নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

The best and most beautiful things in the world cannot be seen or even touched - they must be felt with the heart---Helen Keller

জুন

ইবনে বতুতার ব্লগ

জুন › বিস্তারিত পোস্টঃ

চন্দ্রমল্লিকা ও এক বুলবুলির উপাখ্যান ( ছবি ব্লগ)

২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:২৫


সুখ, ভালোবাসা, দীর্ঘ জীবন আর আনন্দের প্রতীক চন্দ্রমল্লিকা
ক্রিসেন্থিমাম বা সংক্ষেপে মাম যাকে আমরা বাংলায় বলি চন্দ্রমল্লিকা। সারা পৃথিবী জুড়ে দেখা গেলেও অসাধারন শৈল্পিক রূপের এই চন্দ্রমল্লিকার আদি নিবাস কিন্ত পুর্ব এশিয়া আর উত্তর পুর্ব ইউরোপ। ১৫ শতাব্দীতে প্রথম চন্দ্রমল্লিকার চাষ হয় চীনে। জাপানের রাজকীয় সীলমোহরের প্রতীক চন্দ্রমল্লিকার চাষ জাপানে প্রথম শুরু হয় নারা আর হেইয়ান পিরিয়ড অর্থাৎ ৮ শতাব্দীর প্রথম থেকে ১২ শতাব্দীর শেষ পর্যন্ত।পরবর্তীতে যা জাপানে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করে এবং চেরী ফুলের সাথে ক্রিসেন্থিমামও লাভ করে জাতীয় ফুলের মর্যাদা।

মেরুন চন্দ্রমল্লিকা
হাজার রকম বুনো প্রজাতি ছাড়াও চীন আর জাপানের হাত ধরেই পরবর্তীতে ৩৬ প্রজাতির চন্দ্রমল্লিকায় নিয়ে আসা হয় বিভিন্ন রঙ, আকা ও ভিন্নতায় এক নতুন চমক।সেই সাথে এক স্বর্গীয় সৌন্দর্য্যকেও।এশিয়াতে আবির্ভাব হলেও পরবর্তী এই ফুল তার নির্মল ও সেই সাথে নজরকাড়া সৌন্দর্য্যের জন্য পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে পরে।
১৭৯৮ সনে কলোনেল জন স্টিভেন্সের হাত ধরে ইংল্যান্ড থেকে আমেরিকায় ডার্ক পার্পেল নামের চন্দ্রমল্লিকার প্রথম প্রবেশ। আজ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মানুষ শীতকালীন এই ফুলগাছটিকে তাদের বাগানের সৌন্দর্য্যের জন্য পরিচর্যা করছে টবে কিম্বা মাটিতে, যেমন আমি। গাছটি বহু বর্ষজীবি, ফুল ফুটে শেষ হয়ে গেলেও পরবর্তীতে ঐ গাছ থেকেই নতুন শাখা বিস্তার করে আবার ফুলে ফুলে ভরে উঠে রূপসী চন্দ্রমল্লিকা।

শুভ বিদায় অর্থ বহন করছে এই হলুদ ক্রিসেনথিমাম
পুর্ব এশিয়ার মানুষের দৃঢ় বিশ্বাস যে চন্দ্রমল্লিকা বিশেষ করে শ্বেত চন্দ্রমল্লিকা মানুষের জীবনে সুখ, ভালোবাসা, দীর্ঘ জীবন আর আনন্দের প্রতিনিধি। কিন্ত পাশ্চাত্যের বিশেষ করে আমেরিকায় চন্দ্রমল্লিকা ফুলের অনেক অর্থ রয়েছে। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তা অনুপ্রেরনাদায়ক,যেমন কোন অসুস্থ কারো সুস্থতা কামনা করে পাঠানো হয়ে থাকে চন্দ্রমল্লিকা।

সাদা ছোট আকারের চন্দ্রমল্লিকা

এর রঙ হলুদ
আবার এই অসাধারন সুন্দর ফুলটি বিশেষ করে সাদা ক্রিসেন্থিমাম ইউরোপে মৃত ব্যাক্তির শেষ আশ্রয়স্থলে উৎসর্গ করা হয় এবং একে মৃত্যুর প্রতীক হিসেবে দেখা হয়। সাদা ও হলুদ ক্রিসেনথিমাম এশিয়ায় বিদায় বার্তা হিসেবে বহুল ব্যবহৃত হয়ে থাকে । এশিয়ায় ক্রিসেন্থিমামকে দীর্ঘ এবং সুখী জীবনের প্রতীক হিসেবে দেখে থাকলেও তারা বিশ্বাস করে যে কেউ যদি মৃত ব্যাক্তির কবর থেকে এই ফুল বাসায় নিয়ে আসে তবে সে দুর্ভাগ্যকে সাথে করে নিয়ে আসে।

সাদা আর হলুদ পাশাপাশি টবে
এই ফুল দিয়ে বানানো চা বেশ জনপ্রিয় বিশেষ করে পুর্ব এশিয়ায়। এছাড়াও তারা তাদের দেশের বিভিন্ন রান্নায়ও এই ফুলের ব্যাবহার করে থাকে। থাইল্যান্ডে অনেক রান্নায় অপরাজিতা ফুলের ব্যবহার দেখেছি, বিশেষ করে খাবারে রঙের জন্য।

এটা ক্রিসেন্থিমামের চা, মনে হয় না এই চা আমি খেতে পারবো :(

যাই হোক সংক্ষেপে অনিন্দ্য সুন্দর এই ফুলটির পরিচয় দিলাম। এবার দেখি আমার ছোট্ট বারান্দায় এই রূপসীদের।
পর্তুলিকার পাশে বুলবুলি

যদিও শিরোনামে ওনাদের নাম নেয়া হয়নি তারপরও এরা আমার সন্মানিত মেহমান । একটা আবার বাড়িউলিকে উকি দিয়ে দেখার চেষ্টা করছে। এরা দুজন ঝুটি শালিক

পর্তুলিকা

কসমস

হলুদ কসমস

কাসাভার ফুল । একরকম আলু জাতীয় খাবার, আফ্রিকায় ক্ষুধা নিবারনে এর বহুল ব্যবহার রয়েছে।
এই কাচামরিচ বুনে কৃষকদের মাথায় হাত । অল্প কিছু মরিচ ধরেই গাছের আগা শুকিয়ে মরে যাচ্ছে
লোকজন দিয়ে জিনিস কিনলে এই অবস্থাই হয় । পিয়াজ নিয়ে আসছে পুরনো যাতে কলি উকি দিচ্ছে । তাই একে বুনে রাখলাম ডিম রাখার প্লাস্টিকের কেসে অল্প একটু মাটি দিয়ে । দিনে দিনে বেশ বড় হয়ে উঠছেন তেনারা


চায়ের ছবি ছাড়া আর সব ছবি আমার ছোট্ট বারান্দার আমার মোবাইলে তোলা। তথ্য নেট থেকে


মন্তব্য ১০৫ টি রেটিং +২৬/-০

মন্তব্য (১০৫) মন্তব্য লিখুন

১| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৪৩

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: ইট রাইখা গেলাম আপু।

২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:২৮

জুন বলেছেন: আসেন বসে থাকলাম ইট নিয়ে :)

২| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৪৮

মোহামমদ কামরুজজামান বলেছেন: বোন, সবগুলি ফুলই চমতকার । তবে শেষের ফুলগুলিই সবচেয়ে বেশী :P চমতকার এবং কখনো কখনো উনি অনেক দামিও।আর সাবধানে দেইখা রাইকেন তাগো। সুযোগ পাইলে আমার মত নাদান B-)) মানুষ তাগ লই যাই ছিললা-কাইটটা (পাক করে) খাইলাইব।

২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:৫১

জুন বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ মোহামমদ কামরুজজামান । আপনার মন্তব্যে অনেক খুশী হয়েছি । না শেষের ফুলের এখন দাম মোটামুটি সহনীয় পর্যায়ে :) মানুষ তাগ লই যাই ছিললা-কাইটটা (পাক করে) খাইলাইব
আমাদের কৃষক ভাইরা গত বছরের শিক্ষা নিয়ে এবার অনেকটাই ক্ষতি পুষিয়ে দিচ্ছে দেশবাসীর । যেমনটা ঘটেছিল গরুর ক্ষেত্রে । এখন গবাদি পশুতে আমরা যেমন স্বয়ংসম্পুর্ন তেমনি পিয়াজেও হবো । ইন্ডিয়ার যখন তখন চাবি দিয়ে বন্ধ করার সিস্টেম বন্ধ হবে শুধু পানিটাই সমস্যা ।
আরেকবার ধন্যবাদ :)

৩| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:৪৩

করুণাধারা বলেছেন: চমৎকার! ফুলের ছবিগুলো দেখে মুগ্ধ হয়ে গেলাম!! বারান্দায় এত সুন্দর ফুল ফোঁটে? ক্রিসেন্থিমাম আমারও খুব ভালো লাগে, কিন্তু সাদা ছাড়া এত রঙের হয় বলে জানতাম না!! দারুন হাত আপনার, চমৎকার বাগান। বুলবুলি কি গান গায় বাগানে এসে?

কাসাভা দেখেছি, তার ফুল দেখলাম এই প্রথম। এটাও সুন্দর। পেঁয়াজ পাতা খেতে ভালো লাগবে, সেদিন দেখলাম মাটি ছাড়া ধনেপাতা চাষ শেখাচ্ছে।

বাগানের নিয়মিত আপডেট চাই।

২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:০১

জুন বলেছেন: অসংখ্য ধন্যবাদ করুনাধারা মন্তব্যের জন্য । এবার আর ধরে বেধে আনতে হলোনা দেখছি ;)
ক্রিসেন্থিমাম সোসাইটির মতে ৩৫/৪০ জাতের চন্দ্রমল্লিকা আছে আর বুনো প্রজাতির আছে হাজারো । নার্সারির ছেলেটা বলে দিয়েছিল গোড়া শুকিয়ে গেলে পানি দিতে আর ১৫দিন পর পর জৈব সার দিতে । তাই করছি আর কিছু না ।

বুলবুলি কি গান গায় বাগানে এসে?
নাতো ! ওরা এসে আমাদের ডাকাডাকি করে খাবারের জন্য, গান গাইতে শুনিনি :(
হ্যা পানিতে পুদিনা , ধনে অনেক কিছুর চাষ দেখায় ইউটিউবে আমিও দেখেছি ।
আরেকবার ধন্যবাদ ওঁ শুভকামনা রইলো ।

৪| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:৪৫

রামিসা রোজা বলেছেন:

চন্দ্রমল্লিকা ও অন্যান্য ফুল সম্পর্কে পরিচিতি ও প্রতীক
পড়ে ভালো লাগলো । আপনার বারান্দার নিজ হাতে যত্নে
ফুলের বাগানটি অসাধারণ। মজা পেলাম পেঁয়াজের পাতার
চাষ দেখে ।

২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:০৬

জুন বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ রামিসা রোজা। আমার ফুল আর পাখিদের ভালো লেগেছে জেনে খুশী হোলাম। আপনার লেখাটি পড়েছি, শীঘ্রই যাচ্ছি :)

৫| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:১৪

মোহামমদ কামরুজজামান বলেছেন: বোন, আপনার অনুরোধে ট্রাম্প(পাগলার) শেষ দিনের কাজ-কর্ম নিয়ে লিখা পোস্ট করা হয়েছে । মেহেরবানী করে একটু দেখে নিয়েন।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:৫৭

জুন বলেছেন: জী ভাই আমি দেখেছি কিন্ত মন্তব্য করবো সেই সুযোগ পাচ্ছি না। কারণ ঘরে রঙ হচ্ছে আর আমি এক ঘরে বসে আছি। আর মোবাইলে টুকটাক মন্তব্যের উত্তর দিতে চেষ্টা করছি। ধুলায় এলার্জি। আর এলার্জি থাকলে কোভিডের ভ্যাক্সিন নেয়া যাবে না :(
আসবো শীঘ্রই।

৬| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৪১

আড়ালি বলেছেন: ফুল সুন্দরের প্রতীক , আনন্দের প্রতীক সেই ফুলই আবার কখনো ভীতিকর মৃত্যুর প্রতীক হতে পারে জানা ছিল না।
সত্যি অপূর্ব সুন্দর আপনার বাগানের ফুলগুলো।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:৫৯

জুন বলেছেন: আমার ব্লগে স্বাগতম আপনাকে। সুন্দর একটি মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানবেন আড়ালি। ফুল ভালোবাসে না এমন মানুষ মনে হয় দুনিয়াতে নাই আমিও তার মাঝে একজন :)

৭| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৫০

নেওয়াজ আলি বলেছেন: ফুলের নাম ও পরিচয় জানা হলো অনেকটির। চায়ে এই ফুল কি দেশে ব্যবহার করে ?

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:০৪

জুন বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ নেওয়াজ আলি। মনে হয় না আমাদের দেশে এই ফুল দিয়ে চা বানায়। আমাদের দেশের সুপার গ্রোসারি শপে মনে হয় ইম্পোর্ট করে। আমার চিরন্তন সেই চা ছাড়া আর কোনটাই স্বাদ লাগে না। বেইজিং ঘোরার সময় গাইড আমাদের এক চায়ের দোকানে নিয়ে গিয়েছিল। সে যেন এক পাচ তারকা হোটেল। কত রকমের চা যে আমাদের পরিবেশন করেছিল নামও মনে নাই। তবে সবই পাতলা পানির মত, আমাদের দেশের মত কড়া দুধ চা ছিলো না সেই আয়োজনে :(
আরেক বার ধন্যবাদ রইলো। ভালো থাকুন সবসময়।

৮| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:৩২

রানার ব্লগ বলেছেন: জায়গার অভাবে গাছ লাগাতে পারি না , ভয়ংকর মানুষিক কস্টে আছি।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:০৬

জুন বলেছেন: কিসের মানসিক কষ্ট রানার ব্লগ ! খোলা জায়গা তো সেই আগের মত আমারও নেই। তার উপর দেশে থাকা হয় না নয় মাসও। তবে ওখানেও আমি ঘর আর এক ফালি বারান্দায় সেই উপযোগি গাছ বুনে থাকি। গাছ, ফুল আর পাখি ভালোবাসি অনেক।

৯| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:৩৩

লাইলী আরজুমান খানম লায়লা বলেছেন: আপনার হাতে লাগানো এত সুন্দর সুন্দর ফুল ! ওহ্ এক কথায় পাগল করা সুন্দর। আর পেঁয়াজ লাগানোর পদ্ধতিটা দারুন লেগেছে। আমি এ্যাপলাই করার চেষ্টা করবো ইনশাল্লাহ-----

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:৫২

জুন বলেছেন: আপনার প্রশংসায় আমি বিমোহিত লাইলী আরজুমান খানম লায়লা ।
পেয়াজ লাগাতে পারেন যদি কেউ এমন পেয়াজ পয়সা দিয়ে কিনে আনে ;)
ভালোই কলি আসে কিন্ত ।
মন্তব্যে অশেষ ধন্যবাদ আপনাকে ।

১০| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:০৬

চাঁদগাজী বলেছেন:



এখন আপনি কোন দেশে?

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:১৫

জুন বলেছেন: আমি বাংলাদেশে আছি । প্লেন বন্ধ, যেতে পারছি না। যে ভাবে যাওয়া যায় তা খুব এক্সপেন্সিভ । টু ওয়ে ফ্লাইটের টিকিট ৪২ হাজার ছিল এখন ৬০ হাজার , থাইল্যান্ডে নেমেই ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন তাদের নির্ধারিত ৫স্টার হোটেলে নিজ খরচে, তার উপর মেডিকেল ইন্স্যুরেন্স করতে হবে। যদিও আমরা দুজন আন্তর্জাতিক মেডিকেল ইন্স্যুরেন্সের আওতায় আছি তারপরেও সেটা সেখানে চলবে কি না আল্লাহ জানে ।

১১| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৮:১১

ঢাবিয়ান বলেছেন: চোখ জুরালো আপু আপনার বারান্দা দেখে। সেখানে বইসা এক কাপ চা খেতে ইচ্ছা করতেসে।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:২৪

জুন বলেছেন: কোন চা ঢাবিয়ান :-*
৩০০ ফিটের মালাই চা নাকি ঐ ক্রিসেন্থিমামের চা :|
ঐ চা খাইতে চাইলে আপনার সিংগাপুরই ভালো ।
আমাদের দেশে পাওয়া যায় কি না সুপার শপে খোজ নিতে হবে ।

বারান্দা সুন্দর কইছেন তার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ :)

১২| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৮:৫৩

রাকু হাসান বলেছেন:

সুন্দর !

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:২৬

জুন বলেছেন: রাকু হাসান ,
বহুদিন পর আপনার দেখা পেলুম আমার ব্লগে । তা মন্তব্য লেখায় এত কৃপনতা ক্যানো শুনি !!
কি সুন্দর ! লেখা ! নাকি ফুল ! নাকি আমার পাখিরা :-*
অসংখ্য ধন্যবাদ রইলো এসেছেন বলে :)

১৩| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:০৮

আখেনাটেন বলেছেন: আপনার ক্রিসেন্থিমামের চা দেখে পরখ করার ইচ্ছে হচ্ছে....যদিও মনে হয় না এটি পান করা খুব ভালো অভিজ্ঞতা হবে..... :D

চমৎকার ফুলের বাহার ব্যালকনিতে.....

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:১৪

জুন বলেছেন: আমার মনে হয় আগোরা বা মীনাবাজারের মতন সুপারশপে পাবেন। তবে এটা নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করার ইচ্ছে আপনার মত আমারও নেই আখেনাটেন। এমন পাতলা র চা আমার একদম না পছন্দ তাতে আবার ফুলের ঘ্রান B:-/
মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ রইলো। ভালো থাকুন সবসময়।

১৪| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:২১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ওয়াও আপু !!
ফুলের হাসি আর বুলবুলি উচ্ছ্বাস !!
জীবন আনন্দময় সুন্দর।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:১৭

জুন বলেছেন: থ্যাংকু ইউ মনিরা আমার ফুল আর পাখিদের ভালোবাসার জন্য :)

১৫| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১০:০০

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: আপু ফুল দিয়ে চা মানে চায়ের পাতায় পরিবর্তে ফুল দেওয়া? করোনাকালীন সময় আমরা তো করোনা স্পেশাল চা খেয়ে এসেছি এখনো খাচ্ছি। কিন্তু আপনার দেওয়া ফুল দেওয়া চাটি একদম ব্যতিক্রম এবং অভিনব লাগলো। মোটের উপর সুন্দর কালেকশন।
শুভেচ্ছা জানবেন আপু।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:৫৪

জুন বলেছেন: পদাতিক দেরী হয়ে গেল উত্তর দিতে । আমার মনে হয় এটা ফুলের ফ্লেভার যুক্ত চা হবে যেমন ক্যামোমিল, রোজ , জেসমিন চা হয় তেমনি পানির মতই ট্যালট্যালে কিছু একটা ;)
তবে এসব গন্ধ যুক্ত চা আমার ভালোলাগে না । আমার অরিজিনাল কড়া ফ্লেভারের লিপটন চাই ভালো লাগে।
হ্যা করোনার জন্য তো গ্রীন টি সাজেষ্ট করে । আরেকবার এসে সুন্দর একটি মন্তব্যে অনেক অনেক ধন্যবাদ ও শুভকামনা :)

১৬| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১০:৪৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: জুন,





আপনাকে উঁকি দিয়ে দেখা পাখিটার মতো আমিও ব্লগে উঁকি দিতেই আপনার এই রঙিন পোস্টটি দেখতে পেলুম নির্বাচিত পাতায়।

ইতিহাস সহ চন্দ্রমল্লিকার উপাখ্যান না হয় পেলুম কিন্তু এক বুলবুলির উপাখ্যান কই ? মনে হয় চন্দ্রমল্লিকা দিয়ে চা বানিয়ে গেলেন যা খাওয়া গেলোনা।
শুধু তো তার ছবি দিয়েছেন ! বুলবুলি কি কুলকুল করে এলোচুলি আপনার সাথে কথা কয় নাকি শুধু উঁকি দিয়েই দেখে ? নিঃসন্দেহে পাড়ার চ্যাংড়া একটা পাখি :P

এখন পেয়াজের চাষ করে কি হবে? পেয়াজের ব্যবসায় এখন আর লাভ নে্ই্। পত্রিকায় দেখলুম , আপনার ঐ পেয়াজের মতো ঝুঁটিওয়ালা পেয়াজের কেজি নিলামে নাকি পৌনে তিন টাকা।ইশ আরো মাস দুয়েক আগে যদি এই চাষাবাদটা করতে পারতেন তবে আমরাও "ফোর্বস" ম্যাগাজিনের কায়দায় বলতে পারতুম - "ব্লগের ধনীর তালিকায় এবারে শীর্ষে ব্লগার জুন..." ;) :-P :( :((

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:০৩

জুন বলেছেন: আপনাকে উঁকি দিয়ে দেখা পাখিটার মতো আমিও ব্লগে উঁকি দিতেই আপনার এই রঙিন পোস্টটি দেখতে পেলুম নির্বাচিত পাতায়। ভাগ্যিস উকি দিয়েছিলেন নইলে হয়তো আপনার চোখের আড়ালেই চলে যেত আমার রঙ্গীন ফুলে ফুলময় পোস্টটি। তাছাড়া শুনলাম কোন ভিনদেশে নাকি পাড়ি দিয়েছেন তাতে ঢাকঢোল পিটিয়েও আপনার দৃষ্টি আকর্ষন করা যেতো না মনে হয় আহমেদ জী এস ।
উকি দিচ্ছে ঝুটি শালিক আর বুলবুলি তো আমার দিকে পিছন ফিরে বসে আছে । মনে হয় আমার প্রতিবেশীদের দেখছে । ঝুটি শালিকটা গান গাবে কি ! সে মহা পাজি , তার জ্বালায় অন্য কোন পাখি আসতেই পারে না । উনি খেয়েদেয়ে তারপর চারিদিকে ঘুরে ঘুরে পাহারা দেয় পাড়ার রংবাজদের মত =p~
কি আর করা এখন "ফোর্বস" ম্যাগাজিনকে বলতে হবে আর কটা দিন সবুর করেন রসুন বুনেছি B-)
অসংখ্য ধন্যবাদ আপনার অসাধারন এক মন্তব্যের জন্য । যেখানেই থাকুন ভালো থাকুন পরিবারের সব্বাইকে নিয়ে ।

১৭| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:৫০

মলাসইলমুইনা বলেছেন: ক্রিস্যানথিমাম ফুল আর এর জাপানি ইতিহাস জানা হলো । আমার মনে আছে ছোট বেলায় আমাদের বাসার সামনের জায়গাটাতে মালি মুকলাল সব ধরণের ক্রিস্যানথিমাম একটা জায়গায় লাগতো । সাদা হলুদ বেগুনি মেরুনও (খুব সম্ভবত থাকতো) ওর মধ্যে ।গন্ধ তেমন ভালো না লাগলেও দেখতে খুবই সুন্দর লাগতো । শীতের সময় মুকলাল বাসার ফুলদানি ক্রিসেনথিমাম দিয়ে সাজিয়ে দিতো । আপনার বারান্দা বাগানে দৃষ্টান্তমূলক কৃষক কর্ম সাধনের জন্য (যেভাবে পেঁয়াজ বড় হচ্ছে বা কাচাঁমরিচটা যেমন পুরুষ্ঠু লাগলো তাতে ভবিষ্যতে) আপনার লোকালিটির বাজারের সবজি বিক্রেতাদের জিডিপি কমবে নিশ্চিত ! ভালো থাকুন ।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:১৩

জুন বলেছেন: আপনার বাড়ির ফুলের বাগান আর মালি মুকলালের কথা শুনে মনে পরলো আমার নিজের কথা মলাসইলমুনা :)
আমার আব্বা গোলাপ পছন্দ করতেন তাই আমাদের বাসায় গোলাপের চাষই হতো বেশি, সাথে রজনীগন্ধা বেলী এইসব । কিন্ত আমার বড় খালা গোলাপের সাথে সাথে মৌসুমী ফুলের বাগান করতেন। দিনের ২৪ ঘন্টার মধ্যে ৫/৬ ঘন্টাই সে মালির সাথে বাগানে থাকতেন। তার বাগানের বিভিন্ন ভ্যারাইটির অসংখ্য রঙ বেরঙ্গের ক্রিসেন্থিমাম ডালিয়াসহ হাজারো ফুলে যেন লনের চারপাশ হেসে থাকতো ।
হু আমি পিয়াজ মরিচ বেচে বড়লোক যখন হবো তখন হয়তো ইলন মাস্ক স্পেসেক্স ছেড়ে আমার সাথে পিয়াজ মরিচের ব্যাবসা করতে নামবে :)
নিয়মিত একটু লিখেন ব্লগে আমারা যারা ব্লগেই পরে আছি তাদের জন্য । অনেকেই দেখি একটা দুটো বই ছাপিয়ে আর আমাদের খবরই রাখে না। অনেক অনেক ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য আপনাকে। ভালো থাকুন সব্বাইকে নিয়ে :)

১৮| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:৫৯

রাজীব নুর বলেছেন: আমার নেট স্লো।
ছবি গুলো দেখা যাচ্ছে না।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:২০

জুন বলেছেন: আপনার নেট কি এখন ঠিক রাজীব নুর ? ছবিগুলো কি শেষ পর্যন্ত দেখতে পেরেছেন কি ? আপনার মত ফটোগ্রাফারের মতামতের যথেষ্ট দাম আছে আমার কাছে । আপনার দেশের বাড়ির ছবি দেখেছি শীঘ্রই যাচ্ছি আপনার ব্লগ বাড়িতে :)
ভালো থাকুন সবাই ।

১৯| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৩৪

সোহানী বলেছেন: আমি হিংসায় জ্বলেপুড়ে যাচ্ছি। আমি এতো এতো ইনডোর আউটডোর গাছ লাগাই কিন্তু শীত আসার সাথে সাথে মেক্সিমাম মরে যায়। এখানে ঠান্ডায় গাছ বাচাঁনো খুব কঠিন। আমি দু:খে আছি। প্রতি বছর কি পরিমান যে টাকা পানিতে ফেলি তার ইয়াত্বা নাই :(( :(( :(( :((

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৮:৫২

জুন বলেছেন: হিংসার দরকার নাই সোহানী, দেশে আসেন গাছ লাগান পরিবেশ বাচান :`>
সোনার অংগ ছারখার করার কুনো দরকার আছে!
আসলে আমার দেবর একটা ডিসিতে থাকে, তার গাছ নাকি শীতকালে কি দিয়ে জানি পেচিয়ে রাখে বল্লো। ভাবতেই পারি না এই সব ঝকমারির কথা।
অনেক অনেক ধন্যবাদ আপনাকে সবসময় সাথে আছেন বলে :)

২০| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৫৩

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:



বিভিন্ন জাতের চন্দ্রমল্লিকার ফুলের সুন্দর সুন্দর ছবি দেখে ভাল লাগল ।
চন্দ্র মল্লিকা আমার পছন্দের ফুলগুলির মধ্যে একটি । আমার লেখার
টেবিলের পাশে ফুলদানীতে চন্দ্র মল্লিকা কিছু না কিছু থাকবেই থাকবে।

ফুলের ব্লগে বুবুলির কথা ও ছবি দেখে প্রিয় কবির সেই বিখ্যাত গানের কলি মনে পড়ে যায় -
বাগিচায় বুলবুলি তুই ফুল শাখাতে দিসনে আজি দোল
আজো তার ফুল কলিদের ঘুম টুটেনি তন্দ্রাতে বিলোল।।


পোষ্টে থাকা ফুলের দুর্লভ ছবিটি দেখে পুলকিত হলাম ।
কসাভা আমাদের দেশে মধুপুর গড় এলাকা শিমুল
আলু নামে পরিচিত । সেখানে এর অনেক গাছ
দেখেছি । গাছের পাতাগুলি দেখতে খুব সুন্দর ।
এর গাছটি দেখলেও এর ফুল দেখিনি কভু, তবে
কসাভা জাতীয় শিমুল আলু গাছের মুলে ঝুলে থাকা
গুচ্ছ আলু গুলিও দেখতে যেন ঠিক ফুলের মতই সুন্দর।

মরিচ গাছের ছবি দেখে কৃষকদেরদুর্দশা ও করুন হালের কথা ভেবে কিছুটা খারাপ লাগছে ।
আশা করি ব্লগের কৃষক ও প্রকৃতি বান্ধব ভাই বোনেরা এগিয়ে আসবেন নিত্য প্রয়োজনীয়
এই মরিচ গাছের করুন হাল দুরিকরনের পন্থা ও পদ্ধতি নিয়ে । আশা এই পোষ্টটির
কল্যানে মরিচ চাষীগন বেশ উপকৃত হবেন ।

আপনার প্রিয় অতিথীপাখী বুলবুলি জন্য
চিলিয়ান ল্যানটার্ন ফুল কতক রেখে গেলাম ।
এই ফুল গাছের শাখে বসে বুলাবুলিরা বেশ
সাচ্ছন্দে নেচে নেচে মনের সুখে গান গাইতে
পারবে । ছায়াময় জায়গায় এই ফুল ফুটে ভাল ।


সুন্দর ফুলের ছবি সমেত পোষ্টটিকে প্রিয়তে নিয়ে গেলাম ।

শুভেচ্ছা রইল

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:০২

জুন বলেছেন: ডঃ এম এ আলী ভাই, যথারীতি আপনার সিগনেচার মন্তব্যে অনেক অনেক লাইক।
আসলেও চন্দ্রমল্লিকা গন্ধ না থাকলেও ফুলটি এতই সুন্দর যে ফুলদানিতে রাখলে ঘরের চেহারাই পালটে যায়। আমার খালার বাগানে আমি প্রথম দেখেছিলাম অনেক অনেক ভ্যারাইটির ক্রিসেন্থিমাম। তখনি এর রূপমুগ্ধ আমি।
কাচামরিচের ব্যাপারটি কিন্ত সত্যি। এটা মনে হয় কোন বিদেশি ভ্যারাইটি। আমি আগে দুটো গাছ বুনেছিলাম একটা কালো আরেকটি সাদা মরিচের। কত যে অজস্র মরিচ ধরেই চলেছিল। পরে আমি থাইল্যান্ড চলে গেলে যত্নের অভাবে মারা যায়। আমি বর্তমান গাছটি মাত্র ফুল এসেছে এমন অবস্থায় কিনেছি। যেই কয়েকটি ফুল ছিল তার অর্ধেক হয়েছে আর বাকি গাছ মরে যাচ্ছে।
আমার বুলবুলির জন্য গান আর ফুলে আমি মুগ্ধ বুলবুলি দেখলে না জানি কি হবে :)
অসাধারণ এক মন্তব্য, ভালো লাগা আর প্রিয়তে নেয়ার জন্য আন্তরিক শুভেচ্ছা জানবেন। ভালো থাকুন এই প্রত্যাশা রইলো।

২১| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১:৪৪

সচেতনহ্যাপী বলেছেন: কেমন আছেন বোনটি।।
নিয়মিত হবো ইনশাআল্লাহ্।।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:০৫

জুন বলেছেন: আমি এখনো বেচেবর্তে আছি সচেতনহ্যাপি। আপনি কেমন আছেন? কোথায় আছেন? এতদিন কই ছিলেন? কতবার আপনার ব্লগবাড়িতে ঘুরে এসেছি। নাই আপনি। সাহায্যকারী ছাড়া একা একা কাজ করছি। সময় পাই না তাও আসি। আপনি নিয়মিত হবেন শুনে অনেক অনেক ভালো লাগছে বিশ্বাস করেন। পুরনো লোকজন দেখলে মনটা আনন্দে ভরে যায়। ভালো থাকুন সবসময়।

২২| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ ভোর ৬:৩২

নীল-দর্পণ বলেছেন: আমি গত বছর নারী দিবসে উপজেলার নারী অফিসার এবং আমার অফিসের নারী অফিসারদের বেগুনী চন্দ্রমল্লিকা দিয়ে শুভেচ্ছা পাঠিয়েছিলাম। এত সুন্দর সুন্দর রংয়ের একটা ফুল। তবে আমাদের দেশে এর রংয়ের তাত্পর্য নিয়ে ভাবা হয় না। আমিও এই পোস্ট পড়ার আগে জানতাম না। সেদিন বিভাগীয় পর্যায়ের এক অনুষ্টানে দেখলাম সাদা চন্দ্রমল্লিকা দিয়ে অতিথি বরন করা হচ্ছে। ভালো আছেন নিশ্চই? :)

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:৪৯

জুন বলেছেন: আমি ভালো আছি নীল দর্পন আপনি? আপনি কেমন আছেন? খুব ব্যাস্ত সময় পার করছেন মনে হচ্ছে।
আসলেই চন্দ্রমল্লিকা ফুলগুলো খুবই ডেকোরেটিভ। যে কোন অনুষ্ঠানের সৌন্দর্য বর্ধনে উপরের সারিতেই আছে।
ভালো থাকবেন আর যত ব্যাস্ততাতেই থাকেন না ক্যান মাঝে মাঝে আপনার অভিজ্ঞতার কিছু কিছু আমাদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না যেন। শুভেচ্ছা সকালের :)

২৩| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:৪০

ইসিয়াক বলেছেন: বাহ! খুব সুন্দর ফুল।
চন্দ্রমল্লিকা আমার প্রিয় ফুল ,সব রঙই ভালো লাগে তবে বেশি ভালো লাগে খয়েরি ও সাদা রঙের চন্দ্রমল্লিকা।
শুভ সকাল।

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:৫৩

জুন বলেছেন: উত্তর দিতে দেরী হলো ইসিয়াক, আশাকরি কিছু মনে করবেন না। আমার সাদা হলুদ আর বেগুনী আসলে সবগুলো রঙ ই ভালো লাগে। সকালের শুভেচ্ছা জানবেন। মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ রইলো।

২৪| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:২৭

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
চন্দমল্লিকা ফুলকে আমার এক কবিতায় দিয়েছি স্থান।+++++++

সুন্দর ছবি ব্লগ।

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:৫৫

জুন বলেছেন: কবিতায় স্থান দেয়ার মতই মাইদুল সরকার। সত্যি অনেক অনেক সুন্দর।
ভালো থাকুন সবাইকে নিয়ে, আর লেখার সাথে থাকুন বরাবরের মতই :)

২৫| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৫০

পদ্ম পুকুর বলেছেন: ঝুটিওয়ালা শালিকটা আপনাকে দেখছে না, ছবির জন্য পোজ দিচ্ছে মনে হয়!!

আমারও সোহানী আপার মত অবস্থা, যত গাছই লাগাই সব মরে যায়। এইসব গাছগুলো খানিকটা ধনীর দুলাল-দুলালীর মত, যত্ন-আত্তি একটু কমলেই গোস্যা করে...

চন্দ্রমল্লিকা নাম জেনে আমার ধারনা ছিলো এ্টা পিওর দেশী ফুল।

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:২৬

জুন বলেছেন: আমার এই ঝুটি শালিকটা কিন্ত মহা মাতব্বর পদ্মপুকুর । সারাক্ষন খাবারের থালার চারিপাশে ভৌকিদারি করে বেড়ায় । অন্য কোন পাখি আসলে তাদের দিকে তেড়ে যায় । একমাত্র কাঠ শালিকের দল যাতে থাকে ১০/১২টা তারা ঝাক বেধে এসে একে দাবড়ানি দিয়ে তাড়িয়ে দিতে সক্ষম হয় :)
ফুলগাছের বেশি যত্ন প্রয়োজন, তবে ঘরে রাখা বিভিন্ন প্ল্যান্ট অত যত্ন না নিলেও চলে যেমন ধরেন বাড়ির বেগম সাহেবার অবস্থা আরকি B-)
মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ রইলো ।

২৬| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৫২

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: দারুন ঝলমলে ছবি ব্লগ।দেখে অনেক ভাল লাগল।
ধন্যবাদ জুনাপি।

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:৪২

জুন বলেছেন: আমার ফুলের ছবিগুলো ভালোলাগার জন্য অনেক অনেক ভালোলাগা রইলো মোস্তফা সোহেল :)

২৭| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:০১

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: আপনার বারান্দায় পাখিদের আনাগোন :)

আমার বাসায় চড়ুই আসে
বেয়াদপগুলো কাপড়ের উপর হাগু করে যায় :(

খুব সুন্দর পোস্ট

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:৪৪

জুন বলেছেন: বেয়াদপগুলো কাপড়ের উপর হাগু করে যায়
হা হা হা আমাদেরগুলোও হয়তো করতো কিন্ত আমরা যে কাপড় শুকানোর তার রাখিনি বারান্দায় ।
সুন্দর বলেছেন তার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ কাজী ফাতেমা ছবি ।

২৮| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:১৫

ঢুকিচেপা বলেছেন: চন্দ্রমল্লিকা ফুলের তথ্য জেনে ভালো লাগলো। একেক ফুল যে একেক কাজে ব্যবহার হয় বিষয়টা জানা হলো।
আপনার অতিথি ফটোসেশনের জন্য মুখ বাড়িয়ে আছে।

“তাই একে বুনে রাখলাম ডিমের প্যাকেটে অল্প একটু পরিমান মাটি দিয়ে । দিনে দিনে বেশ বড় হয়ে উঠছেন তেনারা”
এবছর আর চিন্তা রইলো না। পেঁয়াজের দাম বাড়লে আপনার ওখান থেকে আমদানী করা যাবে। বুক করে গেলাম।

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:১৩

জুন বলেছেন: একেক ফুল যে একেক কাজে ব্যবহার হয় বিষয়টা জানা হলো। আপনি ঠিকই বলেছেন , আমিও বিষয়টি নিইয়ে লেখার সময় জেনেছি ।তবে জাপানের জাতীয় ফুল এবং রাজকীয় মোহরে এর অবস্থান এটা জানতাম ধুকিচেপা :)

আপনার অতিথি ফটোসেশনের জন্য মুখ বাড়িয়ে আছে। জী আমার সন্টু পন্টু দুই ঝুটি শালিক । খুব মাতব্বর সে :)

আমার পেয়াজের জন্য মনে হয় আপনাদের এলসি খুলতে হবে =p~
অসংখ্য ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য । ভালো থাকুন সব সময় ।

২৯| ২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:৩৬

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: চমৎকার উপস্থাপনা আর সুন্দর সব চন্দ্রমল্লিকার ছবি।
চন্দ্রমল্লিকার ধরনের কোনো শেষ নাই, কতো রং বেরং আর আকারের যে হয় ওরা!!

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:২৭

জুন বলেছেন: আপনাকেও অনেক অনেক ধন্যবাদ জলদস্যু । আপনার মতন ফুল আর গাছ প্রিয় মানুষকে তাই দাওয়াত দিতেই হলো :)
ভালো থাকুন সবসময় ।

৩০| ২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:৩৯

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আফ্রিকায় ক্ষুধা নিবারনে কাসাভা ব্যবহৃত হয়। আপনে যে ওদের কাছ থিকা শিক্ষা নিয়া নিজেও কাসাভার চাষ করতাছেন, এইটা দেইখা ভালো লাগলো। তয় এইটা হইলো বড়লোকের কাসাভা। এতে কি ক্ষুধা নিবারন হবে? মরিচ পিয়াজের চাষও করতাছেন দেখলাম। আর কিসের কিসের চাষ করতাছেন, জাতি জানতে চায়। আমাগো কিরপিনও এইখান থিকা শিক্ষা নিতে পারে। তয় হ্যার প্যাচাইন্না স্বভাব। সব কিছুতেই ঝামেলা পাকানের চেষ্টা করে!! :P

আপনের বারান্দায় যেই পাখিগুলা আসে, ওইগুলার টেস্ট কেমন? আপনে যে ওগো ডাইকা আইনা ধইরা খায়া ফালান না, তার নিশ্চয়তা কি? কাসাভা, পেয়াজ, পেয়াজ কলি, মরিচ আর পাখির গোশত......কম্বিটা কিন্তু অতি মুখরোচক!!! =p~

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৩৬

জুন বলেছেন: প্রথমেই একটা কথা বইলা নেই ভুয়া নইলে পরে ভুইলা যাইতে পারি । গতরাতে সাম্প্রতিক ভিজিট লিষ্টে নাম দেখলাম আপনার । মনে মনে কিছুটা খুশী হইলাম, ভাবলাম যাউজ্ঞা আমার মত সাথে সাথে মন্তব্য না করলেও ৪ দিন পরে হইলেও তো করতেছে। একটু পরে দেখি প্রথম পাতার মন্তব্যের ঘরে আমার পোস্টের খবর নাই তার নিজের পোস্ট দিন শেষে বিজয়ীর নাম দেখে মনে দুক্ক নিয়ে চৌকিদারি করতে গেলাম । গিয়ে তো আমি তাজ্জব !! আমার পোস্টের মন্তব্য নিজের পোস্টে করা । আমি যে তার পোস্টে ৩টা মন্তব্য করছি তাও হয় নাই , আমার পোস্টের মন্তব্যটাও নিজের পোস্টে করছে :-/
এখন আপনের মন্তব্যের উত্তরে আর কি লিখমু কা করুম বুঝতাছি না । পাখির মাংস খাই না তাই কইতে পারবো না । একদিন সন্ধ্যায় এলিফেন্ট রোডের মাস্কোর মোড়ে সিগনালে বসা এক লোক কতগুলো পরিযায়ী পাখির পা ধরে এগিয়ে আসলে আমি গ্লাস নামিয়ে লোকটার এমন হৃদয়হীন আচরনের জন্য বকা দিলাম ।
ভালো থাইকেন আর আজকের ক্যাচাল পোস্টের জন্য মেলাটি ধন্যবাদ :)

৩১| ২৫ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১০:০২

মিরোরডডল বলেছেন:



চন্দ্রমল্লিকা উপাখ্যান । সাদাগুলো খুবই সুন্দর । এই ফুলের ভালো দিক হচ্ছে খুব সহজেই ছোট চারা থেকে গাছগুলো বেড়ে উঠে ফুল দেয় । খুব বেশী এফোর্ট দিতে হয়না । অনেক আগে একসময় আমাদের বাসায় ছিলো ।

ক্রিসেনথিমাম চা একবার ট্রাই করেই তাকে গুডবাই জানিয়েছি । আমার মতো মালাই চা-খোরের পক্ষে এই চা পান অসম্ভব ! যদিও জানি এই চা ক্যান্সার, ডায়াবেটিস, স্ট্রোক এবং হৃদরোগের জন্য খুবই উপকারি ।

জুনাপুর কসমস দেখেও নস্টালজিক হলাম । আমার বাবার খুব শখ ছিলো । অনেকরকম কসমস করেছিলো ।
হলুদ সাদা গোলাপি ।

বাহ ! পেঁয়াজগুলো দারুনতো !



২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:১১

জুন বলেছেন: আমার মতো মালাই চা-খোরের পক্ষে এই চা পান অসম্ভব ! যদিও জানি এই চা ক্যান্সার, ডায়াবেটিস, স্ট্রোক এবং হৃদরোগের জন্য খুবই উপকারি । বাহ আপনিও দেখি ঠিক আমার মত মালাই চা এর পক্ষে ।
আমাকে আমার অনেক আত্মীয় আর ফ্রেন্ডরা কত বোঝাতে চেষ্টা করে লিকারের উপকারিতা । একজনের বোন পাঠিয়েছে কানাডা থেকে কি জানি ফ্লেভারের চা । আমাকে কত সাধাসাধি করলো আমি এক চুমুক দিয়ে মাফ চাই দোয়া চাই বলে রাখলাম ।
আমি তাদের বলি শোন আমি চা খাই টেষ্টের জন্য, উপকারের জন্য না ;)
সুন্দর একটি মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানবেন মিড , ভালো থাকুন সবসময় ।

৩২| ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:০২

মলাসইলমুইনা বলেছেন: নিয়মিত একটু লিখেন ব্লগে আমারা যারা ব্লগেই পরে আছি তাদের জন্য । অনেকেই দেখি একটা দুটো বই ছাপিয়ে আর আমাদের খবরই রাখে না।

এটা কি মন্তব্য করলেন -- দু'দিনের যোগী ভাতেরে বলে অন্ন ! সেরকম বললেন আমাকে। আমিও বইয়ের লেখক যে আপনাদের ভুলবো আর নিজেকে দাবি করবো গ্রন্থকার ! ব্লগ থেকেইতো নতুন করে লেখার শুরু । আর বলেইছিতো নিজের লেখাতেই যে আমার লেখার তরীটা যে সামুর ঘাটে ভিড়ে আছে এখনো সেটা আপনাদের আন্তরিকতার জন্যই । সেটা আমি সহজে ভুলিনা । আপনার মন্তব্য পড়ার পরেই নতুন লেখা নিয়ে বসেছি। ইনশা আল্লাহ তাড়াতাড়িই শেষ করব । ভালো থাকুন ।

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:২১

জুন বলেছেন: দু'দিনের যোগী ভাতেরে বলে অন্ন
আমি জানতাম আপনি এই কথা বলবেন মলাসইলমুনা :)
আসলে কথাটি আমি ইন জেনারেল বলতে চেয়েছি আর তার জন্য বেছে নিয়েছি সবচেয়ে নরম শরম ভদ্রলোকটিকে যিনি আমাকে হয়তো কিছু বলবেন কিন্ত আক্রমনাত্মক ভাষায় নয় :``>> আসলে যারা ভালো লিখেন তারাই তো বই বের করেন । কিন্ত তারা যখন আর আসেন না বা আসলেও খুব কম তখন আমাদের খারাপ লাগে কারন তাদের অসাধারন লেখাগুলো থেকে আমরা পাঠকরা বঞ্চিত হই। এটা হয়তো আমার বেলায়ও কোনদিন হতে পারে যদি আমি কোনদিন আদৌ একটি বই প্রকাশ করতে পারি। সুতরাং আপনি কিছু মনে করবেন না বলেই আমি এতটা সাহস করে বলেছি ।
আপনার মন্তব্য পড়ার পরেই নতুন লেখা নিয়ে বসেছি। ইনশা আল্লাহ তাড়াতাড়িই শেষ করব । তাড়াতাড়ি পোস্ট করুন আপনার লেখা পড়ার জন্য অধীর আগ্রহ নিইয়ে আছি ।
আর শেষ্টায় ভালো থাকুন কথাটি কতটা বিরক্তি আর রাগ নিয়ে লিখেছেন তা আমি দিব্য চোখে দেখতে পারছি ।
দেখেন সবাইকে টপকে আপনাকে উত্তর দিচ্ছি যা আমার স্বভাব বিরুদ্ধ কারন আপনি আমার একজন প্রিয় ব্লগার :)

৩৩| ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:৪৪

মলাসইলমুইনা বলেছেন: নোপ্ ----একেবারেই রেগে নেই। আমার জন্য মোটেই আপনার স্বভাব বিরুদ্ধ কিছু করা মানে কমেন্ট করার সিরিয়াল মেনটেইন করার নিয়মটা ভাঙা রদরকার ছিল না। কারণ বিশেষ করে আপনার ওপর কখনোই আমি রেগে নেই।এটা কিন্তু সত্যি । ভালো থাকুন ফুলের সুবাসে আর পাখির কাকলীতে।

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:১৫

জুন বলেছেন: নোপ্ ----একেবারেই রেগে নেই।
সত্যি বলতে কি অনেক অনেক আশ্বস্ত হোলাম মলাসইলমুনা ।
ঐযে বলেছি আগেই আসলে কথাটি আমি ইন জেনারেল বলতে চেয়েছি আর তার জন্য বেছে নিয়েছি সবচেয়ে নরম শরম ভদ্রলোকটিকে যিনি আমাকে হয়তো কিছু বলবেন কিন্ত আক্রমনাত্মক ভাষায় নয় :``>>
আপনার লেখাটি লিখে জলদি জলদি পোস্ট করেন । আপনার লেখা মানেই ব্যাতিক্রমী সাথে অনেক কিছু জানার থাকে ।
আন্তরিক ধন্যবাদ জানবেন আরেকবার এসেছেন তার জন্য :)

৩৪| ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:০৪

পদ্ম পুকুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: নিয়মিত একটু লিখেন ব্লগে আমারা যারা ব্লগেই পরে আছি তাদের জন্য । অনেকেই দেখি একটা দুটো বই ছাপিয়ে আর আমাদের খবরই রাখে না। আমি কিন্তুক এই দুদিনের যোগীর শেষ বইটা অর্ডার করেছি.... :-B

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:১৮

জুন বলেছেন: আমি কিন্তুক এই দুদিনের যোগীর শেষ বইটা অর্ডার করেছি.... তাই নাকি ?
আশাকরি শীঘ্রই একটি দারুন রিভিউ পাবো পদ্মপুকুর ।

৩৫| ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:২১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনে তো দেখি ডেন্জারাস টাইপের গোয়েন্দা!! ওইটা ছিল মিসটেইক! বুঝতে পাইরা সাথে সাথে ডিলিট করছি, মনে করছিলাম, কেউ দ্যাখে নাই। অহন তো দেখি, আপনে ঠিকই দেইখ্যা ফালাইছেন। আম্রিকা তো যাইবেন কয়দিন পরে। গিয়া এফবিআই'তে জয়েন কইরেন। এইটা একটা রিকুয়েসট!! :-B

আমি যেই রেসিপি দিছি, ওইটা দিয়া পাখির মাংস রাইন্ধা খায়েন। দেখবেন কতো টেসট!

আমার আইজকার এইটা তো ক্যাচাইল্লা পোষ্ট না, দুস্কের পোষ্ট। :P

২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:৩২

জুন বলেছেন: আপনে তো দেখি ডেন্জারাস টাইপের গোয়েন্দা !! B-)
এটা হওয়াইতো স্বাভাবিক,যার বাবা পুরো চাকরী জীবন ডিটেক্টিভ ব্রাঞ্চ, স্পেশাল ব্রাঞ্চ আর সিআইডিতে
একজন সৎ ও উচ্চপদস্থ অফিসার হিসেবে সুনামের সাথে চাকরী করে গেছেন তার মেয়ে তো একটু আধটু গোয়েন্দা হইতেই পারে ;)
বড়ই দুক্ষ পাইছিলাম দেইখা । শোকে দুক্ষে ঘুমাইতে গেলাম আর ভাবতে লাগলাম ভুয়া কি কানাডার বেগম পাড়ার বাসিন্দা হইলো নাকি যে টিয়ারপির জন্য মানুষের পোস্টের কমেন্টও নিজের পোস্টে করে । তাজ্জব হইছি সত্যি :|
আম্রিকা যাইয়া যেইখানে জয়েন করতে কইছেন সেইখানে অলরেডি এক কাজিন বোন জব করে করে আম্রিকার সবচেয়ে বিখ্যাত ইউনিভার্সিটির থিকা পাশ কইরা #:-S
কইতে পারেন পুরা গুষ্টি গোয়েন্দা =p~

না পাখি আমি ভালোবাসি তাদের মাংস খাওয়া আমি চিন্তাই করতে পারি না :(
অনেক ধন্যবাদ আবার আসছেন বইলা :)

৩৬| ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১০:৫৫

আমি তুমি আমরা বলেছেন: বাহ, আপনার বাগানেতো চমৎকার সব ফুলের মেলা। সেই সাথে শালিকের জুটিটাও অসাধারণ। ভাল লাগল। :)

২৭ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৮:৩৯

জুন বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ আমি তুমি আমরা। সকালের শুভেচ্ছা জানবেন :)

৩৭| ২৭ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:৫৯

মিরোরডডল বলেছেন:

জুনাপুর জন্য আমি বাগানে একটা কমেন্ট রেখে এসেছিলাম :)


২৭ শে জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:২৫

জুন বলেছেন: মিররড্ডল আমি দেখেছি তবে ওনার পোস্টে আমি আর কিছু বলতে চাই নি তাই কিছু বলি নি । আপনি যা বলেছেন এই ব্যাপারটি একটি ধর্মের একান্ত নিজস্ব বিষয় এ নিয়ে আমাদের কিছু বলা ঠিক না ।

৩৮| ২৭ শে জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:৩০

মিরোরডডল বলেছেন:

I agree with you Juna'pu.
ধর্ম নিয়ে এভাবে বলতে নেই । আমি যদিও ওটা ফান করে বলেছি ।
আই উইশ নো ওয়ান টেইক ইট সিরিয়াসলি ।

২৭ শে জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:৫৯

জুন বলেছেন: আমি বুঝেছি মিরোরডডল, কিন্ত সবার বুঝতো একরকম না তাই সমস্যা ।
ভালো থাকবেন অনেক অনেক আর সাথে থাকবেন সবসময়। আপনার মন্তব্য আমি অনেক লাইক করি :)

৩৯| ৩০ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:০৫

রাকু হাসান বলেছেন:

লেখক বলেছেন: রাকু হাসান ,
বহুদিন পর আপনার দেখা পেলুম :D আমার ব্লগে । তা মন্তব্য লেখায় এত কৃপনতা ক্যানো শুনি !!
কি সুন্দর ! লেখা ! নাকি ফুল ! নাকি আমার পাখিরা :-*
অসংখ্য ধন্যবাদ রইলো এসেছেন বলে :)


:D জুন আপুর মত মানুষ যদি বলে তাঁর কি সুন্দর হয়েছে ...তাহলে কিভাবে বলুন । এত বছরের অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা কম হলো না । কোন দিন কি আপনার পোস্টে নিরাশ হয়েছি। ব্লগের অন্যতম সেরা বটবৃক্ষ আপনি । ক্লিন ইমেজের যে সব ব্লগার আছেন ,সেগুলোর মাঝে আপনার স্থানটা অবশ্যই প্রথম সারিতে থাকবে ।

এই পোস্টে সবার উত্তর দ্রুত দিয়েছেন , ৫ জি চালু হইলো নাকি আপনার দিকে । ;)

৩১ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:২৩

জুন বলেছেন: জুন আপুর মত মানুষ যদি বলে তাঁর কি সুন্দর হয়েছে ...তাহলে কিভাবে বলুন । এত বছরের অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা কম হলো না । কোন দিন কি আপনার পোস্টে নিরাশ হয়েছি। ব্লগের অন্যতম সেরা বটবৃক্ষ আপনি । ক্লিন ইমেজের যে সব ব্লগার আছেন ,সেগুলোর মাঝে আপনার স্থানটা অবশ্যই প্রথম সারিতে থাকবে ।
এই পোস্টে সবার উত্তর দ্রুত দিয়েছেন , ৫ জি চালু হইলো নাকি আপনার দিকে । ;)

রাকু হাসান এই কথা শুনে অর্থাৎ পড়ে আমার লেখার ভাষা হারিয়ে ফেললাম। আপনি যা বলেছেন তা আমার ওয়েল ঊইশার হিসেবে। কিন্তু সাধারণ একজন হিসেবে যদি দেখতেন তবে বলতেন কি!!
অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে সাথে শুভকামনা রইলো সব সময়ের জন্য :)

৪০| ৩০ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:১০

খায়রুল আহসান বলেছেন: খুব সুন্দর ছবি ও পাখির সমাহার, তার সাথে যোগ হয়েছে অনুপম কিছু কথা। আর একজন ইতিহাসবিদের লেখায় যদি ইতিহাসের ছিটে ফোঁটা না থাকে, তাহলে কেমন হয়! তাই ছবি ব্লগের সুন্দর ফুলগুলোর কিছু ইতিহাস জানতে পেরেও ভাল লাগলো।
পোস্টে ভাল লাগা + +।

৩১ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৪০

জুন বলেছেন: আমার লেখাটি আপনার ভালো লেগেছে অনেক অনেক ধন্যবাদ আপনাকে :)
মন্তব্য ও ভালো লাগার জন্য খুশি হয়েছি অনেক।

৪১| ৩১ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:০১

আমি সাজিদ বলেছেন: চমৎকার পোস্ট। বুয়া কি এখনও সাজেশন দিচ্ছে? শিল্পা শেটির উপদেশ মেনে আবার গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা বাড়ছে না তো?

৩১ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:১৬

জুন বলেছেন: ভাই আমি সাজিদ
অনেক দিন পরে দেখলেন নাকি আমার এই পোস্ট! আমার বারান্দার ফুলগুলো!!
গেষ্ঠিকের জন্য আমি তো দেখছি বুয়া আর শিল্পা শেঠীর চিকিৎসায় ঘুরপাক খাচ্ছি =p~
না আসলে আমি তেল ঝাল মশল্লা খাওয়াও কমিয়েছি। গতকাল ব্যাংককে আমার এক আত্নীয়র ইন্টেস্টাইন অপারেশন হলো। স্টেজ থ্রি ক্যান্সার। সেই কাটা অংশের বীভৎস ছবি দেখে আমি ভয় পেয়ে গিয়েছি। ভদ্রলোকের অনেকদিন ধরেই পেট ব্যাথা ছিল। আমাদের মতই গুরুত্ব দেন নি। আমাদের মতই দু একটা এন্টাসিড খেতেন। এখন মৃত্যুর সাথে লড়ছেন। আসলেই আমাদের যে কোন অসুস্থতাকেই গুরুত্ব দেয়া উচিত।
অনেক অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

৪২| ০১ লা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:২৫

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আপু। আপনার মন্তব্য অনুযায়ী আমি জিরা পানি খেয়ে দেখবো। তারপর জানাবো।
শুভসকাল।

০১ লা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:৩৩

জুন বলেছেন: আপনাকেও আন্তরিক ধন্যবাদ ইসিয়াক। আমার মনে হয় আপনি ১ সপ্তাহ পরেই ভালো ফল দেখতে পাবেন যদি নিয়মিত খেতে পারেন।

৪৩| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৫৫

নীল আকাশ বলেছেন: আপনের বারান্দায় যেই পাখিগুলা আসে, ওইগুলার টেস্ট কেমন? আপনে যে ওগো ডাইকা আইনা ধইরা খায়া ফালান না, তার নিশ্চয়তা কি? কাসাভা, পেয়াজ, পেয়াজ কলি, মরিচ আর পাখির গোশত......কম্বিটা কিন্তু অতি মুখরোচক!!!
এই কম্বি কি জেনিফাররে রাইন্ধা খাওয়াই দিছিল নাকি জিগাইনে মফিজ ভাইরে।
ভাব চক্কর দেইখা তো মনে হয় পরীক্ষিত রেসিপি দিচ্ছে!

আমাদের হাউজিংয়ে অসাধারণ সব ফুলের চাষ করা হয়। আমি সব ফুলের নাম জানি না দেখে সেইগুলির ছি তুলে পোস্ট দিতে সাহস পাইনা। এইটা যে চন্দ্রমল্লিকা আজকেই জানলাম। কমপক্ষে ৪ ধরণের আছে এখানে।
কাসাভার ফুলের মনে হয় একটা দেশীয় নাম আছে। মনে পরছে না। গ্রাম গঞ্জে প্রচুর দেখা যায়।

০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:১৯

জুন বলেছেন: নীল আকাশ প্রো পিক চেঞ্জ করেছেন তাই না! আমি প্রথমে ধরতেই পারি নি আপনি আমাদের সেই অতি পরিচিত নীল আকাশ।
জেনিফারকে খাইয়েছে বলেছেন? হতে পারে ভুয়া হয়তো তাকেই ভালোটা আর ক্রিস্কে বোম্বাই মরিচ বিরিয়ানি ;)
চন্দ্রমল্লিকা ইংরেজি নাম ক্রিসেনথিমাম কিন্ত বাগানের সৌন্দর্য অনেক অনেক গুন বাড়িয়ে তোলে। আপনি কাসাভার ফুলকে ঢোল কলমী ভাবছেন না তো!
অনেক দিন পর আসলেন অনেক খুশি হয়েছি। মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ রইলো।

৪৪| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৪০

নীল আকাশ বলেছেন: জেনিফারকে খাইয়েছে বলেছেন? হতে পারে ভুয়া হয়তো তাকেই ভালোটা আর ক্রিস্কে বোম্বাই মরিচ বিরিয়ানি
সমূহ সম্ভবনা আছে। এইসব করে টরে ব্লগে এসে আমাদের উলটা পাল্টা বুঝাচ্ছে ;)

জী একদম ঠিক ধরেছেন। আপনি হচ্ছে ব্লগের অন্যতম ফুল স্পেশিলিস্ট। বুঝে ফেলেছেন।
আমার ছবি আর আপনি যেটা দিয়েছেন এক না?
আমি তো আপনার পোস্ট দেখলেই পড়ি। নিয়মিত না দেখলে খুঁজে খুঁজে পরিচিতদের পোস্ট বের করে পড়ি। যেমন আজকের টা।
শুভ কামনা আপু।

০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:০৩

জুন বলেছেন: এইসব করে টরে ব্লগে এসে আমাদের উলটা পাল্টা বুঝাচ্ছে ;)
হা হা হা ভালোই বলেছেন নীল আকাশ।
ঢোল কলমী ফুলের মত হলেও কাসাভা আলু জাতীয় উদ্ভিদ। আর কাসাভার ফুল আকারে ছোট।
আমার পোস্ট পড়েন শুনে অনেক ভালো লাগলো :)
ভালো থাকুন সবসময়। সকালের শুভেচ্ছা জানবেন।

৪৫| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:০৪

পদ্ম পুকুর বলেছেন: আপ্নে কইছিলেন, আমি নাকি আপ্নের ব্লগে আসিনা... এখন্তো বার্বার আস্তাছি, মাগার আপ্নের লেখা নাইক্যা... হইলো এইডা কিছু...

০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:০৯

জুন বলেছেন: আপনে আসেন কিন্ত আমিতো কাকুর মত সকাল বিকাল একটা করে নতুন পোস্ট লিখতে পারি না :(
আপনি রিভিউ পোস্ট দিচ্ছেন দেখলাম, যাবো অবশ্যই।
শোনেন পদ্মপুকুর আমি যদি জীবনে কোনদিন একটা বই বের করতে পারি তখন কিন্ত আপনার রিভিউ চাইই চাই, আর বইটা অবশ্য কিন্না, পইড়া রিভিউ লিখবেন :`>
গিফটের বই এর রিভ্যু ভালো হয় না এইটা আমার পরীক্ষিত =p~

৪৬| ০৩ রা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ রাত ৮:১৬

ওমেরা বলেছেন: কত পরে এলাম তাই শুধু অল্প করেই বলি — খুব সুন্দর !

০৪ ঠা ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:১৩

জুন বলেছেন: জী অনেক দিন পরেই আসলেন ওমেরা, দেখেন এরই মাঝে আমার পিয়াজ গাছগুলোও কেমন ডাগর হয়ে উঠেছে :)
মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ রইলো।

৪৭| ০৮ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:২৩

অন্তরন্তর বলেছেন: আপনার বারান্দার রূপসী দের দেখে প্রেমে পড়ে গেছি। অদ্ভুদ সুন্দর । আমি শুনেছিলাম যারা গ্রিন টি পান করে তারা নাকি সব ধরনের টি পান করতে পারে। এখন আমি একটু একটু করে গ্রিন মিন্ট টি তে অভ্যস্থ হচ্ছি। ভবিষ্যতে একবার চেষ্টা করতেও পারি আপনার সুগন্ধি টি। চন্দ্রমল্লিকা ভাল পাই তার অনেক কারণ আছে। যাইহোক খুব সুন্দর ব্লগ।

০৯ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:১১

জুন বলেছেন: আমার বারান্দার রূপসীদের প্রশংসার জন্য অশেষ ধন্যবাদ আপনাকে অন্তরতর
আমি শুনেছিলাম যারা গ্রিন টি পান করে তারা নাকি সব ধরনের টি পান করতে পারে। সত্যি বলতে কি আমি আজ পর্যন্ত লিকার চা কেন জানি পছন্দ করতে পারলাম না :( গ্রীন টি বলেন আর যাই বলেন । কত দাম দিয়ে চীন থেকে সবচেয়ে দামী চা কিনে ফেলে দিয়েছি । দার্জিলিং এর বিখ্যাত মকাই বাড়ি চা এনেও তাঁর একই গতি হয়েছে । আমি সেই সাধারন মানুষের মত ঘন দুধ দিয়ে জ্বাল দিয়ে ফুটিয়ে চা খেতেই ভালোবাসি ।
কেন চন্দ্রমল্লিকা ভালোবাসেন তা কি জানতে পারি ? নিশ্চয় কোন সুন্দর স্মৃতি জড়িত :)
আরেকবার ধন্যবাদ মনে করে আসেন তাঁর জন্য

৪৮| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৫০

শায়মা বলেছেন: আহা আহা ফুলবাগানের ফুলগুলি আপুনি!!!!!!!!!!

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:৩২

জুন বলেছেন: আর তাই দেখতে আরেক ফুল এসে হাজির হলো এক্কেবারে শেষের মুহুর্তে :)
অনেক শুভকামনা শায়মা ।

৪৯| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:১০

মপোতোস বলেছেন: কত সুন্দর সুন্দর ছবি মানুষ তোলে রেএ এ এ এ! গাছ পালতে আমার খুব ভালো লাগে। কিন্তু ফুলগাছ পালতে পারি না। কিছু টিপস দিয়েন। :)

১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:৩০

জুন বলেছেন: গাছ পালতে আমার খুব ভালো লাগে। :-*
বাহ পশু পাখী রেখে আপনি গাছ পালতে ভালোবাসেন ভালোইতো !
আমার ব্লগে স্বাগতম সাথে অশেষ ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য :)

৫০| ১৮ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৩৫

মা.হাসান বলেছেন: বহুদিন দাওয়াতি কার্যক্রক চালাতে পারছি না, অত্যন্ত দুঃখিত।

আজ আবার দাওয়াত দিয়ে গেলাম, কন্টিনিউ করতে পারবো কি না জানি না।
স্যাটায়ার এবং কিছু বিরক্তিকর (!!!) কচকচানি
পোস্টে পরে আসবো।

২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:২২

জুন বলেছেন: দাওয়াত খাইতে গেলে তো নতুন এক সেট কাপড় চোপর লাগে। শেখ সাদীর গল্প পড়েন্নাই মা হাসান :-* দর্জি বলছে আগামী সপ্তাহে ডেলিভারি দিবে দেখি তারপর #:-S

সবার পোস্টে গিয়ে মহাভারত রচনা করেন শুধু আমার বেলায়ই পরে পরে /:)

৫১| ২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:২১

নজসু বলেছেন:


অদ্ভুত সুন্দর।

২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৩১

জুন বলেছেন: অনেক অনেক দিন পর আপনাকে দেখছি। ছিলেন কোথায়?
আশাকরি ভালোই আছেন। মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ আপনাকে নজসু।

৫২| ২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ রাত ১০:০৬

নজসু বলেছেন:


পাসওয়ার্ড ভুলে গিয়েছিলাম। এর আগে বিগত সময়গুলোতে লগইন থাকলেও শুধু পোষ্ট পাঠ করেছি। কমেন্ট খুব কম করেছি।
জ্বী ভালো আছি।

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:২৬

জুন বলেছেন: এখনতো পাসওয়ার্ড ফিরে পেয়েছেন এখন লিখুন জোরেশোরে :)
ভালো থাকুন সবসময়।

৫৩| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ রাত ১:০৮

মা.হাসান বলেছেন: দুপুর দেড়টায় রান্নাবান্না বাদ দিয়া আসছিলাম, সময় ছিলো না এই জন্য কইসিলাম পরে।
পরে অবশ্য বড় কইরা মন্তব্য করসিলাম, কিন্তু দেখি ভুল কইরা সেইটা নিজের পোস্টে কইরা ফালাইসি (বোঝেনইতো, নকল করার অভ্যাস, অর্জিনাল্টি নাই :P )।

চন্দ্রমল্লিকার ইতিহাস জাইনা আমি চন্দ্রাহত। আমি ভাবছিলাম টিকার মতো এইটাও আমাদের কোনো মন্ত্রীর আবিস্কার। আপনার কোথাও ভুল হইলো কি না চেক কইরা দেখেন।

চন্দ্রমল্লিকার চা খাইসি। সবই অভ্যাসের ব্যাপার। স্পাউজরা অপর জনকে বছরের পর বছর সহ্য কইরা যায়। অভ্যাস। চন্দ্রমল্লিকার চাও সেই রকম।

পর্তুলিকার আর কোনো সহজ নাম নাই? ফুল বইলা এই রাম কঠিন নাম রাখতে হপে?

কাসাভার ফুল দেইখা তো ধুতুরার ফুলের কথা মনে হইতেছে। এই জিনিস কি জন্য? দুলাভাইরে খাওয়াইবেন না কি?

পারলে কিছু মরিচ কুমির ভাইরে পাঠান। সে সুমনা ভাবিরে দাওয়াত দিয়া বিরানি খাওয়াইবো :`>

পিয়াজ পুরানটাই ভালো , যতক্ষন পুরানটা পাই নতুন কিনি না। এক কেজিতে যদি নতুন পিয়াজ তিরিশটা ওঠে তবে পুরাতনটা ওঠে ৫০ টা। নতুনটা কাটতে পিছলা । তবে অত ছোট পিয়াজ হলে সমস্যা। এখন টেরাক থেইকা ১৫ টাকা কেজি পিয়াজ কিনি। একটা পিয়াজে আমার ৭ দিন যায়, বেশ বড় বড় পিয়াজ।


সাদা ও হলুদ ক্রিসেনথিমাম এশিয়ায় বিদায় বার্তা হিসেবে বহুল ব্যবহৃত হয়ে থাকে ।
সাদা আর হলুদ চন্দ্রমল্লিকা দিয়ে কার্ মরণ (নাকি রিক্সা থেকে আছাড় খাওয়া B:-) ) কামনা করলেন বুঝলাম না।

চায়ের ছবি ছাড়া আর সব ছবি আমার ছোট্ট বারান্দার আমার মোবাইলে তোলা।
আমার তো মনে হলো পিয়াজের ছবি ডাইনিং টেবিলের ওপরে রেখে তোলা। আপনার ডাইনিং টেবিল কি বারান্দায়? ছোট বারান্দা কন কেন? সব আল জাজিরা দেখার কুফল। বিটিভি দেখেন, তাহলে ভালো কে ভালো, বড় কে বড় বলতে কষ্ট হবে না।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.