নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সবাই যখন নীরব, আমি একা চীৎকার করি \n--আমি অন্ধের দেশে চশমা বিক্রি করি।\n

গিয়াস উদ্দিন লিটন

গিয়াস উদ্দিন লিটন › বিস্তারিত পোস্টঃ

রঙ্গ ভরা অঙ্গনে মোর-২

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৫




শুরুতেই একটা কৌতুক- একলোক কুড়িয়ে একটা চেরাগ পেল। ধুলাবালি মুছতে গিয়ে দেখে চেরাগ থেকে ধোঁয়ার কুন্ডুলি বেরুচ্ছে,সেই কুন্ডুলি থেকে বেরিয়ে এল এক বিশাল দৈত্য। স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে দৈত্যটি বলল-
-হুকুম করুন মালিক। আলাদীনের চেরাগের গল্প লোকটির জানা ছিল। সে ছিল ক্ষুধার্ত। দৈত্যকে বলল-
- আমি চায়নিজ খেতে চাই।
দৈত্যটি অনেক সময় পর ঘাড়ে করে একজনকে নিয়ে হাজির। লোকটি রেগে আগুন!
- এত দেরী হল কেন? তাছাড়া তুই এ কাকে ধরে এনেছিস?
দৈত্য জবাব দিল, আপনি চায়নিজ খেতে চাইলেন না? এ ব্যাটাকে পিকিং এর রাস্তা থেকে ধরে এনেছি, অরিজিনাল মাল। তাই একটু দেরী হয়েছে!

চায়নিজ নিয়ে এ নিছক কৌতুক এবার আসি বাস্তবের মিশেলে- একবার এক মার্কিন পদার্থবিজ্ঞানী ও গবেষক দিন কয়েকের সফরে চীনে গেলেন। সেখান থেকে ফেরার পর নিউইয়র্কের গবেষণাগারে ঢোকার পথে সিকিউরিটির বাধার মুখে পড়লেন সেই বিজ্ঞানী।
—কী ব্যাপার?
—আপনার শরীরের বায়ো-মেকানিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে হবে।
—মানে কী! আমার পরীক্ষা কেন করতে হবে?
—আলবৎ করতে হবে কারন আপনি চীন থেকে এসেছেন। ওরা আপনাকেই পাঠিয়েছে, নাকি আপনার একটা কপি পাঠিয়ে দিয়েছে; সেটা যাচাই করতে হবে !

হ্যাঁ, এই সন্দেহ অমূলক না। চীনা প্রকৌশলীরা মিসাইল থেকে শুরু করে মোবাইল, জাহাজ থেকে শুরু করে মশার কয়েল যে ‘কপি’ করে ফেলছে; তাতে সন্দেহ নেই। এক মোবাইলের কথাই ধরুন। মোবাইলের বাজারে একচেটিয়া বাণিজ্য করছিল ফিনল্যান্ডের নকিয়া,কোরিয়ার স্যামসাং জার্মানির সিমেন্স।
চায়না মোবাইল মার্কেটে ঢুকে নকল মোবাইল তৈরির মাধ্যমে। হেন কোন মোবাইল নাই যা তারা নকল করেনি। সে সময় মোবাইল ক্রেতাদের কাছে একটা আতংকের নাম ছিল ‘চায়না’। সবাই কেনার আগে শিওর হতে চাইতো-‘মালটা চায়নার নাতো?”

সে সময় একটা কৌতুক প্রচলিত ছিল, কিভাবে শিওর হবেন, আপনার সেলফোনটি made in China: কিনা?
লক্ষণ ১: পাঁচ মিনিটেই চার্জ ফুল দেখাবে।ছয় মিনিটে চার্জ এম্পটি।
লক্ষণ ২: ফোনে টিভি দেখা, রেডিও শোনা থেকে শুরু করে নেইলকাটার, গ্যাসলাইটার,কান খোচানী,পিঠ চুলকানী সবকিছুর সুবিধা আছে।
লক্ষণ ৩: টুটপিক,কটনবাড দিয়েও মেসেজ লেখা যাবে।
লক্ষণ ৪: কিছু সেপ্লিং মিস্টেক থাকবেই। যেমনঃ NokLa, blackderry, i-porn, samswag etc.
লক্ষণ ৫: একটা প্লেন উড়ে গেলে, মোবাইল শো করবেঃ "one missed call."
লক্ষণ ৬: রাস্তা দিয়ে ট্রাক গেলে, মোবাইল শো করবেঃ "charger connected."
লক্ষণ ৭: আপনার পাশ দিয়ে যদি কোন চাইনিজ হেঁটে যায়, মোবাইল শোকরবেঃ "one Bluetooth device found!"

চীনের সেই দিন আর নাই। এখন বিশ্বের বাঘা বাঘা ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস প্রস্তুতকারকদের সকল পণ্য তৈরি হচ্ছে চিনে। আলপিন থেকে ফোর্থ জেনারেশন জঙ্গিবিমান সব বানাচ্ছে চীন।
মাও-সে-তুং (চীনারা বলে মাও-জে-দং) এর আমলে চীনে ভয়াবহ দুর্ভিক্ষ দেখা দেয়। মাও টেলিগ্রাম পাঠালেন রাশিয়ার ক্রুশ্চেভকে : চীনে দুর্ভিক্ষ। দয়া করে খাদ্যদ্রব্য পাঠান।
ক্রুশ্চেভ উত্তর দিলেন : আমাদের নিজেদের অবস্থাও রীতিমতো সংকটজনক। তাই কোন খাদ্যদ্রব্য পাঠানো সম্ভব হচ্ছে না। পেটে পাথর বাঁধুন ।
মাও এর ফিরতি টেলিগ্রাম : জরুরি ভিত্তিতে পাথর পাঠান!

দুর্ভিক্ষে পেটে পাথর বাঁধার জন্য এক সময় যে চীনের পাথরও ছিল না সেই চীন এখন কয়েক দশকের ব্যবধানে গ্রেট ওয়ালের সঙ্গে সঙ্গে গ্রেট ওয়ালেটেরও মালিক। আমেরিকার ডিজনি স্টোর থেকে শুরু করে আমাদের অজো-পাড়াগাঁয়ের হেঞ্জু মিয়ার মুদির দোকান সব জায়গায় চীনের তৈরি পণ্যে ঠাসা।

চীনের শিল্পে উন্নতির ঘটনা বেশিদিন আগের নয়।প্রথম দিকে নকলসামগ্রী উৎপাদনকারী চীনের শিল্প নগরী তাঞ্জিন আর আমাদের জিঞ্জিরার উত্থান প্রায় একই সময়ে। ৮০ দশকে বাজারে প্রচুর জাপানি নকল ন্যাশনাল প্যানাসনিক,সনি টেপরেকর্ডার, ক্যামেরা,চার্জ লাইট,চার্জার ফ্যান আর রেডিও পাওয়া যেত যা ছিল জিঞ্জিরার তৈরী।

সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় তাঞ্জিনের শিল্প বিপ্লবের সুফল পৌঁছে গেছে চীনের ঘরে ঘরে। চীনা পণ্য 'মেড ইন চায়না' অথবা 'মেড বাই চায়না' সিলে গোটা পৃথিবী দাপড়িয়ে বেড়াচ্ছে।পাবলিকের নাক সিটকানো স্বভাব আর পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে আজ আমাদের জিঞ্জিরার সেই ঐতিহ্য আর অস্তিত্বই বিলীন।

চীনের সাফল্য আর আমাদের ব্যর্থতার ইতিহাস, গল্প বলতে গেলে এই পোস্ট কখনো শেষ হবেনা।লিখাটার রাশ টেনে ধরার সার্থে চীনের একটি চমৎকার আইনি তথ্য দিয়ে লিখাটা শেষ করছি।
চীনে ধর্ষণের শাস্তি ফায়ারিং স্কোয়াড়ে মৃত্যুদণ্ড। অভিযোগ দাখিল থেকে সাজা পর্যন্ত সময় লাগে তিন দিন।কোন ট্রায়াল নেই,আর্গুমেন্ট নেই, সাক্ষীমুক্ষি নেই।
ভিক্টিমের দেহে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেলে সেই আলামতের (সিমেন্স) সাথে ধর্ষকের ডিএনএ মিলিয়ে দেখা হয়, মিলে গেলেই- ধ্রিম ধ্রিম ফায়ার।

আর আমাদের দেশে?
প্রথমে জনে জনে ধর্না, প্রতিবাদ,মানব বন্ধন,মামলা, আসামী গ্রেফতার, তদন্ত,সমজোতার চেষ্টা, ঘুষ, ধমক,চমক,সংবাদ মাধ্যমে আলোচনা,আসামি রাজনিতীকরন, মেয়েটার চরিত্র নিয়ে গবেষণা,বোরকা পড়া ছিল না বোরকা ছাড়া,আসামীর জামিন, জামিনপ্রাপ্ত আসামী কতৃক ভীক্টিমকে ধর্ষণের পর হত্যা।

ধর্ষণের সংবাদে বাংলাদেশী মিডিয়া সয়লাব, চীনা পণ্যে সয়লাব বাংলাদেশী বাজার, হেন কোন পণ্য নেই যা চীন থেকে আমদানী হয়না। আচ্ছা, চীন থেকে আমদানী এত এত পণ্যের সাথে আমরা কি চীনে প্রচলিত ধর্ষণের সাজাটিও আমদানী করতে পারিনা?

কৃতজ্ঞতা- আবু হেনা আশরাফুল ইসলাম ভাই।

মন্তব্য ৬৬ টি রেটিং +১৪/-০

মন্তব্য (৬৬) মন্তব্য লিখুন

১| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৩

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: চীন :D

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: :D :D

২| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৫

পবিত্র হোসাইন বলেছেন: যে শিল্পের যত তাড়াতাড়ি বিপ্লব ঘটে সে শিল্প তত তাড়াতাড়ি বিলীন হয়

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ পবিত্র হোসাইন।

৩| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৫

জুন বলেছেন: সবকিছুর আগে সাঁজাটি আমদানি করা দরকার গিয়াস লিটন।
অসাধারণ সুন্দর লেখায় প্লাস।

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পাঠোত্তর মন্তব্য ও প্লাসের জন্য অনেক ধন্যবাদ জুন।

৪| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪১

চাঁদগাজী বলেছেন:


চীন যতটুকু করেছে, সোস্যালিজমকে কাজে লাগায়ে; জেনারেল জিয়া নোয়াখালীতে পপুলার হয়েছে গালাকাটা ক্যাপিটেলিজম চালু করে।

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: এই পোস্টে জিয়া ঢুকল কেমনে গাজী ভাই ? :D

৫| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


আলাদীনের প্রদীপের গল্ল শুনেছেন, ভেতরের দৈত্য তো দেখেন নাই; জিয়াও আজকের বাংলার পেছনের দৈত্য

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:০৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আলাদীনের প্রদীপের দৈত্য দেখিনি, জদ্দুর জানি দৈত্যটা পরোপকারী ছিল।

৬| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:১১

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: রম্য যেখানে কঠিন বাস্তব । ++
পোস্টে লাইক তৃতীয়তম।
বৈশাখী শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জানবেন।

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:১৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পাঠ,মন্তব্য ও লাইকের জন্য ধন্যবাদ সাথে আপনিও বৈশাখী শুভেচ্ছা নিন জনাব চৌধুরী।

৭| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:১২

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
এক সময় এসিড সন্ত্রাস বেড়ে গিয়েছিলো
দৃষ্টান্তুমূলক শাস্তি কার্যকর করার ফলে
এসিড সন্ত্রাস নির্মূল হয়েছে। ধষৃণ নিয়ন্ত্রণ হবে
যদি চীনের নীতি আমদানী করা যায়।

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:২০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: নুরু ভাই, আসলে সরকার চাইলে পারেনা এমন কোন কাজ নেই। সাম্প্রতিক নুসরাত হত্যাকারীদের দ্রুত সময়ে খুঁজে গ্রেফতার করাই এর বড় প্রমান ।

৮| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:২৮

শায়মা বলেছেন: পারি এবং আনা হোক চীনা জল্লাদ.....
এক কোপে নহে এক চপে আই মিন এক "karate chop" এই ধড় থেকে মাথা মাটিতে ..... :)

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:২৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধ্রিম ধ্রিম ফায়ারটাও মন্দ নয়।

৯| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:৩১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: সুন্দর পোস্ট। ভা‌লো লাগা জা‌নি‌য়ে গেলাম।

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:২৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন

১০| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:৩৩

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: লেখাটি আবার পড়লাম লিটন ভাই। আপনার সাবলিল লেখনী এবং লেখার বিষয়বস্তুই আমাকে প্রলুব্ধ করলো আবার পড়তে। ব্লগের অবস্থা যদি খারাপ না হতো, তাহলে এই লেখাটি বহু ব্লগার ও ভিজিটর পড়তে পারতেন। সত্যিই একটা খারাপ সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি আমরা।

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:২৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: 'আমরা যদি না জাগি মা কেমনে সকাল হবে?' তাই সারাক্ষণ চেষ্টা করি সামুতে লগইন করে থাকতে।
প্রেজেন্ট ৩৫ জন ব্লগারের মধ্যে ১৪ জনে মন্তব্য করে গেলেন, এও মন্দ কি? আশা করছি অচিরেই ব্লগের সুদিন ফিরে আসবে।
সুন্দর মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ জানবেন, আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম ভাই।

১১| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:৩৫

করুণাধারা বলেছেন: শুরু হয়েছিল কৌতুক দিয়ে, শেষটা আর কৌতুক থাকলো না- একটা সিরিয়াস প্রশ্ন নিয়ে আসলেন! আসলেই তো, চীন থেকে এতকিছু আমদানি করি, আর ধর্ষণের সাজার এই আইডিয়াটা কেন আমদানি করতে পারি না!!!! মনে হয় এটা করলে সমাজের গন‍্যমান‍্য অনেককেই ফায়ারিং স্কোয়াডে জীবন দেয়া লাগতো, তাহলে তো আবার দেশ অচল হয়ে যেত.....

মানানসই হয়েছে ছবিটা।+++++

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৩৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার মন্তব্যটা পড়ে 'ঠগ বাছতে গাঁ উজাড়' প্রবাদটি মনে পড়লো।
আশার কথা দেশে এমন প্রবাদও প্রচলিত আছে। 'দুস্ট গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল ভাল'।
সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ নিন করুণাধারা।

১২| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:০৬

শাহিন-৯৯ বলেছেন:



গতকাল রাত্রে ফেবুতে পড়েছিলাম, সময়ের কারণে মন্তব্য করা হয়নি, আমরা দুই নম্বর জিনিসগুলি আমদানিতে পক্ক যা দেশের বারটা বাজাতে পারে।
আমরা বিদেশী ব্যান্ড সংগীত আমদানী করে মানুষের কানের বারটা বাজিয়ে ছাড়ছি কিন্তু তাদের প্রযুক্তি উন্নয়নের জন্য নিরলস সাধনা আমদানি করি নাই। (ব্যান্ড সংগীতের উদাহরণ দিলাম কারণ এই গান আমার কাছে প্রচুর বিরক্তিকর মনে হয়)

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৪৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমাদের দেশের আইনগুলিকে যুগোপযোগী করা হয়নি, এখনো সেই মান্ধাতা বৃটিশ আমলেই পড়ে আছে।
মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ শাহিন-৯৯ (ফেবুতে কি নামে আছেন?)

১৩| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:০৬

জগতারন বলেছেন:
ধর্ষণের সংবাদে বাংলাদেশী মিডিয়া সয়লাব,
চীনা পণ্যে সয়লাব বাংলাদেশী বাজার,
হেন কোন পণ্য নেই যা চীন থেকে আমদানী হয়না।
আচ্ছা, চীন থেকে আমদানী এত এত পণ্যের সাথে আমরা কি চীনে প্রচলিত ধর্ষণের সাজাটিও আমদানী করতে পারিনা?


রাষ্ট্র ব্যাবস্থাপনার কাছে আমারও এই প্রশ্ন।

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৪৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ জগতারন।

১৪| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:০৬

জগতারন বলেছেন:
ধর্ষণের সংবাদে বাংলাদেশী মিডিয়া সয়লাব,
চীনা পণ্যে সয়লাব বাংলাদেশী বাজার,
হেন কোন পণ্য নেই যা চীন থেকে আমদানী হয়না।
আচ্ছা, চীন থেকে আমদানী এত এত পণ্যের সাথে আমরা কি চীনে প্রচলিত ধর্ষণের সাজাটিও আমদানী করতে পারিনা?


রাষ্ট্র ব্যাবস্থাপনার কাছে আমারও এই প্রশ্ন।

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৫০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ ।

১৫| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৩০

রাজীব নুর বলেছেন: লেখার শুরুতে আপনি যে কৌতুক দিয়েছেন সেটা আমি প্রথম পড়ি হুমায়ূন আহমেদের বইয়ে। বইয়ের নাম- তিথির নীল তোয়ালে

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৫১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমিও নিশ্চয় কোথাও পড়েছিলাম!

১৬| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৪৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আমাদের দেশে সেই আইন আসতে আসতে দেখা যাবে কপি আইন আসছে ঐ যে iphone na
i-porn

২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৫২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ মনিরা সুলতানা।

১৭| ২০ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১০:২৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: গিয়াস উদ্দিন লিটন,



লা -জওয়াব এমন একটি লেখা!
হাসি-ঠাট্টা যা দিয়েই লেখার শরীর ঢাকতে চেয়েছেন তার ভেতর থেকে কতো আক্ষেপ যে বেরিয়ে এসেছে, জানেন কি?
তেমন ভিসনারী কেউ একজন থাকলে জিঞ্জিরা আজকে এক চৌকস শিল্পনগরীর জায়গাটি দখল করে রাখতে পারতো।
আমার পোস্ট "বেকার ভাবনা" য়(সম্ভবত) আমি জিঞ্জিরাকে নিয়ে লিখেছিলুম। লিখেছিলুম- লুট করার জন্যে একটি প্রতিষ্ঠানের পেছনে হাযার কোটি টাকা ঋণ বরাদ্দ না করে ব্যাংক আর সরকারের উচিৎ জিঞ্জিরার ছোটখাটো হাযারো অবৈধ শিল্প-কারখানাগুলোকে সামান্য কিছু ঋণ বরাদ্দ করলে তারা এরোপ্লেনও বানিয়ে ফেলতে পারতো। চায়না পেরেছে আমরা পারিনি
পারবোও না কোনও দিন।

সামুর কৃপায় ও বদৌলতে কোন পোস্টের মূল লাইন কপি করা যায়না বলে উপরের জগতারনএর মন্তব্য থেকে আপনারই লাইনগুলো তুলে ধরার আবশ্যকীয়তা বোধ করছি---
ধর্ষণের সংবাদে বাংলাদেশী মিডিয়া সয়লাব,
চীনা পণ্যে সয়লাব বাংলাদেশী বাজার,
হেন কোন পণ্য নেই যা চীন থেকে আমদানী হয়না।
আচ্ছা, চীন থেকে আমদানী এত এত পণ্যের সাথে আমরা কি চীনে প্রচলিত ধর্ষণের সাজাটিও আমদানী করতে পারিনা?


কি বিচিত্র এই দেশ!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!


২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:০২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আহমেদ জী এস ভাই, হাসি, কৌতুক, মশকরা মূলত তিতা কথা গুলিকে সুগার কোটেড করার প্রচেষ্টা।
দেশের মঙ্গল নিয়ে আমজনতা যতটুকু ভাবে, ক্ষমতার কেন্দ্রে থাকা মানুষগুলি সেরকম ভাবে না। তারা চায় দেশে একের পর এক চাঞ্চল্যকর অপরাধ ঘটুক যাতে জনগণের দৃষ্টি সেদিকে থাকে।
সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ জানবেন।

১৮| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১:৪৫

বলেছেন: চীনারা ভাত, ডিম এগুলোর বিকল্প প্লাস্টিকের অরিজিনাল কপি মার্কেটে ছড়াচ্ছে -- চীনারা কেমন তা তো বুঝেও বুঝি না।।

ভালোলাগা রইলো।

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:০৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: চীনারা ভাত, ডিম এগুলোর বিকল্প প্লাস্টিকের অরিজিনাল কপি মার্কেটে ছড়াচ্ছে -- বিষয়টাকে আমার কাছে গুজব বলে মনে হয়। ৬ টাকার ডিম আর ৩৮ টাকা কেজির চাল নকল করে, ঝুঁকির কথা বাদ দিলেও অর্থমুল্যে পোষানোর কথা নয়।

১৯| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ২:০২

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: চালিয়ে যান।

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:০৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ জনাব মাহমুদুর রহমান

২০| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৭:০৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
শাস্তির ভয় যদি থাকতো তাহলে তো কেউ আর অপরাধ করতো না। দেশে শাস্তি যে একেবারে হয় না তাও নয়। হয়তো বিচার হয় ধীরগতিতে। ধর্মের ভয়ও একটা বিষয়। জানার পরেও যখন ধার্মিকেরা অপরাধ করে তখন খারাপ লাগে।

সবাই যদি ভালো হয়ে যেত।

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:০৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: কোন অপরাধের সাজা যদি ২০ বছর পরে কার্যকরী হয় সেটা অপরাধীদের উপর কোন রূপ প্রভাব ফেলার কথা নয়।
দরকার দ্রুত বিচার শেষ করা ও রায় দ্রুত কার্যকরী করার।

২১| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৮:৫১

নীল আকাশ বলেছেন: লিটন ভাই,
লক্ষন ৭টা কঠিন হয়েচে। হাসতে হাসতে শেষ।
হেন কোন পণ্য নেই যা চীন থেকে আমদানী হয়না।
আচ্ছা, চীন থেকে আমদানী এত এত পণ্যের সাথে আমরা কি চীনে প্রচলিত ধর্ষণের সাজাটিও আমদানী করতে পারিনা?
- ১০০% স হ ম ত।
দেশে এখন এটা ছাড়া আর কোনই উপায় নেই।
ধন্যবাদ।

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:১০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ৭ টা লক্ষণের ২/১টা সত্য হলেও বাকিগুলা নিছক হাস্যরস সৃষ্টির প্রচেষ্টা।
আপনার ভাল লেগেছে যেনে নিজেরও ভাল লাগছে, ধন্যবাদ নিন নীল আকাশ ।

২২| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:০৪

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: আমিও নিশ্চয় কোথাও পড়েছিলাম!

ইদানিং আমার কোনো কৌতুকেই হাসি পায় না কেন ??

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:১৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমারতো শোনা কৌতুক আবারও শুনতে ভাল লাগে।

২৩| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:০৫

Hafiz Anwar বলেছেন: গাজী এতটাই পাজী যে কখনোই লেখার সাথে সম্পৃক্ত কোন কমেন্ট করেনা।আবার ওর পোষ্টে যারা কমেন্ট করে সেই কমেন্ট এর যথাযথ উত্তর না দিয়ে জ্ঞান দেয়া শুরু করে।যত্তসব ফালতু।এর লেখা বা কমেন্ট পড়লে মনে পড়ে যায়,শয়তানও বড় জ্ঞানি।।।মোটকথা একে এতটুকু সুস্থ মস্তিকের মানুষ বলে মনে হয়না,যে কিনা ছোট্ট একটা ধন্যবাদের উত্তর দেয়ার স্বাভাবিক গুনক্ষমতা রাখে।

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:২০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: কে একজন বলেছিলেন,'উনি ব্লগের সেফাত উল্যাহ' । :P

২৪| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৪৭

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: পোস্টে +++++লন।

ধর্ষণের শাস্তি পুরুষাঙ্গ কেটে নেওয়ার বিধান করলে এক দিনেই সব অপকর্ম বন্ধ।

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:২১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধর্ষকের সাজা যত কঠোর আর বীভৎস হোক আমার সমর্থন থাকবে।

২৫| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:০৭

রায়হান চৌঃ বলেছেন: ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে লিন্গান্তর শব্দটা কে কাজে লাগানো হোক

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:২২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: --ন্তর ব্যয়বহুল, ওটা কর্তনই ভাল।

২৬| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ২:৩৮

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: সত্যম সুন্দরম পোস্ট
ভালো লাগলো

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৫০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ কাজী ফাতেমা ছবি।

২৭| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:০৩

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: আমারতো শোনা কৌতুক আবারও শুনতে ভাল লাগে।

এমন কোনো কৌতুক কি আপনার ভান্ডারে আছে, যেটা পড়লে হাসতে হাসতে মাটিতে গড়া গড়ি খাবো?

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৩১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: কৌতুকের মধ্যে লজিক তালাশ করলে কৌতুক আর কৌতুক থাকেনা। আবার কিছু কৌতুকের ভিতর লজিকের উপস্থিতি দেখে আপনি হেসে গড়াগড়ি যাবেন।
এরকম কৌতুক অনেক আছে, তবে আপনি হেসে গড়াগড়ি যাবেন কিনা সেটা নিশ্চিত নই।

২৮| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৩

সুমন কর বলেছেন: এ লেখা পড়লে, চীনা'রা এসে আপনাকে নিশ্চিত ফ্রী'তে চীনে নিয়ে যেত........
লেখাটা পড়ে মজা পেলাম। +।

২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: চীনের প্রাচীর দেখার শখ ছিল, নিলে ভাল হইতো।

২৯| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৫

হাবিব স্যার বলেছেন: পড়লাম আর মুগ্ধ হলাম...........

২২ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ হাবিব স্যার

৩০| ২২ শে এপ্রিল, ২০১৯ ভোর ৪:১৮

রডারিক বলেছেন: ভাই সুন্দর একটা লেখা লিখলেন। কৌতুক পড়ে এতো হাসলাম যে চোখে পানি এসে গেলো। প্রকৃত পক্ষ্মেই কিছু কিছু ক্ষেত্রে আমাদের বিচার প্রক্রিয়া সংক্ষিপ্ত করা উচিৎ।

২২ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমাদের দেশে সংক্ষিপ্ত বিচার ব্যবস্থাকেও দিরঘায়িত করা হয়।
খুনের আসামি ১৬৪ ধারায় দোষ স্বীকার করে জবানবন্ধি দেয়ার পর আরতো সাক্ষী,মুখীর দরকার নাই। কিন্তু দেখা যায় এর পরেও মামলার রায় দিতে আরও ১৫ বছর লাগে।

৩১| ২২ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৮:৪৬

সোহানী বলেছেন: একেই বলে আসল লেখক। গুরু গম্ভীর বিষয়ে হাস্য কৈাতুক বা হাসি ঠাট্টার মাঝে কঠিন কথা পাঠকের মাঝে ঢুকিয়ে দেয়া..... অসাধরন।

যাক, আসল কথা হলো আমরা যদি ভালো কিছু শিখতে চাইতাম তাহলে সেটা প্রয়োগই কোন সমস্যা ছিল না। আসলে আমাদের রন্ধ্রে রন্ধ্রে এমনভাবে পচন ধরেছে যে ভালো কিছু শেখার বা করার ইচ্ছেই নষ্ট হয়ে গেছে।

ও ভালো কথা, চীন কানাডাকে কিভাবে কানে ধরে ঘুরাচ্ছে সে কাহিনী কি জানেন? সে এক বিরাট ইতিহাস, কানাডার ছাইড়া দে মা কাইন্দা বাচিঁ অবস্থা।

২২ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: চীনের হুয়াওয়ের প্রধান অর্থ কর্মকর্তাকে আটক করে কানাডা, আপু কি এর পরবর্তি চৈনিক কর্মকান্ডের কথা বলছেন?
দেশের একটি পত্রিকা লিখেছে, বাঘে ছুলে ১৮ঘা, চীন ছুলে ৩৬ ঘা।
শুধু এক সেক্টরে উন্নতি নয়, কূটনৈতিক ভাবেও অত্যান্ত দক্ষ একটা দেশ চায়না।
মন্তব্যের প্রথম অংশ পড়ে শরম অনুভূত হলেও সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ নিন সোহানী।

৩২| ২২ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:০১

জুন বলেছেন: Justice delayed is justice denied" ইঊরোপের ইতিহাস পড়াতে গিয়ে আমাদের স্যার এই বানীটি বহুবার বলেছিলেন। তখন এর মর্মার্থ অতটা না বুঝলেও এখন হাড়ে হাড়ে বুঝতে পারছি। সাগর, রুনি, তনু, তকি, এমন হাজারো জন তাদের খুনের বিচারের দীর্ঘ প্রক্রিয়ায় শেষ পর্যন্ত বিচার না পাওয়ারই কান্না ভেসে বেড়ায় আকাশে বাতাসে। আর এই বিখ্যাত বানীটি আইন পেশার কারোই অজানা নয় গিয়াস লিটন।

২২ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমাদের দেশে চাঞ্চল্যকর অপরাধের আসামী গ্রেফতার হলে রিমান্ড, এর পরেই ম্যাজিস্টেটের সামনে জবান বন্ধী। দোষ স্বীকার করে জবান বন্ধী দিলেইতো বিচার প্রক্রিয়া শেষ । অথচ এর পরেও ১৭ থেকে ২৭ বছর লাগে মামলার রায় হতে। এই দীর্ঘসুত্রিতা থেকে আমাদের বেরিয়ে আসা দরকার।

৩৩| ২২ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১১:১০

আমি তুমি আমরা বলেছেন: iphone থেকে i-porn???!!!

২৩ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:২১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: :P :P

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.