নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ছিলাম বইয়ের পোকা, এখন ইন্টারনেটের ।

সাদা মনের মানুষ

বিশ্ব জোড়া পাঠশালা মোর সবার আমি ছাত্র --নানা ভাবে নতুন জিনিস শিখছি দিবা রাত্র 'মুর্খরা সব শোন, মানুষ এনেছে গ্রন্থ, গ্রন্থ আনেনি মানুষ কোন'

সাদা মনের মানুষ › বিস্তারিত পোস্টঃ

সোনাদিয়া দ্বীপ ভ্রমণ - ১

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:০৯


“সোনাদিয়া” কক্সবাজার জেলার মহেশখালি উপজেলার একটি সুন্দর দ্বীপ। এই দ্বীপটির আয়তন প্রায় ৭ বর্গ কিমি.। কক্সবাজার জেলা সদর থেকে প্রায় ১৫ কিমি উত্তর-পশ্চিমে এবং মহেশখালি দ্বীপের দক্ষিনে সোনাদিয়া দ্বীপটি অবস্থিত। একটি খাল দ্বারা এটি মহেশখালি দ্বীপ থেকে বিছিন্ন হয়েছে। তিন দিকে সমুদ্র সৈকত, সাগর লতায় ঢাকা বালিয়াড়ি, কেয়া- নিশিন্দার ঝোপ, ছোট-বড় খাল বিশিষ্ট প্যারাবন এবং বিচিত্র প্রজাতির জলাচর পাখি দ্বীপটিকে করেছে অনন্য বৈশিষ্ট্যমন্ডিত। এটি জীববৈচিত্রের দ্বীপ নামেও পরিচিতি এবং এ দ্বীপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য পিপাসুদের জন্য অন্যতম পর্যটন স্থান। তবে সরকার ইদানিং সোনাদিয়ায় গভীর সমুদ্র বন্দর সহ বড় বড় প্রকল্পের পরিকল্পনা করছে, যা এখানকার জীব বৈচিত্রের জন্য হুমকী স্বরূপ।

সোনাদিয়া দ্বীপে পর্যটকদের থাকার জন্য কোনো আবাসিক হোটেল নেই। খাওয়ারও তেমন কোনো নির্দিষ্ট ব্যবস্থা নেই। স্থানীয় লোকজনকে টাকা দিলে তারা খাওয়ার ব্যবস্থা করে থাকে। আর সোনাদিয়া দ্বীপে রাত্রি যাপনের ক্ষেত্রেও ভরসা সেই স্থানীয় বাসিন্দারাই। তবে তাবু করেও ওখানে থাকা যায়, সেক্ষেত্রে স্থানীয়দের পাহাড়ার ব্যবস্থাটা অবশ্যই বাঞ্চনীয়।

সোনাদিয়া দ্বীপের মানব বসতির ইতিহাস মাত্র ১০০-১২৫ বছরের। দ্বীপটি ২টি পাড়ায় বিভক্ত। পূর্ব ও পশ্চিম পাড়া। দ্বীপের মোট জনবসতি প্রায় ২০০০ জন। পূর্ব পাড়ায় তুলনামূলকভাবে জনবসতি বেশী। মাছ ধরা এবং মাছ শুকানো, চিংড়ি ও মাছের পোনা আহরন দ্বীপের মানুষের প্রধান পেশা। কিছু মানুষ ইঞ্জিন চালিত নৌকা ও কাঠের সাধারন নৌকা এবং উহা চালানোর সহকারী হিসাবে কাজ করেও জীবিকা নির্বাহ করে। চারিদিকে নোনা পানি বেষ্টিত হওয়ায় এই দ্বীপে তেমন কোন খাদ্য শষ্য উৎপাদন করা সম্ভব হয় না। দৈনন্দিন প্রয়োজনাদি জিনিস পত্র সব মহেশখালি থেকে ক্রয় করে আনতে হয়।

এই দ্বীপে ২টি মসজিদ, ১টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১টি সাইক্লোন সেন্টার, আনুমানিক ১২টি গভীর নলকূপ রয়েছে।


(২) কক্সবাজার কস্তুরী ঘাটে ট্রলারের জন্য আমাদের অপেক্ষা।


(৩) ঘাটে বসে থাকা মাছ ধরার ট্রলারগুলো।


(৪) কস্তুরী ঘাট থেকে সোনাদিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে দিয়াছে আমাদের রিজার্ভ ট্রলার। ভেঙ্গে সোনাদিয়ায় যেতে হলে প্রথমে যেতে হবে মহেশখালী। মহেশখালী যাওয়ার স্পীডবোট বা ট্রলার এখান থেকে নিয়মিত পাওয়া যায়। মহেশখালী ঘাটে নেমে রিক্সা নিয়ে চলে যাবেন গোরকঘাটা বাজারে, ভাড়া ২০ টাকা। এরপর আপনাকে যেতে হবে ঘটিভাঙ্গায়, মহেশখালীর গোরকঘাটা থেকে ঘটিভাঙার দূরত্ব ২৪ কিলোমিটার। ৩-৪ জন হলে একটা সিএনজি নিয়ে যেতে পারেন ঘটিভাঙ্গা, ভাড়া ১৫০-১৭০ টাকা। সেখান থেকে আবার ইঞ্জিনচালিত নৌকায় করে সোনাদিয়া দ্বীপে যেতে হয়। এখন অবশ্য একটা সেতুও আছে মহেশখালী থেকে সোনাদিয়ায় যাওয়ার জন্য।


(৫) পানিতে অলস বসে আছে একটা গাঙচিল।


(৬) সাগর পাড়ে ট্রলার মেরামত বা তৈরীর কারখানা।


(৭/৮) আমাদের স্মৃতি ধরে রাখার চেষ্টা।



(৯/১০) সাগরে কর্ম ব্যস্ত জেলে নৌকাগুলো।



(১১) মহেশখালীর বাঁকে। দূরে দেখা যাচ্ছে বাংলাদেশের এক মাত্র পাহাড়ি দ্বীপ মহেশখালিকে।


(১২/১৩) এক সময় সাগরের প্রচন্ড ঢেউয়ের মধ্যে পড়ি আমরা।



(১৪) সাগরের ঢেউয়ের তোড়ে আমাদের ট্রলার যখন মোচার খোলের মতো দুলছিল তখন আমরা অনেকেই ক্যামেরাকে এভাবে পলিথিনে বন্ধি করেছিলাম । ভয়টা অবশ্য অমূলক ছিল না এই জন্য যে, ভ্রমন বাংলাদেশের ২০০৯ সালের সোনাদিয়া ভ্রমনে ট্রলার ডুবি হয়ে সবার ল্যপটপ, ক্যামেরা এবং মোবাইল ফোন নষ্ট হয়ে গিয়েছিল ।


(১৫) চমৎকার আবহাওয়ায় এক সময় আমরা প্রবেশ করলাম বাকখালি নদীতে।


(১৬) প্যারাবনের উপর দেয়ে দেখা যাচ্ছে বাকখালি নদীর উপরের ব্রীজ, এই ব্রীজ সোনাদিয়া আর মহেশখালির সেতুবন্ধন।


(১৭) এক সময় আমরা নদীর আরো ভেতরে প্রবেশ করলাম।


(১৮) ঐতো দেখা যায় সোনাদিয়া দ্বীপ।


(১৯) আমাদের বড় ট্রলার স্বল্প পানিযুক্ত তীরে ভিরতে পারবে না, তাই ছোট নৌকার ব্যবস্থা.....


(২০) এক সময় আমাদের টিম পা রাখল সোনাদিয়ার মাটিতে।

চলবে..........

মন্তব্য ৬০ টি রেটিং +৯/-০

মন্তব্য (৬০) মন্তব্য লিখুন

১| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:১৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: বাংলাদেশে দেখার মতো অনেক কিছুই আছে, কিন্তু আমাদের দেখার মতো চোখ নাই।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:২২

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: চোখে চশমা লাগিয়ে রাখলে দেখবেন কেম্নে? :D

২| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:২০

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: মহেশখালি বাংলাদেশের একমাত্র পাহাড়ি দ্বীপ? আর কোন পাহাড়ি দ্বীপ নাই বঙ্গোপসাগরে?

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:২৪

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: থাকলেই আপনার কাছে বলতে হবে এমন তো কোন কথা নাই =p~

তয় কানে কানে কই দ্বীপ আছে আরো বেশ কিছু, কিন্তু কোন দ্বীপেই পাহাড় নাই :-P

৩| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:২২

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: বাহ! দারুন রোমাঞ্চকর ভ্রমন

নদী সাগর, জল মন কেমন করে দেয় আপনাতেই........

গাঙচিলটার মতো ভাসতে ইচ্ছে করে আপন মনে :)

++++

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:২৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: হেনা ভাই তো নিয়মিতই ভাসে, ওনার কাছ থেকে সবক নিতে পারেন বিদ্রোহী মাশকুর ভাই B-)

৪| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:২৪

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ১২/১৩ নম্বর ছবি। ঝড় বৃষ্টি ছাড়া সমুদ্রে এত ঢেউ কেন?

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:২৮

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আবার গেলে সমুদ্রকে জিগাইয়া আপ্নারে জানামুনে ;)

৫| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:২৮

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: আপনাদের প্রায় প্রতিটি ভ্রমনে খাওয়া দাওয়ার সমস্যা হয়। এবার থেকে চিঁড়া মুড়ি আর গুড়ের টিন সাথে নিবেন।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৩০

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: সোনাদিয়ায় হয়নি, পরের পর্বগুলোতে চোখ রাখলেই দেখতে পাবেন। আর খেতে চাইলে এখনি ট্রলারে চেপে বসেন :-B

৬| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৩৩

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: সোনাদিয়া দ্বীপে পানির ধারে বইয়া লালনগীতি গাইতে মুঞ্চায়। কিন্তু এ্যারেস্ট হইয়া যামু না তো?

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৩৫

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ওটা তো পরদেশ না এ্যারেষ্ট করত কেরে?

৭| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৩৬

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: আমি বাউল গানের ভক্ত। র‍্যাব পুলিশের ভয়ে গাইতে সাহস পাই না।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৪১

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আমি গান শুনতে ভালোবাসি, এমন কি এখনো শুনছি আর ব্লগিং করছি।

৮| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৩৯

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ওটা তো পরদেশ না এ্যারেষ্ট করত কেরে?

পরদেশ না, সেটা তো জানি। কিন্তু কয়েকদিন আগে র‍্যাব এক বাউলরে এ্যারেস্ট করছে জানেন না?

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৪২

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আপনি তো বাউল না, আপনি হইলেন গিয়া আউল জাউল B-)

৯| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৪০

রাজীব নুর বলেছেন: আপনার পোষ্ট আমাকে আনন্দ দেয়।
সোনাদিয়া দ্বীপে কি পরিমান লোক বাস করে? স্কুল মসজিদ লাইব্রেরী আছে? তাদের আয়ের উতস কি মাছ ধরা আর পর্যটক?

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৪৪

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: লাইব্রেরী নাই, দুই পাড়ায় দুইটি মসজিদ আছে, আর প্রাইমারি স্কুলে মাষ্টার নাই। পর্যটকদের কাছ থেকে ওরা কোন আয় করে বলে মনে হলো না। খালি মাছ ধরাই ওদের প্রধান আয়ের উৎস।

১০| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৫৮

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
আবার মনে পড়লো
আপনার সেই বিখ্যাত
ক্যামেরার কারুকার্য।
কেমন আছেন ভাই।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:০৯

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আপনাদের দোয়ায় অনেক অনেক ভালো আছি নূরু ভাই, আপনি কেমন আছেন?

১১| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:০৪

নেওয়াজ আলি বলেছেন: দারুণ এক অনুভুতি ,বেশ লাগলো ।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:১২

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: শুভেচ্ছা জানবেন ভাই

১২| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:০৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: চমৎকার !

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:১৩

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ আপু, কেমন আছেন আপনি?

১৩| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:২৮

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: আহা!ছবি দেখেই কি নির্মল প্রশান্তি। ভীষণ ভালো লাগলো পোস্টটি। ++
শুভকামনা প্রিয় সাদা মনের ভাইকে।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ৭:৪৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: শুভেচ্ছা জানবেন চৌধুরী ভাই

১৪| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১০:০২

নজসু বলেছেন:



সুন্দরম।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ৭:৫৬

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: শুভ সকাল সুজন ভাই।

১৫| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১০:০৩

নজসু বলেছেন:



৭/৮ এ কোন সিনেমার নায়কের ছবি দিয়েছেন? :-B

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:০২

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: একজনকে কিন্তু আপনার লাহান দেখা যাইতাছে :)

১৬| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১০:১০

শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া) বলেছেন: ছবি ও বর্ণনা অসাধারণ এবং জীবন্ত মনে হয়েছে। তবে আপনার বেশিরভাগ ছবি সোনাদিয়ার প্রবেশ মুখের বা তৎসংলগ্ন। দ্বীপের ভিতরের অবস্থান ততটা পরিস্কার নয়। ওয়েল। আরেক পর্বের আশাকরি।

বাই দ্যা ওয়ে--সোনাদিয়া দ্বীপে ডাকাতের উপদ্রব সম্পর্কে আপনার কোন আইডিয়া আছে?

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:১৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ডাকাতদের নিয়া কোন আইডিয়া নাই ভাই, আপনার আছে কি? আর হ্যাঁ এই পর্বে তো শুধু মাত্র সোনাদিয়ায় প্রবেশের ছবিগুলোই দিয়েছি। পরের পর্বগুলোতে ভেতরের ছবি পাবেন ভাই, ধন্যবাদ।

১৭| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১১:২৯

মা.হাসান বলেছেন: মহেশখালী পরযন্ত গিছিলাম, ১৯৯৯এ। ডরে এর বেশি যাই নাই। মহেশখালী-সোনাদিয়া ব্রিজ হইছে শুনে ভালো লাগলো। আপনি সড়ক পথে না যেয়ে নৌকায় গেলেন কেন? ইতালী যাবার প্রাকটিস করতেছিলেন নাকি? ২০০৯ সালে শুধু জিনিস পত্র নষ্ট হইছে, এর চেয়ে বড় ক্ষতির কথা লেখেন নাই শুনে ভালো লাগলো।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:১৯

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ইতালি যাওয়ার ইচ্ছে আছে, তবে সেটা অবৈধ অভিবাসি হয়ে নয় হাসান ভাই।

১৮| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১১:৩৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


কি কি মাছ দেখক্সলেন বাজারে?

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:২০

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ওখানে তো আমি কোন বাজারই দেখলাম না, মাছ দেখমু কই?

১৯| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১১:৪৯

পগলা জগাই বলেছেন: ৫, ৯, ১১, ১৮ ও ১৯ বেশী ভালো লেগেছে।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:২৩

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, ভালো থাকুন, সব সময়।

২০| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ ভোর ৫:২৯

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:
ভাই খুবই সুন্দর ছবি দিয়েছেন।
বঙ্গোপসাগরের এক ফোঁটা দ্বীপটিতে দুই হাজারের মতো মানুষের বসবাস। আরও হাজারখানেক মানুষের সেখানে নিত্য যাতায়াত, শুনে ভাল লাগল।বছর ত্রিশেক আগে একবার গিয়েছিলাম , তখন মানুষজন এত ছিলনা ।

আপনি কি সেখানে ‘ঘুরিবার লাই, নকি হুনিমাছ (শুঁটকি) কিনিবার লাই (এসেছ)? নকি পর্যটন হোটেল করিবার লাই , কিল্লাই হ্যাডে যাইবা ভাই?’তবে ‘যা পার মন ভরি দিয়া (দ্বীপ) দেকি আইয়্যো!’ ‘আইতে (আগামী) বছর এ দিয়াত আইর ন যাইবার ফারিবা।’ ‘টিঁয়াপয়সা থাকিলে হিবা অইন্য হতা (কথা)!’

শুনেছি সরকার নাকি ১ হাজার ১ টাকা সেলামিতে দ্বীপটি বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষকে (বেজা) দীর্ঘ মেয়াদে বরাদ্দ দিয়েছে। দামি পর্যটন এলাকা গড়ে তোলার শর্তে গত বছর বেজা এই দ্বীপের পুরোটা অধিগ্রহণ করেছে। বেজা নাকি দ্বীপে ৫০০টি করে হরিণ ও বানরও ছাড়বে। এভাবে বাইরের প্রাণী আনলে দ্বীপে পরিবেশ-প্রতিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হওয়ার ঝুঁকি থাকবে কিনা একটু ভাল করে দেখে এসে পরের পোষ্টে লিখলে অনেক কিছু জানতে পারব। প্রকৃতির দান এই মুল্যবান দ্বীপটিকে পর্যটনের বেড়াজালে না জড়িয়ে সরকার একে প্রকৃতির খেয়াল খুশীর উপর রাখলে আখেরে ভাল হত বলেই মনে
হয় ।

এখনতো সেখানে ‘কালো’ চিংড়ির মৌসুম। দ্বীপের ঘেরগুলো থেকে আসা বাটা, ভেটকি (কোরাল), বাগদা আর কাঁকড়া প্রভৃতির ( কাঁচা মাছ ও শুটকীর ) স্থানীয় দাম সম্পর্কে কিছু তথ্য পরের পোষ্টে দিলে জানা যাবে সেখানকার দাম আর কক্সবাজার , চাটগা ও ঢাকার বাজারের সাথে পার্থক্য কত, জানা যাবে স্থানীয় জেলেরা কি পরিমান ঠকছে। শহরের মানুষ কত বেশীদাম দিয়ে এগুলি কিনে তা স্থানীয়দেরকে জানাতে পারলে তারা মনে হয় বাইরের ক্রেতাদের/পর্যটকদের কাছে তাদের কষ্টার্জিত পণ্যের উচিত দাম হাকতে পারত। তাদের জীবন জিবিকার উন্নতি হত । ট্রলার মালিকদের কাছে জীবন বাজী রেখে সাগরে গিয়ে মাছ ধরার জন্য শ্রমবেচা জেলেরা ভাল মজুরী দাবী করতে পারত। কামনা করি পরের পর্বটি হোক সোনাদিয়ার জেলেদের জীবন গাথা

পোষ্টটি প্রিয়তে গেল ।

অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল ।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:৩৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: নতুন কোন তথ্য জানা এখন তো আর সম্ভব নয় ভাই। আমার এই ভ্রমণ ছিল ২০১১ সালে।

২১| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১০:২৪

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: বরাবরের মতোই চমৎকার।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:৩৮

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: সাধুবাদ জানবেন ভাই

২২| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১০:৪৮

হাবিব স্যার বলেছেন: মাথায় মেয়েদের টুপি, কপালে চশমা, হাতে পলিথিন বন্ধি ক্যামেরাওয়ার ছবি দেখি আপনারই মতো।।। আপনার জমজ ভাই নাকি? !:#P

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৪:৪৪

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আপনি ঠিকই ধরেছেন স্যার ওনি আমার জমজ। কারণ আমি তো বরাবরই থাকি ক্যামেরার পেছনে :D

২৩| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:১৫

নতুন বলেছেন: আপনার সাথে আমারও ভ্রমন হয়ে গেলো। পরের পবের অপেক্ষায় রইলাম।

যাতায়েত ব্যবস্থা ভালো না হলে পয`টনে ভালো করা সম্ভবনা।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:০১

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, অেক দিন পর আপনাকে আমার পোষ্টে পেলাম বলে মনে হচ্ছে।

২৪| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:৪৭

প্রামানিক বলেছেন: আপনার পুষ্ট দেইখা লগইন করলাম, আছেন কিরাম?

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৫৯

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: খুবই ভালো আছি ভাই, আপনি আছেন কিমুন?

২৫| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:২৯

রাজীব নুর বলেছেন: আমার মন্তব্যের উত্তর দেওয়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

১৮ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ৮:০৯

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আপাকেও ধন্যবাদ ভাই

২৬| ১৮ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:২৬

নিয়াজ সুমন বলেছেন: আপনার ব্লগ পড়ে খুব যাওয়ার ইচ্ছা হচ্ছে

১৮ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:১৯

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ভ্রমণ পোষ্ট পড়লের আমারো ইচ্ছে করে বাড়ি ছেড়ে বেড়িয়ে পড়তে সুমন ভাই........শুভ রাত্রী

২৭| ২০ শে জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:০২

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: চমৎকার সব ছবি। অনেকগুলো পরিচিত মুখ দেখা গেল ছবিতে। আমার মাস্ট গো লিস্টে থাকা মহেশখালী, সোনাদিয়া, কুতুবদিয়া এখনো যাওয়া হয় নাই। দেখা যাক, আগামী শীতে যাওয়া যায় কি না।

ভাল থাকুন প্রিয় সাদা মনের মানুষ। শুভকামনা সতত।

২০ শে জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১৪

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: এই শীতেই প্রোগ্রাম করেন আমিও যামু

২৮| ২০ শে জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:০৭

মোহাম্মাদ আব্দুলহাক বলেছেন: দেশের জন্য মনে টানে, সমস্যা হলো জানের জন্য মায়া বেশি।

২০ শে জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:২০

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: দেশে আসলে জানের উপর কি খুবই ঝুকি হয়ে পড়বে?

২৯| ২১ শে জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১২:৫১

মোহাম্মাদ আব্দুলহাক বলেছেন: সম্পদ

২৩ শে জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৪২

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: কার?

৩০| ২৩ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৩৮

এ.টি.এম.মোস্তফা কামাল বলেছেন: মহেশখালীর আদিনাথের মন্দির কি দেখেছেন ?

২৩ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৫৪

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: হুম, দেখেছি ভাই, ধন্যবাদ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.