নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

চলে যাব- তবু যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ, প্রাণপণে পৃথিবীর সরাব জঞ্জাল।

হাবিব স্যার

বিশ্বজোড়া পাঠশালা মোর, সবার আমি ছাত্র।

হাবিব স্যার › বিস্তারিত পোস্টঃ

একটি পতাকার জন্য-০১

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৭:১৭


ছবি: যদিও গুগল থেকে নেয়া হয়েছে, সত্যিকার অর্থে ছবিটা হৃদয়ের.........

উৎসর্গ: শ্রদ্ধেয় ব্লগার চাঁদগাজীকে।

রানার কাকুর সাইকেল বাজে রোজ এ বাড়ির পাশে,
প্রতিদিন শত বর্ণিল খাম রানারের হাতে আসে।
আসেনা কেবল তোমার চিঠিটা আমার জন্য লেখা,
কত মাস গেল আমাদের সাথে হয়নি তোমার দেখা!
সেই যে গেলে শেখ মুজিবের দূর্গ গড়ার ডাকে,
এতদিন গেল তবুও ফিরো না কিভাবে বুঝাই মাকে?
শত চিন্তায় বৃদ্ধ মায়ের অসুখটা যায় বেড়ে,
পাকি হায়েনার বুলেটে তোমার প্রাণ গেলো নাকি উড়ে!
হায়েনার দল বেঁধে রেখেছে কি জীবন সাথীকে আমার,
ভাবতেই চোখ ছলছল করে হৃদয়ে কষ্ট পাহাড়!
তোমার বোনটা রোজ রোজ এসে জিজ্ঞাসে ভাইয়ের খবর,
তোমার আম্মা বিছানাতে শুয়ে গুনছে তোমার প্রহর!
আমার কথাটা কি আর বলবো দু'চোখে শোকের জল,
ছেলেটার মুখে বাবা ডাক শুনে আঁখি দু'টি ছলছল!
যুদ্ধটা কবে শেষ হবে বলো কখন ফিরবে ঘরে,
বোনটাকে তোমার কিভাবে সামলাই মনেতে চিন্তা ধরে!
শেষ চিঠিখানা দিয়েছিলে তুমি যাবে নাকি ইন্ডিয়া,
সেই চিঠিখানি পড়িয়া আম্মা উঠেছিল কান্দিয়া!
কবে কোনদিন দেখা হবে তব কিভাবে বুঝাবো মন,
তোমার স্মৃতিখানি কোলে তোলে বাঁচি সেইতো বুকের ধন!
বোনটাকে তোমার দিতে নাহি পারি আমার কথায় বুঝ,
ফঁপিয়ে ফুঁপিয়ে কাঁদে শংকায় পাবে কি ভাইয়ের খোঁজ?
স্বাধীন দেশেতে সবে একসাথে কখনো কি বাঁচা হবে?
সেই শুভদিন কবে কোনদিন স্বাধীনতা আসবে কবে?

পঁচিশ মার্চের সার্চলাইটে কতজন দিল প্রাণ,
বৃথায় যাবে কি সকলের মরণ বোনেদের সম্মান?
এই ভেবে আমি সবাইকে বুঝাই বোন ছেলে আর মাকে,
তবুও যেন স্বাধীন পতাকা উড়ে বাংলার বুকে!
তবুও যেন আমার দেশটা হানাদার মুক্ত হয়,
তোমার লড়াই দেশের জন্য পেয়ো নাকো' তুমি ভয়!

চলবে....

কৃতজ্ঞতা: শ্রদ্ধেয় ব্লগার চাঁদগাজীর প্রতি। দাদী বলতো "বাড়ির বয়োজ্যেষ্ঠরা বটবৃক্ষের মতো"! সত্যিই তাই। শ্রদ্ধেয় চাঁদগাজীর প্রতি কৃতজ্ঞতা না জানালে আমি অকৃতজ্ঞদের অন্তর্ভুক্ত হবো। গত কালকের দুইটা পোস্টে ওঁনার মন্তব্যে আমি সত্যিই বিস্মিত! "একদিনে কি হবে?" লেখায় মন্তব্যে বলেছেন, "সুরাহের অনুবাদ ও এই ধরণের কবিতা কিছুটা বিপরীতমুখী।" এবং "মহা সংকোচন" লেখায় মন্তব্যে বলেছেন, "আশাকরি, পরকালেও আপনি বাংলায়ই সনেট লেখার সুযোগ পাবেন।" এই দু'টি কথায় আমি সত্যিই বিস্মিত। অনেক অনেক কৃতজ্ঞ।

মন্তব্য ১৬ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (১৬) মন্তব্য লিখুন

১| ১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৭:২৫

সমালোচক মন্তব্যকারী বলেছেন: তারা (মুত্তাকীরা) আখিরাতের প্রতি দৃঢ় বিশ্বাস রাখে।" (সুরা বাকারাঃ ৪) বন্ধু চাদগাজীর পরকালে Faith আছে? কোন senceএ বন্ধু চাদগাজী comment করছে সে sence আপ্নার আছে?

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৭:২৭

হাবিব স্যার বলেছেন: আমি জানিনা কোন সেন্সে মন্তব্য করেছে। হয়তো অন্যকিছু ছিল মনে । কিন্তু আমি পজিটিবলি নিয়েছি

২| ১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৭:২৬

সনেট কবি বলেছেন: সুন্দর+

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৭:২৮

হাবিব স্যার বলেছেন: কৃতজ্ঞতা প্রিয় সনেট কবি। আল্লাহর আপনাকে ও আপনার পরকালকে সতত সুস্থ্ রাখুক

৩| ১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৭:৫৪

বলেছেন: হাবিব স্যার,।


এটাই আপনার গুণ আপনি পজেটিভ নিয়েছেন সমালোচনাটা ---


পরকালে সনেট, বনেট আমরা কিছু বুঝি না শুভ কামনা আপনার জন্য।



আপনি আসলেই একজন প্রতিভাবান লোক, সহজ সরল ভাবুক।


অপনার জন্যে যদি কেউ হেদায়েত পায় তাতেই মঙ্গল।


ধন্যবাদ প্রিয়।

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৮:০২

হাবিব স্যার বলেছেন:




প্রিয় ল ভাইয়া..., শুভ সকাল।
আপনার হৃদয় নিংড়ানো নির্যাস মনে হলো এই মন্তব্যকে.........।
আল্লাহ আমাদের সবাইকে সহিহ বুঝ দান করুন।

৪| ১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৭:৫৭

রাজীব নুর বলেছেন: জাস্ট গ্রেট।
শ্রদ্ধেয় চাঁদগাজীকে স্যলুট।

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৮:০৪

হাবিব স্যার বলেছেন:




সালাম ও শুভকামনা জানাচ্ছি রাজীব নূর ভাইকে....।
উচ্ছ্বসিত মন্তব্য করলেন।
শ্রদ্ধেয় চাঁদগাজীর প্রতিও শুভ কামনা

৫| ১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৮:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


পোষ্ট উৎসর্গ করলে দায়বদ্ধতা বেড়ে যায়; এটা একটি কঠিন সম্পর্কে; আপনাকে ধন্যবাদ।

১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ সবাই আক্রান্ত হয়েছিলেন; কিন্তু সবাই সমান মুল্য দেননি; শেখ সাহেব ও তাজুদ্দিন সাহেব সবাইকে কিছু হলেও মুল্য দিতে অনুরোধ করলে, সবার অংশগ্রহন হতো; তখন সবাই মুল্য বুঝতে পারতেন; উনারা হজ লজিকগুলো জানতেন না।

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৮:৫৩

হাবিব স্যার বলেছেন:





বয়োজ্যেষ্ঠরা এমনিতেই দায়বদ্ধ..... তাঁদের দায়িত্ব অনেক বেশি।
আমার মতো তরুণ প্রজন্ম এখনো নিতান্তই শিশু তাদের কাছে।
তাঁদের শিক্ষায় আমাদের জীবনে চলার পথ সুগম করতে পারে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটা বক্তব্য নিপীড়িত মানুষকে উদ্ধ করতে উদ্ভুদ্ধ করে।
সবাই যুদ্ধে অংশগ্রহন করলে আরো অসহায় মা-বোনদের এভাবে লাঞ্চিত হতে হতো না হয়তো।

৬| ১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:১৯

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: বরাবরের মতই সুন্দর। উৎসর্গে ভালো লাগা।

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:২৩

হাবিব স্যার বলেছেন: সৃষ্টিকর্তার কাছে আপনার ও আপনার পরিবারের জন্য আরোগ্য থাকার দোআ করছি

৭| ১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৭

আরোগ্য বলেছেন: হাবিব স্যার বাকি রাখলেন কেন? একবারে পড়তে তো ভালো লাগছিল।

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩৩

হাবিব স্যার বলেছেন:




আপনার ভালো লেগেছে জেনে আমারো ভাল লাগলো...।
ভাবছিলাম সবটুকু দিলে বিরক্তি লাগবে তাই দেইনি...।
ইনশাআল্লাহ কাল সুযোগ পেলে দিয়ে দেব।
মনে মনে আপনাকেই খুঁজছিলাম....।
আপনার আগমন শুভ হোক......।


৮| ১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:০৪

নজসু বলেছেন:



বেশ। ধারাবাহিক একটা কবিতা পেলাম।

১১ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩২

হাবিব স্যার বলেছেন:




প্রিয় সুজন ভাই , প্রতি উত্তর করতে দেরি করে ফেললাম.....
আশা করি মন খারাপ করেন নি......।

আজকের লেখা.....একটি পতাকার জন্য-০২

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.