নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সবাই যখন নীরব, আমি একা চীৎকার করি \n--আমি অন্ধের দেশে চশমা বিক্রি করি।\n

গিয়াস উদ্দিন লিটন

গিয়াস উদ্দিন লিটন › বিস্তারিত পোস্টঃ

রংগ ভরা অংগনে মোর

১২ ই নভেম্বর, ২০২০ দুপুর ১২:২০

ভোরে হাটছি।রাস্তার পাশের ধান ক্ষেতের আলে দুটি শিশুর সম্মিলিত উল্লাসধ্বনি শুনে এগিয়ে গেলাম।

জানলাম, গতসন্ধায় ভাই-বোন মিলে জমিতে একটা ছেড়া জাল বসিয়ে গেছে। এই ভোরে এসে দেখে একটা জলজ্যান্ত মাছ আটকে আছে।

নিজে জাল পেতে মাছ ধরা,উল্লাসের উপলক্ষ একেবারে ফেলনা নয়। ভাইটার চোখে মুখে পচাব্দি গাজীর আনন্দ, যেন রয়েল বেংগল শিকার করেছে! মাছের সাইজটাও নেহায়েত মন্দ নয়,সোয়া এক ইঞ্চির মত।
জিজ্ঞেস করলাম, এটা কি মাছ?
ভাইবোন সমস্বরে জবাব দিল- 'খইয়ামালা'(খলসে)


ফের হাটতে হাটতে আমি আমার শৈশবে ফিরে গেলাম।
একবার আনারস মার্কা সুতা দিয়ে কাজের ছেলে হামজা মিয়া আর আমি মিলে একটা 'কই' জাল বানিয়েছিলাম।

আমাদের উত্তরের পুকুরের পশ্চিম পাড়ে বিশাল এক 'পাটিপাতা খলা'। সেই পাড়ের ৫/৬ হাত অংশ ভাংগা। এখান দিয়ে পুকুরের কই,শিং,মাগুর,শইল পাতা খলায় গিয়ে হাডুডু, গোল্লাছুট খেলে। সেখানেই জাল বসালাম।

রাতে ভালো ঘুম হলনা,যতক্ষণ জেগেছিলাম শুধু জাল আর মাছের চিন্তা। স্বপ্নে একটা ভাল ইংগিত পেলাম, আমাদের ঘরে সব পাতিল মাছ দিয়ে ভর্তি করে ফেলা হয়েছে,আর কোন খালি পাতিল নাই বিধায় এখন চলছে বিলানোর কাম।

ভোরের আলো ফুটার আগেই আমি আর ভাইপো সাগর জালের কাছে গিয়ে হাজির। জালের পাটখড়ির ফাতনা দেখি "আমায় ভাসাইলিরে আমায় ডুবাইলিরে" অবস্থায় তুমুল আন্দোলিত হচ্ছে।

মাছের লাফালাফি আর ভারে জাল টেনে তুলাই কস্টকর ঠেকছিল। প্রথমেই দেখি একটা বড় সাইজের বাইম মাছ আটকে মোচড়া মোচড়ি করছে। জালের বাকি অংশে দেখি এলাহী কারবার! বিশাল সাইজের তিনটা ধোড়া সাপ পুরো জাল গায়ে পেছিয়ে বসে আছে!আর কোন মাছের নাম গন্ধ নাই।

অনেক কস্টে বাইম মাছটা খুলে ডুলায় ভরলাম। আম্মা বিশাল বাইম দেখে হতবাক!(আড়াই হাত লম্বা বাইম,হতবাক না হয়ে উপায় আছে!)
বল্লেন- হায়! হায়! এটায় কামড়াইলেতো সর্বনাশ হয়ে যেত?
বল্লাম,কত ধরলাম।বাইম মাছে আবার কামড়ায় নাকি!
কে শোনে কার কথা। আম্মা মাছটাকে ডুলা শুদ্ধ উড়াল মেরে ফেলে দিলেন।
আম্মার বর্ননায় জেনেছি,ঘটনা ভিন্ন! ভোরের আবছা আলোয় বাইম মাছ বলে যাকে ভ্রম করেছি আসলে সেটা ছিল একটা কুইচ্ছা। (কুচো)।

মন্তব্য ২৭ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (২৭) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:৩৪

রাজীব নুর বলেছেন: সহজ সরল সুন্দর পোষ্ট।

০৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ৮:৪৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ জানবেন রাজিব দা

২| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:৪৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:

এখন নাকি ঢাকার রেস্টুরেন্টগুলোতে বাইন মাছের বদলে কুইচা মাছ খাওয়ানো হয়।।

তবে দেশের বাইরে এই মাছের চাহিদা আছে।

৩| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ দুপুর ১:৫৪

অধীতি বলেছেন: স্মৃতি মনে করিয়ে দিলেন। ভালো উপস্থাপনা।

৪| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ বিকাল ৩:২৭

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: হাহাহা কুইচ্চা আমাদের এখানে বাগানের কুলিরা এসে শিকার করে নিয়ে যায় ।

দেখলেই ভয় লাগে

গল্পটি ফেসবুকে পড়েছিলাম ধন্যবাদ

৫| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ বিকাল ৪:৪২

ওমেরা বলেছেন: ভালো হয়েছে তবে আপনার অন্যান্য লিখার মত মজার হয়নি।

৬| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:৪৩

ফয়সাল রকি বলেছেন: সুন্দর স্মৃতি কথা।

৭| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:২৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ জানবেন নুর ভাই।

৮| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



ভয়ংকর ঘটনা।
কই জালে ও আনতায় কুইচ্ছা আর সাপ প্রায়ই ধরা পড়তো

৯| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৫৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: গিয়াস উদ্দিন লিটন,





আহা সেই দিনগুলি .......................!!!
গ্রামের মতো না হলেও আমাদের মফস্বল শহরেও কতো কায়দায় যে মাছ ধরেছি আমরা ছোটবেলায়। তখন পুকুর ছিলো যেখানে সেখানে। ছোটবড় সব প্রায় সব রাস্তার পাশে পাশেই ছিলো খাল । তখন বর্ষাকাল এখনকার মতো কেপ্পন ছিলোনা, ছিলোনা বৃষ্টির লোডশেডিংও। ঝরতে শুরু করলে ৫/৭ দিনের আগে থামতোনা কিছুতেই। সমস্ত শহর- শহরতলি জুড়েই চলতো তার তান্ডব।। পুকুর- খাল উপচে পানিতে সাগর হয়ে যেত রাস্তা ঘাট আর তাতে উঠে আসতো মাছ। গামছা দিয়ে খুচুনি জালের মতো মাছ ধরা হোত। রাস্তার উপরে লাঠি দিয়ে পিটিয়েও মাছ ধরেছি। আবার পুকুরে কেবল মাত্র মাছি মেরে সুতোয় বেঁধে " করকিনা" নামের খুব ছোট মাছও ধরা যেতো। মাছি দেখলেই মাছগুলো গপ করে গিলে নিতো আর আমরাও মারো টান হেইয়োর মতো ঝটকা মেরে তাদেরকে ডাঙায় তুলতাম। অবশ্য এই তড়িকায় সাপ-ব্যাঙ ধরা যেতোনা। ঢোঁড়া সাপ ধরা পড়তো ছোট ছোট জালে।
আর গরমের কালে ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে গেলে শুকনো পুকুর খালের কাদায় মাছ ধরার নামে শয়তানি চলতো। তখন বাইন বা বাম মাছ এবং সাপেরও দেখা মিলতো। গ্রামের ছেলেরা সেসব ধরার চেষ্টা করতো আমি তখন ভয়ে ভাগলবা .................. :|

১০| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৯:৩৩

রামিসা রোজা বলেছেন:
বাহ্ ,বেশ মজার ঘটনা তো। আমিও ছোটবেলায় মাছ
চিনতাম না । রুই কাতল / মাগুর শিং এই সিমিলার মাছ
অনেক পরে চিনেছি ।
সুন্দর পোস্ট ।

১১| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ১০:০৭

নেওয়াজ আলি বলেছেন: ফানি ফানি :D ভালো হয়েছে

১২| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ১০:২৬

ইসিয়াক বলেছেন: ফেসবুকে পড়েছি।
ভালো লাগলো। চমৎকার স্মৃতিকথা।

১৩| ১২ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ১১:৪৪

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




সম্ভবত ক্লাস নাইন টেনে পড়াকালীন সময়ে পলো দিয়ে মাছ ধরতে গিয়ে একবার আমার পলোতে কুইচ্চা আটকা পরেছিলো, পলো ফেলে দিয়ে পানির উপর দিয়ে অলিম্পিকের ১০০ মিটার স্প্রিন্টের দৌড়।


১৪| ১৩ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৪৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সাজ্জাদ ভাই,রেস্টুরেন্টে মরা মোরগ বেচা অনেকটা ওপেন সিক্রেট। তাছাড়া খাশির বদলে শেয়াল,কবুতরের বাচ্চার বদলে কাক এসবেরও বেশ চল রয়েছে।
কক্সবাজার অক্টপাশ খেয়েছিলাম অসাধারণ একটা জিনিস। আমার ধারণা কুইচ্ছা জিনিসটা খেতে মজাদার হবার কথা।

১৫| ১৩ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৪৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ওধীতি,আপনার স্মৃতি শেয়ার করুন, আমরা পড়ি।

১৬| ১৩ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৫০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ছবি বু,স্বাদের বেলায় বাইম অসাধারণ, কুইচ্ছাও কোন অংশে কম হবার কথা নয়।

১৭| ১৩ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৫২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ওমেরাবু'আমি মোবাইলে লিখতে পারিনা। এটা মোবাইল দিয়ে ট্রাই করলাম। অবশ্য ল্যাপটপে লিখলেও যে ফাটাফাটি কিছু হয়ে যেত এমনও নয়।
মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ জানবেন।

১৮| ১৩ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৫৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ধন্যবাদ জানবেন ফয়সাল রকি

১৯| ১৩ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৮:৫৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সঠিক বলেছেন গাজী সাহেব, আন্তায় সাপ আমার বেলায়ও ঘটেছিলো।

২০| ১৩ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৯:০৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আহমেদ জী এস ভাই,করকিনা ছাড়া আপনার সাথে আমার সব অভিজ্ঞতার মিল আছে। মাছ ধরার মতো এডভেঞ্চারাস আর আনন্দময় ঘটনা অন্য কিছু হতে পারেনা।
এখন গ্রামের ছেলেদেরও মাছ ধরার অভিজ্ঞতা নাই,থাকবে কিভাবে, কীটনাশকের প্রভাবে মাছইতো নাই।
স্মৃতিময় দীর্ঘ মন্ত্যব্যের জন্য ধন্যবাদ জানবেন।

২১| ১৩ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৯:০৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: রামিসা রোজা, আমার অভিজ্ঞতাও অনেকটা আপনার মত। ছোট বেলায় আমার ধারণা ছিল, পুটি মাছ বড় হয়ে ইলিশ হয়,টেংরা হয় বোয়াল

২২| ১৩ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৯:০৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: নেওয়াজ আলি,অনেক ধন্যবাদ জানবেন।

২৩| ১৩ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৯:০৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ইসিয়াক ভাই, অনেক ধন্যবাদ রইল।

২৪| ১৩ ই নভেম্বর, ২০২০ রাত ৯:১৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ঠাকুর সাহাব মজার অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন। আমাদের অঞ্চলে মাছ ধরার একটা যন্ত্রকে 'চাই' বলে। একবার আমার চাইএ একটা গুইসাপ আটকে ছিল।

২৫| ২৭ শে জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৮:১৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: ছোটবেলায় আমার ধারণাও অনেকটা আপনারটার মতই ছিল। আমি ভাবতাম, পুঁটি মাছ বুঝি বড় হয়ে সরপুটি হয় (ইলিশ নয়)। আইড়, পাঙ্গাস, বোয়াল- এগুলো দেখে একটাকে অপরটার সাথে গুলিয়ে ফেলতাম।

০৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ৮:৪৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মোবাইল থেকে রিপ্লাই দিলে সেটা আলাদা মন্তব্য হয়ে যায়। অনেক দিন পর ল্যাপটপে বসেই আপনার মন্তব্যটি দেখলাম।
পাঠোত্তর মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ জানবেন জনাব খায়রুল আহসান।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.