এই আংকেল কিনা ?
টু-ইমদাদ , আপনার মন্তব্যটি আমার এই পোস্টের সেরা মন্তব্য , কোন পুরস্কারের ব্যাবস্থ্যা থাকলে ওটা আপনিই পেতেন B-)

২৮| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সকাল ১০:৪৭

Misuk Roy বলেছেন: শুভ কামনা রইলো রাখীরর প্রতি।

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৬:১৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার জন্যও শুভ কামনা নতুন অতিথি Misuk Roy ।

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৬:৪২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: Misuk Roy , আপনার ব্লগের প্রথম কমেন্টটা মনে হয় আমিই পেয়েছি । হাহাহাহা

২৯| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সকাল ১০:৫১

অন্ধকারে একজন বলেছেন: আপনার এই সিরিজ পড়লে সবসময়ই সুকান্তর একটা কবিতার মনে পড়ে আমার
"সাবাস বাংলাদেশ
এ পৃথিবী অবাক তাকিয়ে রয়
জ্বলে পুড়ে মরে ছারখার
তবু মাথা নোয়াবার নয়।"

৭ম +

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৬:১৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পাঠ ও প্লাসের জন্য সুকান্ত ভক্ত অন্ধকারে একজন কে ধন্যবাদ ।

৩০| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সকাল ১১:৫১

কাবিল বলেছেন: সবাইকে অভিনন্দন।
সেই সাথে আপনাকেও।

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ১:৫০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনাকে ধন্যবাদ কাবিল ভাই ।

৩১| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ১২:৪৩

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন: ধন্যবাদ বাংলাদেশের গুণীজনদের
সাতকাহন পাঠকের সামনে তুলে
ধরার জন্য।

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৪০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ''গুণীজনদের সাতকাহন'' এর পাঠক আরেক গুণী নূর মোহাম্মদ নূরু ভাইএর জন্য শুভ কামনা ।

৩২| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ১২:৫৩

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: উনাদের সাফল্যে বাঙালি তথা বাংলাদেশি হিসেবে গর্ব হয়, আবার কষ্টও হয় । এইসব মেধাবিরা যদি বাংলাদেশে থাকতেন, তাহলে দেশ কতদূরই না এগিয়ে যেতো ।

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:৪০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: দেশপ্রেমী , আশাবাদী রূপক বিধৌত সাধু , আপনাকে ধন্যবাদ ।

৩৩| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৩:২১

দ্যা ব্যাকডেটেড বলেছেন: মেয়েটি মেধাবী এতে কোনও সন্দেহ নেই। কারণ আমরা প্রশ্নপত্র ফাস করেও পুরো নাম্বার পাইনা।

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:৫০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমাদের সব মেধা প্রশ্ন পত্র ফাঁসের পিছনেই যায় ।

৩৪| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৫:১১

শতদ্রু একটি নদী... বলেছেন: রাখির সাফল্যের কথা জেনে খুব ভালোলাগলো। এটা সত্যিই অন্যরকম অর্জন।

পোস্টে ভালোলাগা রইলো। :)

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:৫৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ শতদ্রু ভাই ।

৩৫| ০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৬:৪৬

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: ভাগ্যিস রাখী এই দেশে নাই।

মেডিক্যাল ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয় নাই! :((

আসলে পরিবেশও বুঝি অনেক বেশি জরুরি বিষয় মেধা বিকাশে ! সেই যে ছোটকালে বেশী বুঝ!? বলে ধমকে মেধার বেড়ে ওঠাকে ছেটে দেয়া হয়- বাকী জীবনে দেশে আর তা শাখা মেলে না!
যারা ছড়িয়ে ছটিয়ে বিশ্বের এখানে সেখানে যেতে পেরেছে তাদের আলোতে বিশ্ব আলোকিত~ :)

++

০৩ রা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ১০:২৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: বিদ্রোহী ভৃগু , আপনি সঠিক বলেছেন। আসলে মেধা বিকাশের জন্য পারিবারিক পরিবেশ ও সামাজিক পরিবেশ জরুরী ।

আমাদের দেশে একটা শিশু ''না'' শব্দটা শুনতে শুনতেই বড় হয়।
এটা ধরা যাবেনা , এটা করা যাবেনা , থুথু দিবেনা , খামচি দিবেনা , কাদবেনা , দুষ্টামি করবেনা ইত্যাদি শুনে শুনে তাদের মনে নেতিবাচক এক প্রভাব পড়ে । যা পরে আর ইতিবাচক রূপে ফিরে আসেনা ।

৩৬| ০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ১:১৮

একজন একা বলেছেন: মাহিয়া আবেদিন রাখি নামে যাকে ছবিতে দেখিয়েছেন সেটা তো অন্য একজনের ছবি !!!!

০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৪:০১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: একটি নিউজ পোর্টালে মাহিয়া আবেদিন রাখি সংক্রান্ত নিউজ পরিবেষণের সাথে এই ছবিটি ছাপানো হয়েছে । রাখির অন্যান্ন
ছবির সাথে মিলিয়ে আমি চেহারায় তেমন কোন অমিল পাইনি ।
তারপরও অনাকাঙ্ক্ষিত বিতর্ক এড়াতে ও আপনার মতের প্রতি সন্মান জানিয়ে আমি ছবিটি সরিয়ে নিয়েছি , তদস্থলে একটা প্রামান্য ছবি যুক্ত করেছি , যাতে বাবা মায়ের মাঝে রাখিকে দেখা যাচ্ছে ।
আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ।

৩৭| ০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৫ সকাল ১১:৫৯

আমিনুর রহমান বলেছেন:



আপনার পোষ্ট পড়ে একটা ঘটনা মনে পড়ে গেলো। বলার লোভটা সামলাতে পারছি না। তখন আমি ক্লাস ফোরে পড়ি। ২য় সাময়িক পরীক্ষার রেজাল্টের দিন। আমাদের স্কুলে যে বিষয়ের ক্লাস যে স্যার নিতেন উনিই পরীক্ষার খাতা নিয়ে সবাইকে যার যার খাতা দিতেন। গনিতের স্যার ক্লাসে এলেন। একে একে উনি সবার খাতা যার যার নাম ডেকে দিয়ে দিলেন কিন্তু আমারটা দিলেন না। আমি তো অংকে খারাপ না তাও ভয় লাগছিলো স্যার আমাকে দিচ্ছেন না। এইবার আমার খাতে হাতে নিয়ে বলল তোমরা সবাই শুনো আমাদের জেসন (আমার ডাক নাম) ১০০ তে ১০৮ পেয়েছে। আমি বুঝলাম কোন একটা ঝামেলা হয়েছে। স্যার কি করবে কে জানে। যাইহোক স্যার বলতে লাগলো যে ১০০ তে ১০৮ পাওয়ার রহস্যর সমাধান করতে ২ দিন লেগেছে। আর সেটা হলো আমি পরীক্ষার প্রশ্নে ১২ অংক থেকে ১০টি দিতে বলা হয়ছিলো। আর আমি সেখানে ১১টা অংক দিয়েছিলাম :P স্যার নাম্বার দিয়ে যখন নাম্বার যোগ করতে যাচ্ছে ১০৮ হচ্ছিল। পরে অবশ্য শেষ অংকটা কেটে ৯৮ করা হয়েছিলো :)

আপনার সিরিজটা চমৎকার। পোষ্টে +

০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৪:৫৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সেম ঘটনা আমাদের এক শিক্ষকের বেলায়ও ঘটেছিল , ওই ঘটনায় উনাকে বোর্ড এক্সামিনি হিসেবে দুই বছরের জন্য সাসপেন্ড করেছিল । মন্তব্যের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ আমিনুর ভাই ।

৩৮| ০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ২:৪৬

হাসান মাহবুব বলেছেন: এই সিরিজটা পড়লে গর্বে বুক ভরে যায়। তবে কিছুটা ঈর্ষাও হয় :||

০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৫:১৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পোস্টে নজর রাখায় আপনাকে ধন্যবাদ হাসান মাহবুব ভাই ।

৩৯| ০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৫:০২

রাবার বলেছেন: বাংলাদেশি বিধায় তাদের জন্য গর্ব করি গিয়াসলিটন ভাই :)

০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৫:২১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ রাবার ।

৪০| ০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:২৩

চাঁদগাজী বলেছেন:



বিদেশে ভারতীয়, চীনা, কোরিয়া ও বাংগালী বাচ্চারা গড়ে স্হানীয়দের থেকে একাডেমীক্যালী ভালো করে; কারণ, তারা বেশী সময় পড়ে; এটা সাধারণ ব্যাপার।

০৪ ঠা অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:৫২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: যে সব বুড়োরা বিদেশ গেছে তারাওতো ভাল করছে চাঁদগাজী ভাই !!!
আপনাকে ধন্যবাদ ।

৪১| ০৫ ই অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৯:৩১

ঢাকাবাসী বলেছেন: খুব ভাল তথ্য, শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। খুব ভাল লাগল।

০৬ ই অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৫:১৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনাকে ধন্যবাদ ঢাকাবাসী ।

৪২| ০৬ ই অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৪২

মো: আশিকুজ্জামান বলেছেন: লিটন ভাই অনেক প্রতিভাবানদের খুঁজে খুঁজে বের করেন। আমরা তাদের র্কীতি জানতে পারি। জেনে ভাল লাগে। আপনি ভাল ছবিও আঁকেন।

Sketch Software টি সংগ্রহ করে আপনাকে দিতে পারিনি। সে জন্য দুঃখিত। Device এ ছবি আঁকার ইমেজ দিলাম। ভাল লাগলে দেখতে পারেন।

৪৩| ০৬ ই অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:০১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মো: আশিকুজ্জামান ভাই , আপনার ইমেজটা দেখে একটা ছড়া মনে পড়লো -
''এক যে বোকা শেয়ালে,
লাগলে খিদে মুরগী এঁকে দেয়ালে ,
আপন মনে চাটতে থাকে খেয়ালে ।''
হাহাহাহাহা ।
আপনার আন্তরিকতা আমার ভাল লেগেছে , শুভেচ্ছা নিন ।

০৮ ই অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:০০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ,

৪৪| ০৮ ই অক্টোবর, ২০১৫ সকাল ১১:৪৬

মো: আশিকুজ্জামান বলেছেন: লিটন ভাই ধন্যবাদ। ভাল থাকবেন।

০৮ ই অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ১:৩৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: চমৎকার কবি মো: আশিকুজ্জামান , আপনার জন্য শুভ কামনা ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.