নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

চলে গেলে- তবু কিছু থাকবে আমার : আমি রেখে যাবোআমার একলা ছায়া, হারানো চিবুক, চোখ, আমার নিয়তি

মনিরা সুলতানা

সামু র বয় বৃদ্ধার ব্লগ

মনিরা সুলতানা › বিস্তারিত পোস্টঃ

একাহিক

২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ৯:৪৯





শেষবাঁশি' তে দুই প্রান্তে অপেক্ষমাণ দু' টি ট্রেন মেঘের ধোঁয়া উড়িয়ে পা বাড়ায় গন্তব্যে
কার্বন ফেলা নি:শ্বাসের সাথে পাল্লা দিয়ে
ওড়ে কিছু ছেঁড়া কাগজ।


জলপাই আমলকি বন একে একে মেশে
দুইধারের জংলা জলাশয়ে;
কেউ ছোঁয় শালবন তো ও' পাড়ে কুচলা তল
গৃহবধু'র ফিকে হয়ে আসা আচঁলে সুখ বাঁধা রাখে - স্টেশন ছেড়ে আসা লোকাল
আর -
পারাবত ছোটে পাহার চূড়ায়।


জংশনে চা’য়ে চা’য়ে কুল্লর
ব্যস্ত ক্যান্টিন বয়।
ও ধারেতে নুন- বাদামে ঝালঝাল উহ !
মানে গুনে গতরে গম্ভীর যে লম্বা ভ্রমনে সুস্থির আন্তঃনগর
লোকাল নামেই ছোটপাখি সুর তোলে কুউ উ উ ঝিকঝিক।


দিনে শুধু একবার ঝলকে অতিক্রম করে দু'জনে
দৃষ্টি' র তারায় ফোটে হিমঝুরি ফুল;
মিলায় তারা আলাদা দিগন্তে-
ঐ টুকু চেয়ে থাকা সুখে হাসিমুখে তুলে নেয় বোঝা যত এ শহরের ।




একাহিক
মনিরা সুলতানা
০৩-০২-২০১৯
ছবি কৃতজ্ঞতা

মন্তব্য ৮৭ টি রেটিং +২৪/-০

মন্তব্য (৮৭) মন্তব্য লিখুন

১| ২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ৯:৫৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
সুন্দর।
শুভ কামনা।

২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১০:০৩

মনিরা সুলতানা বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন !
পাঠে এবং চমৎকার মন্তব্যের জন্য।

ভালো থাকুন এই রমজানে, শুভ কামনা।

২| ২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১০:৩২

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: সুন্দর কবিতা

২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১০:৪০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ কাজী ফাতেমা ছবি আপু ;
লেখায় আপনার উপস্থিতি প্রেরণা যোগায়।

৩| ২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১০:৪২

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সুন্দর।+

২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১০:৫১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বাহ !
এই প্রথম কবিতা হ্যাট্রিক সুন্দর উপাধি অর্জন করলো !!!
ধন্যবাদ সেলিম আনোয়ার :)

৪| ২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১০:৫৯

হাবিব স্যার বলেছেন: একাহিক মানে কি?

২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১১:০৬

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ হাবিব স্যার কবিতা পাঠের জন্য !

৫| ২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১১:১২

জুন বলেছেন: আহা মনিরা কবিতা আর কি পড়বো? আমি তো ছবি দেখেই মুগ্ধ :)
এই জন্যই মুরুব্বিরা বলে কনে দেখানোর সময় বোন বা বান্ধবীদের আড়ালে রাখো =p~
+

২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১১:১৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: হাহাহাহাহা জুন আপু উ উ উ :)
এই ছবি সিলেক্ট করতে, এই ছবি টা থেকে সরতে যে কত চেষ্টা করছি !!! ঘণ্টা খানেক সময় মনে হয় ব্রাউজ ই করছি। কিন্তু ঐ যে মুগ্ধতা ! শেষ মেশ এইটাই দিলাম।

যাইহোক ছবি সিলেক্ট করতে যে সময় দিয়েছি, আপনার মন্তব্য সে কষ্ট চলে গেছে। ভালোবাসা আপু।

৬| ২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১১:২০

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: একাহিক, এক দিনে শেষ করা যায় এমন কোনোকিছু বোঝায়। এর আরেকটা অর্থ হলো ক্ষণস্থায়ী।

কবিতায় দারুণভাবে ক্ষণস্থায়ী কিছু মুহূর্তের রেশ তুলে ধরেছেন। দিনে কেবল একবারই দুটো ট্রেনের মিলন হয় !

হোক সে মিলন ক্ষণস্থায়ী, তবে তা চলে যাওয়া স্বামীর পানে চেয়ে থাকা রমণীর ভালোবাসার মতোই। ক্ষণিকের দেখা হওয়া হয়ে যায় দীর্ঘক্ষণের একটা গল্প ! যে দীর্ঘসূত্রতা থাকে হৃদমাঝারে.......

কবিতায় ট্রেন এবং এর পরিপার্শ্বের সুনিপুণ ছবি এঁকেছেন, যা আপনার দ্বারা চমৎকারভাবেই সম্ভব !

কোনো কবিতায় কেবল সুন্দর মন্তব্য করলে, তা কবির কাছে অন্যায় বলে মনে হয় আমার কাছে। কবিতা হৃদয়ঙ্গম করে কিচ্ছুটি তো লেখা দরকার !

সুনীল আকাশে ভেসে চলা সাদা মেঘের ন্যায় ভালোলাগা !

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ১:৪১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনার চমৎকার মন্তব্যে অনেক অনেক ভালোলাগা !!!
আমি এখানে ক্ষণস্থায়ীত্ব টুকু ই এনেছি, একটু চকিত চাহনি মুহূর্তের আনন্দটুকু ধরে রাখে সমস্তক্ষন। হৃদমাঝারের এর যে ফল্গুধারা সেখানেই বসন্ত বারোমাস।

আপনার প্রশংসা মন ছোঁয়া;

আসলে আমার নিজের ও অনেক সময় অসম্ভব প্রিয় কিছু লেখায় বলার কিছুই থাকে না ভালোলাগার প্রকাশ ছাড়া; সে হিসেবে পাঠকের নিজস্ব প্রকাশটুকু তেই সন্তুষ্ট।


ভালোলাগা টুকু লেখার আনন্দ :)

৭| ২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১১:৩২

মুক্তা নীল বলেছেন: আপা
এবার অনেকদিন পর কবিতা দিলেন তাও আবার এতো কঠিন ?
জীবন তো চলছেই জীবনের নিয়ম ধারায়, তারপরে কি হঠাৎ দেখা হল কোন একদিন দুজনার , এরকম কিছু ? কবিতা সুন্দর হয়েছে।
কবিতার ছবিটা অসাধারণ সুন্দর হয়েছে।
শুভকামনা জানবেন। ভালো থাকুন সব সময় আমার প্রিয় কবিরানী।

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ১:৪৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: মুক্তা নীল !
আপনার মন্তব্যের আন্তরিকতা সবসময়ই দারুণ ভাবে আমাকে স্পর্শ করে; ঠিক কঠিন কিছু না, তবে অপ্রচলিত ইছু শব্দ এনেছি।
আপনার থিমটাও ভেবে নেয়া যায়- ক্ষণিকের মিলন আনন্দের রেশ রেখে যায় দীর্ঘস্থায়ী।
কবিতা এবং ছবি তে ভালোলাগা প্রকাশে কৃতজ্ঞতা।

আপনার জন্য ও শুভ কামনা অনিঃশেষ।

৮| ২৩ শে মে, ২০১৯ সকাল ১১:৫৬

আহমেদ জী এস বলেছেন: মনিরা সুলতানা,




ক্ষনকালের কিন্তু প্রাত্যহিক একটি দৃশ্যের রূপকে জীবনের খুব গোপন আর অধরা একটা ছবিই এঁকে গেলেন। ঠিক যেন --

দুই ভুবনের দুই বাসিন্দা
বন্ধু চিরকাল
রেললাইন বহে সমান্তরাল।

পিরিতেরই ঘর বানাইয়া
অন্তরের ভিতর
দুই দিগন্তে রইলাম দুইজন
সারাজীবন ভর।

হইলো না তো সুখের মিলন
হইলো না শুকসারির দর্শন
এমনই কপাল
রেললাইন বহে সমান্তরাল.................


গানটির মতোই কবিতায় দু'টি জীবন গাড়ীর দু'দিকে চলে যাওয়া, ক্ষনেক দেখা আর পথের দু'ধারে কষ্টের জংলীফুলের দৃশ্যপট অভিনব এবং উচ্চাঙ্গের।

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ১:৫৬

মনিরা সুলতানা বলেছেন: শ্রদ্ধেয় এবং ভীষণ প্রিয় একজন ব্লগারের কাছে অসম্ভব প্রিয় একটি গানের কিছু লাইন এর উদ্ধৃতি!! এ সবই লেখা লিখির আনন্দ হয়ে রয়ে যায় সব সময়। অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া লেখার একজন অসাধারণ পাঠক হবার জন্য।
আমার কবিতায় আপনাদের মন্তব্য সব সময় লেখার অলংকার।

৯| ২৩ শে মে, ২০১৯ দুপুর ১:০৩

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: কত সুন্দর করে ফুটিয়ে তুলেছেন বাছাইকুত শব্দ বাধাই করে,,ভাবতে অবাক লাগে।

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ১:৫৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: মেঘ বালক ;
আপনার ভাবনায় এবং প্রকাশে আমার ভালোলাগা রাখলাম।

১০| ২৩ শে মে, ২০১৯ দুপুর ১:২৩

আকতার আর হোসাইন বলেছেন: বাহ! সুন্দর শব্দচয়ন। সুন্দর কাব্য। বেশ ভালো লাগলো।

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:০০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে আকতার আর হোসাইন;
বেশ মার্জিত উচ্চারণে লেখার প্রশংসা করে গেলেন।

শুভ কামনা।

১১| ২৩ শে মে, ২০১৯ দুপুর ১:৪৬

রাজীব নুর বলেছেন: অত্যন্ত মনোমুগ্ধকর।

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:০০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে।

১২| ২৩ শে মে, ২০১৯ দুপুর ১:৫৬

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: আপু,

ছবিটা+ কবিতা = মিলেমিশে বিলকুল একাকার।++++
বরাবরের মতই মুগ্ধতা।

বিনম্র শ্রদ্ধা ও শুভকামনা জানবেন।

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:০৩

মনিরা সুলতানা বলেছেন: চৌধুরি ভাই !!
আপনার অত্তগুলি +++ আর মুগ্ধতার মিলমিশ আমাকে আনন্দিত করলো, এ সবই লেখায় উৎসাহ হয়ে রয়, জানেন তো।

আপনার জন্য ও অনেক অনেক শুভ কামনা।

১৩| ২৩ শে মে, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৫

জাহিদ অনিক বলেছেন: বাহ চমৎকার কবিতা

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:০৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: দারুণ মন্তব্যে হে গভীর চিন্তাবিদ কবি।

১৪| ২৩ শে মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৫

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: মুগ্ধ পাঠ :)

আর্কি আর জিএস ভায়ার দারুন মন্তব্যে ভাললাগা!
কবিরা রুপকে অনেক গহন কথা বলে যায়! অ-নে-ক কিছু...

কবিতার সার্থকতা বুঝি এই রুপকতাতেই!
কত কথা যাো বলে কোন কথা না বলে ;)

+++++

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:১২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ব্লগ লেখার আনন্দ ই হচ্ছে অসাধারণ কিছু মন্তব্য ;
হুম কবি' রা মনে হয় সরাসরি কথা ই বলতে পারে না, খুঁজে দেখেন কোন কবি তার প্রিয়জনকে কবে শুধু ভালোবাসি বলেছে ? সেখানে ও জিলাপি।
কথায় বলে না **** পানি খায় কিন্তু ঘোলা করে খায় :P

হুম হুম এই জন্যই কবি গুরু গেয়েছেন " অনেক কথা যাও যে বলে কোন কিছু না বলি -
তোমার ভাষা বোঝার আশা, দিয়েছি জলাঞ্জলি ;)

১৫| ২৩ শে মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সুন্দর! সুন্দর !!

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:১২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ এবং ধন্যবাদ জনাব :)

১৬| ২৩ শে মে, ২০১৯ রাত ১০:০২

নীল আকাশ বলেছেন: যাক ফিরে এসেছেন তাহলে!
অনেক দিন পরে আপনার কবিতার মন্তব্য পড়ে মনে বড় শান্তি পেলাম।
শুধু আমি না ব্লগে অনেকেরই তাহলে ডিকশনারী লাগে?
কবিতাটা কি আগে কোথাও পড়েছি?
ধন্যবাদ এবং শুভ কামনা রইল!

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:১৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ফিরেছি, আনন্দ নিয়েই ফিরেছি ব্লগে ; তবে লেখায় কবে ফিরবো বুঝতে পারছি না :(
হ্যাঁ কবিতা 'র শেষে তারিখ দেখলেই বুঝবেন এ বেশ আগের লেখা, ফেসবুকে প্রকাশিত। সেখানেই আপনি পড়েছেন।

অনেক অনেক ধন্যবাদ পাঠে এবং মন্তব্যের জন্য।

১৭| ২৩ শে মে, ২০১৯ রাত ১১:৩৬

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: অপেক্ষামান নাকি অপেক্ষমাণ বা অপেক্ষমান শব্দটা?

ছেঁড়া হবে, জংশন হবে।

একে একে বা এঁকেবেকে নাকি? এক্ষেত্রে একে একে আলাদা করে লিখলে সুন্দর দেখায় !

চেয়েথাকা কথাটা যে একসাথে মিশে গেছে !

আরেকবার পড়তেই এগুলো চোখে পড়লো। তাই ব্যস্ততার মাঝেও কমেন্টটা করলাম।

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:২৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: শব্দটা অপেক্ষমাণ - বারবার পড়ে ও এসব কাটিয়ে উঠে যাচ্ছে না :(
ধন্যবাদ সহ কৃতজ্ঞতা।
একে একে ই মনে উচ্চারণ করেছি কিন্তু শেষতক কীবোর্ড একেএকে !! চেয়ে থাকা ও ঠিক করে দিলাম।
ব্যস্ততার মাঝে ও অসাধারণ একজন পাঠক হয়ে থাকার জন্য আমার আন্তরিক ধন্যবাদ অবশ্যই আপনার প্রাপ্য।

শুভ কামনা।


১৮| ২৩ শে মে, ২০১৯ রাত ১১:৩৮

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: কবিতার নামটা ইটালিক ভাবে লিখেছেন যেন এঁকেবেঁকে চলা ট্রেনের মতোই রপকধর্মী কবিতা !

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:৩০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আমার শুভ কামনা আপনার আন্তরিকতাটুকু তে।

১৯| ২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ১:৪০

পাজী-পোলা বলেছেন: সুন্দর কবিতা, ছবিগুলাও অনেক সুন্দর

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:৩২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: লেখায় স্বাগত পাজী - পোলা;
প্রশংসার জন্য ধন্যবাদ ! আশা করছি নিয়মিত সাথে থাকবেন।

২০| ২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:০৫

ইব্‌রাহীম আই কে বলেছেন: কবিতা পড়ার জন্য মনে হয় রাতটাই পার্ফেক্ট। :|

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:৩৪

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বাহ ! তাহলে আর কি হয়ে যাক কিছু খুনসুটি ক্ষণ কবিতার সাথে।

২১| ২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:২৪

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: অপূর্ব কবিতাটি মন ছূঁয়ে গেছে। ভাল থাকবেন কবি।

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:৩৬

মনিরা সুলতানা বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ মাহমুদুর রহমান সুজন !
মন ছোঁয়া মন্তব্যে ভালোলাগা।

২২| ২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:২৯

ওমেরা বলেছেন: কবিতার সাথে ছবিতা এক্কেবারে পারফেক্ট ! ধন্যবাদ আপুনি।

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:৩৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: হ্যালো ওমেরা !!
বেশ অনেকদিন পর কবিতায় পেলাম, যেহেতু বেশ অনেকদিন পর লেখা পোষ্ট করেছি :) আশা করছি ভালো আছো ?
কবিতা আর ছবিতায় ভালোলাগা রাখার জন্য ধন্যবাদ।

অনেক অনেক শুভ কামনা।

২৩| ২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ২:৪৬

পথিক প্রত্যয় বলেছেন: কবিতা অসুন্দর নয়

২৪ শে মে, ২০১৯ দুপুর ১:৩৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: সাহিত্য অসুন্দর নয় কনকালেই।

২৪| ২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ৩:১৭

বলেছেন: কঠিন কবিতা নাহ মহা- কঠিন শব্দচয়নে একাহিক।।
পাখি ভায়া সারমর্ম বলে দিয়েছে সুন্দর মন্তব্যে।।


ভালো থাকুন কবি।

২৪ শে মে, ২০১৯ দুপুর ১:৩৯

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনাদের ভালোলাগা ই সব লেখা কে সার্থক করে।
আপনার জন্য ও শুভ কামনা।

২৫| ২৪ শে মে, ২০১৯ ভোর ৬:২৮

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:



দৈনন্দিন, বিণ, দিনের পর দিন , যা দৈনিক সম্পাদ্য তাই প্রতিদিবসীয় একাহিক, দিবাভাগে সম্পাদ্য
কিংবা এক দিনের সম্পাদ্যন , চন্দন খুরিতে যেন দেখজ অন্ত আকার ধারণ, রেলগাড়ী যমাযম কুউ উ উ ঝিক ঝিক রব চারিদার, কবিতায় কতই না অসাধারণ কথার বাহার । দিনে দিনে বরুণলোকে প্রকৃতি আর কল্পনার যোগাসন, যুগদেহ আছে যথায় উহাই জীবের দিবাবসানে কর্মফল, ভোগদেহ - স্তায়দর্শন , কবিতাতো দর্শনেরই সুতিকাগৃহ । ভাল লাগল কবিতার
কথামালা যাতে রয়েছে বিবিধ ভাবের প্রকরণ ।

শুভেচ্ছা রইল

২৪ শে মে, ২০১৯ দুপুর ১:৪৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আমার খুব সাধারণ লেখা কে চমৎকার শব্দমালায় গেঁথে আনার জন্য ধন্যবাদ আপনাকে!
একজন পাঠকের ভাবনাই লেখা কে বিবিধ ভাবের প্রকরণ করে তুলতে পারে ভিন্নতায়।

অনেক অনেক শুভ কামনা আপনার জন্য।

২৬| ২৪ শে মে, ২০১৯ সকাল ৯:১২

এ.এস বাশার বলেছেন: অসাধারন কবিতা আপু......

২৪ শে মে, ২০১৯ দুপুর ১:৫৯

মনিরা সুলতানা বলেছেন: এ এস বাশার !
আমার শুভেচ্ছা জানবেন, আপনার মন্তব্যে অনুপ্রেরণা আছে।

২৭| ২৪ শে মে, ২০১৯ বিকাল ৩:০৮

করুণাধারা বলেছেন: মনে হচ্ছে ট্রেনের জানালার পাশে বসে বাইরের নানা ছবি দেখছি! সুন্দর কবিতা। বাড়তি পাওনা নতুন একটা শব্দ জানা! আর ছবিটার কথা আর কি বলবো! দেখতে দেখতে শুধু ইচ্ছা করছিল, যদি এমন একটা ট্রেনে চেপে বসতে পারতাম...

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ১০:৩১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: এই ছবিটা জাপানের সাকুরা ফেস্টিভ্যালের সময়কার, জাপানে গেলেই পাবেন আপু ! আশা করছি দারুণ রোমাঞ্চকর এক ভ্রমণ হবে আপনার। অগ্রিম শুভ কামনা।
আমার তো সব দেশের ট্রেনে ই ঘুরতে ইচ্ছে করে, কত কত স্বপ্ন !!!
ধন্যবাদ আপু চমৎকার মন্তব্যে ভালোলাগা প্রকাশের জন্য।

২৮| ২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ৮:৪৯

সুমন কর বলেছেন: ট্রেনে চড়ি না অনেক বছর......!! কবিতা পড়ে আবার সেটা মনে পড়ল। অনেক সুন্দর হয়েছে। ব্লগের এই খরা দিনেও পাঠক'রা ভালো লেখা পেলে কিন্তু ঠিকই সাথে থাকে।
+।

২৪ শে মে, ২০১৯ রাত ১০:৫১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ঢাকায় আমার বাসা এয়ারপোর্ট ষ্টেশনের ঠিক পিছনে, আমার ব্যাল্কনি থেকে সব দেখা যায়। এবারে রাতের ট্রেনে যাবার প্ল্যান ছিল শেষে আর হয়ে উঠে নি। ট্রেনের স্টেশন ছাড়ার বাঁশি আমাকে বিষণ্ণ করে, ভালোলাগায় আপ্লুত করে।
কবিতায় আপনার প্রশংসা আমাকে সব সময় আনন্দ দেয় অনুপ্রাণিত করে।

আপনার জন্য সব সময় ভালো থাকার শুভ কামনা।

২৯| ৩১ শে মে, ২০১৯ সকাল ১০:৫৮

খায়রুল আহসান বলেছেন: চমৎকার শিরোনাম, চমৎকার ছবি, চমৎকার কবিতা!

কবিতা ছাড়াও, আপনার ২৮ নং প্রতিমন্তব্যটি ভাল লেগেছে, কারণ ও জায়গাটা আমার চেনা। আমার বড়ভাই এর বাসা ওখানে। আমি যেখানে থাকি, সেখানেও প্রতিদিন ট্রেন চলাচলের শব্দ শুনতে পাই।

আপনার লেখাটি পড়ে আমার ছেলেবেলার কথা মনে পড়ে গেল। আমার শৈশবের দেখা ট্রেন ইঞ্জিনের রঙ ছিল ঘন কালো, কালো ধোঁয়া আকাশে ছেড়ে ওগুলো ভোঁস ভোঁস করে চলা শুরু করতো। নীচ দিয়ে বের হতো সাদা গরম জলীয় বাষ্প। ওগুলো টেনে নিয়ে চলতো সবুজ রঙের বগিগুলোকে। কুউউউ ঝিক ঝিক করতে করতে ট্রেন গতি লাভ করতো, একসময় তীব্র বেগে ছুটে চলতো। আপনাদের বয়সীরা হয়তো ওগুলো চোখেও দেখেন নাই।

ইঞ্জিনগুলো কালো ধোঁয়ার সাথে কয়লার কুচি/গুঁড়োও বাতাসে ছড়িয়ে দিত। খুব লোভ হতো জানালা দিয়ে মাথা বের করে দেখতে, কিন্তু কয়লার গুঁড়োর জন্য আম্মা বারণ করতেন। তবুও তাঁর চোখ ফাঁকি দিয়ে মাথা বের করে দিতাম, কয়লার গুঁড়ো চোখে পড়লে চোখ রগড়াতে রগড়াতে লাল করে ফেলতাম, আর কড়া বকুনি খেতাম।

একটি স্মৃতি জাগানিয়া কবিতা কিভাবে আমাকে ফিরিয়ে নিয়ে গেল শৈশবে! ছোটবেলা থেকেই ট্রেন আমার খুব পছন্দের একটি বিষয়। এজন্যে আমারও বহু কবিতায় এবং কথিকায় ট্রেন, রেলওয়ে জাংশন, স্টেশনের চা ওয়ালাদের কথা ঘুরে ফিরে উঠে এসেছে।

কবিতায় প্লাস + +

৩১ শে মে, ২০১৯ বিকাল ৫:৪২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনার চমৎকার ত্রয়ী আমাকে চমৎকৃত করলো !!!

আচ্ছা তাহলে তো আপনার নিশ্চয়ই সেখানে যাতায়াত আছে, আমার অবশ্য নতুন নিবাস এটা। এয়ারপোর্ট থেকে কাছে এবং সামনে সরকারি খোলা কিছু এলাকার কারনে বছর খানেক থেকে এখানেই উঠছি।

আপনার ছেলেবেলার সাথে ট্রেনের গল্প আমরা ব্লগার মাত্রই অল্প বিস্তর জানি, আপনার এমন সব নস্টালজিক লেখাগুলো ভীষণ আগ্রহ আর আনন্দ নিয়ে পড়ি সব সময়।
আমার শৈশবের সাথে স্মৃতি কাতরতায় কোন ট্রেন নেই - আছে অবাধ জলরাশি, ইস্টিমার লঞ্চের বাঁশি সাইরেন, সদর ঘাটের কোলাহল আর পুরানো ঢাকার রিকশা র গল্প। আমার জীবনে আমি প্রথম ট্রেনে জার্নি করেছি আমার বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে ঢাকা টুঁ নারায়ণ গঞ্জ তাও আঙুলে গুনে দুই তিন।
তাই আপনার শৈশবের গল্পে ট্রেনের ধোঁয়া ইঞ্জিনের কু উ উ ঝিকঝিক, ট্রেনের গতিময়তা সব কিছু ই আমার গল্পের মত সুন্দর লাগে। সেই যে শৈশবে বিভিন্ন গল্পে যেমন মামা বাড়ির ছুটির সাথে চলে আসে ট্রেন !! তেমন আনন্দ ততোটাই আবেশ থাকে পাঠে।
প্লাসে কৃতজ্ঞতা অপূর্ব মন ছোঁয়া মন্তব্যে ভালোলাগা।

৩০| ৩১ শে মে, ২০১৯ সকাল ১১:০৭

খায়রুল আহসান বলেছেন: ট্রেন নিয়ে অনেক কিছু লিখে ফেললাম, কিন্তু জানি, ট্রেন আপনার কবিতার মূল উপজীব্য নয়। দুটি বিপরীতমুখী ট্রেন শুধু একবারই এক ঝলকে একে অপরকে অতিক্রম করে। ঐ একটি ঝলকের জন্যই যেন "দৃষ্টির তারায় ফোটে হিমঝুরি ফুল" - বাহ, কি চমৎকার একটি ভাবনা!!!!
জুন, আর্কিওপটেরিক্স (৬ নং) এবং আহমেদ জী এস এর মন্তব্যগুলো ভাল লেগেছে।

৩১ শে মে, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৬

মনিরা সুলতানা বলেছেন: কী দারুণ ভাবেই না আপনি আমার কবিতার অন্তর টুকু তুলে আনলেন এবং ভাবনার প্রশংসা রেখে গেলেন চমৎকার মন্তব্যে !!!
জুন আপু জী এস ভাই তো সব সময়ে ই দারুণ মন্তব্যে, হুম মাঝে মাঝে মজার ছলে হলে ও আর্কিওপটেরিক্স এর মন্তব্যে বোঝা যায় যে সে নিঃসন্দেহে বোদ্ধা পাঠক।

অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া অসাধারণ কথামালায় কবিতা র মন্তব্য অংশ ঋদ্ধ করার জন্য।

৩১| ৩১ শে মে, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৭

রাকু হাসান বলেছেন:

মনি আপু কেমন আছ ? আমি নাকি কবিতা লিখে তোমার ভাত মেরে দিচ্ছি :( --মন্তব্য পদাতিক ভাইয়া ।
পড়েই দেখ তো Click This Link
তোমার কবিতার মন্তব্য নিয়ে আসছি ।

৩১ শে মে, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আজকাল বেশ আছি, ব্লগ বেশ জমছে। আশা করছি তুমি ও ভালো ছিলে ?
হাহাহাহাহা কবিতা পড়ে মন্তব্য করে এসছি :)

অনেক অনেক শুভ কামনা।

৩২| ০১ লা জুন, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৯

রাকু হাসান বলেছেন:

জ্ঞানী ব্লগাররা খুব ভালো মন্তব্য করে গেছেন দেখলাম । ভালো লেগেছে। বিশেষ করে ...আর্কিওপটেরিক্স,আহমেদ জী এস,খায়রুল হাসান স্যার প্রমুখ।--কবিতাটি পড়তে আমার সেই শৈশবের ট্রনে চলেছে ছড়ার কথা মনে পড়লো। "দৃষ্টির তারায় ফোটে হিমঝুরি ফুল" --লাইনটি আমারও হৃদয় ছোঁয়েছে। শেষ ও দ্বিতীয় স্তবকে বাড়তে ভালো লাগা। পুরো কবিতা কত নাম্বার পেতে চাও ;) , ৮/১০ । না,ছাত্রী ভালো তবে মাস্টার মশায় কিপ্টে যে তাই একটু কম । :D খারাপ এ + মাক । :P

হুম ভালো আছি সব মিলিয়ে । তুমওি ভালো ছিলে জেনে ভালো লাগছে । সবাই ভালো থাকুন সব সময় সেই কামনিা করছি ।

০২ রা জুন, ২০১৯ রাত ১:০৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: হাহাহাহাহা
যা দিয়েছে তাতেই মি আনন্দিত !!!
থ্যাংকু থ্যাংকু :)

৩৩| ০৩ রা জুন, ২০১৯ রাত ১:১৭

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: একাহিক ধারাবাহিক হোক
দৈনিক একটি করে কবিতা দেখতে চাই :)

ঈদের অগ্রীম শুভেচ্ছা রইল

০৪ ঠা জুন, ২০১৯ সকাল ৯:৫৪

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আহা যদি রোজ পারতাম লিখতে !!! আপনাদের শুভ কামনা সাথে রাখলাম।
ঈদ মোবারাক ভাইয়া :)

৩৪| ০৫ ই জুন, ২০১৯ রাত ২:২৩

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:

১১ ই জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:৫০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া আপনার শুভ কামনায় আমাকে রাখার জন্য !!
ঈদ শেষ হয়ে যাওয়া ঈদ মোবারাক ভাইয়া :)

৩৫| ০৫ ই জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:৩৭

আরোগ্য বলেছেন:

১১ ই জুন, ২০১৯ দুপুর ১২:৫১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আরেয়ে বাহ !! ঈদ উপলক্ষে তাহলে ঈদের চাঁদ মানে আরোগ্যের দেখা পাওয়া গেলো !
ধন্যবাদ ভ্রাতা !
ফুরিয়ে যাওয়া ঈদের শুভেচ্ছা।

৩৬| ১১ ই জুন, ২০১৯ বিকাল ৩:২৮

নজসু বলেছেন:



খুব ভালো লাগে আপনার শব্দ বুনন।

১২ ই জুন, ২০১৯ রাত ৮:৫১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনার ভালোলাগায় লেখার আনন্দ :)

৩৭| ০৪ ঠা জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:৪৬

পুলক ঢালী বলেছেন: ছবিটা দেখে মুগ্ধ হলাম। একাহিক এর মানে তো অনেক বড় গুনবাচক হওয়ায় এক কথায় বোঝানো যায় না।
জনাবা শব্দের এনসাক্লোপিডিয়া :D আপনার ব্লগে এলে নিশ্চয়ই এমন ব্যতিক্রমী শব্দ সম্ভারের সন্ধান পাবো।
দিনে একবার দেখা হয় তারপর দুজন দুই বিছানা আকড়ে নিশি যাপন করে ? আহ্ কিইই যন্ত্রনা!!
কবিতাটি ভাল লেগেছে।

অঃটঃ দুঃখীত এই লিঙ্কে আপনার মন্তব্যটি চোখে না পড়ার জন্য :)

Click This Link target='_blank' >view this link

ভাল থাকুন।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ১:২৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আহা ! বহুদিন পর ব্লগে লগ ইন করে এমন মন্তব্য পেয়ে একদম ফ্লায়িং হাই !!!!
হুম আপনাকে ও পেলাম অনেক দিন পর। ধন্যবাদ জনাব।

মন্তব্যের উত্তর পড়ে এসছি, আবার ও ধন্যবাদ :)

আপনি ও অনেক অনেক আনন্দে থাকুন, আমাদের সাথেই থাকুন।

৩৮| ০৪ ঠা জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:৪৮

পুলক ঢালী বলেছেন: view this link

লিঙ্ক আসছেনা আবারও চেষ্টা করলাম।

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ১:৩০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: এবারে এসছে, দেখে এসছি মন্তব্য উত্তর !
ধন্যবাদ জনাব।

৩৯| ০৮ ই জুলাই, ২০১৯ রাত ১:০০

রাকু হাসান বলেছেন:
মনি আপু কিছু একটা দাও পড়ি :(

১৮ ই জুলাই, ২০১৯ দুপুর ১:৩৫

মনিরা সুলতানা বলেছেন: দেশে ফেরার পর থেকে তো ব্লগে ই আসতে পারি না :(
আজ ভিপিএন দিয়ে চরম স্লো ভাবে লগ ইন করলাম, লেখা কিছু জমেছে। দিয়ে দিবো।

আশা করছি ভালো আছো ?

৪০| ২০ শে জুলাই, ২০১৯ ভোর ৬:১৩

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: কেমন আছেন । দেখতে এসেছিলাম নতুন কিছু আছে কিনা ।
জমানো লেখা হতেই না হয় দু একটা দিয়ে দিন । এখন ভাল কবিতা পাঠের আকাল চলছে । ইদানিং সামুতে যে সমস্ত কবিতা দেখতে পাচ্ছি তার অনেকগুলিকেই মনে হয় ফরমায়েসি কবিতা , সেগুলি বিশেষ কিছু দিককেই কেবল ঈঙ্গিত করছে । মনে হয় কেও যেন কবিতা লিখিয়ে নিচ্ছে । কবিতাকে গনমুখী করতে গিয়ে সেগুলি নীজের গতিপত হারাচ্ছে । ধান শিড়ি নদী না হয়ে দেখা যায়, বিবিধ পন্থায় কি জানি একটা অপ্রকাশিত লক্ষ্য খুঁজছে । কবিতার সুকুমার ও সার্বজনিনতা ক্ষিয় থেকে ক্ষিয়মান হচ্ছে, তাই কবিতা কবিতা হয়ে আমাদের সামনে আসুক এ আশাতেই রইলাম ।
শুভেচ্ছা রইল

২১ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:২৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আনন্দিত ডঃ এম এ আলী ভাই ! অনুপস্থিতিতে খোঁজ নেয়ার আন্তরিকতাটুকু ছুঁয়ে গেলো :)
আসলে দুবাইয়ের পার্ট চুকিয়ে সব গুছিয়ে ফেরা ছিল এবারে, তাই বেশ ব্যস্ততায় যাচ্ছে সময়গুলো। তারসাথে যোগ হয়েছে দেশে ব্লগ এ লগ ইন সমস্যা। সব মিলিয়ে লেখাটেখা শিকেয়।
আশা করছি ফিরে এসে দারুণ ভাবে আনন্দময় ব্লগিং সময় ফিরে পাবো।

শুভ কামনা ভাইয়া।

৪১| ২১ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:৪৩

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: ধন্যবাদ হাল হকিকত জানানোর জন্য । ঠিক আছে সেটেল করার জন্য সময় নিন ।
সবগুছিয়ে ঘাট হতে ঘাটে তরী বয়ে নিয়ে যাওয়া বেশ কষ্টকর কাজ , এ কাজে
যাদের অভিজ্ঞতা নেই তারা বুঝতে পারবেনা এটা যে কতবড় মুছিবতের কাজ,
মালপত্র গুছিয়ে নিয়ে যাওয়ার চাইতে অনেক সাধের প্রিয় বহু কিছু ছেড়ে
যাওয়ার বিষাদঘন স্মৃতি মনে জেগে থাকে দীর্ঘদিন । যাহোক, কামনা করি
অচিরেই শুরু হোক আপনার আনন্দময় ব্লগিং ।
শুভেচ্ছা রইল

২১ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:৫৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: মালপত্র গুছিয়ে নিয়ে যাওয়ার চাইতে অনেক সাধের প্রিয় বহু কিছু ছেড়ে
যাওয়ার বিষাদঘন স্মৃতি মনে জেগে থাকে দীর্ঘদিন ।

একদম সত্যি বলেছেন, প্রিয় চা' য়ের কাপ টার ও কিছু স্মৃতি থাকে।

আপনার জন্য ও শুভ কামনা।

৪২| ২১ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:১২

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন:
কবিতার স্নিগ্ধ শব্দগুলো টেনে টেনে নিচ্ছিল একেবারে শেষ পর্যন্ত, ঠিক ট্রেনের মত বলা যায়। তবে কঠিন শব্দে এক্সিডেন্ট করতে পারতাম, করিনি =p~ । আচ্ছা, কবিতাকে মুগ্ধকর এমন বাঙলা শব্দ দিয়ে সাজিয়ে প্রকাশ করেও বিদেশি ট্রেন দেখাইলা কেরে? ;)


২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বাহ বাহ সৈয়দ সাহেব তো দেখছি ঝানু রিডার ;) এক্সিডেন্ট ছাড়াই রডিং কমপ্লিট !!!
শব্দ গুলি মন মুগ্ধকর বলেই দেশি ট্রেন চান্স পায়নাই :P

৪৩| ২৪ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১২:২৪

রাকু হাসান বলেছেন:

হুম আমি ভালো আছি । নিয়মিত হবার চেষ্টা করছি । নতুন কবিতা পোস্ট হোক ।

২৯ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৯

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বাহ ! নিয়মিত হবার চেষ্টায় ভালোলাগা।
আচ্ছা আচ্ছা মন চাইলে দিয়াদিবানি।

৪৪| ০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:৫৭

শোভন শামস বলেছেন: চমৎকার কবিতা। শ্রদ্ধা ও শুভকামনা

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.