নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

স্বঘোষিত দার্শনিক

সাড়ে চুয়াত্তর

আমার লেখার মাঝে আমার পরিচয় পাবেন

সাড়ে চুয়াত্তর › বিস্তারিত পোস্টঃ

দাড়ি রাখা কি ঐচ্ছিক?

১৩ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:৫২



মুসলমাদেরকে দাড়ি রাখতে রাসূল (সাঃ) নির্দেশ দিয়েছেন। দাড়ি মুন্ডন করতে রাসূল সাঃ নিষেধ করেছেন। রসুল (সাঃ) এর আদেশ মুসলমানদের জন্য ফরজ বা ওয়াজিব। তাই দাড়ি রাখা কোনও ঐচ্ছিক ব্যাপার না। দাড়ি না রাখলে গুনাহগার হতে হবে। কোরআনে এ ব্যাপারে কোনও নির্দেশনা না থাকা সত্যেও দাড়ি রাখা বাধ্যতামূলক কারণ এটা রসুলের (সাঃ) নির্দেশ।

নিম্নে এ সম্পর্কে রাসূল সাঃ এর বাণীসমূহ উল্লেখ করা হল।

১। হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর রাঃ থেকে বর্ণিত। রাসূল সাঃ গোঁফ নিশ্চিহ্ন করতে, আর দাড়ি বড় করতে নির্দেশ দিয়েছেন। (সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-৬২৪)
২।হযরত আবু হুরায়রা রাঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, তোমরা গোঁফকে কর্তন কর, এবং দাড়িকে লম্বা কর। তোমরা অগ্নিপূজকদের বিপরীত কর। {সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-৬২৬}
৩। হযরত জাবির বিন সামুরা রাঃ বলেন যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের দাড়ি ছিল বেশি বা ঘন। {সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-৬২৩০, মুসনাদে আবী ইয়ালা, হাদীস নং-৭৪৫৬}

উপরে উল্লিখিত হাদীসগুলোর আলোকে মুসলিম উম্মাহের ফক্বীহগণ একমত যে, দাড়ি বড় করা মুসলিমের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব এবং দাড়ি মুন্ডন করা বা “একমুষ্টি” এর কম রাখা নিষিদ্ধ।
পারিভাষিক মূলনীতির আলোকে কোন কোন ফক্বীহ দাড়ি রাখা “ফরজ” বলে উল্লেখ করেছেন। কেউ তা “ওয়াজিব”মত দিয়েছেন।

আসুন এই পোস্টের পাঠকরা রসূলের(সাঃ) আদেশ মেনে দাড়িকে বড় হতে দেই আর গোঁফ ছোট করি আর পাঠিকারা তাদের জীবন সঙ্গীকে এই ব্যাপারে উৎসাহিত করি। ওয়ামা তৌফিক ইল্লাহ বিল্লাহ।

মন্তব্য ৫১ টি রেটিং +৮/-০

মন্তব্য (৫১) মন্তব্য লিখুন

১| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১:০৬

নেওয়াজ আলি বলেছেন: আপনার দাড়ি আছে ?

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ৮:০০

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: নেওয়াজ ভাই ধন্যবাদ প্রথম মন্তব্যের জন্য। জী, আমার দাড়ি আছে। এরকম প্রশ্ন যে আসবে তা অনুমান করেছিলাম।

২| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১:৫৯

রাজীব নুর বলেছেন: দাড়ি আমার ভালো লাগে না।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ৮:০২

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: ভালো লাগে না ভাবির না আপনার? রাখার পর দেখবেন ভালো লাগছে। প্রতিদিন শেভ করার ঝামেলা থেকে বাঁচবেন।

৩| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ রাত ২:১৯

নুরুলইসলা০৬০৪ বলেছেন: আইএসরা সবাই দাড়ি রাখতো কিন্ত তুর্কি মুসলিমরা দাড়ি রাখে না।আবার হিন্দুরা দাড়িরাখা শুরু করছে তখন আমরা কি করব।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ৮:০৪

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আদেশ তো পরিবর্তন হবে না। কাজেই আদেশ মানতে হবে। কামাল আতাতুরক সাহেব ওখান ইসলামের বারোটা বাজিয়েছেন। আর হিন্দুরা রাখলে আমাদের সমস্যা নাই।

৪| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ রাত ২:৪১

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: দাড়ি রাখা বাধ্যতামূলক
..............................................
বিষয়টির সাথে আমি একমত নই ।
মুসলমানদের দাড়ি রাখা ছাড়াও আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ আছে
যা মোটেই পালন করেনা , অনেকে দাড়ি রেখে ভন্ডামী করার সুযোগ
নেয়, সমগ্র মুসলমান জাতির উপর তার নেতিবাচক ঘৃনা ছড়ায় ।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ৮:১৯

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: অনেকে নামাজ পড়ার, হজ্জ করার পরও খারাপ কাজ করে তাই বলে এই আমলগুলি কি অন্য মানুষ করবে না। মুসলমানদের কোন কাজের সুনাম বিধর্মীরা করে। ওদের দুর্নামের ভয়ে আমরা ধর্ম কর্ম বন্ধ রাখব। ধর্মের নিয়ম কেউ না মানলে সেটার জন্য সে ব্যক্তিগতভাবে দায়ী। ধর্মের বিধানকে দোষ দিয়ে লাভ নেই। ভণ্ডদের অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে। মুসলমানদের শুধু দাড়ি রাখলেই চলবে না বাকি বিধানগুলিও পালন করতে হবে। ধর্মকে সুবিধামত মানলে চলবে না। 'চোরায় না শোনে ধর্মের কাহিনী' - ব্যাপারটা অনেকটা এ রকম হয়ে গেছে। যে কোনও ফরজ/ ওয়াজিব কাজ পালন না করা গুনাহ। এটা ক্রমাগত চালিয়ে যাওয়া আরও খারাপ। অনেক মুসলমান অন্যের হকের ব্যাপারে উদাসীন। এটা ধর্মে নাই। চুরির টাকা মসজিদে দান করছে, হজ্জ করছে নির্বাচনের জন্য। এ ধরনের ভণ্ডামি ধর্ম অনুমোদন দেয় না। প্রত্যেককে তার কাজের হিসাব আল্লাহর কাছে দিতে হবে এটা সবার মনে রাখা উচিত। ধন্যবাদ।

৫| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ ভোর ৬:৫৪

স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: দাড়ি রাখা বাধ্যতামূলক ।
বিষয়টির সাথে আমি একমত নই ।
মুসলমানদের দাড়ি রাখা ছাড়াও আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ আছে
যা মোটেই পালন করেনা ।

সহমত ।
সৎকার্য করার জন্য মুসলমানদের উদ্বুদ্ধ করা ধর্মীয় নেতাদের জন্য সবচাইতে জরুরি।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ৮:২৭

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: সমস্যা হোল ভালো ধর্মীয় নেতা পাওয়া দুষ্কর। ধর্মীয় নেতারা বিভিন্ন স্বার্থের কারণে দলাদলিতে লিপ্ত। সব দায়িত্ব নেতাদের এরকম মনে করাও ঠিক না। নিজের পার্থিব ভালো কোনটা এটা তো ঠিকই বোঝে। আর ধর্মের ব্যাপারে না জানার ভান করে। অনেকে জেনে শুনেই খারাপ কাজ করে। অনেক নেতা ভালো পরামর্শও দেন। কিন্তু তাদের কথা কে শোনে। তবে ছোট ছোট আমল আছে যা সহজে করা যায়। আল্লাহ ও আল্লাহর রসুল (সাঃ) এর কোনও আদেশকেই খাটো করে দেখার সুযোগ নেই। অফিসের বসের ছোট আদেশ অমান্য করা কি ধৃষ্টতা না। ধন্যবাদ।

৬| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ৯:৩৪

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: দুই একজন মন্তব্যকারীর মন্তব্যে মনে হচ্ছে যে তারা দাড়ি রাখা যে ফরজ/ ওয়াজিব সেটা তারা মানছেন না। আসলে দাড়ির ফরজ বা ওয়াজিবের ব্যাপারে আলেমরা একমত।

৭| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:৩৬

শাহ আজিজ বলেছেন: দাড়ি পৌরুষ জাগিয়ে তোলে , দাড়ি পৌরুষত্বের প্রমান । অ্যাসিরীয়দের দাড়ি ছিল দর্শনীয় । হিন্দু সাধু সন্যাসিদের দাড়ির প্রচণ্ডতা এতই বেশী যে আমার মাত্র কয়েক ডজন দাড়ি নিয়ে পরাজিত হই বারবার । পেশোয়ার , আফগান , ইরানের লোকেদের দাড়িও দুর্দান্ত রকম তেমনি ইউরোপীয়দের । চীনাদের দাড়ির খরচ নেই বললেই চলে ।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:৫২

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আপনি একদম ঠিক কথা বলেছেন। দাড়ি পৌরুষ প্রকাশ করে। কাজেই এরকম একটা চমৎকার জিনিস আমরা হেলা করে অবহেলা করছি। এই ব্যাপারটাও আলেমরা উপস্থাপন করেন দাড়ির পক্ষে। হিন্দু সাধুদের সাথে আপনি কিভাবে পরাজিত হন এটা আমি বুঝতে পারিনি। আমার মনে হয় আপনি ওদের দাড়ির প্রশংসা করার জন্য বলেছেন। প্রাচীন সব পণ্ডিত ও প্রজ্ঞাবান ব্যক্তিরা দাড়ি রাখতেন। পেশোয়ার, আফগান, ইরানের লোকেদের দাড়ি ঈর্ষণীয়। কিন্তু দাড়ির মূল্য এই জমানায় আমরা বুঝি না। ধন্যবাদ আপনাকে।

৮| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:৪৬

মোঃ খুরশীদ আলম বলেছেন: রাসূল (স.) দাড়ি রাখতে বলেছেন, সেদিক থেকে দাড়ি রাখা ওয়াজিব। রাসূল (স.) দাড়ি রেখেছেন, রাসুলের সুন্নত অনুসরণের দিক থেকে দাড়ি রাখা সুন্নত। এতো কোন মতভেদ নাই। দাড়ি রাখার ব্যাপারে কোন ঈমাম বা কোন মাজহাবের আলেমদের মধ্যে মতদ্বৈত্যতা নাই। সবাই এ ব্যাপারে ইতিবাচক। অন্যান্য ধর্মেও দাড়ি রাখাকে শুভ কাজ বলে মনে করা হয়। বিভিন্ন ধর্মের জাযকরা দাড়ি রাখের সম্মানের নিদর্শন হিসাবে। খেয়াল করলে দেখবেন রেসলিং প্লেয়াররা প্রায় সবাই দাড়ি রাখে। দাড়ির মর্যাদা যে বুঝে সে ধার্মীক না হলেও দাড়ির কদর করে।
যারা এখনো বিয়ে করেননি তাদেরকে একটি পরামর্শ দিচ্ছি, ভেবে দেখবেন। দাড়িহীন যুবক এখনো বিয়ে না করলে বিয়ের পূর্বে দাড়ি রেখে দিন। এতে অন্তত কোন দুনীয়াদার মেয়ে আপনাকে বিয়ে করতে রাজি হবে না। হ্যা, তবে ধার্মীক মেয়েরা আবশ্যই এগিয়ে আসবে। এতে দাম্পত্য জীবন সুখী হবার সম্ভবনাই বেশী থাকবে।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:০৩

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আপনি ঠিক বলেছেন। সব মাজহাবেই এটাকে অত্যন্ত গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। দাড়ি পৌরুষ প্রকাশ করে। কাজেই এটার প্রতি পুরুষদের কেন বিতৃষ্ণা থাকবে বুঝি না। ঠিকভাবে দাড়ি রাখলে পুরুষদের সুন্দর দেখায়। তবে দাড়ির যত্ন নিতে হবে।

৯| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:৫৭

নীল আকাশ বলেছেন: সুন্দর পোস্ট। তবে আমার কাছে মনে হয় এটা সুন্নাত। রাসুলের সুন্নাত। অবশ্য পালনীয় ওয়াজীব নয়। ওয়াজীব হতে গেলে এর হাদিসের ভাষা অন্য রকিমি। এবং আরো কঠর হতো।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:০৭

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: সকল বড় আলেমরা একে ওয়াজিব/ ফরজ বলছেন। ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য।

১০| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:১১

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: সুন্দর পোস্ট

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:২৮

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: সমর্থনসূচক সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

১১| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:২৫

নীল আকাশ বলেছেন: লেখক বলেছেন: সকল বড় আলেমরা একে ওয়াজিব/ ফরজ বলছেন। ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য।
সেক্ষেত্রে সহী সনদ সহ লিখুন। তাছাড়া সবার কাছে গ্রহণ যোগ্য হবে না।
ধর্মীয় বিষয়গুলি সনদ সহ লিখে উত্তম। কোন হুজুর এই ফতোয়া দিয়েছে, কোথায় দিয়েছে, সেটার সূত্র বা সহী সনদ উল্লেখ করুন। উনার ফতোয়া আমি পড়তে আগ্রহী। আমি উনার লেখা ক্রস চেক করবো।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:২৭

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: সহি হাদিসের সনদ দেয়া হয়েছে। সহি হাদিস অস্বীকার করার উপায় আছে কি।

১২| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৪৯

রাজীব নুর বলেছেন: দাড়ি রাখার চেয়ে না রাখাতে সুবিধা বেশি।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:০৬

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: এটা যার যার ব্যক্তিগত ব্যাপার। কি বলব।

১৩| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৫৩

পগলা জগাই বলেছেন: দাড়ি রাখা এবং না কাটার জন্য নির্দেশ আছে কঠিন ভাবে। তবে আমরা আরো অনেক কিছুর মতোই এটাও মানি না। যেমন মানি না টাংকুর উপরে কাপড় পরার বিধান।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:০৪

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আমরা যখন কিছু মানতে চাই না তখন বলার চেষ্টা করি যে না এটা আলেমরা ভুল বলেছেন বা এটা তাদের মন গড়া। দাড়ির ব্যাপারে কোন বড় মাপের আলেম ছাড় দেননি।

১৪| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:২১

লোনার বলেছেন: না!

১৪ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:৩৯

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আপনি একটা অক্ষর দিয়ে সত্যি কথাটা বলেছেন। এজন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

১৫| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১:১০

ফুয়াদের বাপ বলেছেন: আদম আ: থেকে শুরু করে মোহাম্মদ সা: পর্যন্ত যতো নবী-রাসূলগন এসেছেন প্রত্যেকেরই দাড়ি ছিল। দাড়ি রাখা সুন্নাত-ওয়াজিব-ফরজ যাই হোক, যারা নবী-রাসূলদের জীবন অনুসরন করে জীবন পরিচালন করতে চান তারা দাড়ি রাখাকে পছন্দ করবেন।

দাড়ির অনুকূলে কিছু কথা -
=< অন্য অনেক ধর্মের ধার্মিকতাও প্রকাশ পায় দাড়ি রাখায়
=< অনেকে দাড়িকে পুরুষত্বের প্রতীক মনে করেন
=< দাড়িতে অনেকে চেহারার সৌন্দর্য ফুটে উঠে
=< ধার্মিক মেয়েরা দাড়ি আছে এমন পুরুষ পছন্দ করে
=< দাড়ি সেইভ না করার কারনে কিছু টাকা সঞ্চয় হবার সুযোগ থাকে

১৪ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১:১৪

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: ধর্মীয় এবং পার্থিব যেদিক থেকেই আপনি বিচার করেন না কেন আমরা দাড়ির মূল্য বুঝছি না।

১৬| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ দুপুর ১:৫১

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
আল্লাহর হাবীব মহানবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়াসাল্লাম যা করেছেন, বলেছেন তাই করণীয়। আর যা বলেননি, করেননি তাই বর্জনীয়। অর্থাৎ এটা হাদিস।
মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়াসাল্লাম মুসলমানদের দাড়ি বড় করতে ও মোচ যথাসম্ভব কেটে ফেলতে বলেছেন বলে আব্দুল্লাহ ইবন ওমরের (রা.) বর্ণনায় রয়েছে।-(বোখারী শরীফ, ষষ্ট খণ্ড, হাদিস নম্বর-২২৬৭)।
দাড়ি রাখবো কি রাখবো না এই ব্যাপারে আর সন্দেহে না থেকে দাড়ি রেখে অন্তত একটি হাদিসের শ্রবণকারী ও মান্যকারী হিসেবে এই পাপী ও ফিতনা সংকুল জীবনের অবসান ঘটাই। তাহলে হয়তো মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি ও তাঁর হাবীবের সুপারিশ আমাদের নসীব হবো। না হলে আমরা শেষ বিচারের দিন অস্বীকারকারী সাব্যস্ত হবো। একটু ভেবে দেখি আল্লাহর রাসুল হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়াসাল্লাম বলার পরও আমরা কোনো কাজ করলাম না তা কি ক্ষমার যোগ্য বা তা পালনে কি কোনো সন্দেহ থাকা উচিত?

১৪ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৩:২৯

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: নুরু ভাই আপনি মুরুব্বি হিসাবে অল্প কথায় সব বলে দিয়েছেন। এজন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

১৭| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৩:১১

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
যাক এটা মেনে চলছি অনেক বছর ধরে। আসলে আগে মনের জোড় লাগে, সহি নিয়ত লাগে, নবী প্রেম লাগে আর ধর্মীয় বিধি নিষেধ মেনে চলার চেষ্টা লাগে তবেই দাড়ি রাখা যায়।

ধন্যবাদ। সবাই আমল করার চেষ্টা করি। +++++

১৪ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৩:৩১

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আমরা দাড়িওয়ালারা এখন সংখ্যালঘু। আশা করি পরিস্থিতি বদলাবে। ধন্যবাদ আপনাকে।

১৮| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৩:৫২

রায়হান চৌঃ বলেছেন: আমি বলি... "দাড়ির মধ্যে ইসলাম নাই, তবে ইসলামে দাড়ি আছে" সুতরাং ইসলাম কে প্রথমে আকড়ে দরুন তার পর না হয় দাড়ি, আশা করি ব্যপার টা বুজতে পেরেছেন।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৫:২৯

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য।

১৯| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৪:২২

মিরোরডডল বলেছেন:

ছবিতে কারা, ওনাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিন ।
আমারতো মনে হচ্ছে মাঝখানের জন সাচু :- )

১৪ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৫:৩৬

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: মাঝখানের জন সাকিব আল হাসান। বাকি দুইজনের ব্যাপারে জানি না (একজন ক্রিকেটার মনে হয়)। তবে আমি না এ ব্যাপারে নিশ্চিত থাকতে পারেন না। ধন্যবাদ দাড়িওয়ালাদের ব্যাপারে আগ্রহের জন্য।

২০| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৪:৫৯

হাবিব ইমরান বলেছেন:

সুন্দর পোস্ট।
আসলে দাড়ি আল্লাহর রাসূল রেখেছেন এবং রাখার ব্যাপারে সকলকে উৎসাহিত করেছেন এটাই যথেষ্ট। কিন্তু দাড়ির স্পষ্ট হুকুম কি তা নিয়ে আলেমগণও একমত নন। ফরজ আর ওয়াজিব হোক বা না হোক এটা সুন্নত এটা সবাই নিশ্চিত। মানার জন্য এটাই যথেষ্ট।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৫:৩৮

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: জী ঠিক বলেছেন। দাড়ি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দাড়িয়ে নিয়ে আমাদের কেমন যেন অস্বস্তি। দাড়িওয়ালা লোকদের নাকি মেয়েরা বিয়ে করতে চায় না। এই ধরণের অপ্রয়োজনীয় সংস্কার আমাদের পরিহার করা উচিত।

২১| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৫:৫৬

মিরোরডডল বলেছেন:



হা হা হা ...আই নো ইট । জাস্ট ফান করেছি :- )
একজন প্র্যাকটিসড মুসলিম এখানে ছবি দেবেনা এটা সিওর ছিলাম ।

পোষ্টের বিষয় নিয়ে কিছু বলিনি কারণ আই বিলিভ রিলিজন ইটস অল আবাউট বিলিফ এন্ড দা কানেকশন বিটুইন ইউ এন্ড্ ইউর ক্রিয়েটর । যে যেটা বিলিভ করবে, সে সেভাবে মেইন্টেইন করবে । উই শুড রেস্পেক্ট অল বিলিভার । ভালো থাকুন ।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০৮

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আপনি দুইটা মূল্যবান কথা বলেছেন যেটা আমি নিজের মত করে একটু ঘুরিয়ে বলছি। আসলে ধর্ম বিশ্বাসের শুরু হোল একজন অদৃশ্য সত্ত্বাকে না দেখে বিশ্বাস করার মধ্য দিয়ে। বিশ্বাস দিয়ে এর শুরু। কাজেই যুক্তি তর্ক দিয়ে একে বোঝানো যাবে না। আরেকটা কথা আপনি বলেছেন যে মানুষ ও তার স্রষ্টার মধ্যে যোগাযোগটাই হোল মুখ্য। মানুষকে স্রষ্টাকে অনুভব করা শিখতে হবে। স্রষ্টাকে অনুভব করতে না পারলে যে কোন মানুষ স্রষ্টাকে ডাকা এক সময় বন্ধ করে দেবে। আমাদের ধর্মে সৃষ্টি আর স্রষ্টার মধ্যে কোনও মাধ্যম নাই। এটা সরাসরি। শেষে বলতে হয় আপনার চিন্তার গভীরতা আছে।

২২| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৪৬

পলাতক মুর্গ বলেছেন: ব্লগের মুরুব্বি গাজি সাহেব দাড়ি রাখেন কি-না জানা দরকার।

২৩| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫০

পলাতক মুর্গ বলেছেন: অনেক কোদাল টাইপের চেহারার লোক দাড়ি রাখার পরে চেহারা আঘের চেয়ে অনেক ভাল লাগার হওয়ার উদাহরন ভুরি ভুরি আছে। আবার যাদের চেহারা সুন্দর তারা দাড়ি রাখলে চেহারা আরও সুন্দর লাগে। রাজিব নূর দাড়ি রাখলে দেখতে কেমন লাগবে ভাবতেছি।

২৪| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫৫

পলাতক মুর্গ বলেছেন:

১৪ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৪৩

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: ঠিকই বলেছেন। দাড়ি রাখলে চেহারার ইতিবাচক পরিবর্তন হয়। তবে দাড়ির যথাযথ যত্ন নিতে হবে। ছবিটা মনে হয় একই মানুষের দুই অবস্থার ছবি। দাড়িতেই বেশী ভালো লাগছে। ধন্যবাদ তিনটা মন্তব্যের জন্য।

২৫| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ রাত ৯:২৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
আপনি রেখেছেন তো?

আমি রাখবো না । কারণ আমার ভালো লাগে না।

১৪ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১০:০৫

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: জি ভাই আমার দাড়ি আছে। প্রত্যেকের সিদ্ধান্ত সে নিজে নিবে এটাই স্বাভাবিক।

২৬| ১৪ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১১:৫১

এভো বলেছেন: দাড়ি রাখা সুন্নত হওয়ার কথা, ফরজ বা ওয়াজিব হওয়ার কথা নহে কারন যাহা কোরানে বলা হয় নি, সেটা ফরজ হতে পারে না। ধন্যবাদ

১৫ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১২:০১

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: রসুল(সাঃ) কোনও কিছু আদেশ দিলে সেটা হয় ফরজ অথবা ওয়াজিব। ফরজ বা ওয়াজিব হওয়ার জন্য কোরআনের আয়াত লাগবে এটা ভুল ধারনা। নামাজ, রোজা, হজ্জ ইত্যাদিতে অনেক ফরজ/ ওয়াজিব আছে যেগুলি কোরআনে নেই। ইসলামের বিধানের ক্ষেত্রে কোরআনের আদেশ বা রসূলের আদেশের মধ্যে কোনও পার্থক্য নেই। কারণ রসুল (সাঃ) মনগড়া কথা বলেন না। উনি যা বলেছেন আল্লাহর নির্দেশেই বলেছেন। ইসলামের বিধান আল্লাহর কিন্তু সেটা কখনও কোরআনের মাধ্যমে বর্ণিত হয়েছে কখনও তা রসূলের হাদিসের মাধ্যমে বর্ণিত হয়েছে। আল্লাহ আপনাকে ইসলামের সহি বুঝ দান করুন।

২৭| ১৬ ই জুলাই, ২০২০ রাত ২:৪৯

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:



দাড়ী রাখার সুবিধা অনেক ।এর কোন অসুবিধা নেই । এবং এটা না রাখলে
দুনিয়া ও আখেরাতে দো জায়গাতেই অসুবিধা ।
দাড়ী চাষতে গিয়ে কোন না সময়েগাল চাপা কাটেন নাইএমন কেহ নাই ।

আমাদের গ্রামের পরিচিত একজন সেলুনে দাড়ি কাটার সময় হেয়ার ড্রেসার অসাবধানতা বসত দাড়ী কাটা খুরের
ঘায়ে তার গাল সামান্য কেটে ফেলে।হেয়ার ড্রেসার তার গালে একখন্ড ফিটকিরি ঘসে দিয়ে বলে কিছু হবেনা
ভাল হয়ে যাবে। কিন্ত দিন কয়েক পরে এ কাটা গায়ে কিছু তার হয়ছে দেখা যায় ।ঐ গা পেকে ফুলে বড় হতে থাকে।
টুটকা কবিরাজী চিকিতসা চলতে থাকে ।কিন্তু কয়েক দিনের মধ্যেই তার গালে ছোট চোঙ্গার মত একটি ছিদ্র হয়ে যায়।
মুখের ভিতরে তার চাপার দাত সংক্রমিত হয় । গাল ও দাতের ব্যথা তাকে দীর্ঘ দিন ভুগায় ।

অবশ্য এখন ইলেকট্রিক সেভার ও ডেটল বা এন্টিসেপটিক লোসন ব্যবহারের ফলে এরকম কাটা কাটির ঘটনা সহজে ঘটেনা।
তবে নীজের অতীত অভিজ্ঞতা হতে জানি যতই সাবধানতা অবলম্বন করা হোক না কেন,দাড়ি সেভ করার সময় একটু আসাবধান হলেই কোন না কোন জায়গায় সামান্য হলেও কেটে যেতো ।তাতে মনে হল দাড়ী রাখাই সবদিক দিয়ে মঙ্গল জনক ।
ইসলামে অযৌক্তিক কোন বিষয় নেই।






১৬ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:৪৮

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: ড: আলী ভাই আপনার শেষ কথাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ' ইসলামে অযৌক্তিক কোন বিষয় নাই'। আসলে দাড়ি রাখা দুনিয়া আখেরাত উভয়ের জন্য ভালো। দাড়ি কাটতে যেয়ে গাল কাটে নাই এমন মানুষ পাওয়াও দুষ্কর। আসলে আমাদের সমাজে অযথা একটা দ্বিধা সংকোচ দাড়ি নিয়ে কাজ করে। দাড়িওয়ালা ছেলে দেখলে মেয়েরা বিয়ে করতে চায় না। আমার এক বন্ধু বলছে যে তার পক্ষে জীবনেও দাড়ি রাখা সম্ভব না। দাড়ি ঠিকভাবে রাখলে ছেলেদের অনেক সুন্দর দেখায়। মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.