নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

কলাবাগান১

বাংলাদেশ হোক রাজাকার মুক্ত

কলাবাগান১ › বিস্তারিত পোস্টঃ

বাংলাদেশে নিয়ানডার্থাল জিন: করোনার প্রাদুর্ভাব

০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:১১


ঘন্টা খানিক আগে একটা সাইন্টিফিক পেপার প্রকাশ হয়েছে.....পড়ে মাথা বন বন করে ঘুরছে....এত দেশ থাকতে কেন শুধু বাংলাদেশে????? এশিয়াতে তো করোনার প্রাদুর্ভাব কম এবং সেটা ব্যাখা করে ও একটা পোস্ট দিয়েছিলাম মাস দুয়েক আগে..

আপনার সবাই জানেন যে কিছুদিন আগেই বিজ্ঞানী রা বের করেছেন যে আমাদের কিছু ডিএনএ (gene) যেটা ক্রমোজম তিন এবং ৯ এ আছে, সেখানের কিছু জিন কভিড আক্রান্ত দের মাঝে ডিফারেন্ট অন্যদের চেয়ে যারা কভিড এ আক্রান্ত হয় নি, অথবা আক্রান্ত হন না... ক্রোমজম ৯ এ যে জিন আমাদের ব্লাড গ্রুপ ডিসাইড (ABO locus) করে সেখানে দেখা যাচ্ছে যে যারা A type blood group তারাই বেশী আক্রান্ত হচ্ছেন। আর যারা O type, তারা বেশী আক্রান্ত হচ্ছেন না....

কিন্তু এখন সেই ক্রোমজম ৯ এর ABO theory আরো কঠিন পরীক্ষা এর পর ভুল বলে প্রমানিত হয়েছে...। এটা পাবলিশ করেছে
COVID-19 host genetics initiative
কিন্তু তারা ১০০% সিউর যে ক্রোমজম তিন এর ডিএনএ অনেক ডিফারেন্ট যারা কভিড আক্রান্ত হচ্ছেন অন্যদের তুলনায় যারা আক্রান্ত হচ্ছেন না।

আজ বিশ্ববিখ্যাত বিজ্ঞানী ড: Svante Pääbo from German Max Planck Institute and Dr. Hugo Zeberg from Sweden's famous Karolinska Institute একটা 'পেপার' পাবলিশ করেছেন এই ক্রমোজম ৩ এর ভেরিয়েশন সোর্স খুজে পাওয়া নিয়ে।
আপনারাও দেখতে পারেন এখানে
The major genetic risk factor for severe COVID-19 is inherited from Neandertals

আপনারা জানেন যে নিয়ানডার্টাল (অথবা নিয়ানডার্থাল) হল ৫০,০০০ বছর আগে মানুষের মত দেখতেই আরেক প্রজাতি যারা বিলীন হয়ে গিয়েছে..তবে আফ্রিকা থেকে যখন আদিম মানুষ ইউরোপ/ এশিয়াতে ছড়িয়ে পড়ে, তারা তখন নিয়ানডার্টাল দের সাথে দেখা হয় এবং তারা যৌন সংগমও করে...এরই ফলশ্রুতিতে আধুনিক মানুষ এখনও কিছু ডিএনএ বহন করে যেটা এসেছে নিয়ানডার্টাল থেকেই। সেই ডিএনএ আমাদের ২৩ টা ক্রমোজমেই ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে....তবে কভিড এর সাথে সংশ্লিস্ট যে নিয়ানডার্থাল ডিএনএ সেটা আছে ক্রোমজম তিন এ ....যাদের মাঝে নিয়ানডার্থাল এর এই ৫০,০০০ অক্ষর এর ডিএনএ আছে, তারাই বেশী করে কভিড এ আক্রান্ত হচ্ছেন।

সারা পৃথিবীতে খুব কম সংখ্যক লোকের মাঝে এই নিয়ানডার্থালএর এই ৫০,০০০ অক্ষর এর ডিএনএ আছে ক্রমোজম তিন এ। ইউরোপের ৮% লোকের আছে কিন্ত সবচেয়ে বেশি আছে সাউথ এশিয়াতে (প্রায় ৩০%)। সর্বোচ্চ ৬৩% লোকের এই ডিএন এ আছে
সারা পৃথিবী এর মাঝে মাত্র একটা দেশের লোকজনের মাঝে আর সেই দেশটার নাম
বাংলাদেশ!!!!!!!!!!!!
আমার মতে এই ক্রমোজম ৩ এর ডিএনএ হয়ত কিছুটা এক্সপ্লেইন করতে পারে বাংলাদেশে করোনার ইনফেকশান কে...কিন্তু টোটাল ইনফেকশান আরো অন্য ফ্যাক্টর দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। পুরুষ মানুষ বেশী মারা যাচ্ছে....বাংলাদেশের পুরুষের কোন জিন
(on Y chromosome) কি বাংলাদেশের নিয়ানডার্থাল জিন গুলি কে নিয়ন্ত্রন করছে??? যেটা অন্য দেশে হচ্ছে না??? সম্ভব.... ওয়াই ক্রমোজমের ভ্যারিয়েশন এর ফলে হয়ত কেউ খুব ব্যাপক আকারে সক্রমিত হচ্ছেন আবার অন্যরা রেসিসটেন্ট হচ্ছেন। ডাটা কিন্তু তাই বলে...আমেরিকার অর্ধেক জনসংখ্যা, হাসপাতাল এ ব্যবস্হা অপ্রতুল. তাও মৃত্যু সংখ্যা আমেরিকার তুলনায় অনেক কম (২০০০ বনাম ১৩০০০০)।


মন্তব্য ৬৪ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (৬৪) মন্তব্য লিখুন

১| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:১৮

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: আপনাকে নোবেল প্রাইজ দেয়া উচিত!!!

আরো গবেষনা করেন হয়তো আরো কিছু পাবেন।

০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:২০

কলাবাগান১ বলেছেন: এটা তো আমি গবেষনা করি নাই...কারা করেছে তাও বলেছি....আপনার মাঝে বোধহয় কোন ডিএনএ নাই

২| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৩৪

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: আপনার এবড়ো থবেড়ো লেখায় কি নিজের ডিএনএ খুঁজে পান???
সকালে কি চা খেয়েছেন না অন্য কিছু?

০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৪৩

কলাবাগান১ বলেছেন: কলেজ পাশ করেছেন বোধ হয়..তাহলে DNA বানান তো করতে পারেন

৩| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৩৬

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: সারা পৃথিবী বাদ দিয়ে সব বাংলাদেশে পাওয়া যাচ্ছে !!!!

০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৪৬

কলাবাগান১ বলেছেন: Max Planck Institute published this paper and read it (link is given).....It is not my conclusion.....It is their findings.....They found it in 1000 Genome project where Bangladesh is represented
https://www.internationalgenome.org/data-portal/search?q=bangladesh

৪| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৪৬

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: আপনি অক্সফোর্ড থেকে পাশ করেছেন তাই আপনার বানান ঠিক আছে!!!

০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৪৯

কলাবাগান১ বলেছেন: আমি প্রাচ্যের অক্সফোর্ড ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করেছি...ডিএনএ এর বানান এখানেই শিখেছি...

৫| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৫২

বিজন রয় বলেছেন: বাপুরে আমি বৈজ্ঞানিক কথা কম বুঝি।

০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৫৫

কলাবাগান১ বলেছেন: বাংলাদেশের ৬৩% লোকের মাঝে নিয়ানডার্থাল ডিএনএ আছে যেটা কভিড এ আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে তুলে...।

৬| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৫৬

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: Among the individuals in the 1000 Genome Project, the Neanderthal-derived risk haplotypes is almost
completely absent in Africa, consistent with that gene flow from Neandertals into African populations
was limited and probably indirect (Chen et al. 2020). The Neandertal haplotype occurs in South Asia
at a frequency of 30%, in Europa at 8%, among admixed Americans at 4% and at lower frequencies in
East Asia. The highest frequency occurs in Bangladesh, where more than half the population (63%)
carries at least one copy of the Neandertal risk variant and 13% is homozygous for the variant. The
Neandertal variant may thus be a substantial contributor to COVID-19 risk in certain populations


--- আমাদের দূর্বল স্বাস্থ্য নীতি / স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনার জন্য বিভিন্ন এনজিও গুলো সুযোগ বুঝে যে গবেষণা করে যা্চ্ছে প্রতিনিয়ত সেই দিকে আমাদের ভ্রুক্ষেপ নেই। যে সেটা সঠিক ফল প্রকাশ/ নাকি বিশ্ব রাজনীতির সূক্ষ্য ইনজেকশন!

----আমাদের দেশে মানুষের উপর অনেক গবেষণায় হয়! তাদের স্বার্থে - আমাদের উপকারে নয়। বর্ণিত রিপো্র্টের আলোকে আবারও হয়তো কোন দেশ এ দেশের উপর নতুন অনুদান শুরু করবে এই সুযোগে !!

০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:০৯

কলাবাগান১ বলেছেন: সারা পৃথিবীতে শুধু বাংলাদেশ কে নিয়েই ষড়যন্ত্র করে বিশ্বের তাবদ শক্তিশালী দেশগুলি???? আপনাদের মত কন্সপিরিউসি থিয়োরীতে বিশ্বাসী লোকদের অস্ত্র একটাই ...।

এটা তো বিজ্ঞান... দেশে জোনোম সিকোয়েন্স এখন হচ্ছে....আপনি পারলে ১০০ জন লোকের থেকে ডিএনএ নিয়ে এই ৫০,০০০ বেইস পেয়ার ডিএনএ কে সিকোয়েন্স করে দেখুন এবং জার্মানীর ম্যাস্ক প্ল্যাংক এর মত প্রতিস্টান কে ভুল প্রমানিত করুন..তারা কত ব্ড় বেকুব এত বড় একটা ষড়যন্ত্র মুলুক গবেষনা বিনা প্রমানে ছাপিয়ে দিল!!!!!!!!

৭| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:০০

মা.হাসান বলেছেন: ভয়ংকর।
আরো শুনছি ভাইরাসটা মিউটেশনের পর কিছুটা কম ক্ষতিকর হলেও বেশি সংক্রামক হয়ে গিয়েছে। চিকিৎসা সেবার বেশ বেহাল অবস্থা চলছে। পরিনাম ভয়াবহ হতে পারে।

নিয়নডারথাল জিন আফ্রিকার মানুষের মাঝে না থাকাটা অবাক করলো। এর নিশ্চয়ই কোনো কারণ আছে।
পেপারটার যতটুকু দেখলাম, মনে হলো যাদের শরিরে দুই বা এর বেশি কপি আছে তাদের রিস্ক সম্ভবত বেশি, আমাদের বেশিরভাগের শরীরে মনে হয় জিনটার একটা কপি আছে।

কয়েক বছর আগে সেলের একটা ইস্যুতে পড়েছিলাম, নিয়নডারথাল জিন আমাদের কিছু প্রটেকশন দেয় (খুঁজে দেখলাম- মনে হয় এটা-- doi: 10.1016/j.cell.2018.08.034), এখন দেখছি উল্টোটাও সত্য!

০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:০৪

কলাবাগান১ বলেছেন: ১৩% এর মাঝে দুই কপিই আছে বাংলাদেশে
"Most Neanderthal genes turned out to be harmful to modern humans. They may have been a burden on people’s health or made it harder to have children. As a result, Neanderthal genes became rarer, and many disappeared from our gene pool."

৮| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:০৪

কল্পদ্রুম বলেছেন: পেপারটা কোথায় পাবলিশড হয়েছে? পোস্টের বাইরের একটি প্রশ্ন।কভিড ১৯ এর রিইনফেকশনের উপরে সম্প্রতি কোন পেপার কি বের হয়েছে কি না আপনি জানেন? যদি রিস্ক সত্যি থেকেও থাকে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়ার মতো আমাদের ক্ষমতা নেই।

০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:২০

কলাবাগান১ বলেছেন: এটা কে এখনও পেপার বলা যাবে না...এটা হল প্রিপ্রিন্ট কপি...আজকাল এটাই ট্রেন্ড হচ্ছে প্রিপ্রিন্ট কোন পিয়ার রিভিউ ছাড়া...তারপর পিয়ার রিভিউ হয়ে কোন নামকরা জার্নালে পাবলিশ হয়

করোনার কোন রিইনফেকশান হয় না বলেই এখনও বিজ্ঞানী রা মনে করেন...সম্পূর্ন ভাল হতে অনেকের ২ থেকে ৩ মাস ও লাগতে পারে যাতে ভাইরাস সম্পূর্ন ভাবে ক্লিয়ার হতে....কিন্তু যখন ১ মাস পরে ভাল বোধ করে তখন পরীক্ষা করে বলে যে ভাইরাস নাই (ফলস নেগেটিভ), কিন্তু পরে ভালভাবে টেস্ট করলে দেখা যায় যে এখনও কিছু ভাইরাস রয়ে গেছে। তখন বলে যে রিইনফেকশান হয়েছে....আসলে এটা কিন্তু প্রথমে আক্রান্ত ভাইরাস এর remnant
মাশরাফির ২য় বার টেস্ট এ পজিটিভ...কেন?? উনি তো সম্পূর্ন সুস্হ্য....

পিসিআর টেস্ট মৃত ভাইরাস আর জীবন্ত ভাইরাস কে পার্থ্যক করতে পারে না....উনার শরীরে হয়ত এখনও কিছু মৃত ভাইরাস রয়ে গেছে যেটা ক্লিয়ার হতে আরো কয়েকদিন লাগবে...উনার দরকার এন্টিবডি টেস্ট করে দেখা...

৯| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:০৬

সন্ধ্যা রাতের ঝিঁঝিঁ বলেছেন: Evolutionary theory তো এতদিন বলে আসছে নিয়ানডারথাল, পিকিং এরা বিলুপ্ত হয়ে গেছে,এখন আবার বলছে এখনো আমাদের মধ্যে এর ডিনএনএ বিদ্যমান।অস্বাভাবিক কিছু না, যেহেতু যোনসংগম এর মাধ্যমে ডিএনএ রিপ্লেস হয়, আর আমরা জাতি হিসেবে মঙ্গোলয়েড, ডাচ,ওলন্দাজ,পর্তুগীজ,ব্রিটিশ সবাই এদেশে এসেছে, সো ডিএনএ এখনো বিদ্যমান থাকতেই পারে।

০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:২৫

কলাবাগান১ বলেছেন: এবং নিয়ানডারথাল ডিএনএ বিদ্যমান বর্তমান মানুষের মাঝে।

ড: Pääbo এর দল প্রথম ৫০,০০০ বছর এর পুরানো নিয়ানডার্থাল 'ফসিল' থেকে প্রাচীন ডিএনএ কে ল্যাবে বের করতে পারেন এবং সিকোয়েন্স করেন।

১০| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:১৩

রাজীব নুর বলেছেন: মানুষের সব রহস্য লুকিয়ে আছে ডি এন এ তে।

০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:২৬

কলাবাগান১ বলেছেন: এখন আর রহস্য নাই ..বিজ্ঞানীরা এখন ডিএনএ 'পড়তে' পারে

১১| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:১৭

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: লেখক বলেছেন: সারা পৃথিবীতে শুধু বাংলাদেশ কে নিয়েই ষড়যন্ত্র করে বিশ্বের তাবদ শক্তিশালী দেশগুলি???? আপনাদের মত কন্সপিরিউসি থিয়োরীতে বিশ্বাসী লোকদের অস্ত্র একটাই ...।

-- ষড়যন্ত্র না থাকলে এই কোভিড-১৯ নিয়ে শক্তিশালী দেশগুলো কেউ কারো দিকে আঙ্গুল তুলতো না!

০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:২৮

কলাবাগান১ বলেছেন: কিসের ষড়যন্ত্র??? করোনা বলে কোন ভাইরাস নাই???? সবই ভুয়া???
তবে কিছু অশিক্ষত লোক দের বলতে শুনেছি যে চাদে নাকি কোন লোক যায় নাই??? সবই ভু্য়া তারা অবশ্য খালি চোখে চাদে লোকজনদের দেখতে পারে

১২| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:৩৭

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: যাক্ আপনিও ওদের সাথে Deoxyribonucleic Acid নিয়ে আপনার গবেষনা সফল হউক!
--
-- আপনার Max Planck Institute ্এর সম্প্রতি গবেষণায় -

One in three women in Europe inherited the receptor for progesterone from Neanderthals -- a gene variant associated with increased fertility, fewer bleedings during early pregnancy and fewer miscarriages, according to new research.

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪৩

কলাবাগান১ বলেছেন: "But some নিয়ানডার্থাল genes appear to have provided an evolutionary edge and have become quite common. In May, Dr. Zeberg, Dr. Paabo and Dr. Janet Kelso, also of the Max Planck Institute, discovered that one-third of European women have a Neanderthal hormone receptor. It is associated with increased fertility and fewer miscarriages."
কিন্তু
"Most Neanderthal genes turned out to be harmful to modern humans. They may have been a burden on people’s health or made it harder to have children. As a result, Neanderthal genes became rarer, and many disappeared from our gene pool."

১৩| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:৪১

আহলান বলেছেন: জানার কোন সিমা নাই, জানার চেষ্টা বৃথা তাই - লেখাটি পড়ে এই কথাটাই মনে পড়লো ... !

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪৭

কলাবাগান১ বলেছেন: এটা একটা অদৃশ্যবাদীতার মত কথা হল....বাংগালীরা সহজেই হাল ছেড়ে দেয়

১৪| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১:১৬

খিচুড়িনামা_১০১০_১০ বলেছেন: ব্যপার হচ্ছে এটা অনেকগুলো জেনেটিক রিস্ক ফ্যাক্টরের একটা। যারা হাইপার টেনশন, ডায়াবেটিসে আক্রান্ত, মারাত্মকভাবে অসুস্থ বয়স্ক মানুষদের মৃত্যুর হার অনেক বেশী। অসংখ্য কমন রিস্ক ফ্যাক্টরের মধ্যে কোনটার প্রভাব কতটা শক্তিশালী, সে ব্যপারে কোন সিদ্ধান্ত পৌঁছাতে এখনো অনেক দেরী। মৃত্যুর হার কিন্তু এখনো আমেরিকা আর ইউরোপের কয়েকটি দেশেই বেশী। তবে যাই হোক, ধন্যবাদ এই গবেষণাপত্রটি শেয়ার করার জন্য। এটা আমাদের লাইফ স্টাইলের ব্যপারে আরো সচেতন হওয়ার জন্য অনুপ্রেরণা যোগাবে নিশ্চয়ই।

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪৮

কলাবাগান১ বলেছেন: কথা সেটাই.।আরো অনেক ফ্যাক্টর বিদ্যমান

১৫| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১:৩৭

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: তার মানে কি বাংলাদেশের মানুষের আক্রান্ত হওয়ার শম্ভবনা বেশী?

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১০:৫৮

কলাবাগান১ বলেছেন: সম্ভাবনা বেশী কিন্তু তা তো হচ্ছে না..।অন্য আরো ফ্যাক্টর আছে যেটা এই নেগেটিভ ফ্যাক্টর কে কমিয়ে নিয়ে আনছে

১৬| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১:৩৮

রাকু হাসান বলেছেন:


শুধু ভয়ংকরই নয়। ব্যাপক ভয়ংকর তথ্য জানালেন । এটি সত্যি না হোক :( । যদি রিসার্চের বিপক্ষে কথা বলার আামর যৌক্তিকতা নেই । B:-)

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪৬

কলাবাগান১ বলেছেন: আমিও চিন্তা করছি যে ব্যাপারটা সত্যি কিন্তু আরো অনেক ফ্যাক্টর এর সাথে জড়িত যেটা হয়ত বিজ্ঞানিরা চিন্তা করেন নাই..পরের পেপার গুলি সেই ফ্যাক্টরগুলি নিয়েই হবে

১৭| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ২:৩৩

ঢাবিয়ান বলেছেন: view this link[১] ডিএনএ’র কারণে কোভিড ঝুঁকি কম বাংলাদেশে: গবেষণা

দেবদুলাল মুন্না: [২] এ তথ্য জানিয়েছে সুইডেনের স্টকহোমের বিখ্যাত গবেষণা প্রতিষ্ঠান ক্যারোলিনস্কা ইন্সটিটিউট। নিউইয়র্ক টাইমস

[৩] গবেষকরা বলেন, ডিএনএ’র সাথে একটা যোগসূত্র পাওয়া যাচ্ছে। ইউরোপে মানুষের মধ্যে যে ডিএনএ সেটি থেকে ভিন্ন বাংলাদেশিদের ডিএনএ। এই ডিএনএ’র আদি ভার্সন (প্রস্তর যুগের ) ক্ষতিকর হলেও বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ায় যেটি দেখা যায় তা ভাইরাস প্রতিরোধে আরও বেশি কার্যকরী। এই ডিএনএ’র আদি ভার্সন প্রায় ৬০ বছর আগের, যা বাংলাদেশিরা বহন করছে।

[৪] গবেষণাটির সঙ্গে যুক্ত না থাকা প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রজনন বিজ্ঞান বিশেষজ্ঞ জোশুয়া আকি এই ফলাফলকে সমর্থন করে বলেছেন, ‘শঙ্কর প্রজননের ৬০ হাজার বছর আগের এই প্রভাব আজও মানুষের শরীরে কাজ করতে পারে।’

[১] পোশাক রপ্তানি খাতে বাংলাদেশের প্রতিযোগি কিছু দেশ কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, জানিয়েছে বিজিএমইএ ≣ ফ্রিতে বিমানে চড়ার শখ, বিমানের সামনের অংশে লুকিয়ে থেকে আটক এক যুবক ≣ ভারতের জামাই হলেন ম্যাক্সওয়েল
[৫]শনিবার গবেষণাটি অনলাইনে প্রকাশ করা হয়েছে। নিউইয়র্ক টাইমসের বিজ্ঞান বিষয়ক পাতায় এ নিয়ে বিশদ প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে।

[৬] জিনোমের এই অংশ ক্রোমোজোম ৩-এ ছয়টি জিনে ছড়িয়ে থাকে। যাকে গবেষকেরা মানব ইতিহাসের ‘ধাঁধাময় ভ্রমণ’ বলেছেন।দক্ষিণ এশিয়ার প্রায় এক তৃতীয়াংশ মানুষ উত্তরাধিকার সূত্রে অংশটি পেয়ে থাকে।
[৭] নতুন এই গবেষণায় ক্যারোলিনস্কা ইন্সটিটিউটের বিজ্ঞানী হুগো জেবার্গ নেতৃত্ব দেন।

কোন অনুবাদ বিশ্বাস করব? আপনারটা নাকি উপড়েরটা?

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:০১

কলাবাগান১ বলেছেন: দেবদুলাল মুন্না সাহেব ভাল করে পড়ে দেখেন নাই....প্রিকন্সিভড আইডিয়া নিয়েই পড়েছেন বলে মনে হয়

১৮| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ২:৪৭

নেওয়াজ আলি বলেছেন: মৃত্যু পর্যন্ত শিখার শেষ নাই । তাই শিখছি। তবে শুদ্ধ বানান বিশুদ্ধ লেখা হলে ভালো হয়

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:০৪

কলাবাগান১ বলেছেন: শিকার (বানান) করছি বাংলা বানান ও কম্পিউটারে বাংলা টাইপ করা আমার কাজ নহে...তবে অনেকেই বিজ্ঞান টা বুঝতে পারছেন বলে মনে হয়....এতেই আমি খুশী আমার লিখার কোয়ালিটিতে

১৯| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ২:৪৯

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: [১] পোশাক রপ্তানি খাতে বাংলাদেশের প্রতিযোগি কিছু দেশ কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, জানিয়েছে বিজিএমইএ ≣ ফ্রিতে বিমানে চড়ার শখ, বিমানের সামনের অংশে লুকিয়ে থেকে আটক এক যুবক ≣ ভারতের জামাই হলেন ম্যাক্সওয়েল
--অপ্রাসঙ্গিক পারলে মুছে দিন।

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:০৫

কলাবাগান১ বলেছেন: অর্ধেক কমেন্ট কিভাবে মুছব? আপনি আবার কমেন্ট করেন, তাহলে আমি পুরাটাই মুছে দেই....

২০| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ২:৫৫

আমিন রবিন বলেছেন: ৫০,০০০ অক্ষর টা কী ঠিক বুঝলামনা! 'বেস পেয়ার'-কে কি আপনি 'অক্ষর' বলছেন? জাস্ট জানতে চাচ্ছি।

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪৪

কলাবাগান১ বলেছেন: সহজ করে বলার জন্যই বেইস পেয়ার কে অক্ষর বলেছি

২১| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৩:০৪

ঢাবিয়ান বলেছেন: @ কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) , কপি করার সময় রিপোর্টটির মাঝখানের কিছু অপ্রাসঙ্গিক নিউজ হেডলাইনও কপি হয়ে গেছে। কিন্ত আরেকজনের পোস্টে কমেন্ট এডিট করা যায় না। যাই হোক এই রিপোর্টে আজকের * আমাদের সময়ে'' প্রকাশিত হয়েছে। মুল লিংকে গিয়ে পড়ুন।

২২| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৩:২৬

অব্যর্থ বলেছেন: @ঢাবিয়ান
We find that all risk haplotypes associated with the risk for severe COVID-19 form a clade with the three high-coverage Neandertal genome.

Currently it is not known what feature in the Neandertal-derived region confers risk for severeCOVID-19 and if the effects of any such feature is specific to current coronaviruses or indeed to anyother pathogens.

However, in the current pandemic, it is clear that gene flow fromNeandertals has tragic consequences.

কলাবাগান১-এর অনুবাদ সঠিক।

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:০৬

কলাবাগান১ বলেছেন: ধন্যবাদ বুঝিয়ে বলার জন্য

২৩| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৩:২৯

সত্যপীরবাবা বলেছেন: মানলাম না। গবেষনার শুরুতেই গোলমাল আছে -- নিয়ানডার্থালএর ডিএনএ আমাদের জীনে আছে সেটা। বাংলাদেশের মুসলমানদের পূর্বপুরুষ সব সুদি আরব থেকে আসছে - তা দেখতে আমরা যতই দ্রাবিড়ীয়ই হই না কেন। আর একজন ব্লগারের উর্ধ্বতন ২ বা ৩ পূর্বপুরুয সরাসরি আসমান থেকে নাজেল হইসে এই দেশে, বা উনি নিজেই সরাসরি নাইমা আসছেন। আমাদের সুদি পূর্বপুরুষ সব ছিল 'ফুলের মত পবিত্র' -- গনিমতের মাল ছাড়া এর ওর লগে যেখানে সেখান জিং জিং করে নাই। নিয়ানডার্থালরা কি কখনো গনিমতের মাল ছিল? কোনো প্রমান আছে? নাই। পুরা গবেষনাটা শুধু ভুয়াই না, আমাদের বিরুদ্ধে এক বিরাট ষড়যন্ত্র, আমাদের পূর্বপুরুষদের চরিত্রের উপর কলংকারোপ। আপনারে মাইনাস (মাইনাস বোতাম টা কই?)

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:০৭

কলাবাগান১ বলেছেন: ডিএনএ কখনই মিথ্যা বলে না

২৪| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৪:০১

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: খিচুড়ি খাইতে মজা লাগে।

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:০৮

কলাবাগান১ বলেছেন: আমরা রাজীব নুর সাহেবের মত পরিবার রেখে একলা একলা বিরিয়ানী খেতেই ব্যাস্ত, আর অন্য জাতিরা জ্ঞানে বিজ্ঞানে তর তর করে এগিয়ে যাচ্ছে

২৫| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৩৪

ঢাবিয়ান বলেছেন: @ অব্যর্থ , পড়লাম পুরো রিপোর্টটা । ব্লগার কলাবাগানের অনুবাদই সঠিক। তবে এই গবেষনার সাথে একমত হতে পারছি না কোনভাবেই। ওয়ার্ল্ড ম্যপটায় যেভাবে Geographical distribution of the Neandertal core haplotype conferring risk for severe COVID-19.দেখানো হয়েছে তা পুরোপুরি অবিশ্বাষ্য। Neandertal জিন এর অস্তিত্ব যদি থেকে থাকে তবে সেটা সারা দুনিয়াব্যপীই থাকার কথা। সারা দুনিয়ার সব দেশ বাদ দিয়ে শুধু বাংলাদেশে এই জিন যেভাবে গিজগিজ করছে দেখানো হয়েছে তা বিশ্বাস করার কোন কারনই নাই।

যে কোন রিসার্চে বাংলাদেশকে নেগেটিভ example হিসেবে উপস্থাপন করাটা ইদানিং একটা টেন্ড হয়ে দাড়িয়েছে। যে দেশে থাকি সেখানে এটা বেশ দেখতে পাই।

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:২৪

কলাবাগান১ বলেছেন: আপনি heterozygosity, homologous recombination, gene flow, Hardy Weinberg equllibrium ইত্যাদি বুঝেন বলে মনে হয় না...এগুলি জানলে বুঝতে পারতেন কেন জিনোম এর কোন অংশ কোন পপুলশনে এনডেমিক হয়ে যায়.... না বুঝার কারনে, কন্সপিউরিসি থিয়োরীতে বিশ্বাসী দের মত, গায়ের জোরে বলে দিলেন এটা বাংলাদেশ নিয়ে ষড়যন্ত্র... এটা নেগেটিভ এক্জাম্পল হবে কেন?? এই ডাটা তো বিজ্ঞানীরা গায়ের জোরে বানায় নাই...এটা পৃথিবীর যে কোনস্হান থেকে আপনি ডাউনলোড করতে পারবেন....এনালাইসিস করে দেখান এই রেজাল্ট ভুল...।

এই ডাটা পজিটিভও হতে পারে???? যেটা আমি উপরে পোস্টের মাঝে এডিট করে লিখেছি....এই ভ্যারিয়েশন হয়ত ৬৩ % জনগনের মাঝে আছে কিন্তু সবার ভ্যারিয়েশন এক না। তাই কিছু ভ্যারিয়েশন অন্য ভ্যারিয়েশন (যেময় ওয়াই ক্রমোজম এর জিন) সাথে মিলে হয়ত প্রটেক্টিভ রোল প্লে করে...বাংলাদেশে যেভাবে সোসাল ডিস্টিন্স মেইনটেইন হয়, তাহলে ৬৩% জনগনই কোভিডে আক্রান্ত হত..। তা তো হচ্ছে না

২৬| ০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১০:৪১

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: এখন আর রহস্য নাই ..বিজ্ঞানীরা এখন ডিএনএ 'পড়তে' পারে

জনাব, ডিএনএ'র কি সব রহস্য মানুষ জেনে ফেলেছে?

০৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:১২

কলাবাগান১ বলেছেন: ডিএনএ 'পড়তে' পারার আগে রহস্য ছিল...এখন যখন পড়তে পারা যায়...এখন আর রহস্য বলা যাবে না...পড়া শেষ হলেই বুঝা যাবে কিন্তু পড়া চলছেই....

এই যেমন আপনি আপনার পরিবার কে (বাচ্চা মেয়ে) রেখে একলা একলা বিরিয়ানী খান...এখানে কোন রহস্য নাই...।আপনার ডিএনএ এর সাথে, অন্য আরেক জন যিনি পরিবার ছাড়া বিরিয়ানী খান না, তার ডিএনএ কে পড়লেই বুঝা যাবে কোন জিন এর ভ্যারিয়েশন এর ফলে আপনি এমন আচরন করেন...এটা আর রহস্য না..।

২৭| ০৬ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ৮:০১

ঢাবিয়ান বলেছেন: জেনেটিক্স আমার একাডেমিক সাবজেক্ট নয়, তাই এ সম্পর্কে আমার জ্ঞান সীমিত। যাই হোক রিসার্চ মানেই কোন ধ্রুব সত্য নয়।
বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই স্বল্প কিছু স্যম্পেল এর উপড় গবেষনা চালিয়ে তথ্য উপাত্ত সহকারে রিসার্চ পেপার পাবলিশড হয় যেটা পরবর্তীতে ভুল প্রমানিত হতেও পারে। করোনা নিয়ে এখন হাজারো রিসার্চ হচ্ছে, রিসার্চ পেপার পাবলিশডও হচ্ছে। কিন্ত প্রতিদিনই পরিবর্তিত হচ্ছে ফ্যক্ট যে কারনে ভ্যক্সিন আবিষ্কার কঠিন হয়ে পড়েছে।

০৬ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:২৫

কলাবাগান১ বলেছেন: ধন্যবাদ মার্জিত কমেন্ট এর জন্য...। স্বল্প শিক্ষিত লোকজন কে মানায় কন্সপিউরিসি থিয়োরীর দোহাই দিয়ে বিজ্ঞান কে অস্বিকার করা। এই পেপার এর ডাটা এখন যে কেউ যাচাই করে দেখতে পারে...কোথাও যদি ভুল ডাটা অথবা ম্যানিপুলেটেড ডাটা ইউজ করে (বাংলাদেশ কে খারাপ দেখানোর উদ্দেশ্যে), তাহলে অন্য কেউ না হোক, আমি নিজে ঐ জার্নালে লিখে জানাতাম।

২৮| ০৬ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ৯:২৭

মেঘনা পাড়ের ছেলে বলেছেন: নিউজটি গতকাল দেখেছি পড়েছি আজ আপনার পােস্টেও পেলাম। ভয় পাইনি বলব না, তবে উনাদের গবেষণা সত্যি হলে এতদিন এখানে কেয়ামত হয়ে যেত। নিয়নডারথাল এর ডিএনএ আমাদের ৬৩ % মানুষের মাঝে বিরাজমান এটা জেনে কেন জানি ভাল লাগছে, কারন বিবরতন এর ইতিহারে নিয়নডারথালদের বিলীন হয়ে যাওয়াটাকে কখনই আমি মেনে নিতে পারি নি। সব সময়ই হোমো সেপিয়েন্সকে এর জন্য দোষি করে গেছি। আর এখন আমাদের মাঝেই ৬৩ % তারা, ভাবতেই ভাল লাগছে...........। অন্যদিকে চলে গেলাম স্যরি ।

০৬ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:৩৩

কলাবাগান১ বলেছেন: একটা সামান্য অংশ মাত্র....ইস্ট এশিয়ান দের মাঝে সবচেয়ে বেশী পরিমান (টোটাল) নিয়ানডার্থাল ডিএনএ পাওয়া যায় বর্তমানে।
" around 66% of East Asians contain the Neanderthal skin gene, while 70% of Europeans possess the Neanderthal gene which affects skin colour. POU2F3 is found in around 66 percent of East Asians, while the Neanderthal version of BNC2, which affects skin color, among other traits, is found in 70 percent of Europeans."

কিন্তু কভিডের সাথে রিলেটেড নিয়ানডার্থাল জিন বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশী

২৯| ০৬ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:৪৫

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: B:-/

৩০| ০৬ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:১৮

রাকু হাসান বলেছেন:


অন্তত ৫০ হাজার বছর আগে নিয়ান্ডারথাল ও হোমো স্যাপিয়েন্সরা এক সাথে ৫০ বছরের মত একসাথে বসবাস করেছে । এমন তথ্য পেলাম । তখন দুই প্রজাতির মধ্যে যৌন মিলনও হয়েছে। সে থেকেই নিয়ান্ডারথাল এর ডিএনএ আামদের (হোমো স্যাপিয়েন্স) এর প্রবেশ করে । হয়তো সে কারণেও আমরা তাদের ডিএনএ বহন করছি। একটি বড় প্রশ্ন ছিল ,নিয়ান্ডারথালরা তো আমাদের অঞ্চলে বসবাস করত না । লেভান্ট নামক স্থানে তারা কিছু সময় (৫০ বছর) বসবাস করেছিল। একটি প্রশ্নের উত্তর মোটামুটি পেলাম । এ বিষয়ে আমার জ্ঞান খুবই সীমিত । ভুল হলে সংশোধন করে দেবার অনুরোধ করছি। কিছু বলার থাকলে, এ বিষয়ে সেটা জানলে উপকৃত হব ।

০৬ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:০৪

কলাবাগান১ বলেছেন: সঠিক বলেছেন...মানুষের মত আরেক প্রজাতি Denisovans ও ছিল এক সময়

৩১| ০৬ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১:৩০

ঢাবিয়ান বলেছেন: Judging from fossil evidence from Sima de los Huesos in northern Spain and Swanscombe in Kent, the Neanderthal lineage was already well-established in Europe by 400,000 years ago.
The species ranged widely in Eurasia, from Portugal and Wales in the west across to the Altai Mountains of Siberia in the east.

ইউরোপে এরা থাকতো কিন্ত ৬৩% জিন এর অস্তিত্ব পাওয়া গেছে কেবল বাংলাদেশীদের মাঝে!! কেমন যেন খাপছাড়া, অবিশ্বাষ্য।

ইউটিউব এবং বিভিন্ন ফোরামে এই লেখা নিয়ে শোরগোল উঠেছে। অনেকেই প্রশ্ন তুলেছে যে তাহলে বাংলাদেশে ডেথ রেট এত কম কেন?

০৬ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:১৩

কলাবাগান১ বলেছেন: বুঝরা গন্ডগোল টা এখানেই। আপনি আমার ২৮ নং কমেন্টের উত্তর দেখুন।

টোটাল নিয়ানডার্থাল ডিএনএ এর ১ থেকে ২% এখনও মানুষের মাঝে বিদ্যমান। মানুষের ডিএনএ হল ৩,০০০,০০০,০০০ 'অক্ষর' প্রতি সেলে। তার ২% হল, ৬০,০০০,০০০ অক্ষর। তাই ৬০,০০০,০০০ ডিএনএ সবার মাঝে সমান না। ইস্ট এশিয়ান দের মধ্যে সবচেয়ে বেশী। হয়ত ৬০,০০০,০০০ নিয়ানডার্থাল ডিএনএ সবটাই তাদের মাঝে আছে। আমাদের হয়ত আছে ৩০,০০০,০০০ (১%)। এই ১-২% ডিএনএ সবার ২৩ জোড়া ক্রমোজমে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে.... কিন্তু ৩ং ক্রমোজম এর একটা বিশেষ অংশে, ৫০,০০০ নিয়ানডার্থাল ডিএনএ বাংলাদেশীদের ৬৩% জনগনের মাঝে যেখানে অন্যদেশের ৩ং ক্রমোজমে এই ৫০,০০০ নিয়ানডার্থাল ডিএনএ ৭-৮% জনগনের মাঝে আছে। টোটাল নিয়ানডার্থাল ডিএনএ যদি চিন্তা করেন সেটা বাংলাদেশে কমই আছে

০৬ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:১৯

কলাবাগান১ বলেছেন: রেট কম কেননা হয়ত এই ফ্যাক্টর (নিয়ানডার্থাল ডিএনএ)এর জন্য বাংলাদেশীরা বেশী আক্রান্ত হতে পারেন কিন্তু হয়ত বাংলাদেশীদের মাঝে আরেক ফ্যাক্টর আছে যেটা বাংলাদেশী মানুষদের এই নিয়ানডার্থাল ডিএনএ এ ফ্যাক্টর কে দমাতে সাহায্য করে। এটাকে বলে জেনেটিক ইন্টারএকশ্যান (Epistasis) এবং এটা খুবই কমন...প্রায় কোন জিনই একলা কাজ করে না...

৩২| ০৬ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:২৪

কলাবাগান১ বলেছেন: আজকের সিএনএন এর খবরে দেখলাম করোনা ভাইরাস এর গুচ্ছ টেস্টিং পদ্ধতি নিয়ে প্রতিবেদন। এখন আমেরিকাও চিন্তা করছে এটা কে ইউজ করার..অথচ এটা অনেক আগেই জানা ছিল...বাংলাদেশে এটা ইউজ করা যায় কিনা সেটা লিখেছিলাম ৩ মাস আগে
Batch Testing in America

৩৩| ০৭ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১:৩৫

নতুন বলেছেন: আমাদের দেশের করোনায় আক্রান্ত হয়ে যারা মারা যাচ্ছেন তাদের বেশির ভাগই মারা যাচ্ছেন অবহেলায় এবং চিকিতসা না পেয়ে। যদি ঠিক মতন চিকিতসা পেতেন তবে হয়তো মৃত্যুর সংখ্যা আরো কম হতো।

বাংলাদেশের বাইরে শীতপ্রধান দেশে কিন্তু অনেক বাংলাদেশী মারা গেছেন। তাদের মধ্যে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর হার মনে হয় দেশে বসবাসকরা বাংলাদেশীদের চেয়ে তুলনামুলক বেশী।

আরেকটা মজার জিনিস হইলো আমাদের ডিএনএ গত কিছু সমস্যা আছে সেটা আমার কাছেও মনে হইতো। কারন জাতিগত ভাবে আমরা যেমন ক্যাচাল করি, ভন্ডামী, দূনিতি করি সেটা বিশ্বের অন্য দেশের থেকে অনেক বেশি =p~

০৭ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ৮:৫২

কলাবাগান১ বলেছেন: এই পেপার এর অথার রা ইংল্যান্ডে বাংলাদেশী অরিজিন লোকদের মৃত্যু সংখ্যা কে সামনে এনেছেন উদাহরন হিসাবে...

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.