নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

মানুষ শুধু মানুষের জন্য না, জগতের সকলের জন্য

গরল

জগতের সকল প্রাণী শান্তি লাভ করুক

গরল › বিস্তারিত পোস্টঃ

দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে বিরল রোগ মাঙ্কিপক্স

২১ শে মে, ২০২২ ভোর ৪:৩১

মাঙ্কিপক্স খুবই একটা বিরল রোগ যা সাধারণত স্মলপক্স এর সমগোত্রিয় এবং একই রকম ছোয়াঁচে। এই রোগটি সাধারণত দেখা যায় পশ্চিম ও মধ্য আফ্রিকাতে, তবে সম্প্রতিক বছরগুলোতে ইউকে, স্পেন সহ ঊরোপেও দেখা যাচ্ছে এই রোগ। খুব সম্প্রতি ইউএসএর ম্যাসেচুসেটস এই রোগ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে একজন এবং কানাডাতে পাওয়া গেছে দুই জন রোগি। ব্যাপারটি খুবই আশংকাজনক।


ছবিসুত্র: Click This Link

মাঙ্কিপক্স প্রথম দেখা যায় ১৯৫৮ সালে যা গবেষণার জন্য সংরক্ষিত অঞ্চলে বসবাসরত বানরদের মধ্যে ছড়িয়ে পরে। তাই এর নামকরণ হয় মাঙ্কিপক্স। মানুষে মধ্যে প্রথম সংক্রমণ দেখা যায় ১৯৭০ সালে কঙ্গোতে। এর পর থেকেই সচরাচর সংক্রমন দেখা যেতে থাকে মধ্য ও পশ্চিম আফ্রিকার দেশগুলোতে। ইউএস সরকারের Centers for Disease Control and Prevention (CDC) মাঙ্কিপক্সের ব্যাপারে কিছু সতর্কতা জারি করেছে যা পাবেন নিচের লিংকে।

2022 United States Monkeypox Case

সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত গত বৃহস্পতিবার স্পেনের মাদ্রিদে আক্রান্ত ৭ জনকে সনাক্ত করা হয়েছে এবং আরও ২২ জনের পরীক্ষা চলমান। কানাডার পাবলিক হেল্থ কর্মকর্তার বরাত দিয়ে সিএনএন জানিয়েছে যে কুইবেকের মন্ট্রিলে সন্দেহজনক ১৭ জনের পরীক্ষা নিরিক্ষা চলছে। এর আগে ২০২১ সালে ইউএসএতে নাইজেরিয়া ফেরত দুইজনকে সনাক্ত করেছিল CDC। খবরের লিংক নিচে দেওয়া হল।

What is monkeypox and its signs and symptoms?

সংক্রমণের আলামতসমূহ

এর আলামতসমূহ স্মলপক্সের মতই যেমন জ্বর, মাথা ব্যাথা, শরীর ব্যাথা, দূর্বলতা, যায়গায় যায়গায় ফুলে যাওয়া ইত্যাদি। এর পর শরীরে র‌্যাশ ও দানা দেখা দেওয়া এবং তা বড় হয়ে ফুসকুড়ি বা ফোড়ায় পরিণত হয়। ফুসকুড়ি উঠতে পারে সারা শরীরে, হাত পায়ের তালুতে এমনকি মুখগহ্বরেও। ফোড়াগুলো পানিতে পূর্ণ থাকবে এবং এর চারদিকে লাল দাগ দেখা যেতে পারে।

সংক্রমণ পদ্ধতি

মাঙ্কিপক্স ভাইরাস বডিফ্লুইড দ্বারা সংক্রমিত হয়ে থাকে যেমন কাশ, থুথু, রক্ত, লালা, চোখের পানি ইত্যাদি। কেটে যাওয়া বা ছড়ে যাওয়া চামড়া দিয়ে রক্তের মাধ্যমেও এটা শরীরে প্রবেশ করতে পারে। তবে সাথারণত নাক বা মুখ দিয়েই শরীরে প্রবেশ করে। রোগি সুস্থ হওয়ার পর শুকিয়ে খসে পড়া চামড়ার গুড়ায় ভাইরাস থাকে এবং সেটা নিশ্বাসের সাথে ফুসফুসে চলে গেলেও সংক্রমণের সম্ভবনা থাকে। তবে এটা বায়ু বাহিত ভাইরাস না, তাই রোগির শ্বাস প্রশ্বাস এর মাধ্যমে ছড়ানোর কোন সম্ভবনা নাই।

খবরের লিংকটিতে এই রোগের আলামত কি বা কিভাবে ছড়ায় তার আরও বিস্তারিত পাবেন। তবে এই রোগ যে এশিয়াতেও ছড়িয়ে পরবে না তার কোন নিশ্চয়তা নাই। তাই সবাই এখন থেকেই সাবধান হই। মুখে মাস্ক পরা, হাত ধোয়া, স্যানিটাইজার ব্যাবহার করা এসব যেন চালিয়ে যাই। তাছাড়া কিছু স্বাস্থ সচেতনতা যেমন পাবলিক প্লেসে একই গ্লাসে যেন পানি না খাই, একই চামচ বা থালা-বাসন ব্যাবহার করা থেকে বিরত থাকি। যেখানে সেখানে কাশ বা থুূ না ফেলি বা সেগুলো এড়িয়ে চলার চেষ্টা করি। পরতপক্ষে সাথে একটা হান্ড স্যানিটাইজার ও ওয়েট টিস্যু রাখি। গণহারে ব্যাবহার এমন জিনিষপত্র যেমন কলম বা পেন্ষিল, ডোর নব, চেয়ার হ্যান্ডেল বা যে কোন কিছু তা ধরার আগে যেন ওয়েট টিস্যু দিয়ে মুছে নেই। একটা প্যান্ডেমিকের ধাক্কা সামলাতে না সামলাতে আর একটা চলে আসলে অর্থনিতীর যে কি অবস্থা হবে বুঝতেই পারছেন। এছাড়া নিজেকে সুস্থ রাখাও একটা বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাড়াবে। একটু বাড়তি সতর্কতা সবাই কে সুস্থ রাখতে সাহায্য করবে আশা করি।

মন্তব্য ৪৩ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৪৩) মন্তব্য লিখুন

১| ২১ শে মে, ২০২২ ভোর ৫:৩৭

প্রতিদিন বাংলা বলেছেন: একদিকে ভালোই !(আল্লাহ মাফ করবেন )
উন্নয়নশীল ও উন্নত দেশের সরকার এই নিয়ে যদি দৌড়ের উপর থাকে তবে
রাষ্ট্রের সম্পদ চুরি ও যুদ্ধের ধমক/উস্কানি কিছুটা কমবে পৃথিতে !?

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৩২

গরল বলেছেন: করোনা কি দূর্নীতি বন্ধ করতে পেরেছে না পেরেছে যুদ্ধ বন্ধ করতে?

২| ২১ শে মে, ২০২২ সকাল ৯:২২

নিমো বলেছেন: চিন্তার কিছু নেই, আমাদের আছে সব সমস্যার সমাধান পাওয়ার বিশেষ গ্রন্থ, কেবল সমাধানগুলো এনক্রিপ্টেড,যা গুটিকয় কাবিল ছাড়া ডি্ক্রিপ্ট করা সম্ভব না। এছাড়াও রয়েছে দেশের হাফ প্যান্ট মাওলানা ও তাদের বলদ সমর্থক বাহিনী, যারা থাকতে মাঙ্কিপক্সের চৌদ্ধগোষ্ঠীিও দেশের ত্রিসীমানায় ঘেঁষবে না।

২২ শে মে, ২০২২ ভোর ৪:৪৭

গরল বলেছেন: হাহাহাহাহাহ, সর্ব রোগের বা সব সমস্যার এক সমাধান। রাস্তায় যারা মলম বিক্রি করে তাদের কাছে এসব পাওয়া যায়।

৩| ২১ শে মে, ২০২২ সকাল ৯:৪৬

শাহ আজিজ বলেছেন: জীবাণু অস্ত্র নয়তো ??!!

সন্দেহ জাগছে মনে ।

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৩৩

গরল বলেছেন: না ভাই সেরকম কোন সম্ভবনা কেউ এখন পর্যন্ত দেখছে না।

৪| ২১ শে মে, ২০২২ সকাল ৯:৫০

স্বপ্নবাজ সৌরভ বলেছেন: শাহ আজিজ বলেছেন: জীবাণু অস্ত্র নয়তো ??!!
সন্দেহ জাগছে মনে ।


আমিটাই বলতে এসেছিলাম।

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৩৩

গরল বলেছেন: না সেরকম কিছু হওয়ার সম্ভবনা একেবারেই কম।

৫| ২১ শে মে, ২০২২ সকাল ১০:২২

জুল ভার্ন বলেছেন: কোভিড-১৯/করোনা ভাইরাস ছিলো অদৃশ্য মরণঘাতি রোগ, আর মাঙ্কিপক্স হচ্ছে দৃশ্যমান একটা রোগ- যা দ্রুতই বিস্তার ঘটছে বিভিন্ন দেশে। আমার ধারণা, এই রোগের পেছনেও আছে মানুষের কালো হাত।

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৩৪

গরল বলেছেন: তা আছে তবে সেটা ঘটেছে আফ্রিকা থেকে বণ্যপ্রাণি চোরাকারবারির মাধ্যমে বলেই অনেকে ধারণা করছে।

৬| ২১ শে মে, ২০২২ সকাল ১০:৪৮

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: এই রোগে কি মৃত্যু হচ্ছে?

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৩৫

গরল বলেছেন: এখন পর্যন্ত মৃত্যুর কোন খবর পাওয়া যায় নাই তবে সংক্রমণ বাড়লে সেই সম্ভবনা উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

৭| ২১ শে মে, ২০২২ সকাল ১১:০৫

শায়মা বলেছেন: কি ঝামেলা!! একটা শেষ না হতেই আরেকটা শুরু.....

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৩৬

গরল বলেছেন: জীবন মানে যন্ত্রণা, নয়ত ফুলের বিছানা, হাহাহাহাহ।

৮| ২১ শে মে, ২০২২ সকাল ১১:৫৯

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: খবরের লিংকটিতে এই রোগের আলামত কি বা কিভাবে ছড়ায় তার বিস্তারিত পাবেন, তাই আমি আর ওসব নিয়ে লিখছি না।

এইটাই বরং দুই কথা লিখে দেন। কিভাবে ছড়ায়। সেইটাই বেশী কাজে লাগবে।

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৩৭

গরল বলেছেন: আপনার অনুরোধে সেটাও লিখে দিয়েছি, ধন্যবাদ মনে করিয়ে দেওয়ার জন্য।

৯| ২১ শে মে, ২০২২ দুপুর ১:০২

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:

৭০ দশকের ভাইরাস ২২'এ ফিরে এসেছে ইউরোপ আমেরিকায়, ওরা ভয় পেতে শুরু করেছে?? বর্তমান আফ্রিকায় কি অবস্থা?


*** ব্লগ ব্যাতীত আপনার সাথে যোগাযোগের কোনো মাধ্যম আছে?

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৪২

গরল বলেছেন: আফ্রিকায় স্মলপক্স নিয়ে টিকা কার্য্যক্রম চলায় এই রোগের কোন প্রাদূর্ভাব নাই তবে ধারণা করা হচ্ছে বন্য প্রাণি যেমন বানর পাচার বা আমদানির মাধ্যমে এটা ছড়িয়েছে। বনের প্রাণিদেরতো আর টিকা দেওয়া হয় নাই।
আপনি আমার স্কাইপেতে মেসেজ দিতে পারেন, আমার স্কাইপে আইডি "sayem_bd"।

১০| ২১ শে মে, ২০২২ দুপুর ১:২২

মোহাম্মদ গোফরান বলেছেন: আল্লাহ হেফাজত করুন।

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৪৩

গরল বলেছেন: শুভকামনা রইল, সাবধানে থাকুন, সুস্থ থাকুন।

১১| ২১ শে মে, ২০২২ দুপুর ১:৩৬

সোনাগাজী বলেছেন:


সংক্রমণ ক্ষমতা কেমন?

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৪৪

গরল বলেছেন: যেহেতু বায়ু বাহিত ভাইরাস না তাই সংক্রমণের হার অত বেশি না, রোগির সাথে অতি ঘনিষ্ট মেলামেশা না করলে সংক্রমণ তেমন একটা হওয়ার সম্ভবনা নাই।

১২| ২১ শে মে, ২০২২ দুপুর ২:৪১

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: এগুলি কেয়ামতের লক্ষণ। শেষ জমানায় নতুন নতুন রোগের প্রাদুর্ভাব হবে। :)

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৪৫

গরল বলেছেন: কেয়ামত হতে আরও প্রায় পাচশত কোটি বছর লাগবে, হাহাহাহাহহা।

১৩| ২১ শে মে, ২০২২ বিকাল ৩:০৬

রাজীব নুর বলেছেন: সেদিন এই রোগটা নিয়ে পত্রিকাতে পড়লাম। রোগটা ভয়াবহ আকার ধারন করলে পরিস্থিতি খারাপ হবে।

মানুষ যত এগিয়ে যাবে, সেই সাথে পাল্লা দিয়ে অসুখ বিসুখও এগিয়ে যাবে।

২১ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৪৭

গরল বলেছেন: তা ঠিক, চিকিৎসাবিজ্ঞানও এগিয়ে যাবে। তবে নিজেদেরও সতর্ক থাকতে হবে, স্বাস্থ সচেতনতা মানতে হবে।

১৪| ২১ শে মে, ২০২২ রাত ১০:৩৮

কলাবাগান১ বলেছেন: "The virus behind monkeypox is a close relative of the one that caused smallpox but is less deadly and less transmissible, causing symptoms that include fever and a rash. "

বাংলাদেশের ৪০/৫০ এর উর্ধ্বের সবার স্মল পক্স এর টিকা দেওয়া আছে যেটা অনেক সুরক্ষা দেয় মাংকিপক্স থেকে। কভিড এর মত ভয়াবহ হবে না।

২২ শে মে, ২০২২ রাত ১২:৪৯

গরল বলেছেন: আপনি ঠিকই বলেছেন তবে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়লে সেটা ভয়ঙ্কর হবে। তাই সাবধান থাকতে দোষ নাই। ধন্যবাদ।

১৫| ২২ শে মে, ২০২২ সকাল ১০:০৮

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:

স্কাইপে চিনবো কিভাবে?

২২ শে মে, ২০২২ রাত ১১:২৬

গরল বলেছেন: আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস দিন, আমি আপনাকে মেইল করব।

১৬| ২২ শে মে, ২০২২ দুপুর ২:২৬

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
কি বিপদ নতুন নতুন রোগ বলাই আসছেই আসছে।

২২ শে মে, ২০২২ রাত ১১:২৭

গরল বলেছেন: যত মুশকিল তত আছান, ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।

১৭| ২২ শে মে, ২০২২ রাত ১১:৫৬

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:


:আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস দিন, আমি আপনাকে মেইল করব।

[ [email protected] ]

১৮| ২৩ শে মে, ২০২২ বিকাল ৪:৫৫

সৈয়দ মশিউর রহমান বলেছেন: এটা মনে হয় করোনার মতো অত ভয়ানক হবেনা।

২৪ শে মে, ২০২২ রাত ১১:০৯

গরল বলেছেন: সেটা ঠিক তবে রোগ মানেই মানুষের কর্মক্ষমতা হ্রাস, অর্থনৈতিক চাপ, বিশেষ করে গরীব মানুষেরাই মহামারিতে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয় কারণ তাদের বাড়তি টাকা থাকে না ওষুধ ও পথ্যের জন্য।

১৯| ২৪ শে মে, ২০২২ ভোর ৪:২৭

জহিরুল ইসলাম সেতু বলেছেন: এ কী খবর দিলেন গরল ভাই!!!
কোভিডের ধকল এখনো গেল না, এর মধ্যে এই....।

২৪ শে মে, ২০২২ রাত ১১:১২

গরল বলেছেন: আশার কথা হচ্ছে যে এই রোগের টিকা ইতিমধ্যেই আবিষ্কৃত, এবং কোভিডের কারণে একটা প্রতিরোধমূলক নেটওয়ার্ক তৈরি হয়ে গেছে। অতএব খুব একটা সমস্য হবে বলে মনে হয় না, তবে কোভিডের স্বাস্থ সচেতনতা মেনে চলতে থাকুন। সুস্থ থাকুন, ভালো থাকুন।

২০| ২৭ শে মে, ২০২২ রাত ৯:০৮

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




আমার মাঝে মাঝেই মনে হয়, যতো রোগ অসুখ সবই মানুষের তৈরি man made। মাঙ্কিপক্স সম্পর্কে ধারনা ছিলো না, আপনার পোস্ট পড়ে গুগলে গিয়ে বিস্তারিত পড়ছি।

সচেতনতামূলক পোস্টের জন্য অশেষ ধন্যবাদ।

২৭ শে মে, ২০২২ রাত ৯:৪৬

গরল বলেছেন: স্বাস্থ সচেতনতা মেনে চলুন, ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। আশা করি এই রোগ তেমন কোন ক্ষতি করতে পারবে না।

২১| ১০ ই জুন, ২০২২ রাত ১:৪১

সোনাগাজী বলেছেন:



ব্লগার জুল ভার্ন 'এর পোষ্টে আপনার কমেন্ট, "গরল বলেছেন: মানুষ কি তখনও এত পিশাচ ছিল যে একজনের সন্তান মারা গেছে তাকে দিয়ে কবিতা লিখিয়ে তারপর টাকা দিতে হবে? "

-উনি দুনিয়ার আজগুবি খবরাখবর লিখে থাকেন! আমাকে কমেন্ট ব্যান করে ব্লগিং করছেন।

১০ ই জুন, ২০২২ রাত ২:১০

গরল বলেছেন: কিছুটা হয়ত সত্য আর কিছুটা হয়ত অতিরঞ্জিত, তবে এসব তথ্যের সটিক উৎস খুজে পাওয়া মুশকিল, কারণ এগুলো হয়ত মুখে মুখে ছড়িয়েছিল, তারপর কেউ হয়ত সেটা লিখে গেছে স্মৃতিচারণ হিসেবে। তবে যাই হোক ব্যাপারটা আমার কাছে অস্বাভাবিক লেগেছে, কারণ প্রকাশকরা নিশ্চই এতটা অমানবিক হবে না যে একজনের সন্তান মারা গেছে, তাকে তাৎখনিক কবিতা লিখিয়ে তারপর টাকা দিবে।

২২| ১০ ই জুন, ২০২২ সকাল ৭:৫৫

সোনাগাজী বলেছেন:




তিনি কবি সম্পর্কে সঠিকভাবে কিছু জানেন বলে মনে হয় না; কবিপুত্র বুলবুল ১৯২৮ সালে মারা যায়নি, মারা গিয়েছিলো ১৯২৯ সালে বসন্ত রোগে। ঐ সময়টা কবি আসলে মোটামুটি আর্থিকভাবে ভালো করছিলেন, তাঁর কবিতা সংকলন বের হচ্ছিলো, গ্রামোফোন কোম্পানীর সাথে চুক্তি হয়েছিলো, এবং সন্দ্বীপের সোস্যালিষ্ট নেতা, মোজাফ্ফর আহমেদ উনাকে সাহায্য করছিলেন।

আমি উনার লেখায় এসব খুঁটিনাটি ধরার কারণে উনি ক্ষেপে গিয়ে আমাকে কমেন্ট ব্যান করে দেন। কোন ব্যাপারেই উনার পরিস্কার ধারণা নেই।

২৩| ১০ ই জুন, ২০২২ দুপুর ১:২৬

অর্ক বলেছেন: ষোড়শ কিম্বা সপ্তদশ শতাব্দীতে একবার ইঁদুর বাহিত প্লেগ রোগের অতিমারিতে ইউরোপের এক তৃতীয়াংশ মানুষ মারা গিয়েছিলো। প্লেগ নিয়ে সে সময়ের শিল্পীদের আকা অনেক ছবি আছে। কিছু দেখার সৌভাগ্য হয়েছে। অদ্ভুত সেই ছবিগুলো। দেখলে শিউরে উঠতে হয়। প্লেগের কারণে মানবজাতির নিশ্চিহ্ন হবার শঙ্কা দেখা দিয়েছিলো। সৌভাগ্যক্রমে ওরকম কিছু হয়নি অবশ্য। এক পর্যায়ে রোগটা ভ্যানিশ হয়ে যায়।

মাঙ্কিপক্স কমে আসছে বিশ্বজুড়েই। করোনার মতো অতো ভয়াবহ সংক্রামক রূপ নিবে না হয়তো। নিলেই বা কি করার আছে আমাদের। যেরকম পরিস্থিতি দাঁড়ায়, তার মোকাবিলা করতে হবে সবাইকে। মৃত্যু অসুখবিসুখকেও স্বাভাবিকভাবে নেবার মানসিকতা তৈরি করা উচিৎ আমাদের। এ যে জীবনের পরম সত্য। যেমন তামাকজাত পণ্যের যথেচ্ছ ব্যবহার এখানে অনেক অকাল মৃত্যুর কারণ। দেশের কোনও ক্যান্সার হাসপাতালে যাবেন, দেখবেন, অল্পবয়সী অনেক কিশোর তরুণ বড়ো বড়ো ফাইল নিয়ে এখানে সেখানে ছোটাছুটি করছে। ওরা ক্যান্সার রোগী। একসময় সবাই চেইন স্মোকার ছিলো। মিনিটে মিনিটে সিগারেট খেতো। তার পরিণাম, এখন অসময়ে এই অল্পবয়সে প্রাণঘাতী রোগ নিয়ে জীবন বাচাতে এখানেওখানে দৌড়ের ওপর। মৃত্যু অসুখবিসুখ মানবজীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। আমি সবসময় একে স্বাভাবিকভাবে নেই। এসবের থেকে জীবন ঢেরবেশি অর্থপূর্ণ ভাবার চিন্তা করার।

শুভেচ্ছা থাকলো। ভালো থাকবেন। জানি না কি বাজে বকলাম ওপরে! হা হা হা। আপনি এখানে আমার প্রিয় ব্লগারদের একজন। একটু এডজাস্ট করে নিন ভাই।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.