নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

মরুভূমির জলদস্যু

পগলা জগাই

মরুভূমির জলদস্যুর বাগানে নিমন্ত্রণ আপনাকে।

পগলা জগাই › বিস্তারিত পোস্টঃ

ফুলের রাণী গোলাপ - ০৪

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:০৯

গোলাপকে ফুলের রাণী বলা হয়। গোলাপ পাঁপড়ির গড়ন ও বিন্যাসের নান্দনিকতা মানুষকে আকৃষ্ট করে। সুগন্ধী গোলাপের ঘ্রাণও মানুষের ভালোবাসার কারণ। ফুলের সৌন্দর্য ও সুবাসের জন্য গোলাপ বিশ্বজুড়ে বিখ্যাত।



পৃথিবীতে প্রায় ১০০ থেকে ১৫০ প্রাজাতির গোলাপ ফুল রয়েছে। এই সমস্ত প্রজাতির মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন উপ-প্রজাতি। সব মিলিয়ে প্রায় ৫৫০টি আলাদা আলাদা গোলাপের অস্তিত্ব রয়েছে পৃথিবী জুড়ে।



গোলাপের রয়েছে আকারেরর ভিন্নতা, সেই সাথে আছে রং এর ভিন্নতাও।
যেমন - গোলাপী, লাল, হলুদ, সাদা, সবুজ ইত্যাদি। তাছাড়া "গার্ডেন রোজ" নামে বিভিন্ন হাইব্রিড গোলাপেরও উৎপাদন হচ্ছে। যেগুলো একই সাথে একই ফুলের পাপড়িতে দুই বা ততোধিক রঙের হতে পারে।



গোলাপের আদি নিবাস এশিয়া মহাদেশে। অল্প কিছু প্রজাতির আদি বাস ইউরোপ, উত্তর আমেরিকা, ও উত্তরপশ্চিম আফ্রিকা মহাদেশে। গ্রীক উপকথায় আছে প্রেমের দেবী ভেনাস এর পায়ের রক্ত থেকে গোলাপ এর জন্ম। আরব দেশীয় কাহিনীতে আছে সাদা গোলাপকে বুলবুলি পাখি আলিঙ্গন করায় বুলবুলি পাখি গোলাপ এর কাটায় আহত হয়ে বুলবুলি পাখির রক্ত থেকে সাদা গোলাপ থেকে লাল গোলাপ এর জন্ম। হিন্দু পৌরাণিক কাহিনীতে আছে বিষ্ণু ব্রহ্মাকে পদ্ম-ই শ্রেষ্ঠ ফুল বললে ব্রহ্মা বিষ্ণুকে স্বর্গে নিয়ে সেখানে হালকা রঙের একটি সুগন্ধি গোলাপ দেখান। গোলাপ সমন্ধে এইরকম অনেক গল্প আছে।



গোলাপ ফুল যে সৌন্দর্যের প্রতীক, তাই নয়। এর রয়েছে বহুমুখী ব্যবহার। গোলাপের পাপড়ি থেকে জ্যাম,জেলি প্রস্তুত করা হয়। পার্সি,চীন ও ভারতে গোলাপজলের প্রচলন ঘটে। সুগন্ধির জন্য গোলাপজল ব্যবহার করা হয়। গোলাপ ফুলের সুবাসকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন প্রসাধনী সামগ্রী তৈরি করা হয়। যেমন:পারফিউম,সাবান ইত্যাদি। গোলাপে গেনারিয়ল নামে একটি অ্যারোম্যাটিক অ্যালকোহল জাতীয় পদার্থ পাওয়া যায়। যা এর সুগন্ধের জন্য দায়ী।



সূত্র : উইকিপিডিয়া
১, ৪ ও ৫ নাম্বার ছবি তোলার স্থান : বোটানিক্যাল গার্ডেন, মিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশ।
২ নাম্বার ছবি তোলার স্থান : মোঘল গার্ডেন, শ্রীনগর, কাশ্মীর, ভারত।
৩ নাম্বার ছবি তোলার স্থান : বাড্ডা, ঢাকা, বাংলাদেশ।

=================================================================
সিরিজের পুরনো পর্বগুলি দেখতে -
ফুলের রাণী গোলাপ - ০১
ফুলের রাণী গোলাপ - ০২
ফুলের রাণী গোলাপ - ০৩

মন্তব্য ৩২ টি রেটিং +৬/-০

মন্তব্য (৩২) মন্তব্য লিখুন

১| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:২১

খায়রুল আহসান বলেছেন: চমৎকার, চোখ জুড়ানো এসব গোলাপের ছবি শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। সেই সাথে গোলাপ সম্পর্কে অনেক অজানা তথ্য সংযোজন করে পোস্টকে সমৃদ্ধ করেছেন, এটাও প্রশংসাযোগ্য।
পোস্টে প্রথম ভাল লাগা + +।

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:১১

পগলা জগাই বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে মন্তব্যে ভালো লাগা প্রকাশের জন্য।

২| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:৪১

নতুন বলেছেন: ১ম গোলাপের ছবি দেখে ধন্যবাদ দিতেই হলো। :)

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:১২

পগলা জগাই বলেছেন: শুকরিয়া, স্বাগতম আপনাকে।

৩| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:০০

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: পিলখানাতে এক সময় বিশাল একটা গোলাপ বাগান ছিল। হরেক রকম গোলাপ ছিল সেখানে ছিল। হয়তো বাগানটা এখনও আছে।

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:১২

পগলা জগাই বলেছেন: পিলখানাতে কখনো যাই নি, তাই বাগানের কথাও জানি না।

৪| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:১৩

পদ্ম পুকুর বলেছেন: কাঁটা হেরি ক্ষ্যান্ত কেনো গোলাপ তুলিতে....

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:২৯

পগলা জগাই বলেছেন: কাঁটা হেরি ক্ষান্ত কেন কমল তুলিত......

৫| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:২১

নেওয়াজ আলি বলেছেন: নৈসর্গিক

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:৩০

পগলা জগাই বলেছেন: ধন্যবাদ

৬| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:৪১

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: খুব সুন্দর গোলাপ

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:৩১

পগলা জগাই বলেছেন: ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য।

৭| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ২:০৯

রাজীব নুর বলেছেন:

আপনার জন্য।
ছবিটা ফরিদপুর থেকে তুলেছিলাম।

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:৩১

পগলা জগাই বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে ছবির জন্য।

৮| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ দুপুর ২:৩১

বিএম বরকতউল্লাহ বলেছেন: মনটা সত্যিই ভাল হয়ে গেল আপনার পোষ্টে ঢুকে। শুভেচ্ছা নিন।

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:৩৩

পগলা জগাই বলেছেন: আপনার ভালো লেগেছে জেনে খুশী হলাম। ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য। ভালো থাকুন সব সময়।

৯| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৪:৪২

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: গোলাপ কার না ভাল লাগে ।

সুন্দর ।+

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:৩৩

পগলা জগাই বলেছেন: সকলেরই ভালো লাগে।
ধন্যবাদ

১০| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:০৬

মা.হাসান বলেছেন: অসাধারণ সব ছবি!

পিলখানাতে বাগানটা আমি দেখেছি, ওরা খুব যত্ন নেয়। তবে গত দু-চার বছরে ওদিক যাওয়া হয় নি, বিডিআর বিদ্রোহের পর কি অবস্থা কে জানে।

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:৩৪

পগলা জগাই বলেছেন: আমার কখনোই যাওয়া হয় নাই। সুযোগ হলে দেখে আসতে হবে।

১১| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৫০

ইসিয়াক বলেছেন: খুব সুন্দর।

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৫৮

পগলা জগাই বলেছেন: ধন্যবাদ

১২| ১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১১:১২

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে ছবির জন্য।

ভালো থাকুন।

১৭ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১১:১৬

পগলা জগাই বলেছেন: শুভকামনা রইলো আপনার জন্যও।

১৩| ১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ৯:৩০

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: গোলাপের সুরভী মাখা গোলাপী পোষ্টে ভাললাগা :)

আহ! গোলাপ!
যেমন মিষ্টি ঘ্রান, তেমনি তার সৌন্দর্য!....

++++

১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:৩০

পগলা জগাই বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে স্যঅর সুন্দর মন্তব্যের জন্য।

১৪| ১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৪

মিরোরডডল বলেছেন:



আসলেই ফুলের রানী ।
কি ভয়ংকর সুন্দর দেখতে !
সুন্দর বললেও এনাফ হয়না ।
ভীষণ এট্রাক্টিভ !

আমার বাবার ফুল গাছ করার শখ ছিলো, দেশী বিদেশী নানারকম ।
অনেক গোলাপ গাছ ছিলো , বিশেষ করে লাল গোলাপ । ঝাড় ঝাড় ফুল হতো । কি যে সুন্দর !
আমার মনে পড়ে আমি আমার স্কুলের পছন্দের মিসদের জন্য মাঝে মাঝে গাছের গোলাপ নিয়ে যেতাম ।
কোথায় গেলো সেই দিনগুলো ! বাবাও নেই আর সেইসব গাছও নেই ।





১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৪

পগলা জগাই বলেছেন: আমার বাবার ফল গাছের প্রতি আলাদা নজর ছিলো। বাড়িতে এখনো বাবার লাগানো একটি কাঠাল, ২টি পেয়ারা, একটি খেঁজুর, একটি জামবুরা, একটি আতা, ২টি জাম গাছ আছে। শুধু বাবা নেই।

১৫| ১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৫৩

মিরোরডডল বলেছেন:



আহা ! পগলারও একই অবস্থা । অন্তত গাছগুলোতো আছে বাবার স্মৃতি ।
আমাদেরও ছিলো পেয়ারা, সাজনা , মেষ্টা । সময়ের সাথে সব বদলে যায় ।
এখন ওগুলো শুধুই মেমরিজ ।

আমি কিন্তু নেচার লাভার, তাই পগলার পোষ্টগুলো আমার খুবই প্রিয় ।
ফুল, পাখি, সবুজ বনানি, গাছ, সানসেট, মানুষের জীবনের ছবি সাবজেক্টগুলো খুবই রিলেট করে আমাকে ।
থ্যাংকস পগলা ।

১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৮:০৪

পগলা জগাই বলেছেন: হুম, আব্বার লাগানো জাম গাছ দুটিতে জাম ধরে, রসালো এবং প্রচুর পরিমানে। এ বছর অন্ততো ৮০টি বাড়িতে জাম দিয়ছি। আব্বাও এই কাজ করতেন। জাম পরে সবাইকে বিলিয়ে দিতেন। চাইলে এবার গাছের জাম ৪০ হাজারে বিক্রি করে দিতে পারতাম। কিন্তু তা করিনি, বাবা যা করতো তাই করেছি।

ছোট বেলায় মারাত্মক জেদী ছিলাম। কোনো কারণে রেগে গেলে.....
আব্বা একবার কোথা থেকে ১ বা ২ টি বিদেশী জাম গাছ এনে লাগিয়েছিলেন। (বিদেশী জামটা কি জিনিস কে জানে।)
১ বা ২ দিন পরেই কোনো কারণে আমি রেগে যায় এবং রাগ ঝাড়ি সেই নতুন লাগানো গাছগুলি উপরে ফেলে।

আমার পোস্ট করা ছবিগুলি ভালো লাগে জানতে পেরে আনন্দিত হলাম।
ভালো থাকবেন।

১৬| ১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৫১

মিরোরডডল বলেছেন:



বাবার ফুটস্টেপ ফলো করা হচ্ছে, হুইচ ইজ রিয়েলি গুড ।
That’s how it meant to be.
সবার মাঝে ডিস্ট্রিবিউট করে দেবার যে আনন্দ, মানি ক্যান্ট বাই দিজ প্লেজার ।
You’re doing the right thing.

আশা করি ছোটবেলার সেই জেদ আর নেই ।
ফুল পাখি গাছ যে ভালোবাসে, সে কখনোই অকারণ জেদি হতে পারেনা ।
পগলাও ভালো থাকবে । থ্যাংকস ।

১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:৪৬

পগলা জগাই বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে।
ডিস্ট্রিবিউটের আনন্দ আসলেই অুলনিয়। তবে দিয়ে দেয়ার স্বভাবের জন্য অনেক সময় গিন্নী কথা শোনায়। বাইরের লোকেরা বোকা ভাবে। অবশ্য তাতে কিছু যায় আসে না। কারণ আমি নিজেকে বোকাই মনে করি।
জেদ এখনো আছে, তবে কন্ট্রল করা শিখে গেছি। রাগলেও মুখে হাসি ধরে রাখতে পারি। শুধু কান লাল হয়ে যায়, সমস্ত মুখমন্ডল দিয়ে গরম ভাব বের হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.