নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার লেখা কারো ভালো লাগলে ০১৮১৫৩৩৮৩৭৫ নাম্বারে বিকাশ কিংবা লোড নতুবা ডাক বিভাগের সেবা নগদে মজুরি পাঠালে আমি গর্ববোধ করবো ৷ আমার জীবনের বেশীরভাগ সময় আমি লিখে কাটাতে চাই, আমার ফেসবুকের ঠিকানা, www.facebook.com/abdur.sharif

আবদুর রব শরীফ

আমার লেখা কারো ভালো লাগলে ০১৮১৫৩৩৮৩৭৫ নাম্বারে বিকাশ কিংবা লোড নতুবা ডাক বিভাগের সেবা নগদে মজুরি পাঠালে আমি গর্ববোধ করবো ৷ আমার জীবনের বেশীরভাগ সময় আমি লিখে কাটাতে চাই, আমার ফেসবুকের ঠিকানা, www.facebook.com/abdur.sharif অথবা Abdur Rob Sharif

আবদুর রব শরীফ › বিস্তারিত পোস্টঃ

ছোট বেলার রবীরা...

২৩ শে মে, ২০২০ দুপুর ১২:১৩


ছবিতে, আজিজ গাজী রবী

ছোট বেলার অনেক স্মৃতিময় ক্যারেক্টার থাকে তার মধ্যে কখনো ভোলা যাবে না এমন একটি চরিত্রের নাম রবি,
.
চবি শোভাকলোণীতে আমাদের বন্ধু রবি আস্তে কথা বললেও মনে হতো বক্তব্য চলছে ৷
.
তার থেকে সব সময় টাকা থাকতো, এমন কোন ঈদ কোরবান নেই যে সে খেলনার দোকান দিতো না,
.
এমন হয়েছে তাকে ঈদের সেমাই চিনি খাওয়ার জন্য ডাকতেছে সে খেলনা বিক্রী শেষ না হওয়ার কারণে আসতে পারে নি ৷
.
ঈদ গা শেষ হলে পাড়ার রাস্তার মোড়ে বসে যেতো, ছোট বেলায় দেখা সমবয়সীদের মধ্যে সে ই সেরা উদ্যোক্তা,
.
শিশু অবস্থা থেকে সে ছোট খাট এমন ব্যবসা বাণিজ্য নিয়ে বিবিএ এমবিএ ৷ আচার, পিস্তল, পুতুল, বেলুন, চিপস থেকে শুরু করে লটারী...!
.
তার লটারীতে সব সময় বলতো ঘড়ি পাবো কিন্তু দিনশেষে কেবলি দুই টাকা দিয়ে এক টাকার চকলেট ই পেতাম ৷
.
একবার আমরা ঘড়ি পাওয়ার আশায় সব লটারী কিনেও সেখানে কোন ঘড়ির দেখা পেলাম না, তার মতে, ছোট্ট টোকেন হয়তো আঙ্গুলের ফাঁক দিয়ে পরে গেছে কোথাও ৷
.
পরের কোরবানে সে দেয়াল ঘড়ি আবারো লটারীতে, কয়েক মাস পর তার বাসায় গিয়ে দেখি সেই ঘড়ি তার ঘরের দেয়ালে ই ঝুলছে ৷
.
ফেসবুকে সে ফ্রেন্ড রিকু পাঠানোর পর বুঝতে পারলাম তার আসল নাম আজিজ গাজী, তার আইডি দেখার পর আমি ফিরে গেলাম সেই বাল্যকালে, যেখানে আমাদের সবার ঈদের বকশীশ তার পকেটে যেতো ৷
.
কখনো তাকে কারো সাথে রাগ করে কথা বলতে দেখিনি ৷ খোঁচা দিলেও হাসতো, মারলেও... মনে কোন ধরণের প্যাঁচ ছিলো না ৷
.
সবার সাথে নিজ থেকে কথা বলতো, যেনো সবাই তার ঘরের মানুষ, আপন ভাই ৷ জীবনের প্রয়োজনে এলাকা থেকে দূরে সরে গেলেও আবার ফিরে আসলে সবার সাথে দেখা করে ফিরতো,
.
তার বিক্রী করা খেলনায় আমাদের শৈশব হয়ে উঠতো রঙ্গীন ৷ আমাদের একটা গ্যাং ছিলো তার খেলনা চুরি করার জন্য ৷
.
তার সজাগ দৃষ্টি থাকতো সব সময় সেই শিশু গ্যাংয়ের উপর, তবুও আমরা সুন্দর করে বসে পাছার নীচ দিয়ে তার খেলনা পাচার করতাম কিন্তু বেঁচা বিক্রী শেষ হলে আবার বন্ধুত্ব ৷
.
সে এখন প্রবাসী, তার প্রেরণায় পরবর্তিতে আমরাও এলাকায় দোকান দিয়ে তার প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে উঠতে লাগলাম কিন্তু আমাদের শরম করতো, এলাকার ছোট ভাইকে পাটি বিছানো দোকানে বসিয়ে দিয়ে, সামনে দাঁড়িয়ে থাকতাম ৷
.
কিন্তু দিনশেষে আমরা লসে থাকলেও তার ই জয়জয়কার ৷ সে আমাদের ছোট বেলার কোটিপতি, এতো অল্প বয়সে মসজিদে প্লাস্টিকের টুপি দান করে আমাদের চোখে সে হয়ে উঠেছিলো দানবীর ৷
.
সেই টুপি মাথায় দিয়ে নামায পড়ে ভুলে মাথায় করে বাসায় নিয়ে আসলে সে আবার খোঁজ করে মসজিদে দিয়ে আসতো,
.
এগুলো সত্যি তখন বিশাল সামাজিক সম্পত্তি ছিলো ৷ সে ছিলো ব্যতিক্রম ৷ আমরা সবাই শার্ট প্যান্ট পাঞ্জাবী পরিধান করে নামাযে গেলেও আজিজ গাজী চকচকে লুঙ্গী, পাঞ্জাবী, মাথায় লাল ফুলের সাদা পট্টি বেঁধে, কড়া আতর মেখে ঈদ গায়ে যেতো...!
.
ওকে দেখে আমরা মজা পেতাম, টিপ্পুনি কাটতাম, তখন নিজেদের ওর চেয়ে স্মার্ট মনে হলেও এখন স্মৃতির মানসপটে আমাদের চেয়ে ওকেই স্মার্ট মনে হয় ৷ সে ছিলো অন্যরকম ৷ স্রোতের বিপরীত ৷
.
আমাদের সমবয়সীরা বড় হয়ে মনে হয় তাকে খুব বেশী মিস্ করি ৷ এই মানুষগুলোকে কখনো ভোলা যাবে না ৷ আপনি জীবনে অনেক বড় কিছু হলেও দিনশেষে নীড়ে ফিরে রবীদের খোঁজ করার মধ্যে জীবন খুঁজে পাবো ৷
.
ভালো থাকুক আমাদের জীবনের রবীরা, সূর্য হয়ে জ্বলজ্বল করুক ৷

মন্তব্য ৬ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (৬) মন্তব্য লিখুন

১| ২৩ শে মে, ২০২০ দুপুর ১২:১৭

রাজীব নুর বলেছেন: আজিজ গাজী ভালো থাকুক।

২৩ শে মে, ২০২০ দুপুর ১:২৩

আবদুর রব শরীফ বলেছেন: ভালো থাকুক চিরদিন ৷

২| ২৩ শে মে, ২০২০ দুপুর ১২:৪৬

আমি সাজিদ বলেছেন: দারুন লিখেছেন৷ সাবলীল।

২৩ শে মে, ২০২০ দুপুর ১:২৪

আবদুর রব শরীফ বলেছেন: আমার বন্ধু সাজিদ ছিলো, সে ও সাজিদ ৷

৩| ২৩ শে মে, ২০২০ দুপুর ১:২৮

নেওয়াজ আলি বলেছেন: চমৎকার লেখা ।

৪| ২৩ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:৫৬

আলোকরশ্মি22 বলেছেন: খুব ভালো লাগলো

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.