নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

হে মানব! আর নয়তো দেরী; জেগে তুলে বিবেকের তরী করো হিংসার বলিদান। জন্মান্ধ হয়ে থেকো নাকো তুমি;মানুষ বলে হও বলিয়ান ।

তুমি জীবন খুঁজো সুখের নীড়ে, আমি জীবন খুঁজি দুঃখের ভীরে।,,, রহমান লতিফ,,,,

› বিস্তারিত পোস্টঃ

দ্যা হিপোক্রেসি - নরকের কীটের সাথে সহবাস

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ ভোর ৬:৪৮


পর্ব -০৫

বানেছা বিবির রুমে ঢুকে আমার চোখ ছানাবড়া! পেল্লাই আকারের ঘরের ভিতরটা সুন্দরভাবে পরিপাটি করে সাজানো। কিছুটা ইতস্তত করে ভিতরে ঢুকছি দেখে নিজেই বলতে লাগলেন,
-গৃহসজ্জা আমার হবি। কোথাও ঘুরতে গেলে আমি আগে দেখি সেখানে অন্দরসজ্জার কি কি উপকরণ আছে।
আমি অনেক কথা শুনতে শুনতে উনার কথা ও কাজের মিল খুঁজে পেলাম। চোখ জুড়িয়ে চারপাশটা দেখতে লাগলাম। কি নেই ঘরের মধ্যে! ছিমছাম ডাবল বেডের খাটটি জানালার কাছে স্থাপন করা। একেবারে ডানদিকে দেওয়াল জোড়া ওয়ারড্রব মাঝে একটি টি সেট, দুদিকে দুটি সিংহের হাতলের চেয়ার। বাম দিকে দেওয়াল লাগোয়া সোফা কাম বেড।বেডের উপর আবৃত সুদৃশ্য ভেলভেটের কভারটি দেখে মনে হল আজই যেন বাজার থেকে আনা হয়েছে। এরকম সুসজ্জিত ঘরে ঢোকার সৌভাগ্য আগে কখনো আমার হয়নি। আমি ঠিক বুঝতে পারছিলাম না ঠিক কোন স্থানে গিয়ে বসবো। আমার মনের দ্বিধাগ্রস্ততা বানেছা বিবির চোখে ধরা পরলো। ঈষৎ গলা পরিষ্কার করাতে চোখাচোখি হতেই সোফার দিকে ইশারা করে,
-ওখানে বস।
আমি বাধ্য ছেলের মতন মুশকিল আসান পেয়ে সোফাতে গিয়ে বসে পড়লাম। অনেকদিন আগে কোন এক ফিল্মে দেখেছিলাম সোফার উপর বসে এক অ্যাক্ট্রেস পায়ের উপর পা দিয়ে অপরের সঙ্গে কথা বলছেন। চোখের সামনে সেই চিত্রটি ভেসে উঠলো। এক্ষেত্রে আমার বাসায় ভঙ্গিমাটি কেমন হবে তা ভেবে বেশ সংশয়ে পড়লাম।বানেছা বিবির সামনে পায়ের উপর পা তুলে বসা সংগত হবে কিনা যখন ভাবছি তখনই হঠাৎ উনি বলে উঠলেন,
-কি ব্যাপার! এমন গুটিসুটি মেরে বসে আছো কেন? আমি আড়াল থেকে দেখেছি তুমি বেশ সপ্রতিভ।
-না না এইতো আমি ঠিকই বসেছি, বললেও বেশ লজ্জা পেয়ে বসে ভঙ্গিমাটি বদলালাম।এবার অবশ্য উনি মুখে কিছু আর বললেন না। কিন্তু উনার চোখে মুখের ভঙ্গিমা বলে দিয়েছিল যে আমার বসার ধরনটি এবারও ওনার কাছে স্বাভাবিক লাগেনি। একসময় দেখতে পেলাম বানেছা বিবি তার বেডসাইড ক্যাবিনেট থেকে একটা প্লাস্টিকে মোড়ানো প্যাকেট বাহির করলেন। আমি ভাবলাম রুমে ডেকে মনে হয় কোন গিফটের বক্স আমাকে উপহার দিবেন। কিন্তু পরক্ষণেই দেখি ভ্রম,পুরো বাক্সেটি ঔষধের ডোজ দিয়ে সাজানো। তিনি আমাকে এসব দেখিয়ে বলতে লাগলেন, তার শরীরে কি কি অসুখ বাসা বেঁধে আছে ? কিভাবে তার স্বামী বিয়ের পর বছরের পর বছর তাকে দেশে একাকী কষ্টে ফেলে রেখেছিলো ? আর এখন তার দেশে থাকো একমাত্র মেয়েকে নিয়ে তার যত দুশ্চিন্তা ! অনেক টাকা ইতিমধ্যে খরচ করেছে ফেলেছেন ছেলেমেয়েদেরকে বিলেতে নিয়ে আসার জন্য। যদিও বড় দুই ছেলের ভিসা হয়, কিন্তু মেয়েটাকে এ্যাপিলে দেওয়াতে দুশ্চিন্তা বেড়ে গেছে। হাজারটি কারণের বড় কারণ হলো মেয়েটা যে বড় হচ্ছে। তবে, তিনি শতভাগ আশাবাদী মেয়েটার ভিসা হয়ে যাবে। একসময় তিনি কান্নাজড়িত কন্ঠে বললেন, দেশে আত্নীয় স্বজনের অনেকেই মেয়েকে বিয়ে করতে চায়। কিন্তু তিনি তার মনের মতো একটা ছেলের কাছে মেয়েকে তুলে দিতে চান। তার নিজের জীবনের মতো যেন মেয়েটার জীবন দূর্বিষহ না হয়। তার মতে,আমিই নাকি তার দেখা সবচেয়ে উপযুক্ত ছেলে তার মেয়ের জন্যে। আর আমি যদি রাজী থাকি তবে শীঘ্রই ফোনে সবকিছু ঠিক করে দিবেন। মেয়ের ভিসা হয়ে এদেশে চলে আসলে আমারও লিগ্যাল হওয়ার পাকাপোক্ত ব্যবস্হা হয়ে যাবে। বানেছা বিবির কান্নাজড়িত কন্ঠে এসব শুনে নিজেকে সামলে নিতে কষ্ট হলো। একদিকে বানেছা বিবির দুঃখে বেশ দুঃখবোধ জাগলো অন্যদিকে নিজের কথা ভেবে বেশ সুখী লাগলো। বানেছা বিবি অবস্থা দেখে ভাবলাম ,পৃথিবীতে মানুষকে বাহ্যিক সৌন্দর্য অবলোকন করে তার ভেতরের তীব্র দাবানল কেউ কি কখনো অনুধাবন করতে পারে ! সবকিছু শুনে বানেছা বিবিকে এক সম্মানিত ও মহীয়সী নারী হিসাবে হৃদয়ে স্থান দিলাম। তার প্রতি শ্রদ্ধায় মাথা নত হয়ে গেলো । শরীরের খাঁড়া লোমগুলো কখন যেন হিমায়িত চিংড়ির ন্যায় মুচড়ে গেলো তা বুঝলাম না শুধু বরফের শীতলতা অনুভব করলাম।

বানেছা বিবির কথা মন্ত্রমুগ্ধের মতো শুনে, কোন প্রকার ভাবনা চিন্তা ছাড়াই বাংলাদেশে থাকা বানেছা বিবির কলিজার ধন, একমাত্র আদরের দুলালি, বাঁধনকে বিয়ে করতে রাজী হয়ে গেলাম। আবেগপ্রবণ আমি কিছুতেই আর দ্বিমত করতে পারলাম না। মনে মনে সিদ্ধান্ত নিলাম,যা আছে নসিবে, আল্লাহ যা করে তাই হবে। এমনকি মা-বাবাকে না জানিয়েই বানেছা বিবির কথামতো হাসিমুখে কবুল বলে ফেললাম। আমার হ্যাঁ সূচক কথা তার কাছে অম্লমধুর মনে হলো। তিনি আকাশ পাওয়া’র মতো বিশাল হাসি হাসলেন। এমনিতেই কারো হাসি দেখলে নিজের কাছে বেশ প্রশান্তি লাগে আর তা যদি হয় আমার জন্যে! তাই নিজেকে বেশ ভাগ্যবান মনে করলাম। ভাবখানা এমন যেন রাণী ও রাজ্য দুটো পেয়ে গেছি ! বানেছা বিবি আবারো অভয় দিয়ে বললেন এটা শতভাগ নিশ্চিত তার মেয়ের ভিসা হয়ে বৃটেনে আসবে। সলিসিটর বলেছে তার মেয়ে 'মা-বাবার' রাইটে বৃটেনে আজ হোক কাল হোক আসতে পারবে। আর বাঁধন এদেশে চলে আসার পর আমিও লিগ্যাল হয়ে গেলে তিনি শান্তি পাবেন। এ যেন মায়ের আচলে মুখ রেখে সবচেয়ে কঠিন সময়ে পরম বিশ্বস্ততায় জড়িয়ে ধরে চুমু দেওয়ার মতো, আমিও লাল পাসপোর্টর আশায় আকাশ সমান বুকের ছাতি নিয়ে স্বপ্নসাগরে ভাসলাম ! কিন্তু তা কি সত্যি না লাটাই ছাড়া ঘুড়ি তা'কে জানে ! এবার বাঁধন চলে আসলে আমিও একটি লাল পাসপোর্টের মালিক হয়ে যাবো ! আমার মা'কে সবকিছু বলার পর তিনি জানালেন,'বাবা রে ' তুই যা ভালো মনে করো তাই করো, মায়ের দোয়া তো সবসময় সাথে রইলো। আর বাবা তো রাগান্বিত হয়ে 'এটম বোমা' নিক্ষেপ করলেন, তার কথা হলো, বৃটেনে আর কোন মেয়ে পেলো না ? এই মেয়ের কখনই বা ভিসা হবে ? সে কবে বৃটেনে যাবে আর কখন আমাকে লিগ্যাল করবে? সিলেটের ভাষায় জোরে জোরে বলতে থাকলেন (অইবো ডাইল আর খাইবায় কাইল) আজ ডাল রান্না হবে আর কাল খাবে। মায়ের অনেক মিনতি শেষে বাবা শেষমেশ নিমরাজি হলেন। তারপর এক নতুন অধ্যায়ের শুরু বললে ভুল হবে যেন এক বিরল ও বিচিত্র ইতিহাসের সূচনালগ্ন, আর ইতিহাস সৃষ্টিকারী নিজেই জানলো না কতটা ভয়াবহ ভবিষ্যতের ভিত সে রচনা করতে চললো,,,,



চলবে....
(ভুল ত্রুটির সম্পাদনা সময় করে দেয়া হবে)

মন্তব্য ৬২ টি রেটিং +১১/-০

মন্তব্য (৬২) মন্তব্য লিখুন

১| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৭:৪০

চাঁদগাজী বলেছেন:


ভালো কিছু ঘটার আভাস পাচ্ছি!

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৭:৫০

বলেছেন: আপনি পড়েছেন জেনে ভালো লাগলো রেসপেক্টেড ব্লগার।।।

ভালো থাকুন।।

২| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৮:৩০

হাসান কালবৈশাখী বলেছেন: জমে উঠেছে। চলুক।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৪৭

বলেছেন: পড়ার জন্য ধন্যবাদ প্রিয় হাসান ভাই।।


ভালোবাসা অবিরাম।।

৩| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৮:৩৫

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: প্রিয় লতিফ ভাই,

বানেছা বিবির মেয়ের হৃদয়ে আছড়ে পড়া সুরের মূর্ছনার অপেক্ষায় রইলাম। যদিও সেই সুর কোন হৃদয়ে বাজবে সে বিষয়েও প্রশ্ন রয়ে গেল।

পোস্টে প্রথম লাইক।

শুভকামনা ভালোবাসা প্রিয় লতিফ ভাইকে।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৪৮

বলেছেন: আমিও আপনার অপেক্ষায় থাকি তীর্থের কাকের মতো।।।


ভালোবাসা রইলো দাদা।।।

৪| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:২২

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: আইবো ডাইল খাইবায় কাইলে তো কেমন রহস্যের গন্ধ!! ;)

আজকেই প্রথম চোখে পড়লো!!!! কেনু কেনু কেনু!!!
যাই চোখ বুলিয়ে আসি আগের গুলোয় :)

আরেকটু বড় করা যায় না! ভায়া!
এ যেন চিপসের প‌্যাকেট খুললাম... কয়েকটা খেতে না খেতেই প‌্যাকেট হাতড়াই.. খালি :P =p~ =p~

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৫০

বলেছেন: কবি ভাই যে,

আপনার আগমনী বার্তায় ফুলে ফসলে ভরে উঠলো বানেছা বিবির সংসার!!!

সম্পাদনা করে বড় করা হলো আপনার ইচ্ছের প্রতিফলন।।।

ভালো থাকুন।।

৫| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:২৭

রাজীব নুর বলেছেন: পড়তে ভালো লাগছে।
সাথে আছি।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৫০

বলেছেন: সাথে থাকার জন্য কৃতজ্ঞতা।।।

ভালো থাকুন। ভালোবাসায় থাকুন।।।

৬| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:৩৮

স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: আমি তো ভাবলাম "তাইন আফনারে বালা ফাইন" , এখন তো দেখি আফনারে দামান্দ বানাইতে চাইরা |

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৫২

বলেছেন: স্বামীজি

আপনি তো নীরব অথচ কঠিন পাঠক হে।।

আপনার একটুকরো মন্তব্য লেখার এক্কেবারে মগজ ছুয়ে দিলো।।


পড়ার জন্য কৃতজ্ঞতা সহ ভালোবাসা।।।

৭| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:৫৭

নীল আকাশ বলেছেন: আমার কথাই ঠিক হলো। আমি কোন লেখা পড়লে সেটা খুব মনোযোগ দিয়ে পড়ি। আর মন্তব্যের ব্যাপারে আমি খুব সচেতন থাকি।
বাধনের সাথে গল্পের নায়কের শুভ পরিণয়ের জন্য অপেক্ষায় থাকলাম।
লেখা ভালই লাগছে। সাথেই আছি!
পরিণয়ের আগেই কি কিছু ইটিশপিটিশ দেখাবেন নাকি? দেখালে মন্দ হতো না। লন্ডনী ছেলে বনাম সিলহটি ক্ন্যা!!! জোস কম্বিনেশন!
ধন্যবাদ এবং শুভ কামনা রইল!

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৫৩

বলেছেন: আচ্ছা তারপর.......
আরেকটু আইডিয়া দেন না।।। কি হতে পারে?? হা হা

আপনি তো গল্পের বিশুদ্ধ ইন্জিনিয়ার -- পারেন ও বটে।।।

সাথে থাকার জন্য কৃতজ্ঞতা সবসময়।।।

৮| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:৫৮

নীল আকাশ বলেছেন: লন্ডনী ছেলে বনাম সিলহটি কন্যা!

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৫৩

বলেছেন: শিকড়ের কথা বলে দিলেন যে।।

৯| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:৫৯

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: বাহ শান্তি লাগলো আমি ভাবছিলাম কু প্রস্তাব দিবো হাহাহাহ

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৫৫

বলেছেন: আপনার ভাবনা অনেকের মতোই ছিলো কিন্তু সামাজিক প্লট আর কিচ্ছু কমু না।।।

এত বিজি সিডিউলে সাথে থেকে অনুপ্রেরণা দেওয়ার জন্য শুভেচ্ছা।।।

ভালো থাকুন।।

১০| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:১৩

মুক্তা নীল বলেছেন:
কাহিনীর গতি বেড়ে কোন দিকে যায়
মায়ার বাধনেঅথবা ভয়ঙ্কর আগুনে
--- দেখার অপেক্ষায় রইলাম।
গল্পের সাথেই আছি ভালোলাগা সহ।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৫৬

বলেছেন: হেই হেই।।
আপনি না বললেন আল্লাহর কি কুদরত... শরবত -- হা হা হা




দেখা যাক কি আসে সামনে।।।। সবসময় আপনি সাথে আছেন এটাই বড় পাওয়া।।

ভালোবাসা অহর্নিশ।।।

১১| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:২৪

তারেক ফাহিম বলেছেন: আইবো ডাইল খাইবা কাইল B-)

বাঁধন কই তড়াতড়ি আয়। ভাই’রতো আর সহ্য হয় না :) বাঁধন আইবো বিয়া খামু।

পূর্বের পর্বের কি অবস্থা, দেখিতো।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৫৭

বলেছেন: হা হা হা।

পড়ার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রিয় চিরসবুজ ভাইয়াটা।।।

বিয়ে তোমার টা কি আমরা দাওয়াত পাবো।।।

১২| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:৩৯

জুন বলেছেন: আমারো তো ভৃগুর অবস্থা , আজই কেন চোখে পড়লো !! তবে এর আগে এক পর্বে দেখেছিলাম কিছু নিষেধাজ্ঞা । তাই নিজে বয়োজৈষ্ঠ না আঠারো মাইনাস বুঝতে না পেরে শিরোনাম দেখেই চলে গিয়েছিলাম । আপসুস /:) :`>
অত্যন্ত রহস্যময় এবং টান টান উত্তেজনা বজায় রেখেছেন এই পর্বে । পরের পর্বের অপেক্ষায় ল
+

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৫৯

বলেছেন: ইবনে বতুতা আপু,

আগে কিছুটা ইচ্ছেকৃত নিষেধাজ্ঞা ছিলো কিন্তু করুণাধারা আপুর জন্য তা উঠিয়ে নিলাম আর আপনার জন্য তো অলওয়েজ রাইট।।।।

এগেইন আপনার পদচারণায় মুগ্ধ বানেছার সংসার।।।

ভালোবাসা রলো।।।।ভালো থাকুন।।

১৩| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:৪২

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: কালক্ষেপনের গল্প। ডাইল আর কাইল ( ;) ) তাইতো হুয়াই নট নাও। লিখেছেন বেশ..চলুক

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:০০

বলেছেন: কবিকে সাথে পেয়ে বহুত ভালো লাগলো।।।
ভালো লাগলো আপনার চটজলদি পাওয়ার আশা।।


জীবন সুন্দর হোক কবি।।।

ভালো থাকুন।।

১৪| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ১২:৪৩

নজসু বলেছেন:




আমি অনিয়মিত পাঠক।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:০১

বলেছেন: তুমি নিয়মিত ন হলে তো ভালো লাগে না।।।

প্রথমত আমি নজসু চাই,
-----------

শেষ পর্যন্ত আমি নজসু চাই।।।

১৫| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ১:৩৭

ইসিয়াক বলেছেন: ভালো লাগছে।...

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:০২

বলেছেন: ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা রইলো।।।

ভালো লাগায় বিমোহিত হলাম।।

সাথে থাকার অনুরোধ রইলো।।

১৬| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ২:১১

সেতুর বন্ধন বলেছেন: পাঠকের ভাবনার অন্ত নেই। এক ভেবেছিলাম অন্যরকম ইন্ডিং সত্যিই লেখার মজার বিষয়। সাথেই আছি।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:০৩

বলেছেন: পলা ভাই,
আপনাকে এত আপন আপন মনে হয় কেন!!!!

তেমনি আপনার টুকরো মন্তব্যটাও আরো আপন লাগলো।।।

ভালো থাকুন,, ভালোবাসা অবিরাম।।।

১৭| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৫:১০

রাজীব নুর বলেছেন: নরকের কীটের সাথে সহবাস শিরোনামটা সেই রকম হইছে।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:০৩

বলেছেন: এই শিরোনামেই তবে শিরোপা জেতার চান্স আছে!!!
আবারো আসার জন্য কৃতজ্ঞতা।।।

১৮| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৬

আরোগ্য বলেছেন: still রহস্যের গন্ধ পাচ্ছি বড় ভাই।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:০৪

বলেছেন: আসলে জীবনটাই Full of suspicion!!!

কি বলো!!

১৯| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০১

মুক্তা নীল বলেছেন:
ল'ভাই ,
এই যে, আপনি প্রতি মন্তব্য করেন না কেন? আমার ভাইয়ের কথা তো একদম মিলে গেল, এজন্যই খুশিতে আত্মহারা।
আমার ভাইয়ের জন্য শ্রদ্ধা ও অজস্র ধন্যবাদ রইলো ।
নীল আকাশ ভাইয়ের মন্তব্য ভালো লেগেছে , তাই আবারও মন্তব্যে আসা ।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:০৫

বলেছেন: এত ☺ ☺ খুশিতে মিষ্টি মিঠাই আনেন,,

২০| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৩

ভুয়া মফিজ বলেছেন: এতো ছোট্ট পোষ্ট পড়ে মজা পাইনা।

স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: আমি তো ভাবলাম "তাইন আফনারে বালা ফাইন" , এখন তো দেখি আফনারে দামান্দ বানাইতে চাইরা | হে হে হে.....আমার মনের কথা।

এটা কি কারো জীবনের সত্যিকারের ঘটনা, নাকি শুধুই গল্প?

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:১২

বলেছেন: আফনার ৃনের সাথে অমিলহেতু লেখাটির মূলভাবটা তুলে ধরতে পারলাম।।।

ভাল্লাগছে আপনার সাসপিশান্স।।।।।।
সত্যি নাকি গল্প -- বড়ই মুশকিলে ফেলে দিলেন।।। শেষ পর্বে জানতে পারবেন।।।


আপনার ধৈর্যের জন্য কৃতজ্ঞতা।।।

২১| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:২৬

আনমোনা বলেছেন: নরকের কীট কে? অপেক্ষায় আছি দেখার জন্য।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:১৩

বলেছেন: মাননীয় স্পিকার আমিও জানতে চাই কে সে কীট কী তার কীর্তি!!!!

ধন্যবাদ নিরন্তর।।

২২| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:০৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: ল,




যা অনুমান করেছিলুম তাই। জামাই হতে চলেছেন এটা আগের পোস্টেই অনুমান করেছিলুম।
এবার দেখা যাক, জামাই বাবাজীর কপালে কি জোটে- লাল পাসপোর্ট না লাল দালান.... :(( B:-)

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:১৪

বলেছেন: ইয়েস!!!
আপনার ধারণা সঠিক হওয়াতে বুঝলাম চিন্তার বয়সী মিল আপনার সাথে আমার আছে -- হা হা

ধন্যবাদ প্রিয় কবি, ভালোবাসা অবিরাম।।।

২৩| ১৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:৫০

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: কাহিনী তাহলে এই! ভাবছিলাম অন্যকিছু শুল্লুক টাইপের ধরা দিল পর্বটি। তবে আগামী পর্বে জানতে যাচ্ছি ঘটনার মোড়। ভাল থাকুন সবসময়।

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৭:৪৮

বলেছেন: সময় করে পড়ার জন্য কৃতজ্ঞতা।।।

ভালোবাসা অবিরাম।।

২৪| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:০৫

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: গল্পের পটভুমি নিষ্চয়ই সত্য ঘটনার ছায়া অবল্বনে ........
চলতে থাকুক

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৭:৪৯

বলেছেন: মনে হয় আপনার ধারণাই সইত্য।।।


পড়ার জন্য ধন্যবাদ নিবেন।।।

২৫| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ ভোর ৫:০৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


শিরোনামে, আপনি কি আসলে, "সহবাস" বলতে চেয়েছিলেন, নাকি "বসবাস" বলতে চেয়েছিলেন?

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৭:৫২

বলেছেন: আজকে আরজ আলী মাতব্বর পড়ছিলাম আর আপনার কথা মনে হয়েছিলো -- অনেক ভাবুক দার্শনিক মন আপনার।।

গল্পের শেষ পর্ব পর্যন্ত নাম চেইঞ্জ হলেও হতেও পারে। আপাততঃ সহবাস দিয়েই লেখাটা এগুনোর চেষ্টা।।।
সাজেশনের জন্য ধন্যবাদ।।।

২৬| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৮:২৭

নীল আকাশ বলেছেন: হিন্টস চাচ্ছেন? হুম!
বানেছা বিবি হুট করে অসুস্থ হয়ে পড়লে মাকে দেখার জন্য তড়িঘড়ি করে বাধন লন্ডনে এসে হাজির। এদিকে ছেলেরা কেউ কাছে নেই। নিতানত বাধ্য হ্যেই নায়ককে দৌড়াদৌড়ি করতে হচ্ছে। মা একটু সুস্থ হতেই বাধন লন্ডন শহ্র ঘুরে দেখতে চাইল! হুট করে বানেছা বিবি অসুস্থ হয়ে পড়ায় মেয়েকে বিয়ে আর ছেলে পছন্দ হবার কথা বলতেই পারেনি। অপরিচিত একটা ছেলের সাথে অপরিচিত একটা মেয়ে! জোস কাহিনী! ব্যাস একসাথে ঘুরাঘুরি করতে যেয়ে দিল কা ধড়কান কেস বানিয়ে দেন! গদগদ প্রেম পিড়িতী দেখাতে চাইলে আমার পরিণয় গল্পের শেষের কিছু পযারা দেখে নিতে পারেন।
সাত সকাল বেলা প্রেম কাহিনীর স্ক্রীপ্ট লিখতে বেশ মজা লাগছে!
পারলে মন্তব্য কপি করে ডিলিট করে দিয়েন। এটা বাকি পাঠকদের জন্য নয়।
ধন্যবাদ।

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:৩১

বলেছেন: হা হা --
দেখি কি হয়!!

২৭| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ দুপুর ১:৫৭

এমজেডএফ বলেছেন: ভাই, গল্প চমৎকারভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। ইচ্ছা করেই মন্তব্যটা এবার একটু দেরি করে লিখলাম।

গল্পের প্রতিটি পর্বে যতটুকু ঘটনা ও নাটকীয়তা থাকার প্রয়োজন তা আছে। তবে পর্ব হিসাবে প্রতিটি লেখাকে আরেকটু বড় এবং গল্পের নায়ক-নায়িকাদের পাঠকের কাছে আরো জীবন্ত করে ফুটে তোলার জন্য বর্ণনা কিছুটা বাড়ালে মনে হয় গল্পের আকর্ষণ ও পরিসর দুটিই বাড়বে।

উদাহরণ ১: "আমিই নাকি তার দেখা সবচেয়ে উপযুক্ত ছেলে তার মেয়ের জন্যে। আর আমি যদি রাজী থাকি তবে শীঘ্রই ফোনে সবকিছু ঠিক করে দিবেন। মেয়ের ভিসা হয়ে এদেশে চলে আসলে আমারও লিগ্যাল হওয়ার পাকাপোক্ত ব্যবস্হা হয়ে যাবে। বানেছা বিবির কান্নাজড়িত কন্ঠে এসব শুনে নিজেকে সামলে নিতে কষ্ট হলো।"

উক্ত মুহুর্তটিকে আপনি শুধু আবেগীয় দর্শন দিয়ে বর্ণনা করেছেন। পৃথিবী কঠিন জায়গা! এখানে সবকিছুর একটা বস্তুবাদী দর্শনও রয়েছে। সেই বাস্তবতার দিকটিও তুলে ধরতে পারেন। যেমন: বানেছা বিবির কন্যার ভিসা হলে তখন লাল পাসপোর্টের লোভে বাংলাদেশে ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার পাত্রের অভাব হবে না। তারপরেও বানেছা বিবি নিজের মেয়ে সম্পর্কে স্বচ্ছ কোনো ধারণা না দিয়ে একজন অবৈধ অভিবাসীকে জামাতা করার জন্য এত উদগ্রীব কেন!

উদাহরণ ২: "বানেছা বিবির কথা মন্ত্রমুগ্ধের মতো শুনে, কোন প্রকার ভাবনা চিন্তা ছাড়াই বাংলাদেশে থাকা বানেছা বিবির কলিজার ধন, একমাত্র আদরের দুলালি, বাঁধনকে বিয়ে করতে রাজী হয়ে গেলাম। আবেগপ্রবণ আমি কিছুতেই আর দ্বিমত করতে পারলাম না। মনে মনে সিদ্ধান্ত নিলাম,যা আছে নসিবে, আল্লাহ যা করে তাই হবে।"

এই বর্ণনার সাথে যোগ করতে পারতেন একজন অবৈধ অভিবাসীর "মজবুরি হাওলাত" নিয়ে কিছু কথা। একটি লাল পাসপোর্টের জন্য যেখানে মানুষ দিনকে রাত রাতকে দিন করছে সেখানে গল্পের নায়ক বাঁধনের রূপ-গুণ-বয়স ইত্যদি নিয়ে মোটেই চিন্তিত নন। লাল পাসপোর্টের বিনিময়ে বিয়ের জন্য "পাত্রী একজন মেয়েলোক" হলেই হলো আর বেশি কিছু লাগে না ইত্যাদি।

গল্পের শেষে বললেন:
"তারপর এক নতুন অধ্যায়ের শুরু বললে ভুল হবে যেন এক বিরল ও বিচিত্র ইতিহাসের সূচনালগ্ন, আর ইতিহাস সৃষ্টিকারী নিজেই জানলো না কতটা ভয়াবহ ভবিষ্যতের ভিত সে রচনা করতে চললো,,,"
এখানে "আর ইতিহাস সৃষ্টিকারী নিজেই জানলো না কতটা ভয়াবহ ভবিষ্যতের ভিত সে রচনা করতে চললো" - এ নেতিবাচক লাইনটা না লিখলেও পারতেন। ভবিষ্যৎ ভালো হবে নাকি খারাপ হবে সেটা জানার জন্য পাঠককে অপেক্ষায় রাখুন।

পরিশেষে, বিনীত শ্রদ্ধা সহকারে জানাতে চাই - আপনার মত একজন গুনী লেখককে জ্ঞান দান করার মতো বিন্দুমাত্র যোগ্যতা আমার নেই। শুধুমাত্র একজন পাঠক হিসাবে একটু বেশি আবদার নিয়ে আমার ব্যক্তিগত অভিমতটুকু জানালাম। আশা করি ভুল হলে ক্ষমাসুন্দর চোখে দেখবেন।

শুভকামনা রইলো।

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:৩৬

বলেছেন: আহ!! ভালোবাসা!! ভালোবাসা আর ভালোবাসা ভাই,

সত্যি তো অনেক ভাবনার খোঁড়াক দিয়ে গেলেন বিদগ্ধ পাঠক ও লেখকের দৃষ্টিতে।।। এভাবেই বলতে চেয়েছিলাম।।।। এভাবেই হবে।।। জাস্ট আর্টিষ্টিক আপনার উদাহরণগুলো।।। এভাবেই পাশে থাকলে শক্তিশালী গল্প হয়ে যাবে।।।
সময় করে সবগুলো এডিট করবো তাইতো বলা হয় ব্লগে এলে শেখা যায় অনেককিছু আর যদি থাকে আপনার মতো শুভাকাঙ্ক্ষী।।।


আপনার মত একজন গুনী লেখককে জ্ঞান দান করার মতো বিন্দুমাত্র যোগ্যতা আমার নেই--- এটা না বললেই বন্ধুত্ব জমবে শেখার কি কোন শেষ আছে আর সমালোচনা না হলে কি সৃষ্টির মজা আছে।।। পাশে থাকার জন্য এক আকাশ ভালোবাসা।।।

আসসালামু আলাইকুম।।।


২৮| ২০ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৪:২১

এ্যান্টনি ফিরিঙ্গী বলেছেন: লেখাটি খুব দ্রুত এগোচ্ছে।

২০ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:০০

বলেছেন: এই প্রথম আপনাকে পেলাম -- অভিবাদন হে গুণী।।।

পড়ার জন্য ধন্যবাদ।।

সাথে থাকার জন্য কৃতজ্ঞতা।।

২৯| ১০ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১১:২৫

মাহের ইসলাম বলেছেন: মাকে দেখে মেয়েকে বিয়ে করতে রাজী হলেন ?

ছবি?
টেলিফোনে একটু কথা?

কেমন তাড়াহুড়ো হয়ে গেল না?

১১ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:২১

বলেছেন: পাসপোর্ট ভাই, মেয়ে বড় না, কানা খোড়া হ'লেই হলো -- পাসপোর্ট হবে যে৷

৩০| ১১ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১০:০৩

মাহের ইসলাম বলেছেন: ঠিক আছে।
আমার তো আর পাসপোর্টের টান নেই।
আমিই নাহয় ভাবির ছবি দেখবো, কি বলেন ?

ভয় নেই। আমার বিয়ে-সংসার-বাচ্চা-কাচ্চা সব আছে।
ঈদ মোবারক।

১১ ই আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৮

বলেছেন: ঈদের সালাম ও শুভেচ্ছা ভাই।।

হাসলাম।।।।
আপনার জন্য শুভকামনা রইল।।

সম্পাদনা করে নিবো আপনার সদুপদেশ ভালো লাগলো।।।

৩১| ১২ ই আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৪

মুক্তা নীল বলেছেন:
ল'ভাই

বাকি পর্বগুলো লিখেন না কেন ? অপেক্ষায় রইলাম

১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ২:৪৩

বলেছেন: অপেক্ষায় আছেন জেনে মন্দ লাগলো না।।।

লেখা শেষ,, সম্পাদনা চলছে.....


ধন্যবাদ বেশ করে।।।।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.