নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার পুরো নাম শাইয়্যান মোহাম্মদ ফাছিহ-উল ইসলাম। অন্যদের সেভাবেই দেখি, নিজেকে যেভাবে দেখতে চাই। যারা জীবনকে উপভোগ করতে চান, আমি তাঁদের একজন। সহজ-সরল চিন্তা-ভাবনা করার চেষ্টা করি। আর, খুব ভালো আইডিয়া দিতে পারি।

সত্যপথিক শাইয়্যান

আমার পোস্ট সংখ্যা এক সময়ে ৩০০টিতে গিয়ে ঠেকেছিলো। আগে অনেক বিষয় নিয়ে লিখলেও এখন আমার ভাবনার বিষয় শুধুই চীন। তবে, পোস্টগুলো বেশিরভাগই ভাবানুবাদ হবে।

সত্যপথিক শাইয়্যান › বিস্তারিত পোস্টঃ

যেভাবে পেঁয়াজ ছাড়া মাংস ভূনা রান্না করবেন (উৎসর্গঃ ব্লগার সৈয়দ তাজুল ইসলাম)

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৪২



আমি তখন ইংল্যান্ডে। সবে মাস্টার্স পাস করেছি। চাকরী সূত্রে লন্ডন ছেঁড়ে লেস্টারশায়ারের লাফবরো এসে বসবাস শুরু। যখনকার কথা বলছি তা আজ থেকে প্রায় ৭ বছর আগের ঘটনা। যারা প্রবাসে থাকেন, তাঁদের প্রায় সবাইকেই রান্না জিনিসটার সাথে পরিচয় থাকতে হয়। আমারও পরিচয় হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যে।

যাহোক, কোন একদিন একটা বিশেষ কারণে সিদ্ধান্ত নিলাম যে, পেঁয়াজ ছাড়া মাংস ভূনা বা অন্য তরকারী রান্না করবো। যে'ই বলা সে-ই কাজ। রান্না সময় আসতেই শুরু করে দিলাম যোগার-যন্ত্র।

এখানে বলে রাখি, ইংল্যান্ডের মানুষ খুব কমই 'রেড মিট' বা গরুর মাংস খায়। এর বদলে ল্যাম্ব বা ভেড়ার মাংস বেশ জনপ্রিয়। আমরাও খেতাম। ভালো করে রান্না করতে পারলে, ল্যাম্বের ভূনা বা রোস্টের চেয়ে উপাদেয় তরকারী আর আছে কিনা আমার জানা নেই।

ঐদিন কি বার ছিলো মনে নেই। তবে, সময়টা দুপুরের খাবারের আগে। ১ কেজি ল্যাম্বের মাংস বাজার থেকেই ছোট করে কেটে নিয়ে এলাম। মাংস ভালো করে ধুয়ে তাতে তেঁতুলের রস মেখে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হলো।

যা যা লাগবেঃ পেঁয়াজ ছাড়া মাংস রান্নার সব উপকরণ।

প্রস্তুত প্রণালীঃ

চুলায় বড় একটা ডেকচি চাপিয়ে তাতে অল্প আঁচে আগুন দিয়ে পরিমাণমত তেল দিলাম। তেল একটু ফুটতে থাকতেই সব ভেড়ার মাংস একসাথে তেলের উপর চাপিয়ে দিতে হয়।

তারপর, মাংসের উপর প্রথমে ২ চামচ করে রসুনের পেস্ট, মরিচের গুড়া, ১ চামচ হলুদের গুড়া, ধনিয়া গুড়া, জিরা গুড়া এবং সবার শেষে পরিমাণ বুঝে লবণ দিয়ে দিলাম। এখানে বলে রাখি, মাংস তাড়াতাড়ি সিদ্ধ হওয়ার জন্যে মাংসের তিন পাশে তিন টুকরো টমেটো দিয়ে দিতে হবে। এরপর, ডেকচিটি ঢেকে দিতে হবে।

১৫-২০ মিনিট পর, সব মসলা যখন গলে যাবে, তখন মাংসের চারপাশে নেড়ে দিবেন। এর কিছুক্ষণ (১-২ মিনিট) পর, পরিমাণ মতো পানি দিয়ে আমের আচারের ৪ টুকরো ও কিছু মসলা দিয়ে আবার ৫ মিনিটের জন্যে ডেকচি ঢেকে দিতে হবে।

মাংস যখন শুকিয়ে আসবে, তখন ধনে পাতা কুঁচি দিয়ে মাংসের উপর ঢেকে দিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। ব্যস, রান্না হয়ে গেলো ল্যাম্বের কারী!

একই প্রণালী আপনি গরুর মাংসের উপরও প্রয়োগ করতে পারেন। রান্না যে সুস্বাদু হবে, তা আমি বলে দিয়ে পারি। আর, মুরগী'র মাংস কিভাবে পেঁয়াজ ছাড়া রান্না করতে হয়, তা পরে আরেক দিন জানাবো।

রান্না ভালো হলে, আমাকে জানাবেন আশা করি।

শুভ রান্না!

মন্তব্য ২৬ টি রেটিং +৯/-০

মন্তব্য (২৬) মন্তব্য লিখুন

১| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৫৮

ইসিয়াক বলেছেন: পেঁয়াজ ছাড়া .......বাহ কাজে লাগবে।

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৫০

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: ট্রাই করলে জানাবেন কেমন হয়েছে।

প্লাসে কৃতজ্ঞতা। ভালো থাকুন নিরন্তর।

২| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:১৯

রুমী ইয়াসমীন বলেছেন: পেঁয়াজ ছাড়া সামান্য মাছটাই ভাজি করতে পারিনা সেক্ষেত্রে মাংসটা কিভাবে পেঁয়াজ ছাড়া রান্না করব!!!
এইকাজ আমার দ্বারা হবেনা ভাই!
তবে আপনার রান্নার প্রক্রিয়াটায় নতুন কিছু জানলাম, "মাংস তাড়াতাড়ি সিদ্ধ হওয়ার জন্যে মাংসের তিন পাশে তিন টুকরো টমেটো দিয়ে দিতে হবে"!
এবার হতে মাংস রান্নায় এই টিপসটা এপ্লাই করে দেখব অবশ্যই।

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৫৫

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: পেঁয়াজ ছাড়া মাছ ভাজি করতে একটু ভেজাল আছে। তারপরো, আমি একবার এই নিয়ে একদিন লিখবো। :)

মাংস রান্না খুব সহজ। একবার ট্রাই করে দেখন আমার রেসিপি দিয়ে।

টমেটো মাংসকে শুধু নরম করে না, মজাও করে।

ভালো থাকুন নিরন্তর।

৩| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৪

মা.হাসান বলেছেন: শাইয়্যান ভাই, ল্যাম্বের মতো যে মাংস ঢাকার বাজারে বিক্রি হয় এর দাম কেজি ৭০০ টাকার উপরে।
গরু ৫৩০ টাকা কেজি।

এগুলো অন্য ক্লাসের খাবার। আপনার রেসিপি দিয়ে আমি আলু রান্না করে দেখতে পারি। তবে টমেটো এখন ১২০ টাকা কেজি, আর এক মাস পরে ৪০ টাকায় নামলে তখন করবো।
নিচে পাথর পোলাউ এর রেসিপি দিলাম, ট্রাই করতে পারেন।

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৫৯

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: জী, সব সময় হয়তো মাংস রান্না করা যাবে না। তবে, পেঁয়াজ ছাড়া কিন্তু ভাজি করা যায়। ডালও। একটু বুদ্ধি করে সরঞ্জাম দিলেই হলো। :)

আপনার গল্পটি মজার।

গল্প পড়ে একটা আইডিয়া আসলো। মাংস ছাড়া মাংসের কারী আর চাল ছাড়া পোলাউ রান্না করার রেসিপি!!! হে, হে, হে!

প্লাসে কৃতজ্ঞতা। ভালো থাকুন নিরন্তর।

৪| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৪২

নীল আকাশ বলেছেন: রান্না যে কেউ যা ইচ্ছে দিয়ে রান্না করতে পারে। আসল হলো সেটা সুখাদ্য না কুখাদ্য!

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:০১

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: আমার রেসিপি দিয়ে রান্না করা তরকারী কুখাদ্য বলে কার এমন সাহস?!!! :)

মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ।

৫| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৪৯

মা.হাসান বলেছেন: একজন সৈনিক ছুটিতে বেড়ি যাচ্ছে সে সময় হেঁটে ছাড়া যাতায়াতের উপায় ছিল না। সৈনিক রাতে এক বাসায় আশ্রয় চাইলো। না করাটা খারাপ দেখায় বলে ঐ পরিবার আশ্রয় দিলো, কিন্তু বলে দিলো খাবার হবে না, তাদের নিজেদেরই নেই (কিরপিন)। সৈনিক বললো তার কাছে যাদুর পাথর আছে, খাবার লাগবে না, বরং আর সবারই খাবার ব্যবস্থা সে করতে পারবে।

বাড়ির লোক কিছুটা অবাক, তবে খুশি। কেমন ভাবে যাদুর পাথর দিয়ে রান্না হয় দেখতে চায় ।

সৈনিক বললো-- রাধতে পাতিল লাগবে , চুলা লাগবে, কাঠ লাগবে , পানি লাগবে। চাহিদা মতো সব এলো। সৈনিক পানি ফুটায় আর চামুচ দিয়ে নাড়ে। একটু পরে বললো, চমৎকার পাথর পোলাউ হচ্ছে, এর সাথে একটু ঘি হলে স্বাদ যা হতো না...
বাড়িওয়ালি ঘি বের করে দিলেন।
নাড়তে নাড়তে সৈনিক বলছে-- চাল টা একটু কম হয়ে গেল, আরেকটু চাল হলে সবাই পেট ভরে খাওয়া যেত। চাল চলে আসলো।
এর পর সৈনিক বলছে- যাদুর পাথর থেকে আসলে এক জনের মতো মসলা বের হয়েছে, আরেকটু মসলা হলে পোলাউ বড় খোলতাই হতো।
মসলা আসলো।
এভাবে লবন, মরিচ, কিশমিস, বেরেস্তা সব আসলো।
সে কি পোলাউ, খেয়ে সবাই কি খুশি।
যাবার সময় সৈনিক কৃতজ্ঞতা বশতঃ পাথরটা পরিবারের কর্তার কাছে দিয়ে গেল।

আমাদের নেতৃবৃন্দের কেউ কেউ ঐ পাথরের মতো উন্নয়নের যাদুর পাথরের সন্ধান পেয়েছেন। নিয়মিত আমাদের প্রায় বিনা খরচের উন্নয়ন উপহার দিয়ে যাচ্চেন।

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:০২

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: গল্পটি খুব মজার এবং শিক্ষণীয়। ভালো থাকুন নিরন্তর।

৬| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০০

নুরহোসেন নুর বলেছেন: আমি রান্না করলে রুমমেট মাঝে মাঝে আঃ উঃ করে,
আপনার রেসিপি অনুসরন করে একদিন তাকে বিরাট সারপ্রাইজ দিয়ে দিবো।
তবে শঙ্কিত না জানি আমাকে পেঁয়াজের ঝাঝের মত অশ্রু ঝরাতে হয়!!

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০৬

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: কোন অসুবিধা নেই। আগে নিজে একবার রান্না করে নিবেন আমার রেসিপি অনুসরণ করে, যেদিন রুমমেট থাকবেন না। সেদিন চেখে দেখে নিবেন কেমন হয়।

তারপর, রুমমেটকে একটা বিরাট সারপ্রাইজ!

শুভেচ্ছা।

৭| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:২৩

রাজীব নুর বলেছেন: পেঁয়াজ ছাড়া রান্না করা যাবে। কিন্তু স্বাদ হবে না।

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৬

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: আমার রেসিপি অনুসরণ করলে স্বাদও হবে।

রান্না পারেন নিশ্চয়ই। একবার ট্রাই করে দেখুন।

ধন্যবাদ নিরন্তর।

৮| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৫

হাবিব স্যার বলেছেন: দাম বেড়ে যাবার পর থেকে আমি পেয়াজ ছাড়া পান্তা ভাত খাই

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৮

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: পান্তা ভাতে মরিচ। উফ! জোস!

মাংসে পেঁয়াজের আসলেই তেমন দরকার নেই ঠিক মতো রাঁধতে পারলে। :)

অনেক দিন পর এসে কমেন্ট করায় শুভেচ্ছা নিরন্তর।

৯| ১০ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:০৫

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ শাইয়্যান ভাই।

আপনার এই ব্লগটি আমাদের রাঁধুনিকে দেখাতে হবে। বেডি যত দ্রুত পারে রান্না শেষ করতে চায়। হ্যা, আমি ট্রাই করে আপনাকে জানাবো। আশাকরি অত্যন্ত ভাল স্বাদ পাব। মনে হচ্ছে রান্নাটাও খুব একটা কঠিন হবে না। সহজই।

তারপর কেমন আছেন?

১০ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫২

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:
জী, ভালো আছি। আশা করি আপনি ভালো আছেন।

বাবুর্চিরা আরো ভালো ভাবে রাঁধতে পারবেন এই রেসিপি দিয়ে। আর কারী মসলা দিলে আরো মজাদার হয় তরকারীটি।

রান্না করা কিন্তু বেশ সোজা। যদিও পেঁয়াজ কাটার ব্যাপারটা একটু ঝামেলার।

ভালো থাকুন নিরন্তর।

১০| ১০ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:০৬

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আর আপনার প্রকল্পের ট্রেনিং কখন থেকে শুরু হচ্ছে?

১০ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৪

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: ট্রেনিং ইতিমধ্যে শুরু। রান্নার ট্রেনিংটাও এড করবো কি না ভাবছি। :)

আবারো শুভেচ্ছা। প্লাসের জন্যে কৃতজ্ঞতা।

১১| ১০ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:২০

দ্যা প্রেসিডেন্ট বলেছেন: আপনাদের উদ্দেশ্যটা কী বলেন তো B:-) ?

দেখুন,ব্যবসায়ীদেরকেও বেঁচে থাকতে হয়, এদের বেঁচা থাকার বিষয়টাও রাস্ট্রকে মাথায় রাখতে হয়, সেই হিসেবে আপনি একজন রাস্ট্রের সুনাগরিক ব্লগার মানুষ। আপনিও একজন রাস্ট্র। সো আপনার উচিত ছিল রাস্ট্রের ব্যবসায়ী মহলের দিকে দৃষ্টি রাখা।

যত্তসব /:)

১০ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৬

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: আমিও কিন্তু একজন ব্যবসায়ী। :)

আর, রান্না করাটা এক সময় বেশ উপভোগ করতাম। তাই, নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করলাম।

ভালো থাকুন এই কামনা করি।

১২| ১০ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:২৫

নীল-দর্পণ বলেছেন: বাহ একদম সময়োপযোগী রেসিপি! ব্লগে রেসিপি আর ভ্রমন ব্লগ খুব পছন্দ আমার। অনেক দিন পরে এসেই এই রেসিপি পোস্ট দেখে খুব ভালো লাগছে। :)

১০ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৮

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: আপনার ভালো লেগেছে! ওয়াও! খুব ভালো লাগলো।

রেসিপিটি ট্রাই করলে তা কেমন হলো জানাবেন নিশ্চয়ই।

শুভেচ্ছা নিরন্তর।

১৩| ১০ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৮

সোনালী ডানার চিল বলেছেন: পুরানো পোষ্টে মন্তব্যের সূত্রে এখানে আসা, এসেই সেই পুরানো ফ্লেভার পেলাম-
আমিও এখন খুব ভালো বিফ রান্না করতে পারি, পিয়াজ দিয়ে-
আপনার রেসিপি একদিন ফলো করে জানাবো।

সময় এবং পরিস্থিতি আমাদের কত কিছুই না শিক্ষা দেয়-

ভালো থাকুন সবসময়।

১০ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:১২

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: পিঁয়াজ দিয়ে কারী তো বেশ। পিঁয়াজ ছাড়া রান্নাতে চ্যালেঞ্জ আছে। :)

সত্যি, সময় ও পরিস্থিতি আমাদের অনেক কিছু শিক্ষা দেয়। প্রথম প্রথম পেঁয়াজ কাটার কথা মনে পড়লে এখনো শিউরে উঠতে হয়।
পেঁয়াজের ঝাঁঝে চোখ দিয়ে ঝর ঝর করে পানি ঝরা!

পরিচিত মানুষদের অনেক দিন পর পাশে পেলে ফেলে আসা স্মৃতিগুলো মাথা চাড়া দিয়ে উঠে। তার উপর, আবহাওয়াটা যদি ইউ,কে'র ঠান্ডা ঠান্ডা বৃষ্টি-ভেজা দিন হয়, তাহলে তো কথাই নেই!

আপনার প্রতি শুভেচ্ছা চিরন্তন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.