নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পদহীনদের জন্য শিক্ষাই সম্পদ

চাঁদগাজী

শিক্ষা, টেকনোলোজী, সামাজিক অর্থনীতি ও রাজনীতি জাতিকে এগিয়ে নেবে।

চাঁদগাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

ডেংগু জ্বরের টিকা উন্নয়নে বাংলাদেশের অংশ গ্রহন উচিত

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:১৬



মশা আমাদের 'জাতীয় কীটপতংগ' হওয়ায় ঢাকার মেয়রেরা মশার গায়ে হাত তোলেন না; এবং মশা আমাদের রাজধানীর লোকদের ভালোবাসেন, উনাদের নীলরক্ত পান করে, বুড়িগংগার সুপেয় মিনারেল ওয়াটারে বংশ বিস্তার করে আরামে আছেন; ফলে, ডেংগু মেংগু ঢাকায় স্হায়ী জ্বর হিসেবে প্রসিদ্ধ হয়ে যাচ্ছে। আমাদের রাজধানীর বস্তির লোকদের নিয়ে ব্লগারদের ভাবা উচিত!

ভারত, ভিয়েতনাম, ফিলিপাইন, ইন্দোনেশিয়া, সিংগাপুর, ব্রাজিল, মেক্সিকো, পেরু, পেরুগুয়ে, গুয়াতেমালা, কোস্তারিকা ও আরো কয়েকটি দেশে ডেংগুর প্রাথমিক টিকা আছে, এবং আরো উন্নয়ের কাজ চলছে; বেশ কয়েক প্রকারের (হয়তো, ৪ ধরণের) ডেংগু ভাইরাস আছে, এবং সময়ের সাথে এই ভাইরাসগুলো নিজেদের বদলায়ে, নতুন ধরণের ষ্ট্রাইফ তৈরি করে; ফলে, হয়তো, প্রতি বছরের টিকাগুলো সামান্যভাবে আলাদা ধরণের হতে পারে। মনে হচ্ছে, বাংলাদেশ এই টিকার ব্যাপারে এসব দেশের সাথে কাজ করছে না, আমি বাংলাদেশের নাম দেখিনি। যদি বাংলাদেশ ইতিমধ্যে কিছু না করে থাকে, বাংলাদেশের উচিত এদের সাথে কাজ করে, ঢাকা শহরের ২ কোটী মানুষের জন্য প্রাথমিকভাবে টিকা প্রস্তত করা; কারণ, এই টিকা খুবই দামী, মাথাপিছু ২০০ ডলারের বেশী দাম; কিন্তু ঢাকার মানুষেরা হলো আমাদের রাজধানীর মানুষ, এঁদের প্রতি জাতির দায়িত্ব ও কর্তব্য আছে!

'বাংলাদেশ এপিডেমিওলোজী ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড রিসার্চ' সংস্হাটি দেশে ডেংগু মেংগু কন্ট্রোল করার কথা; এদেরকে বিশ্ব স্বাস্হ্য সংস্হা 'হু' ইত্যাদি এসব ব্যাপারে অনেক ডলার দেয়, মনে হয়; এরা এসব ডলার কিভাবে খরচ করে, জাতীয় বাজেট মাজেট দেখে বুঝার উপায় নেই; কিন্তু এদের হাতে এই দেশের মানুষের জীবনমরণ নির্ভর করে, এবং এদের হাতে টাকাও আছে!

উপরের যেসব দেশের নাম আছে, তাদের মাঝে সিংগাপুর, গুয়াতেমালা, কোস্তারিকার জনসংখ্যা হয়তো ঢাকা থেকে কম হতে পারে; তারা যদি ডেংগু পেংগু নিয়ে টিকা ডেভেলোপমেন্ট করতে পারে, বাংলাদেশেরও পারার কথা। বাংলাদেশের ফার্মাসিুটিক্যাল কোম্পানীগুলো নাকি অনেক টাকার মালিক, বিদেশেও ঔষধ রপ্তানী করে; তাদেরকে ডাকলে, তারা নিশ্চয় কয়েকজন রিসার্চ সায়েন্টিষ্টস দেবেন।

আমাদের ব্লগেও এই ব্যাপারে দক্ষ লোকজন আছেন, এঁদের মাঝে ব্লগার কলাবাগান মনে হয়, রিসার্চে যুক্ত আছেন; উনি সশরীরে আসতে না পারলে, উপদেশ দিতে পারবেন; উনি স্যাটেলাইটেও ভালো, ঘরের জানালা থেকে নাকি আমাদের স্যাটেলাইট দেখেন কাজের পর। টিকা প্রস্ততের সময় টিকা পরীক্ষা করার জন্য ব্লগার রাজিব নুরের পরিবারের সদস্যরা (পরী ব্যতিত, বেচারী ছোট মানুষ, ডেংগু জ্বরে অনেক ভুগেছে!) হয়তো ভলনটিয়ার হবেন; আমি নিজেও ভলনটিয়া হতে পারি; তবে আমার বয়স সমস্যা হতে পারে, রক্ত আগের মতো ঘন নয়; ব্লগার ইনাম আহমেদ চাইবে না আমি ভলনটিয়ার হই! অবশ্য ব্লগার ইনাম আহমেদ জোয়ান এখনো, আমরা উনাকে বুঝায়ে টুঝায়ে ভলনটিয়ার করে ফেলবো। সবকিছু পজেটিভ, বাংলাদেশে সরকার, কিংবা শেখ হাসিনা ভেবে দেখতে পারেন!

মন্তব্য ৫১ টি রেটিং +৭/-০

মন্তব্য (৫১) মন্তব্য লিখুন

১| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:৪৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: শেষের দিকে পড়েতো হাসি থামাতে পারছিনা। =p~ =p~

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:৫২

চাঁদগাজী বলেছেন:


ব্লগার ইনাম আহমেদ যদি গন্ডগোল বাধায়, আমি বলবো যে, ব্লগার গিয়াস উদ্দিন লিটন রম্য লেখেন, আমি উনাকে অনুসরণ করার চেষ্টা করেছি; পোষ্ট কোথায় গেছে আমি জানি না; আমার আগে উনি যেন আপনাকে ধরেন এই ব্যাপারে।

২| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:০৫

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: হা হা...

সরকারের কাছের লোকেরা ব্লগে থাকলে পোস্ট'টা সরকারের মাথা পর্যন্ত নেওয়ার ব্যবস্থা করুন।

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:১০

চাঁদগাজী বলেছেন:


ব্লগে সরকারের ২/৩টা ব্লগার ছিলো: তালপাতা সিপাহি, স্বপ্নবীথি, প্রমুখ; বেচারারা বেশ অদক্ষ ছিলো! সরকারী চাকুরী পেলে মানুষ কি বেকুব হয়ে যায়?

৩| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:১৯

আপেক্ষিক মানুষ বলেছেন: হাহাহা হাসতে হাসতে পেট ব্যথা হয়ে গেছে! :P :P

আমি রাজশাহীতে থাকি, আজ বিকেলে একটা মশার কামড় খেয়েছি। এডিস মেডিস নাকি কে জানে!

তবে গবেষক হল, ভলান্টিয়ার হল কিন্তু ডেঙ্গু মেঙ্গুর মামা বাড়ি বুড়িগঙ্গার মিনারেলের একটা ব্যবস্থা নেয়া দরকার, এর জন্য কোন ব্লগার দায়িত্ব নেবেন টেবেন নাকি?

দেশ থেকে ডেঙ্গু বিলুপ্ত হলে শ্রদ্ধেয় ব্লগার নুরু সাহেক কে দিয়ে একটা ফুলেল শুভেচ্ছার পোস্ট লেখানো যেতে পারে। ;)

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:২৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


যেই মশাটা আপনাকে কামড় দিয়েছে, উহাকে ধরতে পারলে, ব্লগার নুরু সাহেবকে জানাবেন; উনি কোনটা এডিস, কোনটা লেডিস, বের করতে পারবেন বলে আমার বিশ্বাস।

৪| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:২৯

রাজীব নুর বলেছেন: বাংলাদেশে গজব নামছে।
বন্যা, ডেংগু, খুন সব একেবারে শুরু হইছে।

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:০১

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি হুশিয়ার হয়ে চলেন, যেন ডেংগু না হয়; আমি ভাবছি, আগামী কিছুদিন আপনার পোষ্ট পড়বো না, ডেংগু হয়তো সংক্রামক রোগ, কে জানে!

৫| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৩৩

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: মশার কাছে বাংলাদেশী তথা ঢাকাবাসী জিম্মি হয়ে আছে, টিভিতে দেখছি হাসপাতালে হাসপাতালে মেয়র সাহেব মশারী বিতরণ করছেন, এখন হয়তো ঢাকা’র কম্বল বিতরণ পার্টি মধ্যে রাতে মশারী বিতরনে নেমে যেতে পারেন, সাথে বিদেশী এনজিও গুলোও। সমস্যা হচ্ছে মশারী ঢাকা’র হাসপাতালের চেয়ে বেশী প্রয়োজন ঢাকা’র নিম্নবিত্ত পরিবারে ও বস্তিতে - এটি বোঝার জন্য একটি সুউচ্চ পদস্থ তদন্ত কমিটি গঠন করতে হতে পারে তাতে কমিটি সদস্য সভাপতি বাংলাদেশ সরকারে কাছে আছে নাকি চীন হতে চাইনিজ বিশেষজ্ঞ আনতে হতে পারে তা সরকার জানেন আর সরকারের আল্লাহ জানেন !!!

আর সব চাইতে বেশী প্রয়োজন মশার আবাস বাড়ী ঘর চিরতরে নষ্ট করা। তার জন্য ঢাকাবাসীর সহযোগিতা প্রয়োজন।

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:০৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


ঢাকা থেকে মশাকে ক্সপুরোপুরি বিনাশ করতে হলে, হয়তো বিল্ডিং ইত্যাদিতে আগুন লাগায়ে দিতে হবে; ডিটিটি মিডিটি কাজ করছে না।

৬| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১১:৫৪

Nemo বলেছেন: আপেক্ষিক মানুষ বলেছেন:

আমি রাজশাহীতে থাকি, আজ বিকেলে একটা মশার কামড় খেয়েছি। এডিস মেডিস নাকি কে জানে!

এখানে সেচ্ছাসেবক হিসেবে যোগ দিন।

টিকার কথা জানি না, তবে দেশে GM mosquitoes এসেছে বা আনা হচ্ছে। আমি মনে করি বাংলাদেশ এখানে যুক্ত হলে উপকৃত হবে। টিকা উন্নয়নের বদলে তাতে ভেজাল দিয়ে জনগণের চৌদ্দটা বাজার সম্ভাবনা থাকবে, তাই ওদিকে না যাওয়াই উত্তম।

আপনার যে বই বইটা লিখছেন সেটা কি Slang dictionary হবে নাকি ?

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১:১৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



আজ থেকে বই লেখার শুরু করার প্ল্যান ছিলো; কি নিয়ে লিখব, সেটা ঠিক করতে পারিনি এখনো। আমার বইতে আমার অনেক নিজস্ব শব্দ থাকবে!

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১:৪৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


হামবাগের লিংক টিংক দেখেছি। এই ডেংগুর টিকা না দিলে সমস্যা হবে। আমার জানামতে ১০/১২ টি পরিবারের লোক ডেংগুর ভয়ে দেশে যাচ্ছে না

৭| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১২:১১

আখেনাটেন বলেছেন: হা হা হা; যদিও ডেঙ্গু যে হারে দেশে আতঙ্ক ছড়িয়েছে এ বিষয়ে মজা করা একদম বেমানান, তবুও আপনার শেষের প্যারা পড়ে না হেসে পারলুম না। :P



২৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১:২১

চাঁদগাজী বলেছেন:



মনে হচ্ছে, ডেংগু এলাকার বাহিরে আছেন; রাজিব নুর পোষ্ট পড়েছে, ভয়ে কমেন্ট করছে না।

৮| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:২৭

Nemo বলেছেন: লেখক বলেছেন: আমার বইতে আমার অনেক নিজস্ব শব্দ থাকবে!
আমি আসলে ঠিক এটা বুঝাইনি। সেচ্ছােসেবক হিসেবে ইনামের নাম এলো কিনা ... তাই।

লেখক বলেছেন:
আমার জানামতে ১০/১২ টি পরিবারের লোক ডেংগুর ভয়ে দেশে যাচ্ছে না
তাওতো এখন ডেঙ্গি ঢাকায় আটকে আছে। ঈদের সময় সবাই ছুটিতে গ্রামে গেলে পুরো দেশে ছড়ানোর শংকা উড়িয়ে দেয়া যায় না।
এ দেশেতো Screening করার ব্যবস্থা নেই। কিছু দিনের মধ্যে দেশের বাইরে যাওয়ার কথা, বাইরে গিয়ে Quarantine এর নামে অপদস্ত হই কিনা কে জানে।

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:৩৪

চাঁদগাজী বলেছেন:



ভালো কথা বলেছেন, এই ঈদে ঢাকাবাসীকে ঢাকার বাইরে যাওয়া বন্ধ করার দরকার এখুনি, সেটা ঘোষণা করে, পদক্ষেপ নেয়ার দরকার।

৯| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ ভোর ৪:০৭

এলিয়ানা সিম্পসন বলেছেন: Is this happening only for now? When is this gonna subside? In a few months?

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:২২

চাঁদগাজী বলেছেন:


শীত আসলে হয়তো ডেংগুর প্রভাব কমবে; তবে, ক্লাইমেট গরম হচ্ছে, ডেংগু অনেকে বেড়ে যেতে পারে; ঢাকা থেকে গ্রামগুলোতে চড়ায়ে পড়টে পারে।

১০| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৮:৪৫

অভি চৌধুরী বলেছেন: আমাগো উচিৎ পাগলের টিকা আবিষ্কার করা। এটা আমাদের মধ্যে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:২৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


উহার জন্য টিকা বের করতে পারলে, বাংলাদেশ হতে পারতো সবচেয়ে বড় মার্কেট

১১| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:১০

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন:
আপনি হুশিয়ার হয়ে চলেন, যেন ডেংগু না হয়; আমি ভাবছি, আগামী কিছুদিন আপনার পোষ্ট পড়বো না, ডেংগু হয়তো সংক্রামক রোগ, কে জানে!

হা হা হা---
অবশ্যই আপনি কুসংস্কার বিশ্বাসী মানুষ নন।

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনাকে হাসানোর চেষ্টা মাত্র

১২| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:২১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: বর্তমানে বাংলাদেশের লোকসংখ্যা প্রায় ১৮ কোটি। এই বিরাট জনগণ কে পাগল বানিয়ে ফেলেছে অতি ক্ষুদ্র মশকের দল। অথচ সামান্য চেষ্টা করলেই মশক নিধন করা সম্ভব।



18 কোটি মানুষের মধ্যে যদি 10 কোটি লোক মশা মারার কাজে অংশ নেয় এবং প্রতিটি লোক দুইটা করে মশা মারে তাহলে প্রতি দিন 20 কোটি মশা মারা সম্ভব ।

আন্তরিক ইচ্ছা থাকলে প্রতি দিন একটি করে মশা মারা হলেও বেশ কিছু দিন পরে দেখা যাবে এদেশে মারার জন্য কোন মশাই খুঁজে পাওয়া যাবে না। মশকরা যত ভয়ঙ্কর প্রাণীই হোক না কেন মানুষের চেয়ে ভয়ঙ্কর নয়।

তাই আসুন সবাই মিলে আজ থেকে মশা মারা শুরু করি।

গণপিটুনি দিয়ে মানুষ না মেরে গণপিটুনি দিয়ে মশা মারুন। দেশ ও জাতির অশেষ কল্যাণ করুন।

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:২৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


মশা মারা খুবই কঠিন কাজ হবে; এদেরকে খুঁজে বের করা সম্ভব নয়

১৩| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:৫৭

স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: মশাদের মধ্যে জনসচতেনা বৃদ্ধি ও শিক্ষার প্রসার ঘটানোর প্রচেষ্টা নেয়া উচিত | একটি সচেতন মশা কখনোই কোনো ভালো মানুষকে কামড়াবে না | এই সকল মশাদের উদ্ভুদ্ব করতে হবে শুধুমাত্র দুর্নীতিবাজ, ধর্ষক, ও খুনি/অপরাধীদের কামড়াবার জন্য | এইভাবে এক ঢিলে দুই পাখি মারার উদ্যোগ নিতে পারলে অবশ্যই এই ডিজিটাল বাংলাদেশ ২০৩৩ সালে মধ্যম সারি থেকে প্রথম সারির দেশে উঠে যাবে |

আর তা সম্ভব নাহলে পূর্ববর্তী ব্লগার ভাইয়ের কথামতো গণপিটুনি দিয়ে মশা মারার প্রয়াস নেয়া যেতে পারে | ক্রস ফায়ারে দিয়ে মারার চেষ্টা করলেও মন্দ হয় না |

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:২৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


ঢাকার মানুষ অপরিস্কার।

১৪| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:০১

রানার ব্লগ বলেছেন:

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:১৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


সুখী মানুষের প্রতিবিম্ব

১৫| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:২৯

নূর আলম হিরণ বলেছেন: সরকার তো ব্লগেই ঢুকতে দিচ্ছে না, ব্লগারদের সাথে তারা কিভাবে কাজ করবে!

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমাদের বর্তমান সরকার অনেকটা কলোনিয়েল টাইপের সরকার; তারা জনতাকে বাজার হিসেবে জানে।

১৬| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ দুপুর ১২:৩১

নজসু বলেছেন:



গুরুত্বপূর্ণ লেখটা শেষে এসে রম্য হয়ে গেলো। :||

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:৪২

চাঁদগাজী বলেছেন:


এসব আলোচনা আমাদের নিজের মাঝে, ইহাকে বেশী ভারী করলে মনে রাখতে কষ্ট হবে; আমি ইহাকে একটু হালকা করতে চেয়েছি। সারমর্ম হলো, বিশ্বে ডেংগুর টিকে আছে, চাইলে আমরা নিজেরাও টিকা বানাতে পারি

১৭| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৯

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন:
আপনাকে হাসানোর চেষ্টা মাত্র

শুকরিয়া। অনেক ধন্যবাদ।

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০১

চাঁদগাজী বলেছেন:


চেষ্টা করেন, ঘরে যাতে মশা প্রবেশ করতে না পারে।

১৮| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৯

তারেক ফাহিম বলেছেন: বাঘকে আমরা বশ করে খাঁচায় বন্দি রাখতে জানি,
ক্ষুদ্র মশার যন্ত্রনায় নিজেই খাঁচায় বন্দি হই!


দু-একটা মশার কামড় খাইলাম ধরে মশাকে শিকড় বেঁধে হাসপাতালে নেয়ার প্রয়োজন আছে, মেডিস পরীক্ষা করার জন্য? :D

গাজি ভাই, কিছুদিন রম্য লিখেন, সব প্রতিহিংষা দূরে সরে যাবে।

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫১

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমাদের (বাংগালী) চরিত্রে প্রতিহিংসা কিছুটা আছে; তবে, ব্লগারদের মাঝে এটার পরিমাণ খুবই সামান্য; পোষ্টে একটু হাসিখুশীর উপকরণ মনের ভেতর সন্চিত রাগ ইত্যাদি প্রশমনে সাহায্য করতে পারে। তবে, বিপুল পরিমাণ বাংগালীর ভেতর হিউমার নেই।

১৯| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:২৬

Nemo বলেছেন: লেখক বলেছেন: আমাদের (বাংগালী) চরিত্রে প্রতিহিংসা কিছুটা আছে; তবে, ব্লগারদের মাঝে এটার পরিমাণ খুবই সামান্য; পোষ্টে একটু হাসিখুশীর উপকরণ মনের ভেতর সন্চিত রাগ ইত্যাদি প্রশমনে সাহায্য করতে পারে। তবে, বিপুল পরিমাণ বাংগালীর ভেতর হিউমার নেই।
For humans today, a lack of social understanding causes embarrassment Modern society is suffering from “temporal exhaustion” If one is mentally out of breath all the time from dealing with the present, there is no energy left for sense of humor

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১১:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:


যারা মানসিক সমস্যায় ভোগে, বা নীচু মানসিকতার শিকার, হিউমার তাদেরকে সাহায্য করতে পারে না; সুস্হ, সবল, শিক্ষিত, হাসিখুশী মানুষ দৈনন্দিন জীবনের মাঝে হিউমার খুঁজে পান।

২০| ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:৪১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: কিছু কিছু প্রাণী আছে যে প্রাণী গুলো স্বভাবগত কারণেই মশা খেয়ে থাকে। এই প্রাণী গুলির মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ব্যাঙ, টিকটিকি
ও কিছু বিশেষ প্রজাতির মাছ। ঢাকা শহরে ব্যাংঙ ও মশা খাদক মাছের প্রচলন করা দরকার। এই প্রাণী গুলো নীরবে মশা নিয়ন্ত্রণে রাখবে।

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১১:৫৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


বাংলাদেশ অপরিস্কার মৌসুমী দেশ; এসব সাহায্য করবে না, টিকা দিয়ে ভাইরাসকে ধ্বংস করতে হবে।

২১| ৩০ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৩:৩৭

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: ডেঙ্গু ভাইরাস সনাক্ত হওয়ার পর ৬০ বছরেরও বেশি সময় ধরে এর ভ্যাকসিন ডেভেলপমেন্ট এর কাজ চলছে WHO সহ আরো অনেক দেশে, বাংলাদেশও এই প্রচেষ্টার সাথে নীজ প্রয়োজনেই যুক্ত হতে পারে । একটি কার্যকরী ডেঙ্গু ভ্যাকসিন ডেভেলপের জন্য দেশে ও বিদেশে অবস্থানকারী অনেক কমপিটেন্ট বাংলাদেশী বিজ্ঞানী ও বিশেষজ্ঞ আছেন তাতে কোন সন্দেহ নাই , প্রয়োজন যথাযথ সরকারী সহায়তা ও নিখাদ ও বিশুদ্ধ প্রচেষ্টা । তবে এই ভ্যাকসিন ডেভেলপমেন্ট কর্মসুচীর সাথে সংস্লিষ্ট সরকারী প্রশাসনের লোকদেরকে পুর্বাহ্নেই টিকা দিয়ে দুর্নীতি মুক্ত করতে হবে । তা না হলে সকল প্রচেষ্টা জলে যাবে । যাহোক, একটি ইফেকটিভ ডেঙ্গু ভ্যাকসিন ডেভেলপমেন্টের সময় কমপক্ষে চারটি বিষয় বিবেচনায় রাখতে হবে । প্রথমত, এই ভ্যাকসিনটি ডেঙ্গু ভাইরাসের চারটি সিরোটাইপকেই লাইফ লং সুরক্ষা দেয়া উপযোগী করতে হবে , দ্বিতিয়ত সম্ভাব্য ইফেকটিভ ভ্যাকসিনটি আবশ্যিকভাবেই টেট্রাভেলেন্ট হতে হবে; তৃতীয়ত, ভ্যাকসিনটির দাম কম এবং ব্যয় সাশ্রয়ী হতে হবে, চতুর্থত ভ্যাকসিনটি উচ্চ মাত্রায় নিরাপদ এবং তা যেন কোন মানুষের পূর্ব-বিদ্যমান রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বিঘ্রিত করে তার জন্য আরো কোন গুরুতর রোগের ঝুঁকি না বাড়িয়ে দেয় । তবে ভ্যাকসিনটি ডেভেলপের পাশাপাশি আরো কিছু পদক্ষেপও নিয়মিতভাবে নিতে হবে । উল্লেখ্য যে, পরিবেশের উপর নির্ভর করে ডেঙ্গুর জীবানু বাহী এডিস মসার জীবনকাল মাত্র ২ থেকে ৪ সপ্তাহের মত ।

এ সংক্ষিপ্ত জীবন চক্র শেষে মশাটি নীজেই মরে যাবে । তবে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নিতে হবে এটা যেন ডিম পারার জন্য সহায়ক পরিবেশ না পায় কিংবা যে ডিম তারা ইতিমধ্যে পেরে ফেলেছে তা ফুটে যেন আর বংশ বিস্তার করতে না পারে। যাহোক, দেশে বিশেষ করে ঢাকায় ডেঙ্গু এখন মহামারী আকার ধারন করেছে । একে জাতীয় দুর্যোগ হিসাবে বিবেচনা করে এটা প্রতিরোধে সকলের সন্মিলিত প্রয়াস জরুরী হয়ে পড়েছে । দেশে কেও যেন আর ডেঙ্গু আক্রান্ত না হন আর যারা ইতমধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন তাদের সকলের জন্য আশু রোগমুক্তি কামনা রইল ।

পোষ্টের মন্তব্য প্রতি মন্তব্যগুলি বেশ উপভোগ্য হলেও এতে অনেক গুরুত্বপুর্ণ কথা রয়েছে ।

ডেঙ্গুর ভ্যাকসিন ডেভেলপের বিষয়ে গুরুত্বপুর্ণ পোষ্ট দিয়ে আলোচনার সুযোগ করে দেয়ার জন্য ধন্যবাদ ।

৩০ শে জুলাই, ২০১৯ ভোর ৫:৩৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


১১/১২ টি দেশ টিকা নিয়ে কাজ করছে; বাংলাদেশ কেন আজো নাম লেখায়নি, সেটাই বিস্মিত হবার মতো ব্যাপাার; অনেক দেশের লোক সংখ্যা ঢাকার লোক সংখ্যার চেয়ে কম

২২| ৩০ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৫:৩০

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: বুদ্ধিদীপ্ত প্রস্তাবনা। ডেঙ্গুর টিকা আবিস্কৃত হলে দেশের মানুষ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলবে।

৩০ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২০

চাঁদগাজী বলেছেন:


মশা মারাটা সাময়িক কন্ট্রোল, স্হায়ী সমাধান হলো, টিকা

২৩| ০১ লা আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১০:১৮

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: গুরুত্ব বিবেচনায় আপনার পোস্টখানির লিংক আমার পোস্ট এড করে দিলাম। কোন সন্দেহ নেই স্থায়ী সমাধান হলো টিকা।একসঙ্গে সব মশা মারাও দুরূহ কাজ ।

০১ লা আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


বাংলাদেশ গরম মৌসুমী দেশ, প্রশাসনের লোকজন অসৎ; মশা টিকে থাকবে; টিকাই সমাধন।

২৪| ০১ লা আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৫

অন্তরা রহমান বলেছেন: সিরিয়াস পোস্ট থেকে মুহূর্তে সার্কাস্টিক =p~

০১ লা আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৫৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


সিরিয়াস সার্কাষ্টিক!

২৫| ০২ রা আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: মশা মারার জন্য ইলেকট্রিক ব্যাট এই মুহূর্তে সব চেয়ে কার্যকরী পদ্ধতি। এতে পরিবেশের কোন ক্ষতি হয় না‌ ব্যবহার ও সহজ। সবাই ব্যাট ব্যবহার করা শুরু করুন।

০২ রা আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:০৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


এটা আছে বাংলাদেশে; কিন্তু আমাদের আবহাওয়া ও অপরিস্কার জীবনযাত্রা মশাদের পক্ষে আছে সব সময়।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.