নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

বহুদিন আগে কোন এক বারান্দায় শেষ বিকেলের আলোয় আলোকিত উড়ন্ত খোলা চুলের এক তীক্ষ্ণ হৃদয়হরনকারী দৃষ্টি সম্পন্ন তরুনীকে দেখে ভেবেছিলাম, আমি যাদুকর হব। মানুষ বশীকরণের যাদু শিখে, তাকে বশ করে নিশ্চিন্তে কাটিয়ে দিব সারাটি জীবন।

কাল্পনিক_ভালোবাসা

একদিন সব হাসির ময়নাতদন্ত হবে, ফরেনসিক রিপোর্টে লেখা থাকবে - সবই মিথ্যে।

কাল্পনিক_ভালোবাসা › বিস্তারিত পোস্টঃ

ব্লগে গৎ বাঁধা পোষ্টের অত্যাচার, কিভাবে রেফারেন্স যুক্ত করবেন এবং অন্যান্য কিছু প্রয়োজনীয় বিষয় সম্পর্কে।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:০৫

পোস্টের নিচে কিছু আপডেট যুক্ত করা হয়েছে।

সামহোয়্যারইন ব্লগে সাম্প্রতিক সময়ে ভালো বিষয় ভিত্তিক ব্লগ পোস্টের প্রচন্ড খরা চলছে। খুব কম পোস্টেই ভালো আলোচনা হয়, সুষ্ঠ বিতর্ক হয়। কেবল ধর্ম ভিত্তিক পোষ্টেই মাঝে মাঝে দেখি বিতর্কের নামে চলছে কিছু হাস্যকর আলোচনা। আর এই সকল ধর্মীয় পোস্টগুলোর মান যে খুব একটা ভালো তা বলা যাবে না, হাতে গনা দুই একটা পোস্ট বাদ দিলে অধিকাংশ পোষ্টই নিম্নমানের গ্রাম্য ওয়াজ টাইপ পোস্ট। এই সকল পোস্ট ধর্মের জন্য তো বটেই, দেশ, জাতি ও মানবতার জন্য কতখানি প্রয়োজনীয় সেটা মহান সৃষ্টিকর্তাই ভালো বলতে পারবেন। যেখানে পৃথিবী এগিয়ে যাচ্ছে, প্রযুক্তি এগিয়ে যাচ্ছে, ধর্মের মুল আদর্শ বজায় রেখে আধুনিকতাকে গ্রহন করা হচ্ছে, সেখানে কিছু মানুষ গৎ বাঁধা ধর্মীয় আলোচনায় মগ্ন থাকছে। এদের কেউ সমালোচনা করলে, ইনিয়ে বিনিয়ে বুঝানোর চেষ্টা হচ্ছে বাকিরা ধর্ম বিদ্বেষী। একজন ব্লগারকে কিছুদিন ধরে লক্ষ্য করছি, ধর্ম বিষয়ক পোস্টে কিছু জানতে চাইলেই তিনি তাঁকে ইসলাম বিরোধী হিসাবে ভাবছেন। অন্য কেউ হলে আমি তাৎক্ষনিকভাবে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতাম। কিন্তু যার কথা বলছি, তিনি তুলনা মুলক সহজ সরল বিধায় নিজেকে নিয়ন্ত্রন করাই শ্রেয়। তবে আমাদের মনে রাখতে হবে, অতিরিক্ত সরলতা আর বুদ্ধিহীন প্রাণীর মগজ নিয়ে বেঁচে থাকার মাঝে কোন পার্থক্য নেই।

আপনার পছন্দ হোক বা না হোক, তিক্ত বাস্তবতা হচ্ছে ধর্ম বিষয়ে বাজারে প্রচুর বই আছে, রেফারেন্স আছে। যা থেকে আপনি ধর্মীয় বিভিন্ন বিধি বিধান, ধর্মীয় বই পড়ার শিক্ষা, কোনটা জাল রেফারেন্স, কোনটা সহি রেফারেন্স, ধর্মীয় বিভিন্ন বিখ্যাত ব্যক্তিদের জীবনী সম্পর্কেও জানতে পারবেন। এইগুলো সেই সব বই থেকে হুবহু কপি করে ব্লগে দেয়ার মধ্যে কোন গুরত্ব নেই। এতে শুধু শুধু সময় অপচয় এবং এক ধরনের আবর্জনা সৃষ্টি হয়। আপনার এই সব লেখাকে ধর্ম প্রচারের স্বার্থে আপনার কষ্ট বা অবদান হিসাবে দেখার কোন সুযোগ নাই।

আপনাকে নতুন কিছু জানাতে হবে। সেই জন্য আপনাকে প্রচুর পড়াশোনা করতে হবে। আপনাকে লিখতে হবে ধর্মীয় আলোকে দূর্নীতির বিরুদ্ধে, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় নিয়মকানুন মানার গুরুত্ব সম্পর্কে। ধর্ম যে শুধু আধ্যাতিক বিষয় নয় বরং ব্যবহারিক জীবনে কিভাবে ধর্মকে প্রয়োগ করে আপনি আধুনিক হবেন সেটা সম্পর্কেও লিখতে হবে। যেমন ধরুন ইসলাম ধর্মে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা থাকা সম্পর্কে গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে। এটা তো শুধু নিজের সম্পর্কে না, আপনার আশেপাশেও পরিষ্কার রাখা জরুরী। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকা মানে শুধু মাত্র নামাজের আগে বা কোরান শরীফ পড়ার সময় ওযু করা না। রাস্তা ঘাটে যেখানে সেখানে ময়লা না ফেলা, থুতু না ফেলা, আবর্জনা না ফেলা ইত্যাদি সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করা আপনার ধর্মীয়, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব ও কর্তব্য। ধর্মে এই ব্যাপারে সুস্পষ্ট নীতিমালা আছে। একজন ব্যক্তি যদি তার জীবনে তা অনুসারিত ধর্মের বিভিন্ন নিয়ম কানুনের বাস্তবিক প্রয়োগ ঘটাতে না পারে, তাহলে তিনি শুধু মাত্র নাম কা ওয়াস্তে ধার্মিক।

ধর্ম বিষয়ে যারা লিখেন তাদের উচিত দূর্নীতি নিয়ে লেখা। ধর্ম কিভাবে দূর্নীতি প্রতিরোধ করতে পারে, সেই সম্পর্কে জানানো। এই ক্ষেত্রে সাধারন মানুষদের চাইতে এগিয়ে আসতে হবে দেশের মসজিদের ইমাম, এতিম খানার ম্যানেজমেন্ট, মন্দির বা গীর্জার পুরোহিতদের। তাদেরকে উচ্চ কন্ঠে বলতে হবে – অনুগ্রহ করে এই মসজিদে কেউ দুর্নীতির টাকা দিবেন না, অন্যায়ভাবে অর্জন করা অর্থ সম্পদ আমাদের প্রয়োজন নেই। এটা মুখে বলতে হবে, প্রয়োজনে লিখেও দিতে হবে। তাই এই বিষয়ে ব্লগে লেখালেখি শুরু করতে হবে। শুধুমাত্র ধর্মের বানী প্রচার করে সব সহি শুদ্ধ করে ফেলতে পারলে তো আর কথা ছিলো না। ব্লগাররা যে কোন অন্যায়ে আগে এগিয়ে এসেছে, প্রতিবাদ করেছে। তাই ধর্মীয় আদর্শ দিয়ে কিভাবে দূর্নীতি প্রতিরোধ করা যায়, সেই বিষয়ে আলোচনা করতে হবে। মানুষকে সচেতন করতে হবে। আপনার এলাকায় আপনি দায়িত্ব নিয়ে শুরু করুন, অন্য এলাকায়ও দেখবেন তার প্রভাব পড়েছে। মোটকথা ব্লগে আপনি লিখবেন মানুষকে সচেতন করবেন, ব্লগের একটা লেখা পড়ে মানুষ যেন বুঝে – যারা ব্লগারা তাঁরা সবাই পড়ালেখা জানা মানুষ, এরা সময়ের চেয়ে এগিয়ে থাকা মানুষ। এরা ধর্ম ভালো বুঝে। ধর্মকে অন্ধের মত সমর্থন করে না।

দেখা যাবে আমার এই লেখার এই অংশটুকু পড়ে কয়েকজন ব্লগার ধর্মকে ব্যবহারিক জীবনে আনার উদহারন হিসাবে পোস্ট দিচ্ছেন – সাপে কামড় দিয়ে কোন দোয়া পড়বেন, যৌবনের শক্তি বাড়াতে কোন দোয়া পড়বেন কিংবা স্ত্রীকে বশে আনতে কোন দোয়া পড়বেন। এবং এমনটাই হওয়ার সম্ভবনা ৯০%। আর কারা এমনটা দিতেন পারেন তাদেরকেও অধিকাংশ মানুষ চিনেন বলেই আমার বিশ্বাস।


এরপর যারা ধর্ম নিয়ে নিয়মিত লিখেন, তাদের লিখতে হবে আমাদের ধর্মীয় শিক্ষা ব্যবস্থার আধুনিকায়ন সম্পর্কে। এটার অর্থ এই না, যারা ধর্ম বিষয়ে পড়বেন, তাদেরকে বিজ্ঞানে বা ভুগোলে পন্ডিত হতে হবে। নুন্যতম বিজ্ঞান ও ভুগোল সম্পর্কে জানতে হবে, তা না হইলে, মিশর থেকে কুয়েত যাওয়ার সময় আপনি হিমালয় দেখার গল্প শুনিয়ে এবং রকেটে করে আমেরিকা যাবার গল্প করে ধর্মকে হাস্যকার বানাবেন। ধর্ম শিক্ষা যদি আধুনিক না হয়, তাহলে যারা ধর্ম শেখাবেন বা প্রচার করবেন, তারাও মানুষকে ভুল শেখাবেন। এইভাবে ভুল শিখতে শিখতে তা একসময় মহা বিপর্যয় সৃষ্টি করবে বা ইতিমধ্যে করছেও। সবার যেমন ধর্মের বেসিক দরকার, তেমনি সকল মানুষেরও বিজ্ঞানের বেসিক দরকার। যারা এই নিয়ে হট্টগোল করবেন, তারা শিক্ষিত হলেও মুর্খ। এই ধরনের ক্যাটাগরী সবচেয়ে বিপদজনক ক্যাটাগরীর মধ্যে অন্যতম।

একই কথা ব্লগের যারা তথাকথিত ধর্ম বিরোধী, ধর্ম বিদ্বেষী আছেন তাদের সম্পর্কেও। নাস্তিকতা সম্পর্কে তাদের একমাত্র ধারনা –সৃষ্টিকর্তাকে গালি দেয়া, যারা ধর্ম বিশ্বাস করে তাদের আবেগ ও মুল্যবোধকে চুড়ান্ত অসম্মান প্রদর্শন করা এবং পৃথিবীর সকল সমস্যার মুলে ইসলাম ধর্মকে ধরে নিয়ে ভয়াবহ বিদ্বেষ ছড়ানো। নাস্তিকতা এত হালকা বিষয় নয়। নাস্তিকতা একটি দর্শন। যুক্তির সাথে বিশ্বাসের লড়াই। অনুগ্রহ করে একটু পড়াশোনা করলেই জানতে পারবেন যে ধর্মের সমালোচনা আর নাস্তিক্যবাদ এক জিনিস নয়। বিষয়টা সহজে বুঝার জন্য উইকিপিডিয়ার আশ্রয় নিতে পারেন। সেখানে মোটামুটি সহজবোধ্যভাবে বলা আছে।

ব্লগে আমরা মুক্তমত প্রকাশের নামে ভয়াবহ ধর্ম বিদ্বেষী পোস্ট দেয়াকে সমর্থন করি না। এর অর্থ হচ্ছে, আপনি মুক্তমত প্রকাশের নামে ঘৃণাবাক্য ছড়াতে পারেন না। হেইট স্পীচ কখনই ফ্রিডম অব স্পীচ নয়। আপনি ধর্ম মানেন না, ধর্মের বিখ্যাত ব্যক্তিদের মানেন না, সেটা আপনার ব্যক্তিগত বিষয়। কিন্তু আপনি যখন কোন ধর্মীয় ব্যক্তিকে চুড়ান্ত অসম্মান করবেন, কোন ধর্মের পবিত্র গ্রন্থের উপর চা বা কফির কাপ রেখে ছবি তুলে সাধারন ধর্ম বিশ্বাসী মানুষকে ক্ষেপিয়ে তোলা বা আহত করাকে যদি মুক্তমত বা স্বাধীন মত প্রকাশ ভাবেন তাহলে সেটা চুড়ান্ত ভুল। আমরা এই ধরনের বাক স্বাধীনতায় বিশ্বাস করি না। যিনি এই ধরনের হাস্যকর কাজ করছেন, তিনি নিজেকে নিজের অলক্ষ্যেই হাস্যকরভাবে অপরিপক্ক বানিয়ে ফেলছেন।

পাশাপাশি কেউ যদি কোন ধর্ম বিষয়ে স্পর্শকাতর কোন তথ্য প্রকাশ করেন, তাহলে সেই ক্ষেত্রে তাঁকে উভয় পক্ষের কাছে গ্রহনযোগ্য কোন তথ্যসুত্র দিতে হবে। কারন বাজারে অনেক প্রচলিত মিথ্য তথ্যপূর্ন বই থাকার প্রমান বিশেজ্ঞরা পেয়েছেন। মহানবী হযরত মোহাম্মদ সাঃ এর মৃত্যূর পর ইসলামের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়ে বিভিন্ন দন্দ্বের কথা শোনা যায় যা শুধু মাত্র শিয়াদের কর্মকান্ড হিসাবে এক শ্রেনীর মানুষ চালিয়ে দিতে চায়। আমার জানা মতে, ইসলামের পবিত্র গ্রন্থ আল কোরানে শিয়া সুন্নি বিভাজন বা মাহজাব সমর্থনে কোন সুস্পষ্ট দলিল নেই, বা খলিফা নির্বাচন নিয়ে প্রক্রিয়া বা আদেশ নেই। এই সকল বিষয় নির্ধারিত হয়েছে হাদীস দিয়ে। ফলে এই সকল বিষয় নিয়ে যদি কেউ প্রশ্ন তুলে বা এই সকল বিষয় জানতে চায় সেটা অন্যায় চাওয়া নয় বলেই আমার বিশ্বাস। আমি মনে করি, ইসলামের স্বার্থেই এই সকল বিষয়ে পরিষ্কার আলোচনা হওয়া প্রয়োজন। তাই এই সকল বিষয়ে আলোচনা হতে পারে। আর কেউ যদি ইসলামের কোন অজানা বিষয় সম্পর্কে জানতে চায় এবং তাঁকে যদি কেউ ইসলাম বিদ্বেষী বা নাস্তিক বা কোন ধরনের অন্যায় টাগিং করেন, সেটা হবে চুড়ান্ত ধরনের অন্যায়। আমরা এই ধরনের অন্যায় কাজ সমর্থন করব না।

আমি আশা করব, এই ধরনের আলোচনা যদি হয়, তাহলে সকলেই গ্রহনযোগ্য কোন রেফারেন্সের ভিত্তিতে আলোচনা করবেন। কোন অখ্যাত বা অগ্রহনযোগ্য রেফারেন্স দিয়ে অহেতুক বিতর্ক গ্রহনযোগ্য হবে না।

এরপর আসা যাক, বাকি সাধারন পোস্ট সম্পর্কে। ব্লগে সুলিখিত রাজনৈতিক লেখা তেমন একটা আসে না। আর যেগুলো আসে, সেগুলো ব্লগ দেখে হয়ত আমরা প্রকাশ করছি, কিন্তু কোন সুস্থ আলোচনায় এই ধরনের লেখা প্রকাশযোগ্য না। অথচ এই ধরনের লেখা যারা লিখছেন তারা বিভিন্ন মন্তব্যে দাবী করছেন, ব্লগাররা জাতির সেরা সন্তান, ব্লগাররা জাতির বিবেক, ব্লগাররা জাতিকে এগিয়ে নিবে। প্রশ্ন হচ্ছে, এই ধরনের ভাষা ব্যবহার করে, শব্দ চয়ন করে ব্লগাররা কি সত্যি দেশ ও জাতিকে এগিয়ে নিতে পারবে?

আরেক শ্রেনী আছে যারা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গেছেন নবী রাসুলদের পর্যায়ে। তাঁকে নিয়ে কোন সমালোচনা করা যাবে না, তাঁর কোন কাজের ব্যাপারে প্রশ্ন করা যাবে না ইত্যাদি। কেউ মানুক বা না মানুক বাস্তবতা হচ্ছে, নেতা হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অবিসংবিদিত এবং তিনি আমাদের জাতির পিতা। আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রামে তাঁর অবদান অনস্বীকার্য। বাঙালির রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক মুক্তির লক্ষ্যে অবিচলিত, বিরামহীনভাবে কাজ করেছেন তিনি, দিনের পর দিন তিনি ত্যাগ স্বীকার করেছেন। ফলে বঙ্গবন্ধুর প্রতি দেশের মানুষের সম্মান ও ভালোবাসা চিরজীবনই থাকবে তেমনি তাঁর শাসনামলের অনেক ব্যর্থতার কথাও মানুষ স্মরন রাখবে। কতিপয় গো-ছানাদের অতিরিক্ত কচলাকচলি এবং কিছু ছাগ শিশুদের ম্যাতাকারে প্রকৃত নেতাদের কিছুই যায় আসে না। মুজিবের মত নেতা বার বার জন্মায় না।

কিছুদিন আগে আমি একটি পোস্ট দিয়েছিলাম মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে। সেখানে আমাকে একজন প্রশ্ন করেছিলেন, যে দশ বছর আগের স্বাধীন মত প্রকাশের সুযোগ আর বর্তমানে মত প্রকাশের সুযোগ কি এক? এর উত্তর সহজ ভাষায় দেয়া কঠিন। তবে কিছুটা সহজ করে বলার চেষ্টা করলে বলতে হবে, আমার মত প্রকাশ যতক্ষন পর্যন্ত না ক্ষমতার সর্বোচ্চ শীর্ষ স্থানীয় ব্যক্তির জন্য অস্বস্তি বা বিব্রত হবার কারন হয়ে না দাঁড়ায়, ততক্ষন পর্যন্ত আমি স্বাধীন মত প্রকাশ করতে পারছি। কিন্তু এর ব্যতিক্রম হলেই বিপদ।

আমাদেরকে প্রকাশযোগ্য ভাষায় এই ধরনের সিলেক্টেড মত প্রকাশের ভয়াবহতা নিয়ে লিখতে হবে। আপনি উত্তেজনার বসে গালাগালি ও প্রকাশ অযোগ্য শব্দ দিয়ে যদি কিছু লিখেন আর সেটা যদি মুছে দেয়া হয়, তখন ব্লগ অথোরিটিকে গালাগালি করতে পারেন। আমরা নীতিমালা অনুযায়ী ব্যবস্থা নিবো।

আমি প্রচন্ড হতাশার সাথে লক্ষ্য করছি, আমাদের নতুন বা মোটামুটি বয়সের ব্লগারদের নিজেদের লেখার মান উন্নয়নে কোন আগ্রহ নেই। একটা এক ঘেয়েমীর ছাপ সর্বত্র। যেমন ধরুন একজন ছবি ব্লগ দিয়ে যাচ্ছেন, সেখানে দিনের পর দিন শুধু একই ধরনের ছবি, দুই চারটা ছবি দিয়েই শেষ! পোস্ট পড়ার কোন আগ্রহ পাই না। সম্ভব হলে আপনারা আগের ছবি ব্লগগুলো দেখবেন, তাহলে কিছুটা হলেও ধারনা পাবেন।

ফিচার পোস্ট এখন তো তেমন আর আসে না। বাঘা বাঘা ফিচার রাইটার সব এখন ব্যস্ত। তারা প্রচুর দিয়েছেন এই সামহোয়্যারইন ব্লগকে। তাদের কথা আমি কৃতজ্ঞ চিত্তে স্মরন করি। দুই একজন যারা ফিচার লেখার চেষ্টা করেছেন তারা অনেকেই সামহোয়্যারইন ব্লগারদেরই লেখা অন্য প্ল্যাটফর্ম থেকে কপি করে এনে আবার এখানে নিজ নামে প্রকাশ করছেন। এটা দুঃখজনক, হতাশজনক। একটা ফিচার লেখার জন্য যে ধরনের পড়াশোনা করা প্রয়োজন, বই পড়া প্রয়োজন, আমরা কি তা পড়তে পারছি? অনুগ্রহ করে যদি কেউ ফিচার লিখতে চান, তাহলে সেই সম্পর্কে গুগলে গিয়ে সার্চ করে দেখবেন যে সামহোয়্যারইন ব্লগে কোন লেখা আছে কি না। সেটা আগে পড়ে তারপর অন্য প্ল্যাটফর্মের লেখাগুলো পড়বেন।

ব্লগে মানসম্মত রম্য, স্যাটায়ার তো এখন দুষ্প্রাপ্য মাছের মত বিরল। ভ্রমন পোস্ট তো দেশি কই মাছ! আমি জুন আপাকে কৃতজ্ঞতা জানাই, তিনি আমাদেরকে এখনও দারুন দারুন সব লেখা দিয়ে যাচ্ছেন। জুন আপা যদি বই বের করেন, সেটা হবে বর্তমান সময়ে সেরা ভ্রমন কাহিনীর ব্লগ।

আর রেফারেন্স দেয়ার ক্ষেত্রে ব্লগারদের আলসেমিটি অত্যন্ত দৃষ্টিকটু। আমি বার বার করে অনুরোধ করছি, আপনারা সঠিক রেফারেন্স প্রদান করুন। কোন পোস্টের শেষে অনলাইন থেকে সংগৃহীত বা শুধু সংগৃহীত লিখেই সবাই খালাস। রেফারেন্স দেয়া নিয়ে ব্লগার আর ইউ এর একটি পোস্টে সম্প্রতি বেশ আলোচনা হয়েছে। সেখানে আমি কিছুটা অসম্পূর্ন তথ্য বা ভুল তথ্য প্রদান করেছিলাম যা প্রিয় ব্লগার সোনাবীজ ভাই সুন্দর করে ব্যাখ্যা করে স্পষ্ট করে দিয়েছেন। সেই হিসাবে বলা যায়ঃ -

অনুগ্রহ করে আপনি পোস্টে কোন ছবি ব্যবহার করলে, সেই আলোকচিত্রী শিল্পীর নাম, যে সাইটে প্রকাশিত হয়েছে তার নাম পোস্টের শেষে লিখে দিন। আমরা কিছু বিশেষ করে কারনে সরাসরি হাইপার লিংক প্রদান করাকে উৎসাহিত করি না। যদি ছবির কোন কপিরাইট না থাকলেও যে সাইট থেকে সংগ্রহ করেছেন তা উল্লেখ্য করে দিন। পাশাপাশি, কোন ফিচার বা কোন পোস্ট তৈরীতে যদি আপনি অন্য কোন লেখক, বই, সাইট বা অন্য যে কোন কিছুর সাহায্য নিয়ে থাকুন না কেন, তা অনুগ্রহ করে পোস্টে উল্লেখ্য করে দিন এবং যারা জানেন না, তাদেরকে ভালো করে বুঝিয়ে বলুন। এর পরেও যদি কেউ বার বার ইচ্ছাকৃত ভুল করেন, তাহলে তার পোস্ট প্রকাশের সুবিধা আমরা নিয়ন্ত্রন করব। সেই ক্ষেত্রে নু্ন্যতম তিন সাপ্তাহ আগে কেউ পোস্ট প্রকাশের সুবিধা পাবেন না।

গল্প, কবিতা ইত্যাদি নিয়ে আমার আসলে তেমন কিছু বলার নেই। এটা কমিউনিটি ব্লগ, এখানে সবাই ভালো লিখবেন এমন কোন কথা নেই। এখানে চাইলে সমরেশ মজুমদারও একাউন্ট খুলে লিখতে পারেন আবার হিরো আলমও চাইলে লিখতে পারেন। আমাদের চাওয়া ভালো ভালো লেখকের লেখা পড়ে নতুন লেখকরাও একদিন ভালো লিখবেন।

গত বছর ব্লগের ভবিষ্যত ও মডারেশন নিয়ে বেশ আলোচনা সমালোচনা হয়েছিলো। আমরা ভেবেছিলাম, এতে হয়ত ব্লগে নবজাগরন ঘটবে, কিন্তু আফসোসের বিষয়, ঘুরে ফিরে সবাই নাম লিখিয়েছেন - বাকি খাতায় মানে এখন কোথাও কেউ নেই। দিন শেষে বিশাল হাভেলীর বৃদ্ধ কেয়ার টেকার হিসাবে আমিই আছি। নতুন মেহমানের অপেক্ষায়। যাইহোক, যারা ব্লগে মোটামুটি একটা দীর্ঘ সময় কাটিয়েছেন, আশা করি তাঁরা নতুন ব্লগারদেরকে সাহায্য করবেন ভালো পোস্ট লিখতে। নিয়ম সম্পর্কে জানাবেন। পিঠ চাপড়াচাপড়ি ব্লগিং বাদ দিয়ে সত্যি সমালোচনা করবেন। নিত্য নতুন বৈচিত্রময় বিষয়ে লিখুন। কপি করা পোস্ট বাদ দিয়ে নিজের আগ্রহের জায়গা থেকে লিখুন, নিজে যা বুঝেন, যতটুকু বুঝেন, তাই লিখুন।

ব্লগ অনেক মোবাইল নেটওয়ার্ক থেকে ভিজিট করা যায় না। আমরা বিভিন্ন দ্বারে দ্বারে ঘুরে কোন ফলাফল না পেয়ে হতাশ। যদি এই বিষয়ে কেউ কোন সাহায্য করতে পারেন, তাহলে ব্লগ টিমের সাথে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করছি।

ধন্যবাদ সবাইকে,
শুভ ব্লগিং।

ব্লগ পোস্টে রেফারেন্সের বিষয় নিয়ে বার বার জানানো হলেও অনেকেই বিষয়টি বুঝতে পারছেন না। তাই এখানে পোস্টে রেফারেন্স যুক্ত করার নিয়ম সংযুক্ত করা হলোঃ

১। কোন সংবাদপত্র বা কোন ওয়েব সাইট বা কোন বই থেকে যদি কেউ কোন তথ্য বা ছবি তার নিজস্ব পোস্টে সংযুক্ত করেন, তাহলে অবশ্যই উক্ত সংবাদপত্র/ ওয়েব সাইট/ বই এর নাম রেফারেন্স হিসাবে উল্লেখ্য করতে হবে। সংবাদপত্রে প্রকাশিত কোন লেখা বা ছবি যার লেখক বা আলোকচিত্রী শিল্পীর নাম উল্লেখ্য থাকবে, আপনার পোস্টে সেই সংবাদপত্রের নাম সহ লেখক বা আলোকচিত্রী শিল্পীর নাম উল্লেখ্য করতে হবে।

যদি কেউ এমনটা করতে ব্যর্থ হন, আমরা নোটিস দিবো। এর পরেও যদি পোস্টে প্রয়োজনীয় রেফারেন্স যুক্ত করতে কেউ ব্যর্থ হন, তাহলে সেই ক্ষেত্রে আমরা পোস্টটি সরিয়ে দিবো।


২। রেফারেন্স হিসাবে যদি কেউ কোন বইয়ের নাম প্রদান করেন, তাহলে অবশ্যই বইটির নাম, লেখক এবং সম্ভব হলে পাবলিকেশনের নাম উল্লেখ্য করতে হবে। পাবলিকেশনের নাম এই কারনে প্রয়োজন - কোন কারনে যদি কেউ বইটি সন্ধান করে বা বইটির অস্তিত্ব আদৌ আছে কি না যদি তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে, তখন পাবলিকেশনের নাম থাকলে তা খুঁজে বের করতে সুবিধা হয়।

৩। ছবি সুত্র প্রদানের ক্ষেত্রে কেউ যদি উল্লেখ্য করেন 'গুগল' তাহলে তা গ্রহনযোগ্য হবে না। কারন গুগল একটি সার্চ ইঞ্জিন। গুগল কোন ছবি প্রকাশ করে না। আপনি গুগল সার্চ করে যে ছবিটি সংযুক্ত করতে চাইবেন, সেই ছবির নিচে ছবিরটির মুল সোর্স দেখাবে। আপনাকে সেই সোর্স মাধ্যমের নাম উল্লেখ্য করতে হবে।

যেমন আপনি ঢাকা শহর গুগলে সার্চ দিলে অনেক ছবি আসবে। ধরুন আপনি যে ছবিটি পছন্দ করলেন, তা
ডেইলি স্টারে প্রকাশিত হয়েছে। এই ক্ষেত্রে আপনি ছবিটিতে ক্লিক করার পর দেখবেন, যে সেখানে ফটোগ্রাফারের নাম দেয়া আছে। যদি আপনি এই ছবিটি ব্যবহার করতে চাই, সেই ক্ষেত্রে পোস্টে ছবিটি ব্যবহার করার পর পোস্টের নিচে উল্লেখ্য করতে হবে,
ছবি সুত্রঃ দৈনিক ডেইলি স্টার, ফটোগ্রাফার, আনিসুর রহমান।

আর যদি কোন পত্রিকায় ফটোগ্রাফারের নাম না উল্লেখ্য থাকে, তাহলে শুধুমাত্র উক্ত পত্রিকার নাম জানাতে হবে।


রেফারেন্স দিলে কেউ ছোট হয়ে যায় না, কারো পোস্টের মান করে যায় না, বরং পোস্ট এবং পোস্ট দাতা সম্পর্কে ইতিবাচক মনোভাব তৈরী হয়।

আমার এই পোস্টকে অনেকেই অনেক ভাবে দেখছেন। কেউ ভাবছেন, এই পোস্ট দিয়ে ব্লগারদের অপমান করা হয়েছে কিংবা ব্লগারদের চিন্তাভাবনায় শিকল টানা হয়েছে। আবার অনেকেই ভাবছেন এই পোস্টের পর অনেকেই লিখতে ভয় পাবে।

প্রথমত, আমার কাছে এই ধরনের কথাবার্তা খুবই অযৌক্তিক মনে হয়েছে।
দ্বিতীয়ত, লেখার মান ভালো করার জন্য, ভালো পোস্ট প্রদান করার জন্য, একটি গাইড লাইনের প্রয়োজন। এই পোস্ট সেই গাইড লাইনের কিছুটা হলেও ভুমিকা পালন করতে পারবে বলে আমার বিশ্বাস।
তৃতীয়ত, এই পোস্টে বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক পোস্ট কেমন হতে পারে সেই ব্যাপারে ধারনা দেয়া হয়েছে। গৎবাঁধা এবং অপ্রয়োজনীয় পোস্ট ( মডারেশন বা ব্লগ টিমের বিবেচনায়) প্রথম পাতা থেকে সরিয়ে দেয়া হতে পারে।
চতুর্থ, আমি ব্যক্তিগতভাবে চাই - আপনি আপনার পছন্দ সই বিষয়ে লিখুন। যা বুঝবেন, যতটুকু জানেন নিজে থেকে লিখুন, প্রয়োজনে ভালো বই, পত্রিকা, ওয়েব সাইটের সাহায্য নিন। সব কিছুর বিনিময়ে আমরা আপনার মুল্যায়ন, আপনার মতামত জানতে চাই। ব্লগ লেখার নামে কপিপেষ্ট করবেন না। কেউ যদি কপি পেষ্ট পোস্ট করে তা উল্লেখ্য না করেন, সেই ক্ষেত্রে পোস্ট দাতার পোস্ট সুবিধা ব্যবহত হতে পারে।
পঞ্চম, বিভিন্ন পোস্টে আপনারা মত প্রকাশ করুন, আপনাদের মতামত দিন। ভালো না লাগলে স্পষ্ট ভাষায় বলুন ভালো লাগে নি। ভালো লাগলে জানান - ভালো লেগেছে। কারন পাঠকদের সত্যিকার মতামত ছাড়া ভালো লেখক তৈরী হয় না।

আমার ব্যক্তিগত জীবনে দেখেছি - পিঠ চাপড়া চাপড়ির কমেন্টের ফলে উৎসাহিত হয়ে বই প্রকাশ করে, একটা বইও বিক্রি করতে পারেন নি জনৈক ব্যক্তি। উল্টো হয়েছেন হাস্যরসের শিকার।

সবাইকে আবারো ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাই।

মন্তব্য ১২১ টি রেটিং +২৩/-০

মন্তব্য (১২১) মন্তব্য লিখুন

১| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১:২৭

রোকসানা লেইস বলেছেন: সুন্দর ব্যাখ্যা। সব ব্লগার অনুসরণ করে ভালো ব্লগিং করুন।
অপপ্রচার থেকে ব্লগিং দূরে থাকুক, হোক সুস্থ আলোচনা।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:০৭

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আপু আপনাকে।

২| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১:৩৮

ডার্ক ম্যান বলেছেন: আমি বরাবরই পাঠক।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:০৮

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: তাহলে তো আপনার আরো বেশি হতাশা অনুভব করার কথা! ভালো কিছু তো পড়তে পারছেন না!!

৩| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১:৪৩

নেওয়াজ আলি বলেছেন: গঠনমূলক ও উপদেশমূলক লেখা। আশা করি সবাই মেনে চলতে চেষ্টা করবে। সত্য সুন্দর সত্য সাদা ও শুভ্র। আসুন নিজে শিখি এবং অন্যকে শিখাই যা হিতকর ।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:০৮

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে।

৪| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১:৫৫

রিফাত হোসেন বলেছেন: আসুন বুকে বুক মেলাই। একেবার মনের কথা বলেছেন।
ধর্মের ভাল দিকগুলো নিয়ে সমাজ উন্নয়নের কথা বলা যেতে পারতো। কিন্তু সেটা না করে কোন হাদীস, কে কোন অনুসারী, কোনটা ভুলভাবে ওযু হচ্ছে এসব নিয়ে আলোচনা হয়। কিন্তু মসজিদের সামনের রাস্তায় ড্রেনের পানিতে রাস্তা সয়লাব। সব মুসুল্লি আসুন, একসাথে পরিষ্কার করি! আজ এই এলাকা করি কাল ঐ এলাকা! বাজারে আমরা ওজনে কম না দেই, ঠিকমত করের টাকা দেই, সবাই মিলে সংগঠিত হয়ে ভাল উদ্যোগ করি! দিন রাস্তাঘাট পরিষ্কার করি,ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করি, কায়িক শ্রমিকদের একবেলা খাবার দেই! ইত্যাদি.... --------- যদি এসব বলতে যাই। তখন দেখবেন সামনের ও পেছনের কাতারের অনেক মানুষকে পাওয়া যাবে না। ধর্ম যাদের কাছে ব্যবসা তাদের থেকে এসব আশা করা যায় না।

দুর্নীতি, অবহেলা, অসচেতনার অভাবে বাংলাদেশের অনেক কিছু ধ্বংস হয়ে গিয়েছে, হচ্ছে ও সামনেও হবে। শেষমেষ দোষ দিবে সরকারের ও একে অপরকে!

তবে সবাই এক নয়, অনেকে ব্যতিক্রম আছে।

লিখতে মনে চায়, আলোচনা করতেও মনে চায়। কিন্তু অনেক ব্যাপার(যে বিষয়ে পোস্ট) অনেকের কাছে সামান্য ও তুচ্ছ মনে হয়। তখন তাদের মন্তব্যও নিকৃষ্ট মানের থাকে। একজন লেখককে হেয় করা হয়। হতে পারে পোস্টটি উচ্চ মার্গীয় বিষয়ে নিয়ে নয়। সবার লেখার মান এক থাকে না। কিন্তু এই বলে খারাপও লেখা হচ্ছে্ না।

এখন শুধু পড়েই যায়।

ঘৃণামূলক বক্তব্য যে বাকস্বাধীনতা নয়, তা সঠিক বলেছেন।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৪৪

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: কেমন আছেন? অনেক দিন পর আপনাকে মনে হয় দেখলাম।
আশা করি নতুন পুরানো সকল ব্লগারদের লেখায় আমরা মত প্রকাশ করব, আলোচনায় অংশ নিবো। মোবাইল থেকে ব্লগে প্রবেশ করতে একটি সমস্যা হচ্ছে, আমরা এটার সমাধানের আশু চেষ্টা করছি।

আপনি একটি চমৎকার মন্তব্য করেছেন। আপনার সাথে সহমত। পাশাপাশি, যে মন্তব্যে আপনার আপত্তি হবে, অনুগ্রহ করে একটু রিপোর্ট করবেন বা সম্ভব হলে আমাকে একটু জানাবেন।

৫| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ২:২৩

স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: আপনার সুস্থ আলোচনা ও গঠনমূলক পোস্টে সম্পূর্ণ সহমত।

আমার কাছে বিস্ময়ের উদ্রেক করে, অনেক ব্লগারই প্রচন্ড ধার্মিক অথবা প্রচন্ড মানবিক অবস্থান নিয়ে পোস্ট ও কমেন্ট করে থাকেন। অথচ দুর্নীতির বিরুদ্ধে, সামাজিক নিয়ম কানুন মানার পক্ষে তাদের বিশ্লেষণ একদমই অনুপস্থিত ! অনেকের দৃষ্টিভঙ্গি মূর্তি গড়া বা ভাঙার মধ্যেই সীমাবদ্ধ - অনেকটা কুয়ার ব্যাঙের মতোই। নারী নির্যাতন বিষয়েও আমাদের চিন্তাচেতনা স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে অত্যাচারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ, এর বাইরেও যে নারী পাচার, প্রবাসে যৌন নির্যাতন, নারী গৃহকর্মীকে নির্যাতন ও পোশাক-শ্রমিকদের যথাযথ পারিশ্রমিক প্রদান না করার মতো অগণিত অন্যায় ও অত্যাচারের বিষয় রয়েছে তা নিয়েও কারো মাথা ব্যাথা আছে বলে মনে হয় না। অথচ বিশ্বের অধিকাংশ ধর্ম, সমাজনীতি ও দর্শনের আলোকে আমাদের সমাজে সততা ও সামাজিক নিয়ম কানুন মানার মাধ্যমেই অনেক অপরাধ, সমস্যা, হিংসা-দ্বেষের অবসান হতে পারে।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৪৫

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: চমৎকার বলেছেন। মন্তব্যের সাথে সহমত প্রকাশ করছি। আসলে কি করবেন বলেন? ঐ যে শিক্ষার দৈন্যতা সেখান থেকেই এই সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। শিক্ষার মান না বৃদ্ধি পেলে, ধর্মকে না বুঝলে সমস্যা হবেই।

৬| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ২:২৭

রাজীব নুর বলেছেন: খুবই চমৎকার একটা পোষ্ট দিয়েছেন। এবং সম্পূর্ন নিরপেক্ষ পোষ্ট। নিরপেক্ষভাবে লেখা খুব কষ্টকর।
এতে আমি সহ অনেক ব্লগার তাদের ভুল গুলো শুধরে নেবেন আশা করি। আশা করি এই পোষ্ট পড়ার পর ব্লগাররা ভালো ভালো পোষ্ট দিবেন।

একটা কথা বলি, রাগ করবেন না।
আপনার চেহারার সাথে আপনার লেখার কোনো মিল নেই। মানে আপনি দেখতে বোকা বোকা, সহজ সরল। কিন্তু আপনার লেখা পড়লে মনে হয় আপনি যথেষ্ঠ একজন বুদ্ধিমান মানুষ।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৪৬

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে । অভিনন্দন আপনাকে দ্বিতীয়বার পিতা হবার জন্য।

এই পোস্ট পড়ে যদি আপনার কোন উপকার হয় বা কাজে আসে তাহলে সেটা দারুন একটি ব্যাপার হবে।

৭| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ২:৫০

জুলিয়ান সিদ্দিকী বলেছেন: এর আগেও ব্লগিং বিষয়ে আলোচনা হয়েছিল, কিন্তু কারো ভাবনায় পরিবর্তন নেই। বিষয় বৈচিত্র্য নিয়েও তেমন আগ্রহ দেখা যায় না। আশা করি রাজনীতি ও ধর্ম বিষয়ে একঘেয়েমী দূর হবে।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:২০

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: জুলিয়ান দা, আসলে সময় যাচ্ছে, ব্লগে একেকটা ব্যাচ আসছে। প্রতি ব্যাচেই ভালো মন্দ কিছুটা কিছু আমরা দেখতে পাই। কিন্তু এই ব্যাচে আমি তেমন ভালো ব্লগার দেখতে পাচ্ছি না। এটাকে আমার ব্যর্থতা ধরে নিয়েই আমি সামনে এগিয়ে যাবার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

৮| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ ভোর ৪:০১

নুরুলইসলা০৬০৪ বলেছেন: যারা পুরনো ব্লগার আছেন তারা দায়সারা গোছের লেখা লিখেই তাদের দায়িত্ব শেষ করছেন।পরিশ্রম করে লিখেছেন এমন লেখা দেখা যায় না বললেই চলে।এতে করে তাদের নিজেদের লেখার মান যে কমে যায়,ভাল লেখার যোগ্যতা যে হারিঁয়ে ফেলছেন সেটা খেয়াল করছেন না।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:২১

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: সহমত। আপনার মূল্যায়ন সঠিক।

৯| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ ভোর ৫:০২

সোহানী বলেছেন: স্বীকার করছি। খুব বেশী হার্ড লাইনের লিখা লিখি না। কারন মনে হচ্ছে সবার ধৈর্য্য শক্তি, সহ্য শক্তি বেশ কমে গেছে (নিজেরও কমে গেছে। এটা অবশ্য বয়সের দোষ)। খুব সহজেই সাধারন বিষয়ে বদহজম হয়। কি দরকার ঘরের খেয়ে প্যাচালে যাওয়ার।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:৩২

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: আসলে আপু, আমি মনে করি লেখার হার্ড লাইন বা সফট লাইন বলে কিছু নাই। যেটা সত্য সেটা লিখতেই হবে। তবে অনেক সময় অহেতুক ক্যাচাল করতে মন চায় না। এটাই আসলে ঐ ঘরের খেয়ে বনের মহিষ তাড়ানো!

১০| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:২৮

নতুন নকিব বলেছেন:



চমৎকার নির্দেশনা সমৃদ্ধ অনুসরণ করার মত শিক্ষনীয় একটি পোস্ট। সাধুবাদ জানাচ্ছি সুন্দর এই লেখাটি উপহার দেয়ার জন্য। লাইকসহ প্রিয়তে নিয়ে রাখলাম।

আশা করি, আমিসহ অনেকেরই উপকারে আসবে এটি।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:৪১

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ নকিব ভাই, পড়ার জন্য কৃতজ্ঞতা।

১১| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:০৯

কলাবাগান১ বলেছেন: ব্লগারদের নৈতিকতা নিয়েও এখন সন্দেহ.....একজন কপি/পেস্ট করে অন্যের লিখা নিজের নামে চালিয়ে দিলেন...সেটা ধরিয়ে দেওয়ার পর ও বেশীর ভাগ ব্লগারই উক্ত 'হে হে'' করে উড়িয়ে দেওয়া ব্লগার এর পক্ষ নিলেন।

আরেকজন অফিসের নেট স্লো বলে ছবি আপলোড দিতে পারছে না বলে দু:খ করছেন??? এমন নৈতিকতা বিবর্জিত কাজ কে কাউকে দেখলাম না স্পর্শ করতে...ফাকতালে আমি বলে নিজেকেই অপরাধী মনে হল।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:৩৬

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: এটা খুবই দুঃখজনক একটি ব্যাপার। আমি সংশ্লিষ্ট পোস্টে গিয়ে অবাক হয়েছি।

১২| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:৩৫

এমেরিকা বলেছেন: কপি পেস্ট করা কি অন্যায়? তাহলে একজন অতি পরিচিত ব্লগার অবিরাম এই অন্যায় করেই যাচ্ছেন, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছেনা কেন? তিনি কোন রেফারেন্সও উল্লেখ করছেন না।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:৩৭

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: কোন অতি পরিচিত ব্লগার?

১৩| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:৩৭

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
দেখা যাক কিছু পরিবর্তন আসে কিনা। যেটা আমাদের কাম্য।

১২ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:২০

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: এত সহজে আসবে বলে মনে হয় না।

১৪| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:২৫

নিয়াজ সুমন বলেছেন: চমৎকার পোস্ট।
আশাকরি ব্লগের প্রত্যেক ব্লগার এখন যে যার অবস্থান থেকে নিজেকে পরিবর্তন করার চেষ্টা করবেন। ব্লগের পরিচ্ছন্নতা ও সুন্দর রক্ষা করা সবার দায়িত্ব। শুভ হোক সামুর পথচলা।

১২ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:২১

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে নিয়াজ ভাই। আশা করি ভালো আছেন।

১৫| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৩৬

মেহেদি_হাসান. বলেছেন: অসাধারণ একটা পোস্ট নতুনরা অনেক কিছু জানতে পারবে।
হেইট স্পীচ কখনই ফ্রিডম অব স্পীচ নয়।
সুন্দর বলেছেন।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:০৫

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে।

১৬| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:১৬

অক্পটে বলেছেন: একটা চমৎকার পোস্ট পড়লাম। আমার মনের কথাগুলো দিয়েই সাজানো যেন এই লেখাটি।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৪০

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে। আপনি আপনার ব্লগে একটি ছবি সংযুক্ত করতে পারেন।

১৭| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:৫০

পদ্ম পুকুর বলেছেন: বিশাল হাভেলির বৃদ্ধ কেয়ারটেকার হিসেবে আপনি যেনো ভুতের ভয় না পান, সেজন্য আমার মত আরও অনেকেই এখনও সে হাভেলির সীমানাপ্রাচীরে, ছাদে, লনে, পেছনের বাগানে ঘুরঘুর করে আর জানালা দিয়ে ভেতরে উঁকি দেয়। মাঝেমধ্যে সময়সুযোগ হলে গৃহঅভ্যন্তরে প্রবেশও করে।

তবে, যদিও আপনার এই পোস্ট পরিস্থিতির কাছে হার মেনে নেয়ার অসহায়ত্বকে প্রকাশ করছে কিছুমাত্রায়, কিন্তু এই ব্লগ শুরুর প্রথম একযুগ উত্তাল সময় পার করে আসার পর এখনকার সামহ্যোয়ারইন ব্লগের কার্যক্রম দেখলে মাঝেমধ্যে সন্দেহের উদ্রেক হয় যে কর্তৃপক্ষ আসলেই কি চায়, ব্লগটা আগের মত উত্তাল হোক?

কেন জানিনা, আমার কাছে উত্তরটা নেতিবাচকই মনে হয়। তার পেছনে হয়তো আর্থিক/সাংগঠনিক বিভিন্ন খামতির দায় থাকতে পারে যেহেতু এটা এখন পর্যন্ত লাভজনক কোনো এনটিটি নয়। আর লাভজনক ভেঞ্চার না হওয়ায় এই ব্লগের জন্য কাজ করার লোকবলের অভাব হবে, সেটাই স্বাভাবিক। সেটা উৎরানোর জন্য ব্লগ কর্তৃপক্ষ কি কিছু করেছে বা করছে?

ব্লগে ভার্সেটাইল লেখা বা লেখক আসা, ব্লগ আরও প্রাণবন্ত হওয়া বা আরও জনপ্রিয় হওয়া, আরও মানুষের কাছে পৌঁছুনো, সবই একটার সাথে আরেকটা।ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে, ডিম আর মুরগীর গল্পের মত। পোস্ট মডারেশন করতে গেলে পোস্টের সংখ্যা কমে যায়, মডারেশন না করলে একজনের চারটা লেখা প্রথম পাতা দখল করে থাকে। আসলেই হতাশাজনক পরিস্থিতি!!

এ পরিস্থিতি থেকে বের হওয়ার জন্য আমার মনে হয় এখন নতুন কিছু আইডিয়া সংযোজনের সময় এসেছে। তারজন্য আর্থিক সামর্থ্য সৃষ্টির প্রয়োজন। কিভাবে তা করা যায়, সে পদক্ষেপ নিন। ব্লগে লিখে অনেকেই বই প্রকাশের সাহস অর্জন করেছেন। সে দিকটা চিন্তা করে সামহ্যোয়ারকে একটা প্রকাশনা সংস্থায় রূপ দেয়া যেতে পারে বা আরও অসংখ্য উপায় নিশ্চয় আছে। দয়া করে আর্থিক উন্নয়নের দিকটা চিন্তা করুন, না হলে দৈন্যদশা কাটানো মুশকিল হবে।

আমি ব্যক্তিগতভাবে নিজেকে লেখকের কাতারে ফেলার মত সাহস রাখি না, তবুও কেবল ভালোবাসার জোরেই এখনও এখানে টিকে আছি। লিখি যা পারি টুকটাক। আমার মত অসংখ্যজন এখানে এভাবেই আছেন। তাঁদের সম্মিলিত ভালোবাসার কাছে নিশ্চয় সামহোয়্যারের এই গ্রহণকাল পরাজিত হবে। সুতরাং হতাশ হওয়ার কিছু নেই। এ আঁধার কাটবেই।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৪০

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: আপনাকে ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য। আপনি ব্লগ কর্তৃপক্ষের দোষ দেখছেন বর্তমান ব্লগের অবস্থার জন্য। আপনার এই চিন্তা ভুল না সঠিক আমি সেই তর্কে যাবো না। কারন যার যার নিজস্ব চিন্তাভাবনা আছে, আর চিন্তা ভাবনার এই বৈচিত্র্যকে আমাদের সমর্থন করা উচিত।

বাংলা ব্লগ বিশেষ করে সামহোয়্যারইন ব্লগের পথ যাত্রা আর দশটি বানিজ্যিক প্রতিষ্ঠান কিংবা ই কমার্স সাইটের মত মসৃণ ছিলো না। আমাদেরকে প্রতিনিয়ত একটি শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করে সামনে এগিয়ে যেতে হয়েছে। একটা দীর্ঘ সময় সামহোয়্যারইন ব্লগ মিথ্যে অপবাদে বন্ধ ছিলো। তারপর তা খুলে দেয়া হলেও একটি অদ্ভুত কারনে এখনও দেশের প্রায় অধিকাংশ টেলিকম কোম্পানী থেকে ব্লগে প্রবেশ করা যায় না। এই নিয়ে আমরা যোগাযোগ করেছি, বিভিন্ন স্থানে আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠি দিয়েছি। কিন্তু গত প্রায় দশ মাসে কিছুই হয় নি। আমরা এখনও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি, যোগাযোগ করছি। এই বিষয়গুলো কম বেশি সকলেই জানেন। ফলে আমাদেরকে যখন কেউ অভিযোগ করেন আমাদের নিষ্ক্রিয়তার জন্য, তখন সেটাকে কেবল মত প্রকাশের স্বাধীনতা হিসাবেই আমরা দেখি।

আমি এই পোস্টটি করেছি মুলত নতুন ব্লগার এবং যারা মোটামুটি একটা দীর্ঘ সময় ধরে ব্লগে আছেন তাদেরকে কিছুটা সহযোগিতা করতে। সবাইকে বুঝাতে চেয়েছি, কিভাবে পোস্টের মান উন্নয়ন হয়। কিভাবে একজন ভালো পোস্ট লিখতে পারেন।

ব্লগ নিয়ে আমাদের সকলেরই ভালোবাসা আছে। ফলে দেখা যায়, দুই দিন পর পর আমাদের হারিয়ে যাওয়া ব্লগাররা ব্লগে ফিরে আসেন। ব্লগ নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেন, পোস্ট নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেন এবং পুরানো দিনের স্মৃতি স্মরন করেন। পুরো ব্যপারটাই খুব নস্টালজিক, যেমন ধরেন আমরা অনেক দিন পর গ্রামের বাড়ীতে বেড়াতে গিয়ে যেভাবে আফসোস করি, চারিদিক খাঁ খাঁ দেখে আফসোস করি, ক্ষোভ প্রকাশ করি - সামগ্রিক ব্যাপারটা ঠিক তেমনই।

যারা এখনও ব্লগিং করছেন তাদের নিকট আমার প্রত্যাশা, তারা যেন বিভিন্ন পোস্টে নিজেদের মত প্রকাশ করেন, ভালো পোস্টকে ভালো আর খারাপ পোস্টকে খারাপ অন্তত বললেই, ব্লগে পোস্টের মানে কিছুটা হলেও পরিবর্তন আসবে।

১৮| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৫৩

পদ্ম পুকুর বলেছেন: ভুল বুঝলেন স্যার। দোষারোপ নয়, বরং এটা এক ধরনের হাহাকার। কেননা দিনশেষে আমার মত আমরা সবাই চাই ব্লগ আরও প্রাণবন্ত হোক, ভালো লেখা আসুক। ভালো লেখক আসুক। সেখান থেকেই এই হাহাকার তৈরী হয়। আমার বিশ্বাস করি- এই ব্লগে 'কর্তৃপক্ষ' এবং 'ব্লগার' এর মধ্যে পার্থক্যটা খুবই লিনিয়ার। তাই যে কারও উপরে দোষারোপ আদতে নিজের উপরেই চলে আসে। কিন্তু ফ্রন্টলাইনার হিসেবে উদ্যোগটা উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকেই আসবে, এটাই আমরা আশা করি।

আর শেষে এসে যেটা বলেছেন- ব্লগ নিয়ে আমাদের সকলেরই ভালোবাসা আছে..... এই দায়টা মাথা পেতেই নিলাম, উপায় নাই :D

ধন্যবাদ আপনাকে প্রতিমন্তব্যের জন্য।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:০৫

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: প্রিয় পদ্মপুকুর ভাই, আপনি বলেছেন, এই ব্লগে 'কর্তৃপক্ষ' এবং 'ব্লগার' এর মধ্যে পার্থক্যটা খুবই লিনিয়ার। তাই যে কারও উপরে দোষারোপ আদতে নিজের উপরেই চলে আসে। আমি একজন ব্লগার হিসাবে এর সাথে সহমত প্রকাশ করছি।

আমি আপনাকে ভুল বুঝছি না। আমি আসলে নিজেরদের অবস্থানটি ব্যাখ্যা করলাম।

শুভেচ্ছা জানবেন।



১৯| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:৫২

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: বহুদিন পর ব্লগে ঢুকে আপনার পোস্ট পড়ে শুরু করিলাম। সময়ের সাথে সাথে ধার কমে যায়, ৮ বছর আগেও শুনেছি এখন আর ভাল লেখা আসে না... আশা করি আবার নতুন বর্ষণে সিক্ত হয়ে নতুন পাতা গজাবে; ফুটবে নতুন কুঁড়ি।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:২৪

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: প্রিয় ভাই! আপনি কই হারিয়ে গেলেন! আপনাকে ব্লগে দেখি না, চোখেও দেখি না। এইভাবে হারিয়ে গেলেন!!

২০| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:০১

ইমতিয়াজ ১৩ বলেছেন: বিগত প্রায় ১৫ থেকে ২০ বছর যাবত ধর্ম নিয়ে ব্যবসা প্রায় লাভজনক একটি উপায়। অল্প স্বল্প বিদ্য নিয়ে আমরা ধর্মীয় জ্ঞনের জাহাজ হয়ে যাচ্ছি আর মানুষকে ইমোশনালী বুঝাতে চেষ্টা করছি।

মানুষ তা বুজলে ভাল আর না বুজলে পিন্ডি চটকাই।


সুন্দর উপস্থাপনা এবং মন্তব্য ও প্রতি উত্তরের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে অভিনন্দন।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:২৫

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: আপনাকে ধন্যবাদ। ধর্ম ব্যবসা পৃথিবীর লাভজনক ব্যবসাগুলোর মধ্যে একটি।

২১| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:১৫

এম. হাবীব বলেছেন: অত্যন্ত সাবলীল গঠনমূলক পোস্ট। অনেকগুলো বিষয় উঠে এসেছে আপনার লেখনিতে এসব বিষয়গুলোর দিকে খেয়াল রেখে ব্লগ লিখলে ব্লগের উত্তরোত্তর উন্নতি ঘটবে। পাঠকরা পাবে ভালো ভালো শিক্ষনীয় পোস্ট। ব্লগারদেরকেও আন্তরিকতার সাথে সময় বের করে বিভিন্ন বিষয়ে মৌলিক পোস্ট লেখার অনুরোধ করছি।

১২ ই জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:০১

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে। আপনার সাথে আমিও সবাইকে একই অনুরোধ করছি।

২২| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:৪৬

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে । অভিনন্দন আপনাকে দ্বিতীয়বার পিতা হবার জন্য।
এই পোস্ট পড়ে যদি আপনার কোন উপকার হয় বা কাজে আসে তাহলে সেটা দারুন একটি ব্যাপার হবে।

এই পোষ্ট আমার অবশ্যই খুব উপকারে আসবে। আপনার এই পোষ্ট পড়ার পরই আমার মনে হয়েছে- প্রচুর পড়তে হবে এবং ভালো কিছু লিখতে হবে। সুন্দর বুদ্ধিদীপ্ত মন্তব্য করতে হবে। আপনার এই পোষ্ট থেকে আমার মাথায় ভালো কিছু আইদীয়া এসেছে।

১২ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:২২

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে রাজীব ভাই। আপনার আইডিয়াগুলো দেখার অপেক্ষায়।

২৩| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:৫২

আতিকুররহমান আতিক বলেছেন: খুব নিরপেক্ষ অবস্থান থেকে লিখা। আমার কাছে খুব যুক্তিযুক্ত ও ভালো লেগেছে। আমি এই প্লাটফর্মে নতুন যুক্ত হলাম কিছুদিন আগে। চেষ্টা করব যথাসাধ্য ভালো লেখা উপহার দেয়ার।

১২ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:২৩

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে আতিক। আপনার লেখার অপেক্ষায় রইলাম।

২৪| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:১১

নতুন বলেছেন: ব্লগে নতুন বিষয় নিয়ে লেখা খুবই কম। আর অনেক ভালো লেখক এখন নিয়মিত আসেন না। আসলেই অনেক দিন ভালো করে পড়ার মতন ব্লগ আসেনি ব্লগে।

নতুন ব্লগার তৌরির কাজটা ঠিক মতন হচ্ছেনা এটা একটা কারন।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:২৬

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: হ্যাঁ নতুন ভাই, ব্লগে নতুন বিষয়ে লেখা আসছে না। আমাদের পড়ার অভ্যাস কমে যাচ্ছে, তাই লেখা আসছে না। বিতর্ক করতে পারছে না।

২৫| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:২৫

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:


দিক নির্দেশনাসমৃদ্ধ সুবিবেচনামুলক একটি পোষ্ট ।

সাম্প্রতিক সময়ে ব্লগে প্রকাশিত পোষ্টের কনটেন্ট
সমুহের কিছু একঘেয়িমিতার স্বরূপ উঠে এসেছে লেখাটিতে ।
অনেক ধর্মীয় পোষ্টে দুর্বল ও বিতর্কিত রেফারেন্স বাদ দিয়ে
উভয় পক্ষের কাছে গ্রহনযোগ্য রেফারেন্স দেয়ার পরামর্শটি
সংস্লিষ্ট সকলে গুরুত্বের সাথে নিলে খুবই ভাল হবে ।

সামুর প্রকাশক হিসাবে আবির্ভুত হওয়ার কোন অগ্রগতি
হয়েছে কিনা জানালে বাধিত হব ।

ব্লগে বিচরণ সকলের জন্য সুখকর হোক এ কামনা রইল ।
মুল্যবান পোষ্টটি প্রিয়তে গেল ।

শুভেচ্ছা রইল

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:২৮

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ শ্রদ্ধেয় আলী ভাই। আশা করি পোস্টটি পড়ে নতুন পুরানো সকল ব্লগারদের কিছুটা উপকার হবে।
সামু প্রকাশক হিসাবে আপাতত আবির্ভুত হচ্ছে না। ব্লগ কর্তৃপক্ষ এই বিষয়ে পরে তাদের সিদ্ধান্ত জানাবে।

২৬| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:৫৩

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




ব্লগার মুজিব রহমান এর পোস্টে আমার মনে হয়েছে তিনি বুঝাতে চেয়েছেন তসলিমা নাসরিন বাংলাদেশের একজন নারী পয়গম্বর। সমস্যা হয়েছে তিনি ব্লগে পোস্ট দিয়ে হারিয়ে যাওয়ার কারণে - মন্তব্য করে দু দিন পর সে পোস্টে আর আলোচনা করার ইচ্ছে থাকে না। তাছারা ব্লগে হাতে গোনা দু তিন জন বাদে আর কেউ উক্ত পোস্টে আলোচনা করতে চাননি। তিনি চাইলে এবং আরও দু চারজন ব্লগার জড়িত হলে উক্ত পোস্টে ভালো আলোচনা হতে পারতো।

যাইহোক, আশা করছি ব্লগে ভালো ভালো লেখা আসবে। আলোচনা সমালোচনাও হবে। ভারতীয় ছবির শক্তিমান অভিনেতা অমরেশ পুরী একটি ডায়লগ দিয়েছিলেন কোনো মুভিতে “আও কাভি হাবেলী পে” হবেলী নিয়ে কিছু লেখা আপনার ও আপনাদের জন্য লিখবো বলে আশা রাখছি।

আপনার জন্য শুভ কামনা রইলো।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৩০

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: বাংলাদেশে ভন্ড পীরের মুরিদের সংখ্যা কম নয়। সেই হিসাবে কেউ যদি তসলিমা নাসরিনকে পীর মনে করেন, তাহলে আমাদের কিছু বলার নাই।

আপনাকে ধন্যবাদ পড়ার জন্য। আপনাকেও শুভ কামনা জানাই।

২৭| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:১৭

জুন বলেছেন: কাভা ভালো একটি বিষয় নিয়ে লিখেছেন। যদিও আমি অত পন্ডিত না তারপর ও আমার মনে হয় যে কোন পেপার পত্রিকা বা ব্লগ যাই বলেন তার একটি প্রধান বা আসল বিষয়ই হলো রাজনীতি। রাজনৈতিক আলাপে আপনি যেমন চায়ের খালি কাপে ঝড় তুলতে পারেন তা আর কোন বিষয়েই হতে পারে না। মহেশখালীর মাতারবাড়ির টং দোকানে টিভি দেখছে গ্রামের প্রায় ১৫/ ২০ জন গা ঘেষাঘেষি করে বসে অসীম মনযোগ দিয়ে কে এক নেতা বক্তৃতা দিচ্ছে। মাঝে মাঝে নিজেরা তর্কও করছে। আমি চা খেতে খেতে দেখলাম। টাংগুয়ার হাওরের গভীরে এক ছোট দ্বীপের ততোধিক ছোট দোকানে একই চিত্র। সাতারকুলে এক চাষি আমাকে জিজ্ঞেস করেছিল আমি সংসদ অধিবেশন দেখি কি না? সে নাকি পুরোটাই রাত জেগে দেখে। আর আমাকে বল্লো দেখতে ভীষণ নাকি মজার। মাটির ঘরে কোনমতে স্ত্রী পুত্র নিয়ে মাথা গুজে থেকেও সে রাজনৈতিক আলাপে বিনোদন লাভ করে। অনেক বিখ্যাত টিভি চ্যানেল যেমন বিবিসি, সিএন এন এর মত আরো অনেকে খবরের উপরেই আছে আর তার ৯৫% রাজনৈতিক বিষয়বস্তু নিয়ে। বাকি ৫% হয়তো সামাজিক বা বিনোদন জগতকে নিয়ে। কিন্ত দেখেন আমাদের জন্য এই বিষয়টি লৌহ কপাট দিয়ে আটকানো। আমরা ভয়ে ভয়ে এই বিষয় নিয়ে দু লাইন লিখলেও ততোধিক ভয়ে ভয়ে তাতে কমেন্ট করি,কারণ এই লেখার জন্য কখন সামুর উপর ক্ষড়গহস্ত নেমে আসে? কখন আমাদের জীবন বিপন্ন হয়। সাহস করে একটা মন্তব্য লিখলেও পরে মুছে দেয়ার জন্য আরেকবার গিয়ে অনুরোধ করতে হয়। এই পরিস্থিতিতে কি ভাবে ভালো লেখা আসবে বলেন? এটা কিন্তু সম্পুর্নই আমার ভাবনা ।
আমাকে লেখায় এতটা সন্মানিত করার জন্য আমি তুমি তথা সামুর কাছে অশেষ কৃতজ্ঞ। আলী ভাইয়ের কথা ধরে আমিও বলি বই প্রকাশনা শুরু করেন। লেখালেখি যেমন সামুর হাত ধরে হয়েছে, বই প্রকাশটিও সামুর হাতে হোক এটাই ইচ্ছে আমার।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৩৪

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: আপা আপনাকে আপনার প্রাপ্য সম্মানের খুব অল্প অংশই হয়ত দিতে পেরেছি। যাইহোক, আপনি যেটা বললেন, রাজনৈতিক পোস্ট নিয়ে চমৎকার গঠনমুলক আলোচনা করা যায়, কিন্তু সমস্যা হচ্ছে নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতার কারনে এই ধরনের লেখা কমে যাচ্ছে। প্রধান কারন, পড়া শোনার অভাব, দুই রিসার্চের অভাব এবং অন্যের মতের প্রতি শ্রদ্ধার অভাব।

তাছাড়া আমাদের দেশে বাক স্বাধীনতার সুফল আমরা এখনও ভোগ করতে পারছি না, খগড় ঝুলে আছে আমাদের অনেকের মাথায়। তাই রাজনৈতিক লেখা কম।

২৮| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:২৫

চাঁদগাজী বলেছেন:



ব্লগারেরা অন্য ব্লগাদের লেখা লেখা মনোযোগ দিয়ে পড়লে, নিজের লেখার মান বুঝতে পারবেন। অন্যের লেখায় সঠিক মন্তব্য করার দরকার।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৩৪

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে। সঠিক মন্তব্য যেমন করা প্রয়োজন তেমনি মন্তব্যটি নূন্যতম ভদ্রতা সম্পন্নও হতে হবে।

২৯| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:৪৩

মিরোরডডল বলেছেন:



এই পোষ্টে কমেন্ট করার মতো অবস্থায় এখনও যাইনি তারপরও যেটা মন বলছে সেটা না বললেই না । থ্যাংকস কাভাকে এই বিষয়গুলো মেনশন করার জন্য । স্পেশালি ধর্মীয় পোষ্ট । মনে হয় যেন এই ব্লগ ধর্ম প্রচারের জায়গা । এই যে এতো এতো ধর্মীয় পোষ্ট আর এর পক্ষে বিপক্ষে মন্তব্য প্রতিমন্তব্য, কয়জন আস্তিক নাস্তিক হয়েছে বা নাস্তিক আস্তিক হয়েছে ! সবাই যার যার বিলিফ নিয়ে তার তার জায়গাতেই আছে । তাহলে কেনো অহেতুক এতো তর্ক বিতর্ক । আর একটা পাবলিক ডোমেইনে যেখানে সব ধর্মের সব বিশ্বাসের মানুষ থাকবে এটাই স্বাভাবিক ।

ধর্ম কমপ্লিটলি বিলিফ , যার যেটা বিলিফ সে সেটা প্র্যাকটিস করবে । সাবজেক্ট রিলেভেন্ট হলে আসতেই পারে কিন্তু যেকোনো কিছুর মাঝেই ধর্ম টেনে আনা আর আর্গুমেন্ট এগুলো আর ভালো লাগেনা । সবচেয়ে বাজে লাগে যখন কেউ কোনও পোষ্ট দিচ্ছে, মন্তব্য করলে প্রশ্ন করলে টু দ্যা পয়েন্ট আনসার দিতে পারে না । প্রশ্ন করা হয় একটা, উত্তর আসে অপ্রাসঙ্গিক, ইল্লজিক্যাল । কন্টেন্ট সম্পর্কে যদি ধারণাই না থাকে তাহলে সেটা কেনো লেখে ! এনিওয়ে, অনেক কথা বলে ফেললাম । কাভার পোষ্টে সমালোচনার পাশাপাশি অনেক সুন্দর পরামর্শ আছে । ভালো লাগলো ।



১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৩৮

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আয়নারপুতুল! :)

আমাকে রিলেজিয়াস আর্গুমেন্টের মাঝে যদি কেউ জিজ্ঞেস করে, আপনার ধর্ম কি? আমি তখন খুবই অফেন্ডেড ফিল করি এবং উক্ত ব্যক্তি সম্পর্কে খুবই তীর্যক ধারনা পোষন করি।

ধর্ম নিয়ে আলোচনা বেহুদা। ধর্ম যার যার ব্যক্তিগত বিষয়। ধর্ম পালন করা সংক্রান্ত প্রচুর নির্দেশনা বাজারে আছে। সেটা অনুসরন করলেই হয়।

আবার অনেকেই আছে, অত্যন্ত জঘন্য একটি লেখা লিখে ভাবছে - সেটা বুঝি মেঘনাদ কাব্য।
তাঁকে উপযুক্ত সমালোচনার মাধ্যমে সঠিক লাইনে আনতে হবে। কমিউনিটি ব্লগে এটাই আনন্দ। তাছাড়া একটি সাধারন পোস্টের বিভিন্ন কমেন্টেই দারুন সব আলোচনা হতে পারে।


৩০| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:৫৫

ব্লগার_প্রান্ত বলেছেন: আপনি লাইক দিলেই কোনো একটা লেখা নির্বাচিত পাতায় চলে যায়। বেশ ইন্টেরেসটিং জিনিসটা।

১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১০:৩৬

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: হ্যাঁ, আমারও ইন্টারেস্টিং লাগে। তাই ভয়ে লাইক দেই না।

৩১| ১১ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১০:৩১

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আপনি ভালো উদ্দেশ্য নিয়ে পোস্ট দিয়েছেন কিন্তু আমার কেন যেন মনে হচ্ছে ভয়ে অনেকে পোস্ট দেয়া আরও কমিয়ে দেবে। তারা ভাববে আমার পোস্ট মনে হয় মানসম্মত হচ্ছে না বা একঘেয়ে প্রকৃতির হচ্ছে। আর আমার কাছে মনে হচ্ছে অনেক পুরনো ব্লগার যারা অতীতে বহুদিন অনেক ভালো লেখা লিখেছেন তারা এখন প্রায় নিষ্ক্রিয়। এর কারণটা অনুসন্ধান করা দরকার। প্রথম পাতার বাম পাশে ব্লগারদের নাম আসে। যারা পুরনো তাদের নাম আগে আসে। আমি বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই দেখি প্রথম কয়েকজন ব্লগার বহুদিন ধরে কোনও লেখা লিখছেন না কিন্তু তারা মাঝে মাঝে লগ ইন করেন।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৪১

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: যদি কেউ ভয়ে লেখা কমিয়ে দেন, সেটা তাঁর ব্যর্থতা। আত্ম বিশ্বাসের অভাব। সমালোচনার ভয় নিয়েই লিখে লিখে লেখার অভ্যাস করতে হবে। যেমন ধরুন আমার এই লেখা হয়ত অনেকেই পছন্দ করেন নি। আগে একটা সময় ব্লগে যে ধরনের কমেন্ট করা হতো, এখন তার কিছুই হয় না। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ওয়াও! গ্রেট টাইপের।

পুরানো ব্লগাররা লিখেন না, জনপ্রিয়তা হারানোর ভয়ে। যেমন আগে যখন আমি মডারেটর ছিলাম না, তখন আমি চাইতাম আমার লেখা নির্বাচিত পাতায় যাক, মানুষ পড়ুক। যত বেশি পড়বে, যত কমেন্ট পাবো, তত বেশি মজা, শেখার সুযোগ। কিন্তু আমি যখন অনিয়মিত হয়ে গেলাম, তখন আমার অনেক পাঠক কমে গেলো। আজকে আমি যদি মডারেটর না হতাম, এবং এত দীর্ঘ দিন পর পর লেখা দিতাম সর্বোচ্চ ১০ টার বেশি মন্তব্য হয়ত পেতাম না।

আর ব্লগ জনিত নানা ধরনের সমস্যা তো আছেই।

৩২| ১২ ই জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৫৯

কালো যাদুকর বলেছেন: আগে সমস্যা অনুধাবন করতে হয়। সেটা সবাইকেই করতে হবে। তারপর, এর থেকে বের হয়ে আসার উপায় খুজে বের করতে হবে। সেটা আপনার লেখাতে এসেছে। সবাইকে সেই পরার্মষ মত ব্লগে লিখে যেতে হবে, এবং মন্তব্য করতে হবে। কিন্তু সেটা সবাই ফলো করবে না, বা ভুলে যাবে।

দিন শেষে যে লাউ সেই কদু। তবুও চেস্টা করতে হবে।

ভাবছি কেন এমন হল - এর উপর কিছু লিখা যায় কিনা। ব্লগিংয়ের সেকাল, ও একাল। এনই ভোলেনটিয়ারস?

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৪২

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে। আপনার সাথে সহমত প্রকাশ করছি।

৩৩| ১২ ই জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:৫১

স্থিতধী বলেছেন: মরুভূমিসম ব্লগের এই বাস্তবতা আর আপনার মনের অবস্থা দেখে আমার প্রিয় এক গানের কথা মনে পড়ে গেলো। শেয়ার দিয়ে যাই...

I dream of rain
I dream of garden in the desert sand!

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৪৬

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: সুন্দর গান!! গানটা সকলে শুনলে ভালো হতো!

৩৪| ১২ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১০:৪৪

আতিকুররহমান আতিক বলেছেন: যারা ভালো মানের ফিচার লিখেন কিংবা লিখতেন তাদের ব্লগগুলো একটু কষ্ট করে আমাকে জানালে উপকৃত হতাম। তাহলে উনাদের লেখাগুলো পড়ে নিজেও লেখার উৎসাহ পেতাম ও চেষ্টা করতাম।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৫০

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: আতিক, আমি আপনাকে খুব দ্রুতই দিবো। এই মুহুর্তে দিতে পারছি না।

৩৫| ১২ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:১৮

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:


আমার মন হয়, ব্লগে যারা আগে ভালো লিখতেন, তাঁরা হয় এমন একটি বয়সে চলে গিয়েছেন যে ব্লগ তাঁদেরকে আর টানে না নাহয় এমন এক উচ্চতায় পৌঁছে গিয়েছেন যেখান থেকে ব্লগে আর লেখা দিতে আগ্রহ বোধ করেন না।

আর, এখনকার ই-পেপার আর ফেসবুকের যুগে ব্লগে আগের মতো সবাই সময় দিতে পারেন না বলেই হয়তো ভালো লেখা আসে না।

এর সমাধান হিসেবে, ব্লগের মার্কেটিং-টাও জরুরী। বাংলাদেশের নিউ জেনারেশনের কাছে ব্লগকে পরিচিত করতে উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন। তাঁদের কাছে ব্লগ আর ফেসবুকের পার্থক্য তুলে ধরতে পারলে অনেক ভালো ব্লগার তৈরী করা প্রয়োজন।

সর্বোপরি, এই পোস্টের জন্যে ধন্যবাদ নিরন্তর।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৫১

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ শাইয়ান ভাই, আপনাকে অনেক কৃতজ্ঞতা। আশা করি বিজ্ঞাপনটি চোখে পড়েছে।

৩৬| ১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:৪৪

মিরোরডডল বলেছেন:



থ্যাংকস কাভা ।
স্থিতধীর দেয়া গানটা অনেকদিন পর শুনলাম । প্রিয় এই গানটা একসময় অনেক শোনা হতো ।
Sting এর বেস্ট গান desert rose. তারসাথে আলজেরিয়ান শিল্পী Cheb Mami সেই অংশটুকু দারুণ ফিউশন !
Cheb Mami ইউজালি আলজেরিয়ান ফোক গান করে ।






১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:১৩

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: উফ! এটা অস্থির জিনিস!! ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য।

৩৭| ১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:৪৭

খায়রুল আহসান বলেছেন: সুন্দর লিখেছেন, চমৎকারভাবে বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন। + +
ধর্মীয় বিষয় নিয়ে অবশ্যই লেখা যায়, এবং ধর্মীয় কোন প্রসঙ্গ নিয়ে বিতর্ক থাকলে যথোপযুক্ত তথ্য উপাত্ত পরিবেশন করে কোন অস্পষ্ট বিষয়ের প্রতি আলোকপাত করা যায়। কিন্তু কোন লেখকের ধর্মপ্রচার উদ্দেশ্য থাকলে এ প্লাটফর্ম পরিহার করা উচিত, কারণ এখানে কেউ নতুন করে ধর্মশিক্ষায় দীক্ষা নেয়ার জন্য আসেন না। ধর্মীয় কোন প্রসঙ্গ নিয়ে কেউ কোন ভুল ব্যাখ্যা করলে অবশ্যই সেটার সঠিক ব্যাখ্যা উপস্থাপন করা যায়, কিন্তু সেটা করতে গিয়ে অপ্রমাণিত নতুন কোন তথ্য দিয়ে নতুন বিতর্কের অবতারণা করা অবশ্য পরিহার্য।
আবার "ধর্মই সকল অধর্মের মূল" এমন দীক্ষায় দীক্ষিত কিছু ধর্মবিদ্বেষী লেখক ধর্ম নিয়ে লেখা কোন পোস্ট দেখলাই সেখানে উপস্থিত হয়ে ধর্মের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়াতে থাকেন। ধর্ম এবং ধর্মের উপাস্যদের বিরুদ্ধে এরা এমন অমর্যাদাকর কথা লিখতে থাকেন যার ফলে বিদ্বেষ ঘনীভূত হতে থাকে। এটাও অবশ্য পরিহার্য।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:১৭

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: প্রিয় খায়রুল ভাই, আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। আমার বক্তব্য যদি আরো সুন্দর করে বলতে পারতাম, তাহলে হয়ত আপনার মত করে বলতে পারতাম। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, যে কেউ ধর্ম অবিশ্বাস করার অধিকার রাখেন। কিন্তু তিনি যেটা রাখেন না, সেটা হচ্ছে অন্যায় ও অশ্লীলভাবে আক্রমন।

৩৮| ১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১১:৪৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: উপাস্য এবং উপাসনার তরিকা নিয়ে পার্থক্য থাকলেও, বেশিরভাগ মানবীয় দোষ ত্রুটি নিয়ে বড় বড় প্রায় সব ধর্মেরই অনুশাসন অনেকটা অভিন্ন। যেমন আপনি পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কথা উল্লেখ করেছেন। এ ব্যাপারে খৃষ্টধর্মে যেমন বলে 'ক্লীনলিনেস ইজ নেক্সট টু গডলিনেস', ইসলাম ধর্মেও তেমন বলে "পবিত্রতা ঈমানের অঙ্গ"। সত্য কথা বলা প্রসঙ্গে সব ধর্মই আপোষহীন। মানুষের সাথে সদাচরণ করা, প্রতিবেশীর সাথে সদ্ব্যবহার করা এবং তাদের বিপদে আপদে দেখভাল করা, অপরের সাথে সম্মানজনক ব্যবহার করা, ইত্যাদি বিষয়ে সব ধর্মই গুরুত্ব আরোপ করে। আবার মানুষ হত্যা না করা, যৌন আচরণে অসংযমী না হওয়া, পশুদের সাথে নির্দয় না হওয়া, ইত্যাদি বিষয়েও সব ধর্মের অনুশাসন প্রায় অভিন্ন।
ব্লগে সুলিখিত রাজনৈতিক পোস্ট না আসার অন্যতম কারণ ডিজিটাল সিকিউরিটি এ্যাক্ট-২০১৮। এমন একটি ড্রাকোনিয়ান কালাকানুন বহাল রেখে আপনি খোলামনে লেখা কোন রাজনৈতিক ডিসকোর্স প্রত্যাশা করতে পারেন না।
মোবাইল নেটওয়ার্ক থেকে ব্লগে কেন প্রবেশ করা যায় না, এ প্রশ্নের জবাবটা কি আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জোরে শোরে উপস্থাপন করে একটা ব্যাখ্যা দাবী করতে পারি না?

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:২৭

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন:
ভাইয়া, এই ডিজিটাল সিকিউরিটি এ্যাক্ট তো একটা বিশাল বিপদই, এর সাথে যুক্ত হয়েছে অশালীন উপাধি ও অযৌক্তিক বিশ্লেষন। নুন্যতম পড়াশোনা ও সাধারন জ্ঞানের বিশাল অভাব।

আর মোবাইল নেটওয়ার্ক থেকে ব্লগে প্রবেশ করা যায় না - এই ব্যাপারে বাংলালিংক ছাড়া আর কেউই কোন প্রকার সাহায্য করে নি। আনুষ্ঠানিকভাবে ব্যাখ্যাও চেয়েও লাভ হয় নি।

৩৯| ১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:৪৯

খায়রুল আহসান বলেছেন: পুরাতন ব্লগারদের অনলাইনে দেখতে পেলেই আমি তাদের দু'চারটা পোস্ট পড়ার চেষ্টা করি। পোস্ট পড়ে যতটা মজা পাই, তার চেয়ে বেশি পাই সে সময়ের মেধাবী কিছু অচেনা ব্লগারের বুদ্ধিদীপ্ত এবং নলেজ বেইজড মন্তব্য পড়ে। তবে পুরাতন ব্লগারদের ব্যাপারে আমার একটা কমন অভিযোগ আছে (কিছু সম্মানীয় ব্যতিক্রম বাদে), যে তারা পাঠকের মন্তব্যের উত্তর দেন না, এবং প্রায় ক্ষেত্রে পোস্ট লিখে সেই যে নিরুদ্দেশ হয়ে যান, পারতপক্ষে আর এ ব্লগমুখো হন না। এটা তাদের অহমিকা না অনীহার কারণে হয়, তা ভেবে পাই না।

হেইট স্পীচ কখনই ফ্রিডম অব স্পীচ নয় - চমৎকার এ মন্তব্যটির জন্য মেহেদি_হাসান. কে ধন্যবাদ। জুন এর মন্তব্যটাও ভাল লেগেছে। মনে হয়েছে, উনি অনেকের মনের কথাই বলেছেন।

১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৩৩

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ব্লগের মজাই ছিলো আগে এক সময় ভাইয়া মন্তব্য ও প্রতি মন্তব্য। হয়ত খুব সাধারন পোস্ট কিন্তু দেখা গেছে সেই পোস্টে ১০০ কমেন্ট পড়েছে। কমেন্টে হচ্ছে আলোচনা, সমালোচনা। সেখান থেকে অনেক কিছুই শেখা যেত!!

আসলে আমি নিজেও খুব লজ্জিত যে, সবার মন্তব্যের জবাব সময় মত দিতে পারি না। পোস্ট পড়তে পড়তে অনেক সময়, এদিক সেদিক চলে যাই, তখন মন্তব্য জবাব দেয়ার খেই হারিয়ে ফেলি। আর যারা এমনটা করেন, তারা মুলত আসলে কাউকে সম্মান দিতে জানেন না। ব্লগে লেখা একটা দায়সারা কর্ম হিসাবে মনে করেন অথবা এর পেছনে কোন স্বার্থ আছে বলেই আমি ধরে নিয়েছি।

জুন আপু আমাদের প্রিয় একজন ব্লগার। উনার মন্তব্যে আমি সহমত জানাই।
আর মেহেদী হাসান ভাইকেও ধন্যবাদ, তিনি আমার মন্তব্যটিকে কোট করেছেন, হাইলাইট করেছেন। আমি সব সময় এসেছি, হেইট স্পীচ কখনই ফ্রিডম অব স্পীচ হতে পারে না। ঘৃণা দিয়ে পৃথিবীতে কোন পরিবর্তন আসে নি। পরিবর্তন এসেছে ভালোবাসায়, আন্তরিকতায়, সহনশীলতায়।

৪০| ১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:৪৭

খায়রুল আহসান বলেছেন: স্যরি, আমারই ভুল হয়েছে। আমি লক্ষ্য করিনি যে আপনার মন্তব্যটিকেই মেহেদি_হাসান উদ্ধৃত করেছেন। মূল ধন্যবাদটি তবে আপনারই প্রাপ্য, আর চমৎকার এ মন্তব্যটি হাইলাইট করার জন্য সেই সাথে ওনারও। :)

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:২৬

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: কোন সমস্যা নেই ভাইয়া। আপনাকে আবারও ধন্যবাদ আমাদের সাথে থাকার জন্য।

৪১| ১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:৫২

আহমেদ জী এস বলেছেন: কাল্পনিক_ভালোবাসা ,




সুচিন্তিত এবং চমৎকার একটি লেখা। একদম সময়োপযোগী আর তা প্রাজ্ঞতায় ভরপুর।
লেখা, তা কবিতা বা গল্প কিম্বা ফিচার থেকে শুরু করে যাই-ই হোকনা কেন তাতে সমাজ-রাষ্ট্র -বিশ্বের রাজনৈতিক-সামাজিক-অর্থনৈতিক অবস্থান, তার গতিপ্রকৃতি, তার ক্রুটি-বিচ্যুতি, তার সম্ভাবনা , তার উত্তরণ ইত্যাদি উঠে আসতেই পারে, আসাও উচিৎ। অথচ ব্লগের সিংহভাগ লেখাতেই এসব অনুপস্থিত, যেমনটা আপনি লিখেছেন।

আমরা মনে হয়, শুধু নিজের নামখানা ব্লগের পাতায় দেখার গরজেই লিখি, কেন লিখি- কি লিখছি তা ভেবে দেখিনা মোটেও কিম্বা তেমন কিছু ভাবার জ্ঞানটাই বোধহয় আমাদের নেই।

সহব্লগার জুন এর লেখার উদাহরণ দিয়েছেন। এটা পরিষ্কার যে তিনি তার ভ্রমন পোস্টগুলোতে ভ্রমনের আনুষাঙ্গিক তথ্যাদির পাশাপাশি স্থান মাহাত্য- তার ইতিহাস- আমাদের সাথে সেখানের তুলনামূলক সমালোচনাও করে থাকেন। যেটা হওয়াই উচিৎ। অথচ অনেক ছবি ব্লগ দেখি যেখানে কোনও ধরনের বক্তব্যই নেই কেবল ছবি দেখানোর জন্যেই পোস্ট করা মনে হয়।
এসব কথা অবশ্য আপনি এই লেখাতেই বলে গেছেন।অনেক ভ্রমনপোন্টও তাই।

পরিশেষে বলি, তবুও আমরা একেবারে হতাশ নই। যা-ই হোক, লেখা তো আসছে! ব্লগটা যে বেঁচে থেকে শ্বাস ফেলছে এটা তারই লক্ষন। এখানে করনাকালিন অক্সিজেন মাত্রা কমার মতে হলেও আপনার এই লেখা ভেন্টিলেটর হয়ে সেই মাত্রা ৯৫-৯৮% তে নিয়ে যাবে বলে আশাবাদী।

অঃটঃ
হাতের কাছে ল্যাপি বা ডেক্সি নেই বলে অনেকদিন ব্লগ অদর্শনে হাপিয়ে উঠেছিলুম। মাঝে মাঝে থাকতে না পেরে মোবাইলে চেষ্টা করেছি ব্লগে ঢুকতে। কিন্তু মন্তব্য করতে গেলেই আমার অপরিপক্ক টেকনিক্যাল জ্ঞানের কারনে "হযপজ"হয়ে যাচ্ছিলো বারবার।
আপনার এই লেখাতেও তেমনটা হয়েছে আরও দুদিন আগে। শেষে রাগ করে মন্তব্যই আর দেয়া হয়ে ওঠেনি।
আমি এইমুহূর্তে দেশের বাইরে। আজ আমার মেয়ের থেকে একখানা ল্যাপটপ এনে তবে এই মন্তব্যখানা করতে পেরে স্বস্তি।

সবাই ভালো থাকুন।



১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৩০

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: প্রিয় জী এস ভাই! আপনাকে দীর্ঘদিন না দেখে কিছুটা অস্বস্তি হচ্ছিলো, আপনার মন্তব্য পেয়ে তা কিছুটা দূর হলো। আরো জানতে পারলাম যে, আপনি প্রবাসে আছেন। আশা করি পরিবারের সবাই ভালো আছেন।

আমরা মনে হয়, শুধু নিজের নামখানা ব্লগের পাতায় দেখার গরজেই লিখি, কেন লিখি- কি লিখছি তা ভেবে দেখিনা মোটেও কিম্বা তেমন কিছু ভাবার জ্ঞানটাই বোধহয় আমাদের নেই।

শতভাগ সহমত জানাই।

৪২| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:১৬

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




ব্লগার আহমেদ জী এস ভাই ও ব্লগার খায়রুল আহসান ভাই এর মন্তব্য আমি ১০০ তে ১০০ সমর্থন করছি। ব্লগে একটি বিষয় সংযোগ করা যেতে পারে আর তা হচ্ছে ভালো লেখার আহবানে “উপহার বিতরণ” কার্যক্রম ঘোষণা করা। সেটি হতে পারে - সামহোয়্যারইনের লোগো সম্বলিত চিনামাটির মগ, কাঁচের গ্লাস, চায়ের কাপ পিরিচ, ডাইরি, নোট বুক, চাবির রিং ইত্যাদি - ব্লগ কর্তৃপক্ষ যেভাবে ভালো মনে করেন। কিন্তু এখানে মূল বিষয় আসে ফান্ড ব্যবস্থাপণা। ব্লগ কর্তৃপক্ষ ব্লগারদের উপহার বিতরণে অর্থ ব্যবস্থাপণা কিভাবে করবেন? ***আমরা সবাই জানি সামহোয়্যারইনের কোনো আয় নেই একমাত্র ব্যয় ছাড়া। - এখন আয়ের বিষয় নিয়ে ভাবা গেলে উল্লেখ্য উপহার কেনো ব্লগারদের একটি ল্যাপটপ/সেলফোনও দেওয়া সম্ভব।

আমি এ বিষয়ে বিস্তারিত চিন্তা ভাবনা ব্লগে লেখার চেষ্টা করছি। দেখা যাক আমার লেখায় যদি সামহোয়্যারইন ব্লগের সামান্যতম উপকার হয় আমি কৃতজ্ঞ হবো।

লেখাটি পিনপোস্ট করা সত্যি সত্যি জরুরী ছিলো, কাল্পনিক ভালোবাসা ভাইকে ধন্যবাদ।

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৫৬

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনার মতামতের জন্য। আপনার লেখার প্রত্যাশায় রইলাম।

৪৩| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:৪৩

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:

আমার বিশ্বাস ঈমানকে সদা জাগ্রত রাখতে আমলের
আবশ্যকতা অনস্বীকার্য যা আমরা সদা বিস্মৃত হ্ই। তাই
পুঃণ্ পূণ তাগিদের প্রয়োজন যেন আমরা যা শুদ্ধ জানি
তার আমল করা। হয়তো যারা আমলের বিষয়টি জানেন
তাদের কাছে বিরক্তির উদ্রেক (ঘ্যানর ঘ্যানর) করতে পারে।
তবে যারা জানেন না তাদের একজনও যদি উপকৃত হন তবে
মহান রব্বুল আলামিন হয়ত এই উসিলায় আপনাাকে জান্নাত
নসীব করতে পারেন। তাই বারে বারে বলুন যা আপনি সহী
জানেন।

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:২৮

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: এটা আপনার নিজস্ব চিন্তাভাবনা। যে বিষয়ে বহু চর্চিত, সেই বিষয়ে যদি বেশি পোস্ট আসে, তাহলে প্রথম পাতার সৌন্দর্য রক্ষার্থে আমরা তা সরিয়ে দিবো। আপনার ঈমান, আপনার আমল, সবই আপনার, এবং আপনারই ব্যক্তিগত। আপনার ঈমানের সোয়াব আমাকে দেয়া হবে না এবং আপনার আমলের কারনে আমি মুক্তি পাবো না। সুতরাং যার যার চিন্তা তাকেই করতে দিন। আপনারটা আপনি নিজে করুন।

আমল জানার জন্য ব্লগের চাইতে বাজারে প্রচলিত বইয়ের সাধারন জনগনের আস্থা বেশি। ৯০% মানুষ ব্লগের চাইতে বাজার থেকে কেনা বই অনুসরন করে ধর্ম কর্ম করবে। আপনি তো আর ঐ বইয়ের চেয়ে ভিন্ন কিছু জানাচ্ছেন না? ফলে যা মানুষ জানে, তা নিয়ে বার বার লেখার কিছু নেই। যা জানে না, বা যা করনীয় সেটা নিয়ে লিখুন।

৪৪| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:২১

তারেক ফাহিম বলেছেন: ব্লগ পরিচ্ছন্ন রাখার চমৎকার ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

মন্তব্যে এবং প্রতিত্তরে আলোচনা দেখেও অনকে কিছু শিখার আছে।

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:৩১

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে, ফাহিম ভাই।

৪৫| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:২৬

রানার ব্লগ বলেছেন: আপনার সাথে সম্পুর্ন সহমত। যা বলতে চাচ্ছিলাম কমেন্ট পড়ে দেখলাম অন্যান্য ব্লগাররা তা বলে দিয়েছেন তাই নতুন করে চর্বিত চর্বন করলাম না। আসুন আমরা সকলেই ধৈর্যশীল হই।

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১:২৮

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে। কিন্তু সকলেই এই কথা মানবেন বলে মনে হয় না।

৪৬| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:১৫

spanked বলেছেন: ভালো ই হইছে। নেন নিম্নের লেখা পড়েন না পড়লেও কিচ্ছু আসে যায় না কিন্ত আপনার খরা যদি কাটে সেই উদ্দেশ্যে বেয়াদবি নিবেন না।

নেতা আসলেন
নামল গাড়ির কালো কাঁচ
নেতা হাসলেন
কপালে নেই চিন্তার ভাঁজ!

চোখে রোদ চশমা
গায়ে পাঞ্জাবি ধবধবে সাদা
উপরে কুচকুচে কালো কোট মুজিব
চারপাশে শ্লোগান
করতালি উল্লাস
নেতার জয় গান সর্বত্র হিট!

উনি উঠলেন মঞ্চে
নাড়লেন হাত
দেখলেন তাঁর ক্রেজ
মাপলেন মঞ্চের সকলের ফেস।

শুনলেন কিছু কথা
আগে পিছে সকলের
আসনটা টেনে নিলেন সামনে
চিহ্ন নেই কোন ধকলের।

তিনি শুরু করলেন কথা
বললেন,
তাঁর ও আছে দুঃখ ব্যথা !
দেখেন চেয়ে এসেছে কয়টা মিডিয়া?
ভাবছেন,
যাচ্ছে কি কথা লাইভে!
নেতার ও নেতা আছে
ভুল হলে সবশেষ
থাকবে না আরাম লাইফে।

নেতা বললেন,
ভালোর সাথে
আলোর সাথে
এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

করতালি উল্লাস
নেতা গেলেন চলে
ভাংগা হলো মঞ্চ
রয়ে গেল রেশ।


ঝুম করে মেঘ গর্জে এলো বৃষ্টি
আহ! কি অপরুপ সৃষ্টি
গেল ডুবে রাস্তা
জমে কোমর পানি
উল্টায় রিক্সা
খুব জোরে শুনতে পাই,
মাদারচোদ! খিস্তি।


১৪ জানুয়ারী ২০২১।




১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:৩৩

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: এই জিনিস আমার পোস্টে কমেন্ট হিসাবে না লিখে নিজের ব্লগে গিয়ে পোস্ট করুন। উত্তেজিত হবার প্রয়োজন নেই। ধীরে সুস্থে লিখুন।

৪৭| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:২১

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: আচ্ছা ভাইয়া কলাবাগান আমার সাথে এমন করে ক্যান। কী এমন নৈতিকতা বিবর্জিত কাজ করে ফেলেছি আপনিই বলুন। দুঃখ পেলাম উনার এমন মন্তব্যে। নেট স্লো ছবি আপলোড করতে পারছি না। এটা নৈতিকতা বিবর্জিত। আমি তো কয়েক মুহুর্ত অফিসের নেট ইউজ করি। কারণ যে সাইট এক্সেস দেয়া আছে সেগুলো অন করলে ক্ষতি কী। আট ঘন্টা অফিসে কাটাই ফাঁকে একটু রিলাক্স হতে নেটে ঢুকা।
এটুকু মাত্র। আর দিনের পর দিন মানুষ দেশটাকে লুটে পুটে খাচ্ছে। অজস্র মিথ্যে বলছে ঘুস খাচ্ছে। পদোন্নতির জন্য তেল মারছে। আর কত কত অন্যায় এখানে সেখানে। এই দেশে কি আমি একা অফিসের নেট ইউজ করি? আমার অন্যায় হয়েছে আমি মিথ্যে বলিনি।

সুন্দর পোস্টের জন্য ধন্যবাদ আপনাকে

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:৩৭

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ছবি আপা আমি আসলে এই প্রসঙ্গটা ঠিক জানি না। আপনি আমাকে সম্ভব হলে জানাবেন। যতদুর মনে পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপনি একবার বলেছিলেন, আপনার অফিসে ইন্টারনেট ব্যবহার করায় ইদানিং সমস্যা হচ্ছে। কলাবাগান ভাই যদি কোন কিছু জানতে চায় তাহলে সেটা পরে জানিয়ে দেন। তবে তিনি কিসের ছবির ব্যাপার জানতে চেয়েছিলেন, সেটা সম্ভবত আমার চোখ এড়িয়ে গেছে। আমাকে সম্ভব হলে বিষয়টি জানাবেন।

৪৮| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:৫৬

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন:




এই যে এই পোস্টে

[link|https://www.somewhereinblog.net/blog/Chhobi/30313332|রঙে রঙিন মতিঝিল ও একটি সুন্দর দৃশ্য

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:১৭

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ওকে। কিন্তু আপা এখানে সমস্যাটি কি বা কলাবাগান ভাই কি বলতে চাইলেন আমি ঠিক বুঝতে পারলাম না। অফিসে বসে তো অনেকেই কাজের ফাঁকে ব্লগে আসেন!!

৪৯| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:২৩

spanked বলেছেন: রোজ এত এত চেতনার বড়ি খাই উত্তেজিত না হইয়া উপায় আছে! তাই মাঝে মাঝে ঢেলে দেই!ধীরে সুস্থে লেখা আর জোরেশোরে লেখা দুইটাই জানি। ভালো থাকবেন। ধন্যবাদ।

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:১৪

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ঠিক আছে। দুটো আঙুল তো আছে। বেশি যা খাবেন তা হজম না হলে দুটো আঙুল গলায় দিয়ে বমি করে ফেললেই দেখবেন সব শান্তি!!

৫০| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৩:২৯

শহিদুল ইসলাম মৃধা বলেছেন: অতি প্রয়োজনীয় পোস্ট।

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:১৪

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে, শুভেচ্ছা জানবেন।

৫১| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:২২

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: কলাবাগান এটাই বুঝাতে চেয়েছেন যে, অফিসের নেটে কেনো ব্যক্তিগত কাজ করা হবে এটা নৈতিকতা বিবর্জিত। উনি প্রায়ই আমার পোস্টে এমন মন্তব্য করেন।

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:১৮

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ছবি আপা, আমার ধারনা কলাবাগান১ দীর্ঘদিন প্রবাসে থাকতে থাকতে একাকী অনুভব করছেন। তাই আপনার সাথে দুস্টামি করছেন বা উত্যক্ত করছে। এখন যদি দুস্টামি হিসাবে দেখেন তাহলে সমস্যা নাই। তবে আপনি চাইলে ডিজিটাল ইভ টিজিং হিসাবে দেখতে পারেন। সেই ক্ষেত্রে আমাকে দ্রুত জানান। ইভিটিজিং এর অভিযোগ খুবই গুরুত্বপূর্ন।

পাশাপাশি, আপনি উনাকে জানিয়ে দেন, আপনার দুটো ছেলে আছে যারা বয়সে আমার চেয়ে কিছুটা ছোট ;) তাহলে আসলে করি তিনি সঠিক পথে ফিরে আসবেন।

৫২| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:০৯

লাইলী আরজুমান খানম লায়লা বলেছেন: আন্তরিক ধন্যবাদ এত সুন্দর গঠনমূলক একটি পোস্টের জন্য--। অনেক বছর হলো ব্লগের সাথে আছি, ‍কিন্তু এখন ব্যস্ততার কারণে ব্লগে তেমন সময় দেয়া হয়ে ওঠে না। মাঝে মাঝে ব্লগে ঢু দেই--মনে হয় ১ বছরেরও বেশি সময় পরে আজ ”নামাজ” নিয়ে একটি পোস্ট দিয়েছি, আজকে নুরুলইসলা০৬০৪ নামক একজন সম্মানিত ব্লগার আমাকে তার মন্তব্যের মাধ্যমে অসম্মান করেছেন। ব্যক্তিগতভাবে আমি কখনোই কাউকে অসম্মান করে কথা বলি না বা আক্রমনাত্মক কথা বলি না--। ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি কারো কোন পোস্ট ভাল নাও লাগতে পারে, বা ইনফরমেশন যথাযত মনে নাও হতে পারে------। সমালোচনা হওয়া উচিত গঠনমূলক এবং অবশ্যই ভাষার ব্যবহার হতে হবে মার্জিত---
তাছাড়াও ব্লগ ওপেন ই-বই স্বরূপ--। এখানে এসেই কেউ লেখক হয়ে যায় না, কেউ দেখতে-দেখতে, পড়তে-পড়তে এবং একসময় লিখতে লিখতে অন্যদেরকে ভাল লিখা দিতে চেষ্টা করে--। তাই আমরা যারা পূরাতন ব্লগার, আমাদের আচরণ হতে হবে নিয়ন্ত্রিত ও রুচিশীল---তবেই তো নতুনরা এখন হতে শিখবে----। এখন ব্লগে দেখছি শুধুমাত্র নাস্তিকতার ব্যানারে লিখলে বা মন্তব্য করলেই তাকে ধন্য ধন্য করা হয় যা কিছুতেই ভাল লাগছে না--নারী ব্লগারগণ লিখছেন, তাদেরকে অনুপ্রাণিত করা উচিত এবং তাদের পোস্টে বাজে মন্তব্য করা হতে বিরত থাকা উচিত। ব্লগীয় নীতিমালায় এ বিষয় সম্পকির্তত কিছু লাইন যোগ করার দাবি রাখছি --। আপনি বিপদের সময়ে সামুকে আগলে রেখেছেন এবং এখনো আগলে রাখছেন। আপনাকে স্যালুট জানাই ---

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:২৪

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: প্রিয় লায়লা আপা, আপনাকে ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য। আপনার পোস্টে আমি একটি মন্তব্য করেছি। আশা করি আপনি বিষয়টি বুঝতে পারবেন।

৫৩| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:২৩

পদ্ম পুকুর বলেছেন: আমার সর্বশেষ পোস্টে আমি মনে হয় আপনি বলার আগেই রিক্যোয়ারমেন্টগুলো ফুলফিল করতে পেরেছি.... :-B

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:৪৩

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: আপনার পোস্টটা দারুন হয়েছে। আমি সময় করে মন্তব্য করব।

৫৪| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:২৫

রাজীব নুর বলেছেন: আমি নিয়ম মেনেই চলবো।

১৫ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:০০

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: সময় কথা বলবে। আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা।

৫৫| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:৩৮

spanked বলেছেন: ও আপনি এই পথ বাইছা নেন। যাক আপনে আর নিতে পারতাছেন না বুঝছি। অমন শান্তি খোঁজে বলেই দেশে গোলাম বেশি মানুষ কম। জায়গামতো আংগুল ই দিতে জানে না দেশে ঘটব বিপ্লব আর আসব শান্তি! দুঃখিত মাইন্ড খাইয়েন না

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:৩৮

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: মাইন্ড খাওয়ার সময় পাচ্ছি না। নিয়মিত অখাদ্য খেতে খেতে এমনিতেই কাহিল। আমার চিন্তা হলো, নতুন একজন যুক্ত হলো।

৫৬| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:০৮

:):):)(:(:(:হাসু মামা বলেছেন: সুন্দর ও চমৎকার বিষয় লেখা। তয় আমি কোনও নিয়ম মেনে শুনে লিখতে পারমু না। আমার যা মনে চায় তাই লিখমু কারন ব্লগ মানেই মুক্ত মতামত প্রকাশ। #:-S
যদিও আমার লিখা এখন ১ম পাতা থেকে বহিস্কার আছে।যাইহোক দেখি কতদিন আমার লেখা ১ম পাতায় বহিস্কার তবিয়তে থাকে। B:-/

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:৩৭

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: আপনার প্রথম পাতায় এক্সেস নেই?? আমি তো জানতাম আছে। হয়ত কোন কারনে আপনার পয়েন্ট বেশি থাকার কারনে সাময়িকভাবে বন্ধ আছে। কারনটা নিশ্চয় আপনি জানেন কেন? যদি দুই এক দিনের মধ্যে ঠিক না হয়, তাহলে আমাকে একটু জানায়েন, আমি বিষয়টা দেখব।

দুই, নিয়ম মানা বা না মানা যার যার ইচ্ছা। তবে একজন আদর্শ প্রশাসক তার সকল নাগরিককে আইন মানতে বাধ্য করেন। আমিও সেই পথ অনুসরন করতে চাই। ফ্রিড অব স্পীচ মানে যা খুশি তা করা নয়। আপনার আমার সকলের জবাব দিহীতা আছে। আমরা কেউই জবাবদিহীতার উর্দ্ধে নই।

আশা করি যারা, সিনিয়র ব্লগার, তারা এই বিষয়ে সকলে সহযোগিতা করবেন।

৫৭| ১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৯:২৫

কলাবাগান১ বলেছেন: অফিসের নেটওয়ার্ক ব্যক্তিগত কাজে ইউজ করা উচিত নয় বলা যদি ঈভ টিজিং হয়, তাহলে তো কোন কথাই বলা উচিত না

১৪ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১১:৩৩

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: সোশ্যাল মিডিয়াতে অনেক অফিস এক্সেস দেয় না। আবার অনেক অফিস সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে এক্সেস দেয় নির্দিষ্ট সময় পরে আবার অনেক সোশ্যাল মিডিয়ার সাইটে প্রবেশ কিছুটা স্লো করে রাখে। আবার অনেক অফিস এই গুলো নিয়ে চিন্তাও করে না। কাজ দিয়ে কথা। এখন আপু যদি কাজের ফাঁকে ফাঁকে তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় চোখ রাখেন আর তাতে যদি কাজের কোন সমস্যা না হয়, তাহলে আপনার তো এত চিন্তার কোন কারন দেখি না!

আপনি উনাকে বেহুদা খুচিয়েছেন, তিনি কিছুটা বোকা সোকা মানুষ, তাই ব্যাপারটা নিয়ে রি এ্যাক্ট করেছেন। আমিও দুস্টামি করে বলেছি - ইভ টিজিং এর অভিযোগ জানাতে।

দ্যাটস ইট!

৫৮| ১৫ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১২:৪৬

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: লক্ষ্য করা যায় যে, বেশীর ভাগ পোষ্টের উত্তর (যদি ক্ষমতার কাছাকাছি থাকে )
তোষামদে ভরা থাকে, কারও কারও মাঝে এমন চিন্তার প্রকাশ দেখি যে,
সত্য ভাষন দিয়ে মডুদের চটানো যাবে না । তাহলে অবস্হার উন্নতি ও
প্রানব্ন্ত গতিশীলতা আসবে কি করে ।

........................................................................................................
মডারেশনে আধুনিকতা ও পরিবর্তন এবং নূতন নুতন আইডিয়া সংযোজন
এখন সময়ের দাবী, সামুর কর্তৃপক্ষ যদি এ বিষয়ে আন্তরিক না হন তবে,
খরস্রোতা নদী যেমন শুকিয়ে যায়, সামুর পরিনতি ও সেপথ অনুসরন করবে ।

১৫ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১:৩১

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনার মতামতের জন্য। মডারেশন সংক্রান্ত যে কোন পরামর্শ দেয়ার জন্য আপনি সাদরে আমন্ত্রিত।
তবে, মডারেশন টিম কারো সাথে ব্যক্তিগত দ্বন্দে জড়াতে চায় না - এই কথাটি প্রযোজ্য নয়, বরং সঠিক হবে - মডারেশন টিমের কারো এই ধরনের কোন সুযোগ নেই। কারন সবাই জবাবদিহীতার মধ্যে আছেন।

৫৯| ১৫ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১:০৯

spanked বলেছেন: যাক অখাদ্য তাইলে খায় পাবলিক জোরে একটা হাততালি।তাইলে আরও আছে? আপনি এতে সামিল নাই? বুকডা ফাইট্টা যায়! থাকলে খোয়াড় ভরে যেত.... ভালো থাকবেন।

১৫ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ২:০৬

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: :) :)

৬০| ১৫ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ১:৪৮

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: মডারেশন টিম কারো সাথে ব্যক্তিগত দ্বন্দে জড়াতে চায় না - এই কথাটি প্রযোজ্য নয়,
বরং সঠিক হবে - মডারেশন টিমের কারো এই ধরনের কোন সুযোগ নেই।
কারন সবাই জবাবদিহীতার মধ্যে আছেন।

..................................................................................................................
মডারেশন টিমের কারও সম্পর্কে আমার ব্যক্তিগত পরিচয় নেই, তবে পর্যবেক্ষণে মনে
হয় পুরাতন অনেক ব্লগার জানেন ও ব্যক্তিগত সম্পর্ক থাকতে পারে ।যে ধরনের অভিযোগ
পাওয়া যায় তাতে লক্ষ্য করেছি ক্ষোভের পরিমাপ তীব্র, অভিযোগের তীর ব্যক্তির প্রতি ।
বিষয়টি আধুনিক ও অটোমশোন করা হলে এমনটা হওয়ার সুযোগ থাকেনা ।
...................................................................................................................
মডারেশন সংক্রান্ত যে কোন আলোচনা বা পরামর্শর উপযুক্ত আলোচনার পরিবেশ হলে
অবশ্যই অংশগ্রহন করব, যদি প্রতীয়মান হয় যে, সামু কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে আন্তরিক ।

১৫ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ২:০৫

কাল্পনিক_ভালোবাসা বলেছেন: অবশ্যই ভাইয়া জানাবেন। আপনাদের পরামর্শ, মতামত সবই আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ন।
আমরা কিছু মানুষ এখনও বাংলা ব্লগের জন্য, ব্লগারদের জন্য খেটে যাচ্ছি, রাত দিন। নিজেদের মান উন্নয়নে আপনাদের যে কোন পরামর্শ আমরা সাদরে গ্রহন করব।

৬১| ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৮:৩০

spanked বলেছেন: কাল্পনিক_ভালোবাসা আপনি কেমন আছেন? চাঁদগাজী সাহেব আমাকে আপনার কথা বলেছেন। বিষয় "আমার লেখা কেন প্রথম পাতায় আসে না। " এই জন্য অনুরোধ করতে বলেছেন। একজন ভদ্রলোক যখন দুইবার আমাকে মনে করিয়ে দিলেন তাই এর গুরুত্ব উপলব্ধি করছি। বাকিটা আপনার মন মর্জি। ভালো থাকবেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.