নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ছিলাম বইয়ের পোকা, এখন ইন্টারনেটের ।

সাদা মনের মানুষ

বিশ্ব জোড়া পাঠশালা মোর সবার আমি ছাত্র --নানা ভাবে নতুন জিনিস শিখছি দিবা রাত্র 'মুর্খরা সব শোন, মানুষ এনেছে গ্রন্থ, গ্রন্থ আনেনি মানুষ কোন'

সাদা মনের মানুষ › বিস্তারিত পোস্টঃ

যাদুর দেশ কামরূপ কামাখ্যা

২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ৮:০৩


আসামের রাজধানী গৌহাটি বা গুয়াহাটি থেকে ট্রেন ছাড়বে রাত সাড়ে এগারটায়, আমাদের গন্তব্য ডিমাপুর হয়ে নাগাল্যান্ড। হাতে আছে আড়াই ঘন্টা সময়। আসাম এবং নাগাল্যান্ড ভ্রমণ শুরু করার পর থেকেই আমার মনে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছিল, যদি সুযোগ হয় কামরূপ কামাখ্যা দেখার। আমাদের ভ্রমণ লিডার মনা ভাইকে আগেই বলে রেখেছিলাম একটু সময় বের করে যেন আমাদেরকে কামরূপ কামাখ্যা থেকে ঘুরিয়ে আনে। ছয় জনের টিমের তিনজনই আড়াই ঘন্টা সময় হাতে নিয়ে কামরূপ কামাখ্যায় দৌড়াতে রাজী হয়নি। কিন্তু আমি যেন হাতে আকাশের চাঁদ পেয়ে গেলাম।

সেই ছোট বেলা থেকেই হাটে বাজারে ক্যানভাসারদের নানা রকম যাদু দেখে আসছি, কখনো মানুষের মাথা কাটে তো কখনো ছেড়া কাগজ দিয়ে চকচকে নতুন টাকা, বিস্কুট, চকলেট বানায়। আর এমন সব যাদুই ওনারা শিখে এসেছে রহস্যে ভরা ল্যাংটার দেশ কামরূপ কামাখ্যা থেকে। জাদু টোনার দেশ কামরূপ কামাখ্যা নারী শাসিত একটা দূর্গম পাহাড়ি অঞ্চল। ওখানে গেলে কেউ আর ফিরে আসতে পারেনা, নারী রাজ্যের নারীরা কাউকে জীবন সঙ্গী, আবার কাউকে পাথর বা ভেড়া বানিয়ে এখানেই রেখে দেয়। ভূত-পেত্নী আর ডাকিনী-যোগিনীর দেশ থেকে কিন্তু আমাদের তাবিজ বিক্রি করা ক্যানভাসাররা ঠিকই ফিরে এসে আমাদের চকলেট খাওয়াচ্ছেন।

উবারের ট্যাক্সি নিয়ে ছুটে চললাম গুয়াহাটি শহরের পশ্চিমাংশে নীলাচল পর্বতে অবস্থিত আমার সেই কাঙ্খিত মন্দিরে। কামরূপ মূলত গৌহাটির একটি জেলার নাম, আর কামাখ্যা হলো সেই জেলায় অবস্থিত একটা মন্দির মাত্র। গৌহাটি স্টেশন থেকে দুরত্ব কতোটা তা ঠিক বলতে পারবো না, তবে পাহাড়ের ঘোরানো পেচানো পথ পারি দিয়ে ২০/২৫ মিনিটেই পৌছে গেলাম মন্দিরের পাদদেশে। গাড়ির রাস্তা শেষ, বাকী পথটা হেটেই উঠতে হবে। উবারের গাড়ি যেখানে নামিয়ে দিলো সেখান থেকেই শুরু হলো নানা নামের মন্দির। এই মন্দির গুলিতে দশ মহাবিদ্যা অর্থাৎ কালী, তারা, ষোড়শী, ভুবনেশ্বরী, ভৈরবী, ধূমাবতী, ছিন্নমস্তা, বগলামুখী, মাতঙ্গী ও দেবী কমলা – এই দশ দেবীর মন্দিরও রয়েছে।

রাতে ক্যামেরায় ভালো ছবি না আসলেও ভালো ছবি তোলার চেষ্টার কমতি ছিলোনা আমার। কারণ এটা আমার স্বপ্ন গন্তব্য। ক্যামেরায় ছবি তোলার ফাঁকে ফাঁকে মোবাইলেও কিছু ছবি ধারণ করেছিলাম। তখন কি আর জানতাম ক্যামেরায় তোলা আমার সব ছবি হারিয়ে মোবাইলে তোলা ছবিগুলোই স্থায়ী হবে। আমার পিসির হার্সডিস্ক ক্রাস করায় এবং বিগত তিন বছরে তোলা কোন ছবির ব্যাকআপ না রাখায় আজ সবেধন নীলমনি মোবাইলে তোলা ছবি নিয়েই আমার আজকের পোষ্ট। আসুন মোবাইলে তোলা কিছু ছবিতে দেখে নেই আমার সেই স্বপ্নের নারী রাজ্য কামরূপ কামাখ্যা।


(২) মূল কামাখ্যা মন্দিরের প্রবেশ পথ এটা।


(৩) মূল প্রবেশ পথের সিড়ির নিচেই অঙ্কিত রয়েছে মন্দিরের কিছু ইতিহাস।


(৪/৫) মন্দির চত্ত্বরের ভেতর দিকে গিয়ে দুই পাশ থেকে তোলা দুটি ছবি। মূলত এটাই কামাখ্যা মন্দিরের পুরো ছবি।



(৬) হাতির উপর বসে আছে একটি মানুষের প্রতিকৃতি, তাতে প্রচুর সিঁদুরে মাখামাখি। জানিনা এটা কার মুর্তি।


(৭) মন্দির থেকে কিছুটা পথ নেমে নীলাচল পর্বতের বাঁকে একটা ভিউ পয়েন্ট আছে। সেখানে দাঁড়িয়ে তোলা রাতের গৌহাটি শহর।


(৮/৯) কামরূপ কামাখ্যা দেখে গৌহাটি স্টেশনে আমরা সময় মতোই ফিরতে পেরেছি, আমার ভ্রমণ সঙ্গী সহ আলোকিত স্টেশনের সামনে দাঁড়িয়ে তোলা দুটি ছবি।

মন্তব্য ২৮ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (২৮) মন্তব্য লিখুন

১| ২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ৮:১২

শেরজা তপন বলেছেন: বাহ আপনার চোখে আমিও দেখে আসলাম সেই বিখ্যাত কামরূপ কামাখ্যা!!!

ছবিগুল না হারালে হয়তো আরো দারুন কিছু পেতাম- আফসোস !!

২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ৮:২৬

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: হুমম, আমার দুই বছরের ভ্রমণের সব ছবি হারিয়ে গেছে, এর মধ্যে প্রথম বারের মতো শ্রীলংকা মালদ্বীপের ছবিগুলোও রয়েছে। যাক পেছনের বিষয় নিয়ে ভেবে এখন আর কি লাভ? ভালো থাকবেন ভাইজান।

২| ২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ৮:২৪

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: অনেক দিন পর আপনার পোস্ট দেখে ভাল লাগলো।

২৭ শে আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:০৮

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ ভাইজান, সময়াভাব প্রকট এখন।

৩| ২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ৮:৩১

নেয়ামুল নাহিদ বলেছেন: ভালো লেগেছে, আরও ছবি থাকলে বেশি ভালো লাগতো।

২৭ শে আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:০৯

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আমার মোবাইলে দেওয়ার মতো আর ছবি পেলাম না ভাই, দুঃখিত।

৪| ২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ৮:৩৩

একলব্য২১ বলেছেন: রাতের কামাখ্যা মন্দিরের ছবি তো বেশ সুন্দর। আলোকসজ্জার ব্যবস্থা আছে। রাত কটা পর্যন্ত মন্দির খোলা থাকে। ছবিতে তো তেমন দর্শনার্থী দেখা যাচ্ছে না।

২৭ শে আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:০৯

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: দৌড়ের উপর ছিলাম ভাই, বিস্তারিত কিছু বলতে পারবো না, ধন্যবাদ।

৫| ২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ৮:৩৭

আখেনাটেন বলেছেন: কামাখ্যার তাবিজ কবজ ন্যান নাই.....এ জিনিস তো এ দেশে মনে হয় বিরাট মূল্যবান..... :D


ভ্রমণপোস্ট ভালো হয়েছে। তবে ছবি হারিয়ে ফেলাটা সত্যিই কষ্টকর। আরো ব্যাকআপ রাখা দরকার। আমি তো এখন সাথে সাথে ক্লাউডে জমা করি।


২৭ শে আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:১৫

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আগেও এ্যলার্ড ছিলাম এখন আবার হয়েছি, মাঝখানে একটু ডিলেমির কারণেই আমি এমন ক্ষতির সম্মুখ্খীন হয়েছি ভাইজান.......শুভ কামনা সব সময়।

৬| ২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ৮:৩৯

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: মনা ভাই কে বেয়ার গ্রিল স্টাইলের প্যান্টে দারুণ লাগছে! অবশ্য আপনিও cool!

২৭ শে আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:১৬

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: হে হে হে, ভালো বলছেন ভাইজান, আপনার জন্য রইলো অনেক অনেক শুভ কামনা।

৭| ২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ৮:৫১

শেরজা তপন বলেছেন: আপনার সেই হার্ড ডিস্ক খানা আছে না ফেলে দিয়েছেন? ক্রাশ করার পরেওতো অনেক কিছু উদ্ধার করা যায়- একটু চেষতা করে দেখেন? আমিও কিছুদিন আগে এমন কিছু করে সফল হয়েছি( পুরোটা নয় -খানিকটা)

২৭ শে আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:২৭

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আমি চেষ্টা করেছিলাম, ওনাদের বক্তব্য হলো ওনারা যদি সব ফাইল উদ্ধার করতে পারে তাহলে ২৫ হাজার টাকা দিতে হবে, না পারলেও ওনাদের চেষ্টার দাম বাবদ ১০ হাজার টাকা দিতে হবে। বুঝলাম এখানে ঠকার সম্ভাবনা আছে ভালোই, তাই হার্ডডিস্ক খানা যত্ন করে রেখে দিয়েছি।

৮| ২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ১০:০২

নেওয়াজ আলি বলেছেন: আপনার লেখার কারণে অনেক অচেনা জায়গার ছবি দেখছি।

২৭ শে আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:২৯

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ মহী ভাই, ভালো থাকুন সব সময়।

৯| ২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ১০:২৪

রাজীব নুর বলেছেন: বহু দিন পর আপনার পোস্ট পেলাম।
পুরো আসাম টা আমার ঘুরে দেখার ইচ্ছা আছে। আমার নানা নানী দীর্ঘদিন আসামে ছিলেন। আমার মায়ের জন্ম আসামে।

২৭ শে আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:৩২

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আমারও ইচ্ছে আছে ভাই, সময় সুযোগ পেলে আরো বিস্তারিত ভাবে আসামকে দেখবো জানবো........ভালো থাকবেন রাজীব ভাই।

১০| ২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ১১:১২

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: ছবি হারানো মানে ভ্রমণে শেষে জমানো মজার সমাপ্তি।

২৭ শে আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:৩৩

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: হুমম, ঠিক বলেছেন ভাই, আপনি বিষয়টা আমার থেকে ভালো বুঝবেন।

১১| ২৭ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ১:২২

ওমেরা বলেছেন: আমি যখন ছোট আমার বড় ভাইয়া আমাকে ভয় দেখাইত ——— গলা স্বর মোটা করে চোখমুখ বড় বড় করে বলত আমি কামরূপ কামাখ্যা থেকে যাদু শিখেছি তোমাকে এখনি পুতুল বানিয়ে রেখে দিব যাতে তুমি আর বড় হতে না পারো সারা জীবন তুমি আমার ছোট্ট বোনটি হয়ে থাকবে । আর আমি চিৎকার করে বলতাম না — না — আমি পুতুল হতে চাইনা।

আপনার কামরূপ কামাখ্যা নামটা দেখেই এই কথা গুলো মনে পড়ল - আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ।

২৭ শে আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:৩৫

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: কামাখ্যার গল্প শুনে শুনেই তো তকে দেখার জন্য আমার এতোটা আকুতি। শুভ কামনা জানবেন আপু।

১২| ২৭ শে আগস্ট, ২০২০ বিকাল ৫:৩৪

জুন বলেছেন: খুব ভালো লাগলো আপনার কামরূপ ভ্রমণ সাদা মনের মানুষ। আপনাদের যেতে কোন অসুবিধা হয়নি? কারন ওখানে হিন্দু ছাড়া অন্য ধর্মের লোক এলাউড না। আমাদের ভাড়া করা সিএনজি আলা তার পরিচিতি থাকায় আমাদের পরিচয় গোপন করে নিয়ে গিয়েছিল। আমরা মুল মন্দিরের উপরের চত্বরেই ঘুরেছি, নীচে নামিনি। আপনাদের কোন সমস্যা হয়নি মনে হয়। পুরীর জগন্নাথ মন্দিরের দিরজায়ও বড় করে লেখা "অনলি হিন্দুস আর এলাউড"। দক্ষিনের মাদুরাই এর বিখ্যাত মীনাক্ষী মন্দিরের বিশাল এলাকার একটি ছোট অংশে হিন্দু ছাড়া অন্য ধর্মাবলম্বীদের প্রবেশ নিষেধ। আমরা ওই অংশতে যেতে চেষ্টাও করিনি।
স্যরি আপনার পোস্টের চেয়ে মন্তব্য বড় হলো মনে হয়।

২৭ শে আগস্ট, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩১

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: আপনি কত সালে গিয়াছেন ওখানে আপু? আমাদেরকে তো কেউ কিচ্ছুটি বলেনি। তবে এমনও হতে পারে কোন পূজা পার্বনে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। আমি তো কোথাও এমন কোন লিখাও দেখালাম না। কিজানি কেম্নে কি? শুভ কামনা জানবেন আপু।

১৩| ২৩ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৯:২৫

প্রামানিক বলেছেন: কামাখ্যার কত গল্প যে ছোটকালে শুনছি আর কল্পনা করছি যদি একবার যাইতে পারতাম, ১৯৮৩ সালে কোচবিহার গিয়ে আসাম যাওয়ার জন্য খুব চেষ্টা করেছিলাম কিন্তু সাথীর অভাবে যাইতে পারি নাই।
আপনারে তো আগেই কইছিলাম ছবির ব্যাকাপ রাইখেন হার্ডডিক্স ক্রাশ করতে পারে এখন বোঝেন।

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৪:৫৯

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: বুঝতাছি, এক্কেরে হাড়ে হাড়ে......ব্লগে পোষ্ট দিলে নক কইরেন, আমার উপস্থিতি খুবই কম।

১৪| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:৫৫

শায়মা বলেছেন: ভাইয়া এই দেশে কোন সাহসে গেলে!!! ডাকিনি যোগিনীরা যদি তোমাকে বোতল বন্দি করে রাখতো তো কি হত!!!!!!!

যাইহোক মন্দির দেখে আমি মুগ্ধ! ঠিক যেন রঙ চঙে ছোট্টবেলার রুপকথার বই এর পাতা। অনেক অনেক ভালোলাগা ভাইয়ামনি!!!!!!!!!!

৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৫৯

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধন্যবাদ আপু, আসলে আমি মর্মাহত আমার মূল ছবিগুলো নষ্ট হয়ে যাওয়াতে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.