নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

চলে গেলে- তবু কিছু থাকবে আমার : আমি রেখে যাবোআমার একলা ছায়া, হারানো চিবুক, চোখ, আমার নিয়তি

মনিরা সুলতানা

সামু র বয় বৃদ্ধার ব্লগ

মনিরা সুলতানা › বিস্তারিত পোস্টঃ

সাতে সত্তরে - সতেরোর সাতকাহন

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৭:১৯



আঙুলের ভাঁজে গুনেগুনে বেহিসাবি কাটানো দিনগুলো তে ব্লগের সাথে পরিচয় আমার! জীবনের নিদারুণ খর সময় অথচ সবচাইতে পাললিক সময় সেটা। দূর্বাঘাসে ঘাসফড়িঙ এর দিন কাটানো এই আমি তখন গুটিসুটি মেরে গৃহকোণে। জীবনের এই বাঁকে অসম্ভব দ্রুত ঘটে যাওয়া রুপান্তর গুলো সামলাতে সামলাতে প্রায় ভুলে যাওয়া অন্য এক আমি জন্ম হচ্ছিলো তখন। রূপান্তরের ও সুক্ষচেরা রক্তক্ষরণের বেদনা আছে ! আছে নিত্য নতুনের আনকোরা আনন্দ! প্রবাস জীবন ! পরবাসী জীবন ! রোদ মেঘ ছায়া, আনন্দ আবদার আর স্বজন প্রিয়জন ছেড়ে নদী ভাঙা বসতি জীবন। ডুবতে থাকা সময়ে বাংলা হরফ দেখে খড়কুটো আঁকড়ে ধরার মত তখন ব্লগ কেই আঁকড়ে ধরেছিলাম।


ব্লগের শুরুর দিকের দিনগুলো ছিল পালাই পালাই; জমজমাট তখন গল্প কবিতা ভ্রমণ গল্প ! এবং মন্তব্যে ও বেশ ভাবসাবে ই দিতে হয়। সব দেখে শুনে ভড়কে গেলাম, মনে হচ্ছিল অন্য কোন জীবনের অংশ সেটা, ভয়ে আর ব্লগে আসি নাই। এর পর যখন ফেসবুকে আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচিত সব মুখে এলো, প্রায়শই তাদের লেখায় চলে আসত ব্লগের নাম, তেমন ই একটা পোস্টের সূত্র ধরে ব্লগে নিজের নামে একটা আইডি খুলে ফেললাম। বেশ কিছুদিন চলে গেল জানতে আর বুঝতে। এরপর আবার নেই নেই, পালাই পালাই ব্লগ থেকে অনেকদিন- এবং অবশ্যই সেটা লেখার ভয়ে।


খুব মনে আছে,তখন ব্লগে অনেকগুলো বেলুন দিয়ে শুভেচ্ছা পোস্ট দিতো জন্মদিনের, সেবার জন্মদিনে প্রায় সারাদিন ব্লগের পাতা টা খুলে রেখেছিলাম। কিছুক্ষণ পরপর নিজেই দেখতাম মনে হত কাছের কারো শুভেচ্ছা কার্ড। সবাই কে লিখতে দেখে, একদিন নিজে ই ইংলিশ ফ্রন্টে ফেসবুক নিয়ে আমার অভিজ্ঞতার কথা লিখে ফেললাম, আমার ধারনা কে প্রায় অসাড় প্রমাণ করে সেই লেখা কয়েকজন পড়ে ফেললেন, এবং মন্তব্যে একজন লিখলেন লেখা ভালো হয়েছে আপনি বাংলায় লেখার চেষ্টা করুন। আদাজল খেয়ে নেমে গেলাম বাংলা টাইপিং এ, কতদিন লেগেছিল মনে নেই; কিন্তু ব্লগ পাতায় উঠে এলো আমার বাংলায় লেখা প্রথম পোষ্ট।
তারপর !! তারপরের ইতিহাস তো ব্লগের বাঁকে বাঁকে, পাতায় পাতায়।


লেখায় যে আসত তাকেই মনে হয় ভীষণ আপন! পরিবারের কেউ! যেখানে থাকি সেখানকার পাখি ও অচেনা মনে হত যে। তাই বাংলা লেখার অক্ষরগুলোই আপন ছিল। শুরু থেকে নিয়মিত কয়েকজন ব্লগারের সাথে দুর্দান্ত সময় কাটিয়েছি। নীরব নিলয়, কালা মনের ধলা মানুষ, মাহমুদুর রহমান সুজন , শাফ্‌ক্বাত, শুকনা মরিচ, অদ্বিতীয়া আমি , প্লিওসিন অথবা গ্লসিয়ার, মনে নাই, খেয়া ঘাট , না পারভীন, প্যাপিলন, ডক্টর এক্স, সকাল রয়, ভুল উচ্ছ্বাস, শুকনোপাতা ০০৭ , স্পাইসিস্পাই001, বোকামানুষ, কবি ও কাব্য, নুর ফ্য়জুর রেজা, আমি ভূত , কাণ্ডারি অথর্ব, আমিনুর রহমান, বাংলাদেশি দালাল, নাছির৮৪, রেজোওয়ানা, তামিম ইবনে আমান, আরমিন, সচেতনহ্যাপী , বেলাশেষে, আরজুপনি, আশিক মাসুম , একজন আরমান, শেরশায়েরী, স্নিগ্ধ শোভন , কুনোব্যাঙ , মামুন রশিদ, শোভন শামস, মেহেরুন, স্বদেশ হাসনাইন, ইমরোজ কবীর মুন, গোলাম দাস্তগীর লিসানী, ঘুমাইলে চোখে দেখি না, টেস্টিং সল্ট , সোহাগ সকাল, জাকারিয়া মুবিন, প্রবাসী পাঠক , তোমদাচী, নৈঝত, রহস্যময়ী কন্যা, সোনালী ডানার চিল, এম হুসাইন, পরিবেশ বন্ধু, বোকামন রাইসুল নয়ন, তাসনুভা সাখাওয়াত বীথি, আশরাফুল ইসলাম দূর্জয় , তানজিয়া মোবারক মণীষা, অপর্ণা মম্ময়, শেরজা তপন, আমি ইহতিব , ইরফান বর্ষণ, সমুদ্র কন্যা, হাসান মাহবুব, বৃতি , ভারসাম্য , মাহমুদ ০০৭ , নীলসুপ্ত , শায়মা , মানবী , মাঈনউদ্দিন মইনুল, স্বপ্নবাজ অভি।
এদের সাথে সখ্যতা হল। সে এক অন্যরকম দিন রাত্রি।


আমি নিঃসন্দেহে একজন আলসে লেখক, তবে পাঠে আমি দ্রুত এবং পরিশ্রমী! ডিজিটাল সময়ে যে কোন দশ লাইনের লেখা ই পাঠক কে ভীত করে, ব্লগে সত্যি বলতে পাঠকের চাইতে লেখক বেশী। ব্লগে আমার সপ্তম বর্ষপূর্তি এবং সত্তরতম পোস্ট! তাই সতেরো' বিষয়ে সাতে' র টাইম লাইনে সাজালাম।


১- আমার প্রথম সাতঃ

ক - প্রথম পোস্ট - আমার ফেসবুক নামা
খ - প্রথম মন্তব্য করে ইতিহাসের পাতায় নাম লিখেয়ে ছিলেন ইরানপন্থী।
গ - প্রথম উৎসর্গ স্পাইসিস্পাই001 তার সামায়ন ও রিধী -
ঘ - প্রথম কবিতা পূর্ণতা
ঙ - প্রথম গল্প পারলে না !!!!!
চ- প্রথম ভ্রমণ পতৌদি প্রাসাদ - হারিয়ে যাওয়া সৃতি
ছ- প্রথম স্মৃতিকথা কেয়া পাতায় নৌকা ভাসানোর দিনগুলো


২- আমাকে উৎসর্গ করা সাত
ক- খেয়াঘাট এক মিনিটের ছোটগল্প- জানিনা পেরেক কোথায় বিঁধে আছে?
খ- দিশেহারা রাজপুত্র "আন্তর্জাতিক নারী দিবস" → নারীর প্রতি শ্রদ্ধ্যার্ঘ
গ- শায়মা মেধা বিকাশে শিশুর খেলনা ও খেলা- কোনটা দেবো, কিভাবে খেলবো (প্যারেন্টস এ্যন্ড টিচারস গাইড)
ঘ- কাওসার চৌধুরী তিন চাকার চক্র (গল্প)
ঙ- কি করি আজ ভেবে না পাই ''শুভ জন্মদিন'' প্রিয় মনিরা'পু
চ- সনেট কবি ব্লগার মনিরা সুলতানা
ছ- আরোগ্য বাহারি পুরান ঢাকা


৩-ক প্রিয় ব্লগার সাতঃ
করুনাধারা আপুঃ করুনাধারা
সব সময় চমৎকার সব আলাদা আলাদা বিষয়ে পোস্ট দিয়ে ব্লগ কে চমৎকৃত করায় করুনাধারা আপুর জুড়ি নেই! শিক্ষণীয় এবং আকর্ষণীয় তো বটেই। তাছাড়া আপু সব সময় এত এত মিষ্টি করে সবার লেখায় থাকেন যে লেখায় উনার উপস্থিতি ই আনন্দের হয়ে যায়। লেখা এবং মন্তব্যে সবাইকে মায়ায় বেঁধেছেন আপু।


জুন আপু জুন আপু
ভ্রমণে ভ্রমণে ভয়ংকর ব্যস্ত হয়ে ও জুন আপু ব্লগের আরেক মায়ার সমুদ্র! আপুর ভ্রমণ গল্প গুলো ব্লগের সম্পদ নিঃসন্দেহে। চমৎকার সব মন্তব্য আর পরিশ্রমী পোস্ট নিয়ে আমার প্রিয় তালিকায় আছেন আপু।

না পারভীন না পারভিন
যদিও আজকাল নার্গিস পারভীন ব্লগে নিয়মিত নন, তবুও কিছুকিছু ব্লগারের লেখা মিথস্ক্রিয়া মন্তব্য এত বেশি ছাপ রেখে যায় যে সবসময়ে সব খানেই ফিরে আসে সেসব নাম। নার্গিসের চিকিৎসা বিষয়ক লেখাগুলো নিঃসন্দেহে ব্লগ কে সমৃদ্ধ করেছে। আর পাঠকদের সাহায্য করছে অনেক অজানা বিষয়ে জানতে।

আরমিন আরমিন
ফিকে হয়ে আসা ব্লগারের তালিকায় থাকলে ও এই ধানকন্যা তার উচ্ছল উজ্জ্বল উপস্থিতিতে সবসময়ে আমার প্রিয়তে ই থাকবে।

সামু পাগলা ০০৭ সামু পাগলা ০০৭
অসম্ভব প্রাণশক্তির অধিকারী সামু ব্লগের পাগল এই ০০৭ তার অভিজ্ঞতার ঝরঝরে বর্ণনা; জমজমাট আড্ডা পোস্ট আর মাঝে মাঝেই পেটে খিল ধরানো হাসির ফোয়ারা নিয়ে আসে লেখায়। আমি চমৎকৃত হই বিস্মিত হই আর আরও বেশি ভালোবেসে ফেলি।

মানবী মানবী
ব্লগ নিকের নামের যথার্থতা প্রমাণ করে অসম্ভব মানবীয় গুন নিয়ে ব্লগিং করেছেন মানবী; আজকাল দেখা যায় না যদিও। লেখায় মন্তব্যে নিজস্বতার ভীষণ ছাপ রাখা এই ব্লগার রয়ে গেছেন আমার প্রিয় তে।

সোহানী আপু সোহানী আপু
ব্লগিং দশক পূর্তি করা ব্লগার সোহানী আপু ! পরিশ্রম ও মেধায় সমন্বয়ে সফলতার অনন্য দৃষ্টান্ত রেখেছেন সবখানেই। আপুর লেখা অভিজ্ঞতা পোস্ট গুলো আমাদের সবাইকে অনেক ব্যাপারে সাহায্য করেছে। প্রাণশক্তিতে ভরপুর আপু মন্তব্যে ও থাকেন উজ্জ্বল।


৩- খ প্রিয় ব্লগার সাতঃ

ডঃ এম এ আলী
ব্লগের অন্যতম গুণীজন হিসেবে দেশের বর্তমান সমস্যা এবং তার প্রতিকার সহ লেখাগুলো সবসময়ে ব্লগ এবং আমাদের কে সমৃদ্ধ করে আসছে। যে কোন বিষয়ে উনার জ্ঞানের গভীরতা পাঠক কে মুগ্ধ করার মত। শক্তিশালী লেখনী এবং ব্লগারদের লেখায় বিশ্লেষণাত্মক মন্তব্য নিয়ে ব্লগের অন্যতম অভিভাবক হিসেবে আছেন আলী ভাই।

আহমেদ জী এস
কবিতা মুক্তগদ্য ভ্রমণ সহ অভিনব বিষয়ে অসাধারণ সব লেখায় ব্লগ কে সমৃদ্ধ করে যাচ্ছেন ভাইয়া! ব্লগারদের লেখায় পরামর্শ উৎসাহ সব দিকেই থাকে যত্নের ছাপ। আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্বের অধিকারী একজন ব্লগার হিসেবে তিনি ব্লগের অন্যতম জনপ্রিয় একজন। নিজস্ব মেধা'র দীপ্তি ছড়িয়ে ব্লগারদের আস্থার প্রতীক হয়ে আছেন।

খায়রুল আহসান
খুব সাধারণ ছোট্ট বিষয় নিয়ে সব লেখায় ও আবেশ ছড়ান আহসান ভাই; নিত্যকার গান গল্প জীবন চর্চা জীবন বোধ উঠে আসে লেখায় মমতায় আর অকৃত্রিমতায়। মন্তব্যে উৎসাহে ব্লগ কে বেঁধেছেন মায়ায়।

শেরজা তপন
বহুদিন অপেক্ষায় শেরজা তপনের লেখার; তবুও রয়ে গেছেন প্রিয় তে নিজস্ব লেখার যাদুতে! অসম্ভব প্রাণোচ্ছল বর্ণনা নতুন নতুন লেখার বাঁক সবকিছু মিলিয়ে শেরজা তপন অনন্য। সহ ব্লগারদের সাথে মিথস্ক্রিয়ায় ও উনি সিদ্ধহস্ত।

মোস্তাফা কামাল পলাশ
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত সমস্যা সমাধান এবং সতর্কতা মূলক লেখালিখি দিয়ে ব্লগ কে অন্যমাত্রার সমৃদ্ধ করে চলেছেন মোস্তাফা কামাল পলাশ। পাশাপাশি রয়েছে মানবিক সব কার্যক্রমে সক্রিয়তা। আজকাল মন্তব্যে কম থাকছেন হয়ত পেশাগত ব্যস্ততার জন্য কিন্তু সঠিক সময়ে সতর্ক করতে ভোলেন না আমাদের।

ডক্টর এক্স
মনস্তাত্ত্বিক বিষয়ে ডক্টর এক্স এর লেখা আমার কাছে ব্লগের আকর্ষণীয় এবং সমৃদ্ধ অংশ! অসম্ভব মুন্সিয়ানায় তুলে আনেন মন জাগতিক তথ্য। ডক্টর এক্স লেখায় একধরনের আকর্ষণ আছে যা আপনাকে শেষ লাইন তক নিয়ে যাবে।

কালীদাস
আজকাল লিখছেন কম মন্তব্য বেশি এই ট্রাশ মেটাল লাভারের। একটু পিছিয়ে আগের সিরিজগুলো এক একটা অভিজ্ঞতার খনি। স্মৃতিচারণ নিজের গল্প বলার সহজিয়া স্টাইল মহাকবি কে আমাদের সবার কাছের একজন করে রেখেছে।



৪ - ক প্রিয় কবি সাতঃ

বৃতি বৃতি
একটি হারিয়ে যাওয়া সব কিছুর তালিকা, বিজ্ঞপ্তি নয় = লেখা টি পড়ে আমি বৃতির লেখার প্রেমে পড়েছিলাম! তারপর আর কি শব্দে শব্দে চিত্ররূপে কল্পনায় ভাগাভাগীতে আজও বৃতির লেখা আমাকে মুগ্ধ করে।

শায়মা শায়মা
শায়মা যে কতকিছু করে আবার কবিতা ও লিখে লিখে খোকাভাইকে আমাদের সাথে পরিচয় করায়, এক হাজার একতম কনিষ্ঠ প্রেমিক হতে চাওয়া যুবক ও তার কবিতায় স্থান পায়। মাঝেমাঝে তার দাঁত ভাঙা কবিতার শব্দের ইট আমার করোটি ছুঁয়ে ফিরে আসে যদিও। সবকিছু নিয়েই আমার প্রিয় তালিকায় কবি শায়মা।

শিখা রহমান শিখা রহমান
শিখার কবিতা মনের দুয়ার খোলা কবিতা, হোক সে ছুঁয়ে দিতে না পারার দীর্ঘশ্বাস অথবা স্পর্শের আনন্দ !! পাঁজরের নীচের ক্ষত হোক অথবা নক্ষত্র আঁকা গাল কপাল সব বর্ণনাতেই শিখার লেখার আবেগ দ্রুতগামী ঘোড়সওয়ার হয়ে পাঠকের খুব কাছে কাছে থাকে। শিখা রহমানের কবিতায় যেমন আহবান থাকে নিকোটিনের এলচুল রুদ্রের; তেমনি থাকে লালশাড়ি টিপ কাজলের মায়া, বইমেলা ছোঁয়া কবি' র হৃদয় ঈশ্বরী।

মিথীমারজান মিথী_মারজান
মিথীর কবিতার শব্দের পেলবতা কোমলতা বিষণ্ণতা পাঠকের হৃদয়ের অতলান্তিক ছোঁয় ! ভাবের গভীরতা পাঠকে করে তৃপ্ত। চন্দ্রমা ছুঁয়ে দিতে চাওয়ার আকুতি অথবা আবদারের মহুয়া ফুল সব রূপেই সুগন্ধ তীব্র।

উম্মে সায়েমা উম্মে সায়মা
ব্লগের এই স্বল্পভাষী কবি'র কবিতার বলয় থেকে মুক্তি মেলা ভার! ঈর্ষান্বিত ভাবে সে এঁকে চলে ব্লগের ক্যানভাসে শব্দের শিল্পিত অবয়ব। সৌন্দর্যের আপেক্ষিকতা বর্ণনা উঠে আসে শব্দে শব্দে ফুল হয়ে। আর রয়ে যায় পাঠকের প্রিয় তালিকায়।

রাবেয়া রহিম রাবেয়া আপু
রাবেয়া আপুর অহর্নিশ যাতনা বাড়ানোর কৃষ্ণপক্ষের রাতগুলোর শৈল্পিক উপস্থাপন অবশ্যই পাঠকে মোহিত করবে। কথোপকথন ধাঁচের অথবা প্রান্তিক ভাষায় ! সব ভাবেই আশ্চর্য মুন্সিয়ানায় তুলে আনেন হৃদ কথন।

নীলপরি নীলপরি
এ সময়ে ব্লগের দুর্দান্ত লেখা কবিতার কবি একজন নীলপরি ! শার্টের পকেটে আকাশ খুঁজতে চাওয়া ভালোবাসা অথবা বেহিসাবি ভালোবাসার মাসুল সবভাবেই রেখে গেছে শব্দশিল্প।



৪- খ প্রিয় কবি সাতঃ

দিশেহারা রাজপুত্র দিশেহারা রাজপুত্র
দিশেহারা রাজপুত্রের কবিতার রাজ্যে পাঠকে মুহুর্মুহু হারাতে হয়! বাবার খুদা আঁকা র চিত্ররূপে মা'য়ের আয়ু ফুঁকে দেয়ার মমতায়! রাজপুত্র লেখেন জুঁইফুল! নিরু নামের দুঃখ রাখেন অস্তিনে আর হরিণ টানা দুপুর আঁকেন শব্দে। কবিতায় টানা লাইনে নিয়ে যাবে কয়েক ক্রোশ আনন্দে।

জাহিদ অনিক জাহিদ অনিক
বৈচিত্র্য ভাষা আর ভাবে সব দিকেই এই কবি' র কবিতার জয়জয়কার! জাহিদ অনিকের কবিতারা পাঠকের কথা বলে একজন কবি' র কথা বলে। জাহিদের কবিতায় শব্দ পাখির দল গান করে, কাউকে শোনায় কবিতা আবার কারো অন্তর বেদনার উপশম। কবিতারা যে পাঠকের চোখের তারা স্পর্শ করে, তাদের সবাইকে সম্পর্কের মায়ায় রাখে।

ভ্রমরের ডানা ভ্রমরের ডানা
ভ্রমরের ডানার চঞ্চলতা জমা রাখেন এ কবি নিজের লেখায়। ফেনিল নীলাভ সমুদ্র হলদে ফুলের মায়া প্রকৃতির রূপ যেন কবিতায় লেখা করে তার। শ্যামলিমা ছুঁয়ে স্নিগ্ধতা বিলায় কবিতায়।

কথাকথিকেথিকথন কথাকথিকেথিকথন
বড্ড কঠিন অথচ কী আশ্চর্য মোহনীয় ! নামের মত কবিতা নিয়ে ও এক লাইন বলাই যথেষ্ট প্রিয় এ লেখকের।

নাগরিক কবি নাগরিক কবি
উনি নগরের ই কবি, নাগরিক কবির কবিতায় নগরের ই উপাখ্যান থাকে।

কিরমানী লিটন কিরমানী লিটন
সহজ ছন্দবদ্ধতায় অপূর্ব কৌশলে উনি ফুটয়ে তোলেন কাব্য ফুল।

আজাদ মাহাবুবুল আজাদ মাহাবুবুল
মাহাবুবুল আজাদের কবিতায় আমি মাটির গন্ধ পাই। লেখার কোমলতা আত্মীয়তা বন্ধনে বাঁধে সবাই কে



৫ - ছড়াকার সাতঃ

প্রিয় প্রিয় সব ছড়াকার নিয়ে আমার চাইতে ব্লগের অন্য সবাই ভালো বলতে পারবেন। সাত লিখতে বসেছি অথচ সাতজন প্রিয় নেই তাই বেশি প্রিয় যে তার নাম ই এনেছি।

কি করি আজ ভেবে না পাইঃ
সুপার জিনিয়াস ছড়াকার, মুখে মুখে ছড়ায় গাঁথার এক অসাধারণ প্রতিভা নিঃসন্দেহে। আমাদের ব্লগের সবার লাডলা এই কি করি আজ ভেবে না পাই।

প্রামাণিক ভাইঃ
প্রামাণিক ভাই এর ছন্দ বন্ধতায় শিল্প খেলা করে।

কি করি আজ ভেবে না পাইঃ
সুপার জিনিয়াস ছড়াকার, মুখে মুখে ছড়ায় গাঁথার এক অসাধারণ প্রতিভা নিঃসন্দেহে। আমাদের ব্লগের সবার লাডলা এই কি করি আজ ভেবে না পাই।

স্নিগ্ধ মুগ্ধতা
লেখায় ঝাঁজ ও ছন্দ নিয়ে ই স্নিগ্ধ মুগ্ধতার লেখালিখি।

কি করি আজ ভেবে না পাইঃ
সুপার জিনিয়াস ছড়াকার, মুখে মুখে ছড়ায় গাঁথার এক অসাধারণ প্রতিভা নিঃসন্দেহে। আমাদের ব্লগের সবার লাডলা এই কি করি আজ ভেবে না পাই।

বাক প্রবাসে
শৈশবের ফেলে আসা দিন হোক না পাথর সময়ের নিঃসঙ্গ মুহূর্ত বাকপ্রবাসে ঠিকঠাক ছন্দে সাজিয়ে পরিবেশন করেন আমাদের কাছে।

কি করি আজ ভেবে না পাইঃ

সুপার জিনিয়াস ছড়াকার, মুখে মুখে ছড়ায় গাঁথার এক অসাধারণ প্রতিভা নিঃসন্দেহে। আমাদের ব্লগের সবার লাডলা এই কি করি আজ ভেবে না পাই।



৬- ক - প্রিয় গল্পকার সাতঃ

খেয়া ঘাট খেয়া ঘাট
সাধারণ থীমে ছোট্ট আধুনিক সময়ের উপযোগী লেখা।

আবু হেনা আবু হেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম
চমৎকার প্লটে সব গল্প লিখেন হেনাভাই ! উনার রম্য ও অসাধারণ।

কাণ্ডারি অথর্বকাণ্ডারি অথর্ব
সব সময় ই দারুণ আনন্দ নিয়ে পড়ার মত লেখা।

হাসান মাহবুব হাসান মাহাবুব
হাসান ভাই ব্লগের বেশ পরিচিত এবং জনপ্রিয় মুখ; সবাই উনার শক্তিশালী লেখার সাথে পরিচিত।

নীল আকাশ নীল আকাশ
বর্তমান সময়ে সবচাইতে প্রতিশ্রুতিশীল লেখক গল্পকার নীলআকাশ; শব্দ চয়ন ভাষার মাধুর্য বজায় রেখে বেশ সাবলীল হাতে লিখেন। নীল আকাশের গল্পের নারী চরিত্র গুলো আমাকে আকৃষ্ট করে। অসম্ভব দৃঢ়তা আর মমতার সমন্বয়ে আদর্শ স্বাধীনচেতা নারী মনে হয়।

পদাতিক চৌধুরি পদাতিক চৌধুরি
সাধারণ ঢঙে বলা চৌধুরি ভাইয়ের লেখা গুলো বেশ তথ্যমূলক এবং মনকাড়া।

অহরিত অহরিত
সার্বজনীন পাঠকপ্রিয়তা পাবার মত অসম্ভব ভালো লিখেন এই ব্লগার ! অহরিত' র লেখা একজন ব্লগার এবং পরিপূর্ণ গল্পকার হিসেবে প্রশংসা পাবার দাবীদার নিঃসন্দেহে! আশা করছি একদিন দেশ কালের সীমানা ছাড়াবেন উনি নিজের লেখায়।


৬- খ প্রিয় গল্পকার সাতঃ

অপর্ণা মন্ময় অপর্ণা মন্ময়
ঝরঝরে বর্ণনা শক্তিশালী সব চরিত্রের সমন্বয়ে লেখা উনার গল্প সবসময়ে সুপাঠ্য। সমাজের বেশ পরিচিত চরিত্র গুলো উঠে আসে অপর্ণার লেখায়। লেখার ধাঁচে উঠে আসে লেখকের পর্যবেক্ষণের গভীরতা! ভালো মন্দ সব কিছু উঠে আসে পুক্ষানুপুক্ষ ভাবে।

আরজু পনি আরজু পনি
আরজু র গল্পে লেখার হাত চমৎকার। নারীদের মনজাগতিক এবং সামাজিক অবস্থান উঠে আসে গল্পে।

শিখা রহমান শিখা রহমান
শিখা রহমানের গদ্য পাঠক কে আবেশিত করে, শব্দ জালের মায়ায় বিমোহিত করে তার প্রেক্ষাপট বর্ণনা এবং প্লটের গাঁথুনি ও দুর্দান্ত। চরিত্র চিত্রণে শিখা রহমানের দক্ষতা প্রশংসনীয়। হৃদয় উপচানো উতল ভালোবাসা শিখার লেখাকে আমাদের প্রিয় তে আনে, আমাদের কে লেখা এবং লেখক কে ভালোবাসতে শেখায়।

শায়মা শায়মা
শায়মার একটানে বলে যাওয়ার ঢঙে লেখা গল্প বেশ আকর্ষণীয়। পরতে পরতে নাটকীয়তা এবং চমক অপেক্ষা করে আমাদের জন্য। শায়মা লিখেন আমাদের জন্য।

সামিয়া সামিয়া
সামিয়ার নাগরিক জীবন নিয়ে বলা গল্পগদ্য পাঠকের আগ্রহ ধরে রাখতে সক্ষম।

নুরুন নাহার লিলিয়ান নুরুন নাহার লিলিয়ান
নুরুন নাহার লিলিয়ান বেশ শক্তিশালী গদ্য লিখিয়ে, প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতায় লেখা লিলিয়ানের গল্পগুলো চমৎকার, অনবদ্য।

ফাহমিদা বারী ফাহমিদা বারী
হ্যাঁ গল্প লিখতে জানেন ফাহমিদা বারী! বৈচিত্র্যে ভরপুর লেখা পাঠক টানে।


৭ - রম্য লেখক সাতঃ


গিয়াস উদ্দিন লিটনঃ
যে কোন সাধারণ ঘটনাকে রম্যরসে টুইটুম্বুর করে প্রকাশে লিটন ভাই অদ্বিতীয়। লেখকের বাল্যকাল ছিল খেজুর গাছ ডাবগাছ ময় উনার লেখায় আমাদের গ্রাম্য সমাজ অপূর্বতায় ধরা দেয়।

আখেনাটেন
শৈশবের আলুপোড়া থুক্কু পাটকাঠি সিগারেট হোক বা বেতের বিসর্জন, নিজস্ব ঢঙে উনি পাঠক' কে অনায়েসে দম বন্ধ করা হাসির গল্প উপহার দেন।

অপু দ্যা গ্রেটঃ
যাপিত জীবনের প্রাত্যাহিক সব ঘটনা অপু' র লেখায় গ্রেট রম্য হয়ে উঠে আসে। ব্যাচলর রম্য যাকে বলে তা ই থাকে লেখায়। সত্যি 'ই !!
অপু দ্যা গ্রেট!

মোঃ মাইদুল সরকার
ব্লগীয় রম্যে ইতোমধ্যেই বাজিমাৎ করেছেন মোঃ মাইদুল সরকার।

সামু পাগলা ০০৭

আমার সবসময় মনে হয় সামু পাগলা মনে হয় কিছুকিছু ব্লগারদের বাসায় সিসিটিভি রেখেছেন, না হয় এমন নিখুঁত ভাবে সেসব কেমন করে তুলে আনেন কল্পনায় ! ব্লগারদের কাঁছা খুলতে উনার জুড়ি নেই। প্রিয়প্রিয় তালিকায় তাইত সে থাকে আপন মহিমায়। ০০৭ এর লেখার বৈচিত্র্য আমাকে সত্যি ই মুগ্ধ করে।



৮ - প্রিয় ভ্রমণ লেখক সাত

শেরজা তপনঃ
শেরজা তপনের ভ্রমণ গল্পে বাহুল্য নেই মনকাড়া সব ছবি নেই তবুও কী যে জীবন্ত মনে হয় !! ঠিকঠাক সব চোখের আয়নায় উঠে আসে চিত্ররূপে ধরা দেয় প্রকৃতি সময় পরিবেশ এবং চরিত্র রা।

জুনঃ
জুন আপুর ভ্রমণ ব্লগ এটা সম্পূর্ণ প্যাকেজ !! যেখানে কোনকিছুর কমতি নেই; স্থানের বর্ণনা ছবি ইতহাস এবং ভ্রমণের অভিজ্ঞতা সব মিলেমিশে একাকার হয় সেখানে। জুনাপু ফোটায় ভ্রমণ পদ্ম!

সাদা মনের মানুষঃ
সাদামন ভাইয়ের অসাধারণ সব ছবি ভ্রমণ আনন্দে অন্য মাত্রা আনে।

শোভন শামসঃ
শোভন শামস এর ভ্রমণ কাহিনীর সবচাইতে বড় বৈশিষ্ট্য, সেগুলো খুব দুর্গম এবং অপরিচিত / অপ্রচলিত স্থানের পরিচয় তুলে আনে।

মাহের ইসলামঃ
মাহের ইসলামের ভ্রমণ ব্লগ আমাকে টেনেছে শুরু থেকেই, এখনকার সিরিজ ও বেশ সুখপাঠ্য। সবচাইতে বেশি আমাকে আকর্ষণ করে লেখার এডভেঞ্চার, প্রতিমুহূর্তেই থাকে উত্তেজনা। দারুণভাবে উপভোগ্য হয়ে উঠে পাঠের সময় গুলো।

বোকা মানুষ বলতে চায়।
অনেকদিন বিরতির পর ফিরেছেন আমাদের বোমা ভাই উনার ভ্রমণ গল্পের ঝাঁপি নিয়ে !! যে কোন ভ্রমণ পিয়াসী ব্লগারদের জন্য ভাইয়ার লেখা অনেকটাই নির্দেশিকার মত। পাঠকরা দারুণ ভাবে উপকৃত হন যাত্রা খরচ এর বিশদ বর্ণনায়।

ভুয়া মফিজ
ভাইয়ার রান্না'র হাত বেশ ভালো !! সেটা কাচ্চি ই হোক আর ভ্রমণ ই হোক বেশ সুস্বাদু; পরিবেশন ঢঙ ও নজরকাড়া। অটোম্যান সাম্রাজ্য ভাজাভাজা করা লেখাগুলো দারুণ পাঠক প্রিয়।


৯ - ব্লগিং এ প্রাপ্তি সাতঃ

ক- প্রবাসে ব্লগ সব সময় আমার কাছে এক টুকরো স্বদেশের ছোঁয়া; প্রবাসী একাকীত্বের সময়গুলো তে ব্লগেই পেয়েছি স্বদেশের আশ্রয়!
প্রিয়জনদের সানিধ্য আর পড়ুয়ার সবচাইতে অভীষ্ট প্রচুর পাঠের সুযোগ।
খ- ব্লগিং আমাকে বর্তমান সময় কে, রাজনীতি কে এ সময়ের সাহিত্য সমাজ চর্চা এসব জানতে সাহায্য করেছে।
অসাধারণ মানের / মনের লেখক দের সাথে পরিচয় করিয়েছে।
গ- আমাকে লিখতে শিখিয়েছে।
ঘ- অবসর সময়ের পূর্ণ উপযোগ করতে সাহায্য করেছে আনন্দের সাথে।
ঙ- প্রবাসী দের যাপিত জীবনের গল্প কে প্রবাসী পাঠক হিসিবে জেনেছি অন্য প্রবাসীদের কাছে।
চ- ব্লগারদের সংকলন ঋদ্ধ -১ এবং এবারের ব্লগারদের আরেক লেখাজোকা তে কবিতা প্রকাশ।
ছ- অসম্ভব প্রিয় প্রিয় কাছের কিছু বন্ধু পাওয়া।



১০ - ব্লগিং এ প্রত্যাশা সাতঃ

ক- ব্লগ কর্তৃপক্ষের কাছে প্রত্যাশা ব্লগের ছোটখাট ত্রুটি গুলো থেকে মুক্ত করে ব্লগিং কে আনন্দময় করতে সাহায্য করা।
খ- ব্লগারদের সাথে আন্তরিকতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন প্রতিযোগিতার আয়োজন।
গ- নতুন ব্লগারদের জন্য নির্দেশিকা সহ, নতুন ব্লগাদের নিরুৎসাহিত করা মন্তব্যে দেয়া থেকে পুরনো ব্লগারদের বিরত রাখা।
ঘ - ব্লগাদের কাছে কাছে প্রত্যাশা সহনশীলতার।
ঙ - পরিচিতদের লেখার পাশাপাশি ভালো লেখার ও মুল্যায়ন।
চ - ব্লগ যদিও সব সময় ই যেমন ইচ্ছে লেখার খাতা তবুও একটা নিদিষ্ট মান বজায় থাকে এমন লেখা প্রকাশ করবেন বলেই আশা রাখি।
ছ -ব্লগার' রা অবশ্যই সমাজের সচেতন অংশ; দল মত নির্বিশেষে একপেশে অন্ধত্ব বর্জন করে গঠন মূলক লেখা আশা করতেই পারি তাদের কাছে।


১১ - ব্লগার ফেসবুকে সাতঃ

ব্লগার' রা ফেসবুকে বন্ধুত্ব করার সময় গুলো তেই আমার ব্লগে আগমন। নিজের নামে ব্লগিং বা নিজেদের পরিচয়ে ব্লগনিক নিয়ে ব্লগিং করা ভার্চুয়াল নামগুলি একসময় ফেসবুকে বন্ধু হয়ে মন্তব্য আদান প্রদান অথবা বাস্তব চরিত্রে সামনে এসে দেখা দেয়। একটা সম্পর্কের জালে আমরা সবাই। এদের মাঝে কয়েকজন আছেন আজকাল ব্লগে সময় দিতে পারেন না, কিন্তু ফেসবুকে প্রিয় হয়ে আছেন।
ক - ব্লগার নিমচাঁদ
খ- ব্লগার রাইট রিডার
গ- ব্লগার ফেরদৌসি রুহী
ঘ- ব্লগার কামরুন নাহার
ঙ- ব্লগার আবু শাকিল
চ- ব্লগার মইনুদ্দিন মইনুল
ছ- ব্লগার তাসলিমা আকতার



১২ - প্রবন্ধ সাতঃ

ব্লগে বেশ সমৃদ্ধ অংশ প্রবন্ধ! লেখালিখি করে কিছু হয় না আবার লেখালিখি করেই হয়। ব্লগে চমৎকার সব প্রবন্ধ আসে প্রতিনিয়ত আমাদের জানার তালিকা ঋদ্ধ করে সেসব লেখা। আমার প্রিয় তে আছেন যারা।

ক- ডঃ এম এ আলী ডঃ এম এ আলী
বারবার বহুবার বহু বিশেষণে ও আমার পক্ষে আলী ভাইয়ের এ অসাধারণ লেখনী শক্তির বর্ণনা দেয়া সম্ভব না। ব্লগে পাঠক মাত্রই সবাই তা জানেন।

খ- অগ্নি সারথি অগ্নি সারথি
প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে নিয়ে উনার লেখা আন্তর্জাতিক মানের নিঃসন্দেহে।

গ- রাকু হাসান রাকু হাসান
রাকু হাসানের অপ্রচলিত বেশকিছু লেখা আমাকে মুগ্ধ করেছে।

ঘ- মলাসিলমুইনা মলাসইলমুইনা
ভাইয়ার লেখা মানেই দারুণ কিছু !! মানবিক কিছু এবং শিক্ষণীয় কিছু।

ঙ- সম্রাট ইজ দ্যা বেস্ট সম্রাট ইজ দ্যা বেস্ট
সম্রাট জিসান বেশ কিছু সিরিজ দারুণ দক্ষ হাতে রচেছেন, বিষয় নির্বাচনে ও প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন।

চ- আখেনাটেন আখেনাটেন
বেশ গুরুত্বপূর্ণ সব টপিক উঠে আসে এই ফারাও ভাইয়ার লেখায়।

ছ- কাওসার চৌধুরী কাওসার চৌধুরী
অনুবাদ আর প্রবন্ধে কাওসার চৌধুরী' র সাবলীলতা উপভোগ্য বেশ। চমৎকার লেখার হাত হোক তা গল্প বা সমৃদ্ধ প্রবন্ধ।



১৩ -ক বিশেষ সাতঃ
সাম্প্রতিক সময়ে ব্লগারদের পোস্ট চমৎকার সব মন্তব্য করে অনেকেই ব্লগ মাতাচ্ছেন, তাদের মাঝে বিশেষ কয়েকজন আবার আমার বিশেষ প্রিয়। আমার লেখায় উনাদের সরব উপস্থিতি আমাকে সব সময় আনন্দ দেয়। আনন্দিত হই চমৎকার সব নবীন সময়ের মুখপাত্রদের সাথে মিথস্ক্রিয়ায়।

ক- আর্কিওপটেরিক্স সাথে স্রাঞ্জি সে
খ- নসজু
গ- পুলক ঢালি
ঘ- শাহরিয়ার কবীর
ঙ- সৈয়দ তাজুল ইসলাম
চ- বিদ্রোহী ভৃগু
ছ- নক্ষত্র নীড় সাথে পদ্মপুকুর ভাইয়া।


১৩ - খ বিশেষ সাত

সাম্প্রতিক সময়ে ব্লগে পোস্ট চমৎকার সব মন্তব্য করে অনেকেই ব্লগ মাতাচ্ছেন, তাদের মাঝে বিশেষ কয়েকজন আবার আমার বিশেষ প্রিয়। আমার লেখায় উনাদের সরব উপস্থিতি আমাকে সব সময় আনন্দ দেয়। আনন্দিত হই চমৎকার সব নবীন সময়ের মুখপাত্রদের সাথে মিথস্ক্রিয়ায়।

ক-নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন
খ- রাজীব নুর
গ- সুমন কর
ঘ- নূর মোহাম্মদ নুরু
ঙ- চাঁদগাজি
চ- ওমেরা ও মৌরি হোক দোলা
ছ- বোকা মানুষ এবং কাজি ফাতেমা আপু



১৪ - প্রিয় মডু সাতঃ

আর কেউ থাকলে চিনি না, আর না থাকলে ও সমস্যা নেই; উনি একাই সাত জনের বরাবর, সেই এক নাম ই।

ক- কাল্পনিক_ ভালোবাসা
খ- কাল্পনিক _ ভালোবাস
গ- কাল্পনিক_ ভালোবাসা
ঘ- কাল্পনিক _ ভালোবাস
ঙ- কাল্পনিক_ ভালোবাসা
চ- কাল্পনিক _ ভালোবাসা
ছ- কাল্পনিক _ ভালোবাসা



১৫- মন্তব্যে প্রিয় সাতঃ


আহমেদ জী এসঃ
ভাইয়ার মন্তব্য লেখার সৌন্দর্য ! ব্লগের প্রতিটি লেখায় উনি এত যত্নে, বিষয় সংশ্লিষ্ট মন্তব্য করেন যে লেখক নিজের লেখার সুরভীতে নিজেই মুগ্ধ হতে বাধ্য। পাশাপাশি লেখার গঠন মূলক সমালোচনা ব্লগারদের লেখক কে পরবর্তী লেখার উৎকর্ষ সাধনে সাহায্য করে। বিশেষ করে আমার বেলায় বানান এবং

ডাঃ এম এ আলী
ডঃ আলী ভাইয়ার মন্তব্য এক একটা গবেষণা পত্রের মত মূল্যবান!! ব্লগের নতুন পুরাতন নির্বিশেষে সবার লেখায় ভাইয়া যেভাবে বিশ্লেষণ করেন বিস্তারিত বর্ণনা দেন এবং গঠন মূলক সমালোচনার মাধ্যমে পরামর্শ প্রদান করেন; এতে করে আমাদের লেখায় আলাদা একটি মাত্রা যোগ হয়।

খায়রুল আহসান
আহসান ভাইয়ার প্রতিটি মন্তব্য আন্তরিকতা বিনম্রতা উপদেশের মিশেলে অনন্য রূপ নেয়, লেখার গঠন মূলক দিক গুলো ও চমৎকার ভাবে তুলে আনেন। সবচাইতে উল্লেখ করার মত হচ্ছে সকল ব্লগারদের আগের লেখা গুলো খুঁজে খুঁজে পড়ে ভাইয়া দারুণ সব মন্তব্য করেন।

শিখা রহমান
জাদুকরী গদ্যে শিখা রহমান মন্তব্যে নিয়ে আসে এক ঘোর লাগা অনুভব; কাব্যে কবিতায় ভালোবাসায় জড়িয়ে রাখে সবাই কে।

মিথী মারজান
চন্দ্রমহিয়ান মিথী চাঁদের জোছনার মত সবাইকে মন্তব্য মায়ায় বাঁধে! ভালোবাসার সুবাস লেগে থাকে মিথীর মন্তব্যে।

জাহিদ অনিক
মন্তব্য ও যে শিল্প সেখানে ও যে নিজের মননের ছাপ রাখতে হয়; জাহিদ অনিকের মন্তব্য তার প্রমাণ! সবসময় ই বিষয় সংশ্লিষ্ট এবং দীপ্ততার ছোঁয়া থাকে।

রাকু হাসান
হুম এবং অবশ্যই রাকু হাসান !! আমার পুঁইডাঁটা র হিসেব রেখে রেখে প্রিয়তে চলে এসছে।


১৬- ব্লগিং এ আমার সিক্রেট সাতঃ


ক- আমার ব্লক লিস্টে আজ তক কেউ নাই !
খ- আমার অনুসারিত তালিকা প্রায় ই বদল হয় !
গ- আমি খুব কম নির্বাচিত পোস্ট এ যাই!
ঘ- রাজনৈতিক লেখায় মন্তব্য করি না !
ঙ- ক্যাচালে থেকে দূরে থাকি !
চ- কখনো মন্তব্যে মডারেশন দেই নাই !
ছ- এই মুহূর্তে ব্লগে আমার কোন মাল্টি আই ডি নাই!



১৭ ব্লগিং এ অপছন্দ সাতঃ

ক- সবচাইতে অপছন্দ ধর্ম বিদ্বেষী লেখা! (তা সে যে ধর্ম ই হোক)
খ- একপেশে রাজনৈতিক লেখা !
গ- ধর্মীয় লেখায় কু- যুক্তি দেয়া !
ঘ- ব্লগে মন্তব্য বন্যা !
ঙ- না পড়ে কেবল হাজিরা দিতে মন্তব্য !
চ- নিজেদের লেখায় একে ওপরের পিঠচুলকানো !
ছ- ব্লগারদের পড়ার চেয়ে লেখা বেশি!


অলস আমি সবসময় ই লিখি কম পড়ি বেশি, সে ধারাবাহিকতায় এবং ঐতিহ্য রক্ষায় বদ্ধপরিকর এখন ও। বাংলা ব্লগের ভাটির দিনগুলো তে ব্লগিং শুরু করি আমি ! সে অর্থে পুরনো ব্লগারদের " আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম " আমাকে টান না; আমার কাছে আমার কাটানো সময় ই ব্লগের সমস্ত সুন্দর দিনের সংজ্ঞা। আমার আনন্দময় সময়ের ব্লগিং যারা আমার পাশে ছিলেন তাদের জন্য বসন্তের শুভেচ্ছা ! আগুণ রঙা ফাগুন আসুক সবার অন্তরে।


সেলিম আনোয়ার, কাতিআশা আপু, মুক্তানীল আপু, নূর ই হাফসা, মোহেবুল্লাহ অয়ন, তারেক_মাহমুদ, ব্লগার প্রান্ত, সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই, সুরঞ্জনা আপু , নিশাত তাসনিম, রেজওয়ান আলী তানিমা, আমি তুমি আমরা, পাঠকের প্রতিক্রিয়া, বিলিয়ার রহমান , সত্যপথিক শাইয়্যান, আব্দুলহাক ভাই, মাহমুদুর রহমান সুজন, নীল দর্পণ , স্বপ্নের শঙ্খচিল, বিজন রয়, ঢাবিয়ান ভাইয়া, জুনায়েদ বি রাহমান , সামচুল হক, অব্যক্ত কাব্য, আগন্তুক , অন্তরন্তর, রূপক বিধৌত সাধু, অনিকেত বৈরাগী তূর্য্য, কামরুননাহার কলি, :):)(:(:(:হাসু মামা, সৈয়দ ইসলাম , শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া), ক্লে ডল, Biniamin Piash , অজানিতা , অলওয়েজ ড্রিম , নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন ফয়সাল রকি, আরোগ্য, স্বপ্নবাজ সৌরভ, রহমান লতিফ "ল", হাবিব স্যার, সনেট কবি, লিখন০৩ ,গুলশান কিবরিয়া
অকপটে , মো: সালাহ উদ্দিন, নাহিদ, গোফরান, ডার্কম্যান, অলিভিয়া আভা , মোহাম্মদ ঈসমাইল, তারেক ফাহিম সহ আমার নাম ভুলে যাওয়া সহ ব্লগার গন।

ধন্যবাদ সবাইকে অন্তরের অন্তঃস্থলের শুভেচ্ছা ফাগুণের!

মন্তব্য ১১৪ টি রেটিং +৩৭/-০

মন্তব্য (১১৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:২৮

মলাসইলমুইনা বলেছেন: প্রিয় ব্লগার মুনিরা সুলতানা,
লেখা বিউটিফুল মানে গ্রেট পর্যায়ের !
ব্লগের সাতকাহন সুন্দর হয়েছে । ব্লগে কেটে যাওয়া অনেকগুলো বছরে যাদের সাতে ব্লগিং করেছেন তাদের সবাইকে মনে রেখেছেন, এতে সহ ব্লগাররা নিশ্চই আপনার স্মৃতি চারণে খুশি হবেন । নিজের ব্লগের দিনগুলোর কথাই লিখেছেন কিন্তু তাতে ব্লগের সবার জন্য আপনার ভালোবাসাটুকুও খুব চোখে পড়ছে লেখার প্রতিটা লাইনে লাইনেই। অনেক মনোযোগ দিয়ে আপনি পড়েন সবার লেখা সেটাও খুবই বোঝা যাচ্ছে আপনার লেখা থেকে। কি যে হাবিজাবি লিখি ।সেজন্য আপনি ব্লগের গুণী ব্লগারদের সাথে আমার নামটাও মনে করেছেন দেখে দেখে লজ্জ্বাও পেলাম ভীষণ । খুব ভালো লেগেছে লেখাটা সেটা জানিয়েই রাখলাম আবার ।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৪৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: প্রিয় প্রিয় ব্লগার কে মন্তব্যের শুরুতে পেয়ে লেখার আনন্দ বাড়ল! আপনার চমৎকার সব উপমা সব সময় ই আমার মন ভালো করে দেয়। বেশ লম্বা সময়ের ব্লগিং কটকট প্রিয় মুখ ! কেউ এখন নিয়মিত কেউ বা ব্লগ ছেড়েছেন; কিন্তু তাদের সাথে কাটনো আনন্দময় সময় তো এখন ও স্মৃতিতে উজ্জ্বল। আপনার এ কথাটুকু র সাথে একমত আমি ব্লগ সত্যি'ই ভালোবাসার জায়গা। অনেক অনেক মুখ ফিকে হয়ে আছে স্মৃতিতে হয়ত নিস্তরঙ্গতায় ঢেউ উঠলে জলের প্রতিবম্বে নাম গুলো দেখা দেবে নিজস্ব উজ্জ্বলতায়।
আমি কৃতজ্ঞ ব্লগাদের ভালোবাসায়, আপনাদের সবার আন্তরিকতায়।

আপনি আপনার নিজের লেখার গুনেই গুনী ব্লগারের তালিকায় এসেছেন, এটুকু আপনার মাহাত্ম্য এভাবে বলা। আপনার ভালোলাগার প্রকাশে এ মন্তব্য আমার লেখার আনন্দ হয়ে থাকলো। সব সময় ভালো থাকার শুভ কামনা ভাইয়া।

২| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৩৫

রাজীব নুর বলেছেন: চমৎকার একটি পোষ্ট।
অনেক পরিশ্রম করেছেন।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৫১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ রাজীব নুর ! এমন সব কপি পেস্ট সংযুক্তির লেখা আসলেই পরিশ্রমের।
শুভ কামনা।

৩| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:৫৬

মাহের ইসলাম বলেছেন: অন্যরকমএকটা পোস্টের শুরুতে বুঝতেই পারিনি শেষে কি অপেক্ষা করছে।
আপনার বিস্তারিত আলোচনা আমার ভাল লেগেছে। আমার মনে হয়েছে, একটা শিক্ষনীয় পোস্ট।

নিজের নাম দেখে, ভালো লাগাটা আরো বেড়ে গেল।

ভালো থাকবে।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:০০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আসলেই পোস্ট বিশাল হয়ে উঠেছে লেখা শেষ করবার পর। তারপর ও পরিচিত কিছু মুখের নাম আলাদা করে নেয়া গেল না, এ আক্ষেপটুকু রয়ে ই গেলো। আসলে সাত বছর বেশ লম্বা একটা সময় ! কত কত প্রিয়মুখ যে ছুঁয়ে যায় কত বিশেষণ যে বাকি রয়ে যায়, অতখানি বিস্তারে ও বিস্তারিত হয় না সব। লেখা নিয়ে আপনার ভালোলাগা এবং প্রশংসা টুকু আমাকে অপ্লুত করছে।
ব্লগে আপনি এ সময়ের উজ্জ্বল হয়ে উঠা একজন, অনেকের মত আমার ও প্রিয় তে আছেন।

ভালো থাকার শুভ কামনা।

৪| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৯:২৪

করুণাধারা বলেছেন: আপাতত লাইক দিয়ে গেলাম। ইনশাআল্লাহ, আবার ফিরে এসে পুরো কথা হবে।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:০১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপু উ উ লেখায় আপনার উপস্থিতি ই ভালোবাসার উষ্ণতা নিয়ে আসে ! ভালোথাকবেন আর ভালোবাসায় রাখবেন আমাদের।

৫| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১০:৫৪

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: শ্রদ্ধেয় আপুনি,
চলন্ত গাড়িতে আছি। এক ঝলক দেখে নিলাম আপনার সাতকাহন। আপনার সুদীর্ঘ ব্লগিং জীবনের এত সব গুণী জনের সঙ্গে মিথস্ক্রিয়ায় মুগ্ধ হলাম । উল্লিখিত সকলকে জানাই আমার হার্দিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন । সেরা গল্পকার ক আইটেমে নিজের নামটি দেখে আপ্লুত হলাম। অনুপ্রাণিত বোধ করছি ; কৃতজ্ঞতা জানাই আপনাকে। এমন মিথস্ক্রিয়া চলতে থাকুক ....

বিনম্র শ্রদ্ধা ও বাসন্তীক শুভেচ্ছা জানবেন ।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:০৯

মনিরা সুলতানা বলেছেন: শ্রদ্ধেয় গল্পকার !
আপনার এ আন্তরিকতা টুকু ও প্রশংসার; সব অবস্থায় ই আপনি ভালোলাগা প্রকাশে অনন্য ! সুদীর্ঘ ব্লগিং জীবনে উল্লেখ করার মত কতশত নাম যে রয়ে যায়, এমন সতেরোর সাতকাহনে কুলিয়ে উঠতে পারছিলাম না। আপনার হার্দিক শুভেচ্ছা আমাদের সবার জীবনে আনুক ফাল্গুন হাওয়া; আর আপনার জীবন কে ও করুক বাসন্তিময়।

আপনি নিজেই আসলে সহ ব্লগারদের অনুপ্রেরণা! ব্লগিং এ আপনার মিথস্ক্রিয়া সত্যি ই প্রশংসার দাবী রাখে।


সব সময় ভালো থাকুন , ফাগুণের শুভেচ্ছা।

৬| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১০:৫৮

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: যে কথাটি না বলতে পারার জন্য আবার মন্তব্য আসা,
অত্যন্ত পরিশ্রমী একটি পোস্ট। কোন ধন্যবাদ যথেষ্ট নয় ।
ব্লগ পাড়ার সকলকে একসূত্রে বেঁধে দিয়েছেন। ভীষণ খুশি হলাম। আপাতত প্রিয়তে।

অফুরান শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জানবেন।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:১৩

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ব্লগ পাড়ায় সবাই আসলে আমরা একসুত্রে গেঁথে আছি মালা হয়ে, আমাদের পরস্পরের লেখা এবং মন্তব্যে! সপ্তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে এটুকু কষ্ট করাই যায়। আপনার আনন্দ আশা করছি আমাদের সবাইকে ছুঁয়ে যাবে।

শুভ কামনা।

৭| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:১৭

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: চমৎকার পোস্ট। আপনার কবিতাগুলো যেমন সুন্দর পরিপাটি এই বিশদ পোস্ট খানা তেমন চমৎকার।

দিনে দিনে আপনি শক্তিশালী কবি হয়ে ওঠছেন।। :)

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৫১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ কবি সেলিম আনোয়ার !
আপনি নিজেও বেশ সাবলীল কবিতায়; আপনার লেখা ও বেশ প্রশংসিত।

শুভ কামনা।

৮| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:১৭

অন্তরন্তর বলেছেন: ব্লগের সাতএ অফুরন্ত শুভেচ্ছা। আপনার লিখায় ব্লগ এবং ব্লগারদের প্রতি ভালবাসা সুন্দর করে প্রকাশ পেয়েছে। আপনার সাত সত্তর হউক এই ব্লগে তাই প্রার্থনা রইল সৃষ্টিকর্তার কাছে। শুভ কামনা।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনাকে ও শুভেচ্ছা নিরন্তর ...
ব্লগ জীবনের শুরু থেকেই পাশে ছিলেন লেখার; এই লেখাটা যতখানি ব্লগারদের জন্য ঠিক ততখানি আমার নিজের জন্য ও আমি লিখে রেখেছি। আপনাদের ভালোবাসার স্মৃতিচারণ করেছি মাত্র এ লেখায়।

অনেক ধন্যবাদ চমৎকার শুভ কামনায় পাশে থাকার জন্য।

৯| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:১৭

নীল আকাশ বলেছেন: আপু শুভ সকাল,
লাইক আর সোজা প্রিয়তে নিলাম। আমার কবিতা গুরুর লেখা প্রিয়তে থাকবে না, তো কোন পোস্ট থাকবে!:`>

আপনাকে উৎসর্গ করা সাতের একটা লিস্টে ঢুকতে বড্ড দেরী করে ফেললাম। আপনার পছন্দের শবনমকে নিয়ে লেখা শুরু করেছিলাম। খুব মনোযোগ দিয়ে ধীরে ধীরে লিখছি। আপনাকে কথা দিয়েছিলাম, এটা শুধুই আপনার জন্যই লিখে দিব।

প্রিয় ছড়াকারের লিস্ট একজনের নাম বারবার এসেছে। দেখলেই বুঝবেন। ঠিক করে দিন।

প্রিয় গল্পকারদেের লিস্টে কি সর্বনাশ করেছেন আপনি!! আমার গল্পের গুরু অহরিত ভাইয়ের সাথে আমাকে একই লিস্টে রেখেছেন। লজ্জায় তো আমার মাথা কাটা যাচ্ছে! উনার লেখা পড়ার পর, আর গল্প দিচ্ছেন না দেখেই, আমার গল্প লিখতে ইচ্ছে করল। ইস, অহরিত ভাই যদি আবার ব্লগে নিয়মিত হতেন, আর কি যে ভালো লাগে উনার গল্পগুলি পড়তে!!!!!!!!!!!!!!!

আপনার অপছন্দের সাতের সাথে আমার পুরোপুরি মিল দেখলাম।

আপু, সব শেষে বতর্মান ব্লগারদের যে নাম দিয়েছেন সেটা প্রত্যেকটা নিক নেম আলাদা আলাদা করে কমা দিয়ে দিতেন, তাহলে দেখতে মনে হয় খুব ভালো লাগতো! সবার নাম এক জায়গায় হয়ে গেছে! একটু কষ্ট হবে আপনার, তবে অনেক ভালো প্রেজেনন্টেশন হতো!

আপনার সাতে সত্তরে সতেরোর সাতকাহনে খুব করে মন থেকে শুভ কামনা রইল।
ধন্যবাদ।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৫:২৯

মনিরা সুলতানা বলেছেন: শুভ অপরাহ্ণ নীলা আকাশ প্রতিশ্রুতিশীল একজন প্রিয় গল্পকার !! আপনার প্রিয় তালিকায় আমার লেখা; এ ব্যাপার টায় দারুণ আনন্দের আমার জন্য। কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। ইশ আপনার শবনম সিরিজ ! দারুণ ভালোলাগার এক সিরিজ। আমার অসম্ভব প্রিয় একটা উপন্যাস হচ্ছে প্রাইড এন্ড প্রেজুডিস এলিজাবেথ লিজি চরিত্র টা আমার অনেক অনেক পছন্দের। মেয়েদের এটুকু চারিত্রিক দৃঢ়তা আমার ভালো লাগে। অপেক্ষায় রইলাম চমৎকার এক মাস্টার পিস গল্পের।

ছড়াকার আসলে সাতজন খুঁজে পাইনি তাই বেশি পছন্দের নাম কে বারবার লিখে ভালোলাগা জানিয়েছি।


বর্তমান সময়ে ব্লগারদের মাঝে আপনি আপনার লেখার অনন্যতা নিয়ে ই শীর্ষে অবস্থান করছেন, আপনি নিজেই নিজেকে মুল্যায়ন করেন এটা আপনার সবচাইতে ভালো গুণ - এবং ধীরে ধীরে আপনার লেখা যে পরিবর্তন সে ও নজর কাড়ে। সুতরাং নিজস্ব আলোতেই আপনি আলোকিত। আর অহরিত' র লেখা নিয়ে কি বলব !! পেশা হিসেবে নিলে উনার বই ও বেস্ট সেলার হত নিঃসন্দেহে। একজন পরিপূর্ণ গল্পকার উনি। আমার শুভ কামনা গুরুর জন্য।


আপনার আমার লেখক পছন্দের মিল আছে জানতে পেরে ভালো লাগলো! আর আপনার সাজেশন অনুযায়ী এডিট করে দিলাম। আসলে দিনের বেলা লম্বা সময় ধরে ল্যাপ্পিতে বসা কঠিন। বাচ্চারা ঘুমানোর পর শুরু করে টানা সকালে পোস্ট করে ঘুমিয়েছি, মাঝে শুধু ফজর নামাজ বিরতি নিয়েছি; মাথা পুরাই গিট্টু অবস্থা ছিল, বেশকিছু ব্লগারের নাম মনে থাকলে ও লেখার এবং এসব বানান বা যতি চিহ্ন টুকু ঠিক করার ও ধৈর্য ছিল না। বাচ্চাদের স্কুলে পাঠিয়ে ঘুমিয়েছি। ধন্যবাদ মনে করিয়ে দেয়ার জন্য।


আপনার শুভকামনা লেখার আনন্দ করে রাখলাম।


১০| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:৩২

মুক্তা নীল বলেছেন: অনেক কষ্ট করে আপনি লিখেছেন। প্রথম লেখা থেকে একদম শেষ পযর্ন্ত মনোযোগ সহকারে পড়লাম। পরিশ্রমি পোস্ট।
কিছু কিছু বিষয় আলাদা করে তুলে ধরে,উপস্থাপনা ঝলমলে করে তুলেছেন। ভালো থাকবেন।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:৪৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনার আন্তরিক মন্তব্যে মুগ্ধতা আপু; লেখার কষ্ট আপনাদের মত পাঠক পেলে ভালোলাগায় রূপ নেয়! আমার আসলে লিখতে গেলে তেমন গুছিয়ে লেখার কিছু থাকে না ; তাই একটু আলদা করে তুলে এনেছি, উপস্থাপন আপনার ভালো লেগেছে এবং প্রকাশ করেছেন মন্তব্যে সে জন্য কৃতজ্ঞতা ।

ভালোবাসা জানবেন আপু!

১১| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১২:৪০

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: ফাল্গুনী শুভেচ্ছা রইল আপু,

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:৫০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বসন্তের শুভেচ্ছা আপনাকে ও কবি !
ভালো থাকার শুভ কামনা।

১২| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১:১২

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



আপু, শুভেচ্ছা রইলো;
কৃতজ্ঞতা রইলো আপনার ভূবনে আমার নামটি তালিকাভুক্ত করায়। একজন ভাল লেখক কিংবা ভাল ব্লগার হওয়ার পূর্বশর্ত হলো ভাল মানুষ হওয়া। আপনার চমৎকার ও পরিশ্রমী পোস্ট এবং সহ ব্লগারদের প্রতি সম্মান ও ভালবাসা দেখে আমি মুগ্ধ হই। ব্লগ ডে'তে যাওয়ায় আপনাকে সামনাসামনি দেখার ও কথা বলার সুযোগ হয়েছিল। এই স্মৃতি এখনো টাটকা আছে।

অনেক অনেক ভাল থাকুন আপা। সব সময়, সবাইকে নিয়ে।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১০:০৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: শুভ সন্ধ্যা কাওসার চৌধুরী !
ব্লগ ডে তে আপনার সাথে পরিচয় আমার জন্য বেশ সুখকর মুহূর্ত ! আসলে দিন টাই ছিল অন্য রকম। আপনার বিনম্রতা সংযত আচরণ এবং নিজেকে চমৎকার উপস্থাপন আমাকে মুগ্ধ করেছে! আপনাদের মত প্রতিশ্রুতিশীল প্রজন্মের হাত ধরেই এগিয়ে যাক বাংলা ব্লগ সেই শুভ কামনা রাখলাম।
আমার তালিকাতেই শুধু নয় ব্লগের সবার তালিকার সামনের সারিতে আপনি আপনার নিজের যোগ্যতাতেই আসন নিয়েছেন।
ভালো থাকার শুভ কামনা আপনার জন্য।

১৩| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১:২৪

শাহরিয়ার কবীর বলেছেন: আপনাকেও ফাল্গুনী শুভেচ্ছা আপু .............. !:#P !:#P

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১০:০৯

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বিবাহ পরবর্তী প্রথম ফাগুনের শুভেচ্ছা শাহারিয়ার কবীর !
বুঝতে পেরেছি বিরহী কবি ফুরায়ে গেছে এখন সময় নতুন কবিতার !! আশা করছি ব্লগে শিগগীর ই নিয়মিত হচ্ছ।

অনেক অনেক শুভ কামনা।

১৪| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:০৬

রাজীব নুর বলেছেন: বসন্তের শুভেচ্ছা জানাই।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১০:২৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ রাজীব নুর ! শুভেচ্ছা আপনার জন্যে ও ফাগুণের।

১৫| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:১১

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: আপনার সাতে অনেককাহন ভাল লাগলো।

বিশেষ একটা পোস্ট। আপনার অনেক কিছুই ভাল লেগেছে।

ইদানিং ব্লগে ঢুকি সীমিত সময়ের জন্য তাও সুযোগ করে কারণ ট্রেনিং আছি।

আপনাদের মিস করছি। ভাল থাকুন।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১০:৪৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনার ব্যস্ততার জন্য শুভ কামনা!
এইটুকুই আসলে ব্লগিং এর আনন্দ ! ব্লগিং এর প্রাণ ! শত কাজের মাঝে ও শুভকামনা টুকু রেখে গেলেন।
অনেক ধন্যবাদ মোঃ মাইদুল সরকার।

১৬| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৪০

ওমেরা বলেছেন: ওরে —ওরে আপুনি আপনার সাত,সতের কাহন পড়ে আমি তো এক্কেবারে টাসকি খেয়ে গেলাম !! এত এত কিছু মনে রাখলেন কি ভাবে! খুব বেশীই ভাল লাগল আপুনি লিখাটা। আপনার জন্য শুভকামনা রইলো আরো আরো এমন অনেক কাহন আমাদের উপহার দেওয়ার সুভাগ্য আল্লাহ আপনাকে দান করুন।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১:৩৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আমার তো লেখা খুব ই অল্প তাই মনে রাখতে বেশি বেগ পেতে হয় না;
তোমার জন্য ও অনেক অনেক ভালোবাসা।

১৭| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৪৭

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: প্রিয়দের নিয়ে ভালো থাকুন আপু

শুভ কামনা অনেক অনেক

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১:৩৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনি প্রিয়দের একজন হয়ে ই আছেন !!
ভালোবাসা আর শুভ কামনা আপু।

১৮| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৪৯

ভুয়া মফিজ বলেছেন: বিশাল পোষ্ট; আপনার লেখাতে চোখ বন্ধ করে অগ্রীম লাইক দেয়াই যায়। :)
পড়ি আগে, তারপর ভালো করে মন্তব্য করবো।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১:৪১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: স্বাগত জানাব !!
আস্থা রাখায় ধন্যবাদ :)

১৯| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:০৭

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: তখন শুধু বিশাল কর্মযজ্ঞ দেখে লাইক দিয়ে বসন্তের শুভেচ্ছা রেখেই অফলাইনে গিয়েছিলাম গোসল ও খাবারের টানে। তাই ভিতরের লেখা পড়তে পারিনি। কিন্তু এবার পড়ে শেষ পর্যন্ত এসে ভাবছি, আমার পড়তে যদি এত সময় লাগে তাহলে সম্পূর্ণ পোস্ট লিখতে কত সময় লেগেছে!! তারমধ্যে আবার লিঙ্ক, ভোল্ট অনেক সময়ের চেষ্টার ফসল এই পোস্ট। আমার নামটিও স্মরণে রেখেছেন দেখে অনেক আনন্দিত হলাম। আপনার অভিজ্ঞতায় শ্রদ্ধা জানিয়ে গেলাম।

অভিনন্দন আপনার সাতবছর পূর্তিতে।
আবারও ফাল্গুনী শুভেচ্ছা আপনাকে।
শুভ বসন্ত

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১:৪৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: কিছু টা সময় আসলে শিখতে শিখতে ই চলে যায়; ড্রাফট করতে সময় বেশি লেগেছে। যাইহোক এতদিনের জমানো গল্প কিছুটা সময় তো দাবী করতেই পারে। আপনি তো ব্লগের পরিচিত মুখ স্মরণ না রেখে উপায় আছে !

চমৎকার শুভ কামনায় ভালোলাগা নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন।

২০| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:১২

বলেছেন: বসন্তের সৌরভ লেখায়, সব সাধকদের সাধনায় কিয়দংশ নিয়ে এসেছেন।

আন্তরিকতায় পূর্ণ লেখায় মুগ্ধতা।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১:৫২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: লেখায় আপনার মুগ্ধতা পরবর্তী লেখায় উৎসাহ হয়ে রইলো।
কিছু প্রিয়তার কথা মুখ ফুটে বলতেই হয়, সামান্যই আমি ক্ষুদ্র অংশই এনেছি।

ধন্যবাদ আপনাকে লেখায় আন্তরিক ভাবে মন্তব্য করার জন্য;
বসন্তের শুভেচ্ছা।

২১| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:১৮

পদ্ম পুকুর বলেছেন: আখির আড়াল হলে মনেরও আড়াল হয়....

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১:৫৪

মনিরা সুলতানা বলেছেন: দুঃখ জনক হলে ও কথা টা সত্যি :(
নিজ গুনে ক্ষমা করবেন ভাইয়া; আশা করছি ভালো আছেন !

শুভ কামনা আপনার জন্য।

২২| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৮

পাঠকের প্রতিক্রিয়া ! বলেছেন: নিরাপু, কী খবর??
তুমি কিন্তু আমার ইমিডিয়েট সিনিয়র। ব্লগিং এর বয়সে, [বারবার নিক চেন্জ করায় বয়স আমার বাড়ে না, খালি কমে;)]


সপ্তম বার্ষিকীতে সব কিছুকে সাতের মধ্যে আবদ্ধ কেন?? এর তেব্র নিন্দা জানাচ্ছি। X(

সাত বছরের জন্য সাতটা লাল গোলাপের শুভেচ্ছা। (আজ কিন্তু গোলাপের আকাল, তাই নীচেরটা দিলুম,);)

পরিশ্রমী পোস্টের জন্য ধন্যবাদ প্রিয় নিরা।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ২:০১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আচ্ছা আচ্ছা সবাই সাধুবাদ জানাচ্ছে তাতে একপেশে হয়ে যাচ্ছিল প্রকাশ; তেব্র নিন্দা আমার লেখার অলংকার হয়ে থাকল ;)
ইশ নিজু মণ্ডলের কী একখান কপাল কেবল ই বয়স কমে!!!

আচ্ছা গোলাপ নাই বা পেলেন সাত বছরের জন্য এই হলুদ পরি ই না হয় সাত টা দিতেন ? সাত টা না থাকলে কপিপেস্ট সাতবার দিলেই তো খাল্লাস।

থ্যাংকু থ্যাংকু পরিশ্রমের স্বীকৃতি দেয়ার জন্য।

২৩| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৫

তারেক ফাহিম বলেছেন: লাকি সেভেন দেখি B-)

বসন্তের শুভেচ্ছা।

অষ্টম বছরের পদার্পন শুভ হোক।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ২:০৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনার জন্য ও ফাল্গুনের শুভ কামনা;
পাঠে এবং মন্তব্যে ভালোলাগা রাখলাম।

২৪| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৯

করুণাধারা বলেছেন: প্রথমেই জানাই ফাগুনের ফুলেল শুভেচ্ছা........

তারপর জানাই অনেক পরিশ্রম করে এমন চমৎকার পোস্ট দেবার জন্য অভিনন্দন! এই পোস্ট পড়ে আজ সারাদিনে কত হারিয়ে যাওয়া ব্লগারের লেখার সাথে যে আমার পরিচয় ঘটল!

সাত বছরে মাত্র ৬৯টা পোস্ট, কমই বটে! প্রথম সাত পোষ্টের থেকে কয়েকটা পড়লাম, সবগুলোই এত ভালো লাগলো পড়তে! প্রথম ভ্রমণকাহিনীর ছবিগুলো অবশ্য দেখতে পাইনি। একটু আফসোস আছে এজন্য। মন্তব্য দেখলাম, সবাই ছবিগুলোর প্রশংসা করছেন.......

পোস্ট টা যেন নতুন আর পুরাতন ব্লগারদের মিলন মেলা! কত ব্লগারের নাম! কেউ পরিচিত কেউ অপরিচিত, অনেক ব্লগারের নামের সাথে তাদের লিংক দেওয়া আছে। জানিনা এ কাজ করতে কত সময় লেগেছে! কিন্তু আমার জন্য খুবই সহজ হলো তাদের ব্লগে যাওয়া; এজন্য পোস্টটা বুকমার্ক করে রেখে দিলাম।

ব্লগিংয়ে আমিও এই সাতটা জিনিস ভীষণ অপছন্দ করি।

সাধারণত বর্ষপূর্তির পোস্ট হয় স্মৃতিচারণমূলক, কিন্তু এই পোস্ট একেবারে অন্যরকম, অভিনব এবং সুন্দর। এজন্য অনেক আগেই ভালোলাগা জানিয়ে গেছি।

অনেক গুণী ব্লগারের মাঝে আমার নামের উল্লেখ করায় আনন্দে আপ্লুত হলাম। প্রশংসা শুনতে কার না ভালো লাগে, প্রশংসার যোগ্য হই বা না হই! আমার মনে যা আসে তাই লিখতে থাকি, এলোমেলো এই লেখার প্রশংসা পেয়ে নতুন লেখার অনুপ্রেরণা পেলাম মনিরা।

মানবীর নামের উল্লেখ দেখে বিষন্ন হলাম। আমিও মানবীকে খুব মিস করি! জানিনা কেন তিনি ব্লগে অনুপস্থিত!

শেষ করি শুভকামনা দিয়ে জানিয়ে, ব্লগের এবং ব্লগের বাইরের জীবন দুই-ই হোক আনন্দময়।


১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:২২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আমার আন্তরিক কৃতজ্ঞতা সহ ধন্যবাদ নিবেন আপু ! আপনার শুভ কামনা গুলো যেন ফাগুণ বাতাসে উড়া কৃষ্ণচূড়া, শিমূলের পাপড়ি ভালোবাসা রঙ আর আদরে ঝরে! আর এমন সব মালাছেড়া মুক্তর মত ভালোবাসা শুভ কামনা পেতে এটুকু কোন কষ্টই না।
গতকাল পোস্টের মন্তব্য গুলো দেখার পর আমার চোখ ভিজে এসছে , এত এত ভালোবাসা ! ব্লগ আসলেই একটা পরিবার যেখানে ব্লগার রা হাসি আনন্দ ভালোবাসা ভাগাভাগি করি।


আগের ছবি ব্লগের কোনটাতেই ছবি নেই, ভাবছি সব আবার নতুন করে দিব; এই একুশ থেকেই শুরু করবো ইনশাআল্লাহ!

সত্যি বলতে আপু এই সব কাজে অনেক ঝামেলা, এবং এ জন্যই এতদিন আমি বর্ষপূর্তির কোন পোস্ট দেই নাই। তবে এবারে দিতে পেরে আমি আনন্দিত। সময় তো খুব কম না , আরও কত কত আনন্দ স্মৃতি রওয়ে গেছে -
শুরু থেকে প্যাপিলন নামে একজন ব্লগার লেখায় অনেক উৎসাহ দিত , দারুণ সব মন্তব্য করতেন।
নাসির , প্রায় সব লেখায় অন্ধ বিন্দু , শুকনো পাতা, কত কত নাম আপু!!
ভালোলাগা শেয়ারের এই লেখা আপনি বুকমার্ক করে রেখেছেন আমি আপ্লুত! ভালোবাসা নিন আপু।


কমিউনিটি ব্লগিং তো কেবল সাহিত্য নয়, সেখানে সব কিছু ই চলে আসে। আপনি একজন চমৎকার ব্লগার ব্লগিং এর সত্যিকারের সংজ্ঞা হয়ত এমন যা খুশি তাই এলোমেলো লেখা নিয়ে ও হয়। আপনার লেখা প্রশংসার যোগ্য এবং প্রশংসা আপনার প্রাপ্য।


ব্লগে আমি নার্গিস , আরিফ এবং মানবী এই তিন জন কে সব সময় মিস করি; ব্যস্ততা আসলে সবাই কে নিজেদের বাস্তবতায় ফেরায়।


আপনার জন্য ও অনেক অনেক ভালো থাকার শুভকামনা এবং ভালোবাসা ।




২৫| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৯

ফয়সাল রকি বলেছেন: সবচেয়ে ভাল লেগেছে যে, আপনি সাতজন মডুর নাম খুঁজে পেয়েছেন!

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:২৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আমার নিজের ও অনেক অনেক ভাললেগছে ;) ইনফ্যাক্ট সবচাইতে ভালো !
আফটারল এমন সুপার মডু পাওয়া ও মুশিকিল :)

২৬| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৬

সম্রাট ইজ বেস্ট বলেছেন: কি তাজ্জব ব্যাপার! মনিরাপুর সাত বছরের অভিজ্ঞতালব্ধ পোস্টে এই অধমের নামটাও চলে এসেছে! খুবই লজ্জায় পড়ে গেলাম।

এতবড় পোস্ট পড়তে একটুও বিরক্তি লাগেনি। আপনার অসাধারণ দূরদৃষ্টির প্রশংসা না করলেই নয়। আমি কখনও এমন পোস্ট লিখলে আপনার উল্লেখ করা নামগুলোর প্রায় সবাই আমার তালিকাতেও থাকবে। ব্লগে এসে এমন কিছু অসাধারণ মানুষের অনুপম সান্নিধ্য আর অকৃত্রিম ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছি যে তা প্রকাশ করার জন্য মহাকাব্য রচনা করতে হবে। সেই মানুষগুলোর মধ্যে আপনিও প্রথম সারিতেই থাকবেন। যদিও আমার মত অতি সাধারণ একটা ছেলে আপনাদের মত অসাধারণ মানুষগুলোর ভালোবাসা পাওয়ার যোগ্য কোনকালেই ছিল না। তারপরও আপনাদের মত কিছু মানুষের সান্নিধ্যে ব্লগজীবনে কাটানো দিনগুলো স্মৃতির আকাশে নক্ষত্রের মত আজীবন জ্বলজ্বল করে জ্বলতে থাকবে। আপনার ব্লগজীবনের সাতটি বছরের জন্য অনেক অনেক অভিনন্দন! কামনা করি এমন করে সর্বদাই সবাইকে পাশে নিয়ে এগিয়ে চলুক আপনার আনন্দময় জীবন। শুভকামনা অফুরান।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৪১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আহা লজ্জা কেন ! আপনি অনেকের ই প্রিয় নিঃসন্দেহে !

কাছাকাছি সময়ে যারা ব্লগিং করছি আমাদের পছন্দের তালিকা প্রায় কাছাকাছি ই হবে। হুমম দৃষ্টি একেবারেই দূরের না একদম কাছের, মানে নিজের অভিজ্ঞতা থেকে নেয় ;) আমার নিজের ই বড় লেখাতে ভয় লাগে।
ব্লগে এসে এমন কিছু অসাধারণ মানুষের অনুপম সান্নিধ্য আর অকৃত্রিম ভালোবাসায় সিক্ত হয়েছি যে প্রকাশ করা দুঃসাধ্য! আপনার এই কথার সাথে আমি পুরপুরি ই একমত। তাই সে চেষ্টা ও করি নাই কেবল নিজের ভালোলাগা টুকু প্রকাশ করেছি।

আপনাদের মত কিছু মানুষের সান্নিধ্যে ব্লগজীবনে কাটানো দিনগুলো স্মৃতির আকাশে নক্ষত্রের মত আজীবন জ্বলজ্বল করে জ্বলতে থাকবে আমার লেখালিখির জীবনে ব্লগ জীবনে আপনারা; আমার সহব্লগাররা সব সময়েই ধ্রুবতারার মত উজ্জ্বল।


আপনাদের সবাই শুভ কামনায় সিক্ত হয়ে ব্লগিং করতে পারা ও সৌভাগ্য এবং আনন্দের।
সব সময় ভালোথাকার শুভ কামনা আপনার জন্য।

২৭| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:২৬

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ব্লগে সপ্তম বর্ষ পূর্তিতে অনেক অনেক শুভেচ্ছা। আশাকরি রুপান্তরের সবরকম পর্ব পার করে এখন থিতু হয়েছেন।

আপনার পোষ্ট পড়তে পড়তে ভাবছিলাম, আমি সব কিছুই এতো ভালো লিখি যে, কোন এক সাতে আমাকে জায়গা দেয়া আপনার জন্য একটু কষ্টকরই হবে। তারপরও দেখলাম কোন এক চিপায় আমার নামও দেখা যায়!! :P

স্মরণ করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ দিয়ে ছোট করতে চাই না। =p~

দোয়া করি, একদিন ব্লগে আপনার উপস্থিতির ৭০ বছর পূর্তিতে আরেকটা পোষ্ট দিবেন।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৫৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: শুভেচ্ছা গুলো লেখায় আনন্দ করে রাখছি ভাইয়া !

জীবন চালার পথে রূপান্তরের কি শেষ আছে বলেন !! এখন আবার মাঝের একটা লম্বা সময় কাটিয়ে অন্য রূপান্তরের জন্য তৈরি হচ্ছি; থিতু হওয়া ও এক ধরনের রূপান্তর বলেই মনে হয় আমার।

ইশশ সবাই এমন বিনয়ে বিগলিত হয়ে মন্তব্য করলে কেমন করে হয় !! যেহেতু ধন্যবাদে আমি ছোট হয়ে যাই , আপনি ঈদেরপর আনন্দলনের ঘোষণা দিতেন, আপনাকে গল্পকার, রম্য এই লিস্টের ও সাতে কেন রাখা হয় নাই :P


আল্লাহ রে ৭০ বছর !! আচ্ছা দিয়ে ই যখন ফেলছেন সুস্থ্য থাকার দোয়া ও দেন :) যেন নিজের হাতেই লিখতে পারি।


২৮| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:৫৫

আহমেদ জী এস বলেছেন: মনিরা সুলতানা ,



সাত সাতটি বছর ধরে ব্লগে রেখে গেছেন কিছু ছায়া, হারিয়ে ফেলা চিবুকের ডৌলে আবার ফিরিয়ে এনেছেন আবীরের রং, চোখে মেখেছেন স্মৃতির সুরমা।
তারই নির্যাস এই সাত সতেরোর কাহন! খাঁচায় বন্দি হয়ে পালাই পালাই করে যে পাখি ডানা ঝাপটায়, সেকি আদৌ পালিয়ে যেতে পারে কখনও! খাঁচার পারিপাটি বাঁকের মোহে সে যে নিরালা এক গৃহকোনেই সখ্যতার জাল বোনে। তেমনি জাল বুনেও গেলেন কাহনের পরতে পরতে।

সুন্দর রোমন্থন। সাত পূর্ণ হোক সতেরোয়।

প্রথম ফাগুনের বাসন্তী শুভেচ্ছা।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:১২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বাসন্তী শুভেচ্ছা আপনাকে ও প্রিয় ব্লগার;
খুব খুব সুন্দর করে বলেছেন ভাইয়া !!

ব্লগের সাত বছরে কিছু ছায়া আমি রেখেছি কিছু প্রিয় প্রিয় সব ব্লগার রা; আমার আবীরের রঙ ফিরে এসছে রঙধনু হয়ে সেখানে আপনারা কেউ ফাগুণের রঙ বর্ষার আনন্দ বেগুনী ছড়িয়েছেন, আর চোখের সুরমা হয়ে আছে আপনাদের মায়া।

ব্লগিং এর এই ভালোবাসার জাল আমাদের সবাইকে বাঁধুক মায়াডোরে।

২৯| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১০:০৯

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: উরিব্বাস!

সাত সত্তরের বিশাল সাতকাহন!!!

দারুন ব্যাতিক্রমি ভাবনা! আর তার নান্দনিক উপস্থাপনা! গ্রেট!
সাতের সাতকাহনে প্রিয় মানুষদের তালিকায় প্রিয় হতে পারাও এক বিশাল পাওয়া!
নামছি নামছি একে একে সাত পেরিয়ে গেল! আট, নয় দশ এগার বার - -
হার্টবিট মিস করার উপক্রম! ;)
আমার লাকি থার্টিনে গিয়ে দেখি - যাক বাবা, কোন এক কোনে আছে তবে ঠাই ;)
হা হা হা

দারুন বর্ষপূর্তি পোষ্টে মুগ্ধ ভাললাগা।
বর্ষপূর্তির শুভেচ্ছা :)

+++++++++

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:২১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বাপ রে কী বলেন !! ব্লগ থেকে তো আমার নাম ই কাটা যাবে যদি না নেই মহা বিদ্রোহীর নাম :P


ধন্যবাদ ধন্যবাদ জনাব আপনার মুক্তহস্তের দান থুক্কু মুক্তকণ্ঠের প্রশংসার জন্য ;) তবে বর্ণনা খাসা হয়েছে, ছিলেন নাকি এক সময় চৌধুরী জাফার উল্লাহ্‌ শরাফতের সহকারী !! থাকলে দারুণ মানায়।


শুভেচ্ছা নিয়ে শুভকামনা দিলাম।

৩০| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১০:৩৫

বোকা মানুষ বলতে চায় বলেছেন: পুরো লেখাটি মনোযোগ দিয়ে পড়ে কিছুক্ষণ ভাবনার জগতে ছিলাম। বর্ষপূর্তির হরেক রকম পোস্ট দেখেছি সামু ব্লগে। কিন্তু আপনার আজকের এই পোস্ট একটি মডেল সেট করে গেল, আগত দিনের সকল ব্লগারের জন্য, হাউ টু রাইট ইয়উর "বর্ষপূর্তি পোস্ট"। আপনার সপ্ত তালিকাগুলোর বেশীরভাগই আমারও প্রিয় ব্লগরত্ন সকল। তার উপর আবার আপনার লিস্টগুলোর দু'একটা জায়গায় নিজের নাম দেখে যারপরনাই অবাক এবং প্রীত হয়েছি। ব্লগে আমার অতি প্রিয় কয়েকজনা ব্লগারের মধ্যে নিঃসন্দেহে আপনি অন্যতম। সেই শুরুর থেকে অদ্যাবধি, আমার কাছে গুটি কয়েক আদর্শ ব্লগারের (আমার দৃষ্টিতে) অন্যতম একজন আপনি। আগত দিনগুলোতে আপনার প্রতিটি দিন আনন্দময় হোক, ব্লগীয় পথ চলা হোক আনন্দমুখর। বরাবরের মতোই বলবো, " ভাল থাকুন সবসময়, শুভকামনা নিরন্তর।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:২৬

মনিরা সুলতানা বলেছেন: মন ছুঁয়ে গেলো আপনার প্রশংসা ভাইয়া !
আসলে আমরা একে অন্যের প্রিয় বলেই সবাই সবার প্রিয় :)
অত অত শুভ কামনা আমাকে ভালো থাকতে ভালো লিখতে উৎসাহিত করে।


ফাগুণের শুভেচ্ছা আর অনেক অনেক ভালো থাকার শুভ কামনা।

৩১| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১০:৪৪

ইব্‌রাহীম আই কে বলেছেন: অনেক বেশি সংকলন ছিলো। :|

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:২৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ছিল বুঝি !!!
পাঠে এবং মন্তব্যে ধন্যবাদ ;
শুভ কামনা ফাল্গুনের।

৩২| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১১:২৬

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আমার মতো নিতান্ত সাধারণ একজন ব্লগার আপনার লিস্টে আছে দেখে খুবই আনন্দিত হলাম........
আপনার লেখাজোকা সম্পর্কে কি বলবো..... তুলনাহীন......
শব্দের অনুপম খেলা........
বৈচিত্র্যময়, চিত্ররূপময়, মনোলোভা কবিতা.......
নিপুণ হাতে লেখা দৈনন্দিন কার্যকলাপের বুনোট.......
সবমিলিয়ে কারুকার্যময় মায়ার জাল........

চমৎকার এই লেখার জন্য বিউগলের শব্দময় ভালোলাগা.......

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৩

মনিরা সুলতানা বলেছেন: দুই একটা বিশেষণ কম পরল মুনে লয় :`>

ইন্টারনেট ঘেঁটে আরও কয়েকটা নিয়ে লিখতে থাকেন ............
আহা প্রশংসা শুনতে একদম ঝোলা গুড়ের মত মিঠা!


সিগনেচার মন্তব্যে ধন্যবাদ
বসন্তের বাসন্তী শুভেচ্ছা।

৩৩| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১১:৩৯

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আমার সর্বশেষ পোস্ট দুটোতে আপনার সুচিন্তিত মতামতের অপেক্ষায় রইলাম :)

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আচ্ছা আচ্ছা চিন্তা করে আগে বের করি চিন্তা কেমন হচ্ছে সু অথবা দু ;)
ফিরবো আপনার লেখায় :)

৩৪| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১২:৫২

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: প্রথমতো স্বজন প্রীতিতে (মিডেলিস্টু বোন) সহ ব্লগার হিসেবে যদিও কদর করেছিলাম পরে পাঠক হিসেবে যখন পড়তে শুরু করলাম দেখি দুর্দান্ত লিখিয়েন। যার তুলনা শুধু আপুনি তুমিই। অনেক ভালো লিখ যে তার প্রমাণের জন্য আমার কোন বিশেষণ দেওয়া লাগলেব না যে তা সবাররি বোধগম্য।
এই বসন্তে তুমাকেও অনেক শুভেচ্ছা। ভালো থেকো সবসময়।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:৪১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: হুম হুম আমি সেদিন আমার প্রথম লেখায় দেখি আপনার মন্তব্য আছে !!
আজকের এই লেখায় শুরু থেকে এই শেষ পোষ্ট পর্যন্ত একমাত্র আপনি ই আছেন ; অভিনন্দন মিডিলিস্ট ভাই স্বজন প্রীতির জয় হোক।

বসন্তের শুভেচ্ছা ভাই !

৩৫| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ২:১৩

শাহিন বিন রফিক বলেছেন:



আচ্চা সাতকাহন এর অর্থ কি?
সেই কবে একবার পড়েছিলুম- "হীরা নিয়ে সাতকাহন" ভিতরে গিয়ে দেখি, লেখা- কহিনূর হীরা, অভিশপ্ত হীরা ইত্যাদি ইত্যাদি, সাতকাহন খুঁজে পাইনি।
আপনার লেখা দেখে বুঝলুম সাতকাহন হইল গিয়া সবকিছুর সাতটি করে থাকতে হইব।

( আপনার লেখাটি খুবই সুন্দর হয়েছে কয়েকটা পয়েন্ট খুব ভাল লেগেছে যেমন নিজেদের মধ্যে মন্তব্য আদান-প্রদান তা লেখা যে মানের হোক ৫ খানা মন্তব্য মেরে দিলুম আর কি)

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:৫০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: হাহাহা না সবকিছুর সাত টি থাকতে হবে আমন নিয়ম নেই, আমি সপ্তম বর্ষপূর্তি বলে সাত নিয়েছি আপনি দশ বা চারের ও সাতকাহন লিখতে পারেন। যেমন হীরা নিয়ে সাতকাহনে আপনি হীরা র ব্যাপারে সব জেনেছিলেন।

সাতকাহন বলতে এখানে বুঝিয়েছি আদ্যোপান্ত; মানে সাত বছরের সবকিছু। আক্ষরিক অর্থ হচ্ছে বিস্তর / প্রচুর, সে অর্থে একটা জিনিসের সবকিছু।

অনেক ধন্যবাদ লেখায় ভালোলাগার প্রকাশের জন্য ; পাশাপশি সময়ে লিখছি কিছু কিছু কোথায় অবশ্যই মিল থাকবে।
শুভ কামনা শাহিন বিন রফিক।

৩৬| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৯:১৩

উম্মে সায়মা বলেছেন:
৭ম বর্ষপুর্তির শুভেচ্ছা মনি আপু... আপনার ব্লগীয় সাতকাহন পড়ে ভাল লাগল। বেশ কষ্টসাধ্য পোস্ট দিয়েছেন। আর এত এত গুণী কবির মাঝে আপনার প্রিয় সাতে এই অভাজনের নাম দেখে ভীষণ আপ্লুত :D এত্ত এত্ত ভালোবাসা আপু। অনেক অনেক ভালো থাকবেন।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:৫৪

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ভালোবাসা সায়েমা !!
তুমি তোমার নিজের লেখার গুনেই গুণী সে আমি বলি আর নাই বলি; তবে নিঃসন্দেহে বাকি সবাই ও দুর্দান্ত কবি তোমার মতোই।
নতুন জীবনে নতুন বসন্তে অনেক অনেক ফাল্গুনি শুভেচ্ছা।

৩৭| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১০:৪০

সোহানী বলেছেন: ওরে বাপরে এতো দেখি সাতকাহন না মহাকাব্য। আবার ও প্রমান দিলে তুমি জাত লেখিকা।

আমি ভুলেগেছি যে তুমি হলে থাকতে লেখালেখি করতে কিনা। তবে তুমি শান্তশিষ্ট ছিলে অবশ্যই নতুবা আমার বা আমাদের সাথে ক্রস হতো.........হাহাহাহাহাহা। তবে তোমার লিখার হাতই বলে দেয় তুমি সত্যিকারের কবি।

নতুন পুরোনো সবাইকে তুমি স্মরণ করেছো দেখে ভালোলাগছে। ভালো থাকো সবসময়।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:০৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ওয়াও আপু আমি তো তাইলে মাইক্যাল মনিরা হয়ে গেলাম মহা কাব্য লিখে , নাকি মীর মনিরা !!!
হাহাহাহা আপু দোয়া কর লিখতে থাকেন।

উহু উহু লিখতাম পোস্টার , বিতর্কের স্ক্রিপ্ট আর এক্সাম হলে ;) ব্লগে না আসলে হয়ত জানতে ও পারতাম না যে আমি কবিতা লিখতে পারি।

আর শান্ত শিষ্ট ছিলাম কিনা !! সে জানে হলের বিল্ডিং এর প্রতিটা ইট :P

আমার আপনাকে মনে আছে আপু , শুরুতে এক বছর আমি হলে ছিলাম না, আর যখন হলে বাক্স প্যাটরা নিয়ে উঠে এসেছি আপনার তখন ফাইনাল ইয়ারে পরীক্ষার্থী। সুতরাং সবাই মন দিয়ে পড়াশুনায় ব্যস্ত ছিলেন।


আপনি ও ভালো থাকবেন আপু !! বসন্তের শুভেচ্ছা নিন।

৩৮| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১০:৪৪

হাবিব স্যার বলেছেন: আপু আপনার জন্য শুভকামনা। যাক শেষে হলেও নিজের নাম দেখে খুশি খুশি লাগছে। এত্তো এত্তো ধন্যবাদ আপু। ভালো থাকবেন সবসময়

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:০৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ হাবিব স্যার !
আপনার জন্যে ও অনেক অনেক ফাল্গুনের শুভেচ্ছা।

৩৯| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৫:৩৩

আরোগ্য বলেছেন: প্রিয় মনিরা আপা, ব্লগে সাত বছর পূর্তিতে আপনাকে জানাই সাতরঙা অভিনন্দন। এই ভাবেই আপনার পোস্টের গাড়ি চলতে থাকুক এবং আমাদের মুগ্ধ করুক এই কামনা করি।

এই আনকোরা নতুন লেখকের একখান পোস্টের নাম দেখে আমি আনন্দে বিহ্বল। অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই আপাকে।

১৯ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১১:৩৩

মনিরা সুলতানা বলেছেন: প্রিয় প্রিয় আরোগ্য !
কিছু কিছু নতুন মুখ খুব সহজেই কাছের প্রিয় মুখ হয়ে যায়, আপনি ও তাদের একজন।
চমৎকার শুভ কামনা, আর দারুণ সব মন্তব্যে সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

৪০| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:৩৫

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনি ঈদেরপর আনন্দলনের ঘোষণা দিতেন, আপনাকে গল্পকার, রম্য এই লিস্টের ও সাতে কেন রাখা হয় নাই এইটা আর নতুন কি? বাংলাদেশী সমাজে প্রতিভাবানদের প্রতিভার দাম কেউ দেয়? এই জন্যই তো দেশ ছাড়ছি!! :P


ওকে...জোকস এপার্ট। এটা তো কোন প্রতিযোগিতা না, এটা একান্তই আপনার ব্যক্তিগত পছন্দ। তবে, আপনার পছন্দের তারিফ করতেই হয়। ওই দুই ক্যাটাগরীতে যাদের নাম দিয়েছেন....আমিও হয়তোবা তাদেরই নাম দিতাম। এরা সবাই আমারও পছন্দের, এবং প্রত্যেকেই স্ব স্ব ক্ষেত্রে একেকজন ট্যালেন্টেড ব্লগার!

আমি নিজেই নিজেকে এদের সমপর্যায়ের ভাবি না। :)

পুনশ্চঃ ৭০ বছর পূর্তির পোষ্ট নিজ হাতেই লিখতে পারবেন, ইনশাআল্লাহ!!

১৯ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১১:৪০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: হাহাহাহাহা দেশ ছাড়ছেন ঠিক আছে ব্লগ ছাইড়েন না, ব্লগে প্রতিভাবানদের একদম মাথায় তুলে রাখা হয় ;)

অনেকখানি ই সত্যি বলেছেন, কাছাকাছি সময়ের ব্লগারদের প্রিয়মুখ গুলো তে মিল থাকেই, আর সম পর্যায়ে ভাবেন না সেটুকু আপনার বদান্যতা নিঃসন্দেহে, তালিকাতে অনায়েসে আপনি নিজের লেখার গুনেই থাকার দাবী রাখেন; কার কার তালিকাতে আপনি প্রথমেই থাকবেন বলে আমার বিশ্বাস।

হাহাহা ইনশাআল্লাহ্‌ সেই লেখায় ও আপনি এমন সুন্দর মন্তব্য করবেন।

৪১| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:২১

কি করি আজ ভেবে না পাই বলেছেন: বার বার সাতে চার
ওরে কি যে সুখরে;
'নীলাকাশ' ছাড়খার
আহা ভরে বুকরে। ;)

মায়া ঝরা ঝাড়ি সব
মিছে রাখে ধমকে;
সে রাখুক,রাখছি না
পা মাটিতে ঠমকে। :)

১৯ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১১:৪৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: কি করি আজ ভেবে না পাই;


তুই ছিলি শুরুতেই
শেষে জানি থাকবি;
ভং চং করে করে
বকলেই ভাগবি।


তারপর যদি করি
সাতশোর লিস্টি;
দেখা যাবে সেখানেও
তুই ই সেরা বেস্টি।

৪২| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১০:৪৪

সুমন কর বলেছেন: সামুতে আমার পড়া সবচেয়ে বৈচিত্র্যময় এবং চমৎকার ইউনিক পোস্ট। সবার মন্তব্যেও তা প্রকাশ পেয়েছে। দুপুরে অর্ধেক পড়ে কাজের জন্য পড়তে পারিনি, ফ্রি হয়ে পড়লাম। অসাধারণ লিখেছেন। গ্রেট...........

১৯ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১১:৫৪

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ সুমন কর !

মন ছোঁয়া মন ভালো করা সর্বোপরি উচ্ছ্বসিত হবার মত একটা মন্তব্য!!!
ব্লগিং এ আপনার আন্তরিকতা এবং কৃতিমতা বর্জিত মন্তব্য সত্যি উল্লেখ করার মত। সব সময় এমন ই থাকুন।

শুভ কামনা আপনার জন্য।

৪৩| ১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১২:২৮

আখেনাটেন বলেছেন: হুলুস্থুল ব্যাপার-স্যাপার।

মহাকাব্যিক পোস্টে আমার মতো এক ক্ষুদ্র ব্লগারকে স্মরণে নিয়েছেন। সেজন্য আমার পক্ষ থেকে এক কড়পা (ডালির বড় ভাই) গোলাপের শুভেচ্ছা (আজকে গোলাপের আকাল না পড়লে আরো দিতুম)। :D

২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১২:০৩

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনার হুলুস্থুল মন্তব্যে ধন্যবাদ ফারাও ভাই!
কড়পা গোলাপেই আপ্লুত ! সেখান থেকেই ২১ এর কাজ চালানো যাবে; আর আপনি ক্ষুদ্র হলে তো আমরা সব নাই নাই এর তালিকায়।
আপনাদের দারুণ সব লেখায় যাচ্ছি, সময় নিয়ে।

সব সময় ভালো থাকার শুভ কামনা।

৪৪| ১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৫:৪৫

জাহিদ অনিক বলেছেন: বাহ ! দুর্দান্ত!
সাত বছর পূর্তিতে একদম পরিপূর্ণ ব্লগ লাইফের ফিরিস্তি। ফিরে দেখে নেয়া যেন সাত বছরের হিসেবপত্র।
হিসেবের খাতা আপনার অনেক বৈচিত্রময় ও পরিপূর্ণ।
আপনি পড়েছেন অনেক বিখ্যাতদের ও ভালোদের লেখা। আবার তেমনি আপনার অনেক দারুন দারুন লেখাও পড়েছি আমরা। আশা করি সাম্নেও এই ধারা অব্যাহত থাকবে।

অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও কৃতজ্ঞতা মনিরা আপু।

২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১২:০৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: জাহিদ অনিক !
আমার প্রিয় কবিদের একজন; সব সময় দারুণ সব লেখায় ব্লগ যেমন মাতাও তেমনি চমৎকার স্নিগ্ধ মন্তব্যে ও। আমার লেখায় তোমার কোমল দরদি মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

সব সময় ভালো থাকো আর আমাদের কে অপূর্ব সব কবিতা উপহার দাও।

৪৫| ১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:১৩

রাকু হাসান বলেছেন:


হুম উপন্যাস সাতকাহনের কথাই বারবার মনে আসছিলো পোস্ট পড়ড়ে পড়তে । আর অবশ্যই মাইকেল মনিরা আপু হয়ে গেলে ;)
ব্লগাদের মিলনাস্থান ,ব্লগ মিথস্ক্রিয়া কেন্দ্রে জানাচ্ছি বসন্তের শুভেচ্ছা ।



এমন পোস্ট আমি দ্বিতীয় একটা পাইনি । সত্যিই অসাধারণ। এ যেন পুরো সামু ব্লগের কবি/লেখক/লেখিকারা উঠে এসেছে এক ছাতার নিচে। এই মানুষগুলোই তো বারবার মুগ্ধ করে আসছে । এ যেন আমারই প্রিয় ব্লগারদের অংশ। একই বলে স্বরণীয় করে রাখা ,উযযাপন !!এত সব মানুষের নাম এক পোস্টে উচ্চারণ করাটাও কঠিন । আর সেটা যদি সবার মন রেখেই হয় তাহলে তো কথাই নেই ।আরও সবচেয়ে মজার বিষয় হচ্ছে কারও ব্যাপারে বেশি বলা হয় নি । তবে আমার ব্যাপারে যা বলা হয়েছে হেইডার ক্রেডিট দৌড় টু পুঁইডাটা B-)) । পুঁইডাটার প্রতি আমার অদ্ভুদ ভালো লাগা তৈরী হয়েছে । আমি পুঁইশাক দেখলেই কবিতা কথা মনে হয় 8-| । এছাড়া পুঁইডাটা পছন্দেরও একটি শাখ :) । এমন একজন পছন্দের মানুষের পোস্টে আমার নাম আসবে কল্পনাও করেনি । নাম দেখেই অবাক হয়ে গেলাম । :|| সত্যিই পোস্টটি স্বরণীয় হয়ে থাকবে ।

পরিশেষে :) :-B মনিরা আপু 8-| :#) :)


ছবিটা কে তুলছে?

২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ২:৫৩

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ওরে বাবা !!
মন্তব্যে তো সাত সাতে চৌদ্দ কাহন তুলে এনেছ, তাও আবার অতখানি বর্ণিল !! ধন্যবাদ অপূর্ব ছবি সহ বসন্ত শুভকামনার জন্য। সত্যি বলতে কি, সাত বছর তো অনেকটা সময় - লিখে ফেলার পর কত কত ভুলে যাওয়া প্রিয়মুখের সাথে মন্তব্য চালাচালির গল্প মনে আসছে। হয়ত পরের স্মৃতিচারণ লেখায় এখনকার কোন প্রিয়মুখ ও আবছা হয়ে যাবে। অনেকের কথা বলাই হয় নি এখন মনে হচ্ছে।

হাহাহাহা পুঁই ডাটা রকস ! বেঁচে থাকা পুঁইডাঁটা বেঁচে থাক ব্লগ আর বেঁচে থাকুক আমাদের বন্ধুত্ব। শুভ কামনা অনেক অনেক।



এমন ছবি আর কে তুলতে পারে ;) ওয়ান এন্ড অনলি আমি দ্যা গ্রেট :P

৪৬| ১৭ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:১৬

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: লেখাটি পাঠ ও এর সাথে থাকা বেশ কিছু লিংকে গিয়ে সেখানে থাকা পুরাতন কিছু গুণী ব্লগারদের ব্লগে কিছুসময় বিচরণ করে আবার ফিরে এসে এটা পাঠে কি পরিমান সময় লেগেছে তা কি ভাবতে পারেন । সেই যে রাত ১২ টায় বসেছি এখন এ মন্তব্য লেখা পর্যন্ত অবস্থায় আসতে আমার এখানে রাত পার হয়ে ভোর ৫ট বেজে গেছে । এই পোষ্টের লেখাগুলি পড়ছি আর ভাবছি কি পরিশ্রম আর কতটুকু নিষ্টা নিয়ে সুমধুর স্মৃতিচারন আমাদের জন্য এ লেখায় ডেলেছেন তা শুধু বিস্ময়ই জাগায় । অতি অল্প কথায় এত সকল গুণী ব্লগারদের বিষয়ে মুল্যায়নটা যেমনভাবে করেছেন তা দেখে মুগ্ধ । এ ব্লগে আমার স্বল্প পরিসর জীবনে যে কয়জন গুণী লেখকের লেখার সাথে পরিচয় ঘটেছে তাদের সকলের বিষয়ে যে মূল্যায়ন করেছেন তা একেবারে যতার্থ বলে মনে হয়েছে । বর্ষ পুর্তীতে এমনতর তথ্য সমৃদ্ধ লেখা এবং বিপুল সংখক গুণী ব্লগারদের গুণপনার বিষয়, সাথে লিংক সহ উপস্থাপনা এই ব্লগকে সমৃদ্ধ করেছে । ঘুম চোখে এ মহুর্তে বেশী কিছু লিখতে পারছিনা , তবে যাবার বেলায় পোষ্টটি প্রিয়তে নিয়ে গেলাম ।

ফাগুন মাসের প্রথম প্রহরে ব্লগে সপ্তবর্ষ পুর্তীতে শুভেচ্ছা রইল

২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:০৯

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনি নিঃসন্দেহে একজন লা জওয়াব পাঠক !!! যে কোন লেখার আদ্যপান্ত খুঁটে খুঁটে পড়ার মত পাঠক খুব বেশি নেই।
মন ভালো হয়ে গেলো আপনার মুগ্ধ এবং মনযোগী পাঠের বর্ণনায়। বেশ লম্বা সময় পর খেটেখুটে বর্ষপূর্তির পোস্ট দেয়া সার্থক মনে হচ্ছে আপনাদের সবার দরদী মন্তব্যে।

গুণী ব্লগাদের ব্যাপারে খুব অল্প কিছুই বলতে পেরেছি, সময় এবং ভাষার স্বল্পতার কারণে। প্রত্যেকেই উনাদের নিজেদের ক্ষেত্রে নিজস্ব আলোয় আলোকিত। আমি সামান্য ভালোবাসা প্রকাশ করেছি মাত্র। আমার এ ভালোবাসার প্রকাশ আপনার মন ছুঁয়েছে তাতেই আমার আনন্দ।

প্রিয়তে রেখে আমাকে কৃতজ্ঞতায় আবদ্ধ করলেন ভাইয়া। সব সময় আপনার ভালো থাকার শুভ কামনা করছি।

৪৭| ১৮ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:২৩

বোকামানুষ বলেছেন: বিশাল সব জ্ঞানী গুণী ব্লগারদের চিপায় চাপায় এক কোনায় আমার নামও দেখা যাচ্ছে :``>> অনেক ধন্যবাদ আপু
তবে একটা কথা আপনি প্রথম থেকেই ভাল লিখেন আর আমার মনে আছে আপনি প্রথম থেকেই প্রচুর পোস্ট পরতেন মন্তব্য করতেন

আরেকটা কথা যদিও এটা আমার ব্যক্তিগত মতামত আমি আসলেই ব্লগের প্রথম দিনগুলো মিস করি ২০১০-১৩ সময়টা কত ধরণের লিখা যে পড়েছি সেই সময়। এই ব্লগ থেকে অ্যানিমেশন মুভির লিস্ট থেকে শুরু করে বিদেশে পড়তে যেতে হলে কি কি করতে হবে কত অসংখ্য তথ্য সমৃদ্ধ লিখা যে পড়েছি সেই সময় প্রিয়তে নিয়ে রেখছি এখন আমার প্রিয় পোষ্টে ঢুকলে নস্তালজিক লাগে

২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৩১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনি আপনার স্ব মহিমাতেই আছেন আপু !
কম লিখলেও আমার লেখায় আপনাকে শুরু থেকেই পেয়েছি তাই আমার লেখা এবং ব্লগের দারুণ সময় গুলোর সাথে রওয়ে গেছে আপনার নাম, রয়ে গেছেন আপনি।

আপনার ব্যক্তিগত মতামত এর সাথে আমিও সহমত জানাচ্ছি, কিন্তু আমাদের বিবেচনায় অন্যান্য সোশাল মিডিয়া ব্লগ নিয়ে বিভিন্ন দেশে নেগেটিভ প্রচার সবমিলিয়ে এটুকুতেই সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে।

ধন্যবাদ আপনাকে লেখায় উৎসাহ হয়ে থাকার জন্য।

৪৮| ১৯ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:৪৬

মেহেদী হাসান হাসিব বলেছেন: ব্লগে মাঝে অনেকদিন এক্টিভ ছিলাম না আপু।

২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৩২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আশা করছি ব্যস্ততা কাটিয়ে ফিরছেন ব্লগে :)

৪৯| ১৯ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:৪৬

মেহেদী হাসান হাসিব বলেছেন: কেমন আছেন? আমার লেখা শোভার মৃত্যু গল্পটি আলোচিত ব্লগে এসেছে। সময় করে পড়ার অনুরোধ রইলো।

২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৩৪

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ মেহেদী হাসান হাসিব !
আলোচিত পাতায় স্থান করে নেয়ায় অভিনন্দন !! অবশ্যই সময় করে লেখায় যাবো।

শুভ কামনা।

৫০| ২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:৪৬

জুন বলেছেন: মনিরা প্রথমেই জেনো তোমার সাত বছর পুর্তিতে আমার আন্তরিক অভিনন্দন। সাত বছর পুরো করে এই যে সাত কান্ড রামায়ণ লিখলে তা পড়তে গিয়ে তো আমি তাজ্জব! আমাকেও তোমার সপ্তর্সী মন্ডলের এক কোনায় জায়গা দিয়েছো তার জন্য অনেক ভালোবাসা। অনেক অনেক ভালো থেকো আর অনেক বছর সাথে থেকো এই কামনায়।

হু হু জেনে রেখো এই মাসেই হবে আমার নয় বছর পুর্তি B-)
তখন আমিও লিখবো দশ খন্ডের এক বিশাল মহাভারত =p~

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:১০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ আপু !
হাহাহা সাতখন্ড রামায়ণ তো তোমার মত পড়ুয়ার জন্য ব্যাপার ই না, আর ব্লগের ইতিহাসে ব্লগ কাহন লিখতে গেলে তোমার নাম যদি কেউ না নেয় তাহলে তো তার চাকরি ই থাকবে না :`> তুমি আছো একদম ধ্রুবতারা হয়ে।

তোমার নয় বছড় পূর্তির অগ্রিম শুভেচ্ছা আপু!
আর নয়ে দশ খণ্ডের অপেক্ষায় রইলাম; ভালোবাসা নিও।


৫১| ২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:০২

নীলপরি বলেছেন: অসাধারণ পোষ্ট ।

++
আপনাকে অনেক শুভকামনা

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:১৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: নীলপরি !
আমার শুভেচ্ছা নিন।

৫২| ২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৩:০৫

শায়মা বলেছেন: আপুনি!!!!!!!!!!!!
সাত সতেরো সাতশো সাত লাখ সাত কোটি!!!!!!!!!!!!!!


গেছি আমি !!!!!!!!!!! B:-)

২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৮:১৯

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আরেয়ে না না তুমি দুর্দান্ত ভাবেই লিস্টে আছো :`>
সাত সতেরো সত্তর সাতাত্তর সাতশো সাতলক্ষ সাতকোটি !!
সব পোষ্টেই তুমি থাকবে হে সেলিব্রেটি :)

৫৩| ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ৯:০৫

কথাকথিকেথিকথন বলেছেন:




এ তো মহা সাতকাহন! গোড়া ধরে টেনে টেনে আগা পর্যন্ত নিয়ে এসেছেন ! আদেশ, উপদেশ, প্রত্যাশা, ভালবাসা, নিজস্ব বিশ্লেষণ । সব মিলিয়ে বেশ ভাল ভাবেই ব্যালেন্স করেছেন । খুব ব্যাতিক্রম উপস্থাপন । আপনার লেখার বিস্তারগুলো এবং শব্দ বুনন দেখলে এটা ভাবার কোন কারণ থাকে না যে আপনি আলসে লেখক ! চমৎকার উদযাপন ।

২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১:০৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ভালো লাগলো আপনার মন্তব্যে আমার বর্ষপূর্তি লেখার বিশ্লেষণ ! আরও ভালো লাগলো সেখানে আপনার ভালোলাগার প্রকাশ।
লেখার বেলায় আমি কিছুটা খুঁতখুঁতে সেখানেই অলসতা চলে আসে আসলে। আর পাঠক হিসেবে বিবেচনা করলে তো ভীষণ আলসে লেখক। তবুও আপনার বিশেষণে মুগ্ধ হলাম।


ধন্যবাদ কথাকেথিকথিকথন!

৫৪| ২৫ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১০:৩৫

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: পড়ে ভালো লাগলো খুব খুবই।
শুভকামনা জানবেন।

২৬ শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ রাত ১:০২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: পাঠে এবং মন্তব্যে ধন্যবাদ আপনাকে মাহমুদুর রহমান;
আশা করছি আমাদের সাথে ই থাকছেন!
শুভ কামনা।

৫৫| ২২ শে মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১০

খায়রুল আহসান বলেছেন: শিরোনামের ছবির ফুল দুটোর মতই সুন্দর একটি পোস্ট। সাথে লিঙ্কগুলো দিয়ে দেয়াতে একটা বিরাট কাজের কাজ করেছেন। এতে অনেক পরিশ্রম হয়েছে তা সহজেই বোধগম্য, আর সেজন্য আপনাকে একটা বিরাট অভিবাদন জানিয়ে আমার মন্তব্য শুরু করছি।
জীবনের ব্লগীয় সময়টাকে "সবচাইতে পাললিক সময়" বলে আখ্যায়িত করেছেন- কি সুন্দর একটা কাব্যিক আখ্যা দিয়ে লেখাটা শুরু করলেন! শুনেই ভাল লাগলো। আপনার 'আমি' এর রূপান্তরের কথাগুলো, প্রবাস জীবন, পরবাসী জীবনের কাহিনী, সাহস করে ব্লগে প্রবেশ করার বর্ণনা, ইত্যাদি খুবই হৃদয়স্পর্শী হয়েছে। আপনার এ লেখা পড়ে আমার ব্লগে প্রবেশ করার ইচ্ছেটা কিভাবে হলো, সে কথাও মনে পড়লো।
কিভাবে কিভাবে যেন একদিন এই ব্লগের একটা লিঙ্ক পেয়ে গিয়েছিলাম, সেই লিঙ্ক ধরে একটা গল্প পড়ে অভিভূত হয়েছিলাম। সেই গল্পটা লিখেছিলেন কে, তার নামটা মনে নেই, কিন্তু তিনি তার শ্বশুরবাড়ীতে তার নিঃসঙ্গ জীবন নিয়ে লিখেছিলেন। তার শ্বশুরবাড়ীতে সবাই তাদের পোষা কুকুরকে ভালবাসতো, তিনি খুব ভয় পেতেন, ইত্যাদি বৈপরীত্য নিয়ে তিনি একটি আবেগপূর্ণ পোস্ট লিখেছিলেন। আমি সেটা পড়ে আরো কিছু লেখা পড়ার জন্য ব্লগ ঘাটাঘাটি করতে থাকি এবং ব্লগের প্রতি আকৃ্ষ্ট হতে থাকি। এভাবেই একদিন নিজে নিজেই রেজিস্ট্রেশনও করে ফেললাম এবং তিন দিন পার হবার আগেই নিরাপদ ঘোষিত হবার মেইল পেলাম। সেই যে শুরু, এখনো চলছেই! :)
পোস্টে প্লাস, এবং পোস্ট প্রিয়তে। তবে পোস্ট নিয়ে আরো কিছু বলার আছে, তাই আবারো আসবো বলে আশা রাখি।

০১ লা এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ২:১১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনার শুদ্ধতম প্রশংসা সব সময় মন ছোঁয় ! হ্যাঁ পোষ্ট লিখতে বেশ কিছু সময় নিয়েছি, কিন্তু অতৃপ্তি রয়ে গেছে; অনেক অনেক পরিচিত মুখ পরিচিত নাম মনে জানালায় উঁকি দিচ্ছে লেখা শেষ হবার পর। আপনার অভিবাদনে শ্রদ্ধা র গ্রহণ করলাম।

আপনার ব্লগে প্রবেশের ইচ্ছের কথা পড়ে মনে হল আপনি হয়ত " আমি ময়ূরাক্ষীর" ব্লগ পড়ছিলেন সে সময়। ময়ূরাক্ষীর লেখাতেই যতদূর মনে আছে দেখেছি পশুপ্রেমের গল্প। আপনার ব্লগ পদচারনা আমার স্মৃতিতে যতটুকু আছে -
কাল্পনিক ভালোবাসার একটা মন্তব্যের সূত্র ধরে লেখাটা পড়েছিলাম, আপনার আবার কবর জেয়ারত এবং ভোরের স্নিগ্ধতার প্রশান্তির বর্ণনা, এরপর আপনার ক্যাডেট কলেজের গল্প তো আমি গোগ্রাসে গিলেছি কিয়ানী নাম টা পছন্দের তালিকায় রয়ে গেছে , রয়ে গেছেন উনার স্ত্রী এবং কন্যা। স্কুলে পড়ার সময় এমন আবাসিক স্কুল গুলোর প্রতি এক ধরনের মোহ ছিল, মোহ রয়ে গিয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে ও। বি এন সি সি করে কিছু টা আনন্দ পেয়েছিলাম, এবং বাংলাদেশ আর্মি তে মেয়েদের নেয়ার সিদ্ধান্তের সময় টা তে আমাদের ব্যাচের উদহারন নেয়া হয়েছিল, যা সত্যিই আমাদের জন্য আনন্দের ছিল। আফসোস আমাদের সে সুযোগ ছিল না।
যাই হোক অনেক অনেক গল্প করে ফেললাম, আমার বিলম্ব উত্তরের জন্য ক্ষমা প্রার্থী।

৫৬| ২২ শে মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫১

খায়রুল আহসান বলেছেন: সতের বিষয়ে 'সাতে' সাজানো আপনার এ তালিকাটা বেশ সমৃদ্ধ। আর সাত-সতের-সত্তরের সাতকাহন নিয়ে এ পোস্টের শিরোনামটাও যথার্থ হয়েছে। আপনার প্রথম কবিতা, প্রথম গল্প, প্রথম ভ্রমণ কাহিনী এবং প্রথম স্মৃতিকথা, এসবগুলোতেই আমার মন্তব্য রয়েছে দেখে নিজে নিজেই খুশী হ'লাম। :)
আপনাকে উৎসর্গ করা সাতটি পোস্টের মধ্যে মাত্র একটি আমার পড়া, এবং সেটি 'প্রিয়'তে তুলে নিয়েছি। শিশুদের মেধা বিকাশে খেলনার প্রভাব নিয়ে সে পোস্টটি আরেক কৃ্তি ব্লগার শায়মা'র লেখা। কিন্তু আমি সে পোস্টটির উপর সুবিচার করতে পারিনি, অর্থাৎ সবিস্তারে মন্তব্য করতে পারিনি, যদিও সবিস্তারে পড়েছি। ইচ্ছে ছিল, তার এ পোস্টটি আবার আমার চার বছরের নাতনিটাকে কাছে নিয়ে পড়বো এবং যেখানে যেখানে ওকে কিছু শোনাবার থাকবে, তা ওকে শোনাবো। কিন্তু, তার আগেই নাতনি আমার কানাডা চলে যায়।

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: খুব অনিয়মিত ভাবে ব্লগে ফেরায়, আপনার মন্তব্যের উত্তর দেয়া হয় নি; আশা করছি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখাবেন।

সতের বিষয়ে 'সাতে' সাজানো আপনার এ তালিকাটা বেশ সমৃদ্ধ। আর সাত-সতের-সত্তরের সাতকাহন নিয়ে এ পোস্টের শিরোনামটাও যথার্থ হয়েছে। আপনার প্রথম কবিতা, প্রথম গল্প, প্রথম ভ্রমণ কাহিনী এবং প্রথম স্মৃতিকথা, এসবগুলোতেই আমার মন্তব্য রয়েছে দেখে নিজে নিজেই খুশী হ'লাম। :)
আপনাকে উৎসর্গ করা সাতটি পোস্টের মধ্যে মাত্র একটি আমার পড়া, এবং সেটি 'প্রিয়'তে তুলে নিয়েছি। শিশুদের মেধা বিকাশে খেলনার প্রভাব নিয়ে সে পোস্টটি আরেক কৃ্তি ব্লগার শায়মা'র লেখা। কিন্তু আমি সে পোস্টটির উপর সুবিচার করতে পারিনি, অর্থাৎ সবিস্তারে মন্তব্য করতে পারিনি, যদিও সবিস্তারে পড়েছি। ইচ্ছে ছিল, তার এ পোস্টটি আবার আমার চার বছরের নাতনিটাকে কাছে নিয়ে পড়বো এবং যেখানে যেখানে ওকে কিছু শোনাবার থাকবে, তা ওকে শোনাবো। কিন্তু, তার আগেই নাতনি আমার কানাডা চলে যায়।


কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি, আমার পোস্টের শিরোনাম সহ তালিকার প্রশংসায় ! আমার প্রথম দিকের লেখা গুলোতে আপনার মন্তব্য পেয়ে আমি ও আনন্দিত হইছিলাম। এবং ব্লগিং এ আপনার এই চমৎকার গুন টি আমাদের সবার ই প্রিয়।

আশা করছি খুব জলদী আনায়ার সাথে আপনার দেখা হবে, এবং তাকে নিয়ে পড়বেন সেই প্রিয় তালিকার পোস্ট।


অনেক অনেক শুভ কামনা সহ ধন্যবাদ ভাইয়া।

৫৭| ২২ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ৮:১২

খায়রুল আহসান বলেছেন: ৩-খ অনুচ্ছেদে এসে আপনার প্রিয় সাত ব্লগারদের মাঝে নিজের নামটিকে দেখে প্রীত হ'লাম। "মন্তব্যে, উৎসাহে ব্লগকে বেঁধেছেন মায়ায়" - এ হার্দিক এপ্রিসিয়েশনটুকুর জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ।
আবার ১৫ নং অনুচ্ছেদে এসে "মন্তব্যে প্রিয় সাত" এর তালিকায়ও নিজের নামটি দেখে আনন্দিত হয়েছি। আমি চেষ্টা করি, লেখকের লেখার ভেতরে প্রবেশ করে তার সেই পোস্ট লেখার সময়ের উপলব্ধির সাথে একাত্ম হতে। আমার এ প্রচেষ্টার কথাটা বেশীরভাগ লেখকই বুঝতে পারেন এবং তারা সেটা বেশ উদারভাবেই এপ্রিশিয়েটও করেন।
এ ছাড়া, ব্লগিং এ আপনার "প্রত্যাশা সাত" এবং "অপছন্দের সাত" এর সাথেও আমি পুরোপুরি একমত পোষণ করি।
সবশেষে, সর্বাঙ্গীণ চমৎকার একটি পোস্টের জন্য পুনরায় অভিনন্দন জানিয়ে শেষ করছি।

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ৩-খ অনুচ্ছেদে এসে আপনার প্রিয় সাত ব্লগারদের মাঝে নিজের নামটিকে দেখে প্রীত হ'লাম। "মন্তব্যে, উৎসাহে ব্লগকে বেঁধেছেন মায়ায়" - এ হার্দিক এপ্রিসিয়েশনটুকুর জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ।
আবার ১৫ নং অনুচ্ছেদে এসে "মন্তব্যে প্রিয় সাত" এর তালিকায়ও নিজের নামটি দেখে আনন্দিত হয়েছি। আমি চেষ্টা করি, লেখকের লেখার ভেতরে প্রবেশ করে তার সেই পোস্ট লেখার সময়ের উপলব্ধির সাথে একাত্ম হতে। আমার এ প্রচেষ্টার কথাটা বেশীরভাগ লেখকই বুঝতে পারেন এবং তারা সেটা বেশ উদারভাবেই এপ্রিশিয়েটও করেন।
এ ছাড়া, ব্লগিং এ আপনার "প্রত্যাশা সাত" এবং "অপছন্দের সাত" এর সাথেও আমি পুরোপুরি একমত পোষণ করি।
সবশেষে, সর্বাঙ্গীণ চমৎকার একটি পোস্টের জন্য পুনরায় অভিনন্দন জানিয়ে শেষ করছি।


ব্লগে ব্লগারদের চমৎকার আন্তরিক যে বন্ধন, সে আপনাদের মত উদার মনা, সুলেখক শ্রদ্ধা ভাজন রা রয়েছেন বলেই সম্ভব হয়েছে। জানি ব্লগের এ যুগ বা অন্য কাল - আমার কাছে ব্লগের সব কালেই আপনাদের সবাই স্মরণ করবেন আপনাদের নিজস্ব গুন ও হিমার জন্য।

এত এত সুন্দর সব মন্তব্য করে আমার লেখার সাথে আমাদের সাথে ব্লগে থাকার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.