নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সবাই যখন নীরব, আমি একা চীৎকার করি \n--আমি অন্ধের দেশে চশমা বিক্রি করি।\n

গিয়াস উদ্দিন লিটন

গিয়াস উদ্দিন লিটন › বিস্তারিত পোস্টঃ

আমেরিকায় সাত হাজার একর জমির মালিক বাংলাদেশি ডাঃ কালী প্রদীপ চৌধুরী।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১৫




প্রবাসে বাংলাদেশের রক্তের উত্তরাধিকারী গুণীগন -পর্ব - ১৬১ হতে ১৬৫।

১৬১/ নাসার বর্ষসেরা গবেষক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মাহমুদা সুলতানা



বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত গবেষক মাহমুদা সুলতানকে বর্ষসেরা উদ্ভাবক ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় মহাকাশ সংস্থা ন্যাশনাল অ্যারোনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে (নাসা)। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থাটি সুলতানার ন্যানো ম্যাটেরিয়াল নিয়ে গবেষণা ও মহাকাশে ক্ষুদ্র ও যুগান্তকারী ডিটেক্টর ও ডিভাইস তৈরির পদ্ধতি উদ্ভাবনের জন্য ২০১৭ সালে তাকে ‘আইআরএডি ইনোভেটর অব দ্য ইয়ার’ ঘোষণা করা হয়।যুক্তরাষ্ট্রের ম্যারিল্যান্ডে অবস্থিত নাসার গডার্ড স্পেস ফ্লাইট সেন্টারের ইন্টারনাল রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট নতুন ও গুরুত্বপূর্ণ উদ্ভাবনের জন্য প্রতিবছর এই পুরস্কার দিয়ে থাকে।



নাসার সাময়িকী Cutting Edge এর লেটেস্ট ইস্যুর প্রচ্ছদ প্রতিবেদনই করা হয়েছে মাহমুদাকে নিয়ে। তিন পৃষ্ঠার প্রতিবেদনে শুধু তাকে নিয়ে নাসার বিভিন্ন বিজ্ঞানীদের মুগ্ধতার বন্যা।
যেমন নাসা গডার্ডের চিফ টেকনলজিস্ট বললেন, এত অল্প সময়ে এত বেশি দক্ষতা সে দেখিয়েছে গবেষণা আর আবিষ্কারে, আমি শুধু কল্পনাই করতে পারি ভবিষ্যতে কি করবে। আমরা ভাগ্যবান যে সে আমাদের সাথে কাজ করতে এসেছিলো।কর্মকর্তা পিটার হিউজেস আরো বলেন, এ বছর মাহমুদা সুলতানার মতো মেধাবীকে ‘ইনভেন্টর অব দ্য ইয়ার’-এ মনোনীত করতে পেরে আমরা গর্বিত। মাহমুদা নাসার যে কয়েকটি কাজে অংশ নিয়েছেন, তার সবকটিতেই অসাধারণ সৃজনশীলতার পরিচয় দিয়েছেন। আমরা আশা করছি, চমৎকার নৈপুণ্যের কারণে শিগগিরই মাহমুদা নাসার একজন ন্যানো-টেকনোলজি বিশেষজ্ঞ হয়ে উঠবেন।



তার সহকর্মী, নাসার আরেক টেকনোলজিস্ট তাকে নিয়ে বলে, “মাহমুদার মধ্যে আমি একজন প্রফেশনাল তরুণীকে দেখি যে নাসাতে অনেকদুর যাবে।
চিফ টেকনলজিস্ট টেড সোয়ানসনও মনে করেন, একজন সফল আবিষ্কারক হবার সব গুণ আছে তার মধ্যে।
পুরস্কারের ঘোষণায় মাহমুদা সম্পর্কে বলা হয়, Mahmooda has distinguished herself as a tenacious, creative thinker, impressing virtually everyone with her technical acumen and drive” মূলত মহাকাশে সহজে ব্যবহার করা যাবে এমন ছোট ও যুগান্তকারী প্রযুক্তির যন্ত্র আবিষ্কারের জন্যই এ পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে।
২০১০ সালে MITথেকে কেমিকেল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পিএইচডি নেবার আগেই এক জব ফেয়ারে তিনি নাসার গডার্ড ডিটেক্টর সিস্টেম ব্রাঞ্চে জবের অফার পান। এর আগেই তিনি ইউনিভার্সিটি অফ সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়া থেকে কেমিকেল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে আন্ডার গ্র্যাজুয়েট করেছিলেন, ততদিনে কাজ শুরু করেছিলেন বিখ্যাত বেল ল্যাবরটরিতে রিসার্চ একাউন্টেন্ট হিসেবে।

মাহমুদা সুলতানা কিশোর বয়সে পরিবারের সাথে আমেরিকা যান। তার বড় চাচাও নাসার এমস রিসার্চ সেন্টারে ফিজিসিস্ট হিসেবে কাজ করেন। তাই ছোট বেলা থেকেই নাসার বিভিন্ন গবেষণা, অর্জন নিয়ে তার পড়াশুনা সম বয়সীযে কারো থেকে অনেক বেশী ছিলো, নাসাতে কাজ করার যে স্বপ্ন তিনি দেশে বসে দেখতে শুরু করেছিলেন, ২০১০ সালে সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে।
মূলত ন্যানো টেকনোলজি, 3D প্রিন্টিং, ডিটেক্টর ডেভেলপমেন্ট এসব নিয়েই মাহমুদার গবেষণা। MIT-এর সাথে মিলে কোয়ান্টাম ডট প্রযুক্তির মাধ্যমে বিভিন্ন আলো তরঙ্গ ডিটেক্টর নিয়ে গবেষণা করছেন তিনি। থ্রিডি প্রিন্টার আরো সহজ করার জন্যও তার আবিষ্কার ‘গ্রাউন্ড ব্রেকিং’ বলে বিবেচিত হচ্ছে।




পুরস্কার পাওয়ার পর মাহমুদা বলেন, যখন আমি প্রথম নাসা গডার্ডে আসি তখন গ্রাফিন নিয়ে গবেষণা প্রাথমিক পর্যায়ে ছিল। আমরা প্রতিদিনই গ্রাফিনের ব্যবহার করে থাকি। তবে মহাকাশেও কীভাবে গ্রাফিনের ব্যবহার করা যায়, আমি সেটাই চেষ্টা করেছি।
তার গবেষণার পরিধি আরো বাড়াতে চান বলেও জানিয়েছেন মাহমুদা।



উল্লেখ্য, বাংলাদেশি তরুণী মাহমুদা সুলতানা যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সাউদার্ন ইউনিভার্সিটির কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে উচ্চতর শিক্ষা নেন। এরপর তিনি ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি (এমআইটি) থেকে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ওপর পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।
মাহমুদা।
মাহমুদার গ্রামের বাড়ি ঈশ্বরদী জেলার সলিমপুর ইউনিয়নের জয়নগর গ্রামে।
Click This Link target='_blank' >সুত্র- এখানে


১৬২/ আমেরিকায় ৭০০০ একর জমির মালিক বাংলাদেশি ডাঃ কালী প্রদীপ চৌধুরী।




কালীপ্রদীপ চৌধুরী। বাংলাদেশের সিলেটের সন্তান। সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার দত্তরাইলে জন্ম তাঁর।জমিদার কালীপদ দত্ত চৌধুরী সন্তান কালী প্রদীপের ছেলেবেলা কেটেছে এখানেই। পড়ালেখা করেছেন সিলেটের এমসি কলেজে। তারপর কলকাতা থেকে এমবিবিএস পাস করে মালোয়েশিয়া, ইংল্যান্ড, কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে একাধিক ডিগ্রি অর্জন করে তিনি একজন বিশ্ব বরেন্য অর্থপেডিক চিকিৎসক।
ডাক্তার হিসেবে কর্মজীবন শুরু করলেও কালী প্রদীপ এখন আমেরিকার বরেণ্য ব্যবসায়ী। তার কেপিসি গ্র“প আমেরিকায় ৭ হাজার একর জমির মালিক। আছে ৩০ লাখ বর্গফুটের বানিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ।



তার মালিকানায় আছে ২৬টি বিশ্বমানের মেডিকেল কলেজ। তার গড়া হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলোতে কাজ করেন ৫ হাজার ডাক্তার, ১৩ হাজারের বেশি কর্মকর্তা-কর্মচারী। বিশ্বের ৮টি দেশে আছে তার কেপিসি গ্র“পের ব্যবসা। ভারতে আছে ১৬টি চা বাগান। যার একটি ৫০ হাজার একর আয়তনের।ইউক্রেনে আছে নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্ট। যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতে আছে ১০০০ শয্যা বিশিষ্ট ২৬টি বিশ্বমানের মেডিকেল কলেজ।ক্যালিফর্নিয়ায় কালী প্রদীপ চৌধুরী যে বাড়িতে থাকেন তার আয়তন সাড়ে তিন বর্গ কিলোমিটার।


এর বাইরে আছে বিশ্বের মোড়লদের সাথে সখ্যতা। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, রিগ্যান, জর্জ বুশ, সিনিয়র বুশ, হিলারি ক্লিনটন এরা তার নিয়মিত ডিনার সঙ্গী। তাঁর সম্মানে যুক্তরাষ্ট্রে ৫৫কি.মি দীর্ঘ সড়কের নামকরণ করা হয়েছে।

বিশ্বসেরা ধনীব্যক্তিদের একজন তিনি। কিন্তু ভুলেননি স্বদেশকে। সুযোগ পেলেই চলে আসেন বাংলাদেশে। তার নিজ গ্রামেই প্রতিষ্ঠা করেছেন ৩টি কলেজ, এর মধ্যে একটিতে আছে ৫টি বিষয়ে অনার্স কোর্স। কিন্তু কালী প্রদীপ অন্যভাবে স্বপ্ন দেখছেন। সারাদেশে আছে একটিমাত্র মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়। সিদ্ধান্ত নিলেন নিজ গ্রামে পৈতৃক সম্পত্তির ৩৫ একর জায়গা জুড়ে নির্মাণ করবেন বিশ্বমানের একটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।



মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র নির্দেশে অর্থমন্ত্রী এবং অর্থমন্ত্রীর সহোদর সাবেক রাষ্ট্রদূত একেএম আব্দুল মোমেন দায়িত্ব নিয়েছেন মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়টি তৈরীর। যেকোন মূল্যে জমিদার বাড়ির সম্পত্তির উপরই নির্মাণ হবে বিশ্বমানের মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়। দেশ-বিদেশ থেকে রোগীরা চিকিৎসার জন্য ছুটে আসবেন এখানে। প্রপিতামহ কালিকাপ্রসন্ন দত্ত চৌধুরীর স্বপ্ন বড় পরিসরে বাস্তবায়িত হবে এই স্বপ্ন দেখেন ডা. কালী প্রদীপ দত্ত ও সহোদরা তৃঞ্চা দত্ত। এদিকে বাংলাদেশ সহ বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম টাওয়ার নির্মাণের কাজ শুরু করেছেন ড. কালী প্রদীপ চৌধুরী।



রাজধানী ঢাকার পূর্বাচল এলাকায় ১৪২ তলা বিল্ডিং নির্মাণ করছেন ড. কালী প্রদীপ চৌধুরী। ড. কালী প্রদীপ দত্ত চৌধুরী টাওয়ার (কেপিসি টাওয়ার) নামের এই আইকন টাওয়ারটি শ্রীঘ্রই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করার কথা।যা হবে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম উচু ভবন।এর প্রস্তাবিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ৩২ হাজার কোটি টাকা।
এর পরই শুরু হবে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ। মেডিকেল বাস্তবায়ন সহ অন্যান্য কাজে এলাকার সকলের সহযোগিতা চান সিলেটের এককালের দাপটে জমিদার পরিবারের সন্তান ড. কালী প্রদীপ চৌধুরী ।
বাংলাদেশের নাগরিক ডা. কালী প্রদীপ চৌধুরীর সাফল্যে বাংলাদেশ আজ গর্বিত।

সুত্র- এক
সুত্র- দুই
সুত্র- তিন

বিজ্ঞাপন বিরতি- :P
* প্রবাসে বাংলাদেশের রক্তের উত্তরাধিকারী গুণীগন - পর্ব ১ হইতে ১৬৫ একসাথে পেতে----
* এই পোস্টের গুণীজনদের নিয়ে দুটি গ্রন্থ প্রবাসে বাংলাদেশী গুণীজন
ক্ষুদে জিনিয়াসদের কথা এখানে।


১৬৩/ অ্যালার্জির কারণ উদঘাটন করলেন বাংলাদেশি গবেষক ড. হায়দার আলী




অ্যালার্জি হওয়ার কারণ উদঘাটন করেছেন বাংলাদেশি গবেষক ড. হায়দার আলী। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত গবেষণা প্রবন্ধ ইউনিভার্সিটি অব পেনসিলভেনিয়ার (ইউপেন) এক জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।

চেক প্রজাতন্ত্রের রাজধানী প্রাগে আগামী ২৫-২৭ মে অনুষ্ঠিতব্য ‘ইউরোপিয়ান মাস্ট সেল অ্যান্ড বাসফিল রিসার্চ নেটওয়ার্ক ইন্টারন্যাশনাল মিটিং’-এ গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন ড. হায়দার আলী।

ইমিউন সিস্টেমের একটি ক্ষুদ্রাংশ ‘মাস্ট সেল’ আবিস্কার করে গবেষণা জগতে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন ড. হায়দার আলী। কারণ, এই সেল হচ্ছে অ্যালার্জি ও অ্যাজমার কারণ। ড. হায়দার আলীর গবেষণায় উদঘাটিত হয়েছে যে, ইমিউন সিস্টেমের একটি অংশ হলো মাস্ট সেল, যা রক্তে থাকে না, এটি থাকে টিস্যুতে।

সিলেটে জন্ম নেওয়া হায়দার আলী শৈশবেই যুক্তরাষ্ট্রে যান এবং সেখানেই লেখাপড়া করেন। তিনি পিএইচডি থিসিস এবং পোস্ট ডক্টরাল থিসিস করেন লন্ডনে। ১৯৯৮ সাল থেকেই তিনি মাস্ট সেল নিয়ে গবেষণা করছিলেন।

তিনি ইউপেনের প্যাথলজির অধ্যাপক এবং ইউপেন স্কুল অব ডেন্টাল মেডিসিনের ফ্যাকাল্টি এডভান্সমেন্ট ও ডাইভার্সিটির পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।


১৬৪/ ইউরোপিয়ান তরুণ গবেষক সম্মাননা পেলেন বাংলাদেশি মুকিত



পারকিনসন রোগের গবেষণায় অবদানের জন্য ইউরোপিয়ান ইনভেস্টিগেটর সম্মাননা পেয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ তরুণ গবেষক ড. মিরাতুল মুকিত। যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব ডান্ডিতে গবেষক হিসেবে কর্মরত মুকিত ।
প্রতিবছর ইউরোপিয়ান মলিকিউলার বায়োলজি অরগানাইজেশন ইয়ং ইনভেস্টিগেটর প্রোগ্রাম (ইএমবিও ওয়াইআইপি) শীর্ষক এ সম্মাননায় ইউরোপ, ইসরাইল, তুরস্ক সিঙ্গাপুরের গবেষকদের মধ্যে সবচেয়ে মেধাবী জনকে ভূষিত করা হয়। সম্মাননার পাশাপাশি ভবিষ্যতে আরো ভালো গবেষক হয়ে ওঠার জন্য একাডেমিক, ব্যবহারিক ও অর্থনৈতিক সুযোগ সুবিধা প্রদান করা হয়।
এমআরসি প্রোটিন ফসফরাইলেশন অ্যান্ড ইউবিকিটিলেশন ইউনিট প্রকল্পের ওয়েলকাম ট্রাস্ট ক্লিনিক্যাল গবেষক ছিলেন মুকিত। এটি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব লাইফ সায়েন্সের একটি অংশ। তার গবেষণা পারকিসন্স রোগের কারণ আরো ভালোভাবে বুঝতে সহায়তা করবে। নাইনওয়েলস হসপিটালের স্নায়ুবিদ পরামর্শক মুকিত। তিনি সেখানে মূলত অঙ্গ অকেজো হয়ে যাওয়া রোগীদের চিকিৎসা করেন।
সম্মাননার বিষয়ে মুকিত বলেন, আমি ইএমবিএ ওয়াইআইপি প্রোগ্রামে সংযুক্ত হতে পেরে খুশি। এখানে ইউরোপের সেরা গবেষকদের সঙ্গে মিথস্ক্রিয়ার সুযোগ মিলবে যা আমাদের গবেষণার প্রচেষ্টাকে ধারালো করে তুলবে। মুকিত আগেও ইউরোপিয় গবেষক দলের সঙ্গে কাজ করেছেন। ২০০৪ সালে পারকিনসন্স রোগের জন্য যে পিংকওয়ান জিনের মিউটেশন (পরিব্যক্তি) দায়ী তা আবিষ্কারকারী টিমের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি।
মুকিত ইউনিভার্সিটি অব ডান্ডিতে ২০০৮ সাল থেকে এই জিনের ওপর গবেষণা করছেন। তিনি দেখিয়েছেন, পিংকওয়ান জিনটির বিচ্যুতি কীভাবে পারকিনসন্স রোগ সৃষ্টি করে। তার এই কাজ পারকিনসন্সের বিষয়ে আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ ধারণা দিয়েছে।
তথ্য সূত্র: রাইজিং বি ডি ও ইত্তেফাক


১৬৫/ স্মার্ট চশমা আবিষ্কার করলো বাংলাদেশি গবেষক নাজমুল হাসান


বাঁয়ে নাজমুল হাসান, ডানে কার্লোস মাসট্রেঙ্গেলো

যুক্তরাষ্ট্রের `ইউনিভার্সিটি অব উথা` বাংলাদেশি ডক্টরাল শিক্ষার্থী নাজমুল হাসানকে সঙ্গে নিয়ে স্মার্ট চশমা তৈরি করেছে। এই গবেষণা কার্যক্রমের প্রধান হিসেবে রয়েছেন কার্লোস মাসট্রেঙ্গেলো। তাদের সফল গবেষণার কারণে সবচাইতে বেশি উপকার পাবেন, যারা রিডিং গ্লাস ব্যবহার করেন। কেননা দূরের কিছু দেখার জন্য তাদের চশমা খুলতে হত আবার কাছের কিছু পড়ার জন্য চশমা চোখে দিতে হত। কিন্তু এখন থেকে তার আর প্রয়োজন হবে না।

প্রধান গবেষক কার্লোস মাসট্রেঙ্গেলো বলেন, এখানে খুব সাধারণ কিছু প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। একটি ব্যাটারি, ক্ষুদ্র মটর এবং কিছু সার্কিটের সহায়তায় এই চশমাটি তৈরি করা হচ্ছে যা আপনার দৃষ্টির সঙ্গে ফোকাস করতে সময় নেবে মাত্র ১৪ মিলি সেকেন্ড।

চশমাটির প্রোটো টাইপ পরীক্ষা করে ফলাফল নিশ্চিত হওয়া গেছে। কিন্তু এটা কিছুটা ভারি। বর্তমানে এই চশমাকে সাধারণ চশমার মত কিভাবে হালকা করা যায় তা নিয়ে কাজ করছে এই গবেষণা দল।

উল্লেখ্য, নাজমুল হাসান বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজির সাবেক শিক্ষার্থী।


সুত্র - এখানে








মন্তব্য ৯০ টি রেটিং +১৯/-০

মন্তব্য (৯০) মন্তব্য লিখুন

১| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১৮

কঙ্কাবতী রাজকন্যা বলেছেন: সকল বাংলাদেশীদের গর্ব তারা।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৩৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সভ্যতার জোয়াল টানা এই সব বাংলাদেশীদের নিয়ে আমরা গর্ব করতেই পারী ।

২| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


অনেক কিছুই করছেন বাংগালীরা, এদের জন্য শুভেচ্ছা রলো।

তবে, ১৪২ তলা বিল্দিং কেন দরকার?

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৪০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ডাঃ কালী প্রদীপ চৌধুরীর সামর্থ আর দেশপ্রেম দুটোই আছে। তিনি হয়তো এই উপায়ে নিজের জন্ম ভুমিকে বিশ্বের কাছে পরিচিত করতে চাইছেন।

৩| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৪৩

ওমেরা বলেছেন: ভাল খবর শুনে ভাল লাগল । শেয়ারের জন্য ধন্যবাদ ভাইয়া ।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৪৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনিও ধন্যবাদ জানবেন ওমেরা।

৪| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৫৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


ডাঃ কালী প্রদীপ চৌধুরী কি বাংলাদেশ থেকে আমেরিকা এসেছিল, নাকি ভারত থেকে?

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:১৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সুত্র গুলি থেকে জদ্দুর জেনেছি তিনি বাংলাদেশি স্টুডেন্ট হিসেবে কলকাতায় পড়াশোনা করেছেন।

৫| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:১৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: গিয়াস উদ্দিন লিটন ,




অনেকদিন পরে আবার এই সিরিজটি খুললেন । ভালো লাগার মতোই সব খবরগুলো ।
এতো বিশাল কর্মকান্ড নিয়ে ডাঃ কালী প্রদীপ চৌধুরীর কথা এই প্রথম শুনলুম ।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:২৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সিরিজটি অনিয়মিত ভাবে চালিয়ে যাওয়ার ইচ্ছা রাখছি। প্রথম থেকে সিরিজটার সাথে আছেন দেখে ভাল লাগছে জি এস ভাই।

৬| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:২৫

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
গর্ব করার মতো কৃতিত্ব।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৪০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ নুরু ভাই ।

৭| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৩৪

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: সত্যিই উনারা বাংলাদেশের গর্ব। উনাদের অসাধারণ মেধা ও প্রতিভা দেখলে বিস্মিত হতে হয়। একটি অনগ্রসর দেশের এবং পশ্চাৎপদ সমাজের মানুষ হয়েও উনারা যা করেছেন এবং করে চলেছেন, তা' এক কথায় অভূতপূর্ব।

ডঃ মাহমুদা সুলতানা, ডাঃ কালী প্রদীপ চৌধুরী, ডঃ হায়দার আলী, ডঃ মিরাতুল মুকিত এবং নাজমুল হাসানকে স্যালুট।

ধন্যবাদ ভাই গিয়াস উদ্দিন লিটন।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমাদের দেশে মেধাবীর অভাব নাই । অভাব পরিবেশ, পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধার ।যথাযথ সুযোগ পেলে যে আমরাও পিছিয়ে থাকার পাত্র নই , যার প্রমান এই সব কীর্তি মানদের জীবন কাহিনী । সুন্দর মন্তব্যের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম ভাই ।

৮| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৪৩

নূর-ই-হাফসা বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ তথ্য গুলো জানানোর জন্য ।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:১২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনিও ধন্যবাদ জানবেন সিনিয়র ।

৯| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০৪

প্রামানিক বলেছেন: আহারে বাংলাদেশের মেধা সব বিদেশে পাচার হয়েছে।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:২৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: তাঁরা দেশে থেকে কি করবেন প্রামানিক ভাই?
ড জামাল নজরুল ইসলামের রচিত গ্রন্থ অক্সফোর্ড , ক্যামব্রিজে পাঠ্য। ইনি ৩ লাখ টাকা বেতনের চাকুরি ছেড়ে চিটাগাং ভার্সিটিতে ৪৫০০ টাকা বেতনে যোগ দেন। দেশ উনার জন্য কি করেছে?
জিমন্যাস্টিকের ওয়ার্ল্ড র্যাঙ্কিংয়ে ২ নম্বরে অবস্থান কারী মার্গারিতা মামুন একসময় বাংলাদেশের হয়ে আন্তর্জাতিক অংগনে অংশ নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন।
জবাবে বাংলাদেশ জিমন্যাসটিক ফেডারেশন - এ ধরণের একজন বিশ্বমানের খেলোয়াড়ের যে ধরণের সুযোগ-সুবিধা দেয়া দরকার তা বাংলাদেশ জিমন্যাসটিক ফেডারেশনের পক্ষে সম্ভব নয় বলে তার ভার বহনে অপারগতা প্রকাশ করে ।

১০| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০৫

সোহানী বলেছেন: অনেকদিন পর আসলেন এ সিরিজ নিয়ে। বরাবরের মতই ভালোলাগা।

আমরা অনেক প্রতিভাবান কিন্তু শুধুমাত্র সুযোগ পাই না বলে নিজেকে মেলে ধরতে পারি না।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৩১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সঠিক বলেছেন সোহানী দুয়েকটি ব্যতিক্রম বাদে , বাংলাদেশে মেধার যথাযথ মূল্যায়ন হয় না । মেলেনা মেধা বিকাশে পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা । তাই মেধাবীরা পাড়ি জমান বিদেশে ।
যথাজথ ক্ষেত্র পেয়ে মাদ্রাসা থেকে ফাজিল পাস মুসলিমা এখন অস্ট্রেলিয়া ডুবুরিদের প্রশিক্ষক , আর দেশে হাজার মুসলিমার যৌতুকের জন্য বিয়েই হচ্ছে না।
সিরিজটির প্রতি আন্তরিকতার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ।

১১| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৩৮

ফেরদৌসা রুহী বলেছেন: উনারা আমাদের গর্ব।

সুযোগ আর ইচ্ছা থাকলে মানুষ কোথা থেকে কোথায় যেতে পারে উনারা তার উদাহরণ।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৫১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন:
সুযোগ আর ইচ্ছা থাকলে মানুষ কোথা থেকে কোথায় যেতে পারে উনারা তার উদাহরণ।
সঠিক বলেছে রুহি আপু।

১২| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:০৭

মহামোহপাধ্যায় বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আপনাকে বাংলাদেশী মেধাবীদের খবর বলার জন্য।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:১৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনিও ধন্যবাদ জানবেন মহামোহপাধ্যায়।

১৩| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:১৪

মিথী_মারজান বলেছেন: ভাল লাগল বাংলাদেশের উজ্জল মেধাবী মুখগুলো দেখে এবং তাদের সম্পর্কে জানতে পেরে।
বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের মুখ উজ্জল করানো প্রত্যেকের জন্য রইল আমার বিনম্র শ্রদ্ধা।

২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:২৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ জানবেন মিথী_মারজান।

১৪| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:২৯

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ভালো সংগ্রহ !

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ৯:৫৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ মনিরা'পু

১৫| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:২১

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: এই মেধাবীরা বেশীরভাগ কেন যে, আমেরিকা-ইউরোপে আলো ছড়ান? একটু মধ্যপ্রাচ্যে যদি এদের নিয়ে মাতামাতি হতো তাহলে ইন্ডিয়ান, পাকিগুলো বুঝতো বাংলাদেশীরা খালি লেবারের কাজ নাকি আরো কিছু জানে?

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:০৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: বিচার মানি তালগাছ আমার, মধ্যপ্রাচ্যেও অনেকেই আছেন যেমন- কাতার আমিরের উপদেষ্টা ডক্টর হাবিবুর রহমান ,সৌদি আরবের শ্রেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম,
আলজাজিরার সাংবাদিক বাংলাদেশের মেয়ে শামিম চৌধুর্‌ই, লেবার থেকে ইঞ্জিনিয়ার ; অষ্টম শ্রেণী পাশ নুরুল আবছার খান মামুন , যিনি দুবাইয়ের মোবাইল কোম্পানি 'ঢু'এর নিজস্ব ভবনের আর্কিটেক্ট। দুখের বিষয় আমাদের দেশে এদের নিয়ে আলোচনা হয়েছে খুবই কম।

১৬| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:৪০

ফয়েজ উল্লাহ রবি বলেছেন: আপনার এই দুইটি বই কিন্তু আমার চাই চাই চাইই
জানুয়ারিতে দেশে আসবো তখন দেখা হবে ইনশাল্লাহ।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:১৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার আগ্রহ দেখে ভাল লাগলো । জানুয়ারিতে দেশে আসলে বই মেলা মিস করবেন না রবিদা। সেখান থেকে বইগুলি সংরহ করতে পারবেন। হয়তো দেখাও হয়ে জেতে পারে।

১৭| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:০১

ধ্রুবক আলো বলেছেন: অথচ এতো সুন্দর খবর গুলো মিডিয়া বা সোশ্যাল মিডিয়ায় হাইলাইট হয় না।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:১৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: কি অপরাধে কার কল্লা কাটা গেছে , আইএস আইএস এ কোন বাংলাদেশি যোগ দিয়েছে এসব কিন্তু বেশ হাইলাইট করে প্রচার করা হয় ।

১৮| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:০৪

ধ্রুবক আলো বলেছেন: সুন্দর পোষ্টটি প্রিয়তে নিলাম।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৩১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা ।

১৯| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৫৩

সম্রাট ইজ বেস্ট বলেছেন: মন ভাল করা খবর। এমন মানুষগুলো আমার দেশেরই একজন সন্তান ভেবে বুকটা গর্বে ভরে উঠল। এমন সুন্দর একটি লেখার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ গিয়াস ভাই।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৩২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার মন্তব্য ভাল লাগলো , অনেক ধন্যবাদ সম্রাট --

২০| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১:৫৬

সচেতনহ্যাপী বলেছেন: আমি না পারলেও আরেক বাংলাদেশীতো পারেন, সেই গর্বেই গর্বিত আমি।।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৩৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ সচেতনহ্যাপী

২১| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ৭:৩০

উম্মু আবদুল্লাহ বলেছেন: পড়ে খুশী হলাম।

বিশেষত কালী প্রদীপের নামে যে আমেরিকায় রাস্তার নামকরন হয়েছে তা তো জানতাম না। তার প্রসংগে বাংলাদেশের পত্রিকায় সেভাবে কোন খবর পড়েছি বলে মনে হচ্ছে না। যাই হোক, প্রবাসে থেকেও যারা বাংলাদেশকে ভোলেন নি তাদের প্রতি শুভ কামনা রইল।


২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৪৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: উম্মু আবদুল্লাহ আপনার জেনে ভাল লাগবে যে , এর আগে চট্টগ্রামের শ্রীচিন্ময় নামে একজন বাংলাদেশীকে সম্মানিত করার জন্য নিউইয়র্কের অভিজাত জ্যামাইকা অঞ্চলে একটি পথের নাম করণ করা হয়েছে শ্রীচিন্ময় স্ট্রিট।

২২| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ৯:১৪

হাসান কালবৈশাখী বলেছেন:
অভিনন্দন!
মাহমুদা সুলতানা,
ডাঃ কালী প্রদীপ চৌধুরী,
ডঃ হায়দার আলী,
ডঃ মিরাতুল মুকিত,
নাজমুল হাসান।

ধন্যবাদ লিটন ভাই।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৫১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনাকেও ধন্যবাদ জনাব হাসান কালবৈশাখী ।

২৩| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ৯:২২

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: সবার জন্য অনেক শুভকামনা রইল।
সুন্দর একটি পোষ্টের জন্য অনেক ধন্যবাদ লিটন ভাই।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৫২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মোস্তফা সোহেল ভাই , আপনাকেও ধন্যবাদ।

২৪| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৪১

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: বাংলাদেশের জ্ঞানী-গুনীদের তুলে ধরার জন্য অবশ্যই ধন্যবাদ গ্রহণ করুন।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৫৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মোঃ মাইদুল সরকার আপনার ধন্যবাদ গ্রহন করা হল B-) আপনাকেও ধন্যবাদ জনাব।

২৫| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১১:৫৮

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: অনেকদিন পর আবার গুনিজন্দের সাথে দেখা হল :)

এক অনন্য সিরিজের জন্য আপনিও এক অনন্য উচ্চাসন লাভ করলেন।
চলুক - - -

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:৪০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: উচ্ছাসনের দরকার নাই ভৃগু ভাই, আপনাদের সাথে পাচে রেখেছেন এতেই আনন্দিত।

২৬| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৩০

ভাইরাস-69 বলেছেন:

আমাদের চরাপাশে প্রতিটি মানুষের মধ্যে রয়েছে উদ্ভাবনার বীজ। কিন্তুু তবুও সবাই উদ্ভাবক বা আকিষ্কারক হয় না। এখানে বিজ্ঞানী মাহমুদা সুলতানা,ডাঃ কালী প্রদীপ চৌধুরী, ডঃ হায়দার আলী, ডঃ মিরাতুল মুকিত,নাজমুল হাসান সকলে আমাদের দেশে জন্য গর্ব। কিন্তু তাদেরকে দেশের মানুষ কত চেনেন? অথচ, খাপ ছাড়া কবিদের সকলে চেনেন-জানেন। পোষ্টের জন্য ধন্যবাদ জানবেন জনাব।



২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৪৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: দুঃখের বিষয় আমাদের মিডিয়ায় এদের কথা আসেনা। মিডিয়ায় আসে কে কোথায় চুরি চামারী করলো আর কার শিরোচ্ছেদ হল সেই খবর।
আপনাকেও ধন্যবাদ ভাইরাস-69 ।

২৭| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৩৪

শামচুল হক বলেছেন: বড় বড় মেধাগুলি সব বিদেশে মনে হচ্ছে।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৪৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: দেশে মেধার পরিচর্চা ও কাজের ক্ষেত্র নেই, এরা বাধ্য হয়ে প্রবাসী।

২৮| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৩৭

জাহিদ অনিক বলেছেন:

ভালো লাগলো, বাংলাদেশিরা শুধু বাংলাদেশেই কিছু করতে পারেন না, এদেশে মেধার মূল্যায়ন কম হয়।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৪৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সঠিক বলেছেন জাহিদ অনিক।

২৯| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:০৬

রাসেল উদ্দীন বলেছেন: কিছুদিন আগে কে যেন ব্লগের পোস্টে বলেছিলেন, বিদেশে বাঙালীদের মেথর মনে করা হয়। আপনার পোস্ট সেটার মিথ্যা প্রমাণ করেছে। যারা বাঙালীদের 'কাঙাল' বলে গালী দেয় তাদের মুখে চুনকালী লাগার মত খবর!

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৩২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: চমৎকার মন্তব্য করেছেন জনাব রাসেল উদ্দিন। আপনাকে ধন্যবাদ।

৩০| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:১৯

সাহসী সন্তান বলেছেন: এ ধরনের পোস্ট গুলো পড়ার পরে আসলে অটোমেটিক্যালি কিছু কথা ছাড়া সাজিয়ে বলার মত তেমন কোন শব্দ খুঁজে পাওয়া যায় না। কিন্তু প্রতিবারই 'ভাল্লাগছে, তথ্যভিত্তিক পোস্ট, উনারা আমাদের গর্ব, এ ধরনের মেধা এদেশে খুব দরকার' ইত্যাদি ইত্যাদি একঘেয়েমি কথা বলতেও ভাল লাগে না।

আমার ধারনা, কিছু পোস্টের ব্যাপারে অটো কমেন্ট সেকশন চালু করাটা এখন সামু কর্তৃপক্ষের কাছে আপামর ব্লগার সমাজের জন্য একটা সময়ের দাবি হইয়া দাঁড়াইছে! :|

আপাতত পোস্টটা যে আমি পড়ছি সেইটা জানাইয়া দিয়া গেলাম! আপনার ক্লাসে আমার রোল নাম্বার ত্রিশ। লাইকটা অবশ্য আনলাকি থার্টিনে পইড়া গেছে। টেনশন নিয়েন না, আগামীতে পোষাইয়া দেওয়ার চেষ্টা করুমনে... ;)

মাহমুদারে ভাল পাইলাম। দেশে আসলে যোগাযোগ রাইখেন তো ভাই! =p~

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৩৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: 'ভাল্লাগছে, তথ্যভিত্তিক পোস্ট, উনারা আমাদের গর্ব, এ ধরনের মেধা এদেশে খুব দরকার' এ জাতিয় কমেন্ট হলেও পেতে খারাপ লাগেনা। সুহৃদরা কিছু না লিখে ছোট্ট একটা ইমো দিলেও ভাল লাগে তাতে অন্তত বুঝতে পারি কে কে পোস্টটা পড়লো।
সরব উপস্থিতির জন্য ধন্যবাদ সাস ভাই।

৩১| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:১৪

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: অসাধারণ তথ্য সমৃদ্ধ পোষ্ট । বাংলাদেশি মেধাবী ও
আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কৃতিত্ব অর্জনকারী সকল ব্যক্তিত্বের
প্রতি রইল অভিবাদন ।

লেখাটি সরাসরি প্রিয়তে গেল ।

অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল ।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:০১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: প্রিয়তের জন্য কৃতজ্ঞতা। আপনার জন্যও শুভেচ্ছা ডঃ এম এ আলী ভাই

৩২| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:৩৫

তপোবণ বলেছেন: এই প্রতিভাগুলো যদি শুধু বাংলাদেশে পরে থাকত তাহলে তারা খুব বেশি হলে আ.লীগ আর বিএনপি হতে পারত। দেশে বাইরে আছেন বলে তারা বিশ্ব বরেণ্য হয়েছেন।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:০২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: এই প্রতিভাগুলো যদি শুধু বাংলাদেশে পরে থাকত তাহলে তারা খুব বেশি হলে আ.লীগ আর বিএনপি হতে পারত। দেশে বাইরে আছেন বলে তারা বিশ্ব বরেণ্য হয়েছেন। চমৎকার একটি মন্তব্য করেছেন তপোবণ । অনেক ধন্যবাদ জানবেন।

৩৩| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১০

কি করি আজ ভেবে না পাই বলেছেন: রম্য ভালৈছে.............

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: হাহহাহহাহ :D :D

৩৪| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১১

কি করি আজ ভেবে না পাই বলেছেন: আরে আরে আগের কমেন্টা আমার্নারে ভাই,শায়মাপু কৈছে...............

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: কইলেও কইতে পারে , শায়মা এখন আমার পোস্টে আসে না :P

৩৫| ২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:১৯

আল ইফরান বলেছেন: অনেক নতুন কিছু জানতে পারলাম।
আপনার এই সিরিজ পোস্টটি পড়া হয় মাঝেমধ্যেই কিন্তু মন্তব্য করা হয়ে ওঠেনি আলসেমি আর ব্যস্ততার কারনে।
http://www.bangladeshcircle.com/resources/bangladeshi-educators-abroad/
এই লিংকে গেলে আপনার লেখার অনেক রসদ পাবেন বলে আশা করি।
ভালো থাকবেন।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ মিঃ আল ইফরান ।
ওখানে ছবি গুলি বড় করে পেতে হলে কি করতে হবে ?

৩৬| ২৪ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১:১৭

Monkula বলেছেন: খুব ভালো।

২৪ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:২৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ Monkula

৩৭| ২৪ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ৮:৫১

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সুন্দর তথ্য বহুল পোস্ট। আপনার পোস্ট বাংলাদেশের মানুষের মনে উৎসাহ যোগাবে ভাল কিছু করা। কমপক্ষে মন প্রফুল্ল করবে ।

২৪ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:২৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সুন্দর মন্তব্য অনেক ধন্যবাদ সেলিম ভাই

৩৮| ২৪ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১১:২৭

মোঃ মঈনুদ্দিন বলেছেন: প্রিয় লেখক আপনার লেখার পাঠক হতে আমি ধন্য। বিশদ ও তথ্যবহুল লেখা। এটা প্রিয়তে রেখেছি। যতটুকু পড়েছি এতেই রোমাঞ্চিত হচ্ছি জেনে যে, আমরা বাংঙ্গালীরা অলস না হলে বিশ্ব আমাদের মুঠোর ভিতরই থাকতো। ধন্যবাদ। এরকম অনন্য সাধারণ বিদগ্ধজন আমাদের এ দেশেরই সন্তান জেনে খুশি হোলাম। লিখে চলুন সতত। হ্যাপি ব্লগিং।

২৪ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:২৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার মন্তব্যে অনুপ্রাণিত , অনেক ধন্যবাদ জানবেন মোঃ মঈনুদ্দিন

৩৯| ২৪ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:৫৪

জুন বলেছেন: কালী প্রদীপ দত্ত চৌধুরীর মত বিত্তবানরাই একদিন বাংলাদেশের অর্থনীতির উন্নতির হাল ধরার জন্য এগিয়ে আসুক সেই প্রত্যাশায় । যদি তারা মাতৃভুমিকে ভুলে না গিয়ে থাকে গিয়াস লিটন ।
+

২৪ শে নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৪২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: কালী প্রদীপ দত্ত চৌধুরীর মত বিত্তবানরাই একদিন বাংলাদেশের অর্থনীতির উন্নতির হাল ধরার জন্য এগিয়ে আসুক সেই প্রত্যাশায় । সুন্দর মন্তব্য ,সুন্দর প্রত্যাশা অনেক ধন্যবাদ জুন আপু

৪০| ২৪ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:০১

আল ইফরান বলেছেন: লিটন ভাই, এই ওয়েবসাইটে শুধু তাদের ছবির থাম্বনেইল ভার্সন দেয়া আছে।
বড় করে পেতে হলে তাদের পার্সোনাল পেইজ/ইউনিভার্সিটির পেইজে দেখতে হবে।
আমি ব্যক্তিগতভাবে এইখানের কয়েকজনকে চিনি যারা গত ডিসেম্বরে একটা কনফারেন্সে বাংলাদেশে এসেছিলেন এবং এইবারও আসবেন বলে আশা করছি।

২৪ শে নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৪:৪৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: জী , আমি উনাদের নাম সার্চ দিয়ে কিছু ছবি সংরহ করেছি। আপনাকে আবারো ধন্যবাদ আল ইরফান।

৪১| ২৫ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৫৪

এনসিয়েন্ট মেরিনার বলেছেন: অনেক কিছুই করছেন বাংগালীরা, এদের জন্য শুভেচ্ছা রইলো।

২৫ শে নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১১:১৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: কিন্তু অনেকের খবর আমরা জানিনা।এনসিয়েন্ট মেরিনার আপনাকে ধন্যবাদ ।

৪২| ২৫ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:৫১

পংখি রাজ বলেছেন: শুভেচ্ছা রলো

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৫৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ পংখি রাজ

৪৩| ২৮ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৫৪

জাহিদ হাসান বলেছেন: কালী প্রদীপ সাহেবের মত কপাল যদি আমার হত :(

২৯ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৫৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: জাহিদ হাসান কালী প্রদীপ সাহেবের কপালে কি শিং আছে :P

৪৪| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ২:৪৬

সুপ্ত শিপন বলেছেন: ভালো লাগলো।

০৫ ই মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:৫৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ সুপ্ত শিপন

৪৫| ২৯ শে জুন, ২০১৮ রাত ৯:২৫

রাজীব নুর বলেছেন: ১৪২ তালা ভবন বানানো কি শেষ হয়েছে?

০৪ ঠা জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সেটা জানিনা রাজিব ভাই

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.