নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

চলে যাব- তবু যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ, প্রাণপণে পৃথিবীর সরাব জঞ্জাল।

হাবিব স্যার

বিশ্বজোড়া পাঠশালা মোর, সবার আমি ছাত্র।

হাবিব স্যার › বিস্তারিত পোস্টঃ

চলতে ফিরতে শুনি!

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:২৮



শুভযাত্রা বাসে উঠেই দেখি "লাল দো পাট্টা......." গানের ভিডিও চলছে। বাসের ভেতর কত দাঁড়ি-টুপিওয়ালা মানুষ দেখলাম, কেউ কিচ্ছু বলছেনা। এমন গানের দৃশ্য আমার মোটেই পছন্দ না। বিশেষ করে নাচ আমি একদমই পছন্দ করি না। কখনো গান শুনলেও অডিও গান শুনি। আর মিউজিকসহ গান যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলি। গানটা আগেও শুনেছি কিন্তু এই প্রথম গানের ভিডিও দেখে চোখ সরিয়ে নিতে বাধ্য হলাম। বাসে উঠার পরেই গানটা বন্ধ করতে বললাম কন্ট্রাকটারকে। যেন কানেই তুললো না আমার কথা। অবাক করার মতো ব্যাপার হচ্ছে যেখানে মনিটর লাগানো তার উপরেই বড় অক্ষরে লেখা "বিসমিল্লাহে মাজরেহা ওয়া মুরসাহা ইন্নি রাব্বিলা গাফুরুর রাহিম"। কিছুক্ষণ পরেই আমার কাছে ভাড়া চাইতে আসলাে। আমি বললাম, গানটা আগে বন্ধ করেন তারপর ভাড়া দেব। বাধ্য হয়েই গানটা বন্ধ করলো। প্রায়ই বাসে উঠে দেখি নাটক সিনেমা চলে বাসের মধ্যে। বিশেষ করে লোকাল বাসগুলোতে বেশি চলে। লোকাল বাস রাস্তায় বিভিন্ন স্টপেজে লেট করে যাত্রী উঠায়। যাত্রীরা চিল্লা চিল্লি করে বলে নাটক ছেড়ে রাখে। শিশুদের যেমন কান্না থামাতে হাতে চকলেট বা ললিপপ ধরিয়ে দেয়া হয় তেমন কারবার আর কি।

সেদিন নবীনগর স্মৃতিসৌধের সামনে থেকে বাসে উঠলাম। বাসের ভেতর সিট একটাও খালি নেই। দাঁড়িয়ে আছি, তারপরেও গাঁ ঘেঁষাঘেষি করে। সেদিনও বাসের সামনে ঝুলানো মনিটরে হিন্দি কি ছবি যেন চলছিল। জায়গা না পেয়ে একেবারে মনিটরের সামনে দাঁড়াতে বাধ্য হলাম। পেছন থেকে একলোক চেচিয়ে বলছে ধূর, হুজুরদের জ্বালায় বাসেও শান্তি নেই। কথাটা শুনেই ড্রাইবারকে মনিটর অফ করতে বললাম। ড্রাইভার মনিটর অফ করে দিলো।

বাসে কখনো ইসলামিক গান বা ওয়াজ তেমন শুনি না। ব্যতিক্রম দেখেছিলাম একদিন চন্দ্রা মোড় থেকে টাঙ্গাইলের উদ্দ্যেশ্যে এক বাসে উঠে। পুরোটা রাস্তা ওয়াজ বাজছিলো। কেউ টু শব্দটিও করেনি। আমিও শুনছিলাম মনযোগ দিয়ে। এক পর্যায়ে একটা কথা খুব মনে ধরলো, "এমন কাজ আমরা কেন করবো যে কাজের বিনিময়ে শুধু আনন্দ আর পাপ জোটে? সেই কাজই তো করা উচিত যার দ্বারা দুনিয়াতেও উপকার পাওয়া যায়, আবার আখিরাতেও নাজাতের উছিলা হয়।" ঠিকই তো, আমরা কতশত কাজ করি দৈনিক, যার দ্বারা নিছক আনন্দ আর পরকাল খোয়ানো ছাড়া কোন লাভই হয় না। আমরা শত শত বই পড়ে শেষ করছি, হাজারো কবিতা উপন্যাসের নাম কেউ কেউ এক নি:শ্বাসে বলতে পারবেন! কিন্তু পুরো কোরআন অর্থসহ পড়েছেন এমন মানুষ খুব কমই পাওয়া যাবে।

শুক্রবার-শনিবার ঘুরে এলাম গ্রামের বাড়ি থেকে। বাড়িতে যাবার সময় কিছু না কিছু গিফ্ট নিয়ে যাই আয়েশার জন্য। মা-বাবার জন্য ফল-ফ্রুটস তো থাকেই। এবার একটা গল্পের বই কিনলাম আয়েশার জন্য। বইয়ের নাম "রৌদ্রময়ী"। ছোট গল্পের বই। আজকে সকালে জিজ্ঞেস করলাম, কেমন লাগলো বইটা? বললো কিছু গল্প ভালো লেগেছে।

ও হ্যাঁ, বলাই হয়নি একটা কথা! আমার একটা কবিতা প্রকাশিত হয়েছে একটা মাসিক পত্রিকায়। সেই পত্রিকাটাও কিনেছিলাম আয়েশার জন্য। আয়েশা তো অনেক খুশি।

কবিতাটা নিচে দিলাম:

বছর ঘুরে আবার এলো
শুভ নতুন দিন
ফুল পাখিরা বাজায় যেন
সুখের রিন ঝিন।

নতুন দিনের নতুন সুরে
নতুন করে বাঁচা
শোষণ যত ভাঙবো শিকল
বন্ধি সকল খাঁচা।

সুখের বাঁশি বাজুক এবার
শহর থেকে গ্রামে
শান্তি সুখের নামুক ধারা
আমাদের এই ধামে।

আয়েশা আবার প্রেমের গল্প পড়তে বেশি ভালোবাসে। আগে অবশ্য বই তেমন পড়তো না। বিয়ের পর বলে কয়েও এক-দুই পৃষ্ঠার বেশি বই পড়াতে পারিনি। সেদিন আমাকে বলছে ও নাকি দুইটা উপন্যাস পড়ে শেষ করেছে! আমি তো অবাক! যে নাকি বই পড়তে পছন্দই করতো না, সে দুই দুইটা আস্ত উপন্যাস পড়েছে? "কি কি উপন্যাস পড়েছো?" জিজ্ঞেস করতেই "প্রেমাতাল" আর "এই মনিহার" উপন্যাস পড়েছে বলে জানালো আমাকে। খুশি হলাম মনে মনে। বললাম তোমার জন্য এবাবের বই মেলা থেকে গল্পের বই কিনে দেব। বলে না না, গল্পের বই না, রোমান্টিক প্রেমের উপন্যাস আনবা। আমি বললাম আচ্ছা। ভাবছি কি কি বই কেনা যায়! ব্লগ ঘেটে সামুর জনপ্রিয় লেখকদের বই অবশ্য লিস্ট করে ফেলেছি ইতোমধ্যেই। কেউ চাইলে ফ্রিতে পরামর্শ দিতে পারেন এ ব্যাপারে। :-B

ছবি: ইন্টারনেট....

মন্তব্য ৪৫ টি রেটিং +১২/-০

মন্তব্য (৪৫) মন্তব্য লিখুন

১| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৪৫

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আমি তো কোন প্রেমের উপন্যাস লিখি নাই এইবার, নয়তো সেটাই কিনতে বলতাম! ;)

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৬

হাবিব স্যার বলেছেন: প্রথম মন্তব্যকারী হিসেবে আপনাকে অভিনন্দন! আপনার কি কোন বই বেরুচ্ছে এই বই মেলায়?

২| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৫৪

সাইন বোর্ড বলেছেন: ধর্মীয় ব্যাপারটা মাথায় না নিলেও পাবলিক বাসে এটা অনেকের কাছেই বিরক্তিকর ।

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৮

হাবিব স্যার বলেছেন:




আসলেই বিরক্ত লাগে।
কখনো কখনো বাসে অসুস্থ ব্যক্তিও থাকে।
তাদের কথাটা অন্তত মাথায় রাখা উচিত।
আবার দেখা যায় অনেকেই আগ্রহ নিয়ে ওসব দেখে।

৩| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:২০

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: আসলেই বিরক্তিকর লাগে আর ভয়ও লাগে

প্রায়ই দেখি পিকনিকের বাস এক্সিডেন্ট

তাই বাসে বা যানেচড়ে মনে মনে আল্লাহর নাম নেয়াই শ্রেয় । আল্লাহ আমাদেরকে হেফাজত করুন হেদাযেত দিন

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:৪১

হাবিব স্যার বলেছেন:




চলন্ত বাসে দূর্ঘটনার কথা মাথায় রেখেও
এসব থেকে বিরত থাকা উচিত।
আল্লাহ আমাদের সবাইকে হেদায়াত দিন

ফাতেমা আপু, মন্তব্যের জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানবেন।

৪| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:২৫

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: জীবনটাই জটিল.........

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:৪৩

হাবিব স্যার বলেছেন:




জটিল জীবনটাকে সুন্দর করার মধ্যেই
মানব জীবনের স্বার্থকতা।

মন্তব্যের জন্য
ধন্যবাদ আপনাকে আর্কু ভাই,

৫| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৯

শাহারিয়ার ইমন বলেছেন: শবনম- সৈয়দ মুজতবা আলী ।

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৫১

হাবিব স্যার বলেছেন:




কৃতজ্ঞতা শাহরিয়ার ইমন ভাই,
বই মেলায় খোঁজে দেখবো পাই কিনা!

৬| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৪০

আখ্যাত বলেছেন: নাহ, হাবিব স্যারদের নিয়ে আর চলেনা
প্লিস! বি ম্যাচ্যুর্ড!!

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৪

হাবিব স্যার বলেছেন:




আখ্যাত ভাইয়া/আপু,
প্লিজ টিপস অ্যাবাউট হাউ আই উইল বি ম্যাচিউর্ড?...... :-B

মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ!

৭| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৫:০৮

আখ্যাত বলেছেন:
বাস : রাষ্ট্র
বাস কর্তৃপক্ষ : রাষ্ট্রীয় কর্তৃপক্ষ
ইচ্ছামত গাড়ি পরিচালনা : ইচ্ছামত রাষ্ট্র পরিচালনা
যাত্রীদের হৈ চৈ : জনগণের প্রতিবাদ
রোমান্টিক সব ভিডিও : রোমান্টিক সব বিনোদন
যাত্রীরা ঠাণ্ডা : জনগণ শান্ত
প্রদত্ত শব্দগুচ্ছ থেক জোড়ায় জোড়ায় সমজাতীয় বাক্য তৈরি করা যায়।

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৫:১৩

হাবিব স্যার বলেছেন:




বাহ, বেশ বলেছেন। গ্রেট চিন্তা।
আপনার মননের প্রশংসা করতে হয়।

আহহা.........
এভাবেই কি চুপ থাকবো আমরা?
এভাবেই কি সয়ে যাবে জনগন?

৮| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৫:২২

আরোগ্য বলেছেন: বাসের কোন অভিজ্ঞতা নেই তাই কিছু বলতে পারছি না।

আশা করি বাসায় সবাই আরোগ্য আছে।

দুটি রোমান্টিক উপন্যাস আমার খুব প্রিয় একটি রবীঠাকুরের শেষের কবিতা আরেকটি চার্লস ডিকেন্স এর দ্য টেইল অব টু সিটিজ। এটার বাংলা অনুবাদও বেশ ভাল।

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৫:২৯

হাবিব স্যার বলেছেন:




আরোগ্য! আপনি এলেন অবশেষে.........
আপনাদের দোয়ায় আল্লাহর রহমতে বেশ ভালো আছেন সবাই।
আশা করি আপনিও ভালো আছেন!
নতুন কিছু লিখছেন কি?

"শেষের কবিতা" আমার পড়া হয়নি।
তবে দেখে শুনে কিনতে হবে।
ম্যাডামের অর্ডার বলে কথা।

আমার জন্য অবশ্য কবিতার বই কিনবো!

৯| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৫:৩৭

আরোগ্য বলেছেন: আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি।

একটা কবিতা অর্ধসমাপ্ত আছে , তার আগে কিছু একটা ভাষা নিয়ে লিখার ইচ্ছা আছে। গতকাল থেকেই অনুসন্ধান করছি। তবে দশ বারো দিন আগে পোস্ট করার ইচ্ছা নেই।

উপন্যাস দুটি সময় করে পড়ে নিবেন, আশা করি ভালো লাগবে। শেষেরটার সংক্ষিপ্তাকারে অনুবাদ করে দেয়ার ইচ্ছা আছে তবে আবার পড়ে নিতে হবে।

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৫

হাবিব স্যার বলেছেন:




আল্লাহ আপনাকে আরোগ্য রাখুক সব সময়।
আপনার পোস্টের অপেক্ষায় রইলাম।
উপন্যাস দুটি পড়ে নেব ইনশাআল্লাহ।

আচ্ছা, দিয়েন মনে করে।

১০| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৮

নতুন-আলো বলেছেন: সুন্দর কবিতা ও লেখা। ভালো লাগলো........

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৬

হাবিব স্যার বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আপনাকে। পাশে থাকবেন সবসময়।

১১| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৯

জাহিদ অনিক বলেছেন: গণপরিবহনে লাউডস্পিকারে গান, নাটক, সিনেমা, ওয়াজ, গীতা যা'ই বাজুক সব যেন কেমন শব্দ দূষণ আর কানে ধাঁ ধাঁ লাগায়।
কবিতাটা মোটামুটি লেগেছে। শুভেচ্ছা।

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:২১

হাবিব স্যার বলেছেন: গনপরিবহনে এমন পরিস্থিতি আসলেই খুব কষ্টদায়ক। কবিতাটা মোটামুটি লেগেছে জেনেও আনন্দ পেলাম। ভালো থাকবেন জাহিদ ভাই

১২| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৩

নজসু বলেছেন:



জীবনটা বেদনা..................

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:২৩

হাবিব স্যার বলেছেন: কি খবর সুজন ভাই, এখনো অসুস্থতা কমেনি নাকি? আর বেদনার বলছেন কেন? আনন্দ বেদনা নিয়েই তো জীবন

১৩| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৯

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: প্রিয় হাবিবভাই ,

আজ সাড়ে বারোটায় কলকাতা বইমেলায় ঢুকেছি; আর এখনও বাড়িতে ঢুকতে পারেনি। কাজেই সারাদিন ব্লগে কিছুখন উপস্থিত ছিলাম। কবিতাটি পড়লাম। আয়েশা ভাবি আপনার কবিতাপ্রেমী হওয়াটা খুবই স্বাভাবিক। কিন্তু উনি যে উপন্যাসের ভক্ত হয়ে উঠেছেন - এটা অত্যন্ত সুখবর।

ভালোবাসা রইলো । উপরওয়ালার রহমত বর্ষিত হোক।

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:২৭

হাবিব স্যার বলেছেন: প্রিয় পদাতিক দাদা,




আপনার এমন ব্যস্ততার মাঝেও আমার ব্লগে এসে সময় দিয়ে
কৃতজ্ঞতার বাঁধনে বাঁধলেন আমাকে।
বই মেলা থেকে কি কি বই কিনলেন?

আপনার বই কবে হাতে পাবো?
আপনার উপন্যাস কিভাবে পাওয়া যাবে?
আপনার বই পেলে আয়েশা কে পড়তে দিতে পারবো।
আমিও খুশি আয়েশার এমন বইয়ের প্রতি ঝোঁক দেখে......
তাও অবসর সময়টা কাজে লাগাতে পারবে

আপনার জন্য সতত আরোগ্য থাকার দোয়া করছি।
পরিবার নিয়ে সদা আরোগ্য থাকুন

১৪| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:৪৮

আরোহী আশা বলেছেন: সুন্দর কবিতা। ভালো লাগলো। কবিতায় ++

০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:০৮

হাবিব স্যার বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ জানবেন.....

১৫| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:৫৫

ঝিগাতলা বলেছেন: সুন্দর পোস্ট, এ ব্যাপারে সচেতনতা জরুরী। গান বাজনা গাড়ির ভেতর বিরক্তিকর

০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:০৯

হাবিব স্যার বলেছেন: একদম ঠিক বলেছেন। ধন্যবাদ আপনাকে

১৬| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:১৮

রাজীব নুর বলেছেন: সুন্দর পোষ্ট।

০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১:৪৮

হাবিব স্যার বলেছেন: শুকরিয়া, সদা সুস্থ থাকুন

১৭| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১০:৩৭

সোহানী বলেছেন: দেশে যে পরিমান মানুষ তাদেরকে সামাল দিতে বাসে এর চেয়ে আর কি বিকল্প খুঁজবে এরা??? আর হিন্দি নাচ গান!!! রাস্ট্র যেখানো এর পৃষ্ঠপোসক সেখানে এর বেশী কি আর চাইবেন বলুন!!!

০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১:৫১

হাবিব স্যার বলেছেন: এক্কেবারে ঠিক বলেছেন সোহানী আপু, সবাই বাসে উঠে চিল্লাচিল্লি করলেও সিনেমা চালু থাকলে কম করে। কিন্তু এমন গাড়িতে আবার এক্সিডেন্টও হয় সেই রকম। ঢাকা আরিচা মহাসড়কে প্রতিদিন দূর্ঘটনার খবর পাওয়া যায়।রাষ্ট্রযন্ত্র ঠিক হলে অনেকাংশেই এমন পরিস্থিতি রোধ করা সম্ভব।

১৮| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১০:৫৪

বলেছেন: প্রিয়তমেষু ,

সচেতনতামূলক পোষ্ট।



কিউট ফ্যামেলি আবদার -----------



শুভেচ্ছা, শুভকামনা রইলো।

০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১:৫৩

হাবিব স্যার বলেছেন:




লতিফ ভাই, ভাইবেন না যে আপনার বই কিনবো না!
আপনার বই আমার জন্য আর উপন্যাস নেব ম্যাডামের জন্য।
দিন শেষে সবাই সচেতন হবে এমনটাই প্রত্যাশা।
আপনার জন্যও শুভকামনা।

১৯| ০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১২:০০

নীল আকাশ বলেছেন: শুভ রাত্রী হাবীব ভাই!
কাজটা ভালো করেন নি। এক পাগলের কথা শুনে লেখার ধরন চেঞ্জ করছেন কেন? এটা ঠিক না। স্বকীয়তা আপনার নিজস্ব অধিকার। কারো কথায় সেটা ছেড়ে দিচ্ছেন কেন? আমি খুব মন খারাপ করলাম!

ট্রেনে কিন্তু কুরআন শরীফের কিরায়াত সহ বাংলা বলে। যা ভালো লাগে শুনতে! গতবার আসার সময় সুরা আর রাহমান পড়ছিল!

প্রেমের গল্প পড়তে চাইলে আমার পরিণয় গল্প পড়িয়ে দেন। প্রেমের নাড়ি নক্ষত্র শিখে ফেলবে! ;)

ছবিটা আরও প্রাসঙ্গিক দিতে পারতেন!

ধন্যবাদ আর শুভ কামনা রইল!

০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:০১

হাবিব স্যার বলেছেন: শুভ অপরাহ্ন কি বলা যাবে এখন? আচ্ছা যাই হোক! আপনার মন্তব্যের দেড়িতে উত্তর দেয়ার জন্য দু:খ প্রকাশ করছি। মন খারাপ করবেন না প্রিয় নীল আকাশ ভাই। আমি কবিতা লিখবো। কারো কথায় কিন্তু কবিতা লেখা বাদ দেইনি। একটু রেস্ট নিচ্ছিলাম আর কি। ট্রেনে তেলাওয়াত বাজলেও গাড়িতে শুনিনি কখনো। আপনার গল্প শোনানো এবার গেলে। ছবি খুঁজলাম, কিন্তু পেলাম না। আপনার জন্যও শুভ কামনা আর শুভেচ্ছা রইলো। আপনার গল্প এখনো পড়িনি। পড়ার পর অবশ্যই মন্তব্য করবো। ভুতের গল্প পড়তে ভয় লাগে আমার। তবুও পড়বো। কমেন্টসগুলো দেখে মনে হলো বেশ ভালো হয়েছে গল্পটা। তবে আপনার গল্প যে ভালো হবে কেউ না বললেও আমি জানি। সে বিশ্বাস আমার আছে।

২০| ০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৯:৪০

কানিজ রিনা বলেছেন: দুরপাল্লার বাসে উঠলে আমি সেচ্ছাচারী হয়ে
উঠি। ড্রাইভাকে আগেই বলে দেই কোনও
গান বাজাবেন না। আর যদি যাত্রীরা নাছোর
হয় খুব আস্তে বাজাবেন। দুরপাল্লার বাসের
ড্রাইভার কন্ট্রাকটর বেশ ভদ্র থাকে বেশীর
ভাগ সময়। লেখায় সচেতনতা থাকায়
ধন্যবাদ।

০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:০৮

হাবিব স্যার বলেছেন: কানিজ রিনা আপু, একদম ঠিক করেন। দূর পাল্লার বাসে অবশ্য আমি এমনটা পাইনি কখনো। আসলেই ওরা ভদ্র টাইপের হয়। কথা বললে দ্রুত রেসপন্স করে। আমরা সচেতন হলেও অনেকাংশে এমন পরিস্থিতি মোকাবেলা সম্ভব। আপনার সুন্দর মন্তব্যের জন্য নিরন্তর শুভেচ্ছা।

২১| ০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৬

প্রথমকথা বলেছেন:


মনোযোগ দিয়ে পড়েছি। ভাল পোষ্ট।

০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২২

হাবিব স্যার বলেছেন:




অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া/আপু।
আপনার মনযোগ দিয়ে পড়েছেন এবং
পোস্ট ভালো লেগেছে খুব ভালো লাগলো।

আপনার উপর শান্তি বর্ষিত হোক

২২| ০৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৫৬

নজসু বলেছেন:




আমার প্রিয় হাবিব ভাই,
জীবনটা আসলে আনন্দ বেদনার সংমিশ্রণে সেটা আপনি আমি আমরা সবাই জানি।
তাড়াহুড়ো করে টাইপ করতে আনন্দ শব্দটা বাদ গেছে।
উচ্চস্বরে গান বাজিয়ে কেউ আনন্দ পান;
আবার উচ্চস্বরের গানের জন্য কিছুদিন আগে একজনের প্রাণও গেলো।

আমি আপনাদের দোয়ায় এখন ভালো আছি ভাই।

০৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৮

হাবিব স্যার বলেছেন:




আলহামদুলিল্লাহ, প্রিয় সুজন ভাই ভালো আছেন জেনে ভালো লাগছে।
আপনার জন্য সবসময় সুস্থতার দোয়া করছি।
আল্লাহ সবাইকে সহীহ বুঝ দান করুন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.