নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ভুয়া মফিজ

ভুয়া মফিজের সাথে ভুয়ামি না করাই ভালো...

ভুয়া মফিজ › বিস্তারিত পোস্টঃ

কিছুটা আত্মকথন, কিছুটা স্মৃতিচারন আর আমার গানের ভুবন!!!

০১ লা জুন, ২০২০ সকাল ১১:৩৩




কোন একটা ক্রাইসিসে একেক মানুষ একেকভাবে প্রতিক্রিয়া দেখায়। কারন, ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট সবার একরকমের হয় না। মানুষ হিসাবে আমি কেমন….…..দুর্বোধ্য নাকি সহজবোধ্য? প্রশ্নটা আমার নিজের কাছেই।

গত কয়েকদিন ধরে মাথায় ঘুরছে এই প্রশ্ন। কেন ঘুরছে তা যদিও জানি, তারপরেও মাথা থেকে এটাকে বের করতে পারছি না। মানব জীবনে মন খারাপ এবং মেজাজ খারাপ, দুটোই ক্রাইসিস। 'মন খারাপ'কে আমি হ্যান্ডেল করতে পারি; বেশ ভালোভাবেই পারি। কিন্তু কেন জানি 'মেজাজ খারাপ'কে একেবারেই পারি না। আর একবার মেজাজ খারাপ হলে তার প্রভাব পড়ে চারপাশে। তাতে পরিস্থিতি আরো নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। একসময়ে হাল ছেড়ে দেই। ভাবার চেষ্টা করি, যার ইচ্ছা সে মুড়ি খাকগে……..আমি আমার সুখ কেন নষ্ট করি!! শর্ট রানে এসব ভেবে আদপেই খুব একটা লাভ হয় না, পরিস্থিতিরও তেমন একটা উন্নতি হয় না। এমন অবস্থায় কোন একটা অপ্রত্যাশিত ঘটনা আমাকে পূর্বাবস্থায় ফেরাতে ম্যাজিকের মতো কাজ করে। প্রসেস অফ ডিফ্লেক্টিং দ্য মাইন্ড!!

ব্লগের একটা ব্যাপার নিয়ে গত কয়েকটা দিন মন-মেজাজ ছিল খুব খারাপ। ব্লগে আসতে ইচ্ছা করে না, আবার না এসেও পারি না। ছাড়া ছাড়াভাবে দু‘একটা পোষ্ট মাঝে-মধ্যে দেখি, কিন্তু কোন মন্তব্য করতে ইচ্ছা করে না।

এমনি এক অবস্থায় হঠাৎ বুলবুলভাইয়ের ফোন পেলাম। থাকেন পর্তুগালে। ব্যবসার কাজে ‍শুক্রবার লন্ডনে এসেছেন। ২/৩ দিন থাকবেন। জানালেন, কতোটা কাঠখড় পুড়িয়ে আমার নাম্বার উনি যোগাড় করেছেন। কাতর কন্ঠে অনুরোধ করলেন, আমি পারলে যেন রবিবারে একবার দেখা করি।

উনার এই একেবারেই অপ্রত্যাশিত ফোনকল পেয়ে আমি এক ঝটকায় ফিরে গেলাম আমার শৈশবে। উনার সাথে আমার শেষ দেখা হয়, সেটাও দেশে; প্রায় বিশ বছর আগে। একটা বিশেষ ঘটনার বা আরো নির্দিষ্ট করে বললে, ভুল বোঝাবুঝির গেরোয় পড়ে সেটাই শেষ দেখা এবং কথা বলা। এরপরে উনিও আমাকে সম্ভবতঃ ভুলে গেলেন, আমিও উনাকে। হঠাৎ বিদেশ-বিভুইয়ে উনার ফোন আমার কাছে বিনা মেঘে বজ্রপাতের মতোই একটা ব্যাপার! পুরানো ঘটনাগুলোকে একশত হাত দুরে ফেলে দিয়ে গতকাল লন্ডনে ছুটে গেলাম, দেখা করলাম। জানলাম, হঠাৎ পুরানো অভিমান ভুলে গিয়ে আমাকে খুজে বের করার কাহিনী। সেটা অন্য কাহিনী…….আপাততঃ সরিয়ে রাখি। দেখলাম, চুল-দাড়িতে সাদার আধিক্য ছাড়া মানুষটার তেমন একটা পরিবর্তন হয় নাই।

অনেক অনেক আগের কথা। আমি তখন ম্যাপল লীফ ইন্টারন্যাশনালের ক্লাস ফোরের ছাত্র। আমাদের পাশের বাসায় বুলবুল ভাইদের পরিবার এসে উঠলেন। অচিরেই দুই পরিবারের মধ্যে যাওয়া-আসা শুরু হয়ে গেল এবং এক পর্যায়ে উনার আব্বা-আম্মা আমার আব্বা-আম্মার জিগরী দোস্ত বনে গেলেন। পুরানো ঢাকায় তখন তরকারীর বাটি চালাচালির কালচার ছিল। কোন বিশেষ উৎসব বা উদযাপনের প্রয়োজন হতো না, এমনিতেই; যখন-তখন। ভর্তা-ভাজি থেকে শুরু করে যে কোন কিছুই আশেপাশে চালান হতো নিয়মিত। কারো বাসায় বাটি নিয়ে যাওয়া আমার ছিল চরম অপছন্দের একটা ব্যাপার, আম্মা তাই পারতপক্ষে আমাকে ঘাটাতেন না। একদিন দুপুরে বললেন, বুলবুল তোকে যেতে বলেছে, যা দেখা করে আয়……...আর যাওয়ার সময় এই বাটিটা নিয়ে যাস!!!

বুলবুল ভাইও ম্যাপল লীফে পড়তেন, ক্লাস নাইনে। উনাকে পছন্দ করতাম খুবই। ড্যাশিং টাইপের ছিলেন, আমাদের বয়েসীদের চোখে হিরো। কিন্তু কাছে ঘেষতাম না বয়সের বড় পার্থক্যের কারনে। দরজা উনিই খুললেন। আমাকে বসালেন, তারপরে বললেন, কিরে, তুই নাকি পড়ালেখা বাদ দিয়ে সারাদিন গান শুনিস? কি গান শুনিস? সে সময়ে আম্মাদের বাটি চালাচালির মতো আমাদের বন্ধুদের মধ্যে ক্যাসেট চালাচালি হতো। ব্যক্তিগত মালিকানার ক্যাসেট ছিল সীমিত। ঘুরে ফিরে হাত-বদল হয়ে যেসব গান শুনতাম তার মধ্যে ব্যান্ড হিসাবে যতোটুকু মনে পরে বি জি'স, ডীপ পার্পল, রোলিং স্টোন, এ্যাবা, বনি এম ইত্যাদি আর সোলো'র মধ্যে স্টিভি ওয়ান্ডার, রড স্টুয়ার্ট, ম্যাডোনা, জর্জ মাইকেল; আর ওয়ান এন্ড ওনলি মাইকেল জ্যাকসন তো ছিলই। বুলবুল ভাইয়ের ক্যাসেটের বিরাট কালেকশান ছিল। উনার হাত ধরেই স্করপিয়নস, ইগল্স এর মতো ব্যান্ড আর কান্ট্রি মিউজিকের জন ডেনভার, কেনি রজারর্স; এরিক ক্ল্যাপটন, ক্রিস ডি'বার্গ, ফিল কলিন্স, ডোনা সামার, উইলি নেলসনের মতো ক্যারিশম্যাটিক গায়কীর সাথে পরিচয় ঘটে আমার। আমার গান শোনার জগতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনেন উনি!!! ধুম-ধারক্কা থেকে এক ধাক্কায় মেলোডিয়াস!!

ক্লাস সেভেনে পড়ার সময়ে একটা বিশাল ঝড়ে আমার চেনা-পরিচিত জগতে এক বিরাট ধাক্কা লাগে। বুলবুল ভাই প্রেমের টানে দিওয়ানা হয়ে উনার এক ক্লাসমেটকে নিয়ে একবস্ত্রে গৃহত্যাগ করেন। এই তোলপাড় করা ঘটনায় আমার বড় চাচা আব্বাকে বললেন, এই কো-এডুকেশানের ইংলিশ মিডিয়ামের পোলাপাইনগুলার কামই হইলো গান শোনা, সারাদিন হৈ হুল্লোড় আর প্রেম করা। তোমার ঘরেও এমন একটা বান্দর আছে। অতএব সাধু সাবধান!!! বুলবুলভায়ের সাথে আমার অতিরিক্ত সখ্যতা কাল হয়ে দাড়ালো। আব্বা ম্যাপল লীফ থেকে আমাকে টেনে হিচড়ে বাড়ির পাশের ওয়েষ্ট এন্ড স্কুলে (পুরাই বয়েজ) এনে ধপাস করে ফেলে দিলেন। সেটা অবশ্য পরবর্তীতে আমার জন্য শাপে বর হয়ে দাড়ায়। ওখানে ইউনিফর্ম ছিল, তবে না থাকার মতো। সবাই ফ্রি-স্টাইলে চলাফেরা করতো। পরিচিত এলাকা হওয়াতে স্কুল পালানো আমার জন্য একটা রুটিন ওয়ার্কে পরিনত হয় একটা সময়ে।

মেট্রিক পাশ করার পরে বন্ধুরা সবাই ঢাকা কলেজ, সিটি কলেজ আর ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরী কলেজে ভর্তি হলো। আর আব্বা আমার কাতর আর্তনাদ আর শত অনুনয়-বিনয় সত্বেও আমাকে নিয়ে বস্তার মতো ফেললেন বহুদুরে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজে। উনার ভয় ছিল, ওয়েষ্ট এন্ডে আমি যেই বাউন্ডুলেপনা দেখিয়েছি, সেটা বহুগুনে বৃদ্ধি পাবে যদি আমি এই তিন কলেজের কোনটাতে পড়ি। কাজেই কড়া অনুশাসনের আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজই ভরসা। যেই আমাকে স্কুলে ইউনিফর্ম পড়তে হয় নাই, ক্লাশ শুরুর আগে এসেম্বলীতে দাড়াতে হয় নাই; সেই আমাকেই কলেজ লাইফকে ফর্দাফাই করে এসবের মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছিল তখন। বন্ধুদের কাছে তাদের আনন্দ আর স্বাধীনতা ভোগের কাহিনী যতোই শুনতাম, ততোই আব্বার উপর রাগ হতো! ইডেন আর বদরুন্নেছার সামনে বন্ধুদের আড্ডা দেয়ার লালা ঝড়ানো কাহিনী আমার কাছে শুধুই কাহিনী ছিল।

সে যাই হোক, দুর্জনের যেমন ছলের অভাব হয় না; আমারও তেমনি স্ব-গোত্রিয় বন্ধুর অভাব হয়নি। আমার দেখা সবচেয়ে ত্যাদড় পোলাপান হলো আর্মি অফিসারদের ছেলেপুলেরা। কেউ আবার অন্যভাবে নিবেন না, আমি শুধুই আমার অভিজ্ঞতা বললাম। তো একপর্যায়ে যথারীতি ক্লাস ফাকি দিয়ে সাগরিকা আর গ্যারিসনে সিনেমা দেখা, এদিক-সেদিক ঘোরাফেরা আর বিভিন্ন রকমের বদমাইশি কার্যকলাপ অচিরেই শুরু হয়ে যায়। আমার মতো একজন নিরীহ সাদাসিদা গোছের ভদ্র সন্তানকে কু-পথে পরিচালিত করার সম্পূর্ণ কৃতিত্ব ছিল তিন আর্মি অফিসারের সন্তানের। সঙ্গত কারনেই তাদের নাম বলছি না!!! বুলবুলভাইয়ের অভাবে আমার সঙ্গীত ভুবনে বিচরণের যে সাময়িক বিপর্যয় ঘটেছিল, সেটা আবার পূর্ণ মাত্রা ফিরে পায় এ'সময় কালেই। বলাই বাহুল্য, এই তিনজনের কাছেও ইংলিশ গানের বেশ বড় কালেকশান ছিল।

আপনারা আবার ভাববেন না যেন যে, আমি বাংলা গান শুনতাম না। অবশ্যই শুনতাম। তবে সেটা, আম্মা বা বড়বোনের বাজানো গানের পথচলতি শোনা। নিজস্ব সময়ে নিজের মতো করে শোনা না। তবে হ্যা, প্রেম শুরু করার পর আমরা বেশ ঘটা করে প্রেমের প্রথম বর্ষ উদযাপন করি। তখন আমার 'ইয়ে' আমাকে জগজীৎ সিং এর বাংলা গানের একটা ক্যাসেট উপহার দেয়। সত্যি বলতে, সেটাই আমার ব্যক্তিমালিকানাধীন প্রথম বাংলা গানের ক্যাসেট। বেদনা মধুর হয়ে যায়, বেশী কিছু আশা করা ভুল, তোমার চুল বাধা দেখতে দেখতে এর মতো চমৎকার চমৎকার সব গান ছিল ওটাতে।

আপনারা আমাকে চাইলে কটুকথা বলতে পারেন, তবে এখনও আমি আমার একান্ত সময়গুলোতে ইংরেজি গানই শুনি। কি করবো বলেন……..সারা জীবনের অভ্যাস! আমার কালেকশানে কতকগুলো গান আছে যেগুলো আমি যতোবারই শুনি, কখনও বোরড হই না। এগুলো আমি সারা জীবন শুনতে পারবো, কখনও পুরানো হবে না আমার কাছে। তার মধ্য থেকে এমনই কয়েকটা এভারগ্রীন গান আপনাদের সাথে শেয়ার করতে মন চাইলো। বেশীরভাগই হারানো দিনের গান, সবাই নিশ্চয়ই শুনেছেন; তবে আবার শুনেন, আর আমার মতোই হারিয়ে যান ফেলে আসা দিনগুলোতে।

Green Green Grass Of Home
Rhinestone cowboy
Jamaica farewell
My Heart Will Go On
Hotel California
Imagine
Home
Always On My Mind
When The Smoke Is Going Down
Lady In Red
Where are we going from here
Save The Last Dance For Me
Summer Wine
Imagine
Whiskey lullaby
What A Wonderful World
Wonderful tonight
Another Day In Paradise
Everything I Do
If Tomorrow Never Comes
Iris
Lebanese night
One More night
Right Here Waiting For You
Sailing
Send Me an Angel
So Beautiful
Stuck On You
When You Say Nothing At All
Everything That Glitters


সবার শেষে দুইটা রিফ্রেশিং মিউজিক দিলাম। প্রথমটা হলো একটা জার্মান মিউজিক্যাল প্রজেক্টের, নাম 'এনিগমা'; আর দ্বিতীয়টা ইকুয়েডরের মিউজিশিয়ান লিও রোজাস এর।

Mea Culpa
El Condor Pasa

আমি রাতের বেলা ঘর অন্ধকার করে ‍শুয়ে শুয়ে খুবই লো ভলিয়্যুমে শুনি…...চমৎকার লাগে; অন্য একধরনের জগতে চলে যাই তখন। সেই জগতে আপনাদেরকে নিমন্ত্রণ জানাচ্ছি!!!


গানগুলো সব ইউটিউবের কল্যানে, আর ছবিটা গুগলের।

মন্তব্য ৮০ টি রেটিং +২২/-০

মন্তব্য (৮০) মন্তব্য লিখুন

১| ০১ লা জুন, ২০২০ সকাল ১১:৪১

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: এই তিনজনের কাছেও ইংলিশ গানের বেশ বড় কালেকশান ছিল।
.............................................................................................
গান মানুষের মনে এক বিশাল জগত তৈরী করে,
সঠিক ভাবে যারা গানের ভক্ত বা গানের গভীরে ঢুকতে পারে
তারা একসময়ে জীবনের সুন্দরতম দিকটির সন্ধায় পায় ।


০১ লা জুন, ২০২০ দুপুর ১২:১৮

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনার দার্শনিক কথাগুলো খুব ভালো লাগলো। শুভেচ্ছা নিবেন। :)

২| ০১ লা জুন, ২০২০ দুপুর ১২:০৬

জুন বলেছেন: ওহ ভুয়া আপনার পছন্দের গানের সাথে আমার পছন্দের গানের এত মিল ক্যানো :-* শুরু করলেনই প্রিয় গায়ক টম জোনসের "গ্রীন গ্রীন গ্রাস" দিয়ে। টম জোনসের অন্যান্য বিখ্যাত গানগুলোও অনেক আবেদনময়।
আপনার ব্যান্ডের সবগুলোই আমার প্রিয় ব্যান্ড। বিজিস এর গানগুলো অসাধারণ, স্টেইং এলাইভ কয়জন গাইতে পারবে বলেন? তাদের মত আর কেউ গাইতে পারে নি। ম্যাডোনার রেইন আর মাইকেলের বিলি জিন ক্লাসিক। পরবর্তীতে বার্লিনের টেক মাই ব্রিদ এওয়ে বহুবার শোনা একটি গান তেমনি সিলের প্রেয়ার ফর ডাইং। ডুরান ডুরানের কাম আন ডান। কত গান কত স্মৃতি। স্টারি স্টারি নাইট। খুব ভালো লাগলো আপনার স্মৃতিচারন বিশেষ করে প্রিয় বিষয় নিয়ে লেখাটি।
+

০১ লা জুন, ২০২০ দুপুর ১২:২৫

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনার পছন্দের সাথে আমার পছন্দ মিলে যাওয়াতে সন্মানীত বোধ করছি।

"গ্রীন গ্রীন গ্রাস" এখানে যেটা দিয়েছি এটা অস্কার হ্যারিসের গাওয়া। আমার কালেকশানেরটা অবশ্য টম জোনসেরই। কিন্তু ইউটিউবে ওর যেগুলো পেয়েছি সবই লাইভ। তাই এটা দিলাম। অস্কার হ্যারিসও খুব সুন্দর করে গেয়েছে। আপনি যে গানগুলো উল্লেখ করেছেন সবই আমার চরম পছন্দের। পছন্দমতো মাত্র কয়েকটা দিয়েছি এখানে। আরো অনেক দিতে ইচ্ছা করছিল, কিন্তু কতোই বা আর দেয়া যায় বলেন!! :)

স্টারি স্টারি নাইট টা এখন শুনছি। আমার অল টাইম ফেভারিট একটা গান! :)

৩| ০১ লা জুন, ২০২০ দুপুর ১২:০৭

মা.হাসান বলেছেন: আপনি সিনিয়র তাহা জানিতাম , তবে মেট্রিক পরীক্ষা দেওয়ার মতো সিনিয়র তাহা জানা ছিল না। আমার অভিবাদন গ্রহণ করুন। আপনার কালে এলা ফিটজেরাল্ড বা ইন্ক স্পোর্ট বিখ্যাত ছিল। যাদের নাম বলিলেন সবই আপনার হাঁটুর বয়সী হইবে।

শামসুন্নাহার হলের দেয়ালের বাহিরে দাঁড়াইয়া এক হাফ প্যান্ট পরা যুবক সেরেনেড গাহিতো বলিয়া পুরাতন দিনের লোকজনদের মুখে শুনিয়াছি। অনুমান করি উহা আপনি হইবেন। তখন কি আপনি কি স্কুলে ?কলেজে ? না বিশ্ববিদ্যালয়ে?

গতকাল ডমিনিক কামিংস এর গাওয়া 500 miles শুনিলাম । অসাধারণ লিরিক্স। বিরাতে যাহারা থাকে তাহারা কতইনা সৌভাগ্যবান (অবশ্যই আম্রিকানদের চাইতে কম)।

০১ লা জুন, ২০২০ দুপুর ১২:৩৬

ভুয়া মফিজ বলেছেন: এস এস সি রে না হয় মেট্রিকই কইলাম, তাই বইলা এত্তো সিনিয়র বানাইবেন? নট ফেয়ার!! আমি মনের দিক দিয়া এখনও বাও কি তেও!!! :P

আপনার কল্পনা-শক্তি নিয়া দ্বি-মত পোষন করার কোন কারন নাই। অসাধারন কল্পনা। আহা.....যদি সত্যি সত্যিই সত্যি হতো!!

সৌভাগ্যবান আর হইতে পারলাম কই! বিলাতে ভিটামিন ঠিকমতো পাওয়া যায় না। আম্রিকায় আবার সেটা অত্যাধিক পাওয়া যায়। ওখানকার পানি, চাউলসহ সবকিছুই ভিটামিনে সয়লাব। তাদের সাথে আমাদের তুলনা করাও একধরনের ক্রিমিন্যাল অফেন্স। আল্লাহ আপনাকে সঠিক বুঝ দান করুন; আমিন। :-B

৪| ০১ লা জুন, ২০২০ দুপুর ১২:৩৬

রাজীব নুর বলেছেন: গান যেটা আপনার ভালো লাগবে সেটাই শুনবেন। এটাই নিয়ম। খাওয়া, ঘুরে বেড়ানো, জামা কাপড়, গান সব কিছুতেই নিজের পছন্দ প্রাধান্য দিবেন।

০১ লা জুন, ২০২০ দুপুর ১২:৪০

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনার কথা শুনে শান্তি পেলাম। করোনার এই দুর্যোগময় মুহূর্তে এই শান্তি দেয়ার জন্য আপনাকে মোবারকবাদ। :)

৫| ০১ লা জুন, ২০২০ দুপুর ১২:৫৬

ঢাবিয়ান বলেছেন: স্বর্নালী সব দিনের কথা মনে করাই দিলেন। তবে যেই স্কুলে পড়সি সেইখান থেকে স্কুল পালানোর একমাত্র শাস্তি ছিল টিসি।তাই এই দুঃসাহস দেখানোর সাহস কেউ করত না। তবে স্কুলের ভেতরেই কাটিয়েছি বড় চমৎকার সময়। টাইটানিকের'' মাই হার্ট উইল গোন অন'' এর সময়কালে আপনি কিসে পড়তেন? আমি তখন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তাম। পুরা ব্যাচের সব ছাত্র ছাত্রীরা মিলে মধুমিতা হলে দেখসিলাম এই ঐতিহাসিক মুভি। আহ কি যে মধুর সব দিনগুলি ছিল

০১ লা জুন, ২০২০ দুপুর ১:০৭

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আমি তখন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তাম। আমি তখন পড়ার পাট চুকিয়ে ফেলেছি। B-)

আহ কি যে মধুর সব দিনগুলি ছিল কথাই তো আছে....... যায় দিন ভালো, আসে দিন খারাপ। পেছনে তাকিয়ে দেখলে মনে হয় এই তো, সেই দিনের কথা। কিন্তু মেঘে মেঘে বেলা অনেক হয়ে গেল। ঠুস করে একদিন মরে যাবো, কি বলেন!

ওয়েষ্ট এন্ড স্কুলে পালানোর শাস্তি টিসি দিলে স্কুলই প্রায় খালি হয়ে যেতো সে'সময়ে। এখন কি অবস্থা অবশ্য জানি না। ;)

৬| ০১ লা জুন, ২০২০ দুপুর ২:৪৭

কাজী আবু ইউসুফ (রিফাত) বলেছেন: John Denver - বাদ গেল!

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:১১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: প্রচুর গান আর নাম। সবার গান তো দেয়া সম্ভব না। জন ডেনভারের গাওয়া আমার প্রিয় একটা গান, Sunshine On My Shoulders

৭| ০১ লা জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৫০

করুণাধারা বলেছেন: ব্লগের কোন ব্যাপার দেখে আপনার মেজাজ প্রচন্ড খারাপ হল জানিনা! ভাগ্যিস বুলবুল ভাই এত বছর পর এসেছিলেন, তাই স্মৃতির ঝাঁপি খুলে গেল, আর আপনি চমৎকার কিছু গান নিয়ে হাজির হলেন!

আমি অবশ্য খুবই প্রাচীনপন্থি, বেশিই শুনি রবীন্দ্রসঙ্গীত। একদা কিছু ইংরেজী গান শুনতাম, কিন্তু তার সাথে আপনার গানগুলোর মিল পাইনি :( একটা এখন শুনলাম, ভালো লাগলো বেশ।

আপনি আমার শেষ পোস্টে মন্তব্য করেছিলেন, সেটা সহ সব মন্তব্যর উত্তর দিয়েছিলাম। কিন্তু পরে একটা পোস্ট পড়ে মনে হলো আমি বিপদে পড়তে পারি। এমনিতে নানারকম দুশ্চিন্তার মধ্যে থাকি, নতুন করে আরেকটা দুশ্চিন্তা বেড়ে যাচ্ছিল দেখে পোস্ট সরিয়ে ফেললাম। জানিনা আপনি আমার উত্তর দেখেছিলেন কিনা। যদি না দেখে থাকেন তবে দুঃখপ্রকাশ করছি, আর আরেকবার ধন্যবাদ জানাচ্ছি মন্তব্যের জন্য। শুভেচ্ছা।

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:২০

ভুয়া মফিজ বলেছেন: বাদ দেন, মেজাজ খারাপের কথা বলে লাভ নাই।

ইংরেজি গান শুনলে আধুনিক, আর রবীন্দ্রসঙ্গীত শুনলে প্রাচীনপন্থি, এই কনসেপ্ট কই পেলেন? আমি নিজেও তো প্রাচীনপন্থি, তাই প্রাচীন গান শুনি!! আমার বউয়ের কল্যানে রবীন্দ্রসঙ্গীতও শুনি। তাহলে আমি আসলে কি? মিক্সডপন্থি?? :-B

আপনি কোন গানগুলি একদা শুনতেন? ২/১টা স্যাম্পল পেলে মনে শান্তি পেতাম। :P

নতুন করে আরেকটা দুশ্চিন্তা বেড়ে যাচ্ছিল দেখে পোস্ট সরিয়ে ফেললাম। কোন পোষ্ট? আর উত্তর দেখেছি কি না, মনে নাই। যাই হোক, সরিয়ে ভালো করেছেন। শুধু শুধু লাইফকে কম্প্লিকেট করে কি লাভ!

৮| ০১ লা জুন, ২০২০ বিকাল ৫:০৫

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: স্মৃতি কখনো মধুর কখনো বেদনাবিধুর।

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:২৩

ভুয়া মফিজ বলেছেন: সেজন্যেই তো জগজীৎ সিং গেয়েছেন, বেদনা মধুর হয়ে যায়......ব্লা ব্লা ব্লা ব্লা ব্লা!!!! =p~

৯| ০১ লা জুন, ২০২০ বিকাল ৫:০৯

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ার সময় দুমাস ধরে যে ফেস্ট হতো সেখানেই একদিকে থাকতো আমার মত গ্রামের ছেলেমেয়েদের একটা গ্রুপ আর অন্য দিকে থাকতো শহুরে ইংরেজি গান জানা ছেলেমেয়েদের আরেকটি গ্রুপ। খুব অবাক হতাম একই বয়সে ওরা এত স্মার্ট হল কি করে? কথায় কথায় ইংরেজি বলে,বিভিন্ন ব্র্যান্ডকে ইংরেজি গান গাইতে অনুরোধ করে। অবশ্য ইউনিভার্সিটি ফেস্টে বরাবরই ব্রান্ডের কদর ছিল। ওদেরকে আমরা হাইল্যান্ডের গুড বয় বা গার্ল বলতাম। জীবন যাপনেও বিস্তর ফারাক ছিল। আপনি এপারে থাকলে আমি নিশ্চিত আপনিও আমার দেখা তাদেরই একজন হতেন।হেহেহে...

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:৩২

ভুয়া মফিজ বলেছেন: বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ার সময় দুমাস ধরে যে ফেস্ট হতো সেখানেই একদিকে থাকতো আমার মত গ্রামের ছেলেমেয়েদের একটা গ্রুপ আর অন্য দিকে থাকতো শহুরে ইংরেজি গান জানা ছেলেমেয়েদের আরেকটি গ্রুপ। আপনি তো দেখি বর্ণবাদী মন্তব্য করলেন। দুই দিকে থাকার দরকার কি? সবাই মিলেমিশে একদিকে থাকলেই তো হতো!! :P =p~

বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন পড়তাম, তখন গ্রাম-শহর কোন ব্যাপার ছিল না আমার কাছে। গ্রাম বা মফস্বল শহর থেকে আসা অনেক বন্ধু ছিল আমার। তাদের অনেকের বাড়িতে বেড়াতেও গিয়েছি সময়ে সময়ে। আমার সাথে যে মিশতো, আমি তার সাথেই মিশতাম। তবে আমার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের কারনে আমি কোন সময়েই আগ বাড়িয়ে কারো সাথে মিশতাম না। এখনও তাই। এখানে শহর-গ্রাম বলে কিছু নাইরে ভাই! :)

১০| ০১ লা জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫৭

মিরোরডডল বলেছেন: ওয়াও, ভুমের গানের পছন্দের সাথে আমার অনেক অনেক মিল ।
এই সেদিনও আমার লাস্ট পোষ্টে কেনি রজার, স্করপিয়ন্স, সামার ওয়াইন, রড স্টুয়ার্ট এদের গান শেয়ার করলাম ।

https://www.somewhereinblog.net/blog/MirroredDoll/30299321

হোয়াট এ কোইন্সিডেন্স :)

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:৩৭

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ভুম!!!! আপনি তো দেখি আমার নিকে নতুন মাত্রা যোগ করলেন!!! :-B

লিঙ্কটা দেয়ার জন্য ধন্যবাদ। অবশ্যই দেখবো।

হোয়াট এ কোইন্সিডেন্স রিয়েলি ইট ইজ!! :)

১১| ০১ লা জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৪

মিরোরডডল বলেছেন: ভুমের লিস্টের এই গানগুলো আমার পছন্দের লিস্টে আছে ।
আরও অনেক আছে যেগুলো এখানে নেই বাট আই’ম সিউর মিলে যাবে :- )
Jamaica farewell
My heart will go on
Hotel California
Imagine there’s no heaven
Let me go home (I just love this song, মাস্ট অটো রিপিট)
When the smoke is going down (Scorpions my topmost favourite)
Lady in red
Summer Wine
Paradise
Everything I do
Right here waiting for you
Send me an angel
When you say nothing at all

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:৪৬

ভুয়া মফিজ বলেছেন: এত্তোগুলো যখন মিলেছে, বাকীগুলো না মেলার কোন কারন নাই। এই গানগুলো যারা যারা পছন্দ করবে তাদের টাইপ/ক্যাটাগরী এক রকমের হওয়াটাই স্বাভাবিক!!

'পছন্দের উপর পছন্দ' বলে যে একটা কথা আছে, সেটাও আপনার সাথে মিলে। যেমন, স্করপিয়নস আমার সবচেয়ে পছন্দের ব্যান্ড গ্রুপ। আর মাইকেল বুবলে'র ''হোম'' শুনলে আমার শুধু দেশে যেতে ইচ্ছা করে।:) মাস্ট অটো রিপিট স্ট্রংলি এগ্রিড!

১২| ০১ লা জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১১

জুন বলেছেন: মিররডলের সাথে বলতে চাই রিচার্ড মারক্স এর ওয়েটিং ফর ইউ , লাইওনেল রিচির হ্যালো, রড স্টুয়ার্ট আরো অনেক অনেক গান। কোনটা রেখে কোনটা বলি।

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:৫০

ভুয়া মফিজ বলেছেন: কোনটা রেখে কোনটা বলি। এইতো আসল কথা কইছেন। আমার অলটাইম ফেভারিটের তালিকায় রিচার্ড মার্ক্স আর লায়োনেল রিচি'ও যে আছে! কয়জনের কথা যে বলি!!! B-)

১৩| ০১ লা জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৯

মিরোরডডল বলেছেন: I like Leo Rojas too.

আনাদার কোইন্সিডেন্স , কাল রাতে রিস উইদারস্পুনের ওয়াইল্ড মুভিটা দেখছিলাম । গুড ওয়ান ।

মুভি থিম সঙ ছিল এটা
El Condor Pasa

অনেকদিন পর শুনে ভালো লাগছিলো, তাই যতক্ষণ ঘুম না আসে এই গানটাই শুনছিলাম ।

আরও কিছু প্রিয় গান শেয়ার করে গেলাম
nothing gonna change my love for you

Annie's Song - its my national anthem :-)

"Come let me love you
Come love me again"

please stay

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:৫৮

ভুয়া মফিজ বলেছেন: প্রথম দু'টা তো খুবই প্রিয়.....বহুবার শোনা। তবে মডার্ন টকিংয়ের প্রচুর গান শুনলেও, ইটস এ নিউ ওয়ান। এটা শুনিনি আগে। শুনছি এখন। থ্যাঙ্কস ফর শেয়ারিং।

এনিগমা আর লিও রোজাস শুনতে শুনতে ঘুমিয়ে গিয়েছি বহুবার......সো রিফ্রেশিং!! :)

১৪| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:৩২

কাছের-মানুষ বলেছেন: আপনার গানের কালেকশন ভাল।আমি শুনব। বুলবুল ভাই এর প্রেমের পরিনতি কি হয়েছিল?

আমাদের সাথে স্কুলে এক মেয়ে পড়ত, সেই মেয়েও মেট্রিক পরিক্ষা দিয়ে ইস্কে দেওয়ানা হয়ে আরেক জনের সাথে বেগে গিয়েছিল। তখনকার সময় এই ব্যাপারগুলো খুব হট টপিক হয়ে মানুষের মুখে মুখে ঘুরত!!

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:০২

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ধন্যবাদ। অবশ্যই শুনবেন। তবে কতো আর দেয়া যায়.......অল্প কয়েকটা দিয়েছি মাত্র। :)

উনারা বিয়ে করেছিলেন.......তবে পরে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

তখনকার সময় এই ব্যাপারগুলো খুব হট টপিক হয়ে মানুষের মুখে মুখে ঘুরত! আমাদের সময়ে প্রেম করে বাড়ি থেকে ভেগে যাওয়া বিশাল কেলেংকারী এবং প্রলয়ংকরী ব্যাপার ছিল! :)

১৫| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:৩৫

কল্পদ্রুম বলেছেন: বুড়োদের হারানো দিনের গল্প শুনতে/পড়তে ভালোই লাগে।বুড়ো বলাতে আমার রাগ করবেন না। :)
Hotel california র স্পেনিশ ভার্সনটা কয়েকদিন আগে শুনলাম।মূল গানের থেকে অন্যরকম।

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:০৬

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনি কি স্কুলে পড়েন নাই, ''কানা'কে কানা বলিও না, আর খোড়া'কে খোড়া''!! তবে আমি বরাবরই স্ট্রেইট ফরোয়ার্ড মানুষ, তাই বুড়াকে বুড়া বলায় রাগ করি নাই। B-)

Hotel california র স্পেনিশ ভার্সনটা কয়েকদিন আগে শুনলাম।মূল গানের থেকে অন্যরকম। সম্ভব হলে লিঙ্কটা দিয়েন। শুনে দেখি, কেমন করেছে।

১৬| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৮:৫৯

ইসিয়াক বলেছেন: আপনার স্মৃতিচারণে আমারও পুরানো স্মৃতিগুলো ফিরে এলো উজ্জ্বল ধুমকেতু হয়ে। যেন দমকা হাওয়ার মতো হঠাৎ।মিশ্র অনুভূতি।
আজ সকালে আপনার পোস্ট পড়ার পর থেকে সারাদিন শুধু প্রথমত একটু মন খারাপ তারপর কিছু ভালো লাগা সাথে কিছু অম্লমধুর স্মৃতিরা ভীড় করে আসছিলো বারবার। যদিও আমি আমার জীবনের সবচেয়ে সেরা সময়ের দিনগুলোর কথা, পুরানো সুখ আনন্দের ক্ষণগুলোকে সযতনে ভুলে থাকতে চাই বরাবর।তবু মনে পড়ে যায় বিভিন্ন ঘটনার পরিপেক্ষিতে, যাক সে সব........।
# আমার প্রথম স্কুল ছিলো ম্যাপল লীফ স্কুল । সেই সুত্রে আমরা দুজনে তাহলে একই স্কুলে পড়েছি :-B
আমাদের ড্রাইভারের ভুলের কারণে সেই স্কুল ছাড়তে হয়েছিল আমাকে,তখন আমি নিতান্ত শিশু। সামান্যর জন্য দূর্ঘটনা থেকে বেঁচে ফিরে ছিলাম সে যাত্রায়।
এ ঘটনার পরে আব্বা কারো কাছে আর একা একা ছাড়তেন না।তারপর বাড়ির কাছে ইকবাল রোডে অবস্থিত মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরী স্কুলে আমাকে ভর্তি করিয়ে দেন। আমি মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরী স্কুলের প্রথম ব্যচের ছাত্র ছিলাম। তখন ছেলে মেয়ে সবাই একসাথেই পড়তাম।
পোস্টে ভালো লাগা। শুভকামনা।

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:১৫

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আমার প্রথম স্কুল ছিলো ম্যাপল লীফ স্কুল । সেই সুত্রে আমরা দুজনে তাহলে একই স্কুলে পড়েছি ওয়াও! এই সিচ্যুয়েশানে কি চিমটি কাটার ব্যাপার আছে? থাকলে চিমটি!!! :P

আপনি তো দেখি বেশ ইউনিক! মানুষ সাধারনতঃ আনন্দের ক্ষণগুলোকে সব সময়ে মনে করে, আর আপনি ভুলে থাকতে চান! যাই হোক, ঢাকায় আমাদের বাড়ি কিন্তু ইকবাল রোডে, মাঠের একদম কাছ ঘেষে। তবে কোনদিকে তা বলবো না। =p~

যাই হোক, একটা মিল আছে। দু'জনকেই ভিন্ন কারনে হলেও স্কুল বদলাতে হয়েছিল।

১৭| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:১০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ বুলবুল ভাই কে উনার কল্যাণে আপনার ফ্যাব লিস্ট আমাদের সামনে আসলো।

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:১৮

ভুয়া মফিজ বলেছেন: বুলবুল ভাইকে ধন্যবাদ এই জন্য দিতে পারেন যে, উনার কারনে আমার ফ্যাব লিস্ট পার্শিয়ালী আপনাদের সামনে এসেছে। পুরাটা দিলে অনেক কয়টা পর্ব হয়ে যাবে। =p~

গানগুলো এবার শুনতে থাকেন এক এক করে। :)

১৮| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:২৫

ইসিয়াক বলেছেন: পশ্চিম দিকে।

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:৩৭

ভুয়া মফিজ বলেছেন: কি জানি! ইংল্যান্ডে বসে ঢাকার মোহাম্মদপুরের দিক বুঝতে পারছি না!!! =p~

১৯| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:৪২

শায়মা বলেছেন: "ভাইয়া বেদনা মধুর হয়ে যায়" সেই প্রেম উফার ক্যাসেটের ছবি তুলে দেখাও আমাদেরকে ! :)

ব্লগের ব্যাপারে মেজাজ আড় মন খারাপ করা আর উলু বনে মুক্তা ছড়ানো একই কথা....

সো নো চিন্তা.....

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:৪৮

ভুয়া মফিজ বলেছেন: সেই ক্যাসেট কি আর আছে এখন! ক্যাসেটও নাই, আমার প্রিয় পাইওনিয়ারের সেই ডেকসেটটাও নাই। কালের গর্ভে হারিয়ে গিয়েছে। :((

ব্লগের ব্যাপারে মেজাজ আড় মন খারাপ করা আর উলু বনে মুক্তা ছড়ানো একই কথা.... তা ঠিক, বুঝি; তারপরেও মেজাজ খারাপ হয়, কি করবো। মানুষ হওয়ার জ্বালা আছে না!!! :-B

২০| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:৪৪

ইসিয়াক বলেছেন: মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরী স্কুলে সম্ভবত শারমিন নামে একটা মেয়ে পড়তো।ওয়ানে কি টুতে হবে এতোদিন পরে ঠিক মনে নেই। আমার খুব মনে পড়ে মেয়েটি কি একটা অসুখে মারা গিয়েছিলো । ইকবাল রোডেই তাদের বাসা ছিলো ।স্কুলের সবাই আমরা খুব কষ্ট পেয়েছিলাম। তাকে দেখতে গিয়েছিলাম তার বাসাতে। এখনো ব্যপারটা আমাকে খুব নাড়া দেয়।
শুভকামনা।

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:৫৪

ভুয়া মফিজ বলেছেন: সেই বয়সে আপনার বান্ধবীর চলে যাওয়া.....দুঃখজনক, নাড়া দেয়ারই কথা। কিছুই করার নাই......কিছু ব্যাপারে তো মানুষের কোন হাত নাই। তবে, একদিক দিয়ে ভালোই হয়েছে, তাকে কষ্ট করে বর্তমানের করোনা সমস্যা মোকাবেলা করতে হচ্ছে না, পরপারে বরং শান্তিতে আছে।

২১| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:৪৫

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: আপনার কথা শুনে শান্তি পেলাম। করোনার এই দুর্যোগময় মুহূর্তে এই শান্তি দেয়ার জন্য আপনাকে মোবারকবাদ।


তাহলে আরেকটা কথা বলি- প্রতিদিন দুইটা করে মুভি দেখুন।

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:৫৮

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনি তো আছেন শান্তিতে। দেশের বাইরে থাকলে বুঝতেন প্রতিদিন দুইটা করে মুভি দেখা আপনার বউ কিভাবে বের করতো, ধাক্কা দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দিতো। রাতে ঠান্ডার মধ্যে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরতেন তখন!! :P

ব্লগেই সবসময়ে আসতে পারি না!!! :(

২২| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ৯:৪৮

সাহাদাত উদরাজী বলেছেন: কোন কিছুতেই মনযোগ দিতে পারছি না, গান শুন্তেও মন চায় না! সুন্দর পোষ্ট!

০১ লা জুন, ২০২০ রাত ১০:০১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনার অবস্থা তো দেখি কাহিল। এনিগমা বা লিও রোজাস শুনে দেখেন, পরিস্থিতির কোন উন্নতি হয় কিনা!! ;)

২৩| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ১০:১১

অপু তানভীর বলেছেন: বুঝতে শেখার পর থেকে আমি গান পাগল ছিলাম বেশ । তবে আমার শোনার গান গুলোর ভেতরে বাংলা গান ছিল বেশি । ছোট বেলাতে ইংরেজি গান বলতে কেবল মাইকেল জ্যাকশন আর মর্ডান টকিং চিনতাম । এছাড়া ব্যকস্ট্রিট বয়েজ, ব্লুর কয়েকটা গান হয়তো শোনা যেত । এছাড়া আমার ছোট বেলায় আর কোন ইংরেজি গান শোনা হয় নি । যা শুনেছি সব বাংলা । আমাদের বাসায় ফিতার ক্যাসেটে বাংলা গানের অনেক কালেকশন ছিল । আরেকটু বড় হলে নিজে নিজেও খুজে বের করতাম নানান ধরনের গান । তবে সেখানে ইংরেজিটার পরিমান ছিল অনেক কম । পাওয়া যেত না । স্থানীয় দোকান গুলো ইংরেজি গান গুলো নিয়ে আসতো না ।
ঢাকার আসার পরে অনেক ইংরেজি গানের সাথে পরিচয় হয়েছে । আর মনে হয়েছে এই গানের ভান্ডার গুলো আসলে কোথায় ছিল । আপনার পছন্দের লিস্টের মধ্যে আমার পরিচিত গান খুবই কম । পাঁচ ছয়টা মাত্র । তবে সামার ওয়াইন আমার খুবই পছন্দের গান ।

আপনার স্মৃতিচারণ পড়ে ভাল লাগলো । নিজেও খানিকটা স্মৃতিকাতর হয়ে পড়লাম । আগে গান যোগার করতে কত কিছুই না করতে হত । এখন তো ইউটিউবে একটা সার্চ দিলাম আর গান চলে আসলো । তখনকার গান গোনার ভেতরে অন্য রকম একটা ব্যাপার ছিল ।

০২ রা জুন, ২০২০ সকাল ১০:২০

ভুয়া মফিজ বলেছেন: গান শোনাটাই আসল কথা। যে যার পছন্দ মতোই শুনবে। সবার পছন্দ তো একরকমের হবে না। একটা কথা দারুন বলেছেন, আগে গান যোগাড় করতে কত কিছুই না করতে হতো।। মনে পড়ে গেল কিভাবে আগে ফ্যাব লিস্ট বানাতাম।

বিভিন্ন জায়গা থেকে শোনা যে গানগুলো ভালো লাগতো, সেগুলো একটা নোটবুকে টুকে রাখতাম। তারপরে একটা ক্যাসেট পরিপূর্ণ হওয়ার মতো হলেই চলে যেতাম দোকানে। তখন এলিফ্যান্ট রোডে ছিল গানের ডালি আর নিউ এলিফ্যান্ট রোডে ছিল রিদম। এরা ক্যাসেটে পছন্দের গানগুলো রেকর্ড করে দিত। :)

সেই ক্যাসেট ঘরে না আসা পর্যন্ত শান্তি পেতাম না, অস্থির অস্থির লাগতো। আর এখনকার কথা আর কি বলবো। এক কম্পিউটার যে কতো ধরনের ব্যাবসা বন্ধ করে দিল, চিন্তা করলেও অবাক লাগে!

২৪| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ১১:০৩

রাকু হাসান বলেছেন:

অফলাইনে আমার পোস্টের গানগুলো শুনছিলাম মফিজ ভাই। এখানে কিছু গান আছে যেগুলো আমিও শুনি । দারুণ শেয়ার প্রিয়তে রাখলাম । :)

০২ রা জুন, ২০২০ বিকাল ৪:০৬

ভুয়া মফিজ বলেছেন: গানগুলি শোনা আর পোষ্ট প্রিয়তে নেয়ার জন্য ধন্যবাদ। কষ্ট কিছুটা সার্থক হলো আমার! :)

২৫| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ১১:২৩

শের শায়রী বলেছেন: কামডা কি ঠিক করছেন X(( ? ব্লগের উপ্রে মেঝাজ দেখাইয়া হুদাই আমাগো পেরেশানিতে ফালাইলেন। তাইতো কই গ্যাছে কৈ? যাউজ্ঞা আইছে আইছেন এক্কেরে মনের মত কিছু গান লইয়া। স্বজাতি, রাগ বিরাগ অনুরাগের বশবর্তী হইয়া এই ব্লগে কিছু করুম না এইডা তো ব্লগে লিখার সময়ই শপথ নিয়া আইতে হয়। দারুন কিছু গান দিছেন, সব শুনি নাই, তবে কিছু শুনছি। এনিগমা প্রচুর শুনছি এক সময় লাইট নিভাইয়া। তয় আমার কিন্তু ভালো লাগা বাংলা আর গজলে।

বুলবুল ভাইয়ের কাহিনী এক দিন সময় কইরা শুনাইয়েন। আর আপনি যাদের নাম নিছেন মানে ইংরেজী গায়ক প্রায় প্রত্যেকেই আমারো খুব পছন্দের কারন মেলোডিয়াস। আর রক, মেটাল, হেভী মেটাল এই গুলা শুনি না কারন এইগুলার কথা কিছু বুজি না, মানে এই সব গানে যে সব কথা থাকে তা বোজার সাধ্য আমার মত গাইয়া পোলাপানের নাই, তাই শুনিও না :)

০৩ রা জুন, ২০২০ রাত ১:৪৫

ভুয়া মফিজ বলেছেন: রাজীব নুর বলেছেন: গান যেটা আপনার ভালো লাগবে সেটাই শুনবেন। এটাই নিয়ম। এইটারে শিরোধার্য কইরা আপনে বাংলা গান আর গজল হুনেন, আমি ইংরেজি হুনি। ;)

বুলবুল ভাইয়ের কাহিনী জমজমাট। দেখি, মন চাইলে কুন একদিন কইলেও কইতে পারি।

আর রক, মেটাল, হেভী মেটাল এই গুলা শুনি না কারন এইগুলার কথা কিছু বুজি না, মানে এই সব গানে যে সব কথা থাকে তা বোজার সাধ্য আমার মত গাইয়া পোলাপানের নাই, তাই শুনিও না :) আমিও বুঝি না, বুঝনের অভিনয় করি আর কি!!! =p~

২৬| ০২ রা জুন, ২০২০ রাত ১২:২৩

কল্পদ্রুম বলেছেন: https://youtu.be/nVNAqNZcpB4

০৩ রা জুন, ২০২০ রাত ২:০৩

ভুয়া মফিজ বলেছেন: লিঙ্কের জন্য ধন্যবাদ।
স্যরি! ভালো লাগে নাই। এতো সুন্দর গানটার বারোটা বাজিয়েছে!! :(

২৭| ০২ রা জুন, ২০২০ ভোর ৬:০৬

ইসিয়াক বলেছেন: https://www.youtube.com/watch?v=uOIHHMnI_Ig

০৩ রা জুন, ২০২০ রাত ২:৪৫

ভুয়া মফিজ বলেছেন: লিঙ্কানোর জন্য ধন্যবাদ। :)

২৮| ০২ রা জুন, ২০২০ সকাল ৮:৩৫

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: পদাতিক দার সাথে সহমত হইলেতো আবার কইবেন রেসিজমের কথা ;)
থাক কইলাম না, তবে গ্রামে ক্লাশ এইট পর্যন্ত পড়ায় মোটামুটি কাছাকাছি অনুভব ছিল।
পরে অবশ্য পুরান ঢাকায় নবকুমার ইনস্টিটিউটে ভর্তি হইয়া পুরাই পাইকা যাই ;)

স্মৃতিচারণ পোষ্ট কত স্মৃতিকেই না উস্কে দিল ;)
ইংরেজী মেলোডিয়াস গানগুরো শুনলেও রক কেন যেন এড়িয়ে যেতাম। টানতো না তেমন। :P
আর বাংলা গানের সেই ভক্ত বলতে পারেন। জগজিৎএর প্রায় গান একসময় মূখস্ত ছিল!

+++

০৩ রা জুন, ২০২০ সকাল ১১:৪২

ভুয়া মফিজ বলেছেন: পদাতিক দার সাথে সহমত হইলেতো আবার কইবেন রেসিজমের কথা তা তো কমুই, কন নাই দেইখ্যা বাইচ্যা গেলেন!! =p~

যে কোনও স্মৃতিচারনই অন্য সবার স্মৃতিচারনকে উস্কে দেয়। কারন আমাদের প্রত্যেকেরই একটা অতীত আছে.....ভালো মন্দের মিশেলে। আর স্মৃতিচারন করতে কে না ভালোবাসে! পুরানো দিনের কথা মনে করে দীর্ঘনিঃশ্বাস না ফেলা মানুষ বোধকরি একটাও খুজে পাওয়া যাবে না।

ধুম-ধারাক্কার মেটাল বা হেভি মেটাল আমিও খুব বেশীদিন শুনি নাই। আসলে এগুলো টিস্যু পেপারের মতো অনেকটা। ওয়ান টাইম ইউজ। খুব একটা আবেদন নাই এসব গানে। আর বাংলা গান তো শুনতেই হয়.......হাজার হলেও আমরা জাতিতে বাঙ্গালী!!! :)

২৯| ০২ রা জুন, ২০২০ সকাল ৯:৪৫

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: অল্প কয়েকটি আমার ভালো লাগার গান আছে এতে ভূয়া।
অর্ধ যুগ ধরে রবীন্দ্র সংগীত বেশি শুনি।

কেয়ারলেস হুইসপার ইটস্ মাই লাইফ ফাইনাল কাউন্টডাউন আমার ভালো লাগার গান। জেনিফার লোপেজ শাকিরা ম্যাডোনার কয়েকটি গান আছে আমার প্রিয় তালিকায়। আর সাই য়ের গ্যাংনাম স্টাইল । আপনার তালিকার অনেক গান এখনো শ্রবণ করা হয় নি। কিংবা মনে নেই।


সুন্দর শেয়ার।

০৩ রা জুন, ২০২০ দুপুর ১২:০৫

ভুয়া মফিজ বলেছেন: 'কেয়ারলেস হুইসপার' আমারও প্রিয়। 'ফাইনাল কাউন্টডাউন' ততটা পছন্দ না। 'ইটস্ মাই লাইফ' কোনটার কথা বলেন.......বন জভি'র? আর 'গ্যাংনাম স্টাইল' এর কথা আর কি কমু!!! =p~

আমার তালিকার গানগুলো আস্তে-ধীরে শুনে ফেলেন, রবীন্দ্র সঙ্গীতের ফাক-ফোকর দিয়ে। মাঝে মাঝে চেইন্জ এর দরকার আছে (অবশ্য সর্ব ক্ষেত্রে এই ফিলোসফি প্রযোজ্য নহে ;) )।

৩০| ০২ রা জুন, ২০২০ দুপুর ১:৪৮

পলক শাহরিয়ার বলেছেন: আপনার ব্লগের সুবাদে তিন চারটা ভালো গানের সন্ধান পেলাম। বাকিগুলো আগেই শোনা।
আরো দু'তিনটা গানের সাজেশন দিই, শুনতে পারেন। হোপফুলি ভাল লাগবে।
Goddess - Freddie Aguilar
Johnny Hates Jazz - Turn Back The Clock
Leonard Cohen - Dance Me to the End of Love

০৩ রা জুন, ২০২০ দুপুর ১২:৪৫

ভুয়া মফিজ বলেছেন: বাকিগুলো আগেই শোনা। সেটাই তো হওয়ার কথা। আসলে এই প্রতিটা গানই এতো জনপ্রিয় যে, এগুলো না শোনার কোন কারনই নাই। তারপরেও পোষ্টটার কারনে কয়েকটার সন্ধান পেলেন.......এটাই বা কম কিসের। কিছুটা তো সার্থক হলাম!! :)

আপনার সাজেস্ট করা গানগুলো শুনলাম। 'গডেস' গানটা চমৎকার লাগলো। বাকী দু'টা মোটামুটি। গান তিনটা রেফার করার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।

৩১| ০৩ রা জুন, ২০২০ ভোর ৪:৫১

চাঙ্কু বলেছেন: অনেকগুলো প্রিয় গানের কথা মনে করিয়ে দিলেন তবে ABBA এর I have a dream বা Chris De Burgh এর The lady in red এর কথা কইলেন না! আফসসু। একসময় ক্রিস ডি বার্গ বা ইনিগমার ক্যাসেট ছেড়ে দিয়ে ঘুমিয়ে পড়া নিয়মিত ঘটনা ছিল। ইয়ে মানে ডলি পার্টন শুনেন নাই? :P

তবে আমার হয়েছে উল্টো। ইন্টার পর্যন্ত প্রচুর ইংরেজী গান শুনলেও ভার্সিটির উঠার পর থেকে এখন পর্যন্ত রবিদার গানই বেশী শোনা হয়!

ছোটবেলার কথা মনে করিয়ে দেওয়ার জন্য অনেক বন্যবাদ।
ভাল থাকবেন।

০৩ রা জুন, ২০২০ দুপুর ১:০৬

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ABBA -র এই গানটা আগে শুনি নাই। এখন শুনলাম। মোটামুটি লাগলো।

Chris De Burgh এর The lady in red এর কথা কইছি। ১০ নাম্বার গান। লিষ্টিটা ঠিক মতোন দ্যাখেন নাই! আফসুস!! =p~

ডলি পার্টন অবশ্যই শুনছি। ইনফ্যাক্ট, কেনি রজার্স আর ডলি পার্টনের গাওয়া ডুয়েট Islands in the Stream আমার খুবই প্রিয় একটা গান। এখন সব পছন্দের মিউজিক ব্যান্ড আর সোলো সিঙ্গারদের নামের বিশাল লিষ্ট টাঙ্গানোর তো কোন মানে নাই....তাই না! আপনে কি কন!! :-B

আমিও রবিদার গান শুনি। আমার বউ সারাদিনই বাজায়, সকাল সকালই শুরু করে সে! 'বন্যবাদ' দেওয়ার জন্য আপনেরে ধন্যবাদ। আপনেও ভালো থাকেন। :)

৩২| ০৫ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৪:২৯

মুক্তা নীল বলেছেন:
ভাই ,
আপনার স্মৃতিচারণ পরে নস্টালজিক হয়ে গেলাম।
আসলেই ভাই সেই দিনগুলো আর নেই বাটিতে তরকারি চালাচালি অডিও ক্যাসেট ধার নেওয়া গল্পের বই আদান-
প্রদান কি সুন্দর দিনগুলোই না ছিলো।
আপনার বড় চাচার ডায়লগ টা আমার দারুন লেগেছে
(হা হা )।
আমার মনে হয় গান মানুষের একটা অদৃশ্য সঙ্গী। আমার
অবশ্য ভারতীয় বাংলাগান,রবীন্দ্রসঙ্গীত বেশি ভালো লাগে।
ব্লগে কিছুটা অনিয়মিত থাকলেও প্রিয় ব্লগারদের লেখা পড়তে ভালো লাগে। ভালো থাকুন।

০৭ ই জুন, ২০২০ সকাল ১১:০৭

ভুয়া মফিজ বলেছেন: নস্টালজিক হয়ে এখন আবার বাটিতে তরকারি চালাচালি শুরু করে দেন। তবে, ক্যাসেটের দিন শেষ.....সেটা আর শুরু করা সম্ভব না। আর বই আদান-প্রদানের কথা মনে করিয়ে দিয়ে তো আবার আমাকে নস্টালজিক করে দিলেন!!

ব্লগে কিছুটা অনিয়মিত থাকলেও প্রিয় ব্লগারদের লেখা পড়তে ভালো লাগে। তাই তো দেখছি! আমার বেশ কয়েকটা পোষ্টে আপনার মুল্যবান মতামত অনুপস্থিত!!! :P

গান শুনলে মন ভালো থাকে.....সেটা যে গানই হোক না কেন। আশা করছি, দ্রুতই আবার নিয়মিতভাবে আপনাকে দেখতে পাবো। :)

৩৩| ১০ ই জুন, ২০২০ রাত ৯:৫০

আরোগ্য বলেছেন: ভুয়া ভাই,
স্কুলের কথা মনে পড়ে গেল :( । সে কি জীবন ছিলো। আহা আর কি আসবে। কিন্তু আমি তো বাংলা মিডিয়ামে পড়সি। যদিও ইংলিশ মোটামুটি ভালো পারতাম কিন্তু ইংলিশ গান |-) । কোন ফাকে যে কানের পাশ দিয়া দৌড় দিত , মাথায় আর ঢুকতো না :((
এহন শুনলে খালি মাইকেল জ্যাকসনের সিলেক্টেড কয়টা। আরবীও কিন্তু শিখতাসি ;)

১২ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৪:১৪

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ক্লাস সেভেন থিকা আমিও বাংলাতেই পড়ছি। মিডিয়াম ব্যাপার না, গান হুনন নিয়া কথা। মাইকেল জ্যাকসনের গানও ভালা, তয় এগুলি মোটামুটি ওয়ান টাইম গান.........বারে বারে হুনলে মজা লাগে না! আরবী শিখতাছেন, এইডা একটা কামের কাম করতাছেন। মিডিল ইস্টে গেলে কামে দিবো! গেলে তেল-পানি আমাগোও কিছু দিয়েন! :P

৩৪| ১২ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৩:১৯

ওমেরা বলেছেন: হুম!! স্মৃতি কথা পড়ে বুঁজলাম আপনার নিম নেমইটা পর পারফেক্ট । :D
গান টান নিয়ে কিছু বলার নাই , বাংলা, ইংরেজী, হিন্দি ,উর্দু কোন গানই তেমন শুনি নাই ।

১২ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৩৭

ভুয়া মফিজ বলেছেন: স্মৃতি কথা পড়ে বুঁজলাম আপনার নিম নেমইটা পর পারফেক্ট। কি বলতে চাইলেন, বুঝি নাই। উদাহরনসহ ব্যাখ্যা করলে ভালো হয়।
বাংলা, ইংরেজী, হিন্দি ,উর্দু কোন গানই তেমন শুনি নাই। খালি সুইডিশ গান শোনা ঠিক না। সবই শুনবেন। তবে গান মাঝে-মধ্যে শুনলেই ভালো, সব সময়ে শোনার দরকার নাই। :)

৩৫| ১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৪:০৯

আখেনাটেন বলেছেন: এখানে দেখছি গানের আসর বসিয়েছেন। :D

আমি কলেজে পড়াকালীন সময়ে দেশি ব্যান্ড ও পুরাতন বাংলা গানই বেশি শুনতাম। তবে কিছু প্রিয় ইংরেজি গানের ক্যাসেট ছিল। সেগুলো থেকে আবার প্রিয় কিছু গান একত্র করে আলাদা ক্যাসেট বানিয়েছিলাম। এগুলো কিছুটা হবির মতো ছিল। বিশেষ করে ব্যাকস্ট্রিট বয়েসের গানের বিরাট ভক্ত হয়ে ছিলাম। কয়েকটি গান প্রায়ই গুনগুণ করে গাইতাম। এজ লং এজ ইউ লাভ মি, শো মি দ্যা মিনিং অব বিইং লোনলি, আই ওয়ান্ট ইট দ্যাট ওয়ে ইত্যাদি। এ বাদে অন্যদের হোটেল ক্যালিফোর্নিয়া, জর্জের কেয়ারলেস হুইসপার, জন, ম্যাডোনার গানও ভালো লাগত।

এখন দেশি ফোক আর ভারতীয় গজল আর ওস্তাতের কাওয়ালী ও কোক স্টুডিও গান বেশি শুনা হয়। :)

১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৪:২১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: মিয়াভাই......দুইদিন পর পর কই হাওয়া হয়া যান কন দেখি? প্রবাসীদের নিয়া একটা লেখা দিলাম, ভাবলাম আপনে কিছু মুল্যবান কথা টথা কইবেন! তা না, খবর নাই। নেফারতিতি ভাবীর লগে দেখা করতে যান নাকি কয়দিন পর পর? :(

ক্যাসেট তো একসময়ে ক্রেজ ছিল। এই ক্যাসেট নিয়ে কতো রকমের কাহিনী!! দেখি, নেক্সট বার দেশে আসলে আপনের গুনগুন করা গান শুনতে হবে। :P
কোক স্টুডিওর গান আমিও শুনি। খুব ভালো লাগে।

৩৬| ১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৪:২৫

আখেনাটেন বলেছেন: মিয়াভাই......দুইদিন পর পর কই হাওয়া হয়া যান কন দেখি? --- ব্লগের যে উত্তপ্ত অবস্থা কয়দিন থেকে সেখান থেকে মাঝে মাঝে শীতনিদ্রায় না গেলে যে পুড়ে মরব। :P

১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৪:২৯

ভুয়া মফিজ বলেছেন: হে হে হে........বনের রাজা টারজানের পোষ্ট পড়েন নাই? মন্তব্যে তো রেকর্ড কইরা ফালাইছি!!! :-B

৩৭| ১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৪২

আখেনাটেন বলেছেন: বনের রাজা টারজান তো উধাও হয়ে গেছিল.......বহুদিন। পাঁঠার বিচি ফেলার কেউ ছিল না। আমরাও আতঙ্কমুক্ত ছিলাম...। এসেই বড়দা কি বিচি ফেলায় মনোযোগী হয়েছেন নাকি। সাবধান হতে হবে। :P

কই সে পোস্ট........ /:)

১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৫:০৫

ভুয়া মফিজ বলেছেন: উনি আন্ডারওয়্যার নিয়ে এক পোষ্ট দেয়ার পর পরই এই পোষ্ট দিছেন! এটা নিয়েই বিরাট আলোচনা.....তর্ক-বিতর্ক। এই দেখেন
ব্লগে ইসলাম বিদ্বেষ কবে বন্ধ হবে ?

৩৮| ১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৪:৫৫

জুন বলেছেন: আমি এখন কুদ্দুস বয়াতি আর কাংগালীনি সুফিয়ার গান শুন্তেছি :``>>
"কোনবা পথে নিতাইগঞ্জে যাই" ---
বই এর ব্যাপারেও আমি যেমন সর্বভুক তেমনি গানের ব্যাপারেও B-)

১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৫:০৯

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনে তো দেখি দিনকে দিন ঘরে বইসা থাইকা তেলাপোকা হয়া যাইতাছেন......সর্বভুক!!! :-B

দেখি, গানটা আমিও শুইনা দেখি। আগে শুনছি মনে হইতাছে।

৩৯| ১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৫:১৭

জুন বলেছেন: ভুয়া আপনার মন্তব্যটি আমি পড়েছি বনের রাজার পোস্টে। পাচ তারকা দিলাম মন্তব্যে। সেখানে আমি কিছু লিখতে চাইনা বলে এখানে লিখছি। বেশ কিছুদিন আগে আমার ছেলে মনমরা হয়ে এসে আমাকে বল্লো "আম্মু শাহিন চাচারা না তোমাকে নাস্তিক বলে "। আমারতো মাথাতেই আসলোনা এর কারন। আমরা দুজনাই বসে বসে ভাবছি কিন্তু উত্তর পাই না। দুদিন পরে ছেলে এসে জানালো কারন,
" কি বলো তোমার আম্মু মানে ভাবী রোজা রাখে! ভাবী না ব্লগে লিখে! তারপর আবার রোজা রাখছে!!

বুঝলেন তো শিক্ষিত সমাজেরই এই হাল

১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৫:২৩

ভুয়া মফিজ বলেছেন: কি বলো তোমার আম্মু মানে ভাবী রোজা রাখে! ভাবী না ব্লগে লিখে! তারপর আবার রোজা রাখছে!! কি আর কমু কন। এই ডরে আমি কাউরে কই-ই না যে আমি ব্লগাই। গুপনে ব্লগিং করি। কারন, শুনলেই আমার লেখা দেখনের জন্য ব্লগে আসবে.......তারপরে তো বুঝতেই পারেন!!!

আর এমনিতেও সাধারন পাবলিক, যারা কোনদিন ব্লগে আসে নাই, খালি শোনার উপরে আছে.....তারা এমনটাই ভাবে!! :(

পাচ তারকা দিলাম মন্তব্যে। সহমত হওয়ার জন্য ধন্যবাদ আপা। :)

৪০| ২৪ শে জুন, ২০২০ দুপুর ১২:১৯

জুন বলেছেন: ভুয়া আমার দুটো পুরনো পোষ্ট দিলাম পড়ে দেখবেন । গল্প বলতে পারেন। যখন লিখেছি তখন ব্লগে আপনি আবির্ভুত হন্নাই তাই ;)
একটা লেখা পত্রিকাতেও ছাপা হয়েছিল । ্মন্তব্য নিস্প্রোয়জন :``>>
আছো তো !
ব্যারেন্ট সাগরের কান্না (প্রথম পর্ব)
দ্বিতিয়টি দুটো ছোট ছোট পর্বে লেখা । পড়বেন কিন্ত #:-S

২৪ শে জুন, ২০২০ দুপুর ১:২৫

ভুয়া মফিজ বলেছেন: লিঙ্ক দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ। আপনের লেখা পড়বো না, এইটা কিভাবে হয়! অবশ্যই পড়বো। :)

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.