নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

জন্মসূত্রে মানব গোত্রভূক্ত; এজন্য প্রতিনিয়ত \'মানুষ\' হওয়ার প্রচেষ্টায় আছি। গল্পের \'বায়স্কোপ\' বইয়ের কারিগর।

কাওসার চৌধুরী

প্রবন্ধ ও ফিচার লেখতেই বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। পাশাপাশি গল্প, অনুবাদ, কবিতা ও রম্য লেখি। আমি আশাবাদী মানুষ।

কাওসার চৌধুরী › বিস্তারিত পোস্টঃ

ভ্রম নয় ভালবাসা (কবিতা)

০২ রা মে, ২০১৯ রাত ১১:৫১


প্রথম কবে দেখেছি, ঠিক মনে নেই। "তোমাকে"
তুমি কি মনে রেখেছো? মনে আছে ঠিক ঠিক দিনটা?
তবে খুব বেশি যে হয়নি তা দিব্যি বলে দিতে পারি
সরাসরি নয়, খুব সম্ভবত ফেইসবুকের ওয়ালে!
"ভার্চুয়াল জগৎ বলে কথা"
তোমার গভীর চাহনী, স্মার্টনেস, দুষ্ট-মিষ্টি হাঁসি আর
পরিপাটি ড্রেসকোড..........
কোনটা-ই আমাকে আলাদা করে টানেনি;
বিশ্বাস করো; সত্যি বলছি 'জয়া'
আমার সব আকর্ষণ-মহাকর্ষণ একটি বিন্দুতে অবিচল;
"তোমার আত্মবিশ্বাস, বুদ্ধিদীপ্ত চাহনী আর ব্যক্তিত্ত্বে"
জানো, ভীষণ ভীষণ ভাবে তোমার এ দিকটা আমাকে টানে...
ঠিক ফুলের গন্ধে মৌমাছির ঝাক যেমন আকৃষ্ট হয়,
"একদম ঠিক তাই।"
এটা প্রেম কিনা, কে জানে? মনের ভ্রমও হতে পারে।
তবে আমি বুঝতে পারি কিছু একটা পরিবর্তন, বিবর্তন
আমার মনোজগতকে ওলটপালট করে দিয়েছে খু-উ-ব
বিশ্বাস করো 'জয়া' এটা শুধু অনুভবের।
তোমার নিষ্পাপ হাসি আর গভীর চাহনীতে প্রেম আছে,
আছে আহ্বান, আছে ক্লান্তি আর একান্তভাবে নির্ভরতার
একটি নীড়ের স্বপন।
আছে ভালবাসার ঝাঁপি খুলে নিজেকে সমর্পণ করার
একান্ত বাসনা। আমি বুঝি এই চোখের ভাষা,
মনের কবিতা আর চমৎকার হাঁসির রহস্য।
হয়তো আমি এই চোখ দু’টি খুঁজেছি, এখনো খুঁজছি
সাত সমুদ্র তেরো নদী পেরিয়ে যুগযুগ ধরে।
আমি কেমনে অস্বীকার করি, বলো? আর করবোই বা কেন?
আমি তো কবে তোমার কাছে নিজেকে সমর্পণ করেছি।
ভালবাসা মাখা দু'টি চোখে নিজের নীড় খুজে পেয়েছি,
মনের না বলা কথাগুলো বলার সাহস পেয়েছি।
না, এটা মোটেও ভ্রম নয়; গভীরতম কিছু একটা
"ভা-লো-বা-সা।"


ফটো ক্রেডিট,
গুগল।

মন্তব্য ৫০ টি রেটিং +১৭/-০

মন্তব্য (৫০) মন্তব্য লিখুন

১| ০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ১২:০০

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আহা ! ভালোবাসা উপচে পড়ছে...........

ভালোলাগার রেশ রেখে গেলাম.....

০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ১২:০৬

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, প্রিয় ভাই। ভালবাসা উপচে পড়ছে মানে! একদম ঝাঁপি খুলে বসে আছে। প্রেম ভালবাসার অনুভূতি স্বর্গীয়। যারা প্রেমে পড়ে তাদের কাছে এর চেয়ে মিষ্টি পৃথিবীতে আর দ্বিতীয়টি নেই। সময়-কাল-পাত্র ভেদে প্রেমের রূপ পরিবর্তন হলেও এর ভ্রম এক ও অভিন্ন।

২| ০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ১২:২০

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: খুব সুন্দর স্মৃতিচারনমূলক কবিতা।

০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ১২:৩৬

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, ভাই। প্রেম কি আর পুরোনো হয়? যত দিন যায় মানুষ ততো স্মৃতি কাতর হয়। এটাই প্রেমের মহত্ত্ব। প্রেমকে জ্বালা বলুন আর বেদনা বলুন; প্রেমের বাঁশি আমাদের হৃদয় কুঠরে আঘাত করে বলেই আমাদের কাছে জীবনটা পদ্যময় হয়।

৩| ০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ১২:৩১

অর্পিতা মন্ডল বলেছেন: আপনার প্রেম কবিতাটি সকলের মনে আগুন লাগিয়ে দেবে। লেখক বা ক্রিটিক দেখেছি পোস্টগুলি পড়ে, কিন্তু কবিও পাশে পাশে, এটা তো চমৎকার একটি ছবি হয়ে গেল যেখানে সব রং মিলেমিশে একাকার হলো। খুব সুন্দর একটি কবিতা পড়লাম।

এরই সঙ্গে আরও একটি কথা বলি।
আপনি প্রেম লিখেছেন আর আমি আমার শেষ পোস্টটিতে পরকীয়া। অনুরোধ থাকলো আপনাকে, পোস্টটি পড়ে একটু মন্তব্য করার। খুব খুশি হবো।

০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ১২:৪৬

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, দিদি।
আমি কিন্তু কবিতা-টবিতা লিখতে পারি না। মাঝে মাঝে নিজের অনুভূতিগুলো শেয়ার করি। জীবনের সাথে প্রেম সম্পর্কীত। বয়স, স্থান, কাল, পাত্র আর ভাবনার ফারাকে এর রূপ পরিবর্তন হয় মাত্র। এজন্য বলা হয় প্রেমহীন জীবন নরকের মতোই। আর লেখকদের বেলায় প্রেম হলো মাতাল করা নেশার মতো। এই মাতাল হাওয়া, কাছে পাওয়া আর প্রশ্রয় লেখনীকে ধারালো করে।

আপনার পরকীয়াতে অবশ্যই একটি মন্তব্য করবো। আপনার চমৎকার ভাবুক মনের লেখাগুলো সামুর অলংকার হয়ে থাকবে। ব্লগে আপনি নতুন হলেও লেখালেখির অভ্যাস দীর্ঘদিনের তা লেখা পড়েই আঁচ করেছি। আশা করি, অল্প দিনেই সেফ হবেন।

হ্যাপি ব্লগিং............
।।।

৪| ০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ১:১৭

আকতার আর হোসাইন বলেছেন: আহা! কি প্রেমময় কবিতা। চোখের শান্তি!

আগে জানতাম। গল্প লেখাতেই আপনি পারদর্শী।

কিন্তু এখন দেখছি কবিতাতেও কম যান না....

ভ্রম ও ভালবাসার পার্থক্য করাটা শৈশব কৈশোরে কঠিন। যৌবনেও কঠিন। একটু বয়স হলে পূর্ণভাবে উপলব্ধি করা যায় কোনটা ভালবাসা আর কোনটা ভ্রম। (নিজস্ব মতামত মাত্র)

হাজার বছর বেঁচে থাকুক চির স্বর্গীয় ভালবাসা।

০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ১:৪২

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা রইলো প্রিয় ভাই আমার। আমি তো লেখক গোছের কেউ না। মনের আনন্দে লিখি মাত্র। গল্প, ফিচার, প্রবন্ধ ও একই খেয়ালে লিখি। তবে, যখন যা লিখি মনযোগ পুরোটা দেওয়ার চেষ্টা করি। আসলে প্রেম আর ভ্রম কিন্তু একই বিন্দুতে গাঁথা। কারণ, অনেক আবেগী প্রেমও পুরোনো হলে ভ্রম মনে হয়; আবার অনেক ভ্রমও কখনো কখনো প্রেম বলে স্মৃতিতে ধরা দেয়।

প্রেম আর ভ্রমের মিলনে মতিভ্রম হয়। হয়তেো বা!!

৫| ০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ৩:৫৫

বলেছেন: জয়া বিশ্বাস করুক আর না করুক
জীবজগতের সব প্রাণীকুল জানে এটা ভ্রম নয়
আকাশ সমান ভালোবাসা জয়িতার জন্য।

মুগ্ধতা রেখে গেলাম কবি, লেখক, প্রাবন্ধিক, গল্পকার কাঃ চৌঃ

০৩ রা মে, ২০১৯ সকাল ১১:০১

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



আমি কবিতা-টবিতা তেমন একটা লিখি না। মাঝে মাঝে চেষ্টা করি মাত্র। কবি আর কবিতার মাঝে প্রেম বিরহ খেলা করে প্রতিনিয়ত। জয়িতা হোক কিংবা বনলতা সেন হোক প্রেমিকা মানেই ভালবাসা আঁধার আর নির্ভরতার প্রতীক। জয় হোক ভালবাসার।

শুভ কামনা রইলো, প্রিয় র. লতিফ ভাই।

৬| ০৩ রা মে, ২০১৯ সকাল ৭:৪৮

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: শুভ সকাল প্রিয় গুরুদেব,

"ভালোবাসার জন্য আমি হাতের মুঠোয় প্রাণ নিয়েছি।
বিশ্ব সংসার তন্ন তন্ন করে খুঁজে নিয়েছি একশো-আটটা নীল পদ্ম।
তবুও বরুনা কথা রাখেনি।"
এভাবেই কি কবিরা অনন্তকাল ধরে বরুনা- জয়াদেরকে খুঁজেই যাবে? ব্যক্তিগতভাবে চাইবো, গুরুদেবের জয়া বন্দনা চলতে থাকুক; কিন্তু খোঁজার অবসান ঘটুক অনতিবিলম্বে। হা হা হা....

শুভকামনা ও ভালোবাসা রইলো।

০৩ রা মে, ২০১৯ সকাল ১১:০৯

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



শুভ সকাল; গুরুজি।
প্রেমের আহ্বান, প্রেমিকার প্রেমিক মন এসব দুর্নিবার আকর্ষণ করে আমাদের মনোজগতে। মানুষ জন্মগতভাবে প্রেমের কাঙাল। কখন, কোথায়, কার সাথে মনের লেনদেন হয় বলা মুশকিল। এজন্য প্রেম নিয়ে কত শত কাব্য রচনা হয়েছে। বরুণারা হলো প্রেমের দেবী। এজন্য এসব সুন্দরী আর কল্পিত প্রেয়সীকে নিয়ে আমরা প্রতিনিয়ত ভালবাসার রঙিন ফানুস ওড়াই।

জয়া বন্ধনা অব্যাহত থাকবে! বরুণাদের জন্য অপেক্ষা থাকবে। এ খোঁজা জীবনভর চলবে।

৭| ০৩ রা মে, ২০১৯ সকাল ৮:২৫

মুক্তা নীল বলেছেন:
ভাইজান,
শুভ সকাল।
ভালোবাসা মানুষের জীবনে আসে আশির্বাদ আর না হয় অভিশাপ হয়ে । ভ্রম আর ভালোবাসা মিলই খুঁজে পাক জীবনের পরিপূর্ণতা। জয়া আসবে, আসতেই হবে এমন ভালোবাসা কে উপেক্ষা করতে পারে না।
শুভকামনা রইলো আপনার জন্যে।

০৩ রা মে, ২০১৯ সকাল ১১:১৬

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, আপু।
শুভ সকাল..............
ভালবাসা আশীর্বাদ হোক আর অভিশাপ হোক; এটা চিরন্তন। ভালবাসা, প্রেমবিরহ কখনো হারিয়ে যাবে না। এটা মানুষের আত্মার সাথে সম্পর্কীত। ভ্রমটাই আসলে ভালবাসা। কারণ কোন ভালবাসাই আজীবন অটুট থাকে না পুরোপুরি। দীর্ঘদিনের প্রেমও একটা সময় চরম বিতৃষ্ণা হিসাবে ধরা দেয়। এই ভ্রমটা যতক্ষণ থাকবে প্রেমও সমান তালে প্রতিক্রিয়াশীল থাকবে।

শুভ কামনা রইলো, আপনার জন্য। ভাল থাকবেন, সব সময়।

৮| ০৩ রা মে, ২০১৯ সকাল ১০:১৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


উপন্যাসিক, গল্পকার, প্রবন্ধকার, কবি; ছড়াটড়া লিখেছেন নাকি?

০৩ রা মে, ২০১৯ সকাল ১১:২৩

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



হা হা হা.........
তালিকা থেকে বাদ পড়েছে; অনুবাদক, রম্য লেখক, ফিচার লেখক ইত্যাদি ইত্যাদি। ভবিষ্যতে 'কাওসার সঙ্গিত' (রবীন্দ্র সঙ্গিতের মতো) রচনা করার ইচ্ছা আছে। মুই কিন্তু ছড়াও লিখি! একদিন পোস্ট করবো ব্লগে। আমি চাই ওয়াজি হুজুরদের মতো আমার নামের আগে আট-দশটি টাইটেল সংযুক্ত করতে! প্রচারেই প্রসার আজকাল।

ভাল থাকুন, শুভ কামনা রইলো আপনার জন্য।

৯| ০৩ রা মে, ২০১৯ সকাল ১০:২৪

নীলপরি বলেছেন: বাহ । খুব সুন্দর লিখেছেন ।
++

শুভকামনা

০৩ রা মে, ২০১৯ সকাল ১১:২৫

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, দিদি।
কবিতাটি পড়েছেন জেনে ভাল লাগলো। আপনার জন্য শুভ কামনা রইলো।

১০| ০৩ রা মে, ২০১৯ দুপুর ১২:২৩

জাহিদ অনিক বলেছেন: বাহ ! বেশ তবে ভ্রম নয়, মোহ নয়--- এ যেন প্রেমই হয়। ভালোবাসাই হয়
শুভ কামনা প্রিয়

০৩ রা মে, ২০১৯ বিকাল ৩:০৯

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, প্রিয় কবি।
আসলে প্রেম মানেই মোহ আর ভ্রম। ভালবাসা ভ্রম থেকেই ডালপালা মেলে।

১১| ০৩ রা মে, ২০১৯ দুপুর ১২:৩১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আমার সব আকর্ষণ-মহাকর্ষণ একটি বিন্দুতে অবিচল;
"তোমার আত্মবিশ্বাস, বুদ্ধিদীপ্ত চাহনী আর ব্যক্তিত্ত্বে"
জানো, ভীষণ ভীষণ ভাবে তোমার এ দিকটা আমাকে টানে..


আহা ! দারুণ কবিতা। চমৎকার !
যে এভাবে কাউকে নিয়ে লিখতে পারে, সে অবশ্যই প্রেম নিখাদ প্রেম।

০৩ রা মে, ২০১৯ বিকাল ৩:১৪

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



আপু,
মনোযোগ দিয়ে কবিতাটি পড়ে কবিতার চুম্বক অংশটি হাইলাইট করার জন্য ধন্যবাদ আপনাকে। আসলে শারীরিক আকর্ষণ হলো ক্ষনিকের ভাললাগা। এই ভাললাগা ভালবাসায় রূপ নিয়ে দীর্ঘদিন ঠিকিয়ে রাখতে হলে মানুষের মানবিক আর সামাজিক গুণাবলী মূল ভিত্তি। এজন্য একটি মানুষের এ দিকটা যখন পছন্দ হয় তখন তা ভাললাগা থেকে ভালবাসায় স্থান পায়। এটা নিখাদ ভালবাসা; ভ্রম নয় মোটেও।

ভাল থাকুন, সব সময়।

১২| ০৩ রা মে, ২০১৯ বিকাল ৩:৪১

নীল আকাশ বলেছেন: ব্লগের অনবদ্য প্রবন্ধকার যখন শেষমেশ কবিতা লেখা শুরু করল, তাও আবার প্রেমের কবিতা!
ডাল ম্যায় কুছ ক্যালা হ্যায় জী?
আপনার এই কবিতা পড়ে কবিদের নিয়ে আমার লেখা বেশ আগের কিছু লাইন মনে পড়ে গেল!

দিন শেষে মেয়েরা তার প্রেমিকের কাছেই ফিরে যায়
ব্যর্থ পুরুষরা কবি হয়ে আকাশের বুকে কবিতা লেখে,
হয়তো রাতে বালতি দিয়ে জোছনা ধরে, কিংবা
বিছানার চাদর দিয়ে অব্যক্ত স্বপ্নগুলিকে বাধে।

হারিয়ে ফেলা প্রেমিকার সিঁথির মাঝে
খুঁজে ফেরে চতুর্দশপদী কবিতা,
ছন্দের জাদুকর হয়ে উঠে
হঠাৎ, ব্যাকরনহীন পুরুষ।

নিকষ কালো নিঃসঙ্গতা যেন
আশ্রয় পায় বিমূর্ত পদ্যে,
কিংবা কিংবদন্তি রঙতুলি তে
এঁকে ফেলে এক জলজান্ত পোট্রেইট।


আপনার জয়া যেন এই এক জলজান্ত পোট্রেইট এরই জীবন্ত রূপছবি!!

৮ নাম্বার প্রতি মন্তব্যটা পড়ে অনেকক্ষন হাসলাম। ছড়া যদি লিখেন উনাকে নিয়েই শুরু করবেন।
আমার আগের পোস্টে উনাকে নিয়ে একজন অবশ্য ইতিমধ্যেই একটা ছড়া দিয়ে এসেছে। ব্যাপক বিনোদন।

পুনশ্চঃ ফেসবুকে মেয়েদের ছবি দেখে ভুলেও প্রেমের পড়ার নামও নিয়েন না। ৫০% অন্যের ছবি, আর বাকি ৫০% কুমকুম বিউটি পার্লারের আউটপুট।

শুভ কামনা অনন্তর।


০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ৮:১৭

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, প্রিয় গল্পের জাদুকর।
আসলে লেখালেখিতে হঠাৎ করেই আসা। কি লিখবো কিংবা আমার সাথে কোন লেখা যায় তা ভাবিনি কখনো। তবে, প্রবন্ধ লিখতে সবচেয়ে বেশি সময় ও শ্রম দেই এটা অস্বীকার করবো না। এছাড়া গল্প, অনুবাদ কিংবা কবিতা সবই লিখি খুব মনযোগী হয়ে। মূলত, লেখালেখির প্রতি ভালবাসা থেকেই লিখি। আপনার প্রতি মন্তব্য "টাচস্ক্রীন" কবিতাটি পছন্দ হয়েছে এবং তা প্রিয়তে আছে জেনে খুব ভাল লাগলো। এই কবিতাটিও অনেক সময় নিয়ে লেখা। ভাল মন্দ কি হয়েছে জানি না; পাঠকরাই বিচারক।

আপনার কবিতাটি তো কয়েকবার পড়লাম!! দারুণ রম্য!!!
"বালতি দিয়ে জোছনা ধরে"
"ছন্দের জাদুকর হয়ে উঠে
ব্যাকরণহীন পুরুষ"...............

আসলে প্রেমের ভ্রমের ফজিলতে এই পরিবর্তন আসে। এজন্য সারা দুনিয়ায় কতশত প্রেমের কাব্য রচনা হয়েছে। সবই প্রেমিকার কল্যাণে!! প্রেমিকার চুলকে তখন সর্গের সুখ মনে করে!

(৮) প্রতি মন্তব্য আমাকে ছড়া লিখতে অনুপ্রাণিত করেছে। লিখবো অবশ্যই.......

"আগডুম বাগডুম কুমকুম সাজে
চাঁদ মামা হাঁসে মহাকাশে
সূর্যি মামা অট্ট হাসে
শেয়াল মামা মুরগী চাষে!!"................ কেমন হলো?

সবশেষ সতর্কতা বার্তাটি অক্ষরে অক্ষরে পালন করবো............ যদিও দুই একটি ভ্রম কষ্টে আটকে দিয়েছি; খু-উ-ব ধৈর্য ধরে!!

১৩| ০৩ রা মে, ২০১৯ বিকাল ৫:১৩

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: সুন্দর কবিতা

০৩ রা মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২২

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, আপা। আপনি কবিতা পড়েছেন জেনে খুশি হলাম।

১৪| ০৩ রা মে, ২০১৯ বিকাল ৫:২১

চাঁদগাজী বলেছেন:


যেটা জানেন, সেটার উপর চেষ্টা করেন; সবগুলোতে চেষ্টা করলে, কোনটাই না হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

০৩ রা মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৬

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ব্লগে শকুনের দৃষ্টি পড়ায় কবিদের আনাগোনা একটু কম; এজন্য আপনার মতো কবিতাপ্রেমীদের জন্য কোবিতা একখান লিখলাম। একদম টাসা প্রেমের কবিতা! যদিও বাকী জীবনে খুব একটা কবিতা লেখার সম্ভাবনা নেই।

আপনার সাজেশন ভাল লাগলো। আবারো কমেন্টের জন্য ধন্যবাদ। ভাল থাকবেন।

১৫| ০৩ রা মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩২

সুমন কর বলেছেন: প্রতি লাইনে লাইনে প্রেমের বহিঃপ্রকাশ। ভালো হয়েছে। +।

০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ৮:০৪

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, প্রিয় কবি। প্রেমিক মনের ভ্রম এটি। কোবিতা নয়, এটি প্রেমের বহিঃপ্রকাশ। আপনার কবিতা আমাকে ভীষণরকম টানে। ভাল থাকুন, জীবনভর। কবিতা হোক প্রেমময়।

১৬| ০৩ রা মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪৫

প্রামানিক বলেছেন: ভালো লাগল। ধন্যবাদ

০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ৮:০৭

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, প্রিয় ছড়ার জাদুকর। আপনার ভাল লাগা আমার জন্য বিশেষ কিছু। ভালবাসা ভাল নয়, যদি তা ভাল হয়। জীবন হোক কবিতার মতো সুন্দর, প্রেম হোক হৃদয়ের টনিক। প্রেমহীন জীবন গতিহীন।

১৭| ০৩ রা মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪৯

নুরুন নাহার লিলিয়ান বলেছেন: বাহ অনেক সুন্দর ভালবাসায় থই থই করা লেখা । ভাল লাগল ভাইয়া ।

০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ৮:১১

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



প্রিয় উপন্যাসিকের আশীর্বাদ পেয়ে প্রেমিক মনটা আনচান করছে। প্রেম হোক আর ভ্রম হোক, প্রেমহীন জীবন আনন্দহীন। কবিতায় প্রেম চিরায়ত। ভার্চুয়াল জগতে প্রেম হলো ডালভাত! তবুও কিছু কালজয়ী প্রেমের রচনা হচ্ছে প্রতিনিয়ত।

১৮| ০৩ রা মে, ২০১৯ রাত ১০:৩২

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: হা হা হা

যেমন কবিতা তেমনি মন্তব্য প্রতিমন্তব্য!!!
বাহ বাহ বেশ বেশ!

নাামের আগে লকবের লম্বা লাইন দেখার অপেক্ষায় ;) ভায়া

এ অন্তহীন শুন্যতা। এ শুণ্যতা আছে বলেই সৃষ্টি চলমান।
জীবন গতিশীল
স্বপ্নরা নিত্য ফুল ফোটায় - -
জীবন এত সুন্দর, স্বপ্নময়, মধুময়

++++

০৪ ঠা মে, ২০১৯ রাত ১২:৪৯

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, কবিগুরু;
মিস করি আপনার তুখোড় কবিতা, উষ্ণ সান্নিধ্য আর আড্ডা। আপনার কবিতা পড়েই কবিতার প্রেমে পড়া!! আর কবিতার প্রেমকে রোমান্সে নিয়ে যেতে ভ্রমের গহ্বরে হাবুডুবু খাওয়া। এর কোন কূল কিনার নেই। আছে সীমাহীন অনিশ্চয়তা। আসলে প্রেম মানেই ভ্রম। এটা এক মিনিটও হতে পারে আবার জীবনভরও হতে পারে। এটাই আসলে প্রেম।

গুরু, নামের আগে সুপারী গাছের মতো লকলকে লম্বা টাইটেল লাগাতে চাই; ক্যাপিটালিজম অর্থনীতির এ জামানায় এটা ভীষণ প্রয়োজন। এখানে পণ্যের বাইরের লেবাসটাই মূল; ভেতরে মাল না থাকলেও চলে।

চমৎকার এ মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ গুরু।

১৯| ০৫ ই মে, ২০১৯ রাত ১:১৭

এম.কামরুল আলম বলেছেন: ‘ভ্রম নয় ভালোবাসা’ চমৎকার।

০৫ ই মে, ২০১৯ দুপুর ২:১৯

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



আমার ব্লগে আপনাকে স্বাগতম। আপনি দীর্ঘদিন থেকে সামু পরিবারের সাথে সম্পৃক্ত আছেন জেনে ভাল লাগলো। নিয়মিত ব্লগে আসলে খুশি হবো। ইদানিং কিছু অনভিপ্রেত ঘটনার জন্য অনেকেই ব্লগে আসতে পারছেন না। বিশেষ করে, নিয়মিত পাঠকদের উপস্থিতি কমে গেছে। আশা করি, আপনাকে নিয়মিত আমরা পাব।

ধন্যবাদ।

২০| ১০ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:৫৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: কাওসার চৌধুরী,




বাহ.... প্রেমের সুপারবাগ কবিতা!!!!!!!!!!
ফেসবুকের দেয়ালে তো নাকি সবই ফেক। ভার্চুয়াল ওয়ার্ল্ড বলে কথা। এটাও যদি কোনও ভ্রম হয়ে থাকে? তাহলে তো ভালোবাসা কর্পুরের মতো উবে যাবে!
তখন কি আরও একটা কবিতা হবে?

১১ ই মে, ২০১৯ রাত ২:১৫

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা রইলো শ্রদ্ধেয় আহমেদ জী এস;
আসলে আমার জীবনে প্রেমের ভাগ্য মোটেও আশানুরূপ না হলেও যতবার প্রেমে পড়েছি ততবারই একধরনের ভ্রমের মধ্যদিয়ে গেছি। এই অনুভূতি এক ও অভিন্ন। এজন্য আমার মনে হয় ভ্রমটাই সত্যিকারের প্রেম। কারণ, বছরের পর বছর ভালোবাসার পরও কোন কোন প্রেম হারিয়ে যায়, একে অন্যকে ভূলে যায় সহজেই। কেউ তো প্রেম করে বিয়ের পর সন্তান রেখে আলাদা হয়ে যায়। খুনাখুনি পর্যন্ত হয়। তাহলে এই দীর্ঘ প্রেম কী ভ্রম ছিলো?

আমি মনে করি, ভাললাগাটা যতক্ষণ স্থায়ী হবে ততক্ষণ প্রেম চলবে। এটা এক মুহুর্তের ভ্রম হলেও। চমৎকার এ মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ আপনাকে।

২১| ০৯ ই জুন, ২০১৯ রাত ৯:১০

খায়রুল আহসান বলেছেন: বাহ, চমৎকার কথা! অত্যন্ত সুখবর!!
কবিতা আরো লিখুন।
কবিতায় প্লাস +

১২ ই জুন, ২০১৯ দুপুর ১:৪৬

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



ধন্যবাদ, স্যার।
আপনি খোঁজে খোঁজে আমার লেখাগুলো মনোযোগ দিয়ে পড়েন দেখে মুগ্ধ হই। এমন গুরুজন/গুণীজনদের অনুপ্রেরণা আমার লেখার জগতকে প্রসারিত করবে নিঃসন্দেহে। ভালো থাকবেন সব সময়। শুভ কামনা রইলো, স্যার।

২২| ১২ ই জুন, ২০১৯ বিকাল ৩:০৭

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: অসম্ভব সুন্দর কবিতা। এসব কখন পোস্ট হয়ে যায় আমি টের পাই না :(

১৩ ই জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:০৭

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



একজন গুণী মানুষের আশীর্বাদ পেয়ে খুব ভালো লাগলো। ব্লগে আপনার কবিতার বড় ভক্ত আমি। নিজে খুব একটা লিখি না। তবে পছন্দের কবিতার একনিষ্ঠ পাঠক আমি। আশীর্বাদ করবেন যেন লেখালেখিটা চালিয়ে যেতে পারি।

শুভ কামনা রইলো, আপু।

২৩| ১৩ ই জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:১১

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: আল্লাহ ভরসা। লিখালিখি হলো মনের খোড়াক। ভালো থাকার সহজ উপায়। আমার লেখার পাঠক শুনে মনে খুব শান্তি পেলাম। এই ব্লগে আমার চেয়ে অনেক ভালো লেখিয়ে আছেন। আমার লেখা এখানে দিতে ধুনোমুনো করি সব সময়। লজ্জাও লাগে। মানহীন শব্দ দিয়ে সহজ ভাষায় লিখি এসব কবি বা লেখক হওয়ার জন্য । মনে অথৈ শান্তি মিলে একটা লেখা লিখতে পারলে। অনেক খুশি হলাম ভাইয়া ভালো থাকুন অনেক অনেক।

১৩ ই জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:২৫

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



আপনি ঠিকই বলেছেন লেখালেখি হলো মনের খোরাক। কেউ লিখেন মনের আনন্দে, কেউবা টাকার জন্য, আবার কেউ কেউ খ্যাতির জন্য। তবে, লেখালেখিতে সাধনা, একাগ্রতা, জানাশুনা না থাকলে ভালো মানের লেখা সম্ভব নয়। এজন্যই অনেকেই লিখেন কিন্তু লেখকের সংখ্যা হাতে গোনা। সামু ব্লগ যদি লেখক হয়ে উঠার মানদণ্ড হয় তাহলে আপনি নিঃসন্দেহে একজন ভালো মানের লেখক। লাইক, কমেন্ট, আলোচনা-পর্যালোচনা আর ভিজিটর দেখে তাই প্রমাণিত হয়।

লেখক সত্তা হলো মৌলিক। সবার আলাদা ভাবনা আর বৈচিত্র্য থাকে। এগুলোই লেখককে পাঠকের কাছাকাছি নিয়ে যায়। আপনার সেই গুণাবলি আছে, আছে মৌলিকতা। আশা করি, লেখালেখিটা নিয়মিত করবেন এবং প্রতি বছর অন্তত একটা বই বের করার চেষ্টা করবেন। কারণ, বই হলো পাঠকদের কাছাকাছি যাওয়ার সবচেয়ে উপযুক্ত মাধ্যম।

ভালো লেখকরা কখনো নিজের লেখায় পুরোপুরি সন্তুষ্ট হন না। আর এই অসন্তোষ আর আরো ভালো লেখার তাগিদই তাকে এগিয়ে নিয়ে যায় সফলতার দিকে। আপনিও তার ব্যতিক্রম নয়। এগিয়ে যেতে আপনার মনোবল আর সদিচ্ছাই আসল।

ধন্যবাদ, আপু।

২৪| ১৩ ই জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:২৯

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: আপনার সুন্দর মন্তব্যে মনে অনেক শান্তি পেলাম। আজকে রাজীব নুর কবিদের নিয়ে যাচ্ছেতাই পোস্ট দিয়েছেন। মনটা খারাপ হলো এ দেখে।

১৩ ই জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:৩৮

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



পোস্টটা আমি পড়িনি এখনো। ব্লগ তো আসলে পিওর সাহিত্য পাতা নয়। আর এখানে যারা লিখেন তাদের বেশিরভাগই প্রতিষ্ঠিত লেখক নয়। এজন্য অনেক মানহীন লেখাও চলে আসে হয়তো। অনেকে দিনের পর দিন এভাবে লিখেন কিন্তু পরিবর্তনের লক্ষণ নেই! মনে হয় শুধু লেখার জন্যই লিখছেন। এগুলো ব্লগের সৌন্দর্য নষ্ট করে। কেউ কেউ তো পারলে দিনে তিনটি কবিতাও পোস্ট করছেন; কিন্তু মানের বিষয়ে উদাসীন! এজন্য মাঝে মাঝে কঠিন সমালোচনা হয়। আপনি নিশ্চয়ই ভালো লিখেন। নিঃসন্দেহে।

২৫| ২৯ শে জুন, ২০১৯ বিকাল ৫:৩৭

কথার ফুলঝুরি! বলেছেন: আমাদের অলরাউন্ডার ভাইয়া, চমৎকার এক কবিতা 8-| সত্যি বলছি অনেক ভালো লেগেছে । তা, মিস/মিসেস জয়া কি আমার ভাইয়ার বাস্তব নাকি কল্পনা ;) ;)

কিছুদিন থেকেই আমার মাথায় আমার আর আমার বিশেষ কবি মদন চাঁদের প্রথম দেখা নিয়ে একটি কবিতা ঘুরছে কিন্তু আর লিখতে বসা হচ্ছেনা |-) আর দুঃখের কথা হচ্ছে আমাদের প্রথম দেখা নিয়ে একটি গল্পও লিখেছিলাম কিন্তু সেই লেখাটি আমিযে কোথায় হারিয়ে ফেললাম মনে নেই :(

০৩ রা জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:৪৩

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



কেমন আছেন আপনি? ব্লগের সমস্যার জন্য গত কিছুদিন সামুতে ঢুঁকতে পারিনি। আপনার কমেন্টের প্রতি উত্তরও করতে পারিনি। আমি আসলে কোন বিষয়েই ভালো লিখতে পারি না। তবে পছন্দে টপিকঃ নিয়ে লেখতে ভালো লাগে। একটা সময় নিয়মিত কবিতা লেখলেও এখন তেমন একটা লিখি না।

না, এই জয়াটি একটি কল্পিত সুন্দরী; কথার ফুলঝুরির মতো! যাকে কখনো দেখিনি কিন্তু অনেক গুণী আর সুন্দরী মনে করি। মদনচাঁদকে নিয়ে নিয়মিত কবিতা লিখুন। এতে কবিতার হাত খোলবে।

আরেকটি কথা, ব্লগে কোন সমস্যা হলে যোগাযোগ রাখার আর কোন বিকল্প নেই। আপনি তো মনে হয় ফেইসবুকেও সম্পৃক্ত নয়। [email protected] একটা মেইল দিয়েন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.