নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

LAB RAT

People Don’t Change, They Just Evolve

বিপ্লব06

এই ব্লগের সকল লেখার স্বত্ত্ব লেখকের।

বিপ্লব06 › বিস্তারিত পোস্টঃ

এন ইডিয়ট ইন লাভ!!! (বাইশ)

২২ শে এপ্রিল, ২০১৬ রাত ১২:৪৩




(আগের কাহিনীর পর...)

আমার কথা শুইনা সুন্দরি পিছলা পিছলি শুরু কইরা দিল। কয় হাওয়া খাইতে মানে ব্যাপারটা বুঝলাম না! আমার তো মেজাজ বিলা হইতেছে। কয় কি? বুকে বল বাইন্ধা এরাম একটা কাম করলাম আর মাইয়া দেখি আমার চাইতে বদ বাইর হইয়া গেছে! প্রেশার ক্রিয়েট করার জন্য কইলাম তুমার তিরিশ সেকেন্ড সময় পার হইয়া গেছে, আর মাত্র ১৫০ সেকেন্ড আছে।
এইবার ওইপাশে নীরবতা...।
আর এইদিকে আমার বুকের মইদ্দে ধুড়ুম-ধাড়াম কইরা দুরমুজ পরতেছে। মনে হইল যেন এক যুগ পর সে গলা টাইনা টাইনা কইল, “ঠিক আছে”। কই যাবা?
আমি তো শুইনাই পারলে লাফ দিয়া পইড়া নিজের ঠ্যাং ভাঙ্গি। কিন্তু তারপর সমস্যাটা হইল আমি এরপর কি কমু এইটা ভাইবা পাইতেছি না। পুরাই বোবা হইয়া গেছি আরকি! ইনফ্যাক্ট এর পর কি হইতে পারে এইটা আগে থেকে চিন্তাও করি নাই। কই হাওয়া খাইতে যামু এইটাও চিন্তা করি নাই। এখন তো একটা লোকেশন দেওয়া লাগবে। কইলাম .....বার ম্যানহাটানের এইটথ এভিনিউ আর ১৪ স্ট্রিট এ থাইকো।

ফাস্ট ফরোয়ার্ড টু ঘটনার দিন বিকাল!
সেইদিন বিকালে আমারে সারপ্রাইজ কইরা দিয়া সেঠিক সময়ে হাজির (মনে করছিলাম দেরীতে আসবে)!! আমি একটু আগে না গেলে আমিই লেইট হইয়া যাইতাম! তারে দেইখা তো আমার চক্ষুচড়কগাছ! বেশরমের মতন জাগার মধ্যে খাড়াইয়া সৌন্দর্য উপভোগ করা শুরু করলাম। উপরআলা পুরা সৌন্দর্য তারে যে নিজ হাতে দিছে এই ব্যাপারে সন্দেহ নাই। ও যে কষ্ট কইরা শাড়ি পইড়া আসবে এইটা কোনমতেই ভাবি নাই। শাড়ি পড়লে কাউরে যে এত্ত সুন্দর লাগতে পারে এইটাও আমার মাথায় কুনুদিন আসে নাই! আসলে আমি এর আগে শাড়ী পড়া কাউরেই এইরকম ভাবে স্ক্যান কইরা কইরা দেখি নাই। এরাম সৌন্দর্য দেইখা কিছুক্ষনের জন্য সব ধরনের অনুভূতিগুলা ভোঁতা হইয়া গেছিল। এরপরে সুন্দরির লাল হইয়া উঠা গাল দেইখা যখন এই ইডিয়টের কনসাসনেস আইলো, মাথার মধ্যে প্রথম চিন্তাটা আইলো এরাম সুন্দরির পাশে আমারে কিরাম লাগতেছে?!?! মনে মনে পিলেন কইরা লাইলাম, সুন্দরির লগে ছবি তুলা যাইবে না! আমার কাপড়-চুপড়ের কোথা আর কই বলি! কুনুদিন এইগুলা ব্যাপার চিন্তাও করি নাই! তাও ভাগ্য ভালো কই মনে কইরা যেন শেষ মুহূর্তে টিশার্টটা বদলাইয়া একখানা পাঞ্জাবি গায়ে দিয়া আসছিলাম বইলা বাইচ্চা গেছি! আরেকটু হইলে তো পুরাই বাটে পইড়া যাইতাম।

যাইহোক এইবার তো হাওয়া খাওয়ার পালা! আমি যখন হাওয়া খাওয়ার কথা কইছিলাম তখন আমি লিটারালি হাওয়া খাওয়ার কথা মিন করছিলাম। নেচারের সৌন্দর্য উপভোগ করাই ছিল মুখ্য উদ্দেশ! এখন সুন্দরির সৌন্দর্য দেইখা সেইটা তড়িৎ-গতিতে গৌণ হইয়া গেল! যাই হোক আমার মাথায় ছিল হাই-লাইন টা ভিজিট দিবার। রিসেন্টলি ওরা জিনিসটারে ওয়েস্ট-সাইড হাইওয়ের পাশ দিয়া ৩৪ স্ট্রিট পর্যন্ত এক্সটেন্ড করছে। ঐখান থেকে হাডসন রিভারের ভিউটা আমেইজিং হবার কথা। কিন্তু হাই লাইনের গোড়ায় যেয়ে দেখি মেমোরিয়াল-ডেউইক-এন্ডের টুরিস্ট আর লোকালরা মিলে পুরা এলাকাটা গিজগিজ করতেছে। পা ফেলাবার জায়গা নাই। আমি তো মনে করলাম ব্যাপারটা কেঁচে গেল নাতো? কিন্তু এর মধ্যেই মাথায় আরেকটা আইডিয়া আইসা পড়লো। দুই বছর আগে সিটি এক্সপ্লোরেশন এর পার্ট হিসাবে হাডসন রিভার পার্কের আগা থেকে গোড়া পর্যন্ত হাটা দিছিলাম। যায়গাটা একটা ওয়ান্ডার। ওকে বললাম হাটতে পারবা? ভাগ্য ভালো ও ফের হাই হিল পইড়া আসে নাই। ফোরটিন স্ট্রিটের ওইখানে দিয়া পার্কের সাইডে ঢুকলাম। কয়েক ব্লক হাইটা অরে একটা কঙ্কালসার, পরিত্যাক্ত স্ট্রাকচার দেখাইয়া কইলাম, জানো এইটা কি? সে বলে কি? আমি কইলাম, টাইটানিকের নাম শুনছ না? সে বলে শুনব না কেন? আমি বললাম এইটা একটা পরিত্যাক্ত পিয়ার, পিয়ার ৫৪। টাইটানিকের এইখানে ভিড়ার কথা ছিল। তার চোখে অবিশ্বাস আর আনন্দের অপূর্ব একটা মিশ্রণ দেখলাম। ওইটার কাছে যাইয়া ওকে জিনিসটা ভালো করে দেখাইলাম, স্ট্রাকচারটার গায়ে এখনো টাইটানিক নামটার অবশিষ্টাংশ রয়ে গেছে, ভালো করে দেখলে দেখা যায়। ওইটা দেখেতো ও পুরাই ও-মাই-গড, ও-মাই-গড শুরু কইরা দিছে! এই সিম্পল চাইল্ডিস ব্যাপারটা দেখে আমার এত্ত ভালো লাগছে যা ভাষায় প্রকাশ করার মত না। এরপর অবশ্য আমি ওকে বলতে চাইছিলাম যে এইটাকে মোটামুটি একটা অভিশপ্ত পিয়ার বলা যাইতে পারে। টাইটানিক ( প্রায় ১,৫০০ মৃত) ছাড়াও এই পিয়ারটা ইউজ করতো এমন আর একটা জাহাজ ডুবে আরো প্রায় ১,২০০ লোক মারা গেছিল। কিন্তু আর বলি নাই। এই খবরটা শুনলে ও স্যাড হয়ে যাবে। এই হাসি আর ওর মুখে থাকবে না। আমি চাই ওর মুখে এই হাসিটা সারা জীবন থাকুক। ইনফ্যাক্ট, আই উড ডু এনিথিং এন্ড এভরিথিং ইন মাই পাওয়ার টু মেক ইট হ্যাপেন।


(চলপে...।)

মন্তব্য ২৬ টি রেটিং +১০/-০

মন্তব্য (২৬) মন্তব্য লিখুন

১| ২২ শে এপ্রিল, ২০১৬ রাত ১২:৪৫

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: বহুদিন পর পোস্ট দিলেন!!

২২ শে এপ্রিল, ২০১৬ রাত ১২:৫৩

বিপ্লব06 বলেছেন: হ্যাঁ ভাই! অলস হয়ে গেছি অনেক! আর টাইম নিয়েও একটু টানাটানিতে আছি! অবশ্য মাঝে মাঝেই আসি, ইন্টারেস্টিং পোস্টগুলা পড়ে চলে যাই। একটু ফ্রি হইলে রেগুলার পোস্ট দিতে পারব আশা করতেছি।

হোপফুলি ভালই আছেন!

২| ২২ শে এপ্রিল, ২০১৬ রাত ২:১৪

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: ও পুরাই ও-মাই-গড, ও-মাই-গড শুরু কইরা দিছে! এই সিম্পল চাইল্ডিস ব্যাপারটা দেখে আমার এত্ত ভালো লাগছে যা ভাষায় প্রকাশ করার মত না। ..
আমি চাই ওর মুখে এই হাসিটা সারা জীবন থাকুক। ইনফ্যাক্ট, আই উড ডু এনিথিং এন্ড এভরিথিং ইন মাই পাওয়ার টু মেক ইট হ্যাপেন।

আহা ! আপনাদের ভালবাসাবাসী অনুভব কইরা শূন্যতার পেইন ওঠে কেনু :((
হা হা হা

+++++++++++++

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ৮:৫২

বিপ্লব06 বলেছেন: অন্যের আনন্দে শূন্য শূন্য ফিলিং মানে হইল আপনি হুমায়ুন ফরিদি টাইপ ভিলেন হইতে চলিতেছেন!!! আপনের কপালে লায়ক সাহেবের বেধড়ক *টুনি দেখিতে পাইতেছি! সময় থাকিতে হা* বাদ দিয়া মাথা ব্যাবহার করা শুরু করেন!!!

ভাল থাকবেন!

(কানে কানে) পিলাচ ভালা পাইচি!

৩| ২২ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ৮:৪৯

ইমরাজ কবির মুন বলেছেন:
heheh. moja kore Likhsen! anondo paisi

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ৮:৫৩

বিপ্লব06 বলেছেন: আপনের মগা দেখিয়া আমিও মগা পাইচ্চ্ছি!

৪| ২২ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ৯:২৮

জাহিদ রুবেল বলেছেন: খুব মজা কইরা পড়লাম

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ৮:৫৪

বিপ্লব06 বলেছেন: থ্যাঙ্ক ইউ ভাই!
ভাল থাকবেন!

৫| ২২ শে এপ্রিল, ২০১৬ দুপুর ১২:০০

ক্লাউড বলেছেন: আহ, এইবার মনে হয় কিছু একটা হবে। কিছু একটা অন্তত শুরু হোক।

আমি চাই ওর মুখে এই হাসিটা সারা জীবন থাকুক। ইনফ্যাক্ট, আই উড ডু এনিথিং এন্ড এভরিথিং ইন মাই পাওয়ার টু মেক ইট হ্যাপেন।

এই অনুভূতি আর মধ্যে আসছে, যার কারণে আসছে, তার প্রতি সেই টানটা আর যাই হোক লুলামি না। আমার তো প্রেমই মনে হইতেছে। এইরকম স্মৃতিগুলা লিখএ ইচ্ছা করে, প্রতিটা জীবনে কত কাহিনী! আবার লিখে ধরা খাইলেও ঝামেলা আছে। :((

এইবার কিছু একট দেখতে চাই। সম্ভাব্য কিংবা সুন টূ বি ভাবীরে প্লাস দিলাম। :)

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ৮:৫৬

বিপ্লব06 বলেছেন: ডিচকেলেইমারঃ বেশি আশা করিয়া দুক্ক পাইলে আমার কুনু দোষ নাই! স্বপ্ন নিজ দায়িত্বে দেকিবেন!!!

৬| ২২ শে এপ্রিল, ২০১৬ রাত ৯:০১

কামের কথা কন!! বলেছেন: অনেক দিন পর মিয়া ভাই কেমতে কি ভালা আছুন নি !! ;) আই উড ডু এনিথিং এন্ড এভরিথিং ইন মাই পাওয়ার টু মেক ইট হ্যাপেন। এমন হইলে ব্লগ ফ্লগ কি আর গাছে ধরে নাহি =p~

ইমেল এড্ডেস তা পোষ্টাইয়েন যাইবাম পারি গেলে গা আমাগো এট্টু আট্টু পিয়ার (৫৪) মিয়ার দেখায় দিনচুন :P

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ৯:০০

বিপ্লব06 বলেছেন: এইট বালাই আছি! আপনে কিরাম আছুইন?

উনি চাইলে ব্লগ ফ্লগ তো ডুরের কথা উড়ন্ত পিলেন থেইকা লাফ দিয়া ফালাইতে পারি(অবশই প্যারাসুট নিয়া!)!

৫৪ বছর কি আপনের? নাকি ব্লগে আমারে থুরথুড়া বুড়া প্রমাণ করতে কুমতলবে আছেন? আর আইলে আওয়াজ দিয়েন আগেভাগে!

৭| ২৩ শে এপ্রিল, ২০১৬ রাত ১২:১০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: উয়েল খাম ব্যাখ :#)

এইবার বুঝি সিরিজ শেষ হইতে চলল ;)

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ৯:০৪

বিপ্লব06 বলেছেন: থ্যাঙ্ক ইউ থ্যাঙ্ক ইউ!!

সিরিজ কি আর শেষ হয়? যতদিন দিলের ভিত্রে পিরিত থাকবে সিরিজ ততদিন সিরিজ চলতে থাকপে!!! ;)

ভাল থাকবেন

৮| ২৩ শে এপ্রিল, ২০১৬ সন্ধ্যা ৬:২৯

মায়াবী রূপকথা বলেছেন: এত্তদিন পর ভাইয়া! দাওয়াত কবে পেতে পারি?

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ৯:০৯

বিপ্লব06 বলেছেন: ফেরত আসলাম আরকি! এইখানে কয়েকজনের পিরিত তো আর ইগনোর করতে পারি না!
হার্টে তো আর পাত্থর হয় নাই!!!

আর দাওয়াত? এই শব্দটা শুনলেই সাথে সাথে কাঁপতে কাঁপতে জ্বর আইসা পড়ে!

আপনি এখনো ব্লগ শুরু করেন নাই দেখিয়া দিলে চোট পাইছি!!!

ভালো থাকবেন!

৯| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ১১:৪৩

সোহানী বলেছেন: হুম..... ++++++++++++++++

০৪ ঠা মে, ২০১৬ রাত ১২:০৭

বিপ্লব06 বলেছেন: থ্যাঙ্ক ইউ!!!!

১০| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৬ দুপুর ১২:০৯

শামছুল ইসলাম বলেছেন: অনেক দিন পর।
কিন্তু সেই পুরনো ধাঁচ, বিপ্লব ভাই ছাড়া এমন লেখা আর কেউ লেখতে পারে না।

//কিন্তু আর বলি নাই। এই খবরটা শুনলে ও স্যাড হয়ে যাবে। এই হাসি আর ওর মুখে থাকবে না। আমি চাই ওর মুখে এই হাসিটা সারা জীবন থাকুক। ইনফ্যাক্ট, আই উড ডু এনিথিং এন্ড এভরিথিং ইন মাই পাওয়ার টু মেক ইট হ্যাপেন।// -- পেরথম দর্শনেই এই অবস্থা !!!

ভাল থাকুন। সবসময়।

০৪ ঠা মে, ২০১৬ রাত ১২:০৯

বিপ্লব06 বলেছেন: পিরিতের ফের পেরথম আর দ্বিতীয় দর্শন বইলা কিছু আছে নাকি!!! প্রত্যেকটা ক্রাশ/পিরিতের স্বাদ ইউনিক!!!

থ্যাংক ইউ আপনাকে!!!

আপনি ভাল থাকবেন :)

১১| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৬ দুপুর ১:৫০

কালনী নদী বলেছেন: সুন্দর +++ চলপে থাকুক :)

০৪ ঠা মে, ২০১৬ রাত ১২:১০

বিপ্লব06 বলেছেন: থ্যাঙ্কিউ ভ্রাতা!!!
ভাল থাকবেন!

১২| ২৫ শে এপ্রিল, ২০১৬ রাত ৮:৩৮

মায়াবী রূপকথা বলেছেন: দাওয়াত দিতে এত ভয় কেনু? দাওয়াত চাই ই চাই। :D আগামি পর্বগুলোও দ্রুত চাই। এরপর কি হয়েছে জানতে মরে যাচ্ছি তো:(

০৪ ঠা মে, ২০১৬ রাত ১২:১৩

বিপ্লব06 বলেছেন: ভয়টা দাওয়াতে না, ভয়টা রেস্পন্সিবিলিটির! ইউ নো... কলম চলতেছে না। আর বিজিও হয়ে গেছি।
তাড়াহুড়া করে লাভ নাই। আর কোথায় বলে না সবুরে মেওয়া ফলে!!!

ভাল থাকবেন!

১৩| ০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ বিকাল ৩:৪৬

আলী বলেছেন: ইনফ্যাক্ট, আই উড ডু এনিথিং এন্ড এভরিথিং ইন মাই পাওয়ার টু মেক ইট হ্যাপেন।

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ রাত ১:৩৬

বিপ্লব06 বলেছেন: দ্যাট ইউজড টু বি এ ফিলিং!

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.