নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার নাম- রাজীব নূর খান। ভাবছি ব্যবসা করবো। ভালো লাগে পড়তে- লিখতে আর বুদ্ধিমান লোকদের সাথে আড্ডা দিতে। কোনো কুসংস্কারে আমার বিশ্বাস নেই। নিজের দেশটাকে অত্যাধিক ভালোবাসি। সৎ ও পরিশ্রমী মানুষদের শ্রদ্ধা করি।

রাজীব নুর

আমি একজন ভাল মানুষ বলেই নিজেকে দাবী করি। কারো দ্বিমত থাকলে সেটা তার সমস্যা।

রাজীব নুর › বিস্তারিত পোস্টঃ

আজকের শিশু আগামী দিনের ধর্ষক, দূর্নীতিবাজ, চোর-ছিনতাইকারী, চাঁদাবাজ, দালাল

১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৪৮



একজন শিশু জন্ম দেয়া কি খুব বেশি প্রয়োজন এই সমাজে?
প্রতিটা সংসারেই একটি ছেলে-মেয়ের বিয়ের পর আত্মীয় স্বজন সবাই বাচ্চার জন্য তাড়া দেয় কেন? বাচ্চা না নিলে সমস্যা কি? এই ঘুনে ধরা সমাজে একটি বাচ্চাকে পৃথিবীতে নিয়ে আসার কোনো মানে হয় না। এই সমাজ, দেশ এবং দেশের মানুষজনতো সহজ সরল সুন্দর নয়। একটা শিশু জন্ম নেয়ার পর থেকে, বড় হতে থাকবে, আর পদে পদে ধাক্কা খাবে। স্কুলে ভর্তি হতে নানান সমস্যা, খাদ্যে সমস্যা, পাড়ায় মহল্লায় সব জাগায় সমস্যা। বড় হবে নেশা করবে, প্রেম করবে, পরকীয়া করবে, ধর্ষন করবে। কারন আজ যারা এসব খারাপ কাজ করে বেড়াচ্ছে তারাও একসময় শিশু ছিল। শিশুটি বড় হবে হাজার হাজার সমস্যার মধ্যে দিয়ে। শিশুটির চলার পথ মসৃন থাকবে না। পথ থাকবে নানান কাটাময়। ভয়াবহ মহা জটিল, কুটিল।

আমাদের দেশের বেশির ভাগ মানুষই দরিদ্র।
তারা জন্মের পর থেকেই অভাবে-অভাবে বড় হয়। লেখা-পড়া শিখে, কোনো একটা চাকরি করে, ডাল ভাত খেয়ে জীবন পার করে দেয়। শান্তি, আনন্দ আর বিনোদন বলতে তাদের কিছু থাকে না। ধনীর ঘরে শিশু জন্মালেও সমস্যা আছে। তারা বড় হয়ে ভালো মানুষ হবে, না জঙ্গি হবে এর কোনো নিশ্চয়তা নেই। এই সমাজে কেউ ভালো থাকতে পারবে না। কেউ না। কাজেই চোখ বন্ধ করেই বলা যায়- আজকের শিশু আগামী দিনের ধর্ষনকারী, চোর, ছিনতাইকারী, দূর্নীতিবাজ, চাঁদাবাজ। কারন এখন যারা এই সমস্ত কাজ করছে তারাও একসময় শিশু ছিল।
দিনদিন পৃথিবীটা নিষ্ঠুর হয়ে যাচ্ছে। কাজেই আমি মনে করি, এই নিষ্ঠুর পৃথিবীতে একটা শিশুকে নিয়ে আসা আর আগুনে ফেলে দেয়া একই কথা। বর্তমান যুগে যেসব বাবা-মা এই ভয়ংকর পৃথিবীতে শিশু জন্ম দিচ্ছেন- তারা কি একবার ভাবেন(?) তাদের ভবিষ্যত প্রজন্মকে কোথায় রেখে যাচ্ছেন? আপনারা ছেলে-মেয়ে জন্ম দিবেন, লেখা-পড়া শেখাবেন, বিয়ে দেবেন- তারপর আপনারা মরে যাবেন।তারপর যতদিন আপনার ছেলে-মেয়ে বেঁচে থাকবে তাদের যুদ্ধ করে যেতে হবে। আমি বলব, কেন তাদের এই ভয়ঙ্কর দুনিয়াতে আনলেন(?) প্রতিটা মুহূর্ত যুদ্ধ করার জন্য, কষ্ট করার জন্য?

জন্মের সময় আমাকে যদি বলা হতো- 'তুমি কি পৃথিবীতে যেতে চাও?
আমি চিৎকার করে বলতাম- না, আমি যাব না। এখন আমাকে প্রতিটা দিন যুদ্ধ করতে হয়, আমি শান্তিতে নিঃশ্বাস নিতে পারি না। কোথাও শান্তি নেই। চারিদিকে মানুষ আর মানুষ নেই, তারা পশুর চেয়ে বেশি নিষ্ঠুর। তাদের মন মানসিকতা নোংরা। হিংসুটে, লোভী, চতুর, জটিল এবং কুটিল। যত খারাপ বিশেষণ আছে- সব বললেও কম বলা হবে। আমার বাবা-মা যদি আমাকে পৃথিবীতে না আনতো- তাহলে কি আমাকে প্রতিদিন যুদ্ধ করতে হতো? হিমসিম খেতে হতো? মিথ্যা বলতে হতো? প্রতারনার স্বীকার হতে হতো? কুকুরের মতো পরিশ্রম করতে হতো? অভাবে-অভাবে জীবন যাপন করতে হতো? টেনশনে থাকতে হতো? ভয়ে থাকতে হতো? কারো গোলাম হতে হতো? বেকার জীবন যাপন করতে হতো? খাওয়া পড়ার চিন্তা করতে হতো? অসুখ বিসুখের চিন্তা করতে হতো? আরও কত কি...

ধরে নিলাম, আপনি বিয়ে করেছেন।
মোটামোটি একটি চাকরি করছেন। বিয়ের দুই বছর পর একটা মেয়ে শিশুর জন্ম দিলেন। এই মেয়েকে অনেক আদর ভালোবাসা দিয়ে বড় করছেন। লেখা-পড়া শেখাচ্ছেন। মেয়েটি বড় হবে- আর আপনার টেনশন বাড়তে থাকবে। এই আধুনিক যুগেও একটি মেয়ে আজও কোথাও নিরাপদ না। যে কোনো সময় ধর্ষণ এর স্বীকার হতে পারে, অথবা এক বখাটের সঙ্গে পালিয়ে কোথাও চলে যেতে পারে অথবা কোনো চতুর লোভী ছেলে প্রেমের অভিনয় করে- পেটে বাচ্চা দিয়ে নিখোঁজ হয়ে গেল অথবা দিনের পর দিন মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে আপনার মেয়েকে ভোগ করতে থাকলো। তখন আপনার মান সম্মান কোথায় যাবে? এই যে তিলে তিলে কত কষ্ট করে, কত আদর ভালোবাসা দিয়ে মেয়েকে বড় করলেন- তার ফলাফলটা কি দাঁড়ালো শেষ পর্যন্ত?
এখন হয়তো, আপনি বলবেন- আমার মন মানসিকতা খুব নিচু। ঠিক আছে, তাহলে ধরে নিলাম- আপনার মেয়ে ধর্ষণ এর স্বীকার হলো না, বা কোনো ছেলে প্রেম ভালোবাসার সস্তা কথা বলে তাকে বিছানায় নিলো না, কিংবা কোনো বখাটের পাল্লায়ও পড়লো না। মেয়েকে বড় করলেন, লেখাপড়া শেখালেন- তারপর ভালো একটা ছেলের সাথে ধূমধাম করে বিয়ে দিয়ে দিলেন। বিয়ের পর যে সেই সংসার টিকবে বা সুখের সংসার হবে তার নিশ্চয়তা কি? মেয়ের শ্বশুর বাড়ির লোকজন তার সাথে ভালো আচরণ করবে তার নিশ্চয়তা কি?

এবার ধরুন, আপনার একটি ছেলে সন্তান এর কথা।
অনেক আদর ভালোবাসা দিয়ে আপনার ছেলেকে বড় করলেন, লেখা-পড়া শেখালেন। এই ছেলে- জঙ্গি হবে না তার কি কোনো নিশ্চয়তা আছে? এই ছেলে কোনো মেয়েকে ধর্ষণ করবে না- তার কি কোনো নিশ্চয়তা আছে? সে যে একজন ঘুষখোর হবে না, অসৎ হবে তার কি কোনো নিশ্চয়তা আছে? এই সমাজে কে ভালো? কার মধ্যে সততা আছে? মমতা আছে? আপনি হাজার চেষ্টা করলেন, আপনার ছেলে-মেয়েকে পৃথিবীর কোনো পাপ স্পর্শ করতে পারল না। কিন্তু আপনি কতদিন বাঁচবেন? আপনার মৃত্যুর পর কি হবে? ছেলে মেয়েকে কোথায়? কোণ সমাজে রেখে যাচ্ছেন? এই সমাজ, এই দেশ দেশের মানুষ কাউকে ভালো থাকতে দিবে না। নো নেভার।

বাবা-মা তো ছেলে মেয়ে জন্ম দিয়ে বড় বড় স্বপ্ন দেখেন, আমার ছেলে ডাক্তার হবে, আমার মেয়ে ইঞ্জিয়ার হবে, পাইলট হবে। হেন হবে, তেন হবে। আসলে হয় ভন্ড, লুচ্চা আর বদমাশ। কিন্তু কোনো বাবা-মা'ই স্বীকার করবেন না। সব বাবা-মা'র চোখেই তার ছেলে-মেয়ে খুব ভালো। সৎ আর নিষ্পাপ। তাহলে এই সমাজের নষ্ট ছেলে-মেয়ে গুলো কাদের? কয়জন বাবা-মা'র ছেলে ভালো হয়? স্কুলের বাচ্চা ছেলে-মেয়েরা প্রেম করে, গাঁজা খায়। রাত জেগে মোবাইলে কথা বলে, কোচিং এর কথা বলে বন্ধুর খালি ফ্লাটে গিয়ে সেক্স করে। আর যারা খুব সাহসী তারা ভিডিও করে রাখে। পরে ছেলে-মেয়েদের মধ্যে বিরোধ তৈরি হলে, সেই সব ভিডিও দেয় নেটে ছেড়ে। এই সবই অহরহ ঘটছে বছরের পর বচর ধরে। প্রতিটা ঘরে ঘরে। সেক্সের ব্যাপারে ধনী গরীব বুড়ো জুয়ান কেউ পিছিয়ে নেই। সবাই এগিয়ে।

ভবিষ্যৎ প্রজন্ম বলে একটা সস্তা কথা আছে।
আরও হাস্যকর কথা হলো- পুরুষ চায় তার জিন টিকিয়ে রাখতে, তাই যত বেশি সেক্স তত সম্ভবনা.. তাই পুরুষের বীযে` মিলিয়ন মিলিয়ন সুক্রানু...। সারভাইভাল অফ ফিটেস্ট। আপনি হয়তো বলবেন, কিন্তু আমরা মানুষ। আমাদের আবেগ/চিন্তা/বিবেক আছে.... তাই সবাই পশুর মতন চিন্তা করেনা.... কিছু মানুষের মতন চিন্তা করে....
কাজেই আপনি বিয়ে করেছেন, এখানেই থামুন। ছেলে-মেয়ে জন্ম দিবেন না। কি দরকার লুচ্চা বদমাশ জন্ম দিয়ে। হুম... যদি আপনার ছেলে-মেয়ে আইনস্টাইন হয়, মদার তেরেসা হয়, রবীদ্রনাথ হয়, বঙ্গবন্ধু হয়, স্টিভ জবস হয়, টমাস আলভা এডিসন হয়, উইলিয়াম শেক্সপিয়ার হয়, অ্যারিস্টটল হয়, স্বামী বিবেকানন্দ হয়, রবার্ট ফ্রস্ট হয় তাহলে জন্ম দেন। প্রতি বছর জন্ম দেন। কোনো সমস্যা নাই। দয়া করে সমাজের বোঝা বাড়াবেন না। আবেগ বাদ দেন। বাস্তবে আসুন।

মন্তব্য ৪৩ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৪৩) মন্তব্য লিখুন

১| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:০৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: সব কিছুই শিক্ষা ও পরিবেশের ফল। সঠিক ভাবে শিক্ষা দিতে পারলে ও উপযুক্ত পরিবেশে রাখতে পারলে আপনার ধারণা অমূলক হবে।

১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:২৬

রাজীব নুর বলেছেন: কয়জন পারবে সঠিক শিক্ষা দিতে?
আর এখন যারা চোর, দূর্নীতিবাজ, ধর্ষনকারী তাদের সঠিক শিক্ষা দেওয়া হয়নি কেন?

২| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:১০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: ছেলে হোক মেয়ে হোক দুটি সন্তানই যথেষ্ট।

১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:২৭

রাজীব নুর বলেছেন: একটাও দরকার নাই।
দুষ্ট গরুর চেয়ে শুন্য গোয়াল অনেক ভালো।

৩| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:৩৩

নতুন বলেছেন: হতাশ হইলে কি আর চলে?

দুনিয়াতে অনেক ভালো মানুষ আছে।

১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:২৮

রাজীব নুর বলেছেন: দুনিয়াতে কোনো ভালো মানুষ নেই।
যাদের ভালো মনে করছেন, তারা মূখোশ পড়ে আছে।

৪| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:১৫

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: ভালো মানুষ বেশী আছে বলেই দুনিয়া টিকে আছে এখনো

১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৩১

রাজীব নুর বলেছেন: এই কথাটা পুরাই ভুল।
এগুলো একসময় মনের শান্তির জন্য ময়মুরুব্বিরা বলে থাকেন।
ভালো মানূষ নাই। তিন জন ভালো মানূষের নাম বলুন।

৫| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:১৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


বেশীর ভাগ শিশুর জন্ম হয় মানুষের ভালোবাসার চিহ্ন হয়ে।

১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৩২

রাজীব নুর বলেছেন: তা তো অবশ্যই।
কিন্তু সেই শিশু তো একসময় বড় হয়।
এখনকার চোর ডাকাত, ধর্ষনকারী আর দূর্নীতিবাজ একসময় কিন্তু শিশুই ছিল।

৬| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:২৭

শায়মা বলেছেন: ভাইয়া শিরোনামের সাথে বাবুটার ছবিটা কেমন কেমন যেন কষ্ট লাগছে।

১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৪১

রাজীব নুর বলেছেন: বোন ছোট একটা গল্প বলি।
প্যারিস দেশের এক শিল্পী একটা ছবি আঁকবেন। একটা ফেরেশতার ছবি। কিন্তু ফেরেশতা তো কেউ দেখেনি। সেই শিল্পী খুব জিদ ধরেছেন ফেরেশতার ছবি আঁকবেই। সে সারা দেশ বিদেশ ঘুরে খুঁজে বেড়াচ্ছে ফেরেশতা। কিন্তু ফেরেশতা তো আর পায় না। একদিন দেখে ছোট এক শিশু। দারুন সুন্দর করে হামাগুড়ি দিচ্ছে। শিল্পী বললেন, আরে এই শিশুটাই তো ফেরেশতা। শিল্পী শিশুর ছবি আকলেন। ক্যাপশন দিলেন ফেরেশতা।

এই শিল্পীই বহু বছর পড়ে একদিন ঠিক করলেন একটা শয়তানের ছবি আঁকবেন। সে সারা দেশ বিদে ঘুরে খুঁজে বেড়াতে লাগলেন শয়তান। কিন্তু শয়তান কোথাও খুঁজে পেলেন না। হঠাত একদিন তার একজন মানূষ চোখে পড়লো। মানূষটা দেখতে শয়তানের মতোন। মুখের চামড়া কুচকে গেছে। সারা মুখ ভর্তি ঘা। মুখ থেকে অনবরত লালা পড়ছে। শিল্পী এই লোকের ছবি আঁকলেন। ক্যাপশন দিলেন শয়তান।

অনেকদিন পর খোজ নিয়ে জানা গেল, বহু বছর আগে এই শিল্পী ফেরেশতার মনে করে যে শিশুর ছবি এঁকেছিলেন, এবং বহু বছর পর শয়তান মনে করে যে ছবিটি আকলেন। দু'জন একই ব্যাক্তি।

৭| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:৪৮

ইসিয়াক বলেছেন: হুম !!!!

১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৪১

রাজীব নুর বলেছেন: !

৮| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:৫২

ইসিয়াক বলেছেন: বাচ্চাটা কিন্তু খুব মিষ্টি দেখতে। ও নিশ্চয় অনেক বড় এবং ভালো মানুষ হবে।
ধন্যবাদ ।

১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৪৭

রাজীব নুর বলেছেন: তাই যেন হয়।

৯| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:২৮

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: ঠিক।

সন্তানকে বেড়ে ওঠার জন্য ভালো পরিবেশ দিতে অপারগ হলে সন্তানকে পৃথিবীতে নিয়ে আসার পূর্বে ভাবা দরকার। বিশেষ করে যারা দুইএর অধিক সন্তান নেন।

১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৪৯

রাজীব নুর বলেছেন: ঠিক বলেছেন।

১০| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:১৯

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: ভয়ংকর সময়ের ভয়ংকর পোষ্ট। যা বলার ছিলো তা পোষ্টে বলেছেন।

১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৪৯

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ।
বেশির ভাগ মানুষ আবেগ দিয়ে চিন্তা করে। বাস্তব থেকে দূরে থাকে।

১১| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:১২

ইসিয়াক বলেছেন: লেখক বলেছেন: দুনিয়াতে কোনো ভালো মানুষ নেই।
যাদের ভালো মনে করছেন, তারা মূখোশ পড়ে আছে।

একেবারে ঠিক । আমিও মুখোশ পরা। ভালো না থাকলে বলি ভালো আছি । হাসতে ইচ্ছা না করলেও দাত কেলিয়ে হাসি ।

২০ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৩৩

রাজীব নুর বলেছেন: সব মানূষেরই মুখোশ আছে।

১২| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:২৪

মেহরাব হাসান খান বলেছেন: রক্ত হিম করা পোস্ট!
তবে আমার এটা ভাবতেই ভালো লাগে, 'আমি হাটছি, রাস্তার দুপাশে বড় বড় গাছ।আমার হাত ধরে আছে একটা পিচ্চি শিশু।তার সবকিছুতে বিস্ময়, বারবার এটাওটা প্রশ্ন করছে আর আমি উত্তর দিচ্ছি।'

কথা দিচ্ছি মানুষ বানানোর আপ্রাণ চেষ্টা করবো, এখন বলুন, আমাকে আপনি ছাড়পত্র দিবেন?

২০ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৩৪

রাজীব নুর বলেছেন: ছাড়পত্র দেওয়া হলো।

১৩| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:৩৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: রাজীব নুর,





যে যেভাবেই শোধরানোর পথটি বাৎলে দিক না কেন দেশের সামগ্রিক অবস্থা যা দাঁড়িয়েছে তাতে,আজকের শিশু আগামী দিনের ধর্ষক, দূর্নীতিবাজ, চোর-ছিনতাইকারী, চাঁদাবাজ, দালাল এর থেকে ভালো কিছু তাদের কপালে আর লেখা নেই!

সুন্দর লিখেছেন, চিন্তা করে দেখার মতো।

২০ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৩৬

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ।
আসলে আবেগটাকে দূরে সরিয়ে রেখে যে কেউ ভাবলেই বিষয়টি অনুধাবন করতে পারবে।

১৪| ১৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:৪২

শায়মা বলেছেন: হায় হায় কি বলো !!!!!!

ফেরেসতাটাই শয়তান হয়ে গেলো!


কিন্তু শয়তান হবার আগে তো ফেরেসতা ছিলো।

ভাইয়া ফেরেসতার সাথে সাথে শয়তানটার ছবিও দাও।

২০ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৩৭

রাজীব নুর বলেছেন: হা হা হা-----

১৫| ২০ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১২:২৭

কূকরা বলেছেন: চেহারা খারাপ হইলেই শয়তান হয় না রে বেকুব, চরিত্র খারাপ হইলে শয়তান হয়।

২০ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৪০

রাজীব নুর বলেছেন: মুখের ভাষা খারাপ হলেও সে শয়তান।

১৬| ২০ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১:১৩

নাসির ইয়ামান বলেছেন: আপনি হতাশার জীবন যাপন করছেন,"অভিশপ্ত বিতাড়িত"রা এভাবে মানুষকে চরম নিরাশ করে মৃত্যু অবধি ঠেলে দেয়।

সন্তান জন্ম,ভবিষ্যৎ প্রজন্ম,চলমান সংকট ইত্যকার বিষয় নিয়ে আপনার এই লেখা মানবমস্তিষ্ক বহির্ভূত।

আপনার যে কমন ডায়ালগ 'সহজ সরল সুন্দর' এই পোস্টের পর তা এর নেতিবাচকতাকেই প্রমাণিত করছে।
»আল্লাহ পবিত্র কোরানে তাঁর রহমত থেকে হতাশ হতে নিষেধ করেছেন!

২০ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৪১

রাজীব নুর বলেছেন: ভালো মন্তব্য করেছেন।

২০ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৪১

রাজীব নুর বলেছেন: ভালো মন্তব্য করেছেন।

১৭| ২০ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ২:৪৬

মস্টার মাইন্ড বলেছেন: প্রেম কে খারাপ চোখে দেখছেন? মানতে পারলাম না...।

২০ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৪২

রাজীব নুর বলেছেন: সঠিক প্রেম আজকের দুনিয়ায় নাই।
আজকের প্রেমের আসল উদ্দেশ্য বিছানায় নেওয়া পর্যন্ত।

১৮| ২০ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:৩৪

ইসিয়াক বলেছেন: লেখক বলেছেন: সঠিক প্রেম আজকের দুনিয়ায় নাই।
আজকের প্রেমের আসল উদ্দেশ্য বিছানায় নেওয়া পর্যন্ত।
সহমত ।

২০ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:০৬

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ।

১৯| ২০ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১১:৪৭

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: এর জন্য আপনি আমি আমরাই দায়ী। সমাজ ও দেশটাকে এ পর্যন্ত টেনে এনেছি আমরাই।

অতএব এবার ফল ভোগ করতে হবে।

সুশাসন, নৈতিকতা, ধর্ম, শিক্ষা ছাড়া ভাল কিছু আশা করা যায় না।

২০ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:০৮

রাজীব নুর বলেছেন: না, আমি আপনি দায়ী না। দায়ী দেশের কর্তা ব্যাক্তিরা।

২০| ২০ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:০৭

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
পৃথিবীতে মানুষ কিন্তু সৃষ্টির সেরা প্রাণী নয়। মানুষ হচ্ছে খুব খারাপ একটা প্রাণী।

২০ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:২৪

রাজীব নুর বলেছেন: না না। মানুষ মহান।

২১| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:২২

শাহরিয়ার রাইন বলেছেন: লেখক বলেছেন: এই কথাটা পুরাই ভুল।
এগুলো একসময় মনের শান্তির জন্য ময়মুরুব্বিরা বলে থাকেন।
ভালো মানূষ নাই। তিন জন ভালো মানূষের নাম বলুন

আপনার এই প্রতিউত্তরে করা প্রশ্নের উত্তরটি হবে, একজন আপনি যেহেতু আপনি নিজেকে ভালো মানুষ হিসেবে দাবী করেন, অন্যজন আমি, আমিও দাবী করি, বাকিজন হলেন অন্য যে কেউ, সেও তাই দাবী করে ।
কারো দ্বিমত থাকলে সেটা তার সমস্যা । ;)

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:২৭

রাজীব নুর বলেছেন: উফ আল্লাহ!!!!

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.