নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

শব্দকবিতা : শব্দেই দৃশ্য, শব্দেই অনুভূতি \n\[email protected]

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই

দুঃখের কবিতাই শ্রেষ্ঠ কবিতা। ভালোবাসা হলো দুঃখ, এক ঘরে কবিতা ও নারী।

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই › বিস্তারিত পোস্টঃ

অমর্ত্যের গান

০২ রা মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৯

একদা ছিল এক গায়িকা। সে দেখতে সুন্দর ছিল না। কিন্তু তার গলায় ছিল অমর্ত্যের গান। সে গানে সারা পৃথিবী দুলতো। ভোরের পাখিরা তার ঘরের বাগানে এসে ভিড় করতো, বাতাস থেমে যেত। নদীরা স্থির হয়ে থাকতো তার গান শোনার জন্য।

তার নামডাক চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে একদিন কিছু লোক এসে তাকে শহরে নিয়ে গেল। বিরাট হলঘরে মানুষ থৈথৈ করছে। ঝলমলে আলোতে চোখ ঝলসে যায়। গায়িকাকে মঞ্চে উঠানো হলো। সে গান ধরলো। কিন্তু মানুষের উল্লাস আর উচ্ছ্বাস ধীরে ধীরে স্তিমিত হতে থাকলো। মানুষের মন উতলা হলো না। আসর জমলো না।

শহুরে লোকগুলো তবু থামলো না। আরেকদিন অনেক বড়ো এক খোলা ময়দানে তারা গানের আয়োজন করলো। বহু ডাকসাঁইটে শিল্পীরা গান গাইল। গাইল না, বলা চলে তারা নাচলো। শরীর দোলালো। কোমর দোলালো। গলা ফাটালো। চিৎকার করলো। লাফালাফি করলো। বিচিত্র অঙ্গভঙ্গিতে দর্শকরা মুগ্ধ ও উন্মাতাল হলো। আনন্দ উথলে উঠলো আকাশে বাতাসে। সবশেষে আমাদের গায়িকাকে মঞ্চে তোলা হলো। মেয়েটা খুব সাধাসিধে ছিল। সে জানতো না কীভাবে শরীরের কসরৎ দেখিয়ে দর্শকহৃদয়ে দোলা দিতে হয়। সে শুধু জানতো দু চোখ আধো-নিমীলিত করে নিগূঢ় কণ্ঠে সুর তুলতে। সে গান ধরলো। স্থির দাঁড়িয়ে মাইক্রোফোন হাতে সে একমনে গান গাইতে থাকলো। কিন্তু এবারও দর্শকরা সাড়া দিল না। তাদের মন ভরলো না মোটেও। কোনো উত্তেজনার ঢেউ নেই কোথাও। সবকিছু নিস্তেজ হয়ে পড়ছে। তারা একসময় জেগে উঠলো এবং ‘হিন্দি চাই হিন্দি চাই’ বলে তুমুল শোরগোল করলো।

আয়োজকরা বিমর্ষ হলো। তারা খানিকটা উষ্মা প্রকাশ করে বলেই ফেললো, ‘আপনি দেখতে সত্যিই একটা ‘ক্ষ্যাত’। আপনি কিচ্ছু কি বোঝেন না?’ এটা গায়িকাকে খুব আহত করলো। তার রূপ নাই সে জানে। সে চটপটে, সপ্রতিভ নয়, তাও সে জানে। সে আরো জানে, তার মোহনীয় অঙ্গসৌষ্ঠব নেই, যা মানুষের নজর কাড়ে। কিন্তু সে জানে তার একটা কণ্ঠ আছে, যা খুব মন্দ নয়; এ ব্যাপারে সে খুব আত্মবিশ্বাসী। সে নীরবে মাথা নীচু করে মঞ্চ থেকে নেমে গেল।

গায়িকা তার প্রিয় জন্মগ্রামে চলে এলো। সে আর শহরের মঞ্চে যায় না। কীজন্য তাকে আলোর শহরে নেয়া হয়েছিল, সে রহস্য সে জানে না। সে গায় মাটির গান। তার মাটির শরীরের প্রতিটি পরতে মাটির সুর গেঁথে আছে। এ সুরে মাটির হৃদয় দোলে। এ সুরে মাটির মানুষ দোলে। যাদের জন্য সে মঞ্চে উঠেছিল, তারা কেউ মাটির মানুষ ছিল কি?
জন্মভিটায় বসে নীরবে গায়িকা কাঁদে। নিরবধি কাঁদে। তার গলা খুব উচ্চমার্গীয় নয়, এ নিয়ে তাকে গালমন্দ করলে তার খুব কষ্ট হবার ছিল না। কিন্তু সে দেখতে একটা ক্ষ্যাত, সে চৌকষ বা সুদর্শনা নয়- এটা তাকে খুব আহত করলো। পৃথিবীতে সুরের কি সত্যিই কোনো মূল্য নেই? শরীরের ঝকমকিই কি আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু? সে নিজে কোনোদিন রূপের কাঙাল ছিল না, ছিল সুরের কাঙাল। সে চায় সুর। সে চায় গান। তার কাছে গানই হলো সব সুন্দরের আধার।

গায়িকা কাঁদে। নীরবে গুমরে কাঁদে। সৃষ্টিকর্তা তাকে রূপ দেন নি – সেজন্য সে কাঁদে না, সে কাঁদে মানুষ কেন বোঝে না এই রূপ তার নিজের ইচ্ছেতে হয় নি। নিজের ইচ্ছেমতো রূপ সৃষ্টি করা গেলে এই পৃথিবীতে রূপের জন্য কোনো হাহাকার হতো না।
আরো সে কাঁদে এজন্য যে, মানুষের কাছে সুরের কোনো কদর নেই, শরীরের সম্ভারই মানুষের মূল্যবান সম্পদ, যা তাকে সবার কাছে দামি ও আকর্ষণীয় করে তোলে।
গায়িকা কাঁদে; নিভৃতে তার হৃদয় পুড়ে যায়, কুরে কুরে ক্ষয় হয়।
কিন্তু আদতে সে কাঁদে না। তার কণ্ঠে নিঃসৃত হয় করুণ সঘন সুর। সেই সুরে নদীর কান্না গর্জন করে ওঠে। পাখিরা কূজন ভুলে গিয়ে তার বাড়ির চারপাশে এসে গাছে গাছে ডালে ডালে ভিড় করে বসে। তারা তন্ময় হয়ে শোনে - গায়িকার অন্তরক্ষয়ী গানের মূর্ছনায় সারা পৃথিবী দুলছে। পৃথিবীটা যেন একটা বেহেশতখানা। শুধু সুর আর সুর, যার গভীরে রূপের কোনো অস্তিত্ব নেই, নেই কোনো বাহ্যিক চাকচিক্য। সেখানে এই সুরটাই হলো সমগ্র সৌন্দর্য্যের মূল রহস্য।

০২ মার্চ ২০২০

মন্তব্য ৪৫ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৪৫) মন্তব্য লিখুন

১| ০২ রা মার্চ, ২০২০ রাত ১০:১৯

প্রেক্ষা বলেছেন: গুণী মানুষ এভাবেই আড়ালে থাকেন।শহরের ঝলমলে আলোকবাতি আর লোকদেখানো শিল্পীর ভীরে এদের কদর হয় না।

০২ রা মার্চ, ২০২০ রাত ১০:৪৪

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: খুব সুন্দর বলেছেন। আমরা গুণের কদর করতে ভুলে যাচ্ছি; রূপেই সমস্ত মোহ।

শুভেচ্ছা রইল।

২| ০২ রা মার্চ, ২০২০ রাত ১০:৩৩

রাজীব নুর বলেছেন: ছোট লেখা। কিন্তু সহজ সরল ভাষায় চমৎকার লিখেছেন।
আপনি গান পাগল মানুষ তা আমি জানি।

ভালো থাকুন।

০২ রা মার্চ, ২০২০ রাত ১০:৪৭

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: সবারই কিছু না কিছু প্রিয় বিষয় থাকে, যেমন আপনার ছবি তোলা, লেখালেখি, পড়াপড়ি, ব্লগাব্লগি, ঘোরাঘুরি, ইত্যাদি। তেমনি আমারো গান অন্যতম প্রিয় একটা বিষয়।

ভালো থাকুন রাজীব নুর ভাই।

৩| ০২ রা মার্চ, ২০২০ রাত ১০:৫৪

প্রেক্ষা বলেছেন: লেখক বলেছেন: খুব সুন্দর বলেছেন। আমরা গুণের কদর করতে ভুলে যাচ্ছি; রূপেই সমস্ত মোহ।

শুভেচ্ছা রইল।
ধন্যবাদ।সময় পেলে আমার ব্লগ বাড়িতে ঘুরে আসবেন।

০৩ রা মার্চ, ২০২০ বিকাল ৪:৫৬

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: আপনার ব্লগ ঘুরে এলাম। মুরগির বাচ্চাকে নিয়ে লেখাটা খুব ভালো লেগেছে।

শুভেচ্ছা আবারো।

৪| ০৩ রা মার্চ, ২০২০ সকাল ৭:৫৮

নেওয়াজ আলি বলেছেন: মনোমুগ্ধকর, অনন্যসাধারণ লেখা।

০৩ রা মার্চ, ২০২০ বিকাল ৫:০৩

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: আগের পোস্টে আপনার প্রতি একটা প্রশ্ন ছিল জনাব।

যাই হোক, সব পোস্টে আপনার উপস্থিতি আনন্দদায়ক।

শুভেচ্ছা নিন।

৫| ০৩ রা মার্চ, ২০২০ সকাল ৯:০৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: যে গান পছন্দ করে না সে মানুষ খুন করতে পারবে।

০৩ রা মার্চ, ২০২০ বিকাল ৫:১৫

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: যে ফুল পছন্দ করে না, সেও মানুষকে খুন করতে পারে। এগুলো মহৎ বাণী। গান আর ফুল মানুষের হৃদয় বিগলিত করে। যাদের হৃদয় নরম, তারাই গান ভালোবাসে, ফুল ভালোবাসে। কঠিন, রূঢ় মানুষের কাছে ফুল বা গানের কোনো মূল্য নেই, তাই তারা অনায়াসে যে-কোনো নির্মম কাজ করে ফেলতে পারে।

আপনার লাস্ট পোস্টের কয়েক লাইন পড়েছিলাম মাত্র- জ্বরের কথা বলেছেন। সুস্থ আছেন তো এখন?

শুভেচ্ছা রইল ঠাকুর মাহমুদ ভাই।

৬| ০৩ রা মার্চ, ২০২০ সকাল ১০:২২

মলাসইলমুইনা বলেছেন: সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই,
প্রেক্ষা -র মন্তব্যের কথাটাই আমারও বলতে ইচ্ছে করছে ।
আশাকরি ভালো আছেন । আপনার আব্বার নিউজ শুনে খুবই খারাপ লেগেছে ।
আল্লাহ আপনার আব্বাকে জান্নাত দান করুন সেই দোয়া করি।

০৩ রা মার্চ, ২০২০ বিকাল ৫:৩৮

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: ২০১৯-এর জুন থেকে দুই দফায় ২০-২৫ দিন করে বাবা হাসপাতালে ভর্তি ছিল। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে আমার বাসায়ই ছিল প্রতিবার ১০-১৫ দিন করে। বাবা ঠিকমতো ওষুধ খেত না, খাবারও খেত না। বাচ্চাদের মতো আদর করে ওষুধ খাইয়েছি এবং খাবার খাইয়েছি আমি। সেই বাবা আর বেঁচে নেই, এটা অনেক সময়ই মনে থাকে না। ফোন করে বাবার খবর নিতে যাব, এমনটা মনে হতেই মনে পড়ে বাবা এখন সকল খবরের উর্ধে।

বাবার জন্য আরো দোয়া করবেন নাইমুল ভাই। আপনাদের দোয়ায় আমি ভালো আছি।

অনেক অনেক শুভেচ্ছা আপনার জন্য।

৭| ০৩ রা মার্চ, ২০২০ বিকাল ৩:৫৮

মিরোরডডল বলেছেন: গুড টু সী ইউ ব্যাক । হোপ ইউ আর ওকে ।
প্রথমত, রূপ কখনোই ম্যাটার না কিন্তু সোলটা ম্যাটার ।
আর সেটা গানের ক্ষেত্রে হলেতো আরও ব্যাপার না ।
সুরটাই মনে থেকে যায় , লুক টা না ।
শেষের কথাটা খুবই সত্যি ।
‘সুরটাই হোল সমগ্র সৌন্দর্যের মূল রহস্য’

০৩ রা মার্চ, ২০২০ বিকাল ৫:৫৯

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: মাঝে মাঝেই ব্লগের জন্য মন উতলা হয়, তখন ব্লগেই সময় কাটাই। তবে, এটা হয়ত আমার একটা রোগ বা দুর্বলতা যে, খুব বেশি সময় ধরে ব্লগে থাকতে পারি না। ব্যক্তিগত/চাকরিগত কারণই প্রধান।

রূপ কখনোই ম্যাটার না কিন্তু সোলটা ম্যাটার ।
আর সেটা গানের ক্ষেত্রে হলেতো আরও ব্যাপার না ।
সুরটাই মনে থেকে যায় , লুক টা না ।


আপনি উপরের কথাগুলোয় এ পোস্টের সারমর্মটাই বলে ফেলেছেন। এটা অবশ্য আমার মৌলিক ভাবনা না, এবং এ ধারণা আমরা মোটামুটি সবাই বিশ্বাস করি। গুণহীন রূপ হলো মাকাল ফলের মতো, যা খাওয়া যায় না, কোনো কাজেও আসে না।

সুন্দর কমেন্টের জন্য ধন্যবাদ মিরোরডডল।

৮| ০৩ রা মার্চ, ২০২০ বিকাল ৪:৩৩

মিরোরডডল বলেছেন: ওহ আরেকটা কথা ।
না বললে ভুলে যাবো ।
পুরনো পোষ্টে কমেন্ট করেছিলাম ।
ব্যাস্ততার জন্য মনে হয় ধুলো দেখেনি ।
‘ব্লগীয় লেখা’ আর ‘আমার পাখীগুলো’

আরও একটা কথা ছিল
পরে এসে বলে যাবো

০৩ রা মার্চ, ২০২০ বিকাল ৫:১১

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন:
আরও একটা কথা ছিল
পরে এসে বলে যাবো


সে কথাটা আগে বলে যান, নইলে আপনিও ভুলে যেতে পারেন

৯| ০৩ রা মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:২৫

মিরোরডডল বলেছেন: কথাটা হচ্ছে সেই গানটা খুঁজে পেয়েছি ।
ধুলো বলেছিল শেয়ার করতে ।
কথা দিলে কথা রাখি তাই দিতে এসেছি ।

‘তুমি ভরেছো এ হৃদয় যেন সাগর নীলান্তে’

অর্থহীনের সুমন আর আনিলা করেছে ‘তুমি ভরেছো এ মন’ এটাও খুব সুন্দর কিন্তু
তার অনেক আগে প্রথমে সাইফ করেছিল বাংলাটা

অরিজিনাল ওয়ান ইজ দা বেস্ট ওয়ান
you fill up my senses

০৩ রা মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৯

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: ওয়াও! সিমপ্লি অসাধারণ। কিন্তু আমি অবাক হচ্ছি- সাইফের কণ্ঠ সুমনের কণ্ঠের কাছাকাছি! এই অ্যালবামে 'ঘুম আসে না' একটা গান দেখতে পাচ্ছি, সুমনেরও একটা দারুণ গান আছে- ঘুম আসে না।

আপনি বলার পর এটা আমি খুঁজেছিলাম, পাই নি। শেয়ার করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

১০| ০৩ রা মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০২

মিরোরডডল বলেছেন: সুমন এ যুগের । ভোকাল ইউনিক । শুনলেই বোঝা যায় এটা সুমন ।
আর সাইফের এই অ্যালবাম ৯২/৯৩ এরকম হবে । তখন গানগুলো জেনুইন ।
সাইফ অনেকি ট্যালেন্টেড ছিল । প্রথম অ্যালবাম ‘কখনো জানতে চেওনা’ সবগুলো গান তার নিজের লেখা, নিজের সুর করা আর ভোকালেও সেই । প্রথম দুটা অ্যালবাম খুব ভালো ভালো গান ছিল । তারপর হারিয়ে গেলো ।

০৩ রা মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৮

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: এবার আমি নিশ্চিত হলাম। আমি অ্যালবামে খুঁজছিলাম 'কখনো জানতে চেও না' নামে কোনো গান আছে কিনা, এবং এই সাইফ সেই গানেরই শিল্পী কিনা। ওটাও মোর দ্যান অসাধারণ একটা গান। ৯৩ সালে ক্যাসেট কিনেছিলাম এবং এই গানটা খুব শুনতাম। আমার বন্ধুদেরও এটা খুব প্রিয় গান ছিল, ইন ফ্যাক্ট এমন ভালো একটা গান প্রিয় না হয়ে পারে না।

আবারও অনেক অনেক ধন্যবাদ মিরোরডডল।

১১| ০৩ রা মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৪

মিরোরডডল বলেছেন: ধুলো এই দুটো লেখায় আমার কমেন্ট মিস করেছে তাই এখানে লিঙ্ক দিয়ে গেলাম
রিপ্লাই না করলে কিন্তু আর লিখবো না


https://www.somewhereinblog.net/blog/farihanmahmud/30271792#c12731175

https://www.somewhereinblog.net/blog/farihanmahmud/30287415#c12729484

০৩ রা মার্চ, ২০২০ রাত ৯:১৭

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: প্রিয় ডল, আমি দুঃখিত কমেন্টের রিপ্লাই টাইমলি না দেয়ার জন্য। কমেন্ট আমি দেখেছিলাম, তবে খুব হারিইডলি দেখায় পরে রিপ্লাই দিতে ভুলে যাই, যা আপনার কোনো এক কমেন্টে রিফ্লেক্টেড হয়েছে। আশা করি ভুল বুঝবেন না।

১২| ০৩ রা মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৬

মিরোরডডল বলেছেন: কখনো জানতে চেওনা গানটা খুবই সুন্দর । আরও অনেকগুলো প্রিয় গান আছে ।
কয়েকটা শেয়ার করলাম ।

পিছু ডাকার মানে নেই

হয়তোবা

যতই দুঃখ হয় হোক

০৩ রা মার্চ, ২০২০ রাত ৯:৩০

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: এই অ্যালবামের গানগুলো আবার পেয়ে ভালো লাগলো। অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে।

১৩| ০৪ ঠা মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০২

মিরোরডডল বলেছেন: এতো আদর করে সম্বোধন করলে কেউ কি ভুল বুঝে থাকতে পারে !!!
নো ভুল বোঝাবুঝি । অল গুড ।

০৫ ই মার্চ, ২০২০ দুপুর ১২:৪৪

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: খুব খুশি হলুম ডুলু :)

১৪| ০৫ ই মার্চ, ২০২০ দুপুর ২:০৪

মিরোরডডল বলেছেন: ডলইতো ভালো ছিল আবার ডুলু ??? হা হা হা
ইউ অলয়েজ মেইক মি লাফ : -)

০৫ ই মার্চ, ২০২০ দুপুর ২:২৩

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: ভালো যে ডলি বলি নাই

১৫| ০৫ ই মার্চ, ২০২০ দুপুর ২:২৮

মিরোরডডল বলেছেন: নো ওয়ে !!!!
প্লীজ ডোন্ট ।
Then I’ll quit

আচ্ছা ধুলো একটা প্রশ্ন করি ?

০৫ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৩:৪৫

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: প্রশ্নটা কী?

১৬| ০৫ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৪:০৩

মিরোরডডল বলেছেন: আমার ধৈর্য অনেক কম
সেই তখন সন্ধায় কি যেন জানতে চেয়েছিলাম আর এতক্ষনে ভুলে গেছি সেটা

০৫ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৪:০৭

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: আমার ধৈর্যের অন্ত নাই

১৭| ০৫ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৪:০৫

মিরোরডডল বলেছেন: *সন্ধ্যায়*

০৫ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৪:০৮

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: প্রশ্ন মনে পড়লে জিজ্ঞাসা করতে কার্পণ্য করবেন না

১৮| ০৫ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৪:২৩

মিরোরডডল বলেছেন: ধুলো why you never been in my home ?

তাই ? তাহলে ধৈর্য কম পড়লে I’ll borrow from you

০৫ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৪:৩২

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন:


এখানে কখনো বর্ষা ছিল না
এখানে রুক্ষ গ্রীষ্মরোদ
মাটির গন্ধে সুবাস ছিল না
আমায় করেছে নিঃস্ব রোজ


১৯| ০৫ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৪:৪৮

মিরোরডডল বলেছেন: বাহ !! অপূর্ব
ধুলো এতো সুন্দর কি করে লেখে ...

আজ এখানে ঝুম বৃষ্টি হয়েছে
বৃষ্টিতে ড্রাইভ করতে সেইরকম ভালো লাগে

আর মাটির গন্ধ
সেটাতো আমাকে পাগল করে

০৫ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৪:৫২

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: ওয়াও, ঝুমবৃষ্টি কথাটাতে নস্টালজিক হলাম। অনেক আগে লেখা নীচেরটা :



বৃষ্টি

আমার এখানে টুকরো টুকরো উদাসী অলস মেঘ
রেশমি ছাতার বৃষ্টি
মেঘদরজায় তার অপরূপ একফালি ঝুমদৃষ্টি।

তার ওখানে বৃষ্টি কি আজ হলো?

নিত্য ছড়ায় ডালপালামূল বুকের বটবৃক্ষ
পায়ের তলায় ঝরনা খোঁজে নিগূঢ় অন্তরীক্ষ।

সাঁঝবেলাতে নামবে বৃষ্টি আজ
কুন্তলে তার পরিয়ে দেবে হাসনাহেনার তাঁজ

৬ আগস্ট ২০০৮

২০| ০৫ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৫:৩১

মিরোরডডল বলেছেন: This is written in colloquial language that’s why I could reach there.
That’s how it meant to be so that as a reader I could find a connection.
খুব ভালো লাগলো

০৬ ই মার্চ, ২০২০ দুপুর ১২:০৬

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: পাঠকের হৃদয় ছুঁতে পারা বিরাট এক প্রাপ্তি, যা খুব বিরল।

২১| ০৬ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৩:৫৩

মিরোরডডল বলেছেন: সেদিক থেকে ধুলো ভাগ্যবান ।
আমি ধুলোর পুরনো অনেক লেখা পড়েছি ।
অনেক গুলোই ভালো লেগেছে ।
পাঠকরা যথেষ্ট কানেকটেড দেখলাম ।

০৬ ই মার্চ, ২০২০ বিকাল ৫:২৫

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: নিজেকে ভাগ্যবানই মনে করছি। পুরোনো লেখাও পড়েছেন জেনে তো নিজেকে আরো বেশি ভাগ্যমান মনে হচ্ছে।

পাঠক আমার সাথে কতখানি কানেকটেড তা ডিপেন্ড করে আমি পাঠকের সাথে কতখানি কানেক্টেড তার উপর। ২০১৩ পর্যন্ত খুব অ্যাক্টিভ ছিলাম ব্লগে। তাই সেই সময়ে কানেকশন ছিল ভালো। এখন সত্য বলতে কী, তেমন মজা পাই না :(

ধন্যবাদ।

২২| ০৬ ই মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১১

মিরোরডডল বলেছেন: এটা সত্যি কানেকশানটা নির্ভর করে পাঠক লেখক উভয় পক্ষের ওপর ।
Did you ever try to find out the reason why you can’t find interest anymore?
I think it’s time.
Time changes everything.
সময় আর জীবন পাশাপাশি চললেও জীবন সময়ের ওপর অনেকি নির্ভর করে ।
সময়ের সাথে সাথে জীবন বদলায় ।
সময় জীবনকে ডমিনেইট করে ।

০৬ ই মার্চ, ২০২০ রাত ৮:১৩

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: Did you ever try to find out the reason why you can’t find interest anymore? আমার কাছে মনে হয়েছে, মানুষের কোনো নেশাই দীর্ঘস্থায়ী নয়, চিরস্থায়ী তো নয়ই। ফেইসবুক আসার পর ব্লগিং-এ আর চাঙ্গা ভাবটা নেই। তেমনি, ইউটিউব আবার কেড়ে নিয়েছে ফেইসবুকের আসক্তি। তো, সবগুলো সাইডে সময় ভাগ হয়ে যাওয়া, অন্যদিকে ইউটিউবে বেশি সময় চলে যাওয়ায় ব্লগে কনসেন্ট্রেশন খুব কমে গেছে।

এ ছাড়া, সাংসারিক ও প্রোফেশনাল কমিটমেন্ট তো আছেই।

সময়ের সাথে সাথে জীবন বদলায় ।
সময় জীবনকে ডমিনেইট করে ।
খুব সুন্দর বলেছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.