নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

দিন প্রতিদিন

জানা

জানা › বিস্তারিত পোস্টঃ

মাতৃভাষা বাংলার চর্চা হোক সর্বত্র এবং সার্বজনীন

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ সকাল ১০:৪৩

মাতৃভাষা হচ্ছে মানুষের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি এবং কৃষ্টির পরিচয় পত্র। সন্তানের জন্যে মায়ের অস্তিত্ব যেমন গুরুত্বপূর্ণ, মানুষের সুস্থভাবে প্রকাশিত হওয়ার জন্যে, বিকশিত হওয়ার জন্যে মাতৃভাষারও তেমনি বিকল্প নেই। বিশ্বজুড়ে সকল মাতৃভাষাই শ্রদ্ধার, ভালবাসার এবং সম্মানের। বাঙালীর জীবনে মাতৃভাষা বাংলা প্রতিষ্ঠায় যে অনন্য গৌরবময় ইতিহাস জড়িয়ে আছে, যে মূল্যবান আত্নত্যাগ মিশে আছে তা বোধ করি বিশ্বে আর কোথাও নেই। মাতৃভাষা বাংলাকে রাষ্ট্রভাষার মর্যাদার দাবিতে ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারিতে বাঙালীর সর্বোচ্চ আত্নত্যাগ একদিকে যেমন আমাদের মাতৃভাষাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠা দিয়েছে তেমনি পরবর্তিতে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রেরণা, অসীম শক্তি ও সাহসের সুচনা করে দিয়েছে, বাঙালিকে আত্নবিশ্বাসী, দৃঢ় আর সুসংবদ্ধ হতে উজ্জীবিত করেছে। মাতৃভাষার জন্যে এমন গৌরবমন্ডিত আন্দোলন এবং অর্জনের পরিপ্রেক্ষিতে ১৯৯৯ সালের ১৭ই নভেম্বরে জাতিসংঘ ২১শে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা দেয়। ভাষা, সংস্কৃতি ও কৃষ্টি সম্পর্কিত বিষয়ে শ্রদ্ধা ও সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ২০০০ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি থেকে দিনটি বিশ্বব্যাপী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। আমাদের এই পাওয়া বড় মর্যাদাময় আত্নত্যাগের ফসল। আমাদের দায়িত্ব এবং কর্তব্য মাতৃভাষা বাংলাকে যোগ্য মর্যাদার সাথে ব্যাপক চর্চা, সুষ্ঠু পরিচর্যা ও ঘরে-বাইরে সর্বত্র প্রচলন নিশ্চিত করা।

শিশুর মুখে বোল ফোটে মায়ের কোলে, মায়ের ভাষাতেই। তাই যত্নের সাথে মাতৃভাষাটি শিশুর মনে এবং মস্তিষ্কে গেঁথে দেয়ার প্রথম দায়িত্বটি মায়েরই। মা -বাবা এবং পরিবারের অন্যান্যদের সচেতনতায় একটি শিশু মাতৃভাষায় দক্ষ হয়ে ওঠে, নিজস্ব সংস্কৃতি, কৃষ্টি এবং সঠিক ইতিহাস বিষয়ে সম্যক ধারণা পায়। সত্যিকারের ব্যক্তিত্ব বিকাশ, দেশপ্রেম ও স্বদেশের প্রতি দায়বদ্ধতা শিখে বেড়ে ওঠে। দুর্ভাগ্যজনক বিষয় হলো, এখন অনেক মা-বাবাই সন্তানের সম্ভাবনাময় ভবিষ্যতের স্বপ্নে মাতৃভাষার পরিবর্তে ইংরেজী শিক্ষাকেই প্রাধান্য দেন এমন কি সঠিকভাবে বাংলা বলতে, পড়তে এবং লিখতে না পারা বা ইংরেজী বাংলার মিশ্রণে ইংরেজী কায়দায় কথা বলায় গৌরব বোধ করে উৎসাহিত করেন। ফলে দু'টি ভাষার কোনটিই পরিপূর্ণভাবে শেখা হয়ে ওঠে না। এতে যে বড় ক্ষতিটা হয় তা হলো নিজস্ব সংস্কৃতির প্রতি অনিহা এবং মাতৃভাষার স্থলে আরোপিত এক বিচিত্র মিশ্র ভাষার চর্চার আগ্রাসন প্রতিষ্ঠিত হয়।

ভাষা বিশ্বময় যোগাযোগের সেতু। মাতৃভাষার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ভাষা ইংরেজী বা ভিন্ন ভিন্ন ভাষা শিক্ষা এবং পারদর্শিতা হাজারো সম্ভাবনার দুয়ার খুলে দেয়। বিশ্বের সাথে যোগাযোগের পথ প্রসারিত হয়, মানুষ আন্তর্জাতিক হয়ে ওঠে। তবে ভাষার ভিতটি হচ্ছে মাতৃভাষা। মানুষ তখনই ভিন্ন একটি ভাষায় পারদর্শিতা আনতে বিশেভাবে সক্ষম হয় যখন সে তার মাতৃভাষাটিকে সর্বোচ্চ গুরুত্বের সাথে, মর্যাদার সাথে রপ্ত করে, চর্চা করে এবং পরিচর্যা করে।

পৃথিবীর সপ্তম বৃহত্তম ভাষা হলো আমাদের মাতৃভাষা বাংলা। বাংলাদেশ, পশ্চিম বঙ্গ, আসাম, ত্রিপুরাসহ বিশ্বজুড়ে পঁচিশ কোটিরও কিছু বেশী মানুষ বাংলায় কথা বলে। এর মধ্যে বাইশ কোটি মানুষের মাতৃভাষা বাংলা হলেও বাকী তিন কোটি মানুষ কেবল ভালবেসে শিখে নিয়েই বাংলাকে দ্বিতীয় ভাষা হিসেবে চর্চা করে। সেখানে বাংলা আমাদের মায়ের ভাষা হওয়া সত্বেও এমন অবজ্ঞা কেন! অবহেলা কেন! পাঁচ পাঁচটি যুগ পেরিয়ে যাবার পরেও আমরা মাতৃভাষা বাংলাকে সেই যোগ্য উচ্চতায় প্রতিষ্ঠিত করতে পারিনি! এ বড় পরিতাপের বিষয়।

আমাদের সরকারী-বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালত, ব্যবসা-বানিজ্য সর্বস্তরে বাংলা ভাষার প্রচলন নিশ্চিত হওয়া উচিত। বাংলাভাষা বিজ্ঞানের ভাষা, জীবিকার ভাষা হওয়া উচিত। পারিবারিক এবং সামাজিক সচেতনতার পাশাপাশি রাষ্টীয় জোরালো উদ্যোগে আমাদের সেই ১৯৫২'র আবেগ, দেশপ্রেম, আত্নমর্যাদাবোধ আর শহীদের রক্তে রাঙা ২১শে ফেব্রুয়ারির প্রতি সত্যিকারের ভালবাসা, শ্রদ্ধাবোধ অক্ষুন্ন রাখা সম্ভব।

গৌরবমন্ডিত মাতৃভাষা বাংলার জন্যে ভাষা শহীদ এবং ভাষা সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধা এবং কৃতজ্ঞতা।

মন্তব্য ৩৯ টি রেটিং +১৭/-০

মন্তব্য (৩৯) মন্তব্য লিখুন

১| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ সকাল ১০:৫৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


৫২ সাল থেকে আজ অবধি কত কোটী বাংলা-ভাষী মানুষ স্কুলে যাবার সুযোগ পায়নি? উনারা কিন্তু বাংলা বলেন, সেই বাংলা দিয়ে আমরা কি করবো?
আজ ২১ শে'র ভোরে ১৭ কোটী বাংগালীর মাঝে কমপক্ষে ৭ কোটী বাংগালী বাংলা লিখার ক্ষমতা রাখে না; পড়ালেখার সুযোগ না পেলে সেই মানুষের ভাষার কোন মুল্য নেই।

২| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ সকাল ১১:০০

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: আমাদের সরকারী-বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালত, ব্যবসা-বানিজ্য সর্বস্তরে বাংলা ভাষার প্রচলন নিশ্চিত হওয়া উচিত। বাংলাভাষা বিজ্ঞানের ভাষা, জীবিকার ভাষা হওয়া উচিত। পারিবারিক এবং সামাজিক সচেতনতার পাশাপাশি রাষ্টীয় জোরালো উদ্যোগে আমাদের সেই ১৯৫২'র আবেগ, দেশপ্রেম, আত্নমর্যাদাবোধ আর শহীদের রক্তে রাঙা ২১শে ফেব্রুয়ারির প্রতি সত্যিকারের ভালবাসা, শ্রদ্ধাবোধ অক্ষুন্ন রাখা সম্ভব।

গৌরবমন্ডিত মাতৃভাষা বাংলার জন্যে ভাষা শহীদ এবং ভাষা সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধা এবং কৃতজ্ঞতা।

৩| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ সকাল ১১:০২

ব্লগ সার্চম্যান বলেছেন: গৌরবমন্ডিত মাতৃভাষা বাংলার জন্যে ভাষা শহীদ এবং ভাষা সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধা এবং কৃতজ্ঞতা।

৪| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ সকাল ১১:১১

আব্দুল্লাহ তুহিন বলেছেন: চমৎকার লিখেছেন,
ভালো লাগা রেখে গেলাম,

একুশ নিয়ে আমার এ পোস্টটা পড়ার জন্য অনুরোধ রইল,
পোস্ট লিংক

৫| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ সকাল ১১:২৯

তার আর পর নেই… বলেছেন: যখন মোবাইলে বাংলা লিখতে পারতাম না, ইংরেজি বর্ণে বাংলা অথবা শুধু ইংরেজি লিখতাম তখন অনুভব করতাম এই বাংলা কতটা জড়িয়ে আছে!

শহীদদের প্রতি ভালবাসা আর শ্রদ্ধা।
আর এটুকু চাওয়া তো থাকেই সবাই যেন বাংলা ভালো করে বলতে পারে।

পোস্টে ভালো লাগা রইলো।

৬| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ দুপুর ১২:০৭

মোঃ সাইফুল্লাহ শামীম বলেছেন: ...........আমাদের দায়িত্ব এবং কর্তব্য মাতৃভাষা বাংলাকে যোগ্য মর্যাদার সাথে ব্যাপক চর্চা, সুষ্ঠু পরিচর্যা ও ঘরে-বাইরে সর্বত্র প্রচলন নিশ্চিত করা।

আজকের এই মহান দিনে, এটাই হোক আমাদের দৃপ্ত শপথের গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

৭| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ দুপুর ১২:২৫

দিশেহারা আমি বলেছেন: আপনার কঠিন ও জটিল বাংলা পড়তে গিয়ে দাঁত ভাঙ্গার উপক্রম B-))

সকল শহীদদের প্রতি ভালবাসা আর শ্রদ্ধা।

৮| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ দুপুর ১:৩০

জনৈক অচম ভুত বলেছেন: সকল ভাষা সৈনিকদের প্রতি রইল বিনম্র শ্রদ্ধা।

৯| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ দুপুর ১:৫৩

আরজু পনি বলেছেন:

প্রিয় জানা, আজকের মতো মহান একটি দিনে আপনার কাছ থেকে ভাষা নিয়ে পোস্টটি পেয়ে খুব ভালো লাগছে ।

মাতৃভাষায় সাহিত্য চর্চা করার সুবিধে করে দেবার জন্যে আপনার এবং আড়িল-এর প্রতি রইল কৃতজ্ঞতা ।

আপনারা অনেক ভালো এবং নিরাপদে থাকুন ।

১০| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ রাত ৯:১৯

বিজন রয় বলেছেন: গৌরবমন্ডিত মাতৃভাষা বাংলার জন্যে ভাষা শহীদ এবং ভাষা সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধা এবং কৃতজ্ঞতা।

++++

১১| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ রাত ৯:৩০

আবু শাকিল বলেছেন: নিজ ভাষায় আলাপ আলোচনার সুযোগ করে দেবার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ । লেখায় অনেক সুন্দর এবং প্রয়োজনীয় কথা বলেছেন ।
একুশের চেতনা উজ্বীবিত হোক সকল বাংলা ভাষাভাষীর হৃদয়ে।
ধন্যবাদ।
সুস্থ এবং সুন্দর থাকুন প্রিয় জানা আপু।অনেক দোয়া রইল।

১২| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ রাত ১০:১১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: গৌরবমন্ডিত মাতৃভাষা বাংলার জন্যে ভাষা শহীদ এবং ভাষা সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধা এবং কৃতজ্ঞতা।

১৩| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ রাত ১০:৪৩

সোজোন বাদিয়া বলেছেন: উচিত কাজটা করবে কে বা কারা, এবং কীভাবে করবে? স্বাধীনতার পর ৪৪ বছর কেটে গেল। তবুও কেন সেই একই কথা বলতে হচ্ছে, যা আমরা ৫০-৬০ বছর আগেও বলতাম। এভাবে কতদিন চলবে? ত্রুটি হয়ে থাকলে মার্জনা করবেন।

১৪| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ রাত ১০:৪৫

মুদ্‌দাকির বলেছেন: সামু আর অভ্রকে ধন্যবাদ।

১৫| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ রাত ১০:৪৮

দিশেহারা রাজপুত্র বলেছেন:
মাতৃভাষা বাংলার চর্চা হোক সর্বত্র এবং সার্বজনীন


এই সুযোগটা করে দেবার জন্য ধন্যবাদ।

একুশের শুভেচ্ছা।

১৬| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ রাত ১১:৩৫

নেক্সাস বলেছেন: চমৎকার লিখেছেন। আপনার সাথে সুর মিলিয়ে একি আহবান আমারো। একুশের এই দিনে আপনার প্রতিও ও মিঃ অরিল্ডের প্রতি রইলও কৃতজ্ঞতা। অন্তর্জালে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য চর্চার সুযোগ টুকু করে দেওয়ার জন্য।

১৭| ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ রাত ১২:১৩

কান্ডারি অথর্ব বলেছেন:



সত্যি কথা বলতে সামুর কারণে আজকে আমাদের মত সাধারণ মানুষ দুই চারটা মনের কথা সবার সাথে ভাগাভাগি করে নেয়ার সুযোগ পেয়েছে।

কৃতজ্ঞতা সামুর প্রতি সব সময়ের জন্য।

১৮| ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ রাত ১২:৩১

সুরূজ বাঙালি বলেছেন: সকল ভাষা সৈনিকদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা।প্রতি বছর কমপক্ষে একবার মডারেটর পরিবর্তন করার অনুরোধ রইলো।

১৯| ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ রাত ১:৫৮

এক নিরুদ্দেশ পথিক বলেছেন: গৌরবমন্ডিত মাতৃভাষা বাংলার জন্যে ভাষা শহীদ এবং ভাষা সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধা এবং কৃতজ্ঞতা।

২০| ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ রাত ২:০৩

আহসানের ব্লগ বলেছেন: মাতৃভাষা বাংলার চর্চা হোক সর্বত্র এবং সার্বজনীন

২১| ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ সকাল ৮:৫৩

মাঈনউদ্দিন মইনুল বলেছেন:


//দূর্ভাগ্যজনক বিষয় হলো, এখন অনেক মা-বাবাই সন্তানের সম্ভাবনাময় ভবিষ্যতের স্বপ্নে মাতৃভাষার পরিবর্তে ইংরেজী শিক্ষাকেই প্রাধান্য দেন এমন কি সঠিকভাবে বাংলা বলতে, পড়তে এবং লিখতে না পারা বা ইংরেজী বাংলার মিশ্রনে ইংরেজী কায়দায় কথা বলায় গৌরব বোধ করে উৎসাহিত করেন। ফলে দু'টি ভাষার কোনটিই পরিপূর্ণভাবে শেখা হয়ে ওঠে না।//

এমন অভিভাবক আছেন, যাদের সন্তানেরা ইংরেজি বিদ্যালয়ে পড়ার পরও বিদেশি ভাষায় অধিকতর দক্ষতার জন্য তারা পারিবারিক পরিবেশেও ইংরেজিতে কথা বলেন। একে বলা যায়, মানসিক দৈন্যতা। নিজের ভাষাকে মর্যাদা দিতে না পারা অভিভাবকদের প্রতি আমার করুণা হয়।

'ইন্টারনেটে বাংলা লেখতে পারার কারণে' যে বাংলা চর্চায় কতটুকু উন্নয়ন হয়েছে, সেটি গবেষকরা হয়তো ভালোমতো পরিমাপ করতে পারবেন। আমি মনে করি এর সুফল অপরিমেয়। নতুন প্রজন্মকে যে 'মুরাদ টাকলা' বাংলায় লেখতে হচ্ছে না, এই একটি কারণে বাংলা ভাষার চর্চা এগিয়ে যাবে বহুদূর। প্রযুক্তির সাথে বাংলাকে সংযোগ করতে পারার জন্য সামহোয়্যারইন ব্লগ ইতিহাসের নায়ক হয়ে থাকবে।




দু'টি শব্দ চিহ্নিত করলাম। অন্তত আপনার কাছে ভালো পাঠকের প্রমাণটুকু দাখিল করে রাখাকে ছোয়াবের বিষয় মনে করলাম B-)

২২| ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ সকাল ১০:০৪

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: অফিসে উচ্চতর শিক্ষা অর্জনে বাংলাভাষার ব্যবহার অনেক সীমিত । অনেক বিদেশী শব্দ প্রচুর ব্যবহার হচ্ছে দাপ্তরিক কাজে । এর জন্য কর্মকর্তা বা কর্মচারীদের বাংলা ভাষায় দক্ষতার অভাব কম দায়ী নয় । ইংরেজী শব্দ বাংলায় লিখে ব্যবহার করা হচ্ছে । উচ্চতর অধ্যায়নে এই সমস্যা আরও প্রকট । উন্নত রাষ্ট্রগুলো নিজেদের ভাষায় উচ্চতর অধ্যায়নের ব্যাপারটিতে প্রাধান্য দিচ্ছে। তারা মাতৃভাষার মাধ্যমেই উচ্চতর শিক্ষা দিচ্ছে । আমরাও ব্যাপারটিতে একটা প্রচেষ্টা নিতে পারি । সর্বক্ষেত্রে মাতৃভাষা বাংলার ব্যবহার বা ব্যবহার উদ্যোগ ভাল ফলাফল বয়ে আনবে । শুধু ফেব্রুয়ারীর (?) ২১ তারিখে এর প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধ হবে আবার তা হারিয়ে যাবে এমন হওয়া কাম্য নয় । বিজ্ঞানের অনেক শব্দের বাংলা অর্থ করা এখনো সম্ভব । আর কিছু বাংলা করতে গেলে দাতভাঙ্গা কিংবা সুদীর্ঘ অসুন্দর লাইনের অপসৃষ্টি হয় । এসবও মাথায় রাখতে হবে । মাতৃভাষা বাংলা আজ বিশ্বের দরবারে বিশেষ সম্মানের জায়গায় স্থান করে নিয়েছে । আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতি ২১শে ফেব্রুয়ারীর ঘটনা তথা এই বাংলার ঘটনাকে বিশ্বের দরবারে বারবার তুলে ধরছে ।সবাই আন্তরিক হলে সর্বক্ষেত্রে শুদ্ধ বাংলার ব্যবহার কষ্ট সাধ্য হলেও অসাধ্য নয় । সবাইকে ভাষাদিবসের শুভেচ্ছা আর মহান ভাষা আন্দোলনকারীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা থাকলো ।

২৩| ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ সকাল ১০:৫০

বঙ্গভূমির রঙ্গমেলায় বলেছেন:
ধন্যবাদ আপনাকে আপু সামু ব্লগের মাধ্যমে আমদেরকে বাংলা ভাষার চর্চা সুযোগ দেয়ার জন্য।

এটা বাংলা ভাষার প্রতি এটা দারুণ একটা অবদান।

ভাল থাকবেন আপা।

২৪| ০৪ ঠা এপ্রিল, ২০১৬ বিকাল ৪:০৮

তানজির খান বলেছেন: ভাল লাগলো পোস্ট। আপনার ১০০০ তম অনুসরণকারী হওয়ার লোভ সামলাতে পারলাম না। শুভকামনা রইল

২৫| ১১ ই এপ্রিল, ২০১৬ সন্ধ্যা ৬:৪৮

হাফিজ বিন শামসী বলেছেন: "মানুষ তখনই ভিন্ন একটি ভাষায় পারদর্শিতা আনতে বিশেভাবে সক্ষম হয় যখন সে তার মাতৃভাষাটিকে সর্বোচ্চ গুরুত্বের সাথে, মর্যাদার সাথে রপ্ত করে, চর্চা করে এবং পরিচর্যা করে।"

ওপরের কথাটি খুবই বাস্তব।
ভিনদেশী ভাষা রপ্ত করার জন্য প্রথমে দরকার মাতৃভাষার গাঁথুনি। মাতৃভাষার গাঁথুনি যত মজবুত হবে ভিনদেশী ভাষা রপ্ত করা তত সহজ হবে।

২৬| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৬ রাত ৩:২২

গোফরান চ.বি বলেছেন: স্বাধীন দেশের ১ নাম্বার ব্লগে আজ আমি পরাধীন। অন্যায় ভাবে আমাকে কমেন্ট ব্যান করা হয়েছে । আপনার প্রতি শ্রদ্ধা/ভালোবাসা প্রকাশ যদি দোষের হয় তবে তা আমাকে মেইল দিয়ে জানালেই হতো। তা না করে আমার পোস্ট ডিলেট এবং আমাকে জেনারেল শুধু করেনি আমাকে কমেন্ট ব্যানও করা হয়েছে।

জানি এই নিকটি ও হত্যা করে আমাকে আরেকবার বাকরুদ্ধ করা হবে। কিন্তু মুজিব সেনারা আসবে। ওরা ভয় পায়না সম্মানিত ব্লগ মাতা। ওরা ঠিকই এক একজন সালাম রফিক জব্বার বরকত হয়ে ফিরে আসবে।

ভালো লাগলো আপনার পোস্ট খানা।

২৭| ১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৬ রাত ১১:১৩

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: খুব ভাল লাগল লিখাটি। প্রিয়তে গেল ।

২৮| ০১ লা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১১:৫৬

পিকাচু বলেছেন:
হ্যাপি নিউ ইয়ার ম্যাডাম :`>
আমার ১০০তম কমেন্ট আপনাকে দিলাম ম্যাডাম :``>>

২৯| ১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:০৭

এস এম ওবায়দুল্লাহ তানযিম বলেছেন: আপনার লেখা অনেক ভাললেগেছে।

৩০| ১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:১৫

ফরিদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন: পোষ্টের সাথে একমত।

৩১| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:৩৭

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: আপু ধন্যবাদ আপনাকে সামু ব্লগের মাধ্যমে আমদেরকে বাংলা ভাষার চর্চা করার সুযোগ করে দেয়ার জন্য। এই পোষ্টটি সময় সাময়িক ও দিবসের তাৎপর্যপূর্ণ অনেক উন্নত মানে লিখা হয়েছে। যাদের মননে মায়ের ভাষা এর জন্য আপনার কর্ম চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

৩২| ২৭ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ রাত ৮:৪৬

বিলিয়ার রহমান বলেছেন: লেখাটি আপনি যখন লিখেছেন সামহোয়ারইন...ব্লগে তখন আমার জন্মই হয়নি!:)

ব্লগিং করছি খুব অল্প সময়ই হলো! তবে এইটুকুন সময়েই ব্লগটাকে ভালোবেসে ফেলেছি! নিজের মনে ঠাঁই দিয়ে দিয়েছি!:)মাতৃভাষা চর্চার এই যে প্লাটফর্মটা আপনি তৈরি করে দিয়েছেন তার জন্য কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি!:)

আপনার পোস্টে মন্তব্যের মাধ্যমে রইলো একুশের সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি !:)

ভালোথাকুন!:)

অনেক অনেক শুভকামনা!:)

৩৩| ৩০ শে মে, ২০১৭ সকাল ১০:৩৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনার কাছে "রাজীব নুর" নিকের জন্য অনুরোধ; "রাজীব নুর" ব্লগারটি খুবই প্রাণবন্ত ব্লগার; উনার স্টাটাসটি বদলে গেছে, আপনি একটু সাহায্য করুন।

ধন্যবাদ।

৩৪| ২৮ শে জুলাই, ২০১৭ রাত ৮:০৩

আমি চির-দুরন্ত বলেছেন: জানা আপু , আপনার কাছে অনুরোধ করছি , আমার মডারেশন স্ট্যাটাস টা যদি সেফ করা সম্ভব হয়। লাভ হবে কিনা জানিনা। তবুও বললাম। আমি মোটামুটি নতুন।তাই আমার ভুল ত্রূটি ক্ষমা করে যদি সেফ করে দিতেন তাহলে চির কৃতজ্ঞ থাকবো।। আসলে জেনারেল জিনিসটা খুবই কষ্টকর। আস্তে আস্তে লেখার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছি এর কারনে।

৩৫| ০৩ রা আগস্ট, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৪৭

সনেট কবি বলেছেন: দেড় বছর ধরে একটা পোষ্ট কত আর পড়া যায়। নতুন কিছু যদি লিখতেন তবে নতুন কিছু জানা যেত।

৩৬| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৭ রাত ১২:৫২

মিঃ আতিক বলেছেন: আপু মনি আপনাকে ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক।

৩৭| ১৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৭ সকাল ১১:৩১

সনেট কবি বলেছেন:




জানাপিকে নিবেদন

জানাপি জানেন কিনা আমাদের মনে
আপনি আসন করে কেমন আছেন?
আমাদের ইচ্ছে করে আপনার স্নেহ
মমতার বাণী পেতে নিজের লেখায়।
আমার সনেট সংখ্যা ছাড়াল এখন
জিকোয়েমো লিন্টিনির ওয়াল্ড রেকর্ড
সে আপনার সামুর কারণে হয়ত
এ লেখায় আপনাকে সে কথা জানাই।

এখন স্বীকৃতি পাব কিভাবে জানিনা
আপুনি আপনি যদি সেপথ দেখান
তাহলে এমন পাবে আনন্দ সাগর।
মানুষ পারেনা একা করতে কিছুই
সহায়তা চাই তাই বীনিত অন্তরে
জানিনা মিলবে কিনা আপুনির সাড়া।

৩৮| ১০ ই জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৭

রাজীব নুর বলেছেন: ভালো লিখেছেন।

৩৯| ১১ ই জুলাই, ২০১৮ রাত ৯:২১

শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া) বলেছেন: শ্রদ্ধেয় আপু, আমাদের মাঝে ফিরে আসুন। মাঝেমধ্যে ব্লগে ঢু মারুন । আমাদের ভালো লাগবে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.