নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

একজন সুখী মানুষ, স্রষ্টার অপার ক্ষমা ও করুণাধন্য, তাই স্রষ্টার প্রতি শ্রদ্ধাবনত।

খায়রুল আহসান

অবসরে আছি। কিছু কিছু লেখালেখির মাধ্যমে অবসর জীবনটাকে উপভোগ করার চেষ্টা করছি। কিছু সমাজকল্যানমূলক কর্মকান্ডেও জড়িত আছি। মাঝে মাঝে এদিক সেদিকে ভ্রমণেও বের হই। জীবনে কারো বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ করিনি, এখন তো করার প্রশ্নই আসে না। জীবন যা দিয়েছে, তার জন্য স্রষ্টার কাছে ভক্তিভরে কৃতজ্ঞতা জানাই। যা কিছু চেয়েও পাইনি, এখন বুঝি, তা পাবার কথা ছিলনা। তাই না পাওয়ার কোন বেদনা নেই।

খায়রুল আহসান › বিস্তারিত পোস্টঃ

খইমুদ্দির খাট

২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:১৬

খইমুদ্দি কখনো কোনদিন খাটে শোয়নি।
এবাড়ী ওবাড়ী গেছে দিনমজুর হিসেবে,
গায়ে গতরে খেটেছে। কাঠমিস্ত্রীর সাথে
শ্রমিক হিসেবে ফুট ফরমাস খেটেছে,
একটা একটা করে অংশ জোড়া লাগিয়েছে।
এভাবেই সে তাদের ঘুমের ব্যবস্থা করেছে।

আনমনে খইমুদ্দি অবাক বিস্ময়ে ভেবেছে,
কি করে এমন খাটের উপর মানুষ ঘুমায়!
খইমুদ্দির জীবনের আধেক রাত কেটেছে
একটি গোয়াল ঘরের স্যাঁতস্যাঁতে কোণে,
বাকী আধেক বাঁশতলার একটি ছাপড়ায়,
চট চাটাই দিয়ে পাতা মাটির বিছানায়।

সেই শয্যাসুখেই খইমুদ্দির বর্ধিষ্ণু সংসারে
জন্ম নিয়েছে একে একে দশটি সন্তান।
অসুখ বিসুখে পাঁচটি শৈশবেই অক্কা পেয়েছে,
বাকী পাঁচটি যমের থাবা থেকে ফিরে এসেছে।
তাতেই সুখী ছিল খইমুদ্দি। মাত্র দুটো বিড়ি
দিয়েও সহজেই খইমুদ্দির শ্রম কেনা যেতো।

খইমুদ্দি মাঝে মাঝে দার্শনিকের ভাব নিতো।
গ্রামের কেউ মারা গেলে, কবর খোঁড়ার জন্য
তাকে ডাকা হতো। মুর্দার খাটিয়া দেখে সে
বিড়বিড় করে বলতো, ওটা গরীবের খাট।
সে ঠিকই বলেছিলো। চিরদিন মাটিতে শোয়া
খইমুদ্দি একবারই খাটে শুয়েছিল, সেই খাটে!


ঢাকা
২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৪
সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।

মন্তব্য ১৪ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (১৪) মন্তব্য লিখুন

১| ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:২১

জাহিদ ৭১ বলেছেন: এইটা কি গল্প

২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:২২

খায়রুল আহসান বলেছেন: হ্যাঁ।

২| ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৫৪

কিরমানী লিটন বলেছেন: চমৎকার পদ্য গল্প ,শুভকামনা ...

২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:০০

খায়রুল আহসান বলেছেন: ধন্যবাদ, কিরমানী লিটন। মন্তব্যে প্রীত হ'লাম।

৩| ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ সন্ধ্যা ৭:৫৫

প্রামানিক বলেছেন: ভাল লাগল। ধন্যবাদ

২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:০১

খায়রুল আহসান বলেছেন: ালো লেগেছে জেনে খুশী হ'লাম, প্রামানিক। ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা!

৪| ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:০৭

জনাব মাহাবুব বলেছেন: ভালো লাগলো। :)

২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:৪৭

খায়রুল আহসান বলেছেন: ধন্যবাদ, জনাব মাহাবুব।

৫| ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:২৪

ফাহমিদা আফরোজ নিপু বলেছেন: অলীক মাঝে সত্য খইমুদ্দি!

অসম্ভব চমৎকার একটি দর্শন।

২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৮:৫০

খায়রুল আহসান বলেছেন: অসম্ভব সুন্দর, হৃদয়গ্রাহী একটা মন্তব্য রাখার জন্য আপনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি, ফাহমিদা আফরোজ নিপু।

৬| ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ রাত ৯:৩৪

স্পর্শিয়া বলেছেন: অসাধারণ।

২৭ শে অক্টোবর, ২০১৫ রাত ১০:৩৫

খায়রুল আহসান বলেছেন: কবিতাটা 'লাইক' করার জন্য এবং একটি শব্দে এমন উদার মন্তব্য রাখার জন্য অনেক ধন্যবাদ, স্পর্শিয়া।

৭| ২৮ শে অক্টোবর, ২০১৫ দুপুর ২:৪৫

শামছুল ইসলাম বলেছেন: নিজের মত করে খইমুদ্দির গল্পটা বলে গেছেন।
তাতে ছন্দ মেলাতে গিয়ে ভাবটাকে বিন্দুমাত্র খাঁটো করতে চাননি, বক্তব্যে প্রকাশে আপনার ঋজুতা আমাকে মুগ্ধ করেছে।

পংক্তি গুলো বারে বারে পড়ে মন ভরছে নাঃ
//বিড়বিড় করে বলতো, ওটা গরীবের খাট।
সে ঠিকই বলেছিলো। চিরদিন মাটিতে শোয়া
খইমুদ্দি একবারই খাটে শুয়েছিল, সেই খাটে!
//

আহসান ভাইকে ধন্যবাদ মৃত্যুকে স্মরণ করিয়ে দেওয়ার জন্য।

ভাল থাকুন। সবসময়।

২৮ শে অক্টোবর, ২০১৫ বিকাল ৩:১০

খায়রুল আহসান বলেছেন: আমার কবিতার এমন উদার বিশ্লেষণের জন্য আপনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি, শামছুল ইসলাম। কবিতাটি 'লাইক' করাতেও যারপরনাই প্রীত।
কবিতায় বর্ণিত ব্যক্তিটি নিজ চোখে দেখা। তার নামটাও প্রকৃত।
উদ্ধৃতির জন্যও ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.