নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

অপরিপক্ক

Like to live with Quran

অপরিপক্ক › বিস্তারিত পোস্টঃ

আরব দেশগুলো যে কারণে ইসরায়েলের সামনে অবলা: প্রতিবাদ ও জবাব

১১ ই জুন, ২০২১ সকাল ৭:০৫

পাকিস্তানের ‘ডন’ পত্রিকার একটি লেখা গত ৫ জুন, ২০২১ তারিখে প্রথম আলোর সম্পাদকীয় পাতায় স্থান পায়। বিষয়- “আরব দেশগুলো যে কারণে ইসরায়েলের সামনে অবলা”। লেখাটি বাংলাদেশের এই পত্রিকায় ছাপাবার গূঢ় রহস্য আমি লেখার শেষে আলোচনা করেছি। চলুন আগে দেখে নেই লেখাটিতে কী কী আপত্তিকর বিষয় নিয়ে আসা হয়েছে আর তার জবাবগুলো।

আপত্তিকর অংশ:
লেখক লিখেছেন, “ইসরায়েলের শিশুদের যখন বড় হয়ে আইনস্টাইনের মতো বড় হওয়ার, অর্থাৎ মগজের শক্তিতে শক্তিমান হতে পরামর্শ দেওয়া হয়, তখন আরব শিশুদের এখনো সালাহ উদ্দিনের মতো পেশিশক্তিতে শক্তিমান নেতা হওয়ার স্বপ্ন দেখানো হয়। এই বিষয়টি যত দিন থাকবে, তত দিন ইসরায়েলকে মোকাবিলা করা তাদের জন্য কঠিন হবে।”

জবাব:
১. দ্বাদশ শতাব্দীর শেষের দিকে মুসলিম সে্নাপতি “সালাহ উদ্দিন আইউবি” ক্রুসেডারদের থেকে ফিলিস্তিন জয় করেন। কিন্তু তিনি কি শুধুই পেশিশক্তির অধিকারী ছিলেন? মগজের শক্তি কি তাঁর ছিল না?! এ কেমন অপমানজনক মন্তব্য!
২. এযাবৎকাল পর্যন্ত মুসলিমরা যতগুলো বড় বড় যুদ্ধে বিজয়ী হয়েছে তার বেশির ভাগেই তো মুসলিমরা পরাজিত অমুসলিমদের থেকে পেশিশক্তিতে পিছিয়ে ছিল।
৩. পেশিশক্তিতে না হলেও, জ্ঞান-বিজ্ঞানের অগ্রগতিতে “সালাহ উদ্দিন আইউবি”র সময়ে পৃথিবীর বুকে মুসলিমরাই ছিল শীর্ষে।
৪. আজকের এই ইসরাঈল (দখলকৃত ফিলিস্তিন) রাষ্ট্র কি টিকে আছে আইনস্টাইনিও মগজ চর্চার কারণে? কখনও নয়। বরং তারা টিকে আছে কুবুদ্ধি চর্চার কারণে। কুবুদ্ধি চর্চায় মুসলিমরা কখনোই ইচ্ছুক নয়।
৫. পত্রিকার ভাষ্য অনুযায়ী বর্তমান আরব দেশগুলোর বাবা-মা সন্তানদের ‘সালাহ উদ্দিন আইয়্যুবি’ হওয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে বড় করেন। একটা ডাহা মিথ্যা কথা। তিন বছর সৌদি আরবের একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করার কারণে প্রায় সকল আরব দেশের ছেলেদের সাথে পরিচয় হয়েছে। এমন কাউকেও পাইনি যার বাবা-মা তার নাম ‘সালাহ উদ্দিন আইয়্যুবি’ রেখেছেন।

লেখাটি বাংলাদেশের এই পত্রিকায় ছাপাবার গূঢ় রহস্য:
আজকে মুসলমান জাতি ইহুদিদের মার খাচ্ছে সন্তানদের “সালাহ উদ্দিন আইয়্যুবি” হওয়ার স্বপ্ন না দেখানোর কারণে। আজকে তারা স্বপ্ন দেখে, “তাদের যন্তানরা যদি মেসি-রোনালদো হত!” কেউ কেউ হয়তো সালাহউদ্দিন আইয়্যুবির নামটাই রাখে। কিন্তু তাঁর আদর্শ, স্ট্র্যাটেজি, দর্শন কিছুই তাদের জীবনে প্রতিফলিত হয় না। আজকে আরব জাতি মার খাচ্ছে জাতিয়তাবাদ নামক কুফর লালন করার কারণে। “আমার দেশে তো হামলা হচ্ছে না” এ চিন্তাই তাদের ঘুমন্ত রেখেছে।
প্রথম আলো ও তার বন্ধু পত্রিকারা খুব চালাকি করে আসল কারণটা চেঁপে গেল। তারা এটাও জানে, তাদের এই ‘লেখা’টা কোনো আরব পড়বে না। এর পাঠক হচ্ছে বাঙালীরা। কোনো বাঙালী যেন “সালাহ উদ্দিন আইউবি” হওয়ার স্বপ্নকে বুকে লালন না করে এ-ই তাদের মূল উদ্দেশ্য। আর, তারাও জেনে রাখুক, তাদের এই কুমতলবের জবাবে আমাদের জন্য আল্লাহই যথেষ্ঠ।

মন্তব্য ৮ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (৮) মন্তব্য লিখুন

১| ১১ ই জুন, ২০২১ সকাল ৭:১১

হাবিব স্যার বলেছেন: উদ্দেশ্য যাই হোক, মুসলমানরা তাদের দায়িত্ব থেকে সরে গেছে বলেই আজ এই অবস্থা।

২| ১১ ই জুন, ২০২১ সকাল ৮:০৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


সামন্তবাদী সাম্রাজ্যের আমলের সেনাপতি/সুলতান সালাদিন জেরুযালেম দখল করেছিলো বায়েজান্টাইনদের/ক্রুসেডারদের থেকে; ইহা ইতিহাস; কোন বাচ্চা যদি সালাদিন চরিত্র নিয়ে উৎসাহিত হয়, তার জীবন তাকে কি কি দিতে পারার সম্ভাবনা? আর একটা বাচ্চা যদি আইনষ্টাইন/ওবামা'দের অনুসরণ ক্সকরে, সে কোন পথে হাঁটার সম্ভাবনা?

৩| ১১ ই জুন, ২০২১ সকাল ৮:২৬

সাসুম বলেছেন: আজকের ইসরায়েল টিকে আছে মগজী শক্তির বলে- এই কথাটা যতদিন ব্রেণে ঢুকবে না মোসলমান দের ততদিন মারা খেয়ে যেতেই হবে।

আপনি মানেন, না মানেন , রাগ করেন, কান্না করেন- যাই করেন না কেন এই লিখার বিরুদ্ধে- এটাই ধ্রুব সত্য।

সালাউদ্দিন আইয়ুবি ছিলেন যোদ্ধা ইনার সাথে আইন্সটাইন এর তুলনা করেন কি করে? জীবনে শুনেছেন নারিকেল এর সাথে কমলার তুলনা করতে কেউ? সালাউদ্দিন আইয়ুবি কে নিয়ে তো অনেক ফ্যান্টাসি হল, এইবার সেগুলা এক পাশে সরিয়ে রেখে যতদিন মুস্লিম উম্মা জ্ঞান বিজ্ঞানে আগাতে না পারবে ততদিন মারা খেতেই হবে।

এটা দুনিয়ার নিয়ম। আন্ধা হলেই প্রলয় বন্ধ হয় না।

৪| ১১ ই জুন, ২০২১ সকাল ৯:০২

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনার পড়ালেখা কোন বিষয়ে, আইনষ্টাইনের বিষয়ে (ফিজিক্স ) , নাকি সালাদিনের বিষয়ে (যুদ্ধ বিদ্যা )?

৫| ১১ ই জুন, ২০২১ সকাল ৯:৩৯

আমি সাজিদ বলেছেন: আমাদের এখন সালাউদ্দিন আওয়ুবি হলে চলবে না, ইবনে সিনা হতে হবে। জ্ঞান বিজ্ঞানে আগাতে হবে৷ গোস্বা করে নিজেরা নিজেরা গন্ডগোল আবার নিজেরা অন্যদের সাথে গন্ডগোল করে গেলে লাভ হবে না। যত আগে বুঝে মানুষজন উগ্রবাদ ছাড়বে তত সমগ্র মুসলমানদের জন্য লাভজনক হবে।

৬| ১১ ই জুন, ২০২১ সকাল ১০:৪৮

কামাল১৮ বলেছেন: অসির থেকে মসির শক্তি বেশি অথাবা জ্ঞানই শক্তি এই কথাটাও কি ভুলে গেলেন।ঘোড়া আর তলোয়ারের দিন শেষ।এখন এক আঙ্গুলের শক্তি বড় শক্তি।

৭| ১১ ই জুন, ২০২১ সকাল ১১:০৬

হাসান কালবৈশাখী বলেছেন:
সালাউদ্দিন সালাদিন বলতে বলতে গলা শুখিয়ে ফেলছেন।
সালাউদ্দিনদের কি বর্তমানে আপনারা (ওহাবি সালাফি হামাসি জামাতি মুসলমানরা) মুসলমান মনে করেন?

সালাহউদ্দিন ইউসুফ ইবনে আইয়ুব ছিলেন কুর্দি জাতিগোষ্ঠীর মুসলমান,
কুর্দিরা সুন্নি হলেও ইরাক তুরষ্ক ইরান হামাস সৌদিরা এখনো তাদের মুসলমান মনে করে না, তুরষ্ক ইরান কিছুদিন পরপরই গণহত্যা চালায় কুর্দিস্তান এলাকায়।
ইসরাইলিরা সম্পুর্ন ভাবে অন্য মহাদেশে বা মঙ্গলগ্রহে সরে গেলেও আপনার একদিনও শান্তিতে থাকতে পারবেন না, নিজেরাই কুত্তার মত দাংগাবাজি বোমাবাজি করতে থাকবেন পাকিস্তান আফগানিস্তানের মত।

৮| ১১ ই জুন, ২০২১ সকাল ১১:২১

শূন্য সারমর্ম বলেছেন: মুসলিমদের সীমাহীন অযোগ্যতা নিয়ে থিসিস লিখে ৫৭ মুসলিম দেশে রাষ্ট্রপ্রধানের টেবিলে পাঠিয়ে দেয়া দরকার ; হয় আমলে নিবে বা যুদ্ধ বাধিয়ে দিবে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.