নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

একজন সুখী মানুষ, স্রষ্টার অপার ক্ষমা ও করুণাধন্য, তাই স্রষ্টার প্রতি শ্রদ্ধাবনত।

খায়রুল আহসান

অবসরে আছি। কিছু কিছু লেখালেখির মাধ্যমে অবসর জীবনটাকে উপভোগ করার চেষ্টা করছি। কিছু সমাজকল্যানমূলক কর্মকান্ডেও জড়িত আছি। মাঝে মাঝে এদিক সেদিকে ভ্রমণেও বের হই। জীবনে কারো বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ করিনি, এখন তো করার প্রশ্নই আসে না। জীবন যা দিয়েছে, তার জন্য স্রষ্টার কাছে ভক্তিভরে কৃতজ্ঞতা জানাই। যা কিছু চেয়েও পাইনি, এখন বুঝি, তা পাবার কথা ছিলনা। তাই না পাওয়ার কোন বেদনা নেই।

খায়রুল আহসান › বিস্তারিত পোস্টঃ

কবিতাঃ মহাশূন্যে ভাসমান এপিটাফ

১১ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ৯:০৩

কোন সমাধিক্ষেত্রে গেলে,
সেখানকার সমাধিলিপিগুলো একে একে পড়া
আমার পুরনো অভ্যাস। ইংরেজরা ভালবেসে
একে ‘এপিটাফ’ বলে, কত না গালভরা নাম!
ভাল লাগে এপিটাফের কথা পড়তে, কারণ-
সেসব কথায় অনেক ভালবাসার ছোঁয়া থাকে।

মাঝে মাঝে ভাবি, আমার নিজের মত করে
একটি ছোট্ট এপিটাফ নিজেই লিখে রাখবো।
কিন্তু লিখতে পারি না, কারণ শব্দরা সবাই
প্রতিবাদে মুখর হয়ে ওঠে। ওরা একযোগে
বলে, তোমার এপিটাফ তোমার মত করে
কেউ কোনদিন পড়বে না! তার চেয়ে....
তুমি আমাদের মুক্ত করে দাও, আমাদের
কোন পাথরের গায়ে তুমি বেঁধে রেখো না!
আমরা মহাশূন্যে ভেসে যাবো, আমরা
আয়নমন্ডলের স্তরে স্তরে তোমার কথা,
তোমার কবিতার কথা বলে বেড়াবো।

এই বলে তারা একত্রে যূথিকামালার মত
জোটবদ্ধ হয়ে উড়ে যায় শুভ্রনীল আকাশে,
এক অদৃশ্য যাদুকরের উড়ন্ত গালিচায় বসে।
আর আমি বিস্ময়ে বিহ্বল হয়ে বসে থাকি
একটা সাদা কাগজ হাতে নিয়ে,
নীরব, বিবর্ণ অপাঠযোগ্য শিলালিপির মত।


ঢাকা
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

মন্তব্য ৫৬ টি রেটিং +১৪/-০

মন্তব্য (৫৬) মন্তব্য লিখুন

১| ১১ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১১:০৩

ঢুকিচেপা বলেছেন: অদ্ভুত সুন্দর হয়েছে অনুভূতি প্রকাশ।
এভাবে কেউ ভাবতে পারে কল্পনাতেও ছিল না।
তবে একথা সত্যি যে, আপনার মতো করে কেউ পড়তে পারবে না।
কাগজটা সাদাই থাক।

১১ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১১:৫০

খায়রুল আহসান বলেছেন: আজকাল কবিতার পাঠক নেই, তবুও কবিতা পড়েছেন এবং মন্তব্য করতে সবার আগে এগিয়ে এসেছেন- এতে প্রীত হ'লাম। আর প্লাসে এবং মন্তব্যে অনেকই অনুপ্রাণিত!
এভাবে কেউ ভাবতে পারে কল্পনাতেও ছিল না - কল্পনার কোন সীমারেখা নেই।
"কাগজটা সাদাই থাক" - আচ্ছা!

২| ১১ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১১:২৩

রাজীব নুর বলেছেন: আমি হলে এই কবিতার নাম- এপিটাফ দিতাম।

১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১২:০৭

খায়রুল আহসান বলেছেন: আপনি ঠিকই বলেছেন, 'এপিটাফ' সুন্দর শিরোনাম হতো। আমিও একবার এটাই দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আরেকটু অবজেক্টিভ হতে গিয়ে ওটা না দিয়ে এটা দিয়েছি।
'এপিটাফ' কথাটার সাথে সর্বপ্রথমে পরিচিত হই বাল্যকালের সেই স্কুল জীবনে, একটি গল্পে, যা হয়তো আগের প্রজন্মের অনেকেই পাঠ্যপুস্তকে পড়ে থাকবেন। গল্পটির নাম আজ সঠিক মনে নেই, তবে গল্পের কেন্দ্রীয় চরিত্র আজও বোধকরি অনেকেরই পরিচিত সেটা হচ্ছে 'আদু ভাই'। সেই আদু ভাই বছর বছর পরীক্ষায় ফেল করে একই ক্লাসে রয়ে যান, অবশেষে একসময় পিতা-পুত্র একই ক্লাসে পড়েন। অনেক প্রচেষ্টার পর তিনি মৃত্যুর আগে সকলের ঐকান্তিক সহযোগিতা এবং শুভকামনায় কোনরকমে পরীক্ষায় পাশ করে সপ্তম শ্রেণী থেকে অষ্টম শ্রেণিতে উন্নীত হন। তার মৃত্যুর পর তার এপিটাফে লেখা হয়েছিল, "Here sleeps Adu Miah, who was promoted from Class Seven to Class Eight".

৩| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১২:৫২

রামিসা রোজা বলেছেন:
আপনার এখনই এপিটাফ লেখার দরকার নেই ।
মহান আল্লাহ আপনাকে নেক হায়াত দান করুন আর
আমরাও আপনার সুন্দর সুন্দর লেখাগুলো পড়তে পারি।
মৃত্যুর কথা স্মরণ করি কিন্তু খুব বাঁচতে ইচ্ছে করে এই
সুন্দর পৃথিবীতে ।
কবিতায় তারপরও +++

১২ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ২:১৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: দোয়ার জন্য ধন্যবাদ। মন্তব্যে এবং (তারপরও) প্লাসে প্রীত এবং অনুপ্রাণিত হয়েছি।
ভাল থাকুন, শুভকামনা....

৪| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ২:৫৩

মোঃমোস্তাফিজুর রহমান তমাল বলেছেন: সাদা কাগজই থাকুক। হয়তো ভবিষ্যতে কেউ এসে আপনার প্রতি তাদের ভালোবাসা থেকে উৎসরিত শব্দমালা দিয়ে ভরিয়ে দেবে আপনার সাদা কাগজ।আপনার মতো করে না পড়লেও অন্যেরা তাদের মতো করে গভী্র মমতা নিয়ে পড়বে আপনার এপিটাফ।

১২ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ২:২৯

খায়রুল আহসান বলেছেন: হয়তো ভবিষ্যতে কেউ এসে আপনার প্রতি তাদের ভালোবাসা থেকে উৎসরিত শব্দমালা দিয়ে ভরিয়ে দেবে আপনার সাদা কাগজ - ততদিনে নিশ্চয়ই সে কাগজটা নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। কিন্তু তবুও, যেমনটি বলেছেন, সাদা কাগজই থাকুক!
সুন্দর, সুবিবেচিত মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ। মন্তব্যে প্রীত হ'লাম।

৫| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ২:৫৫

সন্ধ্যা রাতের ঝিঁঝিঁ বলেছেন: আমি কোন সমাধিক্ষেত্রে কখনো যাই নি, কিন্তু মাঝে মাঝে ভাবি প্রিয়জনের এপিটাফ দেখতে বা তার সামনে থাকা অবস্থায় অনুভূতিটা কেমন হবে, মানুষটা আর নেই কিন্তু কিছু অনুভূতি শব্দ হয়ে ফুটে আছে, কতটা হৃদয়বিদারক হবে এটা।
সুন্দর কবিতা। ভালো থাকবেন। শুভ কামনা।

১২ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:২৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: মানুষটা আর নেই কিন্তু কিছু অনুভূতি শব্দ হয়ে ফুটে আছে, কতটা হৃদয়বিদারক হবে এটা - আমি কুমিল্লার ময়নামতি সেনানিবাস সংলগ্ন "ওয়ার সিমেট্রী" (সামরিক সমাধি) তে বেশ কয়েকবার গিয়েছি। সেখানে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নিহত মিত্রশক্তির সামরিক ব্যক্তিবর্গের সমাধি সামরিক শৃঙ্খ্লায় বিন্যস্ত রয়েছে। প্রতিটি সমাধির এপিটাফে নিহত ব্যক্তির জন্ম ও মৃত্যু তারিখ, জন্মস্থান বা বাড়ীর এলাকার নাম এবং মৃত ব্যক্তি সম্পর্কে দুটো কথা উৎকীর্ণ রয়েছে। ভাগ্যবানদের কারো কারো ক্ষেত্রে আছে প্রিয়জনদেরও কিছু ভালবাসার কথা। যতবার গিয়েছি, ততবারই আমি অভিভূত হয়েছি তাদের কথা ভেবে, তাদের প্রিয়জনদের ভালবাসার কথা ভেবে। আর ভেবেছি, যুদ্ধ কতটা মানব ও সভ্যতা বিনাশী হতে পারে! হৃদয়বিদারক বটে!

মনোগ্রাহী মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ। প্লাসে অনুপ্রাণিত।

৬| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ৩:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:



যেখানে ভাবনা থেমে যায়

১২ ই অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৪০

খায়রুল আহসান বলেছেন: যেখানে ভাবনা থেমে যায় - চমৎকার বলেছেন। মুগ্ধ হ'লাম সংক্ষিপ্ত মন্তব্যে!

৭| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৮:৪৪

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: অনেক ভালো লিখেছেন স্যার। লাস্ট প্যারাটা অসাধারণ।

প্রতিটা কবিতাই একজন কবির 'এপিটাফ'। 'আজি হতে শতবর্ষ পরে' পাঠকেরা এপিটাফের কথাগুলো পড়েন আর নীরবে কিছু অশ্রু ঝরে পড়ে তাদের চোখ থেকে। আপনার কবিতাগুলোও অমর হোক, এ কামনা করছি স্যার।

'অনন্ত' কথাটা বদলে অন্য বিশেষণ খুঁজে দেখতে পারেন, যেগুলো সচরাচর কেউ ব্যবহার করে না, সেটা সম্পূর্ণ আপনার নব আবিষ্কৃত একটা বিশেষণ হবে। 'পানে' কথাটাও যথাসম্ভব এড়িয়ে চলা ভালো। এ কথাটুকু সম্পূর্ণ আমার নিজের মতামত।

শুভেচ্ছা রইল স্যার।

১২ ই অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২১

খায়রুল আহসান বলেছেন: লাস্ট প্যারাটা অসাধারণ - অনেক ধন্যবাদ, প্রীত হ'লাম।
এ কথাটুকু সম্পূর্ণ আমার নিজের মতামত - মতামতটি যৌক্তিক বিধায়, আমলে নিলাম এবং কবিতাটি ঈষৎ সম্পাদনা করলাম। মতামতের জন্য ধন্যবাদ।

৮| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৮:৫৬

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:



কবি মনের ভাবনার সুন্দর প্রকাশ।
শেষ কটি চরণ মনে ধরেছে দারুন ।
আর আমি বসে রই
একটা সাদা কাগজ হাতে ধরে রেখে
নাম পরিচয়হীন একটা সমাধীর মত।।


আপনি ঠিকই বলেছেন
আপনার সাথে কিছুটা সুর মিলিয়ে
আমিও একান্তে বলি-

সুখী সেই যার ইচ্ছা গুলি
কিছুটা পৈত্রিকঐশ্বর্যে আবদ্ধ,
নীজের মাঠে ছাড়ে নিশ্বাস
আর দৃষ্টি থাকে দিগন্তে বিস্তৃত।

নীজ বাতানের কাল গাভীর দুধ
আর ফসলের জমির ধান,
যাকে দেয় ঝাঁকের পালকের পোশাক,
গ্রীষ্মে যার গাছ দেয় তাকে শীতল ছায়া,
শীতে দেয় ঝড়া পাতার আগুনের উত্তাপ ।

নিরোদ্বেগে কাটে যার
ঘন্টা, দিন, বছর,
শরীরের স্বাস্থ্য, মনের শান্তি,
থাকে বজায় অবিরত ।

রাতে ঘুম ঘুম; অধ্যয়ন এবং স্বাচ্ছন্দ্য
একসাথে মিশ্রিত; মিষ্টি বিনোদন,
এবং নির্দোষতা, যা সর্বদায়,
মনকে করে প্রশান্ত ।

আমাকে বাঁচতে দাও, অদেখা, অজানায়;
আমাকে মরতে দাও নিশ্চিন্ত মনে;
পৃথিবীর সমাধীতে বুকের পরে
রেখোনা কোন পাথরের এপিটাফ ।

ভাল থাকার শুভ কামনা রইল

১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ৮:১৭

খায়রুল আহসান বলেছেন: খুব সুন্দর মন্তব্য করেছেন। মন্তব্যে এবং প্লাসে প্রীত ও অনুপ্রাণিত।
আপনার এ কথাগুলোও আমার খুব মনে ধরেছেঃ
"পৃথিবীর সমাধিতে বুকের 'পরে
রেখোনা কোন পাথরের এপিটাফ"
- চমৎকার!

৯| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১১:১৬

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: কবিতা খুব ভালো লেগেছে। প্রসঙ্গক্রমে কয়েকজন বিখ্যাত ব্যক্তির এপিটাফ উল্লেখ করছি।
কাজী নজরুল ইসলাম -
তোমাদের পানে চাহিয়া বন্ধু, আর আমি জাগিবো না।
কোলাহল করি' সারা দিনমান কারো ধ্যান ভাঙিব না।
- নিশ্চল নিশ্চুপ
আপনার মনে পুড়িব একাকি গন্ধ বিধুর ধুপ।
কবিতা- কাজী নজরুল ইসলাম

মাইকেল মধুসূদন দত্ত -
নিজের ‘এপিটাফ’ বা সমাধি লিপি তিনি নিজেই রচনা করে গিয়েছিলেন

“দাঁড়াও পথিক-বর
জন্ম যদি তব বঙ্গে ! এ সমাধি স্থলে
(জননীর কোলে শিশু লভয়ে যেমতি
বিরাম) মহীর পদে মহানিদ্রাবৃত
দত্ত কুলোদ্ভব কবি শ্রী মধুসূদন !
যশোরে সাগরদাঁড়ী কপোতাক্ষ তীরে
জন্মভূমি ; জন্মদাতা দত্ত মহামতি
রাজনারায়ন নামে, জননী জাহ্নবী !”

১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ৯:৫৫

খায়রুল আহসান বলেছেন: দু'জন অসাধারণ প্রতিভাবান ব্যক্তির এপিটাফ এখানে সন্নিবেশ করার জন্য আপনাকে অশেষ ধন্যবাদ জানাচ্ছি, সাড়ে চুয়াত্তর। আমার একটা কৌতুহল ছিল এটা জানার যে আপনার জন্ম কি চুয়াত্তর সালের জুন মাসে হয়েছিল?
তথ্যসমৃদ্ধ মন্তব্যে প্রীত ও অনুপ্রাণিত হয়েছি। শুভকামনা----

১০| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১:৩৫

নীল আকাশ বলেছেন: এপিটাফে শব্দ লেখার চাইতে মানুষের হৃদয়ে ভালো কাজ করে নাম লিখে রাখা ভালো।
এপিটাফ কালের পরিক্রমায় ধুসর বির্বণ হয়ে যাবে।
কিন্তু ভালোবাসায় সিক্ত নাম উচ্চারিত হবে যুগের পর যুগ।

১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১০:৩০

খায়রুল আহসান বলেছেন: "এপিটাফ ধুসর বির্বণ হয়ে যাবে কিন্তু ভালোবাসায় সিক্ত নাম উচ্চারিত হবে যুগের পর যুগ" - কথাটা ঠিক বলেছেন। শুধু বিবর্ণই নয়, অপাঠযোগ্যও হয়ে যাবে। মান্না দে'র সেই গান টা... যদি পাথরে লিখ নাম..... ইত্যাদি!
মন্তব্যে এবং প্লাসে প্রীত এবং অনুপ্রাণিত হয়েছি।
ভাল থাকুন, শুভকামনা....

১১| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ২:১১

রাজীব নুর বলেছেন: 'এপিটাফ' নামে হুমায়ূন আহমেদের একটা উপন্যাস আছে।

১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১১:৫১

খায়রুল আহসান বলেছেন: আচ্ছা। জানতাম না সেটা।

১২| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ২:১২

রাজীব নুর বলেছেন: আরেকটা কথা বলতে ভুলে গেছি- আমার মন্তব্যের খুব সুন্দর উত্তর দিয়েছেন। খুব ভালো লেগেছে।

১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১০:২২

খায়রুল আহসান বলেছেন: আমিও খুব খুশি হ'লাম, এত সুন্দর করে কথাটা জানালেন বলে। অনেক ধন্যবাদ।

১৩| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৩০

করুণাধারা বলেছেন: দেরি করে আসায় অনেকগুলো চমৎকার মন্তব্য পড়া হলো। ভালো লাগলো ডঃ এম এ আলীর চমৎকার অনুবাদ, কদিন আগেই আমি এই কবিতাটি অনুবাদ করতে যাচ্ছিলাম...

আসলে এপিটাফ লেখার উপযুক্ত শব্দাবলি নির্বাচন করা কঠিন। ভালোই করেছেন শব্দাবলি মহাশূন্যে ভাসিয়ে দিয়ে, সেগুলো যেন আপনার প্রিয়জনদের হৃদয়ে পৌঁছে গিয়ে সেখানে স্থায়ী হয়।

১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:০৬

খায়রুল আহসান বলেছেন: কদিন আগেই আমি এই কবিতাটি অনুবাদ করতে যাচ্ছিলাম... - কোন কবিতাটি?
ভালোই করেছেন শব্দাবলি মহাশূন্যে ভাসিয়ে দিয়ে - আমি ভাসিয়ে দেই নি, ওরাই চলে গেছে।
মন্তব্য এবং প্লাসের জন্য অনেক ধন্যবাদ।

১৪| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৪৭

কবিতা পড়ার প্রহর বলেছেন: না দেখে ভাবছিলাম অসুখে পড়েছেন কিনা।

দেখছি আবার এপিটাফ কবিতা।

এখনও চিন্তায় আছি।

১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:২১

খায়রুল আহসান বলেছেন: পুরো দেশেই তো সর্বব্যাপী অসুস্থতা বিরাজ করছে!
মন্তব্য এবং প্লাসের জন্য ধন্যবাদ।

১৫| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:১৮

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: ভালো লাগলো কবিতা

১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:৫৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: মন্তব্যে এবং প্লাসে প্রীত ও অনুপ্রাণিত হ'লাম। ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা!

১৬| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫৪

তারেক ফাহিম বলেছেন: সুন্দর লিখলেন, শ্রদ্ধেয়।

পাঠে ভালোলাগা।

১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১:৩৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: কবিতা পাঠের জন্য অনেক ধন্যবাদ আপনাকে, অনেকদিন পরে এলেন! মন্তব্যে প্রীত।

১৭| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ৮:৪২

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: শুনেছি, রোমে-র গোরস্থানে নাকি ছন্দ, বোধ ও কাব্যাকারে মাথার কাছে লেখা থাকে-দেখার সৌভাগ্য ভার্চুয়্যাল বা ফিজিক্যাল কোনভাবেই হয়নি; তবে ওয়ারি ও তেজগাঁও গোরস্থানে কিছু লেখা দেখেছি।

--ধন্যবাদ অন্যন্য ধারায় কবিতায় লেখার জন্য।

১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৫১

খায়রুল আহসান বলেছেন: আপনাকেও ধন্যবাদ, কবিতাটি পড়ে এখানে একটি মন্তব্য রেখে যাবার জন্য।

১৮| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ৮:৫৪

প্রামানিক বলেছেন: কবিতায় ভাবনার সুন্দর প্রকাশ খুবই ভালো লাগল।

১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:০২

খায়রুল আহসান বলেছেন: কবিতায় ভাবনার সুন্দর প্রকাশ খুবই ভালো লাগল - অনেক খুশি হ'লাম, আপনার কাছ থেকে এ প্রশংসাটুকু পেয়ে।
শুভেচ্ছা জানবেন।

১৯| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১০:১১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: গতকাল পড়েছিলাম, সময়ের এভাবে মন্তব্য করা হয় নি। ভালো লেগেছে আপনার ভাবনা।

১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:০৫

খায়রুল আহসান বলেছেন: কবিতায় ব্যক্ত ভাবনাটি আপনার ভাল লাগায় প্রীত হ'লাম।
মন্তব্যে এবং প্লাসে অনুপ্রাণিত, ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা!

২০| ১২ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১১:৫০

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: খায়রুল আহসান ভাই আসলে আমার নিক 'সাড়ে চুয়াত্তর' থেকে হয়তো আপনি এমন ধারণা করেছেন। আসলে 'সাড়ে চুয়াত্তর' সিনেমাটা আমার একটি প্রিয় সিনেমা। এটি উত্তম কুমার ও সুচিত্রা সেনের প্রথম দিকের একটি অত্যন্ত সফল ও কমেডি সিনেমা। এই কারনেই এই নামটা নিয়েছি। আমার জন্ম ১৯৭২ সালে। ধন্যবাদ।

১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:০৮

খায়রুল আহসান বলেছেন: ও আচ্ছা। এখন মনে হচ্ছে, আপনার এ ব্যাখ্যাটি আমি আগেও একবার শুনেছিলাম, আমাকে কিংবা অন্য কারো পোস্টে বলেছিলেন।
আপনি কি এখন দেশে থাকেন, নাকি প্রবাসী?
ভাল থাকুন, শুভকামনা। আপনার লেখা পর্বগুলো শীঘ্রই পড়া শুরু করবো বলে আশা করছি।

২১| ১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:২৪

করুণাধারা বলেছেন: এই কবিতা:

Ode on Solitude
Alexander Pope
Happy the man, whose wish and care
A few paternal acres bound,
Content to breathe his native air,
In his own ground.

Whose heards with milk, whose fields with bread,
Whose flocks supply him with attire,
Whose trees in summer yield him shade,
In winter fire.

Blest! who can unconcern'dly find
Hours, days, and years slide soft away,
In health of body, peace of mind,
Quiet by day,

Sound sleep by night; study and ease
Together mix'd; sweet recreation,
And innocence, which most does please,
With meditation.

Thus let me live, unseen, unknown;
Thus unlamented let me die;
Steal from the world, and not a stone
Tell where I lye.

১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:৪৮

খায়রুল আহসান বলেছেন: ওহ, আলেকজান্ডার পোপ এর এ বিখ্যাত কবিতাটাই আলী ভাই বঙ্গানুবাদ করেছিলেন, তা প্রথমে ঠাহর করতে পারি নাই। ধন্যবাদ, এ সুন্দর কবিতাটিকে এখানে তুলে দেবার জন্য।
কবিতার প্রথম দুটো অনুচ্ছেদে বর্ণিত সুবিধাদি আমার জীবনে আমি পাই নি। কিন্তু পরের দুটো অনুচ্ছেদে বর্ণিত একজন সুখী ব্যক্তিকে তিনি যেভাবে সংজ্ঞায়িত করেছেন, তার অনেকটাই আমার সাথে মিলে যায়। তাহলে আমিই কি আলেজান্ডার পোপ বর্ণিত সেই হ্যাপী দ্য ম্যান? কি জানি, হতে পারি! :)
আর শেষের অনুচ্ছেদটি তো আমার আপনার মত এ পৃথিবীর লক্ষ লক্ষ লোকের অনেক পছন্দের 'কোটেবল কোট'!

২২| ১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:১১

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: খায়রুল ভাই আমার নিকের ব্যাখ্যা আমি আগে একজনকে দিয়েছিলাম। নামটা খেয়াল নেই। আমি দেশে থাকি, প্রাইভেট চাকরী করি। আমার লেখা সিরিজ পড়া শুরু করবেন জেনে অনেক ভালো লাগলো। সময় পেলে পড়বেন। ধন্যবাদ।

১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১১:৫০

খায়রুল আহসান বলেছেন: আচ্ছা। পুনঃমন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

২৩| ১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ১২:৩৩

জাফরুল মবীন বলেছেন: মন ছুঁয়ে গেল!

কেন জানি মৃত্যু ভাবনা মাথায় ঢেউ খেলে গেলো।

শুভেচ্ছা জানবেন কবি।

১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ রাত ৮:১০

খায়রুল আহসান বলেছেন: কবিতা পাঠের জন্য অশেষ ধন্যবাদ। মন্তব্যে অনুপ্রাণিত।
আপনাকেও জানাচ্ছি অফুরন্ত শুভেচ্ছা....

২৪| ২০ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১০:১৪

শায়মা বলেছেন: এপিটাফ...

যতই কষ্টের হোক বা দুঃখের হোক এর ভেতরে লুকিয়ে থাকে এক রাশ মায়া।

আমার কাছে পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ এপিটাফ কোনটা মনে হয় জানো ভাইয়া?


দাঁড়াও পথিক বর
জন্ম যদি বঙ্গে তব তিষ্ঠ ক্ষনকাল এ সমাধিস্থলে
(জননীর কোলে শিশু লভয়ে যেমতি
বিরাম) মহীর পদে মহানিদ্রাবৃত
দত্তকুলোদ্ভব কবি শ্রীমধুসূদন!


যে কোনো এপিটাফ দেখলে বা শুনলেই আমার এই এপিটাফটির কথাই মনে পড়ে।

২১ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১০:২৫

খায়রুল আহসান বলেছেন: বছর দশেক আগে কবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের সাগরদাঁড়ির বাস্তুভিটা দেখতে গিয়েছিলাম, যা এখন যাদুঘরে রূপান্তরিত।। সেখানে আপনার উল্লেখিত এপিটাফটিও দেখেছিলাম। আর তার পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া (এখন বয়ে যায় না, অনেকটাই স্থবির এবং কচুরিপানায় ভর্তি) কপোতাক্ষ নদ এর দুর্দশা দেখে ব্যথিত হয়েছিলাম।
সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ। মন্তব্যে প্রীত হয়েছি।

২৫| ২৪ শে অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫৪

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: এক এপিটাফ নিয়ে আপনার তিন ভাবনার পরিচয় পেলাম। চার অক্ষরের শব্দটি আমাদেরকে উদাস করে তোলে। আপনার এপিটাফের শেষ অংশে অনন্য এক ভালোলাগা।
8 এ ডক্টর আলী ভাই ও 9 সাচু ভাইয়ের মন্তব্য দুটি খুব ভালো লেগেছে।
২১ নম্বরে করুনাধারা আপুর কমেন্ট ও প্রতিমন্তব্য ও ২৪ নম্বর প্রতিমন্তব্যটিও খুব ভালো লেগেছে।

পোস্টে ত্রয়োদশ লাইক। ++
বিনম্র শ্রদ্ধা ও শুভেচ্ছা স্যার আপনাকে।

২৪ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ৯:১৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: এপিটাফের শেষ অংশটুকু আপনার ভাল লেগেছে জেনে প্রীত হ'লাম। ভাল লাগা মন্তব্য/প্রতিমন্তব্যগুলো উল্লেখ করার জন্য ধন্যবাদ।
মন্তব্যে এবং প্লাসে অনুপ্রাণিত।

২৬| ২৪ শে অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫৭

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: আরও একটি প্রতিমন্তব্য সর্বপ্রথম উল্লেখ করতে ভুলে গেছি। পাঁচ নম্বর প্রতিমন্তব্যটিও খুব ভালো লেগেছে।
নিরন্তর শুভেচ্ছা স্যার আপনাকে।

২৪ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১১:৪১

খায়রুল আহসান বলেছেন: পুনঃমন্তব্যের জন্য আবারো ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

২৭| ০৮ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ১০:১৮

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




আমার এপিটাফ হতে পারে “আবার আসিবো ফিরে”
কবিতায়+++

০৯ ই নভেম্বর, ২০২০ বিকাল ৪:৩৯

খায়রুল আহসান বলেছেন: “আবার আসিবো ফিরে” - এটাও একটি সুন্দর এপিটাফ হবে।
মন্তব্যে এবং প্লাসে অনুপ্রাণিত, ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা!

২৮| ২০ শে নভেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:৪৪

মোহাম্মদ সাখাওয়াত হোসেন বলেছেন: চমৎকার অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ। দারুণ ভালো লাগলো। স্যার ভালো থাকবেন।

২০ শে নভেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৪৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: কবিতা পড়ার জন্য ধন্যবাদ। মন্তব্যে প্রীত হ'লাম।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.