নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

হাজার হাজার অসাধারন লেখক+ব্লগারের মাঝে আমি এক ক্ষুদ্র ব্লগার। পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া লেখালেখির গুণটা চালিয়ে যাচ্ছি ব্লগ লিখে... যখন যা দেখি, যা মনে দাগ কাটে তা লিখি এই ব্লগে।

সোহানী

আমি অতি বিরক্ত হয়ে আমার অনেক লিখাই ড্রাফটে নিয়েছি কারন সামুতে আমার কিছু ভাবনা শেয়ার করছি, আর এ ভাবনা গুলো আমার অনুমতি ব্যাতিরেকে কপি না করার অনুরোধ করেছিলাম কিন্তু যত্রতত্র আমার লিখার কপি পেস্ট দেখেই যাচ্ছি দিনের পর দিন।

সোহানী › বিস্তারিত পোস্টঃ

বেকার বন্ধুদের জন্য ফ্রি উপদেশ (এ পর্ব বিশেষভাবে মেয়েদের জন্য ছেলেদের প্রবেশের কোন প্রয়োজন নেই) ........ পর্ব-৬

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৪ দুপুর ১:৪২

বেকার বন্ধুদের জন্য ফ্রি উপদেশ (এ পর্ব শুধুমাত্র মেয়েদের জন্য ছেলেদের প্রবেশ সম্পূর্ন নিষেধ) ........ পর্ব-৫


আমার আজকের পর্ব শুধুমাত্র মেয়েদের জন্য কারন আমি আমার দীর্ঘ অভিজ্ঞতায় দেখেছি মেয়েরা কতটা নিগৃহীত চাকরীর প্রতিটি পদক্ষেপে... কি প্রমোশন ক্ষেত্রে... কি সাবোর্ডিনেট হিসেবে ... কি বস্ হিসেবে.......। তাই তোমাদেরকে সর্তকতা মূলক ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের বর্ননা দিতে আজকে আমার এ লিখা। অনেক বড় হওয়াতে লিখাটা দু'ভাগ করেছি, আশা করি তোমাদের কিছুটা হলেও উপকারে আসবে।

কাজের ক্ষেত্রে পরিবেশ একটা বিশাল ফেক্টর কারন আমি আপনি দিনের ৮০% সময় অফিসে থাকি। আর এ সময়টা যদি আমরা ভালো না থাকি তাহলে বাকি ২০% .... মানে জীবনটাই অতীষ্ট হয়ে যায় । আমি এমনও দেখেছি মেয়েরা শুধুমাত্র পরিবেশের কারনে চাকরী ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছে আর যারা পারেন না তারা কতটা অসহ্য মানষিক যন্ত্রনা ভোগ করেন প্রতিদিন তা আমরা শুধু মেয়েরাই জানি বা বুঝি.....।

এবার আসি অফিসে তোমাদের ভূমিকা নিয়ে কিছু কথা....... তোমরা কি করবা.. কিভাবে তোমরা নিজেদেরকে প্রতিস্ঠিত করবে.........

আগে নিজেকে জিজ্ঞাসা করো, কেন চাকরী করছো???? সময় কাটানো জন্য নাকি বাবা, মা, স্বামী বা প্রেমিকের চাপে। তা যদি হয় তাহলে এতো সিরিয়াস হওয়ার দরকার নাই। জাস্ট সময়টাকে এনজয় করো। আর যদি চাকরীকে সিরিয়াসলি নাও তাহলে কয়েকটি বিষয় খেয়াল রাখবা।

১) ধৈর্য্য, কাজ করার মানসিকতা, পজিটিভ চিন্তা আর পরিশ্রম তোমাকে সঠিক যায়গায় নিয়ে যাবে অবশ্যই। তাই অনেক প্রতিকূল পরিবেশে ধৈর্য্য হারাবে না। মনে রেখ, মেয়ে মানেই কিন্তু প্রয়োজনে অপ্রয়োজনে ধাক্কা খাওয়ার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করা।

২) কোথাও জয়েন করে আগে পরিবেশ অনুধাবন করো। আগেই নিজেকে প্রকাশের জন্য ব্যস্ত হয়ো না। পরিবেশ অনুযায়ী নিজেকে আপডেট করো। নিজেকে ওদের একজন করে নাও। যেমন অফিসের সব মেয়ে বা ছেলেরা যদি খুব সেজে গুজে যায় তাহলে তোমাকে ও তা করতে হবে নতুবা তুমি ওদের একজন হতে পারবে না.. পিছিয়ে যাবা। সকালে যদি টি আড্ডা দেয়ার পরিবেশ থাকে তাহলে শত ব্যস্ততার মাঝেও আড্ডা দেয়া মিস্ করবা না।

৩) খুব বেশী কথা বলার চেস্টা করবে না কখনই, নিজেকে জাহির করার চেস্টা করো না সব সময়। প্রথম কিছুদিন শুধু জানার চেস্টা করো, অফিসকে বুঝো। কারো ব্যাক্তিগত বিষয়ে যেমন নাক গলাবে না আবার নিজের ব্যাক্তি জীবনের সবকিছুও প্রকাশ করবে না। মনে রেখ অফিস অফিসই.... অফিস কখনই আপন হয় না।

৪) নিজের ব্যাক্তি জীবনকে সবার সামনে তুলে ধরবে না। স্বামী, শাশুড়ি, ননদের বদনাম করার অনেক যায়গা আছে... অফিস নয় কিছুতেই। অফিস তোমার অনুভূতির প্রতি সম্মান দেখানোর জায়গা নয়। তোমাকে সামনে তারা সহানুভূতি দেখালেও পেছন থেকে তোমাকে নিয়েই সবাই হাসাহাসি করবে। অফিস একটা চরম কম্পিটেশান এর যায়গা। যেকোন সময় তোমার প্রকাশই তোমাকে বিপদে ফেলবে। মনে রেখ অফিস মনের কথা বলা যায়গা নয় কিছুতেই।

৫) সবচেয়ে ইম্পর্টেন্ট বিষয় অফিসে কখনই বস বা অন্য কলিগের বদনাম করবে না বা অন্যের বদনামে অংশগ্রহন ও করবে না কিছুতেই। অনেক সময় আড্ডায় অনেক কিছুই মুখ ফসকে বলা হয় বিশেষ করে বস্ দের বদনাম... তাতেও যোগ দিবে না। দেখবা অন্যের বলা কথা তোমার নামে কেউ লাগিয়ে দিয়েছে। আর কে যে বসের আপন আর কে যে পর তুমি তা না ও জানতে পারো।

৬) তুমি তোমার মনের কোন কথা কাউকে বিশ্বাস করে বলছো আর তা তাকে গোপন রাখতে বলছো তা কিন্তু হবার নয়। যে কথা তুমি নিজে গোপন রাখতো পারোনি সে কথা তোমার কলিগ কিভাবে গোপন রাখবে?? অফিসে আজ যে আপন একটু স্বার্থের ধাক্কা লাগলেই কাল সে আর কিছুতেই আপন থাকবে না মনে রেখ সবসময়।

৭) অফিস প্রেম করার যায়গা নয় এটা মনে রাখবা বিশেষ ভাবে। তবে কাউকে ভালো লাগলে আগে বাস্তববাদী হও। তার সম্পর্কে খোঁজ খবর নিয়ে তবেই ঝাঁপিয়ে পড়ো। কারো ব্যাক্তিগত দু:খের অংশীদার হতে গেলে তোমার জীবন কিন্তু দু:খে ভরে যাবে এটা খেয়াল করবে। অনেকে এক্সট্রা মেরিটাল সম্পর্কে জড়াতে চায়.... খবরদার তারা তোমাকে ছিঁবড়ে খেয়ে আবার নুতন সম্পর্ক গড়বে আরেক জনের সাথে।কখনই ওই পথে পা দিবে না। আবার ও মনে রেখ কলিগ হাজবেন্ড হবার সাথে সাথে কিন্তু তোমার কেরিয়ারের বারোটা বাজবে। কাজেই কারো সাথে সম্পর্কে জড়ানোর আগে চিন্তা ভাবনা করো... নিজেকে অনেক প্রশ্ন করো। তোমার দেখা শেষ্ঠ সহকর্মী কিন্তু শেষ্ঠ হাজবেন্ড না ও হতে পারে।



৮) আরেকটা কথা শুধু মেয়েরা শুনো....... সবসময় মনে রেখ তোমার দু:খের ব্যাথি কিন্তু একজন মেয়েই হতে পারে। যদি কিছু একান্ত কথা বলতে চাও বা পরামর্শ চাও তবে কোন মেয়ের সাথে শেয়ার করো। অবশ্যই তুমি কাউকে না কাউকে পাবে যে তোমার মানসিকতার অনেক কাছে...

৯) কখনোই কোন মেয়ের বদনাম করবে না। অনেক ছেলেরা বলে" মেয়েরা মেয়েদের শত্রু", একথা বলে তারা অন্য মেয়েদের বিরুদ্ধে তোমাকে লাগানোর চেস্টা করবে। তাই ওই পথে পা দিবে না কিছুতেই। খারাপ ছেলে যেমন আছে খারাপ মেয়েও আছে। তাদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখলেই চলে, শত্রুতা তৈরী করবেনা কিছুতেই।

১০) মনে রেখ অফিসে গ্রুপিং করবে না ... অফিসে দলাদলি করার যায়গা না। কারো সাথে মতবিরোধ হলে জাস্ট দূরে থাকো..... গ্রুপিং করবে না কিছুতেই। আজ তোমার গ্রুপ বিশাল শক্তিশালী কাল তোমার চাকরি না থাকলে কেউ তোমাকে কাছে ডাকবে না। তাই যেকোন ধরনের পলিটিক্স থেকে দূরে থাকো।

আবার ও বলি জীবনের জন্য চাকরী.. চাকরীর জন্য জীবন নয়। তাই তুমি শতভাগ চেস্টা করবে ভালো করতে ভালো থাকতে ততক্ষন পর্যন্ত যতক্ষন তুমি ভালো থাকবা। দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেলে কিন্তু অবশ্যই ঘুরে দাড়াঁবা। মনে রাখবা চাকরীর জন্য জীবন নয়.... জীবনের সব দু:খই সাময়িক। সৎ, চেস্টা আর আত্ববিশ্বাস থাকলে পৃথিবী কিন্তু তোমার...

আজ এটুকু... আগের পর্ব যাদি পড়তে চাও.........
http://www.somewhereinblog.net/blog/belablog/29914329

মন্তব্য ২৮ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (২৮) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৪ বিকাল ৩:১২

গান পাগলা বলেছেন: পোলারা কি দোষ করছে??????
:|| :|| :|| :||

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৪ বিকাল ৩:৪৭

সোহানী বলেছেন: পোলারা কুনু দোষ করে নাই.... মাইদেরকে একটু সৎউপদেষ দিচ্ছি আর কি....... B:-/ B:-/ B:-/ B:-/

২| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৪ বিকাল ৪:২৩

অপ্রচলিত বলেছেন: লেখা পড়ে চাকরি করার শখ ভাগছে। B:-) B:-) :(

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৪ বিকাল ৪:২৮

সোহানী বলেছেন: হায় হায় কন কি B:-)B:-)B:-)B:-)B:-)

৩| ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৪ বিকাল ৪:৪১

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: মেয়েরা নিগৃহীত কথাটি মানতে পারছিনা।


সে যাই হোক আপনার লেখাতে বেকারদের একটু উপকার হলে তবেই আপনার এই লেখা সার্থক।


ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০১৪ সকাল ৯:১১

সোহানী বলেছেন: লিখা স্বার্থক কিনা বলতে পারবো না... সময় ই এর উত্তর দিবে। ধন্যবাদ।

৪| ১৮ ই জানুয়ারি, ২০১৪ সকাল ১০:২৫

ঢাকাবাসী বলেছেন: ভাল লেখা।

১৯ শে জানুয়ারি, ২০১৪ বিকাল ৩:৩৯

সোহানী বলেছেন: ধন্যবাদ.........

৫| ২০ শে জানুয়ারি, ২০১৪ সন্ধ্যা ৭:৩৮

নাজিম-উদ-দৌলা বলেছেন:
মেয়েদের পোষ্ট শুনে উকি দিয়ে গেলাম। বিলিভ মি! কিচ্ছু পড়ি নাইকা! :P

২২ শে জানুয়ারি, ২০১৪ সকাল ৯:২৯

সোহানী বলেছেন: :P:P:P:P:P:P:P:P:P:P:P

আমিও তো কিছুই কই নাই....

৬| ৩০ শে জানুয়ারি, ২০১৪ দুপুর ২:২৯

মোঃ ইসহাক খান বলেছেন: চিন্তাভাবনার বিষয় আছে পোস্টে। কিছু উপদেশ বাস্তব, এবং অবশ্যই কাজে আসতে পারে।

সাধুবাদ রইলো।

০২ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৪ সকাল ১১:১৭

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ.............

৭| ২৪ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৪ দুপুর ২:১৬

নিশাত তাসনিম বলেছেন: মজা পাইলাম কমেন্ট গুলো পড়ে। পোস্ট দিয়েছেন মেয়েদের জন্য অথচ সব কমেন্ট ছেলেদের :P

২৫ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৪ বিকাল ৩:৫৯

সোহানী বলেছেন: মেয়েরা অনেক বিজি.... কমেন্ট দেয়ার সময় কই... ঘর/সংসার/বাচ্চা/ফেইসবুক/শ্বশুড় বাড়ি/মেহমান সামাল দিতেই জীবন যায়.........

৮| ২৪ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৪ দুপুর ২:১৯

গুগলরকস বলেছেন: আপনি ভালোই লেখেন

২৫ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৪ বিকাল ৪:০০

সোহানী বলেছেন: এই প্রথম এতো ভালো কমপ্লিমেন্ট পেলাম... আমার বাবা আমার লিখা পড়ে বলে এটা পড়ার অযোগ্য...হাহাহাহা.. তাও সাহস করে লিখি......

৯| ২৪ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৪ রাত ১০:৩৮

রাসেলহাসান বলেছেন: ছেলে হইয়াও ঢুকে পড়লাম।
ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।। :) :)

২৫ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৪ বিকাল ৪:০০

সোহানী বলেছেন: ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখলাম....... হাহাহাহা

১০| ০২ রা মার্চ, ২০১৪ দুপুর ১:৩৯

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: আপনি আর লিখছেন না কেন?

০৩ রা মার্চ, ২০১৪ দুপুর ১২:১৩

সোহানী বলেছেন: ভাইরে দৈাড়ের উপর আছি..... মাসখানেক দেশের বাইরে ছিলাম তাতেই ছেঁড়াবেঁড়া অবস্থা..... একটু জিড়িয়ে নেই আর কি....... তবে আপনাদের লিখাগুলো মিস দেইনি, প্রতিদিন একবার হলেও ঢু মেরেছি........

অনেক ধন্যবাদ...

১১| ০৭ ই মার্চ, ২০১৪ রাত ৩:০২

রাসেলহাসান বলেছেন: আবার আইলাম। :)

০৯ ই মার্চ, ২০১৪ দুপুর ১২:৩১

সোহানী বলেছেন: আরেকটু অপেক্ষা করেন... পরবর্তী উপদেশ নিয়ে আসছি... এবার সিভি রাইটিং নিয়ে লিখবো আশা করি কারন এটা খুবই ইম্পর্টেন্ট তোমাদের জন্য..............

১২| ০৮ ই মার্চ, ২০১৪ দুপুর ১:২৫

বেলা শেষে বলেছেন: ....we are men comming hier only for observing - what are the ladies doing....& we are trying to drink a Cup of Coffee....

০৯ ই মার্চ, ২০১৪ দুপুর ১২:৩৩

সোহানী বলেছেন: Ladies also taking cup of coffee and seeing what men are doing… LoL

১৩| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৩:১১

সামিয়া বলেছেন: এই পোস্টটি সবার জন্যই অনেক সহায়তামুলক পোস্ট। এর প্রতিটা শব্দ সত্যি।।

অসাধারণ পোস্ট আপু।।

১৯ শে ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:২৭

সোহানী বলেছেন: অসংখ্য ধন্যবাদ সামিয়া........

১৪| ০৩ রা আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১২:০৫

খায়রুল আহসান বলেছেন: অসাধারণ পোস্ট। সদুপদেশ দিয়ে লেখা কোন পোস্ট পড়ে কেউ উপকৃত হলে তার উত্তম বিনিময় আল্লাহ তা'লা আপনাকেও দিবেন বলে আশা করি।
সবগুলো পয়েন্টই ভাল লিখেছেন, তবে ৩, ৪ ও ৬ খুবই ভাল।
সামিয়া এর মন্তব্যের সাথে একমত (১৩ নং)।
পোস্টে প্লাস + +

১০ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১০:১৭

সোহানী বলেছেন: আমার পুরানো পোস্টে আপনার এভাবে উকিঁ দেয়া আমার খুব ভালো লাগে। নিজের লিখাগুলো ঝালাই করতে পারি আবার। আর নিজের সে পুরোনো চিন্তাগুলোকে আবারো মিলিয়ে নেই।

আমি আমার দীর্ঘ চাকুরী জীবনে লড়াই করেছি প্রতি মূহুর্তে..... আর সে কারনেই এ লিখাগুলো। আমি দেখেছি কিভাবে মেয়েরা নিগৃহিত তা দেশে বা বাইরে, ছোট কিংবা বড় পজিশানে। আর এ লড়াই কোনভাবেই ছেলেরা উপলব্ধি করতে পারবে না। কারন সে ট্রমার মাঝে ছেলেরা পার করে না।

সব সময়ই লিখার চেস্টা করি কিন্তু সময় আমাকে কিছুতেই সময় দেয় না।..............

অনেক অনেক ভালো থাকেন প্রিয় লেখক।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.