নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পদহীনদের জন্য শিক্ষাই সম্পদ

চাঁদগাজী

শিক্ষা, টেকনোলোজী, সামাজিক অর্থনীতি ও রাজনীতি জাতিকে এগিয়ে নেবে।

চাঁদগাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

ছোট বাচ্চার প্রতি স্নেহ, মায়ার বদলে যৌন আকর্ষণ কেন?

১০ ই জুলাই, ২০১৯ ভোর ৪:৫৪



ছোট বাচ্চার প্রতি স্নেহ, মায়ার বদলে যৌন আকর্ষণ অনুভব করাটা ভয়ানক মানসিক সমস্যা, বেশ বড় রোগ; বাংলাদেশে কমপক্ষে শতকরা ১৫ ভাগ মানুষের মানসিক সমস্যা আছে; শতকরা এই ১৫ ভাগের একটা অংশ অস্বাভাবিক যৌন আকর্ষনে ভুগতে পারে; ফলে, সমাজে অস্বাভাবিক যৌন আকর্ষনের সমস্যা বিরাজ করছে; দেশের বর্তমান বিশৃংখল প্রশাসন ও বিদ্যমান সামাজিক সমস্যা ইহাকে বাড়িয়ে দিচ্ছে; ইহার সমাধান বের করার জন্য নতুন করে প্রশাসনিক পদক্ষেপ নেয়ার দরকার, এই সমস্যা নিজের থেকে কমবে না। দেশের বর্তমান অর্থনীতি, প্রশাসনিক ব্যবস্হা, অস্বাভাবিক নগরায়ন, বস্তি ধরণের আবাসিক এলাকার বিস্তার, টোকাই সমস্যা, ব্যস্ত মা-বাবা, চাকর চাকরাণীর হাতে শিশুর ভার, ভাসমান ধরণের প্রতিবেশী, শিশুদের জন্য অস্হিতিশীল পরিবেশের সৃষ্টি করছে।

ঢাকায়, ৭ বছরের শিশুটির উপর হত্যাকারীর যৌন আকর্ষণের নজর পড়েছিল কিছু সময় ধরে; সেটা কেহ লক্ষ্য করেনি, এবং হত্যাকারী নিজেও বুঝতে পারেনি যে, কি ভয়ংকর অস্বাভাবিক যৌন তাড়না তাকে মৃত্যুর দিকে টানছে। লোকটার চেহারা, বেশভুষা থেকে অনুমান করা সম্ভব যে, সে শিক্ষিত নয়, দরিদ্র, সঠিকভাবে মানুষ হওয়ার সুযোগ পায়নি। নিশ্চয় সে কোনদিন ব্লগিং করেনি, টিএসসি'তে ১ কাপ চা খেয়ে ক্লাশমেটদের সাথে আড্ডা দেয়নি, কোন এক সন্ধ্যায় রবীন্দ্র সরোবরে কোন মেয়ের সাথে হাঁটেনি; তার জীবনটা সুন্দর ছিলো বলে মনে হয় না। তার জীবন যদি সুন্দর না হয়ে থাকে, সমাজ তার থেকে কি কি সুন্দর অবদান আশা করতে পারে? সমাজ কি আগে কখনো তাকে নিয়ে ভেবেছিলো, তাকে কেহ চিনতো, সে কি করছে, তা'নিয়ে কারো মাথা ব্যথা ছিলো? এখন সে যখন ভয়ংকর অপরাধ করেছে, সমাজ তাকে দেখছে, চিনতে পারছে, এখন সবাই তার বাবার নাম জানে; সবাই জানে যে, সে জীবনে সামজ থেকে হয়তো ভালো কিছুই পায়নি; তবে, সামজ থেকে সে এখন একটা বড় জিনিষ পাবে, সেটা হবে মৃত্যুদন্ড।

কয়েক লাখ টোকাই সারা দেশে ছড়ায়ে ছিটিয়ে আছে; এদের মাঝে যাদের বয়স ১২ বছরের বেশী, যারা রাস্তাঘাটে, ষ্টেশনে, লন্চঘাটে রাত কাটাচ্ছে, তাদের একাংশ কি ১০/১২ বছরের টোকাই মেয়ের সাথে ঘুমাচ্ছে না? এই স্বল্প বয়সে অস্বাভাবিক যৌন মিলনের ফলে, কেহ প্রাণ হারায়নি, কেহ যৌন রোগে ভুগছে না? এই সম্পর্কে কেহ কিছু বলছে, কেহ হা'হুতাশ করছে?এগুলো কি আজকের নতুন ঘটনা, এগুলো কি জাতির ভিত্তিতে হানা দেয়ার কথা নয়? মনে হয়, এগুলো এখন জাতির নার্ভে এসে পৌঁচেছে!

বস্তির মায়েরা যখন ৮/১০/১১ বছরের মেয়েকে তথাকথিত ঘরে রেখে ইট টানতে, বালু টানতে, বাসায় কাজ করতে যাচ্ছে, এসব মেয়েদের কেহ কি অপ্রয়োজনীয় ভয়ংকর আদর করছে না? অবশ্যই করছে, এবং পুরো জাতি সেটা জানে; এমন কি এসব বাচ্চাদের মায়েরাও জানে! এসব নিয়ে বস্তিতে ঝগড়া ফ্যাসাদ হয়; তবে, তারা এগুলোকে অনেকটা মেনে নিয়েছে, ৫ মিনিট গালাগালি করে সবাই শান্ত হয়ে যাচ্ছে; বস্তির বিচারে ভয় কম, মৃত্যদন্ড দেয় না, সেজন্য অস্বাভাবিক আদরের পর মেরে ফেলার দরকার হয় না, এদিকটা কমপক্ষে ভালো। তবে, জাতি এগুলো নিয়ে দীর্ঘ সময় কিছু বলেনি!

৭ বছরের বাচ্চাটাকে যেই লোক হত্যা করেছে, তাকে যদি ক্রস ফায়ারে না দিয়ে, সঠিকভাবে বিচার করে, ও মৃত্যুদন্ড দেয়, ওকে ঝুলানো অবধি সরকারের আধা-কোটী টাকা খরচ হবে এই লোকের পেছনে। কিন্তু সরকার যদি ওকে ১০ বছর বয়সে জানতো, চিনতো, ওর পড়ালেখা, স্বাভাবিক জীবন গঠনের জন্য সাইফুর রহমান, বা মুহিত কি আধা-লাখ টাকা খরচ করতো? কখনো করতো না। যেখানে খরচ করার দরকার, সেখানে খরচ না করলে, সমাজকে একদিন তার জন্য ক্ষতিপুরণ দিতে হবে; সেই একদিনটা এখন এসেছে দ্বারে!

মন্তব্য ৪৪ টি রেটিং +৮/-০

মন্তব্য (৪৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ ভোর ৬:০২

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: যাহারা ইহা করে তাহারা হারামজাদা! কাদেরকে ক্রসফায়ার দেওয়া হোক । এটাই এক মাত্র শাস্তি হওয়া আবশ্যক।

১০ ই জুলাই, ২০১৯ ভোর ৬:২৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


অনেক যুগ থেকে, বস্তি, এলিট এলাকা, চাকরাণী ও ঝি'দের সাথে এসব চলে আসছে; ক্রস ফায়ারে দিলে, ঢাকার বহু পরিবারে পুরুষই থাকবে না।

এটাকে দীর্ঘদিন লালন পালন করে আসছে আমাদের প্রশাসন, ইহা এখন একটু বড় এলাকায় ছড়ায়ে পড়েছে।

২| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ ভোর ৬:০৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ধর্ষকদের মৃত্যুদণ্ড না দিলে ধর্ষণ বন্ধ হবে না।

১০ ই জুলাই, ২০১৯ ভোর ৬:২৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


এবার যেইজন ধরা পড়েছে, তার মৃত্যুদন্ড হবে, মনে হচ্ছে! সে যা করেছিলো, বাচ্চাটাকে হত্যা করে, নিজে নিহত হয়ে গেছে। এই সমস্যা সমাধানের জন্য একটা নতুন প্রশাসনিক ব্রান্চ খোলার দরকার।

৩| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৭:৪৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: শ পাঁচেক ক্রসফায়ার করলে সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। শাস্তি না হওয়া এ জাতীয় লোকদের সাহস বেড়ে গেছে।

১০ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৮:১৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


এই ব্যাপারে যদি বলে, ৫০০ জন অপরাধীকে গুলি করার জন্য ৫০০ জন সৎ ও নিরাপরাধ পুলিশের দরকার, তা'হলে এই ৫০০ জন অপরাধী জন বেঁচে যাবে।

৪| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৭:৪৪

রাফা বলেছেন: সমাজের সকল স্তরের শিশুরাই এই বিকৃত অমানবিক পৈশাচিকতার শিকার। ১০% ঘটণাও প্রকাশিত হয়না ।স্কুল ,কলেজ ,মাঠে,ঘাটে, পার্ক ,রেস্তোরা,থিয়েটার এমনকি নিজের বাসায়ও নিরাপদ নয় শিশুরা। কিছু কিছু অপরাধের বিচার প্রকাশ্যে করে সাস্তীর বিধান করা উচিত।এবং এগুলো নিয়ে সময় ক্ষেপন করা উচিত নয়।

ধন্যবাদ,চাঁদগাজী।

১০ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৮:১৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


যে জাতি টোকাইদের যৌন-জীবন নিয়ে চিন্তিত হয়নি, বস্তির শিশুদের প্রতি অন্যায় আদর নিয়ে মন খারাপ করেনি, চাকরাণীদের জীবন নিয়ে কিছু বলেনি, সেই জাতি সহজে এর থেকে বের হতে পারবে না।

৫| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:৫৯

লাল মাহমুদ বলেছেন: ক্রসফায়ার, প্রকাশ্যে ফাঁসি বা মৃত্যুদন্ড কোন কিছুই ধর্ষণ রোধ করতে পারবে না। যতক্ষণ না মানুষের মধ্যে নৈতিকতা,, মানবতা, বিবেকবোধ জাগ্রত না হবে। আপনি যে বিষয়টার প্রতি ইংগিত করেছেন তা যথার্থ,আমি বলব।

১০ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ২:১০

চাঁদগাজী বলেছেন:


দারিদ্রতা, অশিক্ষা, অসহায় এতিম, টোকাই, সামাজিক অত্যাচার, অধিকারহীনতা, ইত্যাদির ফলে মানুষ মানসিক রোগে ভুগছে; জাতির দরকার এগুলোর সমাধান করা; এগুলো সমাধানের জন্য ব্যুরোক্রেসী ও সমগ্র প্রশাসন দক্ষ করে তোলা, দারিদ্রতার অবসান ঘটানো, কিশোরীদের চাকরাণী না করে পড়ালেখার ব্যবস্হা করা, অসহায় ঝি ও বিধবাদের সাহায্য করে, সমাজে সমতা আনতে হবে; কিংবা সামাজিক অর্থনীতি চালু করে, সবার অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

৬| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:৩৪

যাযাবর চখা বলেছেন: মানুষের মধ্যে নৈতিকতা, ঠিক-বেঠিক বুজার ক্ষমতা না থাকলে যা হয়। এর জন্য রাস্ট্র দায়ি।
আজকালতো দেখি, মুর্তি দেখেও অনেকে উত্তেজিত হয় পড়ে। চিকন বেতের ট্রিটমেন্ট এদের জন্য খুবই কার্যকর।

১০ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ২:১৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


ভাস্কর্য ইত্যাদি নিয়ে যারা গোলমাল করছে, এগুলো জামাত-শিবির ও হেফাজতী; এদেরকে আরবে উট চরাতে পাঠিয়ে দিতে হবে, ও ব্যবস্হা নিতে হবে, যেন এখানে আর ফেরত আসতে না পারে; ফেরার পথ আফগানিস্তান।

৭| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:৪৪

ক্লে ডল বলেছেন: ছোট বাচ্চার প্রতি স্নেহ, মায়ার বদলে যৌন আকর্ষণ কেন? আমারও এই একই প্রশ্ন। আমি বলব এটা ভয়ানক মানসিক সমস্যা!!
সরকারের উচিৎ মানসিক স্বাস্থ্য রক্ষায় নূন্যতম পদক্ষেপ গ্রহণ করা।

১০ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ২:১৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমাদের সরকার হচ্ছে সামিট, বসুন্ধরা, ওরিয়ন, বেক্সিমকো, আবুলখায়ের, ফালু ব্রাদার্স, কর্ণেল ফারুকদের সরকার; সরকার ওদের সাহায্য করছে; টোকাইরা ১০ বছর বয়সে যৌন সুখ ভোগ করুক।

৮| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:১২

মোগল সম্রাট বলেছেন: এই অপরাধে যে কেউই পিছিয়ে নেই সে প্রমাণ আমরা আগেও পেয়েছি৷ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, চিকিৎসক, ইঞ্জিনিয়ার, সমাজকর্মী, মানবাধিকারকর্মী, পুলিশ সদস্য এমনকি ধর্মীয় নেতারাও নানা সময়ে দেখিয়েছেন, কারও হাত থেকেই নিরাপদ নয় শিশুরা৷
তবে শুধু আইনি কঠোরতা নয়, সামাজিক ট্যাবু ভাঙতে না পারলে পালটাবে না এই চিত্র৷

১০ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ২:২০

চাঁদগাজী বলেছেন:


জাতি যেই পরিমাণ বিশৃংখল হয়ে গেছে, তাতে এলিট শ্রেণী ও বস্তিতে ধর্ষন, আসমাজিক যৌন জীবনের অভিশাপ এখন সব স্তরে ছড়িয়ে পড়েছে।

দেখা যাক, জাৈ কত সময় অবধি এসব নিয়ে ভালো থাকে!

৯| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ১২:০৯

রানার ব্লগ বলেছেন: আমরা অন্যের পর্দা নিয়ে বেশি আব্লামি করি তো তাই ।

১০ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ২:২৫

চাঁদগাজী বলেছেন:



সমাজকে সুসমভাবে গড়তে হবে; বস্তি, টোকাই ও বারিধারা থাকলে সমাজে সমতা আনবে না, মানুষ মানসিক সমস্যা নিয়ে জীবন যাপন করবে।

১০| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ২:০৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: চাঁদগাজী ভাই,
এই সব হচ্ছে সমাজ অবক্ষয়ের নমুনা। সাত বছরের বাচ্চার মধ্যে তারা অশ্লিলতা খোঁজে পেয়েছে, তাই সাত বছরের বাচ্চাকে সায়েস্তা করার পথ বেছে নিয়েছে ধর্ষণের মতো জঘণ্য পথ দিয়ে, ময়মনসিংহ মুর্তিতেও তারা অশ্লিলতা খোঁজে পেয়েছে তাই মুর্তিকে তো আর ধর্ষন করা যাচ্ছে না - তাহলে করনীয় কি - করনীয় কি? সমাজকে ধর্ষণ করে যাচ্ছে। এইসব মামলা দেখে দেখে আমি ক্লান্ত।

চাঁদগাজী ভাই, অত্যন্ত পরিতাপের সাথে জানাচ্ছি সকল ধর্ষকের আলাদা কয়েকটা মুখোশ থাকে তার মধ্যে একটি মুখোশ সে ধার্মীক !!! তার মতো ধার্মীক লোক কিভাবে এমন কাজ করতে পারে ? - এটিই হতেই পারেনা। পরিবার সমাজ তাদের সহযোগিতা করে। সমাজে নিচু শ্রেণীতে যে শুধু ধর্ষক বাস করে তা কিন্তু না, সমাজের নানা স্তরে ধর্ষক বসবাস করে, ছোট পরিবার - মাঝারি পরিবার - বড় পরিবার - যৌথ পরিবার - সুখি পরিবার এমনকি ধার্মীক পরিবার !!! ফেসবুকে ব্লগে ধর্মের বাণী শেয়ার করে করে শেষে পর্ণোগ্রাফীতে ডুবে থাকে কথিত প্রশ্নফাঁস জেনারেশন।

১০ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ২:৩৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমাদের সমাজ সুসম নয়: ৪৮ বছর ধরে ১২/১৩ বছর বয়সের অন্য পরিবারের মেয়েকে যারা চাকরাণী বানায়েছে, যাদের অর্থনীতির ফলে টোকাই বেড়েছে, বস্তি বেড়েছে, বসুন্ধরা বড় হয়েছে, সেখানে মানুষ মানসিক অশান্তিতে ভুগেছে। বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশী মসজিদ তৈরি হয়েছে, সেটা সাহায্য করছে না; মাদ্রাসা কয়েক লাখ বানায়েছে, সেটা সাহায্য করছে না; কারণ, সমস্যা হচ্ছে, মানুষের মৌলিক অধিকার বাড়ছে না, বরং আপেক্ষিক অনুপাতে কমছে: বসুন্ধরা যতবেশী দখল করছে, টাকাই ও বস্তি ততবেশী বাড়ছে। এসব সমস্যা শিক্ষিতদের জন্য অপেক্ষা করছে, শেখ হাসিনা বা উনার ব্যুরোক্রেটরা এগুলোর সমাধান জানেন না।

১১| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:১৪

গড়ল বলেছেন: মোল্লারা পতিতালয় গুলো একের পর এক উচ্ছেদ করার ফল এখন হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে বাঙ্গালী, নিরাপদ ও স্বাস্থসম্মত পতিতা ও পতিতালয় থাকাটা যে কোন কালের বা সমাজের জন্য একটা জরুরী বিষয়। মল-মূত্র ত্যাগের জন্য যেমন পর্যাপ্ত সুবিধা দরকার সমাজকে সুস্থ রাখতে ঠিক সেরকম। ঢাকা শহর তথা পুরো বাংলাদেশেই এই দুটোর বড়ই অভাব। যার ফলে ধর্ষণ মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ছে।

১০ ই জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:২৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


জাতিকে কক্ষ্যচ্যুত করা হয়েছে: বাংগালী জাতি নিজের শিক্ষা, সংস্কৃতি, ট্রেডিশন ও সমাজ ব্যবস্হাকে উন্নত করেনি; আধুনিক বিশ্বের সাথে চলছে পেছনের সারিতে থেকে; ইহা বিরাট সমস্যা; দেখা যাক, কিভাবে ইহার সমাধান করেন।

১২| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৩

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: বিচারহীনতার দেশে শাস্তি চাওয়া মূর্খতা কিংবা ধূর্ততা।

১০ ই জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:৪৩

চাঁদগাজী বলেছেন:



দিলেন তো আমার পোষ্টটার মান কমিয়ে!

আমার মনে হয়, আপনি তেমন কিছু বুঝেন না, আন্দাজে কিছু একটা লেখেন! ইহাতে মন্তব্যের সংখ্যা বাড়ে, কিন্তু পোষ্টের মান কমে যায়!

১৩| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৪:০৮

রাজীব নুর বলেছেন: আপনার পোষ্টে এবং মন্তব্যে অনেক সমস্যার সমাধান উঠে এসেছে।
আচ্ছা, বসুন্ধরা, সামিট, ফালু, ওরিয়ন যমুনা গ্রুপ বা সিটি গ্রুপ এদের কি আপনি চিনেন?

১০ ই জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৪:২২

চাঁদগাজী বলেছেন:


রাজীব, অস্বাভাবিক যৌন আসক্তি ও বিশৃংখল সমাজ, এটা ভয়ংকর সমস্যা, এটার সমাধান আমি লিখতে পারবো না; কারণ, শেখ হাসিনাও ইহার কুল কিনারা দেখতে পাচ্ছেন না।


বসুন্ধরা, সামিট, ফালু, ওরিয়ন, যমুনা গ্রুপ বা সিটি গ্রুপ, আলম ব্রাদার্স, মওলা ব্রাদার্স ও আর এই রকম হাজার খানেক সম্পর্কে আমি জানি ও বুঝি: আমরা এদের জন্য বাংলাদেশকে পাকিস্তানীদের থেকে মুক্ত করেছি।

১৪| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫৯

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: যথার্থ পোস্ট।

ধর্ষণ কামনা সমূলে উৎপাটন করতে হবে। সেজন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। আর ধর্ষকেরও কঠিন শাস্তি হওয়া উচিৎ। নিরাপত্তা বেষ্টনি গড়ে তুলতে হবে। আরও সচেতন হতে হবে। নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে হবে পুরো জাতিকে।

১১ ই জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫২

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনি কিছু করতে চান, সময় দিতে চান? আপনি ভলনটিয়ার হলে, আমি আপনাকে নেবো।

১৫| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:০২

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: ক্রসফায়ার! ক্রসফায়ার!!
আমি ক্রসফায়ার চাই।

এর ওপর কোনো ঔষধ দেখিনা।

১১ ই জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


চাকরাণীদের সাথে যারা জোরপুর্বক মিলিত হয়েছে, তাদের ক্রস ফায়ারে দিলে, সেক্রেটারিয়ট খালি হয়ে যাবে; মলের দোকান গুলোর মালিক থাকবে না, ইউনিভার্রসিটির ছাত্র কমে যাবে।

১৬| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:২৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: শিক্ষিত হোক আর অশিক্ষিত হোক অপরাধ করলে তাকে শাস্তি পেতেই হবে। শিক্ষিত হোক আর অশিক্ষিত হোক তার ভোট কিন্তু একটাই । সুতরাং শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে বিষয় হল শাস্তিটা কত দ্রুত এবং কত কঠিনতম ভাবে দেওয়া যায়। এইসব অপরাধীদের প্রতি ন্যূনতম অনুকম্পাও কারো থাকা উচিত নয়। এরা জাতির ক্যান্সার । জাতীয় কীটপতঙ্গ।

১১ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:০৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


যারা এগুলোর সমাধান করার কথা, তারা নিজের পরিবারের বাইরে কারো জন্য কিছু করার মত বড় হৃদয়ের অধিকারী নয়।

১৭| ১০ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১১:৩০

পাঠকের প্রতিক্রিয়া ! বলেছেন: বাঙালীদের সেক্সপাওয়ার কি বেড়ে গিয়েছে?

১১ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:০২

চাঁদগাজী বলেছেন:


স্বাস্ব্য আগের চেয়ে ভালো; বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ড, পর্ণ ও ভারতীয় মুভি, সবই কাজে লাগছে। ফার্মের মুরগীর হরমোনও কিছু অবদান রাখছে।

১৮| ১১ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৩:২১

চিত্রাভ বলেছেন: দ্রুত বিচার ও কঠোর দৃষ্টান্ত-মূলক শাস্তি দেওয়া হোক। নানা কুপ্রথা সমাজে এখনও বিদ্যমান ও শক্তিশালী এর পেছনে ধর্মের সুড়সুড়ি ও আবেগ সর্বস্ব রাজনীতি । সুশিক্ষার ব্যাপক প্রসার দরকার । আজ প্রায় প্রত্যেকের হাতে মোবাইল -- যৌন দৃশ্য/ ভিডিও হাতের মুঠোয় -- ছোট বড় সকলের সহজ লভ্য এবং তাই নিয়েই সময় কাটে । খেলাধুলা, সুস্থ আড্ডা, মা বাবা দাদু দিদা ঠাকুমা ঠাকুরদা সাথে নানা মত বিনিময়, পাড়া প্রতিবেশীদের ভালবাসা নজরদারী সন্তানদের ওপর ও তাদের শাসন আজকাল উঠে গেছে । কেউ কোন পিতা মাতাই আর এই শাসন যা অতিপ্রয়োজনীয় ছিল তা চায় না --এমনি পড়াশোনার নাম করে কে কি করছে কোথায় যাচ্ছে কোথায় দিন রাত কাটিয়ে আসছে তাও খোঁজ রাখে না । সমাজ এক অসুস্থ পরিমণ্ডলের মধ্যে দিয়ে চলছে । এর থেকে মুক্তি পেতে একমাত্র উপায় শিক্ষা, চেতনা ও নিত্য চেষ্টা যা কোন উপযুক্ত শিক্ষক/শিক্ষিকার দ্বারাই সম্ভব । অন্ধ গোঁড়ামি ফতোয়া থেকে মানুষকে বার হতেই হবে শিক্ষার তীব্র আগুনে দেহের বিকৃত কাম/যৌন আকাঙ্ক্ষা পুড়িয়েই শুদ্ধিকরণ হতে পারে -- পথটা মসৃণ নয় ।

১১ ই জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


প্রত্যেক জাতির নিজস্ব বৈশিষ্ঠ্য আছে, হঠাৎ কিছু ঘটছে না।

১৯| ১১ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:১১

সোহানী বলেছেন: চমৎকার বলেছেন। হাঁ, এরজন্য সবাই দায়ী। একদিনে একটি সমাজ এতোটা পচেঁ গলে যেতে পারে না। এটি ধীরে ধীরে হয়েছে। আর আমরা সব দেখেও না দেখার ভান করে চলেছি। বুঝেও না বোঝার অভিনয় করেছি। আর সেটার মাসুল দিচ্ছি প্রতি মূহুর্তে।

অনেক ভালো থাকুন।

১১ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১১:৩৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


টোকাইদের জীবন, বস্তী ও এলিট একাকার আধা-পর্ণ জীবন সব সময় ছিলো

২০| ১২ ই জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:১৬

রাজীব নুর বলেছেন: আমার মন্তব্যের সুন্দর উত্তর দেওয়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

১২ ই জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


শেখ সাহেব ও মওলানা ভাসানী পাকিস্তানের গলাকাটা ক্যাপিটেলিজমের বিপক্ষে মানুষকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন; আজকে পাকিদের চেয়ে অনেক ভয়ানক ক্যাপিটেলিজম চলছে বাংলাদেশে: বসুন্ধরা, ফালু, সামিট, খুলনা পাওয়ার, ওরিয়ন, আলম ব্রাদার্স পাকীদের চেয়ে অনেক অসৎ

২১| ১৩ ই জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:২৫

আখেনাটেন বলেছেন: চারিদিকে এত এত অরাজতা দেখে মানুষের স্বাভাবিক বোধশক্তিটুকুও এখন উধাও হয়ে যাচ্ছে। এই জঘন্য অপরাধগুলোও মানুষ মনে রাখতে চাচ্ছে না।

কোনো অন্যায়কেই এখন আর বড় অন্যায় মনে হচ্ছে না। আইনের কঠোর শাসনের অভাব জাতি হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে। চাইলে নেত্রী কিন্তু সে শাসন ব্যবস্থা কায়েম করতে পারে। সে ক্ষমতার চেয়েও বেশি কিছু উনার হাতে রয়েছে। কিন্তু কেন যে...সে এক বিরাট রহস্য।

১৩ ই জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৫:২০

চাঁদগাজী বলেছেন:


উনি রাষ্ট্রযন্ত্র এমনভাবে সেটআপ করেছেন যে, তিনি যেন টিকে থাকতে পারেন, নিজের বাবার মতো অবস্হা যেন না হয়; এটার মুল্য দিচ্ছেন জাতি! উনার সেটআপে যারা আছে, তারাও বাংগালী, তারা উনাকে টিকায়ে রেখেছেন ও নিজেরা নিজেদের জন্য সবকিছু করছে।

২২| ১৬ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১:৩১

চিত্রাভ বলেছেন: আপনার মন্তব্যটির অর্থ বুঝতে পারলাম না । আপনি বলেছেন "প্রত্যেক জাতির নিজস্ব বৈশিষ্ট্য আছে, হঠাৎ কিছু ঘটছে না।" বৈশিষ্ট্য অবশ্যই স্বীকার্য, এই বৈশিষ্ট্যর সাথে বদ গুন ভাল মন্দ মেশান থাকে যদি বৈশিষ্ঠ্য বলতে এই সবটাই বুঝিয়ে থাকেন সেটা এক রকম মানে হতে পারে । হঠাৎ কিছু ঘটছে না বলেছেন জানিনা এমন দাবী কে করেছে ! বৈশিষ্ঠ্য বলতে আবার কেউ কেউ কোন জাতির ভাল দিকটার দিকে আলোকপাত করতে চায় -- কোনটা আপনি মন্তব্যে বোঝাতে চেয়েছেন বুঝলাম না ।

১৬ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৩:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:



আমাদের জাতির লোকেরা সুযোগ মতো দরিদ্র ও অসহায় পরিবারের মেয়েদেরকে শারীরিকভাবে উপভোগ করে আসছে যুগযুগ ধরে, এ সমস্যা হঠাৎ করে শুরু হয়নি।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.