নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সবাই যখন নীরব, আমি একা চীৎকার করি \n--আমি অন্ধের দেশে চশমা বিক্রি করি।\n

গিয়াস উদ্দিন লিটন

গিয়াস উদ্দিন লিটন › বিস্তারিত পোস্টঃ

মিশন- রস চুরি। একটি নিরস রম্য! =p~

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৯:১২






গ্রামের ছেলে,বয়সে যুবক অথচ ডাব বা রস চুরির অভিজ্ঞতা নাই,সেকালে এরা ছিল রীতিমত যুবসমাজের কলঙ্ক।
এস এস সি পরীক্ষা দিয়ে বাড়িতে বেকার বসে আছি, ভাবলাম এই ফাঁকে কোর্সটা করে নিলে মন্দ হয়না। সুযোগের অপেক্ষায় ছিলাম। আমাদের মত কলঙ্কিত কিছু যুবকের কালিমা মোচনে এগিয়ে এলো গবি। এ লাইনে তার ব্যাপক অভিজ্ঞতা! অন্যের খোঁয়াড়ের হাস,মুরগী নিজের গোলার ধান,চাল সরানো জাতীয় তস্কর বৃত্তিতে তার উচ্চতর ডিগ্রী ছিল। তাছাড়া সে গৌরেও আছে আবার শ্মশানেও আছে। আশপাশের দুচার গ্রামে এমন কোন ওয়াজ মাহফিল নাই যেখানে সে যায় না, আবার আশপাশের ১৫/২০ গ্রামে এমন কোন যাত্রার মেহফিল নাই যেখানে সে তাশরিফ রাখেনা। এরকম একজন কামেল আদমিকে প্রশিক্ষক হিসেবে পেয়ে আমরা পুলকিত।

সিদ্ধান্ত হল রাতে খেজুর রস চুরি করে শিরনী পাকানো হবে। আতপ চাল,নারিকেল,দা, পাতিল সহ আনুষঙ্গিক দ্রব্যাদী কাচারী ঘরে মওজুদ করা হল। আমরা সরাসরি প্রাকট্রিক্যালে চলে যেতে চাইলাম। ‘রাত বাড়ুক, আরো পরে’ ইত্যাদি বলে গবি সময়ক্ষেপণ করছিল। অগত্যা রাত বাড়ার অপেক্ষায় আছি, এই ফাঁকে চলছে আমাদের থিওরী ক্লাস।

-বুঝলি, ছোট গাছের রস কখনো চুরি করবিনা, ছোট গাছের রস খাওয়া আর পিসাব খাওয়া সমান, কোন টেস্ট নাই, একদম ‘পাইন্সা’। গাছ যত বড় রস তত মিষ্টি!
এই পয়েন্টে এসে আমি হতাশ বোধ করলাম। আমি আবার গাছে উঠতে পারিনা। আশা ছিল ছোট গাছ দিয়ে কাজটা হাতে কলমে শিখে নেব। সে গুড়ে কাঁকর!

গবি বলেই যাচ্ছে - যত বেশি শিত পড়বে রস হবে বেশি মিষ্টি। আর খেয়াল রাখবি, যেন আগ কাটালির রস হয়। (গাছিরা অনবরত রস সংগ্রহের এক পর্যায়ে গাছকে দু;তিন দিনের ব্রেক দেয়, ব্রেকের পরে প্রথম দিনের রসকে আগ কাটালি বলে) এই রস একেবারে পরিস্কার থাকে। আমি খবর নিয়েছি আজ উত্তর পাড়ার ছোবান মিয়ার গাছে আগ কাটালি। চল এবার কাজে বেরিয়ে পড়া যাক!
শুন, তোরা এ লাইনে নতুন তাই সন্ধ্যার পর থেকে আমাকে তাগাদা দিচ্ছিলি। আমি ‘রাত বাড়ুক, আরো পরে’ বলে তোদের বুঝ দিচ্ছিলাম, কেন জানিস?
আমি বললাম- গেরস্থেরা যেন ঘুমিয়ে পড়ে এই জন্য।
গবি বলল- এক দেড় টাকা হাড়ির রস চুরি হলে গেরস্থরা তেমন গা করেনা, হাঁড়ি চুরি হলে কিছুটা হা হুতাশ করে বটে! তবে কারন সেটা নয়। রস পড়ার জন্য সময় দিতে হবেতো নাকি? এই কাজে যত বেশি রাতে যাবি তত বেশি রস পাবি।
তার বুদ্ধিতে শাগরেদরা মুগ্ধ হল।

কথায় কথায় কখন যে অপারেশন স্পটে চলে এসেছি খেয়াল নেই। গবির কথায় সম্বিৎ ফিরে পেলাম।
একটা বড় গাছ টার্গেট করে আমাকে বলল, এটাতে উঠ।
আমি বললাম- ভাই আপনি ভাল করেই জানেন আমি গাছে বুক না লাগিয়ে গাছে উঠতে পারিনা। খেজুর গাছে বুক লাগিয়ে উঠলে বুক চিরে যাবে।
গবি হতাশ, বলল- তুই তো বন্দুল চালানো না শিখে যুদ্ধে চলে এসেছিস! যাক তোকে পরে শিখিয়ে দেব।

এখন সেলিম উঠ।
সেলিম তর তর করে গাছে উঠে গেল। যথারীতি হাঁড়ি খুলে নিচের দিকে নামতেই বিপত্তিটা ঘটলো। গাছের সাথে বাড়ি খেয়ে হাঁড়ি চৌচির! সব রস পড়লো সেলিমের মাথায়। ভাঙ্গা হাঁড়ির বড় একটা পার্ট এসে পড়েছে গবির মাথায়। মাথা কেটে রক্তারক্তি অবস্থা। রিফিউজি লতা দিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসার পর রাগে গজরাতে গজরাতে গবি এই দুর্ঘটনার একটা ব্যাখ্যা দিল।

-বেয়াদ্দপ কোথাকার! তোরা জীবনেও কাজ শিখতে পারবিনা। সেলিমের বেয়াদ্দপির কারনেই আজকের এই বিপদ!
কাচুমাচু হয়ে সেলিম বলল – আমি আবার কি বেয়াদ্দপি করলাম?
-তুই কাজে নামার আগে ওস্তাদের পা ছুঁয়ে সালাম করেছিস?
দেখলাম অভিযোগ গুরুতর! সত্যিইতো সেতো আমাদের ওস্তাদই বটে ওস্তাদের চরণ ধুলি না নিয়ে 'বউনি করা'! এত বড় পাপ বিধাতা সইবে কেন?
পাপের কাটান দিতে জন্টু সহ আমরা তিনজনই গবির পায়ে হামলে পড়লাম। এখন আর এসবের দরকার নাই বলে গবি সরে গেল। পাপ কাটান দেয়া গেলনা।




ওস্তাদী ফলাতে গিয়ে এবার গবি নিজেই দ্রুত গতিতে পুকুরে হেলান দিয়ে থাকা একটা বড় গাছে উঠে পড়লো,এবং ততোধিক দ্রুত গতিতে গাছ থেকে পুকুরে পড়ে গেল।

ঘটনা বুঝতে আমাদের কিছু সময় লেগেছিল। প্রথমে ধারনা করেছিলাম হাত ফস্কে হাঁড়ি পড়ে গেছে। ততক্ষনে চাঁদ উঠে গেছে। আবছা আলোয় সাতরিয়ে কিনারে আসা দেখে বুঝলাম গবি নিজেই পড়ে গেছে। এদিকে ছোবান মিয়া ঘর থেকে চিৎকার করছে,’কেড়া? পুকুরে জাল মারে কেড়ারে?’

চার জন খেশারী খেতের মাঝ দিয়ে দিলাম দৌড়। কিছু দূর গিয়ে মনে পড়লো গাছ তলায় এলুমুনিয়ামের কলসি ফেলে এসছি। পেছন ফিরে দেখি সেটা শত্রু শিবিরের দখলে,ছোবান মিয়ার একহাতে হারিকেন এক হাতে কলসি।

দৌড় পর্ব শেষে এখন হাঁটা পর্ব চলছে। গবি শীতে কাঁপতে কাঁপতে তার পড়ে যাওয়ার কারণ যে খুবই যুক্তিযুক্ত তার বর্ননা দিচ্ছিল। তার মাথার উপর নাকি বিরাট এক ‘হানোক’ সাপ থাবা মেরেছিল। দুর্ঘটনা স্থল থেকে একটা বাদুর উড়ে যেতে দেখেছিলাম তাই আমার ধারণা রস খেতে থাকা বাদুর অনাহুত আগুন্তকের উপস্থিতি টের পেয়ে আচমকা উড়াল দিতে গিয়ে তার মাথায় বাড়ি খেয়েছিল।

কাচারী ঘরে এসে দেখি তেলেসমাতি কারবার ঘটে গেছে। সবাই অপারেশনে চলে গেছি, দুর্গ অরক্ষিত ছিল। এই সুযোগে কে যেন নারিকেল কোরানী আর লারকি গুলি রেখে বাকি সব মালামাল হাতিয়ে নিয়েছে।


মন্তব্য ১১৪ টি রেটিং +১৩/-০

মন্তব্য (১১৪) মন্তব্য লিখুন

১| ০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৯:৩১

আহমেদ জী এস বলেছেন: গিয়াস উদ্দিন লিটন ,




রস চুরির মিশনে এই ফাঁটাফাঁটি ছবিটা কিয়ের লিগা, জিগাই ! B:-)
আমাদের কি কিছু প্রাকট্রিক্যাল নলেজের হাতেখড়ি দিতাছেন ? :( এইরাম চোরনী সাগরেদ থাকলে চুরি বিদ্যা শিখাইয়াও সুখ ! :-P হেই রস পেসাবের মতো লাগলেও অমৃত সমান..................... B:-/

ডাসা রম্যের জবাব ঠাসা রসে দিলুম ।

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:০৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: রস চুরির কাহিনীতে রসচোরের ছবি দিতে চাইলাম, খোঁজ নিয়ে দেখি রস চুরনিও আছে। তাছাড়া পাঠিকারা ভাবতে পারে রস চুরি কেবল ছেলেরাই করে তাই--- =p~

২| ০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৯:৩৮

কালীদাস বলেছেন: এই ভদ্রমহিলা কি বিবাহিত? :``>> :`>

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:১০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনি মানুষ ভালু না :-P :-P

৩| ০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৯:৪০

প্রামানিক বলেছেন: মজাদার কাহিনী তবে ছবিতে যা দেখচি ওটা তো চোর নয় চুন্নি।

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:১৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমাদের দলে এক চোরনীও ছিল প্রামানিক ভাই। তিনি ছিলেন প্রোষিতবর্তিকা। চোরাই হাস মুরগির অন্তস্টিক্রিয়ায় অংশ নেয়া, রুটি বেলা সহ ইত্যাকার দুষ্কর্মে অংশ নিতে উনার আগ্রহের কোন কমতি ছিলনা।

৪| ০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৯:৫২

সুমন কর বলেছেন: উফ...না হেসে পারলাম না !! ততক্ষনে চাঁদ উঠে গেছে। =p~

রম্য রসালো হয়েছে।

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:২০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মন্তব্যে অনুপ্রাণিত , অনেক ধন্যবাদ কবি সুমন কর।

৫| ০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৯:৫৪

প্রশ্নবোধক (?) বলেছেন: আপনার লেখা পড়তে গিয়ে মানস পটে যেন ঘটে যাওয়া ঘটনা গুলো দেখতে পাচ্ছি সিনেমার মত। এর অন্যতম কারন আপনার লেখনীর ধাচ...। সবাই হাত থাকলেই এমন করে সাবলীল ভাষায় বর্ণনা করতে পারেনা। ধন্যবাদ আপনাকে হারানো দিনগুলোকে মনে করিয়ে দেবার জন্য।

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:২২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার মন্তব্যে আবিভুত! অনেক ধন্যবাদ আর শুভ কামনা জানবেন প্রশ্নবোধক (?) ।

৬| ০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৯:৫৪

কথাকথিকেথিকথন বলেছেন: এই ছবি দিয়ে কী আপনি পোস্টে দর্শক বাড়াতে চাচ্ছেন নাকি ! আমরা কিন্তু এই ছবি ছাড়াও আসতাম ।

গ্রামগঞ্জের এই ঐতিহ্য এখনো রোমাঞ্চিত করে জাতিকে । অলটাইম হিট ঐতিহ্য !! আহারে, নেতারই দেখি খ্যাতা খ্যাতা অবস্থা ! পুরাই লস প্রজেক্ট !!

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:২৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অলটাইম হিট ঐতিহ্য !! দারুন বলেছেন কথন।
সেকালে এসব আসলে যতটা না চুরি ছিল তার চেয়ে বেশি ছিল রিয়েল লাইফ এডভেঞ্চার। তবে এই ঐতিহ্য এখন বিলুপ্তির পথে।
এখনকার তরুণরা এসব রিয়েল লাইফ এডভেঞ্চার থেকে বঞ্চিত।

৭| ০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:০২

সাহসী সন্তান বলেছেন: লিটন ভাই রাত দুপুরে ঐসব ছবি দেওয়ার মানে কি? এই ঠান্ডায় আমার আবার চোখ ধুয়ে আসা লাগবে! =p~ তবে শিরোনাম শেষে গাল ফাঁক করে হাসির ইমোটা দেওয়ায় যে ঐ ছবিটারও কিঞ্চিৎ প্রভাব আছে, সেই ব্যাপারে আমি নিশ্চিৎ! ;)

এনি ওয়ে, রম্য ভাল পাইলাম! গ্রামের পুংটা পোলাপান হইয়া যে ডাব চরি, রস চুরির মত গর্বিত কাজ না করছে; সেতো পুরো ব্যাচেলর জীবনের কলংক! :P

রম্যে ভাল লাগা! শুভ কামনা জানবেন!

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:৩১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: গ্রামের পুংটা পোলাপান হইয়া যে ডাব চরি, রস চুরির মত গর্বিত কাজ না করছে; সেতো পুরো ব্যাচেলর জীবনের কলংক! :P সত্য বলেছেন সাস ভাই। আপনার জন্যও শুভ কামনা ।

৮| ০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:১১

কানিজ রিনা বলেছেন: অনেক অনেক হাঁসলাম এইরাম চোরের দল
আমাদের গ্রামেও ছিল। চোরের প্রধান তার
নাম ছিল খূড়ো মশাই। গ্রামের খাঁশীছাগল
থেকে শুরু করে হাঁস মুরগী আম কাঁঠাল
ডাব নারকেল চুরি করত খুরো মশাইর দল
আর এসব রান্নাহত আমাদের বাড়ির বিল্ডিং
এর সাদ নয়ত নদীর চরে। বেশ ভাল লাগল
তাইত পড়তে দম ফাটান হাঁসির সাথে মন্তব্য।

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:৩৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: খূড়ো মশাইর দলে যে আপনিও ছিলেন সেটা চেপে গেলেন নাকি কানিজ রিনা ? =p~ =p~
তবে আপনার চমৎকার মন্তব্য ভাল লাগলো । অনেক ধন্যবাদ জানবেন।

৯| ০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১১:০৬

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: সেই নির্মল হাসি আনন্দের কৈশোর আজ আর গ্রামেও খুঁজেও পাওয়া যাবে না। কারণ, রাত হলে তো ফেসবুকে চ্যাট করতে হয়...

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১০:৪৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: এখনকার ছেলেরা এডভেঞ্চারের জন্য পয়সা খরচ করে নানা রকম রাইডে চড়ে, আর আমাদের সময় এডভেঞ্চারের সকল উপাদান ছিল প্রাকৃতিক। সত্যি বলেছেন এখনকার গ্রামের ছেলেরাও রিয়েল লাইফ এডভেঞ্চার থেকে বঞ্চিত।
ধন্যবাদ বিচার মানি তালগাছ আমার ।

১০| ০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১১:১৬

সিফটিপিন বলেছেন: কাচারী ঘরে এসে দেখি তেলেসমাতি কারবার ঘটে গেছে। সবাই অপারেশনে চলে গেছি, দুর্গ অরক্ষিত ছিল। এই সুযোগে কে যেন নারিকেল কোরানী আর লারকি গুলি রেখে বাকি সব মালামাল হাতিয়ে নিয়েছে।
আমও গ্যাছে
ছালাও গ্যাছে :P

রম্য ভাল হইছে।

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১০:৫৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আসলেই আমাদের মিশন ছিল পুরোপুরিই লস প্রজেক্ট।

১১| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১২:১৮

শাহরিয়ার কবীর বলেছেন:
বেশ মজা পেলাম B-)

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১০:৫৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ শাহরিয়ার কবীর

১২| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ২:০৪

প্রবাসী পাঠক বলেছেন: ডাব চুরি, রস চুরি, আলু চুরির অভিজ্ঞতার ঝুলি মোটামুটি বিশাল বড়।

রম্য ভালা পাইলাম, পিলাস

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১০:৫৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: কিছু অভিজ্ঞতা আমাদের সাথে শেয়ার করেন প্রবাসী ভাই, আমরাও মজা লই!
পিলাসের জন্য ধন্যবাদ।

১৩| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ ভোর ৬:১৮

জুন বলেছেন: এই অভিজ্ঞতা মনে হয় সব যুবকেরই আছে গিয়াস উদ্দিন লিটন । আমার কর্তা মশাই নাকি নিজ খোয়াড়ের মুরগী চুরি করে বন্ধুদের নিয়ে খানাপিনা । আপনার রস চুরি কান্ড পড়ে গতরাতে অনেক হেসেছি ,বিশেষ করে ওস্তাদের হানোক সাপের ডরে পুকুরে পতন B-) তবে তার ভয়টা কিন্তু অমূলক না । সাপও কিন্ত রস চুরি করার আরো বড় ওস্তাদ

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:০৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সাপে রস খাওয়ার বিষয়টি আমরাও জানতাম, তাইতো আমাদের কোচ সাপের ভয় পেয়েছিল।
নিজ খোয়াড়ের না হলেও বন্ধু সহ তাঁদের খোয়াড়ের হাঁস চুরি করেছিলাম। তেল,ঝাল, মশলা কিছুই ঠিক মত হয়নি, সেদ্ধ কিসিমের ওই রান্না তারপরও আমাদের কাছে অমৃত সম ঠেকেছিল।
জেনে ভাল লাগছে যে আমাদের জামাই বাবু সে যুগের যুবসমাজের কলংক ছিল না B-) কর্তা মশাই ও আপনার জন্য শুভ কামনা ।

১৪| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ৯:২০

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: আমি রস, ডাব, মুরগী, আম, আতাফল, ফুল সবই চুরি করেছি। ছোটবেলায় এসব চুরি করে খুব মজা পেতাম। আমার সাথে আমার মতোই একদল চোর থাকতো সব সময়। তবে কোন চুরনি ছিলনা ( যেমনটা ছবিতে দেখিয়েছেন )।

লেখা ভালো লাগলো। ধন্যবাদ ভাই গিয়াস উদ্দিন লিটন।

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:২৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সেকালে গ্রামের ছেলেদের এই সব কর্ম তেমন দোষিণীয় ছিলনা। মুরুব্বিরাও না দেখার ভান করতেন।
শহর থেকে বেড়াতে আসা সমবয়সীরা আমাদের রীতিমত হিরো মনে করতো।
আমাদের দলে এক ভাবী ছিলেন, তিনি মশলাপাতি মেখে দিতেন, নিজে খেতেন না।
মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম ভাই।

১৫| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ৯:৩১

বিজন রয় বলেছেন: এই রে!! এমন ছবি দিলেন ক্যাঁ? অহন শিয়ালেও লজ্জা পাইতেছে।

হাসুম না কাদুম।

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:৪০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: চুরির পোস্ট তাই চুন্নির ছবি =p~
তার সাথে শরিক হতে চাইলে আরেকটা স্ট্র নিয়ে হাসতে হাসতে চলে আসুন কবি।

১৬| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:০৫

ভারসাম্য বলেছেন: ঝরঝরে লেখা, তবে রম্য আগের চেয়ে একটু কম। ব্যাপার না, এই আকালে এমন রম্যও কম না। গবির গৌড়েও থাকা, শ্মশানেও থাকার অংশটা ভাল লেগেছে। +++

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:৫৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ঘটনা বাস্তুব তাই রম্যের কিছুটা ঘাটতি থাকতে পারে। মন্তব্য ভাল লেগেছে, ধন্যবাদ ভারসাম্য।

১৭| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:৫১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনি গাছে উঠতে পারেন না তাইলে এইসব যাবার কি দরকার ছিল ? রাত সারে তিনটায় উঠে গাছ তলায় পরে থাকা গুলোই আপনার ভরসা হওয়া উচিত ছিল :P :P

তবে আমি নিশ্চিত গাবি না হয়ে যদি একজন ভালো নেতা পাইতেন আজকে আপনি চুরা সর্দারদের দলে নিজের নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা দেখতে পাইতেন ,আপচুচ শুধু মাত্র একজন যোগ্য নেতার অভাবে কখনো খেসারি ক্ষেত , কখনো ছেঙ্গার সাথে বসবাস আবার কখনো বড়ই কাঁটাই খেয়ে গেলেন গেবনে /:)

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:৩৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: গাছে উঠতে পারিনা বলে আমার কি সাধ আহ্লাদ নাই? যদিও আমাদের মিশন আনসাকসেস ছিল, তার পরও এই ঘটনার পর সমবয়সীদের কাছে আমাদের ইজ্জতের পাল্লা অনেক ভারী হয়েছিল।
আর গবি সর্দারের কথা বলছেন, তিনি নিজে না হতে পারলেও তিনার ছেলে এখন এলাকার বড় নেতা, ।
মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ 'বয়ঃকনিষ্ঠা'।

১৮| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:৫৭

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: হা হা হা

আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম ;)

রসময় (দত্ত নয়) রসচুরির গল্পে রসময় ভাললাগা ;)
=p~ =p~ =p~

+++

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:৪৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার 'রসময়' যে দত্ত নয় 'গুপ্ত' তা আমি ঠিকই ধরে নিয়েছি ভৃগু ভাই :P :P

১৯| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:১৭

আলোরিকা বলেছেন: 'ওস্তাদী ফলাতে গিয়ে এবার গবি নিজেই দ্রুত গতিতে পুকুরে হেলান দিয়ে থাকা একটা বড় গাছে উঠে পড়লো,এবং ততোধিক দ্রুত গতিতে গাছ থেকে পুকুরে পড়ে গেল।

ঘটনা বুঝতে আমাদের কিছু সময় লেগেছিল। প্রথমে ধারনা করেছিলাম হাত ফস্কে হাঁড়ি পড়ে গেছে। ততক্ষনে চাঁদ উঠে গেছে। আবছা আলোয় সাতরিয়ে কিনারে আসা দেখে বুঝলাম গবি নিজেই পড়ে গেছে। এদিকে ছোবান মিয়া ঘর থেকে চিৎকার করছে,’কেড়া? পুকুরে জাল মারে কেড়ারে?’-------- হাসতে হাসতে বাঁচি না । রম্যের চেয়ে দেখছি সবাই চুন্নির প্রতি বেশি আকর্ষিত হচ্ছে ;)

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:৫৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: হাসতে হাসতে বাঁচি না মন্তব্যে অনুপ্রাণিত । তবে মডেলটা যে আপনি আমি সেটা কাউকে বলিনি! :-P

২০| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:২৮

অগ্নি সারথি বলেছেন: একটা বড় গাছ টার্গেট করে আমাকে বলল, এটাতে উঠ।
আমি বললাম- ভাই আপনি ভাল করেই জানেন আমি গাছে বুক না লাগিয়ে গাছে উঠতে পারিনা। খেজুর গাছে বুক লাগিয়ে উঠলে বুক চিরে যাবে।
গবি হতাশ, বলল- তুই তো বন্দুল চালানো না শিখে যুদ্ধে চলে এসেছিস! যাক তোকে পরে শিখিয়ে দেব।
- :P :P :P

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:৫৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পাঠ মন্তব্যে অনুপ্রাণিত , অনেক ধন্যবাদ অগ্নি সারথি ।

২১| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:৩৭

আহলান বলেছেন: সুপারলিটিভ ডিগ্রি .... !

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:৫৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আহলান।

২২| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ২:০৭

ভ্রমরের ডানা বলেছেন: এক্কেবারে হাতে নাতে ধরা! অন্যের চুরি করতে গিয়ে নিজের সব গেল। তবে দিনদুপুরে এমন করে খেজুরে রস চুরি করে যে চোরনী তার কি হবে?

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ বিকাল ৪:২১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: জি এক্কেরে পুরাই লস প্রজেক্ট!

২৩| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ বিকাল ৫:২১

শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া) বলেছেন: এখন যেমন দুষ্ট পোলাপাইন দেখায় যায় না।
ঠিক তেমনি খেজুর গাছও বেশি দেখা যায়।
আর দুষ্টুমি’র প্রশ্নই আসে না।
কারণ, এখন পোলাপাইনের হাতে স্মার্ট ফোন।

আপনাদের কপাল ভাল যে, এই দিনে সেই সময়টা পেয়ে ছিলেন।
কিন্ত বর্তমানের পোলাপাইনে, এই দিনে সেই সময়টা স্মার্ট ফোনে ব্যয় করে।

ভালো লেগেছে।

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সত্যি বলেছেন , এখনকার পোলাপাইন রস চুরি করবে কি খেজুর গাছইতো নাই। যা কয়েকটা আছে এতে গেরস্থেরই চাহিদা মিটে না। তার উপর যদি গেরস্থ এই ব্যবস্থা নেয় চুরি করবেও ক্যামনে ?
ছবি নিচে-

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সত্যি বলেছেন , এখনকার পোলাপাইন রস চুরি করবে কি খেজুর গাছইতো নাই। যা কয়েকটা আছে এতে গেরস্থেরই চাহিদা মিটে না। তার উপর যদি গেরস্থ এই ব্যবস্থা নেয় চুরি করবেও ক্যামনে ?
ছবি নিচে-

২৪| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ বিকাল ৫:২৭

শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া) বলেছেন: আসলে আমি বলতে চেয়েছি,

এখন যেমন দুষ্ট পোলাপাইন দেখায় যায় না।
ঠিক তেমনি খেজুর গাছও বেশি দেখা যায় না
আর দুষ্টুমি’র প্রশ্নই আসে না।
কারণ, এখন পোলাপাইনের হাতে স্মার্ট ফোন।

আপনাদের কপাল ভাল যে, এই দিনে সেই সময়টা পেয়ে ছিলেন।
কিন্ত বর্তমান পোলাপাইনে, এই দিনে সেই সময়টা স্মার্ট ফোনে ব্যয় করে।

উপরেরটা মুছে দিবেন।

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন:

২৫| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:০২

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: রম্য রচনা পদে পদে রসে ভরা। লেখা খুব সাবলীল। হাসতে হাসতে খুন।

আমি অবশ্য ছবিটার জন্যই পোস্টে এসেছি :) দেখার জন্য যে, রসচুন্নী ওই ভদ্রবালিকাই কিনা :)

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:২১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: যাক ছবিটার কারণে হলেও আমার ব্লগে একজন গুণী মানুষের প্রথম ফুটপ্রিন্ট পড়লো।
আপনার মন্তব্য আমার কাছে রীতিমত প্রশংসাপত্র। অনেক ধন্যবাদ আর কৃতজ্ঞতা জানবেন সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই।

২৬| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৫৮

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ওনার ছবিটা তুলছে কে লিটন ভাই? এমন চমৎকার মডেল পেলে আমিও কিছু ছবি তুলে রাখতাম :D

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার ছবি তূলার টিপ ভাল , আপনি তুললে নিঃসন্দেহে ছবিটা আরও চমৎকার হত।

২৭| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:০১

সাদা মনের মানুষ বলেছেন:
মডেল না পাইয়া নিজেই মাঝে মাঝে গাছে চড়ে বসি :D

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: এতো দেখছি এক্কেরে ডিজিটাল গাছি!
আগে পাইলে ছবিটা পোস্টে জুড়ে দিতাম।

২৮| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:০৩

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: খেজুরের রসে একদিন.......... এখানে ক্লিক করেও কিছুটা রস পেতে পারেন :D

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৫৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: রস আর পাইলাম কই ? সবতো সাগরেদরা মিলে সাবাড় করে দিছেন। যাক আমার জন্য ওই বোতলটাই সই!

২৯| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১৩

কানিজ রিনা বলেছেন: একেমন রঙ্গ যাদু একেমন রঙ্গ, গাছের সাথে
পাইপ লাগিয়ে ঘরের ভিতর রসের ভাঁড়।
হাঁসির দমকে আকাশে বিদ্যুৎ চমকিয়া ঠাঁটা
পড়ল। সবাই ছুটিয়া আসিল এত হাসির ঠাঁটা।
তারপর গাছে পাইপ লাগান দেখালাম।
সবাই একসাথে হি হি হা হা হু হু। ধন্যবাদ
বছরের প্রথম অসংখ্য শুভেচ্ছা।

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৮:১২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মজার ও পুনঃমন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ কানিজ 'ঋনা' :P
আপনার সৌজন্যে রস চুরি প্রতিরোধক আরেকটা পিক-

৩০| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:২৬

দেলোয়ার সুমন বলেছেন: আমি ও অনেকবার করছি রস চুরি, সেই ছেলেবেলা মনে পড়ে গেল,
এখন সপ্তাহে ২ দিন ফ্রি রস পাই বাট আগের সেই স্বাদ টা পাইনা :(

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৮:১৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনিও রস চুরি করেছেন? আসেন মাসতুতো ভাই কুলাকুলি করি! =p~ আমাদের সময় রস চুরিটা মুলত চুরির পর্যায়ে ছিল না, ছিল নিছক দুস্টামী। এই দুস্টামী যারা করেনি তারা এই এডভেঞ্চারের মজা বুঝবেনা।

৩১| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৩৪

প্রিন্স হেক্টর বলেছেন: মজা পাইলুম =p~

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৮:৪০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ প্রিন্স ।

৩২| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৪৮

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: এই রস চুরি করার জন্য কত আয়োজন করেছি তবে নিজের এলাকায় ৭ গ্রাম জুড়ে একটিই গাছ ছিল তাও আবার ৩০ হাত লম্বা । তবে বেড়াতে গিয়ে দল করে কয়েকবার করেছি। সেই সময়গুলো অনেক সুন্দর ছিল। অাপনার লিখাটি মনে করিয়ে দিল হাবুদের পুকুরের মাছ আর চৈতীদের গাছের ডাব চুরির গপ্প। ভাল থাকবেন লেখক।

০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৮:৪৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার শৈশব স্মৃতি জাগিয়ে দিতে পেরে ভাল লাগছে। আপনিও ভাল থাকুন মাহমুদুর রহমান সুজন

৩৩| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৯:২৬

কি করি আজ ভেবে না পাই বলেছেন: সবি ক'লে,যা শেখালো
উসতাদ গবি;
মডেলের নাম কিগো
শায়মা না ছবি?

নামধাম যাই হোক
রূপ তার খাসা;
অধমের মরু বুকে
জাগে ভালোবাসা।

মানিনেগো জাতপাত
হোকনা সে চুন্নি;
ভালোবাসা স্বর্গীয়
প্রেমে মেলে পূণ্যি।

পোষ্টটা জ্বালালো মোর
দিলে প্রেমরশ্মি;
কওনাগো গবিদারে
নিতে মোরে পুষ্যি।

সাগরেদ হয়ে তার
শিখে মহা বিদ্যা;
চুরি করে নেবো ঠিক
মডেলের হৃদটা।

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:৪৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: শায়মা ছবি দুই চুরনি
ধরেছে তাদের ঘোস্টে
তারা এখন আসেনা আর
নিন্ম মানের পোস্টে।

মডেলটা জেনো মোর
প্রিয়াংকা বৌদি
তার জামাই থাকে
আরবেতে সউদি।



বল তুমি কেমন আছো
তাদের কথা বাদ,
মন্তব্যের জন্য তোমায়
অনেক ধন্যবাদ।

৩৪| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৯:৪৮

কি করি আজ ভেবে না পাই বলেছেন: ইনিয়ে বিনিয়ে ভৃগু
কইলো যা ছলে;
স্বভাব যাবেনা তার
গেলেও বা ম'লে।

রেগুলার ক্লায়েন্ট সে
নীলক্ষেত ফুটপাথে;
পকেট বা ব্যাগ হাতিয়ে
পাবে বই সদা সাথে।

তিলে তিলে গড়ে সে যে
কি বিশাল স্টক;
'চটি' ক'লে রেগে যায়
কয় 'রস পুস্তক'। ;)

-------------------------
লেখকের টাইটেল
দত্ত না গুপ্ত;
তুমিও না কম না বাপু
জ্ঞাণী দেখি খুবতো। :P

ইয়ে মানে ভালো কথা
কানেকানে চুপিচুপি;
কতদিন পড়িনাগো
আছে নাকি নয়া কপি? :-B

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:১৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: :P

চটি পড়ি ঠিকি ভায়া
তবে সেতো পায়েতে
চটি নাম নিলে কেন
লাগে ভৃগুর গায়েতে।

পাতালেতে কেউ বুঝি
যায় চড়ে রকেটে
অনুরূপ বেমানান
চটি থাকা পকেটে।

বই পড়া ভাল জানি
দোষ পাইনা কিছু
তবু তুমি লাগলে কেন
ভৃগু ভায়ার পিছু? :P

৩৫| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:০২

অলওয়েজ ড্রিম বলেছেন: আহারে কী যে দিন আছিল! আফসোস এ যুগের ছেলেপিলেদের জন্য।
আপনার রম্য জমজমাট হয়েছে।

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:২৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ অলওয়েজ ড্রিম

৩৬| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:০৭

শায়মা বলেছেন: হা হা হাসতে হাসতে মরলাম ভাইয়া!!!


তবে কি যে করি ভাইয়া কি বলে!!!!!!!!!!!

আমরা কেনো চোর মডেল হতে যাবো!!!!!!!!!!!!

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:৩৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সেটাইতো! কি করির কথার তেব্র প্রত্তিবাদ!

৩৭| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১০:৫৯

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: এতো মজার রম্য মেলাদিন পড়া হয়নি! একেবারে মন ভরে গেলো! মডেলের ছবি দেখে মোশাররফ করিম এর এক্টা ডায়ালগ ইয়াদ হলো, "এই মাইয়া এতো সুন্দর ক্যা? এরে তো বাইন্ধা ভালোবাসতে মন চায় রে!"

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:২২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: "এই মাইয়া এতো সুন্দর ক্যা? এরে তো বাইন্ধা ভালোবাসতে মন চায় রে!" =p~ বেশ মজারতো!
আপনার ভাল লেগেছে জেনে ভাল লাগছে। ধন্যবাদ রূপক বিধৌত সাধু।

৩৮| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১১:০৭

জাহিদ অনিক বলেছেন: দারুণ মজার কাহিনী । শৈশব মনে পড়ে স্বাভাবিকভাবেই । কতদিন খেজুড় রসের শিন্নি খাই না !!

তার মাথার উপর নাকি বিরাট এক ‘হানোক’ সাপ থাবা মেরেছিল।
ঘটনার সত্যতা যাচাই করা গেল না ! যাচাই করা গেলে ওস্তাদের মার শেষ রাতে কেন হল না সেটা বুঝা যেত তাহলে ।

শুভ কামনা জানবেন লেখক

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:২৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার মন্তব্য বেশ ভাল লাগলো , অনেক ধন্যবাদ জাহিদ অনিক।

৩৯| ০৪ ঠা জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ১১:৩৬

আখেনাটেন বলেছেন: গ্রামের সেই অভিজ্ঞতাগুলো সত্যিই অনেক মজার। যদিও সময়ের যাঁতাকলে পড়ে এখনকার ছেলেরা এইসব নিয়ে কমই ভাবে। ফেসবুকিং করতে সময় পায় না, শীতের রাতে রস চুরি!!!!!!!!

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:৩৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ঠিক বলেছেন , এখনকার ছেলেরা অনেক প্রাকৃতিক আনন্দ থেকে বঞ্চিত।
আমাদের সময় আমাদের বিনোদন বা এডভেঞ্চারের সকল উপাদান ছিল প্রকৃত নির্ভর । ধরুন গাছ থেকে আম পেড়ে ঝিনুক দিয়ে ছিলা,কাটা,ক্ষেত থেকে মরিচ তুলে কলা পাতায় মাখা সব উপাদানই প্রাকৃতিক ।
সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ আখেনাটেন ।

৪০| ০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ৮:০৯

কি করি আজ ভেবে না পাই বলেছেন: নাগিনের মত তিনি
করে উঠে হিসহিস;
শায়মা নামটি যেনো
দুনিয়ায় এক পিস!!!

আমি কি কইছি তারে?
হুদা নেয় দোষ ঘাড়ে!!

ভাব নিয়া রেগে কয়
''কির‌ে কি কি বলিস'';
চোরের মা'র বড় গলা
সাজিয়াছে পুলিশ।

সত্য হৈলো সে কথা,যা
প্রচলিত চিরকাল;
আসলেই যার মনে
দিয়া উঠে যাহা ফাল। :D B-) ;) :P :-B =p~

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:০৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: নামে নামে যমে টানে
জানো তুমি ঠিক ঠিক
শায়মার হিস হিস
তাই অতি স্বাভাবিক ।

খুবতো চাইছিলে
নিতে তাকে পটিয়ে
বিকল্প সুখ পাও
শুধু শুধু চটিয়ে।

খেপলে সে খবর আছে
জেনো ভায়া জেসন
ডুবো তেলে ভাজবে তোমায়
গায়ে মেখে ভেশন। =p~

৪১| ০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ৮:১৪

সাদা মনের মানুষ বলেছেন:
ইচ্ছে করলে এই পদ্ধতিতে রস খেতে পারেন, আমি খেয়ে দেখলাম বিষয়টা কম খারাপ না :)

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:৪০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার রস চুরি মিশনের সব ছবি দেখি গুগলে পাওয়া যাচ্ছে , সেখানে আপনার কায়দায় এক ক্ষুদে রস চোর -

৪২| ০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:৪৫

শায়মা বলেছেন: সাদাভাইয়ার ছবি দেখে আমি হাসতে হাসতে মারা গেছি!!!!!!!!!!!


আর কি যে করি ভাইয়া!!!!!!! আমি মরলেও রস চোরের মডেল হবো না!!!!!!!!!

সেটা হবে তোমার ফিলিস্তিনী গার্লফ্রেন্ডো!!!!!!!!

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমাদের সাদাভাইয়া গবির থেকেও বড় কামেল আদমি , তার কাছে আমাদের অনেক কিছু শিখার আছে।

ফিলিস্তিনী গার্লফ্রেন্ডো
কোন সে ঢঙী
তবে কি, কি করিও
নির্ঘাত জঙ্গি ?

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:৪৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমাদের সাদাভাইয়া গবির থেকেও বড় কামেল আদমি , তার কাছে আমাদের অনেক কিছু শিখার আছে।

ফিলিস্তিনী গার্লফ্রেন্ডো
কোন সে ঢঙী
তবে কি, কি করিও
নির্ঘাত জঙ্গি ?

৪৩| ০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:৪৭

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: বাহ খুব মজার তো লেখাটি। ধন্যবাদ ভাই

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:৫৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পাঠ ও মন্তব্যের জন্য আপনিও ধন্যবাদ নিন মোস্তফা সোহেল ।

৪৪| ০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:৩৫

জাহিদ অনিক বলেছেন: আই থিংক সাদা মনের মানুষ ইজ ট্রায়িং টু কিস দ্য খেজুর গাছের চাঁছা সাদা অংশ B-)

০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:৫৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ছিঃ এই সব কি বলেন, উনার বউ আছেনা!!!! :-P :-P

৪৫| ০৬ ই জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৮:১৫

তারছেড়া লিমন বলেছেন: ডাব চুরির চেষ্টা একবার করেছিলুম তবে রস চুরির চেষ্টা করা হয় নাই................ খুবই মজা পাইলুম.........

০৬ ই জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৮:২৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পাঠ ও মন্তব্যে আনন্দিত, অনেক ধন্যবাদ লিমন ভাই।

৪৬| ০৭ ই জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৪৮

বিলিয়ার রহমান বলেছেন: তাহলে এই পাঠে সারা জীবনই ডিগ্রী হীন থেকে গেলেন!:)

সবাইকে দিয়ে সব কিছু হয়না ভাই!:):)

০৯ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:২৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ফাইনাল দিয়েছিলাম বলতে পারেন, পাশ করিনি এই যা !
ধন্যবাদ বিলিয়ার রহমান ।

৪৭| ০৯ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১:৩৭

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: চুরি করে খাওয়া অনেক মজার
আহারে হারিয়ে গেলো দিনগুলো

রস চুরি করে আমরা পানি ভর্তি করে রেখে আসতাম

সুন্দর পোস্ট

০৯ ই জানুয়ারি, ২০১৭ বিকাল ৪:৫৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: রস চুরি করে আমরা পানি ভর্তি করে রেখে আসতাম হুম! মডেল সম্পর্কে কি করির অনুমান বেঠিক নয় দেখছি।

৪৮| ০৯ ই জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৮:০২

চাঁদগাজী বলেছেন:


অতি পরিচিত এডভেন্চারকে অনেক উপভোগ্য করে তুলেছেন; গুরু গবি'র অবস্হা অমুমান করে বেচারার জন্য খারাপ লাগছে, বেচারা এমন খারাপ অবস্হায় নিশ্চয় কখনো পড়েনি জীবনে; বাদুরের বাচ্ছা গবির মান সন্মান কেড়ে নিলো!

১০ ই জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:১৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ওস্তাদের কারনে আমরা অনেক সময় বিড়ম্বনায় পড়তাম, কিন্তু সে বিড়ালকে বাঘ আর বাদুরকে সাপ বানিয়ে পার পেয়ে যেতো ।
পাঠ ও মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ চাঁদগাজী।

৪৯| ০৯ ই জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৮:২০

কাছের-মানুষ বলেছেন: চমৎকার লিখেছে হা হা

১০ ই জানুয়ারি, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:২১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ কাছের মানুষ ।

৫০| ১৩ ই জানুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:০৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: গিয়াস উদ্দিন লিটন ,




হঠাৎ করে চোখ গেলো আপনার ১৬ ই নভেম্বর, ২০১২ বিকাল ৫:০৭ য় লেখা "কমেন্টের উত্তর না দিয়ে হাওয়া হয়ে যান কারা ? ( ফান পোস্ট)" পোস্টটিতে ।
ওখানে দেখলুম অনেকগুলো মন্তব্যের উত্তর দেয়া হয়নি । অনেকদিন আগের বলেই হয়তো নোটিফিকেশান পান নি ।
এই পোস্টটি রসের হাড়ি বলে আর একটু রস (মন্তব্যটি ) এখানেই ঢাললুম । চেখে নেবেন । ;)

১৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ বিকাল ৪:৪১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমি এক্ষুনি যাচ্ছি , ইনফরমেটিভ মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ আহমেদ জি এস ভাই।

৫১| ১৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ বিকাল ৫:২০

অন্ধ জনা বলেছেন: ভাই ভাল লিখছেন।আজকাল রম্য বলে যা গেলানো হয়, তাতে ঠোট সামান্য বাকা হলেও সার্থক হত, কিন্তু তাও হয় না।এক্ষেত্রে আপনি সফল। শুভেচ্ছা।

১৫ ই জানুয়ারি, ২০১৭ বিকাল ৫:৩৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমি রম্য লিখতে পারিনা, তাই শিরোনামে লিখে দিয়েছি'নিরস রম্য'। তার পরও লিখাটি আপনার ভাল লেগেছে জেনে ভাল লাগলো।
আপনার সৌজন্যে আমার আরেকটা নিন্ম মানের লিখার লিঙ্ক দিলাম- Click This Link (স্বামী কেন চাকর ; জীবন থেকে নেয়া রম্য ।)

৫২| ২১ শে জানুয়ারি, ২০১৭ রাত ৯:৪৫

খায়রুল আহসান বলেছেন: "নিরস রম্য" নয়, খেজুড়ের রসের মতই সরস, সুস্বাদু রম্য। + +
লেখাটা পড়ে সবাই তাদের নিজ নিজ জীবনের বাঁদরামির কথাগুলো একবার হলেও স্মরণ করবে।

০২ রা ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ রাত ৮:১০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার মন্তব্যে সব সময় অনুপ্রেরণা পাই, অনেক ধন্যবাদ খায়রুল আহসান ভাই

৫৩| ২৮ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:৩৮

স্বপ্না ইসলাম ছোঁয়া বলেছেন: আপনার গল্প পড়ে আমারও লিখতে ইচ্ছে করছে, কলেজে পড়ার সময় ডাব, জাম্বুরা চুরি করে খেয়েছি, সেই কাহিনী গুলো।

২৮ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:৪৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: একজন প্রথম শ্রেনীর কবির মন্তব্যে আনন্দিত!!!
আপনার পদ্য চমৎকার! আশা করছি গদ্যও মন্দ হবেনা।
কাব্যের পাশাপাশি , রস চুরি, ডাব চুরি, মন চুরি নিয়েও লিখুন। :P

৫৪| ২৮ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ সকাল ১১:৫৮

স্বপ্না ইসলাম ছোঁয়া বলেছেন: আমি গদ্য কবিতা লিখি, উপন্যাস লিখেছি ২ টা, ছোট গল্প ১০-১২ টা।

২৮ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:০৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনি একজন গুণীজন । অভিনন্দন নিন।
প্রকাশিত হয়েছে নিশ্চয়! আগে জানলে বইমেলা থেকে বইগুলি সংরহ করে নিতাম।

৫৫| ২৮ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:১৩

স্বপ্না ইসলাম ছোঁয়া বলেছেন: একক বই প্রকাশিত হয়নি, সঙ্কলিত হয়েছে বহু ম্যাগাজিন, পেপার, বইয়ে।

২৮ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ দুপুর ১২:৩৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ।

৫৬| ০৬ ই মার্চ, ২০১৭ বিকাল ৪:০৭

পুলক ঢালী বলেছেন: খুব মজা পেলুম, বুকের চামড়া ছড়ে যাওয়ার স্মৃতি মনে করিয়ে দিয়েছেন :D
ওস্তাদী ফলাতে গিয়ে এবার গবি নিজেই দ্রুত গতিতে পুকুরে হেলান দিয়ে থাকা একটা বড় গাছে উঠে পড়লো,এবং ততোধিক দ্রুত গতিতে গাছ থেকে পুকুরে পড়ে গেল।
হাসতে হাসতে দম আটকে যাওয়ার মত অবস্থা।
আপনাদের ছড়া যুদ্ধও বেশ উপভোগ্য হয়েছে। ভাল লাগা রইলো। :)
সামমা ভাইয়ের ছবি গুলিও দারুন, ওটা দেখে কেউ যেন আবার রস খেতে না যায়, নিপা ভাইরাসের ভয় আছে B-) =p~ =p~

০৯ ই মার্চ, ২০১৭ রাত ৯:৪৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার মন্তব্য বেশ ভাল লাগলো । অনেক শুভ কামনা জানবেন পুলক ঢালী ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.