নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

চলে গেলে- তবু কিছু থাকবে আমার : আমি রেখে যাবোআমার একলা ছায়া, হারানো চিবুক, চোখ, আমার নিয়তি

মনিরা সুলতানা

সামু র বয় বৃদ্ধার ব্লগ

মনিরা সুলতানা › বিস্তারিত পোস্টঃ

পাঠের আলোচনায় ব্লগারদের বই!

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:২৬

আমার আত্মজরা আমার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের মাঝে যে বৈশিষ্ট্য নিয়ে মাঝেমাঝে হতাশা প্রকাশ করে! সেটা হচ্ছে আমার খুব অল্পে তুষ্ট হয়ে যাওয়া ( আলাদা ভাবে উল্লেখ করেছে অবশ্যই তাদের একডেমিক রেজাল্ট বাদ দিয়ে) বা সবকিছুতে পজিটিভ দিক খুঁজে নেয়া। অমন একটা প্রফেশনাল ক্যারিয়ার ছেড়ে বাচ্চাকাচ্চা বাক্স পেটরা বগলদাবা করে শহরে শহরে বোর্ডিং পাস ফেলা। এমন কি লেখালিখি সংসারের পরের সিরিয়ালে ফেলে রাখা। এমন অনেক কিছুই।


সে যাক দেশে থিতু হবার পর থেকে বিশেষ করে করোনা পরবর্তী সময়ে আমাকে প্রায় প্রতি সপ্তাহে ট্রাভেল করতে হয়। সামু' র মোবাইল নেটওয়ার্ক না থাকার সুবাদে আমি আজ লিখতে বসে এই সবকিছুতে পজিটিভ বা ​​​​হ্যাঁ বাচক, ধনাত্মক, ইতিবাচক, আশাব্যঞ্জক, খুঁজে নেয়ার মাঝে পজিটিভ দিকই খুঁজে পেলাম। এবং ফলাফল আজকের এই পাঠ প্রতিক্রিয়া!!!
ব্লগে লগইন করতে পারলে তো বেশিরভাগ সময় ব্লগিং করেই সময় কেটে যায়। এই ব্লগ বিছিন্ন অবসরটুকু নিয়ে নিয়েছে বই। বেশ একটা অন্য রকম আবেশ আছে ছাপার অক্ষরের, সেটুকু আমাদের বই পড়া জেনারশনের কাছে ভীষণ উপভোগ্য।


আজকে আমার পড়া যে বই নিয়ে লিখতে বসেছি - আমাদের ব্লগের একজন পরিচিত অনেকের প্রিয়মুখ, নিজের পেশাগত জীবন ও আন্তর্জাতিক কর্মক্ষেত্র দারুনভাবে সফল। নিঃসন্দেহে একজন দেশীয় আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্ব। ব্লগার মলাসিলমুইনা' র ২০০২ এর বই মেলায় প্রকাশিত বই অস্টধা নিয়ে।

বই : অষ্টধা
প্রকাশক - জাগৃতি প্রকাশনী,
প্রথম প্রকাশ- অমর একুশে বইমেলা ২০২২
পৃষ্ঠা -১৪৮,
মূল্য : ৪০০ টাকা
প্রাপ্তিস্থানঃ অমর একুশে বইমেলা
অনলাইন পরিবেশক -রকমারি


অস্টধা একটি সিরিয়াস বই আমাদের চলমান সমাজের অসংগতি সমাজের অনিয়ম যা বর্তমানে নিয়মে পরিণত হয়েছে। সেসব নিয়মের বাইরের কিছু গল্প আর গল্পগুলো লেখা হয়েছে চলমান যেসকল ঘটনাবলি নিয়ে প্রবন্ধ লেখা হয়েছে সেই প্রবন্ধের আঙ্গিকে। সে জন্যে লেখক গল্প গুলোকে গল্প না বলে বলেছেন প্রগল্প ( প্রবন্ধ থেকে গল্প )। বই খানির প্রবন্ধ এবং প্রগল্পের বিষয়গুলো ভাবগম্ভির হলে ও লেখক চমৎকার মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন লেখায় স্টাইলে, প্রগল্প গুলোতে এসেছে পাঁচমিশালি গল্পের ফ্লেভার।


২৭সে ফেব্রুয়ারি দৈনিক "কালের কণ্ঠে" মোহাম্মদ আসাদের "বেড়েছে সিরিয়াস বইয়ের পাঠক " শিরোনামে লেখায় যেভাবে তুলে এনেছেন মোহাম্মদ আসাদ সেটুকু নিঃসন্দেহে আমার এই পাঠ প্রতিক্রিয়া লেখনীর চাইতে অনেক ফোকাসড। অস্টধা বই নিয়ে মোহাম্মদ আসাদ লিখেছেনঃ

"অষ্টধা: খন্দকার নাইমুল ইসলামের গ্রন্থ ‘অষ্টধা’ মেলায় এনেছে জাগৃতি প্রকাশনী। অভিনব এই গ্রন্থটিতে লেখক সমসাময়িক বিষয় নিয়ে শুরুতে আটটি প্রবন্ধ লিখেছেন। ওই প্রবন্ধগুলোর ঘটনাপ্রবাহ নিয়ে পরে লিখেছেন আটটি গল্প, যাকে লেখক বলছেন প্রগল্প। সূচিবিন্যাসে প্রতিটি প্রবন্ধের পর স্থান পেয়েছে পৃথক গল্প।"

বই আলোচনায় নিজের বই নিয়ে পোষ্টে লেখক বলেছেন-

নিজের একাডেমিক ব্যাকগ্রাউন্ডের জন্যই এখন দেশের অর্থ সামাজিক ও রাজনৈতিক উন্নয়নের ইস্যু-গুলো নিয়ে অনেক ভাবনাই মাথায় থাকে।একটু যে লেখাজোখা করি তাতে না চাইলেও তার ছোয়া লেগেই যায়।এই বইয়ের প্রবন্ধ আর গল্পও অনেকটা সে রকম।


প্রবন্ধ এবং প্রগল্পের আলোচনায় যাবার আগে একটা প্রচলিত গল্প দিয়ে শুরু করি। জানি না আদৌও বই আলোচনা শুরু করবো ? নাকি উনপঞ্চাশ বাই এর চক্করে থাকবঃ

এক মা তার সন্তান কে ঔষধ খাওয়াতে হিমশিম অবস্থা। কিছুতেই বাচ্চা ঔষধ খাবে না, এদিকে সেই বাচ্চার আবার মিষ্টি খুব পছন্দের। বিশেষ করে রসগোল্লা! তো মা শিশুটিকে চমৎকার একটা সাদা গোল রসে টুইটুম্ববুর রসগোল্লার মাঝে ট্যাবলেট রেখে সেটা শিশুকে খেতে দিলেন। ভাবলেন মিষ্টির সাথে না বুঝে শিশু খেয়ে নেবে। তো খাওয়া শেষ হবার পর, মা জিজ্ঞেস করলেন।

- বাবু রসগোল্লা খেয়েছ ? কেমন ছিল মজার ? শিশুটি উত্তর করলো।
- হ্যাঁ অনেক মজার ছিল খেয়েছি,কিন্তু খাবার সময় রসগোল্লার আঁটি টা ফেলে দিছি।


জি হ্যাঁ আমার মত স্মার্ট শিশুরা সিরিয়াস প্রবন্ধের আঁটি ফেলে রসে ডোবানো রসগোল্লাই খাবে সবাই জানেন! আমি ও ঠিক সেটাই করেছি। যেহেতু প্রবন্ধ গুলো আগেই সামু ব্লগে লিখিত এবং প্রকাশিত, আর আটটা প্রগল্পের দুটো: 'ড্রইংরুম' আর 'বিশেষ অতিথি' ব্লগে লেখা। এবং প্রগল্পের একটা ‘আকাশ গঙ্গার তারা’র গল্প( গত বছরের প্রকাশিত বই )। সুতরাং আশা করছি ব্লগার রা অনেকেই প্রবন্ধ ও প্রগল্প সম্পর্কে ধারনা রাখেন। বাকি পাঁচটা প্রগল্প নিয়ে ই কিছু ধারনা দেবার চেষ্টা করছি।

প্রেতাত্মাঃ
এই গল্পটির কাহিনী এগিয়েছে একজন মফস্বলের কলেজ শিক্ষকের একটু খুনের প্রত্যক্ষদর্শী হবার পরের ঘটনা প্রবাহ নিয়ে। চমৎকার প্রাকৃতিক পরিবেশের বর্ণনা সহ উঠে এসছে বর্তমান সময়ের ছাত্র রাজনীতির কালো ছায়া।


ঈস্বরের খোঁজেঃ
নিত্যকার জীবনে আমাদের প্রতিনিয়ত চেষ্টা থাকে নিজেকে শুদ্ধ করার। ভুল ক্রুটি নিয়ে জন্মানো মানুষ আমরা আমাদের পারফেকশন এর প্রশংসা শুনতে সবাই ভালোবাসি। নিজেদের চারপাশে কেউকেউ কাল্পনিক বলয়ে চাটার দলের চামচামি আর প্রশংসা শুনে নিজেকে কেউ গড়ি ফেরাউন কেউ বা সাদ্দাদ। বিজ্ঞান কল্প গাঁথায় একজন নোয়া নিজেকে ভুল ত্রুটি র ঊর্ধ্বে উঠা একজন হতে পারার সুযোগ পেয়ে ও কেবল মানুষ হতে চেয়েছেন। যারা সায়েন্সফিকশন পছন্দ করেন তাদের জন্যে তো বটেই, গল্প শুনতে চাওয়া আমাদের ও গল্পের নোয়া নিয়ে যাবে আশ্চর্য একজন মানবিক মানুষের হাসি কান্নার পৃথিবীতে।


প্রমিত দূরত্বে একজন নিঃসঙ্গ মৃত্যুর গল্পঃ
করোনা কালীন পরিচিত সময়ের উপর লেখা। এত গল্প নয় ভীষণ চেনা সংবাদ পত্রের শিরোনাম হয়ে উঠা খবর। লাশের বাণিজ্য লাশের রাজনৈতিক ফায়দা লুটার ছক।


শোকবার্তাঃ
বর্তমান বাংলাদেশের সার্বিক নির্বাচন এই প্রগল্পের বিষয় বস্তু। রাতের নির্বাচন, ভোট সকালে শুরু হবার আগেই শেষ হবার নির্বাচন। মৃত আত্মীয় স্বজন পরিজনের ভোট দেবার নির্বাচন ! ১০০% ভোটারের মাঝে ১০৫% ভোট পেয়ে জেতার নির্বাচন ! খুব চেনাশোনা কাহিনী কিন্তু লেখকের লেখার ক্যানভাসে আসবার পর উপস্থাপন গল্পের গাঁথুনির গুনে তা আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে।


প্রগল্পের এই ধারনাটুকু একেবারেই নতুন বলে মনে হয়েছে আমার কাছে। এই বৈশ্বিক হাতের মুঠোয় তথ্য প্রবাহের যুগে, সাহিত্যের যে কোন ধারার পাঠক পাওয়া খুব কষ্টসাধ্য। নতুন একটি ধারা যদি পাঠকে কাছে টানে, পাঠে আগ্রহ বাড়ায় সেতো আনন্দের। আর এই সিরিয়াস সমাজ পরিবর্তনের চিন্তাটুকু নবীন পাঠকদের মাঝে চিন্তার খোরাক হয় তাহলেই না লেখালিখির সার্থকতা !!!


সাহিত্যকে জীবনের নতুন দিক দর্শন ধরে নিয়ে অষ্টধা নিয়ে লেখকের বাংলা সাহিত্যের প্রগল্প লেখার নতুন দিক দর্শনের সূচনা করতে চাওয়ার যে আন্তরিক চেষ্টা টুকু সেটুকু দারুণ ভাবে সফল হোক।



ছবি কৃতজ্ঞতাঃ ব্লগার মলাসইলমুইনা

অস্টধা বই নিয়ে লেখকের লেখার লিঙ্কঃ
আটটি প্রবন্ধ,আটটি প্রগল্প নিয়ে ২০২২ একুশে বইমেলায় আমার 'নতুন কিছু করো' প্রচেষ্টার বই ‘অষ্টধা’র গল্প

অমর একুশে বইমেলায় আমার 'সিরিয়াস' বই ‘অষ্টধা’ আর ‘তাই দিয়ে --- রচি মম ফাল্গুনী’ ফটো ব্লগ

মন্তব্য ৩৮ টি রেটিং +১৪/-০

মন্তব্য (৩৮) মন্তব্য লিখুন

১| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৩৫

ভার্চুয়াল তাসনিম বলেছেন: +++

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:১৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ তাসনিম !
আশা করছি ভালো আছেন! বই না হলে ও আশা করছি পোষ্ট পড়েছেন উনার।

শুভেচ্ছা।

২| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:১১

কামাল৮০ বলেছেন: আমার একজন প্রিয় আলোচক।আমি লাইভে তার আলোচনা শুনি।ভালোলাগে তার যুক্তিদিয়ে আলোচনা করা।

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:২১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আচ্ছা !!!!
এই লাইভ ব্যাপারটা জানা ছিলো না তো ?
নিঃসন্দেহে উনি একজন প্রাজ্ঞজন যৌক্তিক আলোচনাি আশা করি ভাইয়ার কাছে।
আপনি কি আমাকে কোন লাইভের লিঙ্ক শেয়ার করতে পারেন ?
আমার জানার পরিধি বই এর লেখক পরিচিতি অংশ , আপনি লাইভের লিঙ্ক শেয়ার করলে কৃতজ্ঞ থাকব।

শুভ কামনা।

৩| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:৩৯

নিবর্হণ নির্ঘোষ বলেছেন: বাহ্ বেশ ভালো হয়েছে তো আপনার পাঠ প্রতিক্রিয়া ‍!

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৮:০০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: লেখায় স্বাগত !
আপনাকে আজ প্রথম পেলাম আমার লেখায়, তাই তো ?
বেশ আলাদা আপনার ব্লগ নাম !!!
কোন অর্থ আছে কি ?

ধন্যবাদ লেখায় ভালোলাগা প্রকাশের জন্যে! আপনার ব্লগ জীবন হোক আনন্দময়।

৪| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৮:১২

নিবর্হণ নির্ঘোষ বলেছেন: হ্যাঁ এই প্রথম । নিবর্হণ = ধংস ; নির্ঘোষ = আওয়াজ । এই নামের পেছনে আসলে কোন উদ্দেশ্য নেই ভালো লাগে বলেই এই নাম !

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৯:২০

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বাহ ! বেশ তো।
কিছু মনে করবেন না আমার নতুন শব্দে আসক্তি আছে, সেই ভাবনা থেকেই জানতে চেয়েছি।
ধন্যবাদ ফিরতি মন্তব্যের উত্তর দিতে আসার জন্যে।

৫| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৮:২৬

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: 'প্রগল্প' শব্দটা হয়তো একদিন বাংলা ভাষায় স্থান করে নেবে। ব্লগার এবং লেখক খন্দকার নাইমুল ইসলাম সম্পর্কে কিছু ধারণা ব্লগ থেকেই পেয়েছি। উনি একজন ভালো লেখক নিঃসন্দেহে। ওনার পোস্টগুলিও অনেক উন্নত মানের। কয়েকটা পড়েছি আগে।

বাচ্চার আটি ফেলে দিয়ে মিষ্টি খাওয়ার গল্পটা ভালো লাগলো।

'অষ্টধা' নামটাও ভালো লেগেছে। বইয়ের নামকরণটা একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার।

ব্লগারদের বই নিয়ে আপনার পাঠের আলোচনা পড়ার পর বইটা পড়ার আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। সুযোগ পেলে বইটা পড়ার ইচ্ছা আছে। অনেক ধন্যবাদ সুন্দর এই পোস্টের জন্য।

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৯:২৮

মনিরা সুলতানা বলেছেন: লেখক নিজেও আশাবাদী বাংলা সাহিত্যে এমন একটি ধারা হয়ত বা ভাষায় স্থান করে নিবে। আপনার ব্লগার লেখক খন্দকার নাইমুল ইসলাম সম্পর্কে ধারনা টুকু আমার কাছে সঠিক বলেই মনে হয়। ভীষণ ভাবে নিজের কাজে ফোকাসড ! চিন্তার বহুমুখিতা আমাকে মুগ্ধ করে। ব্লগে যে কয়েকটা আছে পড়ে দেখতে পারেন, ভালো লাগবে আশা করছি।

হ্যাঁ আপনার সাথে দ্বিমতের একেবারেই সুযোগ নেই এই নামকরণের ব্যাপারাটায়। সত্যি সত্যি নামকরণ আমার কাছে গুরুত্ব রাখে।

হাহাহা এত খুব প্রচলিত একটা জোকস ফেসবুকে প্রায়ই ঘুরে বেড়ায়।

আপনাকে ও ধন্যবাদ পাঠে এবং বিস্তারিত মন্তব্যের জন্যে।

শুভেচ্ছা।

৬| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৯:১৭

কামাল৮০ বলেছেন: আমি শুধু কমেন্ট করা ছাড়া আর কিছুই করতে পারি না।আর পারি লাইক দিতে।

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৯:৩১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ ভাইয়া অসুবিধা নেই আমি ইন্টারনেটে খুঁজে নিবো।
আপনি ভালো থাকুন। শুভঁ কামনা।

৭| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৯:৩৮

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: অভিনন্দর ও শুভকামনা রইলো।

১৪৮ পৃষ্ঠা মানে হচ্ছে ৭৪ পাতার বইয়ের মূল্য ৪০০ টাকা! দামটা মনেহয় একটু বেশী হয়ে গেছে।

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৯:৪২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ ভাইয়া !
বই মেলার দাম ছিল এটা। রকমারির লিঙ্কে দেখলাম কমিয়ে রাখা হয়েছে।

৮| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৯:৪৯

জুল ভার্ন বলেছেন: ব্লগার মলাসিলমুইনার লেখার সাথে পরিচিত। তিনি একজন চিন্তাশীল বিচক্ষণ লেখক। তবে ওনার আলোচ্যে অস্টধা বইটি পড়ার সুযোগ হয়নি। মরুভূমির জলদস্যুর সাথে একমত পোষণ করে বলবো- সত্যিই বইটির দাম ৪০০ টাকা অত্যন্ত বেশী!


চমৎকার রিভিউ লিখেছেন। +

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৯:৫৯

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ জুল ভার্ন ভাই পোষ্ট পাঠে এবং মন্তব্য করার জন্য!
এই বইটির বেশ কয়েকটা লেখা ব্লগে আছে, যেহেতু লেখকের লেখার সাথে আনার পরিচয় আছে আশা করছি পড়েছেন। তবে বেশ কয়েকটি নতুন আঙ্গিকে লেখা প্রগল্প আছে । বই সংগ্রহ করে পড়ে দেখতে পারেন, আশা করছি ভালো লাগবে।
বর্তমান দাম - ৩৫০ টাকা।

শুভ কামনায় রাখবেন।

৯| ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৯:৫৭

অপ্‌সরা বলেছেন: ভাইয়া যেমনই ভালো লেখক আর ভালো মানুষ তুমিও তেমনই ভালো লেখক পাঠক আর আলোচকও বটে.....

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ১০:০৭

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ভাইয়া ভালো লেখক! ভালো মানুষ এমন অনেক গুনের অধিকারী ! আমাদের সবার প্রিয় ব্লগার ও বটে!

আর তারপর তারপর ......... !!!!!
থাক লজ্জা পাচ্ছি।
ভালোবাসা নিও।

১০| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ৭:১৪

সোহানী বলেছেন: চমৎকার রিভিউ মনিরা। তোমার রিভিউ বইটা পড়ার আগ্রহ তৈরী করেছে নি:সন্দেহে। কিন্তু সংগহ করা একটা বিশাল ঝামেলা।

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৮:৫১

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ আপু !
ভাইয়ার লেখা তো সব সময় বেশ আলাদা ভাবে উপস্থাপন করেন, পড়ার আগ্রহ এমনিতেই হয়। হ্যাঁ সংগ্রহ করা একটা ঝক্কি বটে।
ভালো থাকবেন আপু।

১১| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ বিকাল ৩:১০

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: খুব ভালো রিভিউ করেছেন আপু।++

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৮:৫২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ চৌধুরি !
পাঠে এবং মন্তব্যে কৃতজ্ঞ।

১২| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ বিকাল ৪:০৬

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: সুন্দর রিভিউ

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৮:৫৩

মনিরা সুলতানা বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ ছবি আপু :)

১৩| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:১৬

রাজীব নুর বলেছেন: সুন্দর লিখেছেন।

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৮:৫৪

মনিরা সুলতানা বলেছেন: আপনাকে ব্লগে নিয়মিত দেখে ভালো লাগছে!
শুভেচ্ছা রইলো।

১৪| ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ১০:০২

জ্যাকেল বলেছেন: উক্ত ব্লগার কই? আলোচনায়? নিক টা কি তাও জানি না। |-)

২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ১০:৩৩

মনিরা সুলতানা বলেছেন: অনেকদিন থেকে দেখছি না ব্লগার মলাসইলমুইনা কে। তেমন কিছু জানি না, কিছু ফ্রি সময়ে বই পড়ে লিখে ফেললাম। নিশ্চয়ই সময় করে ঢু দেবেন কোন একদিন।

আমি কিন্তু লেখায় ব্লগারের নাম উল্লেখ করেছি, পোষ্ট শেষে উনার দুই লেখার লিঙ্ক ও দিয়েছি জ্যাকেল।

১৫| ২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সকাল ৮:৪২

শেরজা তপন বলেছেন: কেমনে যেন আপনার এই লেখাটা চোখ এড়িয়ে গিয়েছিল!!
ব্লগার মলাসইলমুইনা'কে ব্লগে দীর্ঘদিন যাবত দেখিনা চমৎকার এবং লেখক তিনি।

০১ লা অক্টোবর, ২০২২ দুপুর ১২:২৬

মনিরা সুলতানা বলেছেন: যাক চোখে যে একটু সময় নিয়ে হলেও এসছে তাতেই আমি ধন্য !!! এই লেখায় যদি আবার বলতেন কবিতা বুঝি কিন্তু মন্তব্য করার ভাষা পাই না! তাহলে ধরা খেয়ে যেতেন কিন্তু ;)

আসলেই মলা ভাইয়া অনেকদিন ব্লগে ঢু দিচ্ছেন না, আর লেখক হিসেবে ব্লগার মলাসইলমুইনা আপনার মূল্যায়ন আমার কাছে পারফেক্ট মনে হয়েছে। ধন্যবাদ পাঠে এবং মন্তব্যে।

১৬| ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ১২:১৬

সামরিন হক বলেছেন: পোস্টটা পড়লাম । শুভ রাত্রি।

০১ লা অক্টোবর, ২০২২ দুপুর ১২:২৯

মনিরা সুলতানা বলেছেন: শুভেচ্ছা সামরিন হক !
ধন্যবাদ পাঠে এবং মন্তব্যে!

১৭| ০১ লা অক্টোবর, ২০২২ সকাল ১১:২১

জাহিদ অনিক বলেছেন: সুন্দর ! আপনার রিভিউ।

মলাসইল্মুইনা ভাইএর বই রিভিউ পড়ার আগে পড়ে নিলাম বুক রিভিউয়ার এর কিছুটা রিভিউ, কীভাবে তার বইএর সাথে সখ্যতা আর ব্লগে কীভাবে পদচারণা। এগুলো আসলে আমরা যারা ব্লগার আমাদের কে সাহায্য করেছে বইএর রিভিউটা ভালো করে বুঝতে।

অষ্টধা নামটা সুন্দর। রুচিশীল। বোঝাই যাচ্ছে যে কোনো রুচিবান পাঠকের কাছে বইটা অনেক ভালো হবে।

০১ লা অক্টোবর, ২০২২ দুপুর ১২:৩৬

মনিরা সুলতানা বলেছেন: ধন্যবাদ ধন্যবাদ এবং ধন্যবাদ কবি মহাশয় !
এতগুলো ধন্যবাদের কারন, আপনাকে ব্লগে দেখিয়া অত্যধিক পুলকিত!

বুক রিভিউয়ারের গল্প বা প্রিলগ টুকু ও যে আপনার নজর এড়ায়নি, তাতে বুঝা গেলো আপনার সযত্ন পাঠ!!!! মি আনন্দিত!

হুম ভালোলাগার মতোই, পড়ে দেখতে পারো।

১৮| ০৫ ই অক্টোবর, ২০২২ দুপুর ১:৩৬

মলাসইলমুইনা বলেছেন: মনিরা সুলতানা,
আপনি যে সব কিছুতেই পজিটিভ দিকটা ভাবতে পারেন সেটা কিন্তু আমরা জানি। নইলে আমার লেখা বই নিয়ে চমৎকার এমন একটা পজিটিভ রিভিউ করা অতি সুকঠিন কাজ। ব্লগ শুরুর দিন থেকেই আমার হাবিজাবি লেখায় আপনার খুবই আন্তরিক আর পজিটিভ কমেন্টের সার জলে জন্মানো কৃতজ্ঞতার ছোট গাছটা এই রিভিউ পড়ার সাথে সাথে বেড়ে উঠে বিশাল বট বৃক্ষ। অনেক খুশি হলাম অষ্টধা নিয়ে আপনার ভাবনা জেনে। যে ভাবনা থেকে আমি প্রগল্পগুলো লিখেছি সেটা কোথাও বলিনি কিন্তু আপনি টেলিপ্যাথির নির্ভুলতায় সে ভাবনাগুলোর কথা বলেছেন প্রগল্পগুলোর বর্ণনায়। আপনার রিভিউ পড়ে'গ্রেট মেন্ থিঙ্ক এলাইক' বাক্যটা মনে করে খুবই আত্মপ্রসাদ অনুভব করলাম ---হাহাহা। কদিন আগেই ওমেরা বলছিলো বইটার কোনো রিভিউ হয়েছে কি না? আমি উত্তরে বলেছিলাম অল্প যারা পড়েছে কেউ মনে হয় পছন্দ করেনি তাই কোনো রিভিউই নেই এখনো। ওকে আপনার রিভিউয়ের কথা জানবার ইমেইল পিয়নের দায়িত্বটা সানন্দে নিলাম । শুধু একটা অপূর্ণতার কথা বলি আমার লেখা বইয়ের প্রথম রূপকথা গল্প 'ধূসর বেলা' নিয়েতো আপনার কোনো মন্তব্য নেই! ওই গল্পটা কিন্তু আমি ব্লগে কখনো পোস্ট করিনি। আসলে যে ভাবে গল্পটা লিখবো ভেবেছিলাম ঠিক সেভাবে লেখা হয়নি গল্পটা যদিও কাঠামোটা মুটামুটি একই রাখার চেষ্টা করেছি। একটা বড় রিগ্রেট হলো আপনার বই দুটো এখনো হাতে পাইনি। পাবার অপেক্ষায় আছি। পেলে অবশ্যই আমার ভাবনাগুলো ব্লগে জানাবার আশা রাখছি। যাহোক,আবারো অনেক কৃতজ্ঞতা আর ধন্যবাদ। খানিকটা ব্যস্ততার মধ্যে দিয়ে দিনগুলো যাচ্ছে। সেজন্যই আপনার লেখায় মন্তব্য করতে এতো দেরি। এখনকার লগ ইন শুধু আপনার লেখায় কমেন্টের জন্য ।বছরের শেষে যদি দিন বদলের পালা আসে তাহলে নিশ্চই ব্লগে আবারো খানিকটা আসা হবে। ভালো থাকুন ।

০৫ ই অক্টোবর, ২০২২ বিকাল ৪:০২

মনিরা সুলতানা বলেছেন: দারুণ কথায়, মুগ্ধতায় মন্তব্য রেখে গেলেন, রেখে গেলেন পাঠে মন্তব্যে এবং লেখায় আপনার অন্যন্যতার ছাপ ও !!!
ওমেরা কে আমার শুভেচ্ছা জানাবেন সাথে অবশ্যই।

ধূসর বেলা নিয়ে না হয় আরেকটা লেখা নিয়ে হাজির হয়ে যাবো, সাথে ইয়াসেটেরু ইয়ামাদার মানব থেকে ঈশ্বর হবার গল্প।

ডিসেম্বার পর্যন্ত অপেক্ষা করলে আমার বইগুলো আমি আপনাকে পাঠানোর চেষ্টা করতে পারি। আমাকে আপনার ইমেইল ঠিকানা জানালেই হবে।

দিনবদল হবেই আপনি আমাদের কে ব্লগ কে ঋদ্ধ করবেন আপনার ভাবনার প্রকাশে। সেই সময়ের অপেক্ষায় থাকলাম।

অনেক অনেক ধন্যবাদ ! শুভ কামনা সহ।

১৯| ১৯ শে অক্টোবর, ২০২২ রাত ১১:২৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: একজন গুণী লেখক তথা আমাদের প্রিয় সহব্লগার মলাসইলমুইনা'র অষ্টধা বইটির উপর একটি চমৎকার রিভিউ লেখার জন্য আপনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ। ব্লগাররা সহব্লগারদের বই নিয়ে রিভিউ লিখলে সেটার একটা অন্যরকমের আকর্ষণ থাকে। আমার খুব ভালো লাগে ব্লগারদের বই এর উপর সহব্লগারদের রিভিউ পড়তে।
মলাসইলমুইনা শুধু একজন বিদগ্ধ, উচ্চশিক্ষিত, বিদ্বান এবং সজ্জন ব্যক্তিই নন, তার লেখা পোস্ট এবং মন্তব্য পড়লে বুঝা যায় যে তিনি কতটা সদালাপী, কৌতুকপ্রিয়, বিনয়ী এবং অন্যের মতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল একজন ব্যক্তিত্ব। তার লেখার প্রসার ও সাফল্য কামনা করি।

২১ শে অক্টোবর, ২০২২ সকাল ১১:২৩

মনিরা সুলতানা বলেছেন: চমৎকার শুভ কামনা সহ মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ আহসান ভাই!
ব্লাগার সইলমুইনা কে নিয়ে আপনার মূল্যয়ন যথার্থ সকল বিবেচনাতেই।

শুভ কামনা ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.