নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

rm -rf /

আর্কিওপটেরিক্স

Cyber Security

আর্কিওপটেরিক্স › বিস্তারিত পোস্টঃ

অনামিকা

৩০ শে জুন, ২০২০ দুপুর ২:০৫



কাশের কার্নিশ বেয়ে অম্বু ধারা নামতেই অনিমেষ সদ্য শেষ করা ছবিটি নিয়ে দৌড় দেয়। একটা বড় গাছের নিচে দাঁড়াতেই শোনে, "ইশ! এত্ত সুন্দর ছবিটা ভিজে গেল... ", একটা মেয়ে। বৃষ্টিভেজা লাবণ্যমাখা মুখ। "পুরোটা ভেজেনি। শুকিয়ে যাবে ", অনিমেষ উত্তর দেয়। বৃষ্টির ফোঁটা কমে আসে। যে যার গন্তব্যে পা বাড়ায়। কিন্তু.....

"হ্যালো! আমি অনামিকা। আপনার সাথে এক বৃষ্টির দিনে কথা হয়েছিল "
"হাই অনামিকা! আপনাকে আমার মনে আছে। বাই দ্যা ওয়ে আমি অনিমেষ। "
"আপনি কি এখানে প্রায়ই ছবি আঁকেন? আগেও দেখেছি তো! তাই... "
"মাঝেমধ্যে আসি", অনিমেষ ছবি আঁকায় মন দেয়।
"আচ্ছা.. সেদিনের সুন্দর ছবিটার কি হয়েছিল? "
"ওটা ঠিকঠাক আছে।"
"খুশি হলাম। আপনার পাশে দাড়িয়ে ছবি আঁকা দেখতে চাই। অনুমতি দেবেন? "
"বেশ তো! দেখুন না। একজন দর্শক পেলে মন্দ হবে না!", অনিমেষ হাসে।


সেই শুরু। যেখানে অনিমেষ সেখানেই অনামিকা। দর্শক থেকে বান্ধবী শেষে প্রেমিকা। প্রথম-প্রথম আপনি তারপর তুমি। ওরা পার্কে ঘোরে, রেস্তোরাঁয় যায়। একটু হাত ছোঁয়াছুঁয়ি থেকে হাত ধরে চলা। দুজনেই স্বপ্নের রাজ্যে ভেসে বেড়ায়।


অনিমেষের ছবিতেও বৈচিত্র্য আসে। সাধারণত প্রকৃতির ছবি আঁকলেও এখন ওর ছবির ক্যানভাসে মাঝে মাঝে এক তরুণীর মুখশ্রী দেখা যায়। ব্যাপারটা ওর মা, মিস সুলতার দৃষ্টি এড়ায় না। ছেলে প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছে। ভালোই। একদিন সুলতা প্রশ্নটা করেই ফেলেন। "মেয়েটা কে রে? ভারি মিষ্টি দেখতে। তোর বান্ধবী নাকি? "। অনিমেষ লাজুক মুখে উত্তর দেয়, " হ্যাঁ... মানে বান্ধবী "। "একদিন নিয়ে আসিস তো! "। অনিমেষ আনে। ওর বাড়িতে অনামিকার আসা-যাওয়া শুরু হয়।

এরপর.... অনামিকার বাড়িতে মিস সুলতাই প্রস্তাব পাঠান। এক শুভদিনে শুভকাজ সমাপ্ত হলে অনামিকা হয়ে যায় মিসেস অনিমেষ।


ওদের বিয়ের দু বছরে পরের কথা। সারাদিন ধরে বৃষ্টি হচ্ছে। অনামিকার প্রসব বেদনা ওঠে। বাড়িতেই জন্ম হয় ফুটফুটে এক মেয়ের। অনিমেষ নাম রাখে অহনা। অহনার আগমন পরিবারে সুখের ফোয়ারা বইয়ে দেয়। কি অদ্ভুত মিল! ওদের পরিচয়টাও হয়েছিল এক বৃষ্টিভেজা দিনে....

মন্তব্য ৫৪ টি রেটিং +৬/-০

মন্তব্য (৫৪) মন্তব্য লিখুন

১| ৩০ শে জুন, ২০২০ দুপুর ২:১১

জুন বলেছেন: অম্বু ধারাটা কি আর্কিও :-*
পড়ার শুরুতেই একটা হোচট খাইলাম /:)
পুরোটা পড়ে মন্তব্য করছি দাড়ান একটু।
+

৩০ শে জুন, ২০২০ দুপুর ২:১২

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: জলের ধারা আপু। অম্বু মানে জল।

২| ৩০ শে জুন, ২০২০ দুপুর ২:১৫

নেওয়াজ আলি বলেছেন: অপরূপ , নিপুণ প্রকাশ।

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৩:৫০

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: ধন্যবাদ।

৩| ৩০ শে জুন, ২০২০ দুপুর ২:১৮

জুন বলেছেন: এমন সরল সোজা গল্প আমি জীবনে প্রথম পড়লাম আর্কিও। যাক অল্প কথায় সব একবারে সেরে ফেলছেন, ভালোই হইছে, নইলে দুনিয়ার প্যাচঘোচ, দড়ি টানাটানির ফল শেষ পর্যন্ত ঐ বিয়েই হতো অনিমেষ আর অনামিকার :)

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৩:৫১

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: অলস মানুষ। সরল অংক পারিনা :P

অল্পকথায় লেখার কারনটা একদিন বলবো। ভালো থাকো।

৪| ৩০ শে জুন, ২০২০ দুপুর ২:৩১

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: বাহ সহজ সুন্দর মিলের গল্প
ভালো লাগলো

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৩:৫২

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: হুমম একটু বেশিই সরল!

৫| ৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৩:০৭

বিজন রয় বলেছেন: বুঝতে পারছি ক’দিন ধরে সাহিত্য নিয়ে বেশ মজে আছেন! এটা দেখতে আমার খুব ভাল লাগছে!

অনামিকা একটি শব্দতেই হৃদয়ের পরিপূর্ণ ঝংকার!

আমি কি বলবো..... আপনার লেখাটি পড়ে নজরুলকে মনে পড়লো....... আসুন পড়ে ফেলি তার অনামিকাকে........
অনামিকা
...........কাজী নজরুল ইসলাম

তোমারে বন্দনা করি
স্বপ্ন-সহচরী
লো আমার অনাগত প্রিয়া,
আমার পাওয়ার বুকে না-পাওয়ার তৃষ্ণা-জাগানিয়া!
তোমারে বন্দনা করি….
হে আমার মানস-রঙ্গিণী,
অনন্ত-যৌবনা বালা, চিরন্তন বাসনা-সঙ্গিনী!
তোমারে বন্দনা করি….
নাম-নাহি-জানা ওগো আজো-নাহি-আসা!
আমার বন্দনা লহ, লহ ভালবাসা….
গোপণ-চারিণী মোর, লো চির-প্রেয়সী!
সৃষ্টি-দিন হ’তে কাঁদ’ বাসনার অন্তরালে বসি’-
ধরা নাহি দিলে দেহে।
তোমার কল্যাণ-দীপ জ্বলিলে না
দীপ-নেভা বেড়া-দেওয়া গেহে।
অসীমা! এলে না তুমি সীমারেখা-পারে!
স্বপনে পাইয়া তোমা’ স্বপনে হারাই বারে বারে
অরুপা লো! রহি হ’য়ে এলে মনে,
সতী হ’য়ে এলে না ক’ ঘরে।
প্রিয় হ’য়ে এলে প্রেমে,
বধূ হয়ে এলে না অধরে!
দ্রাক্ষা-বুকে রহিলে গোপনে তুমি শিরীন্‌ শরাব,
পেয়ালায় নাহি এলে!-
‘উতারো নেকার’-
হাঁকে মোর দুরন্ত কামনা!
সুদুরিকা! দূরে থাক’-ভালোবাসা-নিকটে এসো না।

তুমি নহ নিভে যাওয়া আলো, নহ শিখা।
তুমি মরীচিকা,
তুমি জ্যোতি।-
জন্ম-জন্মান্তর ধরি’ লোকে-লোকান্তরে তোমা’ করেছি আরতি,
বারে বারে একই জন্মে শতবার করি!
যেখানে দেখেছি রূপ,-করেছি বন্দনা প্রিয়া তোমারেই স্মরি’।
রূপে রূপে, অপরূপা, খুঁজেছি তোমায়,
পবনের যবনিকা যত তুলি তত বেড়ে যায়!
বিরহের কান্না-ধোওয়া তৃপ্ত হিয়া ভরি’
বারে বারে উদিয়াছ ইন্দ্রধনুসমা,
হাওয়া-পরী
প্রিয় মনোরমা!
ধরিতে গিয়োছি-তুমি মিলায়েছ দূর দিগ্বলয়ে
ব্যথা-দেওয়া রাণী মোর, এলে না ক’ কথা কওয়া হ’য়ে।
চির-দূরে থাকা ওগো চির-নাহি-আসা!
তোমারে দেহের তীরে পাবার দুরাশা
গ্রহ হ’তে গ্রহান্তরে ল’য়ে যায় মোরে!
বাসনার বিপুল আগ্রহে-
জন্ম লভি লোকে-লোকান্তরে!
উদ্বেলিত বুকে মোর অতৃপ্ত যৌবন-ক্ষুধা
উদগ্র কামনা,
জন্ম তাই লভি বারে বারে,
না-পাওয়ার করি আরাধনা!….
যা-কিছু সুন্দর হেরি’ ক’রেছি চুম্বন,
যা-কিছু চুম্বন দিয়া ক’রেছি সুন্দর-
সে-সবার মাঝে যেন তব হরষণ
অনুভব করিয়াছি!-ছুঁয়েছি অধর
তিলোত্তমা, তিলে তিলে!
তোমারে যে করেছি চুম্বন
প্রতি তরুণীর ঠোঁটে
প্রকাশ গোপন।
যে কেহ প্রিয়ারে তার চুম্বিয়াছে ঘুম-ভাঙা রাতে,
রাত্রি-জাগা তন্দ্রা-লাগা ঘুম-পাওয়া প্রাতে,
সকলের সাথে আমি চুমিয়াছি তোমা’
সকলের ঠোঁটে যেন, হে নিখিল-প্রিয়া প্রিয়তমা!
তরু, লতা, পশু, পাখী, সকলের কামনার সাথে
আমার কামনা জাগে,-আমি রমি বিশ্ব-কামনাতে!
বঞ্চিত যাহারা প্রেমে, ভুঞ্জে যারা রতি-
সকলের মাঝে আমি-সকলের প্রেমে মোর গতি!
যে-দিন স্রষ্টার বুকে জেগেছিল আদি সৃষ্টি-কাম,
সেই দিন স্রষ্টা সাথে তুমি এলে, আমি আসিলাম।
আমি কাম, তুমি হ’লে রতি,
তরুণ-তরুণী বুকে নিত্য তাই আমাদের অপরূপ গতি!
কী যে তুমি, কী যে নহ, কত ভাবি-কত দিকে চাই!
নামে নামে, অ-নামিকা, তোমারে কি খুঁজিনু বৃথাই?
বৃথাই বাসিনু ভালো? বৃথা সবে ভালোবাসে মোরে?
তুমি ভেবে যারে বুকে চেপে ধরি সে-ই যায় স’রে।
কেন হেন হয়, হায়, কেন লয় মনে-
যারে ভালো বাসিলাম, তারো চেয়ে ভালো কেহ
বাসিছে গোপনে।
সে বুঝি সুন্দরতর-আরো আরো মধু!
আমারি বধূর বুকে হাসো তুমি হ’য়ে নববধূ।
বুকে যারে পাই, হায়,
তারি বুকে তাহারি শয্যায়
নাহি-পাওয়া হ’য়ে তুমি কাঁদ একাকিনী,
ওগো মোর প্রিয়ার সতিনী।….
বারে বারে পাইলাম-বারে বারে মন যেন কহে-
নহে, এ সে নহে!
কুহেলিকা! কোথা তুমি? দেখা পাব কবে?
জন্মেছিলে জন্মিয়াছ কিম্বা জন্ম লবে?
কথা কও, কও কথা প্রিয়া,
হে আমার যুগে-যুগে না-পাওয়ার তৃষ্ণা-জাগানিয়া!

কহিবে না কথা তুমি! আজ মনে হয়,
প্রেম সত্য চিরন্তন, প্রেমের পাত্র সে বুঝি চিরন্তন নয়।
জন্ম যার কামনার বীজে
কামনারই মাঝে সে যে বেড়ে যায় কল্পতরু নিজে।
দিকে দিকে শাখা তার করে অভিযান,
ও যেন শুষিয়া নেবে আকাশের যত বায়ু প্রাণ।
আকাশ ঢেকেছে তার পাখা
কামনার সবুজ বলাকা!
প্রেম সত্য, প্রেম-পাত্র বহু-আগণন,
তাই-চাই, বুকে পাই, তবু কেন কেঁদে ওঠে মন।
মদ সত্য, পাত্র সত্য নয়!
যে-পাত্রে ঢালিয়া খাও সেই নেশা হয়!
চির-সহচরী!
এতদিনে পরিচয় পেনু, মরি মরি!
আমারি প্রেমের মাঝে রয়েছ গোপন,
বৃথা আমি খুঁজে মরি’ জন্মে জন্মে করিনু রোদন।
প্রতি রূপে, অপরূপা, ডাক তুমি,
চিনেছি তোমায়,
যাহারে বাসিব ভালো-সে-ই তুমি,
ধরা দেবে তায়!
প্রেম এক, প্রেমিকা সে বহু,
বহু পাত্রে ঢেলে পি’ব সেই প্রেম-
সে শরাব লোহু।
তোমারে করিব পান, অ-নামিকা, শত কামনায়,
ভৃঙ্গারে, গোলাসে কভু, কভু পেয়ালায়!

...................

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:১৭

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আমার এই সাধারণ পোস্টে বিদ্রোহী কবির চমৎকার কবিতা!

কবিতাটি পড়া হয়েছিল এককালে। আবারো পড়লাম আপনার কল্যাণে। বরাবরের মতোই লাজওয়াব!


আমি যে সাহিত্যের মধ্যে আছি - সেটা আংশিক সত্যি। আমার কিছু লেখা অনেক আগে লেখা। কিছুটা পরীক্ষার জন্য এসব পোস্ট করা। আমার লেখালেখি নিয়ে লিখবো একদিন!




৬| ৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৩:১২

বিজন রয় বলেছেন: এই ব্লগেই অনামিকা নামে অনেক কবিতা আছে... তার মধ্যে একটি পেলাম এখন........

ব্লগার... পথিক হারা পথ অনামিকা(একটি নামহীন কবিতা)

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:১৯

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: অনামিকা নিয়ে সব লেখা হাজির করছেন দেখছি!!!

আপনার মতোই বলিঃ অনামিকা একটি শব্দতেই হৃদয়ের পরিপূর্ণ ঝংকার!

৭| ৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৩:৩০

বিজন রয় বলেছেন: আরো কিছু খুঁজে পেলাম অনামিকা নিয়ে ব্লগে পোস্ট............. আপনি খুঁজলে আরো পাবেন.....

জ্বলন্ত আলো - ‘অনামিকা’ তোমাতে কেন বিয়ের আংটি পড়াব ??
অনুভূতিহীন অস্তিত্ব - অনামিকা..................
তাহমীদ অনিক - অনামিকা
সূর্যমুখী - অনামিকা
লাবণ্য লাকি - অনামিকা!
তৌহিদ রিয়াজ - আমি সাহিত্যে নোবেল চাইনা, অনামিকা

আরো আছে, আরো............

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:২১

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আমি আর খুঁজে কি করবো! আপনিই তো খুঁজে দিলেন :P

আমার যেসব নাম খুবই প্রিয় সেগুলো নিয়ে কোনো লেখা লেখিনি। কেন নিজেই জানি না!


ভালো থাকুন :)

৮| ৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:১৬

শায়মা বলেছেন: অনামিকার সনামিকা নামটা না হয় পরে জানিয়ে দিতে গল্পে......

কি ব্যপার ভাইয়া প্রেমে পড়েছো মনে হচ্ছে লেখা পড়ে...... :P

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:২৮

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: যাহ! আমি ছবিটবি আঁকি না .. :P

৯| ৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:২৭

তারেক ফাহিম বলেছেন: সরল গল্প :D

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:২৯

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: সরল মন্তব্য :D

১০| ৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৩১

শায়মা বলেছেন: আহা তাই নাকি!!!

কে জানে আঁকো হয়ত। আমরা জানিনা ...

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৩৪

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: ;)

১১| ৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৩৬

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সুন্দর।

অথচ অনামিকা একটি সুন্দর নাম।

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৪৭

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: ধন্যবাদ কবি!

১২| ৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৩৬

বিজন রয় বলেছেন: কেউ প্রেমে পড়ল কিনা এটা জানতে চাওয়ার পেছনে কোন উদ্দেশ্য কাজ করে।

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৪৯

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: শায়মাপু আপনার কমেন্টের উত্তর দিয়াছেন। সুতরাং পূর্বেই উত্তর ফাঁস হওয়ায় আমি আর কিছু বললাম না :P

১৩| ৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৩৮

করুণাধারা বলেছেন: অনিমেষের মা মিস সুলতা!!! ও ও ও... একটু ভেবে নেই!!

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৫০

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আমিও ভাবছি B-))

১৪| ৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৪০

শায়মা বলেছেন: ১২. ৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৩৬০

বিজন রয় বলেছেন: কেউ প্রেমে পড়ল কিনা এটা জানতে চাওয়ার পেছনে কোন উদ্দেশ্য কাজ করে।

বিশেষ উদ্দেশ্য কাজ করিবেক ভাইয়া।

যেমন আর্কুভাইয়া পড়লে তার জন্য ফুলের মালা
আর তুমি পড়লে তোমার জন্য ডিমের মালা..... আই মিন সিদ্ধ ডিম...... :)

৩০ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৫২

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: বিশেষ উদ্দেশ্যের সহিত শেষমেশ ডিমের মালা :D

আর্কু ভাইয়া পড়েনি, কিন্তুক তাহার লেখা সার্থক হইতেছে B-))

১৫| ৩০ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১৪

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: মাত্র কয়েক লাইনে পুরো উপন্যাস শেষ করে দিলেন? :)

অনামিকা, অনিমেষ, অহনা। অহনা কে, জানেন? :)

সুন্দর হয়েছে গল্প :)

৩০ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০২

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: এটা আমার একধরনের টেস্ট। আমার লেখালেখি নিয়ে যেদিন লিখবো সেদিনই জানতে পারবেন কেন এমন করে লেখা।

অহনার সাথে আপনার নিয়মিত কথা হয়। আপনার কবিতার, গানের শ্রোতা। পন্ডিতনি।


অহনা; আকারে-সাকারে

অহনা একটা ভোরের পাখি,
কিংবা ভোরের রং অথবা রাগ।
কিংবা একটা স্বপ্নঘোর ঊষা। ভোর।
অহনা আলেয়া কিংবা মরীচিকা।
অহনা কে, কোথায় তা সত্যিই জানি না।

৭ জুলাই ২০০৯

এটা আপনারই লেখা থেকে আনলাম।

আমি মারাত্মক রকমের ফাস্ট পড়ডে পারি। সবার লেখাই কমবেশি পড়ি। আপনার লেখা তো অবশ্য পাঠ্য আমার কাছে। ব্যস্ততার কারনে কমেন্ট করা হয়তো হয়ে ওঠে না।


আপনি এজন্য আমি খুশি। অসংখ্য ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন :)

৩০ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৩

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: *পড়েছেন

১৬| ৩০ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৬

রাজীব নুর বলেছেন: বাস্তব জীবন গল্পের মতোন হয় না।হলে ভালো হতো।

৩০ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৩

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: বাস্তব জীবন গল্পের চেয়েও জটিল।

১৭| ৩০ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৪৯

জেন রসি বলেছেন: তারপর তারা কি সুখে শান্তিতে বসবাস করিতে লাগিল? :P

গল্প পড়েত রোম্যান্টিক মুডে চলে গেলাম।

৩০ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৫

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: সুখে শান্তিতেই তো থাকার কথা। দাঁড়ান কল দেই :P

এত্ত রোমান্টিক বুঝি ;)

১৮| ৩০ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৮

জেন রসি বলেছেন: লেখক বলেছেন: সুখে শান্তিতেই তো থাকার কথা। দাঁড়ান কল দেই :P

এত্ত রোমান্টিক বুঝি ;)


নাহ! আমি পুরাই লিকার চা। ;)

৩০ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১০

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: চিনি তাহলে একটু বেশিই ;)

হা হা হা..

৩০ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৯

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আপনার জন্য Ransomware নিয়ে চাঁদাবাজি কিন্তুক লেখা কম্পিলট। খুঁজে নিন :D

১৯| ৩০ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩১

জেন রসি বলেছেন: লেখক বলেছেন: চিনি তাহলে একটু বেশিই ;)

হা হা হা..


চিনি একটু বেশি হয়ে গেলে মাঝেমাঝে রোম্যান্টিক হয়ে যাই আরকি :P

নিচ্ছি।

২০| ৩০ শে জুন, ২০২০ রাত ৮:০৩

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: চাওয়া আর পাওয়ার মিল পুরো গল্প জুড়ে। পাঠকের চিন্তা উদ্রেকের কোনও সুযোগ দেখলাম না। কাহিনির কোনও বাঁক অনুভব করলাম না।

৩০ শে জুন, ২০২০ রাত ৮:০৫

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: এমনটাই চেয়েছি। চাওয়া পাওয়ার সহাবস্থান। ব্লগার জুনের মতোই বলি, সরল সোজা গল্প!

পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ রইলো :)

২১| ৩০ শে জুন, ২০২০ রাত ৮:২৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: আর্কিওপটেরিক্স,




কেমন জলধারার মতো গড়িয়ে গেল, বৈচিত্রহীন।
সাদামাটা ছবিটায় একটু রং চড়ানো যেতো না ?

৩০ শে জুন, ২০২০ রাত ১০:৪৪

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: রঙ অবশ্যই চড়াতে পারতাম। কিন্তু তাহলে আর টেস্ট করা হতো না :D

মতামতের জন্য ধন্যবাদ :)

২২| ৩০ শে জুন, ২০২০ রাত ৮:৩৯

শের শায়রী বলেছেন: আমার ধারনা ছিল আপনি বোধ হয় সারাদিন কম্পুটারের সব জটিল ব্যাপার স্যাপার নিয়া মাথা ঘামান। :)

ভালো লাগছে লেখা।

০১ লা জুলাই, ২০২০ দুপুর ১:৫২

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: গৎবাঁধা কার্যক্রম আমার পছন্দ নয়। যখন যা ইচ্ছে হয় তাই করি!

পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ রইলো :)

২৩| ৩০ শে জুন, ২০২০ রাত ৯:১৬

মা.হাসান বলেছেন: আমার কাছে সহজ সরল মনে হলো না, আঁতলামিতে ভরা মনে হলো। আঁতেলদের ভয়ে লিটল ম্যাগ ছাড়িয়াছি। এইবার ব্লগও মনে হয় ছাড়িতে হইবে। মিস সুলতার ফোন নম্বর থাকিলে দিয়েন। B-))

০১ লা জুলাই, ২০২০ দুপুর ১:৫৬

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: দুনিয়াটাই Intel ব্র্যান্ডে ভরে গেছে। ভয় পাইবেন না, AMD আছে ;)

মিস সুলতার ফোন নম্বর টেলিফোন ডাইরেক্টরিতে পাইয়া যাইবেন B-))

২৪| ৩০ শে জুন, ২০২০ রাত ১১:৩৮

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: বাস্তব জীবন গল্পের চেয়েও জটিল।
শুধু জটিল না। সাথে কুটিল এবং বিভীষিকাময়।

০১ লা জুলাই, ২০২০ দুপুর ১:৫৭

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: জটিল, কুটিল, বিভীষিকা এবং আনন্দময় :)

২৫| ০১ লা জুলাই, ২০২০ ভোর ৬:২৪

সোহানী বলেছেন: এইটা কি প্রেমের গল্প লিখলা নাকি বাংলা সিনেমার গল্প ধার নিলা বুঝলাম না ;)

০১ লা জুলাই, ২০২০ দুপুর ১:৫৮

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: ইহা ওয়েব সিরিজের গল্প ;)

২৬| ০১ লা জুলাই, ২০২০ রাত ১০:২১

সামু পাগলা০০৭ বলেছেন: এ কি গো!? এত সহজে ছেড়ে দিলেন গল্পের পাত্র পাত্রীকে? একটু বিরহ, বেদনা, শোক, ব্যাধি দিয়ে শেষে মেলাতেন - তাহলে পাঠক গল্পে বেশিক্ষন ডুবে থাকার সুযোগ পেত এবং বিরহকে জয় করার আনন্দ তাদেরকেও স্পর্শ করত!

০৩ রা জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৪৭

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: এত সহজে ছেড়ে দিলেন গল্পের পাত্র পাত্রীকে? - তাই তো দেখছি গো ;)

বেদানা থুড়ি বেদনার কি আর অভাব আছে এখন? করোনা কাল :(

পরের কোনো গপ্পে ডোবার সুযোগ দিবো। স্টে টিউনড B-))

০৩ রা জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৪৮

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: উথড স্কুবা ইকুইপমেন্ট ;)

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.