নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি কেউ না আমি কেউ না

খাঁজা বাবা

বল বীর – বল উন্নত মম শির! শির নেহারি’আমারি নতশির ওই শিখর হিমাদ্রির!

খাঁজা বাবা › বিস্তারিত পোস্টঃ

আনন্দগুলি কোথায় হারিয়ে যাচ্ছে?

১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:১৩



ছবি- গুগল

জীবন যত আগাচ্ছে, বয়স বাড়ছে, জীবন থেকে আনন্দ, শান্তি যেন ততই দূরে চলে যাচ্ছে। নানাবিধ চিন্তায় মন মস্তিষ্ক সব সময় আচ্ছন্ন হয়ে থাকছে।

এক সময় খেলতে খুব পছন্দ করতাম, আনন্দ পেতাম। একবেলা খেলার পরে যে আনন্দ পেতাম, খেলা শেষে ফিরে এসে মায়ের কাছে মার; তার কাছে কিছুই না। খেলা হয় না অনেক বছর।

এক সময় খেলা দেখেও আনন্দ পেতাম। যখন ঢাকায় এসে মেসে উঠি, রুমে টিভি ছিল না। রাস্তায় দাঁড়িয়ে চায়ের দোকানে বা টিভির শোরুমের শামনে দাঁড়িয়ে খেলা দেখেও প্রচুর আনন্দ পেতাম। আজকাল আমি জানিই না কবে কোন খেলা, এমনকি বাংলাদেশের ক্রিকেট ম্যাচ।

একসময় গল্পের বই পড়ে আনন্দ পেতাম। একটানে মোটা বই পড়ে শেষ করে ফেলতাম। এখন ধৈর্য হয় না।

এক সময় টিভি দেখে আনন্দ পেতাম। এখন বাসায় ফিরে টিভি অন করে রাখি কিন্তু দেখা হয় না

এক সময় ক্যাম্পাসে আড্ডাতেও প্রচুর আনন্দ পেতাম। এখন ক্যাম্পাসে যাওয়াই হয় না বছরের পর বছর। বন্ধুদের সাথে আড্ডাতেও মজা কেমন যেন কমে আসছে।

কিছুক্ষন আগে ফেসবুকে একটা সাইকোলোজিকাল টেষ্ট সম্মন্ধীয় পোষ্ট দেখে ভাবছিলাম আমি রাত দিন মিলিয়ে কোন সময়টা সবচেয়ে শান্তিতে কিংবা আনন্দে থাকি? তেমন কিছুই পেলাম না।

দিনে দিনে জীবন কমপ্লিকেটেড আনন্দহীন হয়ে যাচ্ছে।
কোথায় হারিয়ে যাচ্ছে সেই সব দিন গুলির সব আনন্দ?

মন্তব্য ১৮ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (১৮) মন্তব্য লিখুন

১| ১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৪:৩৫

পদ্ম পুকুর বলেছেন: আনন্দগুলো কোথাও যাচ্ছে না, শুধু ট্রান্সফর্মড হচ্ছে জীবনের গতি বদলানোর সাথে সাথে। এই যে এখন এখানে লিখে আনন্দ পান। আর আগের আনন্দগুলো ফিরে না পাওয়ার কাতরতাটাই তো এখনকার জীবন।

ভালো থাকবেন।

১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:২৩

খাঁজা বাবা বলেছেন: হয়ত, কিন্তু আগে যত সহযে আনন্দ পাওয়া যেত এখন তা আর হয় না। :(

২| ১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৪:৫৯

রাজীব নুর বলেছেন: সময় বড্ড কঠিন।
সমাজ বদলে গেছে।
মানুষ হয়ে পড়েছে নিষ্ঠুর।

১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১১

খাঁজা বাবা বলেছেন: সময় সমাজ বদলে যাচ্ছে খুব দ্রুত।
ঢাকার জ্যামের কারনে আজকার স্যোসাল গ্যাদারিং খুব কম হচ্ছে।
মনের উপর এর প্রভাব অনেক।

৩| ১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:০৫

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: হুম
আনন্দ ফিরে আসুক আপনার মনে

১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:২২

খাঁজা বাবা বলেছেন: আনন্দ থাকুক সবার মনে :)

৪| ১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:১০

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: এক একটা বয়সে এক এক রকম অনুভূতি কাজ করছে। বয়স যত বাড়ছে তত আমাকে মৃত্যু চিন্তা পেয়ে বসছে। এখন আর আমি অনেক কিছু করা নিয়েও ভাবি না। কারণ, যাই করি আমি আর বেশী দিন নাই পৃথিবীতে। তারপর?

১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১৩

খাঁজা বাবা বলেছেন: আমরা পৃথিবীতে বেশিদিন থাকব না ঠিক, তবে যেকটা দিন থাকব সেটা কিভাবে থাকব এটাই একটা বড় চিন্তা মানুষের জীবনে।

৫| ১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:২৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনার বয়স কত, কোন পেশা আছে, চাকুরী করেন?

১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০৯

খাঁজা বাবা বলেছেন: বয়স বেশি না, ৩২। আমি মনে করতাম আমার মনের বয়স আরো কম, ২৫। কিন্তু আনন্দ যেভাবে আমাকে ছেড়ে পালাচ্ছে তাতে মনে হচ্ছে বয়স খুব দ্রুত বাড়ছে।
পেশা আছে। একটা প্রাইভেট কম্পানিতে ৯টা ৬টা ডেস্ক জব। খুব একটা কঠিন বা প্রেশার না। বা থাকলেও সয়ে গেছে।

৬| ১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৪৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


আধুনিক মনের মানুষের সাথে আশেপাশে ঘুরতে যাবেন।

২০ শে জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ৯:৪১

খাঁজা বাবা বলেছেন: চেষ্টা করব, পরামর্শের জন্য ধন্যবাদ। :)

৭| ১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:০৪

নেওয়াজ আলি বলেছেন: ঘুরে আসুন পাহাড় কিংবা সাগর এলাকা হতে।

২০ শে জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ৯:২৭

খাঁজা বাবা বলেছেন: সপ্তাহ শেষে যাচ্ছি সাগরের কাছে :)

৮| ২০ শে জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১২:০৯

শের শায়রী বলেছেন: ভাবনার বিষয়, মন্তব্যের ঘরে দেখলাম আপনার বয়স ৩২, এই বয়স টা উপভোগের সেখানে কেন এত বিষন্নতা? এটা কি আপনার একান্ত নাকি সমাজের প্রতিচ্ছবি?

২০ শে জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ৯:২৬

খাঁজা বাবা বলেছেন: আমি তো সামাজেরই অংশ :)

৯| ২০ শে জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:৩৮

নীল আকাশ বলেছেন: এই সময়ে জীবন খুব ব্যস্ততার সাথে কাটে। জীবনের বয়ে যাওয়া দিনগুলিতে পারিবারিক প্রয়োজন আর চাহিদা মেটাতে মেটাতেই নিরন্তর পরিশ্রম করে যেতে হয়। ক্লান্ত শরীর আর শ্রান্ত দেহমনে বাসায় ফিরলে আর কোন কিছু ভালো লাগে না। বয়সের সাথে সাথে শরীরে রেস্ট নেবার চাহিদাও বেড়ে যাচ্ছে।
আপনি কী লেখক যাযাবরের পাঠকের মৃত্যূ গল্পটা পড়েছেন? এই গল্পের মূল থীম কিন্তু এটাই।
আমরা সবাই এই একই সমস্যা নিয়ে দিনাতিপাত করছি।
ভালো থাকুন আর যতটা পারেন, নিজের জন্য সময় বের করুন।
ধন্যবাদ।

২০ শে জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:২১

খাঁজা বাবা বলেছেন: পরামর্শের জন্য ধন্যবাদ। :)
গল্পটা পড়িনি, পড়ার চেষ্টা করব।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.