নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সবাই যখন নীরব, আমি একা চীৎকার করি \n--আমি অন্ধের দেশে চশমা বিক্রি করি।\n

গিয়াস উদ্দিন লিটন

গিয়াস উদ্দিন লিটন › বিস্তারিত পোস্টঃ

রঙ্গ ভরা অঙ্গনে মোর।

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:৪৫




সিঁধেল চোর,গরু চোর, হাঁস চোর, মুরগী চোর, ভোট চোর,কাফন চোর, লাশ চোর,পদকের সোনা চোর সহ আমাদের দেশে রয়েছে হরেক রকম চোর। বলা যায় চোর উৎপাদনের উর্বর ক্ষেত্র আমাদের এই সোনার বাংলা। পত্রিকা মারফত জেনেছিলাম, বাংলাদেশে একটি গ্রামের সব অধিবাসীই নাকি চোর। তারা ভোটার তালিকায় তাদের পেশা লিখেছিলেন “চোর”।

বঙ্গবন্ধুতো রীতিমত চোরের খনি পেয়েছিলেন এই দেশে। এই চোরা ঐতিহ্য কিন্তু আমাদের অতি প্রাচীন। সেই অঙ্গ,ভংগ,কলিংগ, মঘধ, কৌশল, কাঞ্চির যুগে এতদ অঞ্চলে ছিল এক বিখ্যাত ব্রাহ্মণ চোরের আবাস। চুরি করে পালিয়ে থাকার জন্য যিনি রীতিমত এক দুর্গ গড়ে তুলেছিলেন। দুর্গটির নাম চোর চক্রবর্তীর দুর্গ । বাংলাদেশের রংপুর বিভাগের দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলায় চোরকাই রেল্ ক্রসিং এর পাশে অবস্থিত এই প্রাচীন দূর্গটি ১৯৬৮ সালে আবিষ্কৃত হয়। চোর মশাই একবার মগধের রাজ্যে চুরি করতে গিয়ে সৈন্যদের তাড়া খেয়ে নিজের দুর্গে ঢুকে তোরণ লাগিয়ে দেন। সৈন্যরা চোর কই,চোর কই বলে চিৎকার করতে থাকে, এই চোর কই থেকে দুর্গ অঞ্চলটির নাম হয় চোরকাই । এই চোর চক্রবর্তীর দুর্গ আবার বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর এর তালিকাভুক্ত একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা।

তো আমাদের এই ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্য আমরা আবার খুব যত্নশীল। হেন কোন পেশা নেই যেখানে আমরা কোন না কোন ভাবে চুরির ক্ষেত্র প্রস্তুত করতে পারি না। আমাদের দেশে স্বীকৃত পেশার সংখ্যা শতাধিক। রাজনীতিও একটা পেশা। এখানে চুরির এতই মহোৎসব চলে যে, রাজনীতি আর রাজনীতিবিদ অনেকটা চুরি আর চোরের সমার্থক হয়ে গেছে।

রাজনীতিবিদের কথা এলো যখন, প্রসঙ্গক্রমে না হয় একটা গল্পই বলি-
নাসা একবার মঙ্গল গ্রহে মানুষ পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিল। প্রকল্পটা ঝুঁকিপুর্ন বিধায় কেউ যেতে সাহসী হচ্ছিল না। মানবকল্যানে কাউকে না কাউকে তো অবদান রাখতেই হবে ভেবে এক বৃটিশ রাজী হল, এই প্রকল্পে অংশ নিলে সারা বিশ্বে নাম ছড়িয়ে পড়বে এই ভেবে এক আমেরিকানও রাজী হয়। কি জানি ভেবে একজন বাংলাদেশী রাজনীতিবিদও যেতে রাজী।
স্পেসশিপে একজনকেই পাঠানো সম্ভব, তাই ইন্টারভিউ বোর্ডে তিনজনকে ডাকা হল। প্রথমে আমেরিকান। তাকে জিজ্ঞেস করা হল যাবার জন্য তিনি কত টাকা চান।। তিনি উত্তর দিলেন, ২ মিলিয়ন।। এর মাঝে ১ মিলিয়ন আমার পরিবারের জন্য আর বাকি ১ মিলিয়ন মেডিকেলের উন্নয়নের জন্য দান করতে চাই।

এর পরে বৃটিশ। তাকে জিজ্ঞেস করা হল তিনি যাওয়ার জন্য কত টাকা চান?
শুনে তিনি বললেন, ১ মিলিয়ন ডলার, সে টাকার অর্ধেক আমি আমার পরিবারকে দিতে চাই।বাকি অর্ধেক দান করতে চাই।

এবার তৃতীয় আবেদনকারী যিনি আমাদের বাংলাদেশের একজন রাজনীতিবিদ।। উনাকে জিজ্ঞেস করা হল তিনি কত টাকা চান।। তিনি প্রশ্নকর্তার কানে কানে ফিসফিস করে বললেন, ৩ মিলিয়ন!
প্রশ্নকর্তা শুনে অবাক।। বলল, এতো বেশি কেন??
তখন রাজনীতিবিদ আবার তার কানে কানে বলল, ১ মিলিয়ন আমি রাখবো।। এক মিলিয়ন আপনাকে দিবো।। আরেক মিলিয়ন ইঞ্জিনিয়ারটাকে দিয়ে তাকে মঙ্গল গ্রহে পাঠিয়ে দিবো!!

এই হচ্ছে আমাদের রাজনিতিবিধদের চিকন বুদ্ধি,বলা যায় চোরা বুদ্ধি!
এত এত চোর নিয়ে বেকায়দায় আছে বাংলাদেশ।সেদিন এক ইন্ডিয়ান ফেসবুকে লিখেছে, মোদী ভারতে হাসিনা স্টাইলে নির্বাচন করছে। বিদেশ থেকে আমরা উপদেষ্টা আর আইডিয়াবিদ আমদানি করি। আমাদের চোরা আইডিয়াও যে বিদেশে পাচার হয়ে যাচ্ছে সে খবর আমরা রাখিনা। এদেশ আবার ম্যান পাওয়ার রপ্তানিতে পৃথিবীর শীর্ষ দেশ। আহা বিদেশে যদি চোর রপ্তানির সুযোগ থাকতো!

সুযোগ যে একদম নাই তাও নয়। এইতো সেদিন আমাদের ফেরদৌস মিয়াকে রাজনীতির মাঠে আমদানি করে নিয়েছে ভারত। চলতি সপ্তাহে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূলের প্রার্থী কানহাইয়ালাল আগরওয়ালের নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেন ফেরদৌস। বিষয়টি সেদেশে বিরাট হুলুস্থুল ফেলে দিয়েছে।

তাঁর এ অংশগ্রহণের বিষয়ে তীব্র প্রতিবাদ করে বিজেপি।তারা বলছে, আজ ফেরদৌসকে আমদানী করা হয়েছে, কাল আমদানী করা হবে পাকিস্তানের ইমরান খানকে, এ মেনে নেয়া যায়না। এরপর দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়েছে কি না, সে ব্যাপারে প্রতিবেদন চায়। ওই প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ফেরদৌসের ভিসা বাতিল করে তাকে কালো তালিকা ভুক্ত করে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। একটি স্বাধীন দেশের নাগরিক হয়ে আরেকটি স্বাধীন দেশের রাজনীতির মাঠে প্রচারণায় অংশ নিতে পারেন কিনা এই নিয়ে দেশেও চলছে নানা আলোচনা সমালোচনা। তবে যে যাই বলুক, আমি কিন্তু এতে একটা সম্ভাবনা দেখছি,সেটা হচ্ছে চোর রপ্তানির সম্ভাবনা, রাজনীতিবিদ রপ্তানির সম্ভাবনা, ফরেন কারেন্সি আর্ন এর সম্ভাবনা।

মন্তব্য ৩৬ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৩৬) মন্তব্য লিখুন

১| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:০৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


দেশের রাজনীতিবিদরাই ভোট চুরির জন্য দায়ী; এবারের ভোট চুরির ফলে, দেশের রাজনৈতিক অংগনে তেমন পরিবর্তন হয়নি; ভোট চুরি করে যারা নির্বচিত হয়েছে, এরা অবশ্যই খারাপ লোকজন; তবে, ভোট চুরি না হলে, এর থেকে ভালো কেহ নির্বাচিত হওয়ার সম্ভাবনা ছিলো না; কারণ, বিএনপি ও জামাতের কোন ভালো প্রার্থী ছিলো না।

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:১৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: জামাত মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী শক্তি। আই হেট দেম। বাট বিএনপিতে ভাল প্রার্থি ছিলনা এটা আপনার স্ববিরোধী মত। স্মরণ শক্তি যদি আমার সাথে প্রতারণা না করে থাকে তাহলে আমার পষ্ট মনে আছে আপনি বেশ কয়েক জায়গায় ড মঈন খানের প্রশংসা করেছিলেন।

২| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:২১

ভুয়া মফিজ বলেছেন: চোর রপ্তানীর লাইসেন্সের জন্য আপনি এপ্লাই করেন। ইউরোপে গাড়ী চোর রপ্তানী করতে পারেন। এখানে অত্যন্ত দামী দামী সব গাড়ী সারারাত রাস্তায় পরে থাকে। :P

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:১৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনি ইউরোপের স্পন্সর হলে লাইসেন্স নিতে আমার আপত্তি নাই। :P

৩| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:২৯

জুন বলেছেন: উনি গত রাত দশ ঘটিকায় শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করিয়াছেন। তাহার ভিসা বাতিল করিয়া দেশে পাঠানো হইয়াছে বলে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশ। এখানে আমি নিজে বানাইয়া কিছু বলি নাই গিয়াস লিটন :(

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:১৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ইন্ডিয়া বাদী হলে বাংলাদেশেও হয়তো উনাকে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে।

৪| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:৪৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: ‌ফের‌দৌস লোকটার ভাগ্য ভা‌লো। জেল হ‌তে পারত। কাজ‌টি অবশ্যই বিরাট বোকামী ছিল।

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:২০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনি যা বলেছেন তা সাধারণ কমন্সেন্স যুক্ত মানুষেরই বুঝার কথা।

৫| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:০৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ফেরদৌস কোলকাতার ছবিতে অভিনয় করে ঠিক আছে। কিন্তু সে তো বাংলাদেশের মানুষ। সে কেন কোলকাতায় গিয়ে তৃণমূলের জন্য ভোট চাইবে? তার বিরুদ্ধে গৃহীত ব্যবস্থা ঠিক আছে। মাথামোটা গরুর গোবর।

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:২১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ক্ষেপ মারতে মারতে তাদের অভ্যাস গেছে খারাপ হয়ে ।

৬| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:১৪

আরোগ্য বলেছেন: শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের মাটি চোরের ঘাঁটি।

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:৩০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সামুর একজন ননরেজিস্টার্ড পাঠক এই পোস্ট দেখে আমাকে জানিয়েছেন, অনেক আগ থেকেই নাকি বিদেশে চোর রপ্তানি হয়ে আসছে। একটা চক্র নাকি আমাদের দেশ সহ বিভিন্ন দেশ থেকে হজ্জ মৌসুমে ভলান্টিয়ার ভিসায় পকেটমার নিয়ে যায়।

৭| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:১৫

বাংলার মেলা বলেছেন: আওয়ামী লীগের পা চাটা কুত্তা, ভেবেছিল ওপারে গিয়েও ঝুটা কাটা কিছু জুটবে। কিন্তু জুটেছে লাথি। বেচারা!

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:৩১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: |-) |-)

৮| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:৫৬

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: হাহাহা...... অনধিকারচর্চা করবোনা। নৈব নৈব চ । পোস্টে মাইনাস -- -- -- --


১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:২৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মাইনাচ এন পাঠোত্তর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ পদাতিক চৌধুরি

৯| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:১৩

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: কিছু বলার নেই।

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:২৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ মাহমুদুর রহমান

১০| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:২২

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
তাইতো চোরে চোরে মাসতুতু ভাই।

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:২৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ মোঃ মাইদুল সরকার

১১| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:২৪

অজ্ঞ বালক বলেছেন: হালায় যারে কয় গাবুরমার্কা বেক্কল। আমার একটা স্পেশাল গালি আছে ভোঁলদ। ভোঁদাই আর বলদের সংকর। এ হইলো সেই ভোলদ।

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৩০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ভাল ক্রিয়েটিভিটি, ধন্যবাদ অজ্ঞ বালক।

১২| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৪১

রাজীব নুর বলেছেন: নায়ক ফেরদোষ ।

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: জী ভাই।

১৩| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪৬

হাবিব স্যার বলেছেন: চিকন আর মোটা বুদ্ধি যাই বলেন,........ বুদ্ধি কিন্তু থাকা চাই

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: তা ঠিক বলেছেন হাবিব স্যার ।

১৪| ১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:০৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: গিয়াস উদ্দিন লিটন,



চোর চক্রবর্তীর দুর্গের কথা জানা ছিলোনা। এখন চোরের বানানো একটি দুর্গের কথা জানলুম কিন্তু আসলেই কি ইতিহাসটা অমন?
এধার কা মাল ওধার করেন নি তো? মানে চোরা ইতিহাস লেখেন নি তো ? :-<


হুম.......... এমনটা হলে ফরেন কারেন্সী আর্নিংয়ের সম্ভাবনা উজ্ঝল। তাতে দেশের জিডিপিও দুই ডিজিটে উঠতে কতোক্ষন ? B-)

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৮:১৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমরা ডাকাতের এলাকার লোক হলেও চোর নই। বিশ্বাস না হলে আপনি 'চোর চক্রবর্তীর দুর্গ' লিখে সার্চ দেন জি এস ভাই

১৫| ১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:১১

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: মধ্যপ্রাচ্যে ২০০০ রিয়ালের ভিসা ২০০০০ রিয়াল করার পেছনে এবং আরবদের লোভী বানানোতেও আমাদের ব্যবসায়ীদের কিছুটা ভূমিকা আছে। একই অবস্থা মালয়েশিয়ান এজেন্টদের ক্ষেত্রেও। নেপালের মত গরীব দেশ কত কম খরচে বিদেশে লোক পাঠায়, অথচ আমরা যে বেশী টাকা নেই এটা এখন বিদেশীরাও জেনে গিয়েছে! তাই চোরের সাথে সাথে আমরা 'লোভ'ও রপ্তানী করতে পারি...

১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:৫৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: নেপাল, ইন্ডিয়া থেকে মিডল ইস্টে শুধু প্লেনের ভাড়া দিয়ে লোক জায় বলে শুনেছি, আর আমাদের দেশ থেকে লাগে ৫/৭ লাখ টাকা। অথচ সরকারী কোন নজরদারি নেই।

১৬| ২১ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:২৯

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: B-))

২৩ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:২৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ আর্কিওপটেরিক্স ।

১৭| ২৫ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৪৭

রায়হান চৌঃ বলেছেন: রাজনৈতিক দল গুলো হলো বাংলাদেশ সংসদের অলংকার, আর দলের মানুষ গুলো হলো অলংকারের কারুকাজ..... যেমন টা সোনার চেইন এর লকেট ঠিক তেমনি চোর গুলো হলো সংসদের হীরে ঝহরত


ভালো থাকবেন গিয়াস ভাই

২৭ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৩০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সুন্দর বলেছেন রায়হান চৌঃ । ধন্যবাদ নিন।

১৮| ২৬ শে মে, ২০১৯ রাত ১২:৫২

অজানা তীর্থ বলেছেন: ভাইয়া পড়ে অনেক ভালো লাগলো। এইবার আমি চীনে কী করে বাঙ্গালীর চিকন বুদ্ধি ব্যবহার করা হয় তার কিছু কথা বলি। আমি যখন বাসে উঠি দেখি কেউ কার্ড এর ঘষা মাজা করে, কেউবা সরাসরি ১ আর এম বি(চাইনিজ টাকা) সরাসরি একটি বাক্সে রাখছে। যেহেতু আমার কাছে কার্ড নেই আমিও যথারিতীতে ১ আর এম বির একটা কাগজ মুড়ে ফেলে দিলাম। আমার এক বন্ধু আমাকে বাসে বলে আমি অনেক গাধা। ব্যপারটা বুঝিনি। পরে ও আমাকে বললো যেহেতু এক আর এম বির নোট কাগজের তাই এটাকে দুই ভাগে ভাগ করা যায়। ও আমাকে ডেমো দেখানোর জন্যে ১ আর এম বির একটা নোট ২ ভাগ করে ফেললো। পরবর্তী বাসে যাবার সময় আর সুন্দর করে মোড়া দিয়ে আমাকে এক ভাগ দিলো আর ও এক ভাগ নিলো। যদিও ও একভাগ বাক্সে ফেলে দিলো আমি ভয়ে তা করিনি। পরে একটা এক আর এম বির পয়সা পেলে দিলাম। এই ছিলো অনেক কাহিনীর মাঝে রঙ্গ ভরা অঙ্গনে মোর।

০৭ ই জুন, ২০১৯ দুপুর ১:০১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অভিজ্ঞতার সুন্দর বর্ননা।
এরকম একটা ঘটনা- এক সময় টেলিফোন বুথে কয়েন ফেলে কথা বলা হত। ইটালিতে এক বুথ কতৃপক্ষ দেখে কথা হয় প্রচুর কিন্তু পয়সা হয় কম। পাহারায় লোক বসলো। দেখা গেল মানুষ পয়সাকে সুতা দিয়ে বেঁধে বক্সে ফেলে, আবার কথা শেষ হলে সুতা টেনে পয়সা বের করে নেয়। কয়েকজনকে আটক করার পর দেখা গেল এরা সকলেই বাঙালি।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.