নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

তুমি কেমন করে গান করো হে গুনী, আমি অবাক হয়ে শুনি, কেবল শুনি ।।

ঠাকুরমাহমুদ

sometimes blue sometimes white sometimes black even red, even golden ! yes dear - its me - i am sky ! color your life, than your life will be colorful

ঠাকুরমাহমুদ › বিস্তারিত পোস্টঃ

আমার বিখ্যাত বরকত আলী মাঝি কাকা ও তাঁর পেঁয়াজ মরিচ ভর্তা !!!

২১ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১:৫৪



সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যেম আর ব্লগে যখন খাবারের হৈ হৈ ব্যাপার স্যাপার দেখি মনে হয় বাজারে খাদ্য দ্রব্য দামের অন্যতম কারণ বাঙ্গালীর অতিরিক্ত ভোজনরসিকতা, রান্নার প্রতিযেগিতা সহ সাজানো ডায়েনীং টেবিলের ছবি তোলার গুরুত্বপূর্ণতাও কোনো অংশে কম নয়। কিন্তু আমার কাছে মনে হয় “যা খাবার যোগ্য তা হচ্ছে খাদ্য” - এবং অবস্যই শরীরের জন্য তা উপকারী ও ভালো হতে হবে। খাবার খেয়ে যদি ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হয় তাহলে সেই খাদ্য আর ড্রাগের মধ্যে পার্থক্য কোথায়?

ঈঁদের ছুটি শুরু হয়েছে সড়ক পথ রেল পথ দুটোই যানবাহনে বোঝাই, তিন ঘন্টার সড়ক সময় লাগবে নয় ঘন্টা অবধারিত। আমি বেছে নিয়েছি আমার প্রিয় নদীপথ। ঢাকা সোয়রীঘাট থেকে মালবোঝাই নৌকা ছেড়েছে গন্তব্য ব্রাক্ষণবাড়ীয়া আশুগঞ্জ বাজার, প্রধাণ মাঝি ৬০-৬৫ বছরের শক্তসমর্থ হাসি খুশি দুঃখি বরকত আলী কাকা আর সাথে তাঁর দুই নাতি শতেরো আঠোরো বছরের তরুন জালাল আর বেলাল নৌকা চালানো কাজের চেয়ে তারা দুজন কাইজ্জায় (ঝগড়ায়) পারদর্শী, বরকত কাকা বললের বাপজান ভাত করতেছি আর মরিছ ভর্তা খেয়ে টানা ঘুম দেন, ঘুম থেকে উঠে দেখবেন ভৈরব - আশুগঞ্জ দেখা যায়। ঠিক-ঠিক-ডিক-ডিক করে চলছে ইঞ্জিন চালিত নৌকা আর চলছে জালাল বেলালের কাইজ্জা, বরকত কাকা এক ফাকে রান্নার আয়োজন করছেন, খাবারের আয়োজন খুবই সাধারণ “পেঁয়াজ মরিচ ভর্তা আর ভাপ উঠা সাদা গরম ভাত !!! আমার জীবনে মজাদার খাবারের তালিকায় অন্যতম খাবার বরকত মাঝি কাকার সেদিনের রান্না। এতো মজাদার খাবার আমার জীবনে খুব একটা বেশী খাইনি, সৃষ্টিকর্তা তার পরম মমতায় কিছু মানুষকে কিছু বিশেষ গুণাবলি দেন বরকত কাকার রান্নার হাত সেই গুণাবলির একটি। বরকত কাকা খুবই শরমিন্দা প্রকাশ করছেন বার বার, তিনি জবান দিয়েছেন আমি যদি তার নৌকাতে ঢাকা ফিরি তিনি আলু দিয়ে মোরগের মাংশের সালুন করে ভাত খাওয়াবেন আমি যেনো তার দাবী রাখি - আমি অতি সাধারণ নগন্য একজন মানুষ, আমার এক জীবনে মানুষের এতো ভালোবাসা পেয়েছি মনের অজান্তে কিভাবে যেনো চোখের কোনে জল চলে আসে - থাক সেসব নিজের কথা।।

“পেয়াঁজ মরিচ ভর্তা রেসিপিটা ব্লগের সবার জন্য বিস্তারিত লিখে দিচ্ছি আশা করি সবার ভালো লাগবে।

উপকরণ:
শুকনো মরিচ: ৭ টি
পেঁয়াজ কুচি: ৩ টি
ধনে পাতা: ২ টি
টমেটো সিদ্ধ: ১ টি
মাঝারি একটি লেবু: অর্ধেক
সরিষার তেল: পরিমান মতো
লবণ: স্বাদ মতো

রান্নার পদ্ধতি: শুকনো মরিচ হালকা তাপে সরিষার তেলে ভেজে নিতে হবে। তবে খেয়াল রাখবেন, যেন পুড়ে না যায়। এরপর পেঁয়াজ কুচি, সিদ্ধ টমেটো, ধনে পাতা কুচি, লবণ, সরিষার তেল লেবুর রষ একসঙ্গে ভালো করে মেখে গরম গরম সাদা ভাতের সাথে পরিবেশন ।
--------------------------------------------------------------------------------

কৃতজ্ঞতা: বরকত আলী মাঝি কাকা।





মন্তব্য ৪৪ টি রেটিং +১০/-০

মন্তব্য (৪৪) মন্তব্য লিখুন

১| ২১ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ২:৩২

বলেছেন: আহ "! লিপ লিকিং টেইস্ট।।।

খাবারের স্বাদে, গন্ধে গ্রামীণ জনপদের সহজ সরল স্বভাবের বরকতদের কথা।।।
এইসব খাবারের নেই কোন পাশ্বপ্রতিক্রিয়া
নেই কোন বিলাসিতা
নেই ভেজাল
নেই ঝামেলা

শুধুই নির্ভেজাল জীবনের সুখ গাঁথা।।।

মানুষের ভালোবাসা পেতে হলে মানুষেরা সাথে তার মতো করে মিশতে হবে, জানতে হবে,মানতে হবেন,কৃষক আর শ্রমিক নয় মানুষ বলে তার পরিচয় সপটা বড় করে জানতে হবে। এই গুণটির জন্যই সবাই আপনাকে ভালোবসে, গুরু বলেই জানে।।
দীর্ঘায়ু কামনা করছি, সাথে আরো লেখা চাই।।।

২১ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ২:৩৯

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: লতিফ ভাই, মাঝে মাঝে আমার মনে হয় আমরা বেঁচে আছি মানুষের ভালোবাসায় স্নেহ মায়া মমতায়, যেদিন ভালোবাসা স্নেহ মায়া মমতা শেষ হয়ে যাবে সেদিন পৃথিবী নরক হয়ে যাবে। ভালোবাসা নিবেন, ভালো থাকুন - সুস্থ্য থাকুন - ব্যাস্ত থাকুন।

২| ২১ শে জুন, ২০১৯ বিকাল ৪:৪১

রাজীব নুর বলেছেন: আমি আগে যে অফিসে চাকরী করতাম- সেই অফিসের বাবুর্চী প্রতি বুধবার খিচুরী রান্না করতেন। খিচুরীর সাথে এই ভর্তা টা থাকতো। কিন্তু আমি খেতাম না। খুব বেশি ঝাল।

২১ শে জুন, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৬

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: ঝাল খাবার শরীরে মাঝে মাঝে প্রয়োজন আছে তাতে পরিপাক তন্ত্র ঠিক থাকে।

৩| ২১ শে জুন, ২০১৯ বিকাল ৫:০৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


যারা ঝাল পছন্দ করেন, তাদের জন্য; গরমে এসব খাবার এড়িয়ে চলার দরকার।

২১ শে জুন, ২০১৯ রাত ১১:৪৮

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: চাঁদগাজী ভাই, বাংলাদেশে সেই ধরনের ঝাল মরিচ এখন আর নাই বলা চলে। আমার নিজের একটি বচন আছে পড়ুন:



গ্রাম গঞ্জ নগরে নগরে
খোঁজে কোথাও পাইনা মরিচের ঝাল
গ্রাম গঞ্জ নগরে নগরে
ঝাল এখন মানুষের মুখের রগরে রগরে

মানুষের কথায় এখন এতো ঝাল! করাত কলের প্রয়োজন পড়বেনা, মানুষের মুখের কথা দিয়ে বড় বড় শাল সেগুন গাছ ফালি ফালি করে কেটে দেওয়া যাবে, সম্ভবত।।

৪| ২১ শে জুন, ২০১৯ বিকাল ৫:১১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: অত্যন্ত লোভনীয় খাবার, দেখেই লোভ লাগছে। চুপি চুপি জিজ্ঞেস করি.....এটা খেলে বড় কাজে কোন সমস্যা হবে না তো? B-)

ফেরার পথে আলু দিয়ে মোরগের মাংসের সালুন খেয়েছিলেন? নাকি নৌকাতে ফিরেনই নাই! আপনার এই জার্নি বাই বোটের নদীর দু'পাড়ের দৃশ্যের কয়েকটা ছবি দিলে আমরা কি খুব রাগ করতাম বলে আপনার ধারনা?

২১ শে জুন, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: উস্তাদ, এই মরিচগুলো আশুগঞ্জ মেঘনা চর এলাকার, রঙ-স্বাদ হয় আর ঝাল সামান্য এছাড়া লেবু দেওয়ার কারণে ঝাল থাকে না বলা চলে, খাবার হিসবে যা লিখেছি তা অনন্য। ঈঁদের পর নৌকাতে ফিরেছি ঢাকা সড়ক ও রেলপথ বসে থাকার ক্লান্তি আর জ্যাম দুঃসহ কষ্টকর। বরকত কাকার কাছে আমি ঋণী, সেই গল্প আরেকদিন করবো উস্তাদ। আমি তেমর একটা ছবি তুলিনা তবে আগামীতে ভ্রমণ বিষয়ক পোষ্টে ছবি দিবো অবস্যই।

২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ১২:৩৯

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: মফিজ ভাই, সাবধানে থাকুন সবাই আপনাকে ঢাকা আইসিডিডিআরবি কলেরা হাসপাতালে ভর্তি করার প্লান করছে।

৫| ২১ শে জুন, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৮

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: ট্রাই করবো।

৬| ২১ শে জুন, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৭

জুন বলেছেন: রঙ দেখে খুব ঝাল মনে হচ্ছে ঠাকুর মাহমুদ :-&
নাকি টমেটোর জন্য ?

২১ শে জুন, ২০১৯ রাত ১১:৪৭

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: মরিচ আর টমেটো দুটোর জন্যই লাল তবে মরিচের তেমন ঝাল নেই। বাজারে একটি মরিচ পাওয়া যায় মরিচ ওয়ালাদের বললেই দিবে নাম “হাভাট্টা মরিচ” এই মরিচের ঝাল কম কিন্তু স্বাদ ঘ্রাণ ভালো।

৭| ২১ শে জুন, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫১

আহমেদ জী এস বলেছেন: ঠাকুরমাহমুদ,




মরিচভর্তার কথা শুনে মুখে পানি এসে গেলো। আপনার মতো মরিচভর্তা আমারও প্রিয়। ভাপ ওঠা গরম ভাত কিম্বা বরফ ঠান্ডা পান্তাভাতের সাথে মরিচভর্তা, এর চেয়ে বেহেশতি খাবার আর কিছু নেই।

২১ শে জুন, ২০১৯ রাত ১১:৫০

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: আমার মনের কথা বলেছেন, খাবার খেয়ে যদি শান্তি না পাওয়া যায় তাহলে তা খাদ্য না তার নাম অখাদ্য।
ভাপ ওঠা গরম ভাত কিম্বা বরফ ঠান্ডা পান্তাভাতের সাথে মরিচভর্তা, এর চেয়ে বেহেশতি খাবার আর কিছু নেই। সত্যি সত্যি তাই।

৮| ২১ শে জুন, ২০১৯ রাত ৯:৩৬

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: সুন্দর পোস্ট। ঝাল খাবার খাওয়া উচিত।

২১ শে জুন, ২০১৯ রাত ১১:৫৬

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: ঝাল খাবারের পোষ্ট দিয়েছি সামনে আরো বিচিত্র খাবারের পোষ্ট দিবো প্লিজ সাথে থাকুন। মন্তব্যর জন্য ধন্যবাদ। ভালো থাকুন।

৯| ২১ শে জুন, ২০১৯ রাত ১১:০৭

মা.হাসান বলেছেন: মানুষের কথায় যা ধার, তা দিয়ে শাল-সেগুন গাছ ফেড়ে ফেলা যাবে -সুন্দর বলেছেন। কিছু কিছু মরিচ আছে ঝাল কম, তবে আমার দেখা প্রায় সব শুকনো মরিচই মারাত্মক ঝাল। কাজেই ভুয়া মফিজ ভাই কে বলতে চাই এই খাবার খেলে পরের দিন খাবার স্যালাইন খুঁজতে হবে এবং আরো সমস্যা হবে, বুঝে নেন। নৌকায় ভৈরব বাজার যাওয়ার বুদ্ধিটা খুব ভালো। ঈদ ছাড়া অন্য সময়ে কি যাওয়া সম্ভব? সোয়ারীঘাট এ গেলেই কি এরকম নৌকা পাওয়া যায়? কতক্ষণ লাগে?

২১ শে জুন, ২০১৯ রাত ১১:৫৪

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: যাওয়া সম্ভব, সময় লাগে ৬-৭ ঘন্টা, সোয়ারীঘাট থেকে মাল বোঝাই নৌকা ভৈরব বাজারে ও আশুগঞ্জ বাজরে যায়।

১০| ২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ১২:৩১

ব্লগ মাস্টার বলেছেন: ৪ নং কমেন্ট ভূয়া মফিজ ভাইকে বলছি ভাই বড় কাজে যাবার সময় অফিসে ডোকার আগে সম্ভব হলে বরফ রাখবেন সাথে । ;)

২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ১২:৪১

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: মফিজ ভাইকে আজকে আপনারা সবাই বাগে পেয়েছেন, আইসডিডিআরবিতে সিট বুকিং দিয়ে দিবেন কি মফিজ ভাইয়ের নামে?

১১| ২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ১২:৪৭

ব্লগ মাস্টার বলেছেন: খারাপ হয়না ওখানে কিছুটা ঠান্ডা ওয়েডার পাওয়া যাইবো । :)

২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ১:৫৪

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: আইসিডিডিআরবিতে ফ্রিতে কিছু চেকআপ যদি করানো যায় মন্দ কি ?

১২| ২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ১২:৫২

ওমেরা বলেছেন: আমার আম্মু এটা করত শুধু মরিচ, পিয়াজ সরিষার তেল দিয়ে , ধইন্না পাতাও দিত মনে হয়, কিন্ত লেবু, টমেটু দিত না আমার ধারনা, অবশ্য আমি কখনো খাইনি। মরিচ দেখলেই আমার চোখে পানি আসে।

নৌকাতে উনি রান্না করেছেন !! আমি তো ভয়েই মরে যেতাম।নৌকাতে কখনো উঠিনি ।

২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ১:৫৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: আপনি কি মিষ্টি জাতিয় খাবার পছন্দ করেন? দই ছানা মিষ্টি ?

১৩| ২২ শে জুন, ২০১৯ সকাল ১০:৩৫

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: প্রিয় গুরুজি,

রেসিপি পড়েই তো জিভে জল চলে এলো। আহা! সঙ্গে যদি একটু পান্তা ভাত হতো ... ‌

২২ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:১১

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: পরিশ্রমী মানুষের জন্য পান্তা ভাত খুব উপকারী আর সাথে সামান্য ঝাল। বাংলাদেশের মানুষ শত শত বছর সুস্থ্য জীবন যাপন করেছে পাস্তা ভাত খেয়ে। যেই গরম কুত্তা (হট ডগ) খাওয়ার রেওয়াজ শুরু হয়েছে সাথে শুরু হয়েছে অসুস্থ্য থাকার প্রতিযোগিতা !!! তিন মনি উজনদার বস্তা এখন বাংলাদেশের মানুষ! খাদ্যরে দাম উচ্চমুল্য হওয়ার অন্যতম কারণ।

গুরু আপনার কমেন্ট পেলে লেখা স্বার্থক। ধন্যবাদ। রেসিপি পুরোটা দেওয়া আছে প্রয়োজনে মরিচ কম দিন কিন্তু খেয়ে দেখতে পারেন।

১৪| ২২ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:১১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: হে হে হে....দেশে আসলে এমনিতেই আমার পেট দুর্বল থাকে, কাজেই এই জিনিস খাওয়ার চান্স নাই, আর আইসিডিডিআরবি কলেরা হাসপাতালে ভর্তিরও কোন সুযোগ নাই।

এখানে কাশ্মীরি মরিচ নামে একটা মরিচ পাওয়া যায়, তেমন একটা ঝাল না। ওটা দিয়েই কাজ সারবো চিন্তা করছি! =p~

২২ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:২১

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: কাশ্মীরি মরিচ আহঃ আপনি তো মনটাই খারাপ করে দিলেন, ঝাল শরীরের বিপাকতন্ত্রের জন্য উপকারী, একটা বয়ষ আছে মন মতো খাওয়ার, আরেকটা বয়ষ আছে ঘাস লতা পাতা খাওয়ার। আপনার বয়ষ যদি মন ইচ্ছামতো খাওয়ার সময় থাকে তাহলে এই খাবার অবস্যই খাবেন। সবাই বাগে পেয়েছে আপনাকে পেটের প্রবলেম বলায়, মনে হচ্ছে তাদের পেটের প্রবলেম কখনো হয়নাই - হাঃ হাঃ হাঃ

১৫| ২২ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:৪২

নীল আকাশ বলেছেন: মানুষের কথায় এখন এতো ঝাল! করাত কলের প্রয়োজন পড়বেনা, মানুষের মুখের কথা দিয়ে বড় বড় শাল সেগুন গাছ ফালি ফালি করে কেটে দেওয়া যাবে, সম্ভবত।। - মাহমুদ ভাই খুব দারুন একটা কথা বলেছেন।

রেসেপিটা বাসায় একবার ট্রাই করে দেখতে হবে। তবে বরকত আলী মাঝির আন্তরিকতার প্রসংশা না করলেই নয়।

ভাল থাকুন এবং সুস্থ থাকুন। ধন্যবাদ।

২২ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:৫৮

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: নীল আকাশ ভাই, এতো দেড়ি হলো আপনার, আমি আপনার অপেক্ষায় ছিলাম। মানুষের জিব্বা হয়ে গেছে ব্লেডের চেয়েও কচকচে ধারালো - কথা দিয়ে মানুষ মানুষকে কেটে কেটে দু-চার টুকরো করছে !!! আপনি - আমি কোন জঙ্গলে বসবাস করি।

১৬| ২২ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:৪৪

পাঠকের প্রতিক্রিয়া ! বলেছেন: ঠাকুল মশাই তো দেখি রান্না বারাতেও একসপার্ট :D

অ. ট.
ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: (বিশেষ দ্রষ্টব্য:পাঠকের প্রতিক্রিয়া আপনি যা করছেন তা ব্লগিং নামে কলংক।)
_নিষিদ্ধ সাইটে আর কতোই উন্নত কমেন্ট করিবো। তবে চেস্টা মেস্টা করে দেখবো...


২২ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:৫২

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: আপনি মাথায় কুদুর তেল দিন। উপকার পেতে পারেন।
নিষিদ্ধ সাইট কে করেছে আমি - আপনি - আমরা ? এখন সুদ্ধু করার চেষ্টা করি নাকি ???

১৭| ২২ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:৪৪

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ভর্তা অনেক ভালো পাইছি :)

২২ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১:০০

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: আপা, আমি কি কারণে আমার ব্লগে পোষ্টে আপনাকে পাইনা ? আপনার জন্য আরো রেসিপি দেবো। ভালো থাকুন - সুস্থ্য থাকুন - ব্যাস্ত থাকুন।

১৮| ২২ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১:১২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: মাঝে কিছুদিন আমি নিজেই অনিয়মিত ছিলাম, তখন হয়ত আপনার কোন পোষ্ট সামনে আসে নাই তাই মন্তব্য করা হয় নাই;
ব্লগে নিয়মিত থাকলে অবশ্যই দেখা হবে :)

শুভ কামনা।

২২ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১:৫৭

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: শুভ কামনা।
ভালো থাকুন - সুস্থ্য থাকুন - ব্যাস্ত থাকুন।

১৯| ২২ শে জুন, ২০১৯ বিকাল ৫:২৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: খাবার দাবারের পোস্ট সাধারণত আপু ও ভাবীরা দিয়ে থাকেন । আমার মনে হয় তাদের দেওয়া পোস্টটি বেশি মানানসই।

২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ১০:৩৭

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: তারা পোষ্ট দিয়ে আপনাদের থেকে ৬০-৭০ টা কমেন্ট পায়, আর আমি পাই মাত্র ২০ টি কমেন্ট। কি করবো, ভাবছি আমি নিজেই একটা আপু নিক খোলে বসে যাবো - স্কুল খুইলাছে রে মাউলা - স্কুল খুইলাছে। মজা করলাম মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন ভাই। ধন্যবাদ পাশে থাকার জন্য।

২০| ২২ শে জুন, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫২

করুণাধারা বলেছেন: গল্পের নায়িকা মরিচ ভর্তা, সব আলোচনা তাকে নিয়েই! B-) কিন্তু আমার অন্য কিছু জানতে ইচ্ছা করছে; মালবোঝাই নৌকা যদি ডুবে যেত তবে কি হত? আজকের পত্রিকায় দেখলাম নৌকা ডুবি হয়ে গতকাল দু'টো বাচ্চা মারা গেছে। এমনিতে আমি মনে করি নৌপথ ব‍্যবহার করলে সড়ক পথের উপর চাপ কম হতো, তাতে এত যানজট হতো না। এমনকি ঢাকার চারপাশ ঘিরে যে চক্রাকার নৌপথ করার কথা, আমি সেটারও সমর্থক। শুধু একটাই ভয়, নৌকাডুবি হলে কি হবে? আমাদের দেশের বেশিরভাগ মানুষই সাঁতার জানে না যে!! আপনি সাঁতার জানেন?

২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ১০:৪৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: আমি সাতারে বাংলাদেশ ন্যাশনাল টিমে চ্যাম্পিয়ন ছিলাম। আমাদের সময় এতো এতো স্পন্সর ছিলো না, আর মিডিয়া ছিলো শুধু কাঠের বাক্স বাংলাদেশ টেলিভিশন। তাই দেশের বাইরে সাতারের জন্য যাওয়া হয়নি। তবে এক থালা ভাতের জন্য দেশে বিদেশে যেতে হয়েছে অনেক - এখনো যাই।

মৃত্যু যেভাবে আছে তা হবেই কিছু করার নেই। আপনাদের মন্তব্য পেলে ভালো লাগে লিখতে ইচ্ছে করে - থাকুন না পাশে।

২১| ২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ১১:১৪

মুক্তা নীল বলেছেন:

ঠাকুরদা ,

আপনার ভর্তার রেসিপিটি চমৎকার এবং পোস্টে ভীষণ ভালো লাগা। কেমন যেন খুব সুন্দর মাটির গন্ধ গেলাম । +++

২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ১১:২৪

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:

আপনার কমেন্টে পাঁচ তারকা সম্মানী দিলাম। ধন্যবাদ বোন।

২২| ২৪ শে জুন, ২০১৯ বিকাল ৫:৩৫

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: #মফিজ ভাইয়া হাহাহাহাহা....। একশত দুই পার্সেন্ট সমস্যা হবে হাহাহাহাহাহা

লোভনীয় তবে এখন বেশী ঝাল খেতে পারি না

২৪ শে জুন, ২০১৯ বিকাল ৫:৪৮

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: দেশে এতো এতো হাসপাতাল, ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, ক্লিনিক, ফার্মাসিটিক্যাল কোম্পানী, সহ ফার্মেসী সবাই তো না খেয়ে মারা যাবে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.