নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

বাংলা ভাষা অনেক সুন্দর একটি ভাষা। বাংলা আমার ভাষা। বাংলা আমার দেশ।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন

আমি কেউ না। কবে যে কেউ হতে পারবো।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন › বিস্তারিত পোস্টঃ

দুর্নীতির মামলায় মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব এর ১২ বছরের জেল ও ২১০ মিলিয়ন রিঙ্গিত জরিমানা

২৮ শে জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৯



দুর্নীতির মামলায় মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের ১২ বছরের জেল হয়েছে । একই সাথে তার ২১০ মিলিয়ন রিঙ্গিত জরিমানা করা হয়েছে।

1MDB (One Malaysia Development Berhad) এর সাথে জড়িত সিরিজের প্রথম মামলায় তাকে সাতটি অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করার পরে এখানে হাই কোর্ট প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী দাতুক সেরি নজিব রাজাককে ১২ বছরের কারাদণ্ড এবং মোট পাঁচ বছরের জেল জরিমানা করেছে । আজ কুয়ালালামপুর হাইকোর্টে এ মামলার রায় ঘোষণা করা হয়।

সাজা দেওয়ার আগে বিচারপতি মোহাম্মদ নাজলান মোহাম্মদ গাজালী বলেন যে, তিনি জনস্বার্থ এবং আইন প্রয়োগের মূল লক্ষ্য পর্যবেক্ষণ সহ বেশ কয়েকটি বিষয় বিবেচনা করেছেন।

"এই সাজা কেবল অপরাধীদের শাস্তি দেওয়ার জন্য নয়, অন্য ব্যক্তিকে অপরাধ পুনরাবৃত্তি করা থেকে বিরত রাখা।

তিনি আরও যোগ করেন, "আমি দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে তার অবদানকেও বিবেচনা করেছি।"

আদালতের সিদ্ধান্ত নিম্নরূপ:

১) ক্ষমতার অপব্যবহারের জন্য মালয়েশিয়ার দুর্নীতি দমন কমিশন (এমএসিসি) ২০০৯ এর ২৩ ধারার অধীনে অভিযোগ - ডিফল্ট পাঁচ বছরের জেল হিসাবে 12 বছর এবং আরএম 210 মিলিয়ন জরিমানা।

২) দণ্ডবিধির ধারা 409 এর অধীনে তিনটি অভিযোগের প্রতি বিশ্বাসের (সিবিটি) ফৌজদারী লঙ্ঘন - প্রতিটি 10 ​​বছর।

৩) মানি লন্ডারিং বিরোধী আইন, সন্ত্রাসবিরোধী অর্থায়ন আইন এবং বেআইনী ক্রিয়াকলাপ আইন আইনের ধারা - ৪ (১) (খ) এর অধীনে তিনটি অভিযোগের প্রতি শ্রদ্ধা - প্রতি ১০ বছর।

বিচারপতি নাজলান সকল কারাগারের সাজা একই সাথে চালানোর নির্দেশ দেন।

উল্লেখ করা যেতে পারে মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহামাদের এক সময়কার উপ-প্রধানমন্ত্রী ছিলেন নাজিব তুন রাজাক। তারা একই দলের রাজনীতি করতেন।

নাজিব তুন রাজাক (3 April 2009 – 10 May 2018) মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে।

২০১৫ সালে সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির পুনরায় রাজনীতিতে সক্রিয় হন এবং নতুন দল ও জোট গঠন করে নাজিবের দলের বিরুদ্ধে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ওই নির্বাচনে তুন মাহাথির এর নেতৃত্বাধীন পাকাতান হারাপান জোট জয়লাভ করে সরকার গঠন করার অল্প কিছু দিনের মধ্যেই গ্রেপ্তার হন নাজিব তুন রাজাক।

এদিকে নানা রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র কূটকৌশল এর কারণে মাহাথির মোহামাদ চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের শেষের দিকে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দেন।

নাজিব তুন রাজাক এর রাজনৈতিক দল এখন মালয়েশিয়ার ক্ষমতাসীন জোটের অংশীদার এবং বর্তমান কেবিনেটে তাদের বেশকিছু মন্ত্রী রয়েছেন।

মন্তব্য ৬ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (৬) মন্তব্য লিখুন

১| ২৮ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৮:১৪

চাঁদগাজী বলেছেন:



একটা কাজের মতো কাজ হয়েছে।

২৯ শে জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৭

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: তারপরও বলা যায় না। কেননা তার দল এখন ক্ষমতায়।
সুতরাং পর্যন্ত ক্ষমা পাওয়ার ব্যাপারটা তো থেকেই যাবে।

২| ২৮ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১১:২৮

রাজীব নুর বলেছেন: মানুষ কেন যে দূর্নীতি করে আমি বুঝি না।
আমি ক্ষমতায় থাকলে কোনো দিনও দূর্নীতি করতাম না।

২৯ শে জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আপনি যে কথাটি বলেছেন ক্ষমতায় যাবার আগে প্রত্যেকটি নেতাই সেই কথা বলে। নতুনত্ব কিছু নেই।

৩| ৩০ শে জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৪৯

আলআমিন১২৩ বলেছেন: Tit for Tat বলে একটা কথা আছে। নিউটনের ৩য় ফর্মুলাও সবাই জানেন। কিন্তু ক্ষমতায় গেলে নেতারা ভূলে যায়-বা ভূলে যেতে চায়।

০৩ রা আগস্ট, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৭

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আপনি সঠিক বলেছেন।
ঈদ মোবারক।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.