নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

শব্দকবিতা : শব্দেই দৃশ্য, শব্দেই অনুভূতি \n\[email protected]

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই

দুঃখের কবিতাই শ্রেষ্ঠ কবিতা। ভালোবাসা হলো দুঃখ, এক ঘরে কবিতা ও নারী।

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই › বিস্তারিত পোস্টঃ

অম্লবচন

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১০:৪১

উড়োচিঠি

প্রায় প্রতিদিনই আমার নামে একটা উড়োচিঠি
আসতো, আজেবাজে কথা, নানান অপবাদে ভরা
পাশে বসে গম্ভীর মুখে সে চিঠি পড়ে শোনাতো
আমারই ঘনিষ্ঠ বন্ধু। একদিন বন্ধুটি ধরা খেলো-
রোজ রোজ সেই আমার নামে উড়োচিঠি লিখে পাঠাতো
সেই থেকে আমাদের বন্ধুত্ব হারিয়ে গেলো।

ব্লগেও আমার এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু এখন আর সামনে
দাঁড়াতে পারেন না। কয়েকটা মাল্টিনিক খুলে প্রতিদিন
আমাকে খোঁচাতেন, ঘৃণা ছড়াতেন পরতে পরতে।
আমি শুরুতেই বুঝেছিলাম, এটা এ ঘনিষ্ঠ ব্লগারেরই কাজ।
সবগুলো নিক খুইয়ে এখন বড্ড মুষড়ে পড়েছে তিনি।
ভেবে পাই না, কীভাবে মুখ দেখাবেন কখনো
সামনাসামনি দেখা হলে?

আপনার নোংরামিই বন্ধুত্ব নষ্টের মূল কারণ।


পুত্রবধূরা


একজন ‘স্বামী’ লুকিয়ে তার মা-বাবাকে টাকা পাঠাতো
লুকিয়ে কেন? স্ত্রীর ভয়ে।
সেই স্ত্রীর মা-বাবা এখন অনাহারে, অর্ধাহারে
মানবেতর জীবন কাটান। কারণ- স্ত্রীর ভাইয়েরা তাদের
স্ত্রীদের ভয়ে মা-বাবার ভরণ-পোষণ পরিত্যাগ করেছেন।

আপনার শ্বশুর-শাশুড়িকে পুত্রসেবা থেকে বঞ্চিত করবেন?
বাড়িতে আপনার মা-বাবাকেও প্রস্তুত রাখুন; ভ্রাতৃ-বধূরা
আপনাকেই অনুসরণ করছেন।

এবং নিজেও যথাযথ প্রস্তুতি নিন – একদিন তো
আপনিও শাশুড়ি হবেন, পালাবেন কোথায়? আপনার
কর্ম আপনাকেই প্রতিফল দেবে।


খাঁচা

সংসারটাকে খাঁচা বানাবেন না। যে-চোখে মেয়েকে দেখেন
সে-চোখেই দেখুন পুত্রবধূকে।
আপনার পুত্রবধূ আপনার আরেকটা কন্যা, আপনার
বাসার ‘চাকরানি’ না। তেমনি সে নয় আপনার ‘সেবাদাসী’ও।
আপনার পুত্রবধূরও মা-বাবা আছেন; তাদের দেখতে
মন চায়। যেতে দিন। আপনার ঘরে
কি কোনো কন্যাসন্তান নেই? তাহলে মনে রাখুন,
সেও একদিন শ্বশুর বাড়ির খাঁচায় আটকে যেতে পারে,
সেও হয়ে উঠতে পারে একজন ‘রহিমা খালা’। কেমন লাগবে?

খোঁজ নিয়ে দেখুন, আপনার তল্লাটে
এমন পরিবারও আছে, যারা পুত্রবধূকে বাবার বাড়িতে
পাঠানোর আগে মাসখানেক ধরে
বৈঠক করতে থাকেন, অনুমতি দেবেন কী দেবেন না-
আর নিজের কন্যা ফুরত ফুরত প্রতিসকালে আসছে,
যাচ্ছে সন্ধ্যায়। এমন পাষাণের ঘরে কোন মেয়ে বউ
হয়ে টিকতে পারে?


ক্ষণস্থায়ী বন্দোবস্ত

রূপ, যৌবন, ক্ষমতা ও সম্পদ নিয়ে আমাদের
অহঙ্কার সবচাইতে বেশি, অথচ এগুলো খুবই ক্ষণস্থায়ী।
‘মেধা’ ও ‘প্রতিভা’ নিয়েও আমাদের আস্ফালন কম নয়
কিন্তু, আমরা ভুলে যাই, ওস্তাদেরও একজন ‘ওস্তাদ’
রয়েছেন, আর আমার ‘জ্ঞানে’ও রয়েছে প্রচুর ঘাটতি
ও ফাঁকি।


মানুষের মন


মানুষের মন হলো নদীর স্রোতের মতো, যেদিকে ঢালু
সেদিকে গড়ায়। ভালোবাসার মানুষকে বিরতিহীন
ভালোবাসুন, আপনার অনুপস্থিতিতে আপনার জায়গাটি
চলে যাবে অন্যের দখলে।


শিক্ষক

একজন শিক্ষকের আচরণ কখনো উদ্ধত হবে না। তিনি
বিনয়, জ্ঞান ও নৈতিকতার প্রতীক। তিনি অন্যায়
করেন না, প্রশ্রয়ও দেন না- তিনি ‘প্রতিবাদী’, কিন্তু মার্জিত।
ইদানীং শিক্ষকদের নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে প্রচুর;
কিছু শিক্ষকের ‘উদ্ধত’ ও অসদাচরণই এর কারণ; এরা
শিক্ষক নামের ‘কলঙ্ক’। এদের উচিত নিজেদের ভুলগুলো
শোধরানো; কেউ নিজেকে পরিশুদ্ধ করতে ব্যর্থ হলে
তাকে ‘প্রত্যাহার’ করাই সর্বোত্তম পন্থা।

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

মন্তব্য ৫২ টি রেটিং +১৪/-০

মন্তব্য (৫২) মন্তব্য লিখুন

১| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:৪৯

রাজীব নুর বলেছেন: উড়োচিঠি টা আমাকে ভাবাচ্ছে।

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:৫৬

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: উড়োচিঠিটা আপনাকে ভাবাচ্ছে - এ ব্যাপারটা এখন আমাকে ভাবাচ্ছে।

২| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:৫১

রামিসা রোজা বলেছেন:
সত্যবচন সবসময়ই অম্লবচন হয় ।
উড়োচিঠি পুত্রবধূর খাঁচা ক্ষণস্থায়ী বন্দোবস্ত এবং শিক্ষক
সবকটিতেই আপনি অমূল্য কথা লিখেছেন।
কিন্তু মানুষের মন পুরুষদের বেলাতেই বেশি যায় অধিকাংশে
তাই বলে সবার ক্ষেত্রে নয় ।
চমৎকার লেখা, ধন্যবাদ ।

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:০০

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: মূল্যবান মতামতের জন্য ধন্যবাদ আপু। বচনগুলো কোনোটাই সবার ক্ষেত্রেই সমানভাবে প্রযোজ্য নয়। কিন্তু ঘটনাগুলো যে ঘটছে, তা নিয়ে সন্দেহের অবকাশ নেই। মানুষের মন নিয়েও সেটা বলা যায়, এটা পুরুষের ক্ষেত্রে বেশি ঘটে, নাকি নারীর ক্ষেত্রে বেশি- এ ধরনের কোনো গবেষণা আছে কিনা জানি না, কিন্তু ভালোবাসা না পেলে মনটা যে আর 'ফাঁকা' থাকবে না, তা নির্দ্বিধায় বলা যায়, তবে, এটাও সবার ক্ষেত্রেই যে ঘটবে না, তাও সত্য।

আবারো ধন্যবাদ আপু।

৩| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:০১

খায়রুল আহসান বলেছেন: শিরোনামের বানানটা বোধহয় সামান্য এদিক-সেদিক করে ফেলেছেন!
সঠিক কথাটা হবে 'অমূল্যবচন'!

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:০৮

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: হাহাহাহা, স্যার, আমি একটু কনফিউশনে পড়ে গেলাম আপনার কমেন্টে - এটা কি ফান করলেন, নাকি সিরিয়াসলি? এটা 'অম্ল' বচনই হবে, বলতে পারেন আমার এ ধরনের পোস্টগুলোর সর্বশেষ সিকোয়েল এটা, যেমন আগেরটা ছিল 'অম্লতিক্ত অপ্রিয় সত্যাবলি'। এটা হতে পারতো 'অম্লতিক্ত অপ্রিয় সত্যাবলি-২'। একটু বৈচিত্র আনার জন্যই 'অম্লবচন' নাম দিয়েছি - টক বচন, বা এসিডিক ভার্সেস :)

তবে, অমূল্যবচন তো অবশ্যই। নিজের বচনগুলোকে তো আর অমূল্য বলা যায় না :)

অনেক ধন্যবাদ স্যার। কমেন্টটাকে 'প্রশংসা' হিসাবে নিচ্ছি, যেহেতু বাচ্যগুলো আপনার কাছে অমূল্যতুল্য মনে হয়েছে।

অনেক অনেক শুভকামনা স্যার।

৪| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:১২

খায়রুল আহসান বলেছেন: এটা কি ফান করলেন, নাকি সিরিয়াসলি? - আমি বোধহয় একজন সিরিয়াস মানুষ। তাই মাঝে মাঝে ফান করলেও, বা করার চেষ্টা করলেও, সেটা বিফলে যায়!
কি আর করা!!

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:২৩

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: তাহলে তো স্যার খুবই লজ্জার মধ্যে পড়ে গেলাম :( আমার কথাগুলো আপনার মতো মহান ব্যক্তি 'অমূল্য' বলে ফেললে মুখ দেখাবার জায়গা পাব না তো!

সবিশেষ কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি স্যার।

৫| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:২৮

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: ভালো লাগলো।

আল্লাহর রহমতে এমন উড়ো চিঠি আমার নামে আসেনি।
ভালৈা থাকুন

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:৪২

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: ভালো লাগলো জেনে খুশি হলাম আপু। আল্লাহর রহমতে উড়োচিঠি আসে নি, এটা স্বস্তির কথা। 'উড়োচিঠি'টা প্রতীকী; ব্লগে মাল্টিনিকের আক্রমণ দ্বারা যেন কেউ অ্যাবিজ্‌ড না হোন, আমাদের সেদিকে সতর্ক থাকতে হবে।

পোস্ট পড়ার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।

৬| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:২৯

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: উড়োচিঠি - ঈর্ষা আর হিংসা মানুষকে ধ্বংস করে। মানুষের মনস্তত্ত্ব অনেক জটিল।
পুত্রবধু - নারীরা আপনার উপর রাগ করবে। সংবেদনশীল লেখা।
খাঁচা - এটা বধুদের পক্ষে আর শাশুড়িদের বিপক্ষে। কথা মিথ্যা বলেন নি।
ক্ষণস্থায়ী বন্দোবস্ত - আমাদের বাহ্যিক সৌন্দর্য এবং মেধা উভয়ই আমাদেরকে দান করেছেন এক মহান সত্তা। আমরা অনেকে তা না মেনে অহংকার করে ফেলি।
মানুষের মন - অনেকে ভালবাসে কিন্তু যাকে ভালবাসে তাকে তা সঠিকভাবে জানাতে পারে না। ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ জরুরী। নয়তো আপনার ভালবাসা জলে যাবে।
শিক্ষক - আগে ডাক্তার আর শিক্ষককে মানুষ সবচেয়ে বেশী সম্মান করতো। এখন এদের ব্যাপারে মানুষ শঙ্কিত (ব্যতিক্রম ছাড়া) ।




২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:০২

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: প্রতিটা টপিকের উপর আলাদা আলাদা কমেন্ট খুব ভালো লাগলো।

পুত্রবধূরা - লেখাটা সংবেদনশীল, স্বীকার করি। যিনি রাগ করবেন তাকে ভাবতে হবে, তিনি শুধু কারো স্ত্রীই নন, কারো বোনও, আবার তিনি নিজেই একদিন শাশুড়ি হবেন। অতএব, রাগটা তিনি কার উপর করবেন? ঘুরেফিরে নিজের উপরই তো সেই রাগ বর্ষিত হবে।

হ্যাঁ, ডাক্তার আর শিক্ষকদের ব্যাপারে যা বলেছেন, আমি একমত।

সুন্দর বিশ্লেষণের জন্য অনেক ধন্যবাদ।

৭| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:৪২

নেওয়াজ আলি বলেছেন: এইসব সত্য কথা নিয়ে বর্তমান সমাজ । তবে ইট মারলে পাটকেল খেতে হবে

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:০৫

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: আগে মানুষ ইট মেরে পাটকেল খাওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতো। এখন জানে, ইট মারলে কল্লা যাবে :( তবু এটা মানা যায়, কিন্তু আপনি কোনো অপরাধ না করেও যদি অত্যাচারের শিকার হোন, সেটাকে কী বলবেন?

৮| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:৩০

উম্মে সায়মা বলেছেন: হক কথা। কিন্তু এসব তো লোকে মানতে চায়না। এজন্যই সমাজজুড়ে এত অশান্তি।

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:৪৭

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: আইন বা নীতিকথা না মানা হলো মানুষের বেসিক ইনস্টিংক্‌ট। কারণ, মানুষ স্বাধীনচেতা প্রাণী, আপন মনে চিন্তা করে আপনার মতো, অন্যের ক্ষতি হলো, নাকি ভালো হলে, এটা বিবেচনা করে কদাচিৎ। কিন্তু, মানুষের মধ্যেই কেউ না কেউ পথ দেখাবেন, বিপথগামীদের টেনে এনে সুপথে চালাবেন। সমাজের 'শিক্ষিত' শ্রেণি হিসাবে আমাদের সবারই এ ব্যাপারে কিছু না কিছু করার আছে।

কমেন্টের জন্য ধন্যবাদ আপু। ভালো থাকবেন।

৯| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৪:৫৫

মোঃমোস্তাফিজুর রহমান তমাল বলেছেন: শিক্ষকের ব্যাপারটায় পুরোপুরি একমত আপনার সাথে।মার্জিত ভাষায় প্রতিবাদ বা দ্বিমত প্রকাশ করতে হবে। কারণ তিনি শিক্ষক। তিনি অনেকের আদর্শ।তিনি চান বা না চান তিনি প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে শিক্ষা দিয়ে থাকেন। বচনগুলো অম্ল হলেও অমূল্য।

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:৫৩

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: একজন শিক্ষক একটা সমাজের আদর্শ। দেশেরও আদর্শ তিনি। ছোটোবেলায় দেখেছি, যে-কোনো কনফ্লিক্ট সমাধানের জন্য মানুষ শিক্ষকের দ্বারস্থ হতো। শিক্ষকের অবস্থান ও আদর্শ সেই পর্যায়ের ছিল। এখনো আছে। তবে, কিছু কিছু শিক্ষকের আপত্তিকর ও দূষণীয় কর্মকাণ্ডের জন্য এ পেশাটা এখন খুবই বিতর্কিত হয়ে যাচ্ছে। একজন শিক্ষককে অনুসরণীয় ও অনুকরণীয় বৈশিষ্ট্যের অধিকারী হতে হবে, যার দ্বারা তার ছাত্ররা অনুপ্রাণিত হবে এবং শিক্ষা লাভ করবে।


সুন্দর মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ তমাল ভাই।

১০| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:১৪

কবিতা পড়ার প্রহর বলেছেন: ঘনিষ্ঠ মানুষেরাই শত্রুতা করে। আবার কেউ কেউ অজ্ঞাত স্বভাবে।

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১৬

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: সুন্দর মন্তব্য করেছেন প্রহর। ধন্যবাদ সেজন্য।

চিলেকোঠার পরের পর্ব কবে আসছে?

১১| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১৯

মিরোরডডল বলেছেন:

ধুলো, আজ দুদিন পর এসে লগিন করেই মনটা খারাপ হয়ে গেলো । ইউ নো হোয়াট ?

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৪০

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: মন আছে বলেই মন খারাপ হবে। এরপর মন আরো সজীব ও সতেজ হয়ে ওঠে। কোনো ব্যাপার না। চিয়ার্স।

১২| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫০

মিরোরডডল বলেছেন:



ধুলো, ইউ ডোন্ট ইভেন নো কি হয়েছে ।
দুটো নোটিস, একটা হচ্ছে প্রথম পাতায় ব্যান করা হয়েছে ।
আরেকটা হচ্ছে ব্যান তুলে নেয়া হয়েছে ।

But the question is, I don’t even know when and why this thing happened.
What did I do wrong. No clue at all :(

জানলামও না কি কারনে, এটা হলো একটা কিছু !!!
আমার এমন কোনও পোষ্ট বা কমেন্ট দেখছিনা যার জন্য ব্যান করতে পারে :(
অদ্ভুত !


২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫৯

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: মন খারাপের যেমন অনেক কারণ থাকতে পারে, মন ভালো হওয়ারও থাকতে পারে অনেক উপকরণ। যাই হোক, আমার কাছে ব্যাপারটা খুব সরল মনে হচ্ছে। এটা সিমপ্লি একটা টেকনিক্যাল এরর হতে পারে। আপনার ব্যান হওয়ার কোনো কারণ ছিল কিনা এটা মডারেটরদের আগে আপনি নিজে জানবেন, কারণ, অফেন্সটা ঘটিয়ে থাকেন আপনি। আপনি যেহেতু জানেন এবং কনফিডেন্ট যে আপনি ওরকম কিছু করেন নি, এটা মাস্ট বি একটা টেকনিক্যাল এরর, এবং কিংবা হিউম্যান এররও হতে পারে। ব্যান দিয়েই যেহেতু তুলে নেয়া হয়েছে, এরর ডিটেক্ট করতে পেরেই ওটা তুলে নেয়া হয়েছে বলে ধারণা করছি।

হ্যাপি, অর নট?

মন যদি খারাপ হয়েও থাকে, ব্যান তুলে নেয়ার জন্য তো এতক্ষণে ড্যান্স শুরু করা উচিত। চিয়ার্স।

১৩| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০০

মিরোরডডল বলেছেন:

থ্যাংকস ধুলো, গানটা আমার ভীষণ পছন্দের ইউ নো ।
ভিডিওতে আমার প্রিয় রুনার অনেক সুন্দর সুন্দর ছবি দেখে ভালো লাগলো ।

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১২

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: রুনা লায়লার আরেকটা অসাধারণ দেশাত্মবোধক গান পেলাম কয়েকদিন আগে, যেটা আগে শুনি নি। ওটাও কয়েকদিনের মধ্যে আপলোড করবো। একজন ইউটিউবার-লিসনারের রিকোয়েস্টে ওটা খুঁজে বের করতে হয়েছিল।

১৪| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১০

মিরোরডডল বলেছেন:



হ্যাপি হ্যাপি :)

ধুলো যখন ড্যান্সের কথা বলেই ফেললো , আমার প্রিয় একটা কনটেম্পোরারি ড্যান্স ।







২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:০৩

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: এটা দারুণ ছিল। খুবই পাওয়ারফুল ভয়েস, মেলোডিয়াস এবং কোরিওগ্রাফি ও ডান্স অসাধারণ। লাবিবকে ডেকে বললাম এটা শুনেছে কিনা এবং গাইতে পারবে কিনা। সে শুনেছে এটা, তবে তার মুখস্থ নেই। লাবিব ব্যস্ত আছে একটা অনলাইন কম্পিটিশনে গান সাবমিট করা নিয়ে। ওর দুটো গান অডিও রেকর্ড করলাম - Gotye - Somebody that I used to know এবং Radiohead - creep

১৫| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৯

নাসরিন ইসলাম বলেছেন: সত্যি বাস্তব জ্ঞানের অভাবে আমরা যা করা দরকার, যেভাবে করা দরকার, সেটা ভাবতেই চাইনা। সবসময় ঋছি নিজেকে নিয়েই। অন্যদের নিয়ে ভাববার ফুসরতই নেই।

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:০৬

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: অনেক সুন্দর কথা বলেছেন। সত্যিই, আমরা সবসময় নিজেকে নিয়েও ব্যস্ত আছি, অন্যদের নিয়ে ভাববার ফুরসত নেই।

আপনাকে অনেক ধন্যবাদ পোস্ট পড়ার জন্য এবং শুভ কামনা।

১৬| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:১৭

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
পুত্রবধূরা সচেতন হও, সাবধান হও।
যেমন কর্ম তেমন ফল সময় থাকতে করো ভয়!


অসাধারণ সোনাবীজ ভাই !
প্রতিটি কাব্যই গভীর ভাবে
চিন্তার খোরাক যোগায়।

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:২২

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ প্রিয় নূরু ভাই। আগের পোস্টে আপনার মূল্যবান মতামত আশা করেছিলাম।

শুভেচ্ছা আপনার জন্য।

১৭| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১০:৪০

রাজীব নুর বলেছেন: সবার মন্তব্য গুলো ভালো লাগলো।

২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১০:৫০

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: সবার মন্তব্যগুলো ভালো লাগলো জেনে খুশি হলাম রাজীব নুর ভাই। যাওয়ার আগে প্লিজ বলে যান, উড়োচিঠি আপনাকে ভাবাচ্ছে কেন? :)

১৮| ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১:০৯

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই ভাই, এখন ভয়ঙ্কর সময় চলছে! - আমার ব্যক্তি জীবনে গত ৩৫০-৪০০ বছরের ইতিহাস মন দিয়ে পড়েছি ও শুনেছি আমার নিজের প্রয়োজনেই - পুরো ইতিহাসে সময়টা খারাপ, সময়টা ভয়ঙ্কর কথা আছেই! অর্থাৎ খারাপ ও ভালো সব সময় ছিলো।

লেখাটি মন খারাপ থেকে লিখেছেন বুঝতে পারছি। রাত জেগে মাঝে মাঝে এটা সেটা রান্না করার অভ্যাস থাকলে চিরা মুড়ি ভেজে খেতে পারেন ভালো লাগবে।

শুভ কামনা রইলো ভাই।

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ৮:৫৬

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: প্রিয় ঠাকুরমাহমুদ ভাই, শুরুতেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি এত দেরিতে উত্তর দেয়ার জন্য। গত পরশু রাতে আপনার পেঁয়াজ সংক্রান্ত পোস্ট পড়ার পরই শুয়ে পড়ি, আপনার কমেন্ট পড়েছি আগেই, কিন্তু কিছু কাজের চাপে আর উত্তর দেয়া হয় নি।

নিজের প্রয়োজনে পারিবারিক ইতিহাস পড়ছেন, এটা খুব ভালো লাগলো জেনে। আপনার কোনো এক পোস্ট থেকে জানতে পেরেছি, এক ঐতিহ্যবাহী, ইতিহাস-সমৃদ্ধ, সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান আপনি। আপনার পারিবারিক ইতিহাস শুধু আপনাদের নিজস্ব ইতিহাসই হবে না, তাতে জাতীয় ইতিহাসও নিঃসন্দেহে সংশ্লিষ্ট বা অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িত থাকবে। ইতিহাস আসলে আমাদের শক্তি ও অনুপ্রেরণার উৎস। ভবিষ্যতের প্রয়োজনেই আমাদের ইতিহাস জানা প্রয়োজন, তা যত ভয়ঙ্করই হোক না কেন, কারণ, সেই ইতিহাস একটা নতুন পথের সন্ধান দিয়ে থাকে।

রাত জেগে আমি কিছু খাই দাই না, কিন্তু আপনার কথা শুনে তো অবাক হচ্ছি :) আমার বড়ো ছেলে হলো পুরাই রাতজাগা পাখি :) রাত ২/৩টা তিনটার পর থেকে কিচেনে তার রান্নাবান্নার শব্দে আমার ঘুম ভেঙে যায় :) নুডুলস, সসেস, নাগেট, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, কত কী যে সে রাঁধে- আমি অস্থির! :) আমি ঝালমুড়ি খুব পছন্দ করি, চিড়াভাজাও অনেক ফেভারিট, তবে বাসায় আমার স্ত্রী ভেজে দেয়, কিন্তু এখন বাজার থেকেও কিনে আনি। খুব মজাদার একটা খাবার।

আপনার জন্য অনেক অনেক শুভকামনা রইল প্রিয় ঠাকুর মাহমুদ ভাই।

১৯| ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ৮:১৯

শোভন শামস বলেছেন: শুভ কামনা রইলো

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ৮:৫৮

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: আপনার জন্যও শুভকামনা রইল শোভন শামস ভাই।

২০| ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ৯:১৯

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: উড়োচিঠিটা পড়ে মজা পেলাম। :D

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ৯:৪৮

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: উড়োচিঠি পড়ে মজা পেয়েছেন জেনে ভালো লাগলো দেশ প্রেমিক বাঙালী ভাই। আপনার জন্য শুভেচ্ছা থাকলো।

২১| ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১০:০২

এমএলজি বলেছেন: লেখাটি ভালো লেগেছে। ধন্যবাদ।

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ৯:৫৩

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: শুভেচ্ছা আপনাকে। ধন্যবাদ লেখাটা পড়ার জন্য।

২২| ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:৪৯

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
প্রতিটি বচনই বর্তমানের জন্য প্রযোজ্য। সবার চোখ খুলুক , আবেগ নয় বিবেক দিয়ে কাজ করুক।

+++++

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ৯:৫৬

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন:
সবার চোখ খুলুক , আবেগ নয় বিবেক দিয়ে কাজ করুক।
অনেক ধন্যবাদ প্রিয় মাইদুল সরকার ভাই, বিশেষ করে 'বিবেক' শব্দটার অবতারণার জন্য। পুরো লেখাটাই বিবেককে ঘর্ষণ করে শাণিত করার উদ্দেশ্যে। সবার বিবেক বোধ জাগ্রত হোক, এই কামনা করি।

শুভেচ্ছা রইল।

২৩| ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ২:৪৮

ঘনশ্যাম বলেছেন: উপলব্ধিগুলো চমৎকার। আমি একটি বিষয় জানতে চাচ্ছি- সেটা হল লেখাগুলো আমার কাছে গদ্যফর্মের মনে হয়েছে, কিন্তু এই গদ্যের লাইনগুলো কেন কবিতার মত ভেঙে লেখা হল? নতুন কোনো ফর্মে এক্সপেরিমেন্ট টাইপ কিছু?

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১০:২৫

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: প্রিয় ঘনশ্যাম @

শুরুতে আমার ব্লগে আপনাকে স্বাগত ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। উপলব্ধিগুলোকে চমৎকার বলায় অনুপ্রাণিত। লেখার ফর্ম নিয়ে জানতে চাওয়ায়ও আনন্দিত হয়েছি। এ ফর্মটা কোনো এক্সপেরিমেন্ট না, এভাবে লিখতে ভালো লাগে কিছু জিনিস, এজন্য লিখি। তবে, লাইলগুলো যদি খেয়াল করেন, তাহলে হয়ত দেখবেন, নিছক গদ্য লিখলে কথাগুলো হয়ত অবিকল এভাবেই লিখতাম না। শুধু রেফারেন্স হিসাবে রেকর্ড রাখার জন্য আমার আগের এমন রচনাগুলোর লিংক এখানে জড়ো করলাম :

তোমার অন্তর্জ্বালা

আমি তোমার সম্মানের কথা বলতে এসেছি

আধুনিক কবিতার প্যাটার্ন

অম্লতিক্ত অপ্রিয় সত্যাবলি

অম্লবচন-২


পোস্ট পড়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।



২৪| ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ৮:৫৪

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: সত্যিই অম্ল বচন ই বটে। তবে আমিও শ্রদ্ধেয় খায়রুল আহসান স্যারের সঙ্গে সহমত রেখেই বলবো, শিরোনামে একটু টাইপো হয়ে গেছে,অমূল্য বচন হতে পারতো। হেহেহে..
শুভেচ্ছা প্রিয় সোনাবীজ ভাইকে।

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১০:২৮

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: হাহাহাহাহা। আপনিও তাহলে এগুলোকে 'অমূল্য' বচন বললেন!!! :) লেখকজীবনটা খুব ধন্য মনে হচ্ছে এখন :) খায়রুল আহসান স্যারকে আবারো ধন্যবাদ এবং আপনার প্রতিও ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা প্রিয় পদাতিক চৌধুরী ভাই। শুভেচ্ছা।

২৫| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ২:১১

মা.হাসান বলেছেন: মাল্টিবাবুদের মাঝে মাঝে দেখি। কয়েকমাস আগে নূরু ভাইয়ের পোস্টে এদের বাড়াবাড়ি লক্ষ্য করেছিলাম। কিছুদিন আগে স্বয়ং মডুর পোস্টে ফ্লাডিং শুরু করেছিলো। এদের হাত থেকে মনে হয় রেহাই নেই। ব্লগে আমি অনেক পরে এসেছি, ২০১৬তে অ্যাকাউন্ট খোলা হলেও ২০১৮র নভেম্বরের আগে ব্লগে হাতে গোনা কয়েকবার এসেছি। এই সব মাল্টিবাজ কারা ধারণা নেই, তবে মনে হয় দু-তিন জনই ঘুরে ফিরে এই সব কাজ করে। আমি নিজে ব্লগে প্রতিদিন আসার সময়ও পাই না, , অথচ এই সব লোকদের এত এনার্জি - কোথা থেকে আসে অবাক লাগে।

সমাজ পচে গেলে ডাক্তার, রাজনীতিবিদ, শিক্ষক সবাই ই পচবে। সবাই পচবে আর শিক্ষক ভালো থাকবে এটা সম্ভব না।

খাঁচা বা পুত্রবধুর বিষয়ে কিছু বলার বুকের পাটা আমার নাই। তবে এটুকু বলি, আল্লাহর কাছে শুকরিয়া , আমি শান্তিতে আছি।

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:৩২

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: মাল্টিবাজদের ব্যাপারে কিছু টেকনিক্যাল স্টেপ নেয়া উচিত, যেমন, আইপিসহ ব্যান। তাহলে মূল নিকসহই তারা আটকে যাবেন। অবশ্য কিছুটা অ্যানালাইসিস করেও কিছু ধারণা লাভ করা যায় এ কাজটা কে বা কারা করতে পারেন। কাজগুলো ঘৃণ্য, কোনোমতেই সমর্থনযোগ্য না।

সমাজ পচে গেলে ডাক্তার, রাজনীতিবিদ, শিক্ষক সবাই ই পচবে। সবাই পচবে আর শিক্ষক ভালো থাকবে এটা সম্ভব না। খুবই চমৎকার কথা বলছেন। আমরা প্রত্যকেই সেই পচনশীল পদার্থের অংশে পরিণত হচ্ছি। কিন্তু এর থেকে ছুটে বেরিয়ে আসতে হবে, খুব জরুরি এটা। নিজেদের একেকটা পরিবারকে একেকটা ক্ষুদ্র ইউনিট হিসাবে বিবেচনা করে প্রতিটা ইউনিটকে পরিশুদ্ধ হবার চেষ্টা করতে হবে, এভাবেই হয়ত সামগ্রিকভাবে এগোনো সম্ভব হবে।

খুব শান্তিতে আছেন, এ ব্যাপারটা খুব শান্তি দিল। শান্তিতে থাকতে পারা কঠিন ব্যাপার।

কমেন্টে অনেক ভালো লাগা প্রিয় হাসান ভাই। শুভেচ্ছা রইল।

২৬| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ২:৪৮

মুক্তা নীল বলেছেন:
ভাই ,
আপনার প্রতিটি ছোট ছোট কথার ব্যাখ্যা পড়তে ভালো
লাগছে । পুত্রবধূ , খাঁচা , মানুষের মন, শিক্ষক ...
যা লিখেছেন সঠিক অমূল্য বাণী । এছাড়া অন্যান্য গুলো
ভালো হয়েছে । ধন্যবাদ আপনাকে।

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১০:২৫

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: আপু, প্রতিটি ছোটো ছোটো কথার ব্যাখ্যা পড়তে আপনার ভালো লাগায় আনন্দিত। ধন্যবাদ পড়ার জন্য। ভালো থাকবেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.