নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

হাজার হাজার অসাধারন লেখক+ব্লগারের মাঝে আমি এক ক্ষুদ্র ব্লগার। পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া লেখালেখির গুণটা চালিয়ে যাচ্ছি ব্লগ লিখে... যখন যা দেখি, যা মনে দাগ কাটে তা লিখি এই ব্লগে।

সোহানী

আমি অতি বিরক্ত হয়ে আমার অনেক লিখাই ড্রাফটে নিয়েছি কারন সামুতে আমার কিছু ভাবনা শেয়ার করছি, আর এ ভাবনা গুলো আমার অনুমতি ব্যাতিরেকে কপি না করার অনুরোধ করেছিলাম কিন্তু যত্রতত্র আমার লিখার কপি পেস্ট দেখেই যাচ্ছি দিনের পর দিন।

সোহানী › বিস্তারিত পোস্টঃ

আমার বুয়া কাহানি..................................... পর্ব-৬

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ৯:৫০

অনেকদিন পর ফিরে আসলাম আমার বুয়া মেগা সিরিয়াল নিয়ে... জানি আপনারা রাজনীতি নিয়ে প্যাচাল পারতে পারতে বোর হয়ে গেছেন তাই একটু রিফ্রেস টনিক নিয়ে আমি হাজির হলাম বুয়া পর্ব নিয়ে .....



আজ যদি হুমায়ুন স্যার বেঁচে থাকতেন তাহলে আমার কাজের বুয়াদের কাহিনী শুনে নির্ঘাত একশত পর্বের নাটক লিখে ফেলতেন। যেহেতু সে সুযোগ আপনারা পাচ্ছেন না তাই আমার এ ক্ষুদ্র প্রয়াস .... আমার কাজের বুয়া সমাচার পর্ব। আশা করি ভবিষ্যতে সাবধানতার জন্য এ পর্বগুলো আপনাদের ভালো লাগবে। /:)/:)/:)/:)/:)/:)

তো যা বলছিলাম...
শাশুড়ি, ননদ ও প্রেমিক বুয়া যাওয়ার পর কান ধরলাম বয়স্ক মহিলা আর না .... সবাই বুদ্ধি দিল অল্প বয়স্ক মেয়ে রাখো তাতে তোমাকে কান ধরে উঠা বসা করাবে না আর ওদের নিয়ন্ত্রন সহজ হবে।

শুরু হলো নেক্সট্ বুয়ার খোজঁ.... মা, শাশুড়ি, খালা, নানু সবাই এক যোগে খোজঁ শুরু করলো। এবং নানু এক দালাল মহিলার খোজঁ দিল যে বাড়ি বাড়ি কাজের মেয়ে দিয়ে যায় ......। যাক ইনিশিয়াল পর্যায়ে আমার মা দালালকে যাবতীয় রিকোয়ারমেন্ট দিল এবং অত্যাশ্চার্য যে মাত্র একদিনের ভিতরেই সে ১৪/১৫ বছরের একটি মেয়েকে হাজির করলো। (পরে বুঝলাম ওরা সবার রিকোয়ারমেন্টই পূরন করে তবে তা তিন থেকে ছয় মাসের জন্য এবং প্রতিবারই গাড়ি ভাড়া, দালাল ফি ও একটি করে নূতন শাড়ি নিয়ে থাকে। এবং আমার দালাল তার ও তার ছেলে মেয়ে সহ তিন সংসার এই টাকায় চালায়)।

যাক নুতন মেয়েটিকে আমার প্রথম দেখায় পছন্দ হয়ে গেল। খুবই শান্ত, লাজুক... চোখ তুলে কথাও বলে না..... কাজ শেষে রান্না ঘরের এক কোনায় বসে থাকে। অনেক জোর করে টিভির সামনে বসাই... কথায়ই বলেনা। আমার হাজবেন্ড আমাকে নিয়ে খুব হাসাহাসি করলো... তোমার মনের মত এ মেয়েকে আবিস্কার করলা কেমনে!!!!!!

যাক সুখে শান্তিতেই কাটছিলো দিনকাল। মাস কয়েক পর খেয়াল করলাম মেয়েটি সারাদিনই তার রুমে থাকে... কাজ কর্মে খুব একটা মন নেই। সারাক্ষনই খুব সেজেগুজে থাকে, ঠোটে লিপিস্টিক, চোখে কাজল.... যা খুবই দৃষ্টিকটু লাগে। রুমে উকিঁ দিলে দেখি প্রায় কি যেন লিখছে.......। আমি ভাবলাম পড়াশুনা করে, ডেকে জিঙ্গাস করলে কিছুই বলে না ... চুপ থাকে। বেশি ঝামেলা তৈরীর চেস্টা না করে নিজের কাজে মন দিলাম কারন আমি সারাদিন বাইরে থাকি ও যদি কিছু লেখা পড়া করতে চায় করুক না। আমি তার জন্য কিছু বই খাতা কিনে দিলাম।

আমার ফ্লাট বাসার সিড়িঁর নীচে দাড়োয়ানের ছোট ঘর। সব বাসায় যেমন থাকে আর কি। একদিন একটু আগে বাসায় ফিরতেই খেয়াল করলাম আধো অন্ধকারে কে যেন ছায়ার মতো সরে গেল দাড়োয়ানের ঘরের দিকে। এতো ব্যস্ততার মাঝে ওই দিকে তাকানোর সময় নেই....... বাসায় ফিরেই দেখি বাইরে থেকে ছিটকিনি বন্ধ আর পিছনেই আমার এ্যাসিসটেন্ট দৈাড়ে আসছে। কোথায় গেছিস বলতেই বললো ময়লা ফেলতে। আমি একটু হালকা বকা লাগালাম যে ঘর খোলা রেখে বাইরে যাস্ যদি চুরি হয়.... এভাবে প্রায় সে দিনের বেলা বা সন্ধ্যার পর ও উধাও হতে থাকলো।

সামনে ঈদ, শ্বশুর বাড়ি যাবো তাই কেনা কাটা ,অফিস, কাজ নিয়ে মারাত্বক ব্যস্ত। বাসায় থাকি না বললেই চলে... ভোরে বের হই আর রাত দুপুরে আসি। যাবার আগেরদিন ব্যাগ গোছাতে মারাত্বক ব্যাস্ত কারন ভোর ৫.৩০ এ ট্রেন। হঠাৎ রাত ১১.৩০ টায় কলিং বেল বাজতেই আমার এ্যাসিসটেন্ট দৈাড় দিল দরজা খুলতে। এতো রাত এ কে আসছে আমি এগিয়ে গেলে সে দরজা বন্ধ করে দেয়। কে বলতেই বললো আমার খালাতো ভাই আসছে মা চিঠি দিয়েছে। তোর খালাতো ভাই !!!!!!!!!!! তাজ্জব হলাম... তোর তো এ কূলে কেউ নেই ঢাকায় ???? বেশি দূর জেরা করতে পারলাম না আমার হাজবেন্ড মাঝে নাক গলালো.... ওর কি কোন আত্বীয় থাকতে পারে না???? আরো উল্টা ওর হয়ে আমাকে ঝাড়ি দিল।

যাহোক এভাবে ঈদ পার করলাম কিন্তু আমার মনে খটকা লেগে থাকলো। কে আসলো, কেন এতো রাতের বেলা আসলো আবার বসতে ও বললো না। কোন আত্বীয় এতো দিন শুনি নাই এখন হঠাৎ !!!!!!! যেহেতু আগে আমি এ্যাসিসটেন্ট নিয়ে বিস্তর অভিঞ্জতা অর্জন করেছি তাই ব্যাপারটা সহজে মেনে নিলাম না।

বাসায় ফিরেই ওকে চোখে চোখে রাখলাম। পাশের বাসার ভাবীকে ব্যাপারটা শেয়ার করলাম। ভাবী খুব ফরেজগার মানুষ, খুব একটা বের হোন না বাসা থেকে। তারপর ও ব্যাপারটা দেখবেন বলে আস্বস্ত করলেন।

ঠিক দুইদিন পর আফিস থেকে বাসায় ফেরার পর ভাবী আমাকে বাসায় ডাকলেন। অনেক ওয়াজ নচিহত এর পর মাথা ঠান্ডা রেখে ওনার যাবতীয় তথ্য শুনতে বললেন।...........তথ্যগুলো হলো এই....... ১) দুপুর বেলা যখন মোটামুটি সব নিরব থাকে তখন আমার বাসায় কালো করে একটা ছেলে আসে। ২) রাতে বা দিনের বেলা যখন আমরা বাসায় থাকি তখন আমার এ্যাসিসটেন্ট দাড়োয়ানের ছোট ঘরে দরজা বন্ধ করে থাকে। ৩) দিনের মোটামুটি বাকি সময় সে বারান্দায় সেজেগুজে দাড়িয়ে থাকে ও রাস্তার অপর দিকে অনেকগুলো ছেলে দাড়িয়ে থেকে পাথর দিয়ে বেধে চিঠি ছুড়ে দেয় এবং এর কয়েকটি দোতালায় ও পড়ে। যথারীতি দোতালার ভাবী অবজেকশান দিয়েছে কিন্তু দাড়োয়ান উল্টা তাদের বাসা ছাড়ার হুমকি দিয়েছে। এবং আতংকের কথা ছেলেগুলোর মধ্যে একটি আবার পাড়ার মাস্তান।................

যাবতীয় তথ্য জানার পর আমি কোন গর্তে ঢুকবো বুঝতে পারছিলাম না। আমার হাজবেন্ড বাসায় ছিল না তখন। বাসায় ফিরে মাথায় বরফ ঢাললাম তারপর চুপচাপ আমার হাজবেন্ড এর জন্য অপেক্ষা করতে লাগলাম। মনে হলো দুই ঘন্টা না আমি অনন্ত কাল ওর জন্য অপেক্ষা করছি। এতো বছরে ওর জন্য এতো গভীর আগ্রহে অপেক্ষা করিনি।

তারপর কাহিনী কি আর........... তার ব্যাগ খুলে অসংখ্য প্রেম পত্র, অনেকগুলো ভিডিও (কিসের ভিডিও তা আর নাই বললাম)... উদ্ধার করলাম। যাহোক আমি ধৈর্য্য নিয়ে প্রতিটি প্রেম পত্র পড়লাম এবং আবিস্কার করলাম যে সে খুব শীঘ্রই পালিয়ে যাওয়ার প্লান করেছে এবং বাসায় কি কি জিনিস আছে তার বর্ননা এবং কি কি জিনিস নেয়া যায় তার বিশদ প্লান।

পরিশিষ্ট: পত্রপাঠ বিদায় এবং নতুন কাহিনীর জন্ম লাভ। তবে এবার আমরা সহ বিদায় হয়েছি এলাকা থেকে কারন পাশের ভাবী আমাদের পরামর্শ দিলেন তাড়াতড়ি বাসা ছেড়ে দিতে নতুবা আমরাই বিপদে পড়তে পারি।

আমার আগের পর্ব যদি পড়তে চান.............
http://www.somewhereinblog.net/blog/belablog/29880812

মন্তব্য ৬৪ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (৬৪) মন্তব্য লিখুন

১| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ৯:৫৭

কান্ডারি অথর্ব বলেছেন:


পুরাই দেখি ডিসকো বুয়া !!!

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ৯:৫৮

সোহানী বলেছেন: হাহাহাহা..... এ আর দেখছেন কি !!!!!

২| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:০৫

এন ইউ এমিল বলেছেন: অল্পের জন্য বড় বাচা বেচে গেলেন, পাশের বাসার ভাবিকে দিয়ে একটা মিলাদের ব্যাবস্থা কইরেন

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:২৫

সোহানী বলেছেন: সে আর বলতে...........

৩| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:০৯

ক্লান্ত তীর্থ বলেছেন: আহা আহা!


প্রেমের মরা জলে ডোবে না!

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:২৫

সোহানী বলেছেন: তবে ডোবায় !!!!!!!!!!!!!!!!

৪| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:২৫

প্রিয় জন বলেছেন: ডিসকো বুয়া কাহিনী ভালই লাগল।

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:৩২

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ ভালো লাগার জন্য..........

৫| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:২৬

মাঘের নীল আকাশ বলেছেন: কঠিন বাস্তব... =p~ =p~

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:৩২

সোহানী বলেছেন: আসলেই কঠিন বাস্তব...................

৬| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:২৭

ঢাকাবাসী বলেছেন: ভাল লিখেছেন। হ্যাঁ এরা খারাপ হয়, এদের নিয়ে সমস্যা গতে পারে সবই ঠিক তবে এদের ছাড়া বাঁচাই মুস্কিল মনে হয়। এসব নিয়েই বাঁচতে হয়।

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:৩৪

সোহানী বলেছেন: তারপরও এসবই নিয়েই বেচেঁ আছি............ এদের ছাড়া কিভাবে চলবো !!!!

৭| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:৩২

লাইলী আরজুমান খানম লায়লা বলেছেন: হায়রে বুয়া-------

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:৩৪

সোহানী বলেছেন: রো হায়রে না আমরা হায়রে................. আমাদেরকে তো নাকে দড়ি দিয়ে ঘুরায়..........

৮| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:৪৭

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: আধুনিক বুয়া। বিভিন্ন সিরিয়াল দেখে তো!

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১০:৫৩

সোহানী বলেছেন: আরে ভাই এ ভারতীয় সিরিয়ালগুলাই যত নস্টের গোড়া......... পৃথিবী উল্টে যাক বাট সিরিয়াল দেখা চাই ই চাই তাদের..........

৯| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১১:০০

পরিবেশ বন্ধু বলেছেন: বুয়া কাহিনিতে ভাললাগা +

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১১:০৯

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ পরিবেশ বন্ধু ............

১০| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১১:১৫

ইখতামিন বলেছেন:
পুরাই ডাকাতি কাণ্ড
ভাগ্য ভালো যে, আগে থেকেই খেয়াল করেছিলেন

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১১:৫০

সোহানী বলেছেন: পুরানো অভিজ্ঞতাই আমাকে বাচিঁয়েছে.....................

১১| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১১:২৬

মাহমুদ০০৭ বলেছেন: বাইচা গেছেন :) মিস্টি চাই :P :P

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১১:৫১

সোহানী বলেছেন: আরে আমিতো বার বার বেচেঁ যাচ্ছি... কতবার মিস্টি খাওয়াবো...... :) :) :) :) :)

১২| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১১:৩৬

প্রিয় সবুজ বলেছেন: বেশ মজা পেলাম /

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১১:৫২

সোহানী বলেছেন: সে আর বলতে..... আমার যে কি দিন গেছে তা আর বলতে.................

১৩| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১১:৫১

শাহ আজিজ বলেছেন: স্থায়ী বুয়া রাখবেন না । আমরা প্রচণ্ড ভুক্তভোগী । নতুন এলাকায় এসে নিস্তার পেয়েছি কারন এই ঠিকা কাজের লোক ভোলা ও বরিশালের । এরা চুরি করেনা, রান্না অপূর্ব এবং পরিচ্ছন্ন । আগে ছিলাম ধোবাউড়া সিন্ডিকেটের আওতায় , পৃথিবীর সরবচ্চ চোর এরা ও ডাকাতদের খবর দাতা । রান্নাবান্না জঘন্য ।

০৪ ঠা মে, ২০১৪ সকাল ১১:৫৭

সোহানী বলেছেন: আমরা যারা চাকরী করি তাদের স্থায়ী বুয়া ছাড়া কোন গতি নেই...... আর এদের কাহিনী সহ্য করা ছাড়াও কোন উপায় নেই...........

১৪| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১২:০৭

বঙ্গভূমির রঙ্গমেলায় বলেছেন: দেশটা চোর-বাটপারে ভরে গেছে।

আরেকটু হইলেই গেছিলেন।

০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১২:২৪

সোহানী বলেছেন: এটা আর কি গেছি... আগের কাহানীতো আরো ভয়ংকর !!!!!!!!!!

১৫| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১২:২২

না পারভীন বলেছেন: অল্পের জন্য রক্ষা পাওয়া গেল!

০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১২:২৪

সোহানী বলেছেন: সে আর বলতে !!!!!!!!!!!!!!!!

১৬| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১২:৪০

মুদ্‌দাকির বলেছেন: :| :| :|

০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১২:৫৬

সোহানী বলেছেন: :| :| :| =p~ =p~=p~ =p~

১৭| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১২:৪৫

স্নিগ্ধ শোভন বলেছেন:



কান্ডারি অথর্ব বলেছেন:- পুরাই দেখি ডিসকো বুয়া !!!
=p~ =p~

০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১২:৫৭

সোহানী বলেছেন: সে আর বলতে..............

১৮| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১:২৭

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ওৎেরই!!!!! জটিল জিনিস পাইছেন আপনি!।

আল্লাহ বাচাইছে! আমাদের বাসায় কোন কাজের লোক নাই। প্রতিদিনই আমরা কর্মী হিসেবে কাজ করি। যার যার রুম, তার তার প্রদেশ! যার যার প্রদেশ তাকেই ঠিক রাখতে হয়! B-) :|

০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ২:৫২

সোহানী বলেছেন: আসলেই জটিল.... আমার মত বয়স হলে বুঝবেন... বাচ্চা কাচ্চা কই রাখি???? এদের উপর ভরসা করা ছাড়া কোন গতি নেই........

১৯| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১:৩৯

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সাংঘাতিক অবস্থা ।

০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ২:৫২

সোহানী বলেছেন: সে আর বলতে সেলিম ভাই..............

২০| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১:৪৪

মেহেরুন বলেছেন: ঘরে ঘরে একই সমস্যা :(

০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ২:৫৪

সোহানী বলেছেন: আরে না... এর বিপরীত চিত্র ও আছে.... সেটাই বরং বেশী.....

২১| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ১:৪৯

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: বুয়াদের নিয়ে সমস্যা চিরকালীন।
ধন্যবাদ, সোহানী।

০৪ ঠা মে, ২০১৪ দুপুর ২:৫৫

সোহানী বলেছেন: সেটাই কথা.... তারপর ও এদের নিয়ে চলতে হয়.............

২২| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ বিকাল ৪:০৭

বিপ্লব৫৫ বলেছেন: কেচোঁ খুরতে সাপ কাহিনী। অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন। সজাগ থাকবেন।

০৪ ঠা মে, ২০১৪ বিকাল ৪:৩০

সোহানী বলেছেন: সাপ মানে গোখরা সাপ................. তারপরও এদের নিয়েই আছি.........

২৩| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ বিকাল ৪:৪০

ইছামতির তী্রে বলেছেন: সব্বোনাশ!! আপনার ঘটনার সাথে আমার ঘটনার কিছু মিল আছে। সংক্ষেপে বলি। ওই রকম বয়সের একটা মেয়ে আমাদের বাসায় কাজ করত। এই মেয়েটিকেও আমরা বুঝতে পারতাম না। অনেক রহস্য ছিল ওর ভেতরে। কথা শুনতো না বললেই চলে। মনে মনে সিদ্ধান্ত নিলাম বিদায় করে দিব। এক সপ্তাহ সময় চাইলাম। ও রাজী হলো। ঘটনার আগের দিন ওকে খুব খুশি খুশি মনে হলো। পরের দিন সকালে ঘুম থেকে উঠে প্রয়োজনীয় কাজ সারছিলাম। মনে হলো, বাসাটা সুনসান। শব্দ নেই। বউ রুমেই আছে। রান্না ঘরে গেলাম। কোন সাড়া শব্দ নেই। ওর রুমে গেলাম। নাই। বারান্দায় গেলাম। নাই। অনিচ্ছা সত্তেও বাথরুমের দরজা লক্ষ করলাম। নাহ! ছিটকানি নেই। তাহলে!!! মাথায় বাজ পড়লো। তাড়াতাড়ি মূল দরজার দিকে এগোলাম। এপাশ খোলা দেখেই শিড়দাড়া দিয়ে ঠান্ডা স্রোত বয়ে গেল। এপাশে ছিটকানি খোলা। বাট খুলতে পারলাম না। মানে ওপাশ থেকে দরজা লাগানো। হায়! আল্লাহ! এবার কি হবে?

পরে অনেক যন্ত্রণার পরে তার খোজ পেয়েছিলাম। সে তার প্রেমিকের কাছে চলে যাবার উদ্দেশ্য নিয়েই নাকি আমার বাসায় এসেছিল! বোঝেন অবস্থা!

এখন একজন ঠিকা বুয়া কাজ করে দেয়। তার কথাও অনেক বলা যায়। তবে সেটা ভিন্ন গল্প।

আর একটা কথা। ভুলেও দালালদের মাধ্যমে কাজের মেয়ে ম্যানেজ করবেন না।

০৫ ই মে, ২০১৪ সকাল ৯:০৯

সোহানী বলেছেন: সত্যিই তাই প্রতিটি এ্যাসিসটেন্ট এক একটি কাহিনী তবে প্রায় একই!!!!!

তবে দালাল ছাড়া গতি কোথায়.... আমরা যারা বাইরে কাজ করি তাদের জন্য ওদের উপর নির্ভর করা ছাড়া গতি নেই................... তারপর ও চলতে হয় ও নতুন নতুন কাহিনীর জন্ম হয় !!!!!!!!!!!!

২৪| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ বিকাল ৫:০৪

নীল ভোমরা বলেছেন: হুমম...... কাজের লোক রাখাও রিস্কি!.... কিন্তু অনেক সংসারেই এমন বাস্তবতা যে কাজের লোক না রাখলেও চলেনা!

০৫ ই মে, ২০১৪ সকাল ৯:১০

সোহানী বলেছেন: হাঁ ঠিক তাই... দেশে যদি ডে কেয়ার বা প্রি স্কুলিং থাকতো তাহলে আমরা একটু বেচেঁ যেতাম।

২৫| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ রাত ১০:৪৪

এহসান সাবির বলেছেন: বেশ.....!!! =p~ =p~ =p~ =p~

০৫ ই মে, ২০১৪ সকাল ৯:১০

সোহানী বলেছেন: আরে আমি মরি জ্বালায় আর আপনি বললেন বেশ !!!!!!!!!!!!!!

২৬| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ রাত ১০:৫৪

rakibmbstu বলেছেন: +++++++

০৫ ই মে, ২০১৪ সকাল ৯:১১

সোহানী বলেছেন: আমাকে না কি আমার এ্যাসিসটেন্ট কে!!!!!!!!!!!

২৭| ০৪ ঠা মে, ২০১৪ রাত ১১:০৯

নীল জোসনা বলেছেন: কঠিন সমস্যা ।
এই বুয়া গুলার কাহিনী উদ্ধার করতে করতে গিন্নী গুলা সি আই ডি হয়ে যাচ্ছে ।
:P :P :P

০৫ ই মে, ২০১৪ সকাল ৯:১২

সোহানী বলেছেন: হাহাহাহাহা তা যা বলেছেন..............

২৮| ০৫ ই মে, ২০১৪ রাত ১:৫৬

টুম্পা মনি বলেছেন: :D :D :D :D :D

০৫ ই মে, ২০১৪ সকাল ৯:১২

সোহানী বলেছেন: B:-) B:-) B:-) B:-) B:-)

২৯| ১৯ শে মে, ২০১৪ বিকাল ৫:০৭

সপ্নাতুর আহসান বলেছেন: আপনি প্রেমে পড়তে পারলে বুয়ারা পেরেমে পড়তে পারবে না এমন কোন নিয়ম আছে?? :P

২০ শে মে, ২০১৪ সকাল ৯:২৪

সোহানী বলেছেন: আমিতো কোথাও বলিনি তাদের প্রেমে পরা বারন.... শুধু নিজের বিপদের কথা শেয়ার করলাম মাত্র.....

৩০| ২০ শে মে, ২০১৪ দুপুর ১২:৫৯

সপ্নাতুর আহসান বলেছেন: আপনার ব্লগে এটাই সম্ভবত আমার প্রথম কমেন্ট, তাই আপনি বিষয়টা সিরিয়াসলি নিয়েছেন। আমি জাস্ট ফান করেছি।।

২১ শে মে, ২০১৪ দুপুর ১:০৬

সোহানী বলেছেন: :-& :-& :-& :-& :-&

৩১| ০৭ ই নভেম্বর, ২০১৪ ভোর ৪:১৯

অ্যামাটার বলেছেন: াহাহাহা! যদিও বিষয়টা ভীতিকর, কিন্তু মজা পেলাম :)
বুয়া কাহিনী বাকিগুলোতেও না জানি কী গল্প অপেক্ষা করছে।

দোয়া করি, মাসে মাসে একটা করে বুয়া পাল্টান, আর আমাদের একটা করে গল্প উপহার দেন:P

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৪ সকাল ১১:৩৫

সোহানী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ অ্যামাটার ...........

এটা কি বদ দোয়া দিলেন :P :P :P :P :P ....

৩২| ২১ শে জানুয়ারি, ২০১৬ রাত ১:০৫

বাকি বিল্লাহ বলেছেন: একসাথে সব পর্ব পড়ে নিলাম। ভালই চলছিল কিন্তু....... :)

২১ শে জানুয়ারি, ২০১৬ রাত ৮:৪৩

সোহানী বলেছেন: ওওওওওওও বিল্লা ভাই, অনেক দিন পর কাহানিগুলা পড়ার জন্য ধন্যবাদ। ভুলেই গেছিলাম অামার এ সিরিজটার কথা। ভালোই চলছিল বাট এতােগুলা সিরিজ একসাথে শুরু করেছিলাম যে কোনটাই শেষ করতে পারিনি আর বুঝতেই পারছেন ওদের কাহিনীর কি শেষ আছে!!!!!!!!!! হাঁ আবার ফিরে আসবো , মনে যখন করিয়েছেন.....

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.