নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি লেখক নই, মাঝে মাঝে নিজের মনের ভাবনাগুলো লিখতে ভাল লাগে। যা মনে আসে তাই লিখি,নিজের ভাললাগার জন্য লিখি। বর্তমানের এই ভাবনাগুলোর সাথে ভবিষ্যতের আমাকে মেলানোর জন্যই এই টুকটাক লেখালেখি।

তারেক_মাহমুদ

পৃথিবীর সব ভাল টিকে থাকুক শেষ দিন পর্যন্ত

তারেক_মাহমুদ › বিস্তারিত পোস্টঃ

স্বপ্নের মেট্রোরেল এবং সাধারণ মানুষের ভোগান্তি

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:১৯

উওরার দিয়াবাড়ি থেকে মিরপুর হয়ে আগারগাও পর্যন্ত পুরোদমে চলছে মেট্রো রেলের কাজ। মেট্রো রেলের উঁচু উঁচু পিলারগুলো মাথা উঁচু করে জানান দিচ্ছে বাংলাদেশ খুব দ্রুতই প্রবেশ করতে যাচ্ছে মেট্রো রেলের ভুবনে। এটা আমাদের জন্য অত্যন্ত  গর্বের এবং আনন্দের। প্রতিদিনের চলতি পথে মেট্রো রেলের সুউচ্চ পিলার আর স্প্যানগুলো দেখলে মনে হয়, আহা! কবে আসবে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ??? কবে আমাদের মাথার উপর দিয়ে সাই সাই করে ছুটে যাবে দ্রুতগতির রেলগাড়ি?? কবে থেকে ঢাকাবাসী ৩০/৪০ মিনিটে পৌঁছে যাবে উওরা থেকে মতিঝিল?

এতক্ষণ বললাম স্বপ্নে কথা, কিন্তু এই মেট্রোরেলে তৈরির পিছনে ঢাকাবাসীর ভোগান্তিও কম নয়। আগে থেকেই ভয়াবহ যানজটে নাকাল নগরবাসী তার উপর চলছে মেট্রোরেলের জন্য রাস্তা খুঁড়াখুঁড়ির কাজ। ফলে রাস্তা সংকুচিত হয়ে অর্ধেকে নেমে এসেছে, সেই সাথে বেড়েছে যানজটের তীব্রতা। খুব জরুরী না হলে এখন আর কেউ মিরপুরের পথ মাড়ান না।  তার উপর আবার গত একমাস যোগ হয়েছিল বিপিএল এবং বাণিজ্যমেলার ভোগান্তি। আপাতত বিপিএল বানিজ্যমেলা দূটোই শেষ, তবুও স্বস্তি নেই যানজটের হাত থেকে,তাই অনেকেই যানজট থেকে কিছুটা স্বস্তি পেতে বিকল্প রাস্তা খোঁজেন।

রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট এলাকা। ঢাকা শহরে অন্য এলাকার চেয়ে সম্পুর্ণ ব্যতিক্রম। এখানে সবাইকে নিয়মকানুনের মধ্যদিয়ে চলতে হয়, নিয়মের একটু হেরফের হলেই পড়তে হয় কঠোর শাস্তির মুখে, তাই এ এলাকায় নিয়ম ভাঙ্গার কথা কেউ ভাবতেই পারে না।  মিরপুর থেকে ফার্মগেট আসতে সহজ রাস্তা একটাই, সেটা হচ্ছে মিরপুর ১৪ নম্বর হয়ে কচুক্ষেত দিয়ে ক্যান্টনমেন্টের ভিতর দিয়ে জাহাঙ্গীরগগেট দিয়ে বের হয়ে সোজা ফার্মগেট। এটা ক্যান্টনমেন্ট এলাকা তাই এখানে সাধারণ মানুষের চলাচলে বেশকিছু বিধিনিষেধ রয়েছে। এখানে সেনা সদরের অনুমোদনবিহীন কোন গাড়ি চলতে পারে না। তাই সাধারণ মানুষের নিজস্ব গাড়ি নিয়ে ক্যান্টনমেন্টে প্রবেশের কোন সুযোগ নেই। এখান দিয়ে যেতে চাইলে একটাই ভরসা, সেনাবাহিনী পরিচালিত বাস সার্ভিস "ট্রাস্ট পরিবহন "। বিকেলে কারওয়ান বাজার থেকে ট্রাস্ট পরিবহণে কোন রকমভাবে একবার উঠতে পারলেই অনেকে একটা যুদ্ধ জয়ের সমান আনন্দ পান।এই গাড়িতে কোনরকম উঠে দাঁড়াতে পারলেই  স্বস্তি। কিন্তু গাড়ি যখন ক্যান্টনমেন্টের প্রবেশমুখ জাহাঙ্গীরগেটে আসে তখনি হয় বিপত্তি, সেনাসদস্যরা বাসে দাঁড়ানো যাত্রী দেখলেই গাড়ি আটকে রাখেন, ক্যান্টনমেন্টের ভিতরে প্রবেশ করতে দেন না। তাই জাহাঙ্গীরগেট আসার আগেই গাড়ির হেলপাররা যাত্রীদের সংকেত দিতে থাকেন
-"আপনার সবাই নিচে মেঝেতে বসে পড়ুন নাহলে গাড়ি আটকে দেবে"।
বেশিরভাগ যাত্রীই গাড়ির ময়লা মেঝেতে বসে পড়েন সেনাসদস্যাদের বাস আটকের ভয়ে। অনেক সময় দুএকজন বসতে চান না তখনি গাড়ি আটকে দেওয়া হয়।

সেনাবাহিনী কিছু নিজস্ব নিয়মকানুন থাকবে সেটাই স্বাভাবিক। আমাদের দেশে বিপদেআপদে সেনাবাহিনী সবসময়ই সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ায়। ক্যান্টনমেন্টের মধ্যদিয়ে বাস সার্ভিস চালু হবে এটা সাধারণ মানুষ কোনদিন ভাবতেই পারেনি। এই সার্ভিসের জন্য সেনাবাহিনী অবশ্যই ধন্যবাদ পাওয়ার যোগ্য। সেনাসদরের প্রতি অনুরোধ যতদিন মেট্রো রেলের কাজ শেষ না হয় ততদিন অন্তত ক্যান্টনমেন্টের ভিতর দিয়ে সাধারণ মানুষের চলাচলের নিয়মকানুন একটু শিথিল করা হোক, এবং ট্রাস্ট পরিবহণে মানুষকে  দাঁড়িয়ে যাতায়াতের সুযোগ করে হোক অথবা ট্রাষ্ট পরিবহণের গাড়ির সংখ্যা বৃদ্ধি করা হোক।

আমাদের দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীর জন্য অনেক ভালবাসা।

মন্তব্য ৩১ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (৩১) মন্তব্য লিখুন

১| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:৩১

আমি মুক্তা বলেছেন: এই স্বপ্ন বুকে নিয়ে আজ প্রায় ৩ বছর প্রতিদিন এই ক্ষণস্থায়ী জীবনের মূল্যবান কমপক্ষে ২টি ঘণ্টা হারিয়ে ফেলে চলছি অবিরত, জানি না আর কতদিন এভাবে ক্ষণস্থায়ী এ জীবনের অপচয় করে চলতে হবে।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:৩৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: অনেকেই বলেন অপেক্ষার ফল মিষ্টি হয়, আমরা অপেক্ষায় আছি একদিন সব ভোগান্তির অবসান হবে। আপনাকে ধন্যবাদ মুক্তা।

২| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১২:৫৮

লিংকন১১৫ বলেছেন: অনেকে এখন তো মিরপুরের কথা শুনলে চোখ কপালে তুলে , আসা তো দূরের কথা ।
মিরপুর ১০ থেকে পূরবী হল পর্যন্ত যেতে সময় লাগে ৪৫ মিনিট |-)

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১:১৫

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: হুম আপনি ঠিকই বলেছেন লিংকন ভাই, এখন মিরপুরবাসী ভয়াবহ সময় পার করছে আর সুদিনের অপেক্ষায় আছে। মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

৩| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১:৫০

রাজীব নুর বলেছেন: সীমাহীন কষ্ট।
এর আগে খিলগা ফ্লাইওভার নিয়ে কষ্ট করলাম। তারপর মগবাজার ফ্লাই এখন মেট্রোরেল। কষ্টে-কষ্টে জীবন পার।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৩৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: প্রতিটি উন্নয়ন প্রকল্পেই নগরবাসীকে এমনি ভয়বহ পরিস্থিতিতে পড়তে হয় আসলে আমাদের কিছুই করার নেই। ধন্যবাদ রাজীব ভাই।

৪| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:১০

ফয়সাল রকি বলেছেন: এভাবে যে সিটিং বানানো হয়, জানা ছিল না।
:(

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৪০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: এটা সত্যি অভিনব কায়দা, এটা শুধুমাত্র সেনানীবাস এলাকাতেও ঘটে থাকে। মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ফয়সাল ভাই।

৫| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৫:০৮

করুণাধারা বলেছেন: গ্রহণ করা হয় পরিকল্পনা, কিন্তু যাদের জন্য করা হয় এর ফলে তাদের কি ভোগান্তি হচ্ছে, সেটা একেবারেই বিবেচনা করা হয় না। ভালো একটা বিষয়ে লিখেছেন, ভালো লাগলো।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৪২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ আপু।

৬| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৫:০৯

করুণাধারা বলেছেন: ছবিটা আপনি তুলেছেন?

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৪৪

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আমি প্রতিদিন এই দৃশ্যের সাথে পরিচিত কিন্তু ছবিটা আমার একজন ফেসবুক ফ্রেন্ডের ওয়াল থেকে সংগ্রহ করা। মন্তব্যের জন্য পুনরায় ধন্যবাদ প্রিয় করুণাধারা আপি।

৭| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৫:৫২

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: অথচ মেট্রোরেল হওয়ার পরও বাস তথা গণপরিবহন ছাড়া সুফল পাবে না ঢাকাবাসী। তবে আমি ক্যান্টনম্যান্টের ভেতর দিয়ে বাস যেতে না দেয়ার পক্ষে(দুষ্ট লোক বেড়ে গিয়েছে ঢাকাতে)। আমি বরং বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী ক্যান্টনম্যান্ট, সচিবালয়, বিজিবি, নৌ সদর, বিমান ঘাঁটি ঢাকার বাইরে নেয়ার পক্ষে। এখনও যদি সিস্টেমেটিক গণপরিবহন চালু করা হয় যানজট সহনশীল পর্যায়ে থাকবে। কিন্তু চোর চাট্টা বাস মালিকগুলো এ প্রস্তাবে রাজি হয় না...

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৪৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আপনার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে অনেক সমস্যাই মিটে যেতো, কিন্তু ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট কোনদিনই সরবে বলে মনে হয় না, তারচেয়ে এই এলাকায় জনগনের চলাচল একটু সহজ করলে জনগণ কিছুটা হলেও উপকৃত হতো। অনেক ধন্যবাদ ভাই তালগাছ।

৮| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
মেট্রোরেল ঢাকার জন্য ভালো হবে। যদি ঠিক মতো চলে তাহলে বাসগুলো হতাশ হয়ে যাবে। কেননা, মেট্রোরেলে কোন যান জটের ব্যাপার নেই।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৫১

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: এটা আমরা সবাই বুঝি মেট্রো রেল হলে ঢাকাবাসী উপকৃত হবে, কিন্তু যতদিন কাজ না শেষ হচ্ছে ততদিন ভোগান্তির শেষ নেই। অনেক ধন্যবাদ সাজ্জাদ ভাই।

৯| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫৬

মায়াবী ঘাতক বলেছেন: আকাশের যত তারা আইনের তত ধারা। সেনানিবাসের ভিতর দিয়ে যারা চলাচল করে তারা হাড়ে হাড়ে বিষয়টা বুঝতে পারে। যত ভোগান্তি তা আমাদের মত সাধারন জনগণের। সেনা সদরে বসে বসে যারা এইসব আইন তৈরি করে তারা তো দেবতা। পাব্লিকের ভোগান্তি হলে তাদেরি বা কি? সেনানিবাসের ভিতরে আগেও গণ পরিবহন ছিল সীমিত পরিসরে। কিন্তু সব যায়গায় খাই খাই করার মানসিকতায় এখন সেইসব পরিবহন বন্ধ করে দিয়ে তাদের মনোনীত "ট্রাস্ট" পরিবহন চালু করসে। ১০ টাকার ভাড়া ২০ টাকা তাও আবার ঘন্টায় একটা গাড়িও পাওয়া যায় কিনা সন্দেহ।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৫৪

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: হুম গাড়ির সংখ্যা খুবই কম কিন্তু এই অল্প সংখ্যক গাড়িই এখন মিরপুরবাসীর ভরসা। অনেক ধন্যবাদ ভাই।

১০| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:২৬

সুমন কর বলেছেন: কবে যে এই সমস্যার সমাধান হবে...... X(( X( বসে পড়ার কাহিনীটি আগে জানা ছিল।
+।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৫৫

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: মেট্রো রেলের কাজ শেষ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা না করে উপায় নেই আমাদের। অনেক ধন্যবাদ সুমন ভাই।

১১| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১২:৩২

বলেছেন: সমস্যার শেষ হবে একদিন সত্যি!!

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৫৬

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: এই আশাইতো আমরা বুক বেধে আছি। অনেক ধন্যবাদ লতিফ ভাই।

১২| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৭:৫৬

চাঙ্কু বলেছেন: পেইন আর পেইন!!

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৫৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: পেইন মেনে নেওয়া ছাড়া কোন গতি নেই। ধন্যবাদ ভাই।

১৩| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৯:৪৪

রাকু হাসান বলেছেন:



আরেকটু কষ্ট করেন ভাই। মে্ট্রোরেল আমাদের গর্ব সেই সুফল আমরাই ভোগ করবো । শুভসকাল তারেক ভাই ।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১০:২৮

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: শুভ সকাল রাকু ভাই, কষ্টতো করতেই হবে, তাছাড়া উপায় কি!

ভাল কথা বই মেলায় কবে আসছেন?

১৪| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১২:১৮

তারেক ফাহিম বলেছেন: ধৈর্য্য, ধৈর্য্য একদিন সুফল আসবে।

১৬ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৪৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধৈর্য না ধরে উপায় নেই।

১৫| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:২৬

রাকু হাসান বলেছেন:

তৃতীয়াংশে ইনশাআল্লাহ্ ভাই । আপনার মনে হয় কয়েকবার যাওয়া হয়েছে !!!!!! :)

১৬ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৪৪

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আমি মাত্র একবার গিয়েছি, দেখি আরো দুএকবার যাওয়ার ইচ্ছে আছে।

১৬| ১৯ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:০১

মেহেদী হাসান হাসিব বলেছেন: আপনি জানেন কিনা জানি না আজ ১৯ তারিখ থেকে ২০ তারিখ সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত গ্যাস পাবো না আমরা; এই মেট্রো রেলের কারণে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.