নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

LAB RAT

People Don’t Change, They Just Evolve

বিপ্লব06

এই ব্লগের সকল লেখার স্বত্ত্ব লেখকের।

বিপ্লব06 › বিস্তারিত পোস্টঃ

এন ইডিয়ট ইন লাভ!!! (চব্বিশ)

০৬ ই জুন, ২০১৬ সকাল ৭:১৮



(আগের পর্বের পরে...।)

এরপর সুন্দরিরে ইমোশোনালি ব্লাকমেইল করা শুরু করলাম...। কইলাম ও... বুঝছি, আমিই কিছু করছি নাইলে তুমি বেড়াইতে আইসা কানবা কেন? আমি আসলেই একটা ইডিয়ট! আমি দিলের তলা পর্যন্ত দুঃখিত! আমি আসলে বুঝতে পারি নাই! মাগার কি আকামডা করছি মেহেরবানি কইরা এইডা কইয়া দিলে একটু দিলে শান্তি পাইতাম! (এই অস্ত্র যদি কাম না করে তাইলে আমি ডেড!!!) সুন্দরি আস্তে কইরা কইল নাহ তুমার দোষ না। ব্যাপারটা আলাদা। আমি মনে মনে একটা মিচকি হাসি দিয়া মুখটা ভার কইরা কইলাম তুমি আসলে আমারে বিশ্বাস কর না। বিশ্বাস করলে ঠিকই বলতা। ঠিকই তো তুমি আমারে বিশ্বাস করবা কেমনে? এইরাম ভুয়ামি মার্কা কথাবার্তা শুইনা সুন্দরি ক্ষেইপা গিয়া কয়, শুনবা? তাইলে শোন, আমার একটা বয়ফ্রেন্ড ছিল, আমাদের একটা বয়ফ্রেন্ড ছিল ওর সাথে আমার ব্রেকাপ হইছে কিছুদিন আগে। সেও আমাকে এই প্লেসে নিয়ে আসছিল বেড়াইতে। ওর কথা মনে পড়তে কেঁদে ফেলছি।

এই কথা শুইনা সাকা চৌধুরীর মত টুট...... টুট... হইয়া গেলাম। আই ডিড নট সি দিস কামিং।

আমি জানতাম উত্তরটা আনেক্সপেক্টেড হবে বাট এইটা একটু বেশী হইয়া গেছে। কিন্তু পরের মুহূর্তেই নিজেরে সামলাইয়া নিলাম। সুন্দরির পিরিত থাকবে না তো কি আমার থাকবে!!! সুন্দরি দেখতেছি আবার চোখ মুছা শুরু করছে। সান্ত্বনা দেওয়া শুরু করলাম। কইলাম আমিও জানি এইরাম লেভেলে কিরাম ফিলিং হয়। আমিও এককালে পিরিত করছিলাম কিনা!!! এইবার সে চোক তুইলা আমার দিকে তাকাইয়াই হাইসা দিছে(সেই লেভেলের ফানি এক্সপ্রেশন দিছিলাম কিনা, ক্লাস সিক্সে থাকতে শিখছিলাম! )! আমারে কয় মানে কি? তুমারে তো ভালো ছেলে মনে করছিলাম। তুমিও দেখি বান্দর বাইর হইছ। তারপর আস্তে আস্তে সুন্দরি নিজেরে সামলাইয়া নিল।

কিছুক্ষন পর হাঁটা দিলাম পাশের পার্কটার দিকে। এরমধ্যে সন্ধ্যা হইয়া গেছে। পার্কের ল্যাম্পগুলা জইলা উঠছে। একটা বেঞ্চে বইসা শুরু হইল গল্পের। আমি মূলত শ্রোতা হইয়াই থাকলাম। আর সুন্দরি ছুটাইল কথার তুবড়ি! আস্তে আস্তে আমার কাছে লাইফের পুরাটাই বইলা দিল। এত্ত বেশি বলছে যে আমার নিজের কাছেই মনে হইছে যে কিছু কিছু ইনফরমেশন নিজের কাছে রাখাই উত্তম। আমারে না বললেই মনে হয় ভালো করতো। দুনিয়াটা খারাপ মানুষে ভরপুর, একটু মনোমালিন্য হইলেই সবাইরে সবকিছু বইলা বেড়াইতে পারে। অবশ্য ব্যাপারগুলা জানতে পারায় একটা নাইস ফিলিংও হইতেছিল এই মনে কইরা যে সুন্দরি আমারে তার লাইফে এক্সক্লুসিভ এক্সেস দিছে। কয়জন মানুষ এরাম এক্সেস পায়!!! বাট যেহেতু সুন্দরী আমারে এক্সেসটা দিছে , আই উইল কিপ দেম সিক্রেট।

এরপর দেশে গেলাম! কিন্তু যোগাযোগে ভাটা পরে নাই। ফেসবুকিং চলত হরদম! দিনরাত কাবার কইরা লাইতাম ফেসবুকিং করতে করতে! এরাম করতে করতে একসময় দেশ থেইকা চইলা আইলাম। সুন্দরির জন্য দিনাজপুরের “মোহাম্মাদি শাড়ি হাউজ” থেইকা থেইকা একখান নীল রঙের জামদানি শাড়িও আনছিলাম! শাড়ি পাইয়া সেকি খুশি!!! (আমি মনে মনে ভয় পাইতেছিলাম যে তার পছন্দ হবে তো?) সেই শাড়িতে তারে দেখতে আসলেই একদম পরীর মত দেখাইত।

তারপর আস্তে আস্তে সুন্দর দিনকাল যাইতেছিল! চুরি কইরা পিরিত করতে বেশ ভালোই লাগতেছিল।মাগার হঠাত একদিন আমাদের পিরিতের আকাশের কোনায় কালো মেঘের উদয় হইল। সেই মেঘ আস্তে আস্তে কইরা সবদিক ছড়াইয়া সাইক্লোন হইয়া উপর দিয়া চইলা গেল। ঝড় শেষে দেখি সুন্দরি আর আশেপাশেও নাই! (ডিটেইল দিতে পারতেছিনা বইলা দুঃখিত)

সুন্দরিরে ফেয়ারওয়েল দিলাম ফ্লাশিং এর একটা রেস্টুরেন্টে। সেইদিন অফিসিয়ালি সম্পর্ক ডাউনগ্রেড করলাম পিরিতের পাবলিক থেকে সরাসরি এক্যুয়াইন্টেন্স এ। তার সাথে “ফ্রেন্ড” হইয়া থাকা আমার পক্ষে সম্ভব না। আফটার পিরিত, দিস টার্ম কামস উইথ সো মাচ পেইন। সুন্দরির সাথে যেই অল্প সময়টাই কাটাই না কেন সেই সময়টাই ছিল লাইফের বেস্ট মোমেন্ট! এরাম মোমেন্ট আর লাইফে আসবে কিনা কে জানে।

লাইফে আনরেস্ট্রিকটেড এক্সেস খুব সহজে কাউরে দেই না। সুন্দরিরে দিছিলাম। মাগার সুন্দরি এক্সেসের আবিউজ করলো। দিলটা কাইট্টা হাতে দিয়া কইলাম যত্ন কইরা রাইখো, মাগার উনার উনার ইচ্ছা হইলো আর উনি আমার দিল লইয়া ফুটবল খেলা শুরু করলেন। তাও ভালো ছিল, কিন্তু উনি লাস্টে দিলেরে ছত্রিশ চাক্কার ট্রাকের নিচে চিপা দিয়া দিলেন।

সুন্দরী যেই কারণেই হাত ফসকাবার ডিসিশন নিক না কেন, আমি তার ডিসিশনরে রেস্পেক্ট করি। সুন্দরির সিচুয়েশন বোঝার ভান করবো না কিন্তু আই হোপ যে ডিসিশনের পেছনে তার লেজিটিমেট রিয়েজন ছিল। কারন আমি জানি “সি উইল মিস মি সুন, এন্ড হোয়েন সি ডাজ, সি বেটার হ্যাভ দি রিয়েজন রেডি টু কনসোল হার ওউন সেলফ”।

(নো মোর পিরিত। সিরিজ বন্ধ। মুড পুরাই খ্রাপ হইয়া গেছে, পিরিতের টুট...টুট... টুট...)



মন্তব্য ২৮ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (২৮) মন্তব্য লিখুন

১| ০৬ ই জুন, ২০১৬ সকাল ৭:৫৩

সামু পাগলা০০৭ বলেছেন: অনিয়মিতভাবে এই সিরিজটা পড়তাম। অনেকটা চোখে পরলে পড়ব, নাহলে নাই। আজকে চোখে পরল, পড়লাম। এবং হার্টব্রেক হল।

দিলটা কাইট্টা হাতে দিয়া কইলাম যত্ন কইরা রাইখো, মাগার উনার উনার ইচ্ছা হইলো আর উনি আমার দিল লইয়া ফুটবল খেলা শুরু করলেন। তাও ভালো ছিল, কিন্তু উনি লাস্টে দিলেরে ছত্রিশ চাক্কার ট্রাকের নিচে চিপা দিয়া দিলেন।

ইসরে ছেলেটা! বুঝছি যে আপনি সিরিয়াসলি কষ্ট পেয়েছিলেন কিন্তু যেভাবে বর্ণনা দিলেন হাসি থামছে না। হাহা।

“সি উইল মিস মি সুন, এন্ড হোয়েন সি ডাজ, সি বেটার হ্যাভ দি রিয়েজন রেডি টু কনসোল হার ওউন সেলফ”।
ছেলের কনফিডেন্স আছে। তবে সুন্দরীদের এতো মিস টিস করতে হয়না। ছেলেদের লাইন পরে থাকে তাদের পেছনে। আপনি নিজের দিকটা দেখুন। :)

আচ্ছা টিজিং বাদ দিই। আপনার মুড খারাপ। আমি আর খারাপ করব না। যে যায় সে আরো বেটার কাউকে আপনার জীবনে আসার সুযোগ দিয়ে যায়। So, wait for that better person!
আপনাকে কমেন্ট করার সময় এই গানটা শুনছিলাম, মনে হল শুনলে আপনার মুড ঠিক হয়ে যাবে। তো শেয়ার করলাম,
https://www.youtube.com/watch?v=wTFpKVAdTV8

অনেক অনেক ভাল থাকুন! নো মুড অফ, অনলি স্মাইল অন! :)

০৬ ই জুন, ২০১৬ সকাল ৯:৩১

বিপ্লব06 বলেছেন: আহ!!! শুনে আসলেই বহুত দুঃখ পাইছি। আপনার দিল নিয়া খেলাধুলা করার ইচ্ছা কোনকালেই এই অধমের ছিল না। মাগার আপনিও গোয়ারের মত পড়েই গেলেন আর নিজের দিলটা চুরমার করে ফালাইলেন। পিরিত আসলেই বড় আজিব চিড়িয়া!!!

মিসিং তো আর লাইটের সুইচ না যে ইচ্ছামত অন্য আর অফ কইরা দেওয়া যায়! আর ড্যামেজ যেইটা হওয়ার ওইটা হইয়াই গেছে, বছর পাঁচেক পরে নিজে নিজেরে মাথায় বাড়ি দিয়া বলাই লাগবে যে, “ইডিয়ট, তুই আসলেই একটা ইডিয়ট ছিলি, নাইলে এইরাম পিরিত কেউ করে (তারপর নিজে নিজে শরম পাওয়া লাগবে)!!!”।

নো মোর ওয়েটিং, আমার মা কিছুদিন থেকেই আমার গলায় সুন্দরি বান্ধার ষড়যন্ত্র করতেছে, মেজাজ বিলা হইলে খালি গ্রিন সিগন্যালটা দেওয়া লাগবে আর সাথে সাথেই ইডিয়টের নামটা বদলাইয়া মরহুম ইডিয়ট হইয়া যাবে!!!

আপনি পুরা ভণ্ড!!! দিল চুরমার হওয়া কেউ এই গান শুনলে তার দিল সাথে সাথেই আরেকবার চুরমার হইয়া যাবে। পিরিতে ছ্যাকা খাইয়া ব্যাকা হওয়া লোকেরে আপনি আবার পিরিত দেখান ক্যামনে? ঠাডা পড়তে পারে কইয়া দিলাম!

থ্যাঙ্ক ইউ আপনাকে! কষ্ট করে পড়ার জন্য।
ভাল থাকবেন!

২| ০৬ ই জুন, ২০১৬ সকাল ৯:৪৩

সামু পাগলা০০৭ বলেছেন: আপনি পুরা ভণ্ড!!! দিল চুরমার হওয়া কেউ এই গান শুনলে তার দিল সাথে সাথেই আরেকবার চুরমার হইয়া যাবে। পিরিতে ছ্যাকা খাইয়া ব্যাকা হওয়া লোকেরে আপনি আবার পিরিত দেখান ক্যামনে? ঠাডা পড়তে পারে কইয়া দিলাম!
হায়রে ছেলে এত সুইট করে শান্তনা দিলাম, গান শোনালাম! আর কি কম্প্লিমেন্ট! ঠাডা! সত্যিই ভাল মানুষির কদর নেই। আরেহ, পিরিতের গান শুনলেতো মনটা আবার পিরিতে পরতে চাইবে এবং আগের পিরিতের কষ্ট ভুলে যাবেন! সারাজীবন তো আর দেবদাস থাকবেন না আবার রোমিও মুডও শুরু হবে! :)

না মেজাজ বিলা করে এত বড় সিদ্ধন্ত নিয়ে কারও জীবন নষ্ট করবেন না। মনের ব্যাথা দূর করে তারপরেই মরহুম ইডিয়ট হবেন আশা করি।

কষ্ট করে পরিনি, হাসতে হাসতেই পড়েছি। আপনার ডায়ালেক্টটা খুব মজার। যাই লেখেন হাসি এসেই যায়।
অনেক ভাল থাকবেন। ভদ্রতা করে বলছি না, মন থেকেই বলছি অনেক ভাল থাকবেন! দুঃখের কাল মেঘে জলদি ঝিকমিকে সূর্য হেসে উঠুক সেই আশায়.....।

০৬ ই জুন, ২০১৬ সকাল ১০:০৭

বিপ্লব06 বলেছেন: ডায়ালেক্টটা আমার নেটিভ ডায়ালেক্ট না, শুনে শুনে পিক-আপ করছি। ভাল লাগে তাই। আপনি পড়ে যেই মজাটা পান আমি লেখে তার চেয়ে বেশি পাই।

আপনি বড়ই নাছোড়বান্দা!!! সুতরাং আমার উপর আপনার মিস্টি-সুরেলা(আর বিশেষণ খুইজা পাইতেছি না) কণ্ঠের গানের প্রভাবটা নতুন করে বলতেছি " গানটা শুনে ঘুম আসতেছে, চারদিকে পিরিত দেখতেছি, আকাশে পিরিত, বাতাসে পিরিত, দুনিয়াতে সব পিরিতময় মনে হইতেছে। আস্তে আস্তে করে ভালো লাগা শুরু করতেছে, আগের পিরিতের কষ্ট আস্তে আস্তে করে ভুলে যাচ্ছি...।। দুনিয়াটারে মধুর মনে হইতেছে। দেবদাস মোড অফ হইয়া রোমিও মোড অন্য হইতেছে। ছেলে-মেয়ে নির্বিশেষে আসে পাশে যাহারে দেক্তেছি তাহারই পিরিতে পইড়া যাইতেছি!!!"

এখন আমার কি হপে!!! :``>> :``>> :``>>

৩| ০৬ ই জুন, ২০১৬ সকাল ১১:২৪

বৈশাখের আমরণ নিদাঘ বলেছেন: না! এইটা মানতেই পারতেছি না। এতদিন যাওয়ার পর এমন কি হইলো বুঝতেছিনা। সম্পর্ক আর আবেগের কদর করে এইরকম মানুষ তো কম। অনেক উজবুক বুঝেনা। অনেকদিন সম্পর্কের পর ছাড়তে হইলে ইতরই হন আর পাষান, বুক ভারী থাকে অনেকদিন। সারাজীবনই ঘাই মারতে থাকে সময়ে অসময়ে। পিরিতি ভালো, টুটা পিরিতির সাইডএফেক্টগুলা না। এমনকি আপাত ভালোমানুষও সাইকো হইতে দেখছি।

জৈবিক তাড়নার বাইরে আপনার স্বতঃস্ফুর্ত আচরণ খুবই পজিটিভ দিক। যার সাথেই থাকেন ভবিষ্যত আনন্দের হবে। আনন্দে থাকবার উপায় বাইর করা সম্পূর্ণ নিজের হাতে। এই পিরিতির টুট টুটের পর অন্যকিছু শুরু হোক। পারলে আরেকটা পিরিত। শুভকামনা রইলো। :)

০৬ ই জুন, ২০১৬ রাত ৯:৩৬

বিপ্লব06 বলেছেন: অনেক কিছুই মাথায় ঢুকে না। আমারও ঢুকে নাই। আর আমি এইখানে সাইড ইফেক্টগুলা দেখাচ্ছিনা এর মানে এই না যে কোন সাইড ইফেন্ট নাই!!! ইমোশন হইলো একটা সঙ্ক্রামক ব্যাপার। এক জনের মন খারাপ থাকলে পাশের জনেরও মন খারাপ হয়ে যায়। মন খারাপ করা জিনিস পোষ্ট করলে সবার একসাথে মন খারাপ হয়ে যাবে। কি দরকার?

মানুষের লাইফ পিরিত দিয়ে ভর্তি! যেইদিন লাইফ থেকে পিরিত চলে যাবে লাইফ মিনিংলেস হয়ে যাবে। কোনদিন হঠাত করে আবার মাঠের উপ্রে পিরিত ভাইঙ্গা পড়বে কে জানে!!!

ভাল থাকবেন আপনিও! :)

৪| ০৬ ই জুন, ২০১৬ বিকাল ৪:০২

অদৃশ্য বলেছেন:



আপনার লিখার অনেকগুলো পর্ব পড়েছিলাম নিয়মিত... যতদুর মনে হচ্ছে এর আগের পর্ব অথবা সাথে আরেকটা মানে এর আগের দুইটা পর্ব পড়া হয়ে ওঠেনি... আগের পর্বগুলোতো চমৎকার লাগতো আর আলাদা আকর্ষণ থাকতো... কিন্তু এই পর্বটা পড়ে কেন যেন মনে হলো কোথাও কিছু পাচ্ছিনা বা হারিয়ে ফেলেছি... আপনার লিখার ঢং কিছুটা আগের মতো থাকলেও অনেকটা রুপ বদলেছে... আর রুপ বদলানোই স্বাভাবিক তবে যেমন ভাবে রুপ বদলালো তাতে আমি তৃপ্তি পাইনি এই যা... হয়তো অনেকদিন বাদে আবার আপনার লিখা পড়ছি বলে এমনটা হতে পারে...

যা হোক... আপনি শর্টকাটে হাংকি পাংকি করে লিখলেও আপনার সেই মুহুর্তের অনুভূতি অনেকটা আন্দাজ করা যায়... যারা এমন পরিস্থিতিতে পড়েছেন তারা আরও ভালোভাবে বিষয়টা ফিল করতে পারছে... চমৎকার একটি সম্পর্ক ভেঙে যাওয়াটা খুবই কষ্টের...
আপনার পরবাস জীবনের চমৎকার সব অভিজ্ঞতা আমাদের সাথে শেয়ার করুন... আপনার উপস্থাপনা কিন্তু চমৎকার... উপরের কথাগুলো শুধু এই পর্বের জন্যই বলা... সামনে আপনার দারুন সব লিকজার অপেক্ষায় থাকলাম...

শুভকামনা...

০৬ ই জুন, ২০১৬ রাত ১০:০৪

বিপ্লব06 বলেছেন: আপনার কথা বুঝতে পারছি। সমস্যাটা আপনার ওইখানে না আমার এইখানে। আমি লিখে শান্তি পাচ্ছিলাম না। প্রত্যেকটা পার্ট লিখে আমি একটা শান্তি পাই, এইটা বেশ প্যাড়া দিছে। বেশ কিছুদিন আগেই লিখছি লাস্ট পার্টটা, মোটেই সন্তুষ্ট হইতে পারতেছিলাম না। পোষ্ট করার পরেও জানতাম এন্ডিংটা ভাল হয় নাই। এইটা সম্ভবত আমার ইন্টানাল কনফ্লিক্টের ফলাফল।

মূলত জোড় করেই পোষ্ট করছি। ব্লগে কয়েকজন রেগুলার পাঠক আছেন এই সিরিজটার। উনাদেরকে আর বেশিদিন অপেক্ষায় রাখতে মন সায় দেয় নাই। ব্যাপারটা ক্লোজ করা দরকার ছিল।

সামনে হয়ত ওইটা আবার শুরু করবো। লিখতে টাইম লাগে আর মুডেও থাকা লাগে। মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য আর সাথে গঠনমূলক নাইস একটা কমেন্টের জন্য ধন্যবাদ!

আপনিও ভালো থাকবেন!!!

৫| ০৬ ই জুন, ২০১৬ রাত ১০:১১

বৈশাখের আমরণ নিদাঘ বলেছেন: ব্যাপার না ভাই, হাহাকার থাকবেই। কিন্তু আলটীমেটোলি ভালোকিছুই হবে আপনার সাথে। আপনি মানুষ খারাপ না। কেউ একজন জানলো না, কিংবা বুঝলো না, এইটাই আফসোস। নিজেরই খারাপ লাগতেছে। জীবনে যারা খুব কঠিন কিছু সময় পার করে আসে, তারাই মনে হয় জীবনকে সহজভাবে নিতেও শিখে যায়। আনন্দে থাকবার উপায় জেনে নেয়। আপনারও তাই হোক। এই এটিচ্যুডটাই থাকুক। সবসময়ের জন্য শুভকামনা। :)

০৭ ই জুন, ২০১৬ রাত ৮:৫৮

বিপ্লব06 বলেছেন: আররেহ ব্যাপার নাহ! টেনশনের কিচ্ছু নাই!

আপনিও ভাল থাকবেন সবসময়। :)

৬| ০৬ ই জুন, ২০১৬ রাত ১০:৩৮

সামু পাগলা০০৭ বলেছেন: আপনি একজনকে কমেন্টে বলেছেন,
মানুষের লাইফ পিরিত দিয়ে ভর্তি! যেইদিন লাইফ থেকে পিরিত চলে যাবে লাইফ মিনিংলেস হয়ে যাবে। কোনদিন হঠাত করে আবার মাঠের উপ্রে পিরিত ভাইঙ্গা পড়বে কে জানে!!!

এটাই স্পিরিট। জলদি আবার পিরিতকুমার পিরিতে পরুক সে কামনা করছি।

আপনার নেটিভ ডায়ালেক্ট বা যে ডায়ালেক্টে কথা বলেন সেটাতে কোন একটা মন্তব্যের জবার দিয়েনতো। সেটা জানতে ইচ্ছে করছে কেন যেন।

এই গানটা আপনার জন্যে, মেইল ভার্সনটা পেলে ভাল হত। তবে এমনই কনফিডেন্স রাখুন,
https://www.youtube.com/watch?v=O4OOum4Vm-M

মনের ভেতরের বিক্ষিপ্ত, খাপছাড়া, মনখারাপ ভাবটা জলদি কেটে যাক। ওপরে অনেকে আপনাকে ভাল মানুষ বলেছেন। জানিনা
কত ভালো তবে ভালো থাকতে পারবেন, শক্ত করে উঠে দাড়াতে পারবেন সেটা জানি। এখন আপনার ব্রেইন জানে যে আবার পিরিত আসবে, সবকিছু নরমাল হবে কিন্তু মনকে মানাতে পারছেন না হয়ত। মনটা বেয়াদবের মতো কষ্টে চিল্লাচ্ছে!
মনের বেয়াদবি কমুক জলদি।

বিদায় নিচ্ছি, অনেক কথা বলে ফেলেছি।

০৭ ই জুন, ২০১৬ রাত ৯:১৪

বিপ্লব06 বলেছেন: এরাম রোজার দিনে পিরিতকুমার উপাধি দিয়া ইডিয়টের ঘুম হারাম করিবেন না!

নেটিভ ডায়ালেক্টে পরে কোন এক সময় দিয়া দিব মে বি!!!

উনার গান ভালা পাই না মাগার লিরিক্সটা ভাল্লাগছে। আপনারে একটা লিঙ্ক দিচ্ছি পইড়া দেইখেন সময় পাইলে।

গুড স্টাফ!

মনের কান মইলা দিয়া তারে সোজা কইরা ফালাইছি, সো নো চিন্তা ডু ফুর্তি!

ব্যাপার নাহ! আপনি ভালো মানুষ।

ভালো থাকবেন।

৭| ০৭ ই জুন, ২০১৬ রাত ৯:৩১

সামু পাগলা০০৭ বলেছেন: ব্লগে লগইন করেই দেখলাম নোটিফিকেশনে আপনার প্রতিউত্তর।
রোজার আগেই কমেন্ট করেছিলাম। আপনি উত্তর দিতে দেরি করেছেন সেজন্যে এই অবস্থা। আপনার দোষ!
ব্লগে পরিচিত অনেককেই নাম দিই, আপনাকেও দেব। পিরিতকুমার না অন্যকিছু! আমার পোষ্টে কখনো কমেন্ট করলে জানবেন।
মে বি বলেছেন মানে হবে না। কথা দিয়েই মানুষ রাখেনা আর মেবির তো কোন দামই নেই।
মাঝখান দিয়ে মাঝখান দিয়ে পড়লাম। আমাকে দেওয়ার মানে কি এই লিংক?
জ্বি আমার মনে হয়েছিল এই টাইপের সুর আপনার ভাল লাগবে না তাই লিরিক্সসহ পাঠিয়েছি। লেখাটা পড়ানোই মেইন উদ্দেশ্য ছিল। তবে আমার গানটাও খুব প্রিয়, খুব স্ট্রং ভয়েস।
আমি ভালো মানুষ???? হাহা কতো সহজেই বুঝে গেলেন! বেশি সহজে মানুষ বুইঝেন না কষ্ট পাবেন।
জ্বী না মনকে কানমলা দেওয়া যায় না, মনমলা দিতে হয়। :)
আপনিও ভাল থাকবেন।

০৭ ই জুন, ২০১৬ রাত ১০:০৭

বিপ্লব06 বলেছেন: মে বি বলছি মানে মে বি। সম্ভাবনা আছে। আপনার আসল প্রশ্নের আসল উত্তরঃ নেটিভ ডায়ালেক্টের অরিজিন হইল দিনাজপুর/ঠাকুরগাও।

লিঙ্কটাতে শেখার অনেক কিছু আছে। আপনি গ্রাজুয়েশনের দুই বছর আগেই(এপ্রোক্সিমেটলি) কমেন্সমেন্ট স্পিচ পাইলেন খারাপ কিসে?

আর ভালো মানুষ বলছি এর মানে এই না যে আপনি খারাপ না। খালি খারাপ সাইডটা একবার দেখাইয়া দেখেন। পারসেপশন চেঞ্জ হইতে কিন্তু দেরি হয় না।

শুভকামনা থাকলো।

৮| ০৭ ই জুন, ২০১৬ রাত ৯:৫৯

টু-স্টেপ বলেছেন: সুন্দরি কোন দেশের, আছিল?

০৭ ই জুন, ২০১৬ রাত ১০:০৮

বিপ্লব06 বলেছেন: হাইপথেটিকালি মনে করেন বাংলাদেশি। ;)

৯| ০৮ ই জুন, ২০১৬ রাত ১২:১৯

টু-স্টেপ বলেছেন: ওয়েল, আপনার চাদ কপাল। বিদেশে থাইকা দেশি মেয়ের সাথে প্রেম করার ভাগ্য সবার হয় না। #:-S

০৮ ই জুন, ২০১৬ রাত ৯:২২

বিপ্লব06 বলেছেন: আসেন কপালে কপালে ঘষা দেই! ;)

ভাল থাকবেন।

১০| ০৮ ই জুন, ২০১৬ রাত ১:০৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: হুম ইডিয়টের লাভ এর দোকান বন্ধ হইলো তাইলে :||

০৮ ই জুন, ২০১৬ রাত ৯:২৫

বিপ্লব06 বলেছেন: আরে নাহ (খুশি হইছিলেন মনে মনে না? X( )! পিরিতের দোকান কি আর বন্ধ হবার? এইটা হইল সাময়িক সেটব্যাক। যতদিন লাইফ আছে ততদিন পিরিত আছে।

ভাল থাকবেন আপনি :)

১১| ০৮ ই জুন, ২০১৬ রাত ৯:৪৫

শায়মা বলেছেন: আরে প্রিয় ভাইয়ু!!!!!!!!!!

আবার শুরু হইসে ইডিয়ট সিরিজ!!!!!!!!!

তারপর আস্তে আস্তে সুন্দর দিনকাল যাইতেছিল! চুরি কইরা পিরিত করতে বেশ ভালোই লাগতেছিল।মাগার হঠাত একদিন আমাদের পিরিতের আকাশের কোনায় কালো মেঘের উদয় হইল। সেই মেঘ আস্তে আস্তে কইরা সবদিক ছড়াইয়া সাইক্লোন হইয়া উপর দিয়া চইলা গেল। ঝড় শেষে দেখি সুন্দরি আর আশেপাশেও নাই! (ডিটেইল দিতে পারতেছিনা বইলা দুঃখিত)

কিন্তু সত্যি অনেক দুঃখ পেলাম!!!!!!!! এটা কি শেষ পর্ব নাকি!!!!!!

আবার তাড়াতাড়ি প্রেমে পড়ে যাও ভাইয়ু!!!!!!!!!
নিউ পর্ব শুরু করো!!!!!!!!!!

এই সিরিজ অনন্তকাল চলুক।

০৯ ই জুন, ২০১৬ সন্ধ্যা ৭:৪৭

বিপ্লব06 বলেছেন: শুরু হইতে না হইতেই শেষ হইয়া গেল। আপাতত এইটাই শেষ পর্ব! বলা যায় না ভবিষ্যতে মাইন্ড চেঞ্জ হইলে হইতে পারে!

পিরিতে তো প্রতিদিনই পড়ি! যারে দেখি তারেই ভালু লাগে কেনু???

ভালু থাকবেন!!!

১২| ০৮ ই জুন, ২০১৬ রাত ১১:২১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: খুশি হই ক্যামনে :-/
পিরিত কাঞ্চন পাইলো যে জন, সফল জনম তার রে ;)
দুনিয়া পিরিতের বাজার :)

০৯ ই জুন, ২০১৬ সন্ধ্যা ৭:৫০

বিপ্লব06 বলেছেন: তাইতো, দুনিয়া পিরিতের বাজার!!!

ভালো থাকবেন। :)

১৩| ০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ বিকাল ৩:৫১

আলী বলেছেন: টুট...... টুট...

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ রাত ১:৩৭

বিপ্লব06 বলেছেন: টুট......টুট...... টুট...

১৪| ০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ বিকাল ৩:৫৩

আলী বলেছেন: “সি উইল মিস মি সুন, এন্ড হোয়েন সি ডাজ, সি বেটার হ্যাভ দি রিয়েজন রেডি টু কনসোল হার ওউন সেলফ”।

১০ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ রাত ১:৩৭

বিপ্লব06 বলেছেন: আই থিংক ইট স্টিল হোল্ডস ট্রু!!!

ভালো থাকবেন

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.