নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আলহামদুলিল্লাহ। যা চাইনি তার চেয়ে বেশি দিয়েছেন প্রিয়তম রব। যা পাইনি তার জন্য আফসোস নেই। সিজদাবনত শুকরিয়া। প্রত্যাশার একটি ঘর এখনও ফাঁকা কি না জানা নেই, তাঁর কাছে নি:শর্ত ক্ষমা আশা করেছিলাম। তিনি দয়া করে যদি দিতেন, শুন্য সেই ঘরটিও পূর্নতা পেত!

নতুন নকিব

যবে উৎপীড়িতের ক্রন্দল-রোল আকাশে বাতাসে ধ্বনিবে না, অত্যাচারীর খড়্গ কৃপাণ ভীম রণ-ভূমে রণিবে না- বিদ্রোহী রন-ক্লান্ত। আমি সেই দিন হব শান্ত।

নতুন নকিব › বিস্তারিত পোস্টঃ

রমজানের খবর আগেভাগে অন্যকে জানালে দোজখ হারামের গুজব!!! হাদিসের নামে মিথ্যা প্রচারনায় বিভ্রান্ত না হয়ে এসব ক্ষেত্রে সাধ্যানুসারে হাদিসের নামে ছড়িয়ে দেয়া কথাগুলোর সত্যাসত্য যাচাই করুন প্লিজ

২৩ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:০৭


এই ধরনের মেসেজ ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে হাদিসের নামে। আমাকে দেয়া হয়েছে এটি।

ইদানিং ফেসবুকে একটি বার্তা প্রায়শই অনেককে আদান প্রদান করতে দেখা যায়। যাতে লেখা ‘প্রথম রমজান শুরু হবে ২৭ মে, নবী পাক সল্লাল্লাহু আলাইহি অসাল্লাম বলেছেন, রমজানের খবর যে লোক আগে অন্য কোনো ব্যক্তিকে দেবে তার জন্য জাহান্নামের আগুন হারাম হয়ে যাবে; অতএব আপনিও রমজানের খবর আগে ভাগে অন্যকে দিয়ে জাহান্নামের আগুন থেকে মুক্তি লাভ করুন।’

এই বার্তার পর দেখা যায়, রমজানের সূচিও দেওয়া থাকে সেই মেসেজের সাথে। এমন বার্তার বিষয়ে জানলাম সহকর্মীর কাছ থেকেও। এক সহকর্মী হোয়াটস এ্যাপ মেসেজে এই একই মেসেজ আমাকে দিয়েছেন। প্রথম দেখাতেই কথাটির হাদিস হওয়া নিয়ে আমার সন্দেহ হয়। তাকে হাদিসের রেফারেন্স দিতে বললে তিনি নিরব থাকলেন। বুঝলাম, তার কাছে রেফারেন্স নেই, যা তিনি উপস্থাপন করবেন। তাই শেষমেষ বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত জানার আগ্রহ হয়।

অনুসন্ধানে যা পেলাম তার সারমর্ম হলো- সবার আগে রমজান মাসের খবর দিলে, তার জন্য জাহান্নামের আগুন হারাম হবে-এ ব্যাপারে কোনো দলিল হাদিসে বর্ণিত হয়নি। সুতরাং এ বার্তার কোনো ভিত্তি নেই। বরং এমন বার্তার আদান-প্রদান নিষিদ্ধ। কেননা, এমন বার্তা প্রচারের মাধ্যমে হজরত রাসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি অসাল্লাম-এর ওপর মিথ্যারোপ করা হচ্ছে।

অভিজ্ঞ ও অনুসন্ধানী ইসলামি স্কলারদের অভিমত হলো- কিছু লোক বিষয়টি হাদিস বলে মানুষের মাঝে প্রচার করছে, মূলত এটা হাদিস নয়। এটা হাদিসের নামে বানানো কথা, যার কোনো ভিত্তি নেই।

সাধারণ নিয়ম মতে রমজান মাস নির্ধারিত হবে দেশের নিযুক্ত চাঁদ দেখা কমিটির মাধ্যমে। আর এটা নির্ধারণ হবে শাবান মাসের শেষের দিকে। সুতরাং কোনো ব্যক্তির পক্ষে সম্ভব নয় যে, সে শাবান মাসেই রমজান মাসকে দৃঢ়তার সঙ্গে নির্ধারণ করে দেয়। তাই ইসলামি স্কলারদের পরামর্শ হলো, এ ধরনের মিথ্যা-বানোয়াট জাল ম্যাসেজ অন্যের কাছে প্রেরণের পূর্বে ভালোভাবে যাচাই-বাছাই করা, সত্যতা যাচাই করা।

তবে রমজান মাসের আগমন উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানানো দোষণীয় কোনো বিষয় নয়। কেননা রাসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু অালাইহি অসাল্লাম সাহাবিদের রমজানের আগমন উপলক্ষে সুসংবাদ দিতেন এবং তাদের উত্তম আমলসমূহের জন্য প্রস্তুতি নিতে উৎসাহিত করতেন।

এ বিষয়ে একটি দীর্ঘ হাদিস বর্ণিত হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, হজরত সালমান ফারসি রাদিঅাল্লাহু তাঅালা অানহু হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, শাবান মাসের শেষ দিনে হজরত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দিলেন।

ওই ভাষণে তিনি বলেন, 'হে লোক সকল! একটি মহিমান্বিত মাস তোমাদেরকে ছায়া হয়ে ঘিরে ধরেছে। এ মাস একটি বরকতময় মাস। এটি এমন এক মাস, যার একটি রাত হাজার মাসের চেয়ে উত্তম। আল্লাহ তায়ালা এ মাসের সিয়ামকে ফরজ করেছেন আর নফল করে দিয়েছেন এ মাসে রাতের কিয়ামকে। যে ব্যক্তি এ মাসে একটি নফল কাজ করবে, সে যেন অন্য মাসের একটি ফরজ আদায় করল। আর যে ব্যক্তি এ মাসে একটি ফরজ আদায় করল, সে যেন অন্য মাসের সত্তরটি ফরজ সম্পাদন করল। এ মাস সবরের (ধৈর্যের) মাস; সবরের সওয়াব জান্নাত। এ মাস সহমর্মিতার। এ এমন এক মাস যাতে মুমিনের রিজিক বৃদ্ধি করা হয়। যে ব্যক্তি এ মাসে কোনো রোজাদারকে ইফতার করাবে, এ ইফতার তার গোনাহ মাফের কারণ হবে, হবে জাহান্নামের অগ্নি থেকে মুক্তির উপায়। তার সওয়াব হবে রোজাদারের অনুরূপ। অথচ তার (রোজাদারের) সওয়াব একটুও কমানো হবে না।'

আমরা বললাম, 'হে আল্লাহর রসূল! আমাদের সবাইতো রোজাদারের জন্য ইফতারির আয়োজন করতে সমর্থ নই।'

রাসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু অালাইহি অসাল্লাম বললেন, 'এ সওয়াব আল্লাহ তাআলা ওই ইফতার পরিবেশনকারীকেও প্রদান করবেন, যে একজন রোজাদারকে এক চুমুক দুধ, একটি খেজুর অথবা এক চুমুক পানি দিয়ে ইফতার করায়। আর যে ব্যক্তি একজন রোজাদারকে পেট ভরে খাইয়ে পরিতৃপ্ত করল, আল্লাহ তায়ালা তাকে আমার হাউজে কাওসার থেকে এভাবে পানি খাইয়ে পরিতৃপ্ত করবেন- যার পর সে জান্নাতে (প্রবেশ করার পূর্বে) আর পিপাসার্ত হবে না। এমনকি সে জান্নাতে প্রবেশ করবে। এটা এমন এক মাস যার প্রথম অংশে রহমত। মধ্য অংশে মাগফিরাত আর শেষাংশে জাহান্নামের আগুন থেকে নাজাত। যে ব্যক্তি এ মাসে তার অধীনস্তদের ভার-বোঝা সহজ করে দেবে, আল্লাহ তাকে ক্ষমা করবেন। তাকে জাহান্নামের আগুন থেকে মুক্তি দেবেন।' -মিশকাতুল মাসাবিহ, কিতাবুস সাওম, হাদিস নং: ১৯৬৫

অাল্লাহ পাক অামাদের সহীহ দ্বীন বুঝার এবং সেই অনুসারে অামল করার তাওফিক দান করুন।

হাদিসে রমজান মাস সম্পর্কে এভাবেই বলা হয়েছে। এর বাইরে অন্য কিছু বলা হয়নি। সুতরাং রমজান মাসের আগমনের খবর সবার আগে অন্যকে জানালে জাহান্নাম হারাম হবে- এ কথা ঠিক নয়। আর রমজান মাসের আগমনের খবর অন্যকে জানানো যাবে- যাতে তারা মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিতে পারে।

ছবিঃ গুগল।

মন্তব্য ৩২ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (৩২) মন্তব্য লিখুন

১| ২৩ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:১৬

ঋণাত্মক শূণ্য বলেছেন: আপনার লেখার জন‍্য ধন‍‍্যবাদ। আসলেই এমনটা দেখা যায় বর্তমানে।

তবে একটা সাজেশন; আপনি একদম উপরে যে ছবিটা দিয়েছেন, সে ছবিটা এভাবে না দিয়ে এডিট করে একটি ক্রস চিন্হ বসিয়ে দিন; যাতে মানুষ সহজেই বুঝতে পারে যে এটি বাতিল। নতুবা দেখা যাবে অন‍্য কেউ হয়ত পুরা লেখা না পড়েই আপনার পোষ্ট থেকে ছবি নিয়ে শেয়ার করা শুরু করে দিবে

যাঝাকাল্লাহ খইরণ

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৪২

নতুন নকিব বলেছেন:



শুকরান। উত্তম মন্তব্যে অভিন্দন। পরামর্শের জন্য ধন্যবাদ।

আসলে মোবাইলে এই পোস্ট করেছি। যার জন্য ইমেজ এডিট একটু কষ্টসাধ্য ছিল।

২| ২৩ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:১৬

রানার ব্লগ বলেছেন: ফেসবুকে প্রচারিত বেশিরভাগ হাদিস ভুয়া। লাইক আর শেয়ার পাওয়ার হাদিস।

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৪২

নতুন নকিব বলেছেন:



ঠিক বলেছেন। ধন্যবাদ।

৩| ২৩ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:৫৯

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: প্রিয় নকিবভাই ,

আমিও হোয়াটসঅ্যাপে দিন কুড়ি আগে ঠিক এই মেসেজটি পেয়েছিলাম । আজ আপনার পোস্ট মারফত জানলাম এটা সম্পূর্ণ ভুয়া বা গুজব। ধন্যবাদ আপনাকে।


অফুরান শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জানবেন।


২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৪৫

নতুন নকিব বলেছেন:



আপনার জন্যও অফুরান শুভকামনা কাছের মানুষ। আপনি সবসময়ই হৃদ্যতার মানুষ। আমাদের এখানে বেড়াতে আসুন একবার। অনেক খুশি হব। জানিয়ে আসবেন।

আপনাকেও তাহলে দেয়া হয়েছে এই মেসেজ! বুঝুন তাহলে! দেশ দেশান্তরে ছড়িয়ে পড়েছে এসব ভুয়া মেসেজ! জালিয়াতচক্র এগুলো করে লাইক শেয়ার পাওয়ার আশায়!

৪| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১২:০২

ফাহিমা জেরিন জেবা্ বলেছেন: বানোয়াট হাদিস ক্ষতিকর।

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৪০

নতুন নকিব বলেছেন:



ঠিক বলেছেন আম্মি। ধন্যবাদ।

৫| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১২:৪১

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: দিন ঘনিয়ে আসছে,
আমাদের ঈমানের কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে ।

.........................................................................
চলমান ঘটনার মাধ্যমে আমাদের সেই পরীক্ষাটি হবে
কেউ বলবে না,
প্রস্তত হও আজ তোমার পরীক্ষা !!!
............................................................................

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৪১

নতুন নকিব বলেছেন:



অভিনন্দন সুন্দর মন্তব্যে। অনেক ভালো থাকুন।

৬| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১:৫১

ঋণাত্মক শূণ্য বলেছেন: যাঝাকাল্লাহ খইরন। বেশীরভাগ মানুষকে কিছু বললে শুনে না। আপনি শুনেছেন; এবং ভালো কাজটিই করেছেন। আল্লাহ আপনাকে উপযুক্ত প্রতিদান দান করুন। আমিন।

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৪৪

নতুন নকিব বলেছেন:



মা-শাআল্লাহ, আপনি তো অনেক সহৃদয় ব্যক্তি। জাজাকুমুল্লাহু তাআ'লা আহসানাল জাজা।

আরে, আপনি তো একটি সুন্দর বুদ্ধি দিয়েছেন। ভালো পরামর্শ গ্রহন না করার কি আছে? কৃতজ্ঞতা অশেষ। অনেক ভালো থাকুন।

৭| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ২:৩৮

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: আল্লাহ সকলকে সুবুদ্ধি দান করুন।

৩১ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৮:২২

নতুন নকিব বলেছেন:



সহমত। সুন্দর মন্তব্যে অভিনন্দন।

কৃতজ্ঞতাসহ শুভকামনা।

৮| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৭:১৯

বলেছেন:
দরকারী পোস্ট।

৩১ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৮:২৩

নতুন নকিব বলেছেন:



ধন্যবাদ কবি ভাই।

অনেক অনেক ভালো থাকুন, প্রার্থনা।

৯| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৮:১৪

রাজীব নুর বলেছেন: খুব সুন্দর পোষ্ট। আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৭

নতুন নকিব বলেছেন:



মোবারকবাদ। অনেক ভালো থাকুন।

১০| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:২০

বাংলার মেলা বলেছেন: জাহান্নাম আবার হারাম হয় কিভাবে? এটা কি কোন আমল নাকি ভোগ্যবস্তু?

হাদীসের কিছু কিছু ভাষা নিয়ে আমার প্রশ্ন আছে।

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৪১

নতুন নকিব বলেছেন:



জাহান্নাম হারাম হওয়ার অর্থ হচ্ছে- কোনো ব্যক্তির জাহান্নামে প্রবেশ অবশ্যম্ভাবীভাবে নিষিদ্ধ হওয়া।

কোনো কোনো পরিভাষা বুঝতে খটকা লাগতেই পারে। বিজ্ঞ কোনো আলেমের সাথে এরকম বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা করে নিলেই সমাধান বেরিয়ে আসবে আশা করি।

আপনার জন্য শুভকামনা।

১১| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:০১

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: নকিব ভাই খুব ভাল একটি বিষয় তুলে ধরেছেন।
আমাদের দেশে জাল হাদিসের সংখ্যা এত বেশি যে কোনটা সঠিক হাদিস তা আমরা সাধারন মানুষ বেশির ভাগ সময়ই ধরতে পারি না।
হাদিস দেখলে সেটা রেফারেন্স সহ না থাকলে তা বিশ্বাস করা মনে হয় ঠিক হবে না।

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৩

নতুন নকিব বলেছেন:



বিবেকের দংশনে তুলে না ধরে পারিনি।

এগুলো দিয়ে এক শ্রেনির মানুষ মিথ্যাচার করে লাভবান হওয়ার ধান্দায় থাকেন।

অশেষ কৃতজ্ঞতা।

১২| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:৩৬

বুড়ো হিমু বলেছেন: ভাই খুব ভাল লাগল।
ভাই এই পোষ্টটা কি অন্য কোন স্থানে শেয়ার দিতে পারি??

জাযাকাল্লাহু খাইরন

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৪

নতুন নকিব বলেছেন:



জাযাকাল্লাহু খাইরন। অবশ্যই শেয়ার দিতে পারেন। তবে সূত্রসহ দিলে ভাল হয়। বিভ্রান্তির আশঙ্কা থাকবে না।

শুভকামনা।

১৩| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:৫০

হাবিব স্যার বলেছেন: এমন সচেতনতা মূলক পোস্টের জন্য নকিব ভাইকে অনেক ধন্যবাদ

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৫১

নতুন নকিব বলেছেন:



আপনাকেও অনেক অনেক ধন্যবাদ প্রেরনা রেখে যাওয়ার জন্য।

১৪| ২৫ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:০৩

কালীদাস বলেছেন: আপনি কি রিপ্লাই দিলেন? আপনার জায়গায় আমি হলে, স্হানীয় র‌্যাব অফিসের ফোন নাম্বার সহ রিপ্লাই দিতাম যে "এই নাম্বারে বিশবার এই ম্যাসেজ পাঠিয়ে লাভবান হন। এক ভাই বিশ্বাস করে ম্যাসেজ পাঠান নাই, পরে তার বাংলাদেশি নাগরিকত্ব বাতিল হয়ে গেছে। আরেক ভাই বিশবার ম্যাসেজ পাঠিয়েছেন ঐ নাম্বারে এবং পরেরদিন লটারিতে তিনি টাটা কুম্পানির ট্রাক জিতেছেন। মাশাল্লাহ।"

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৬

নতুন নকিব বলেছেন:



আপনি তো কঠিনভাবে বলতে পারেন। আপনারা বললেও ভয় পাবে। আমরা বললে মনে হয় না সেরকম হবে। বরং, বিপরীত প্রতিক্রিয়া হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি থাকে।

সর্বোপরি কোমলতাই তো ভালো।

আপনার উপস্থিতি প্রেরনার। ভালো থাকুন।

১৫| ২৮ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১:০৯

প্রামানিক বলেছেন: হাদীসকে এখন বিকৃত করা হচ্ছে যা কোন ভাবেই উচিৎ নয়।

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৭

নতুন নকিব বলেছেন:



ঠিক। ধন্যবাদ।

শুভকামনা।

১৬| ৩০ শে ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:০৩

যোখার সারনায়েভ বলেছেন: আমরা অনেক গুজব এর মধ্যে বসবাস করছি।

০৩ রা জানুয়ারি, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৮

নতুন নকিব বলেছেন:



সঠিক বলেছেন। ধন্যবাদ।

ভালো থাকুন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.