নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আসলে স্বার্থের পৃথিবীতে কেউ আপন নয় ।

ইসিয়াক

একজন অতি সাধারণ মানুষ ।

ইসিয়াক › বিস্তারিত পোস্টঃ

জেবা ম্যাম ও তার পারিপার্শ্বিক ঘটনাবলী

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:১০


মিস জেবা যেমন দেখতে সুন্দরী তেমন তার অমায়িক ব্যবহার ।স্কুলের প্রতিটি বাচ্চার অতি প্রিয় জেবা ম্যাম ।জেবা ম্যাম কখনো কোন ছাত্র বা ছাত্রীকে বকা দেন না, মারেন না ।ক্লাসে একটা লাঠি পর্যন্ত আনেন না ।পড়া না বুঝলে দশ বার হলেও তিনি তাদের বুঝিয়ে দেন এমন শিক্ষক পাওয়া এখন সত্যি দুষ্কর ।কিন্তু কেউ যদি ফাকি দেয় তখন কিন্তু তিনি ভীষণ রেগে যান ।সবাই সেটা ভালো করেই জানে আর জানে বলেই সবাই তার কথা মতোই চলে ।ছাত্রদের মধ্যে সবার ই একটা প্রচেষ্টা থাকে জেবা ম্যামের দৃষ্টি আকর্ষণ করার । জেবা ম্যামের জনপ্রিয়তার আরেকটি কারণ হলো তার সাজপোষাক ও ফ্যাশন।তিনি স্কুলে সাধারণত সুতি শাড়ি পরে আসেন।নানা রঙবেরঙের শাড়ি । আর কমবেশী সবাই খেয়াল করে দেখেছে যে এক শাড়ি তিনি দ্বিতীয় বার পরেন না এবং যা ই পরেন না কেন তাকে অপরুপ লাগে । এত শাড়ি তিনি কোথায় পান সে এক রহস্য ।
মিস জেবার সাথে আদনানের ক্লাস করিডোরে দেখা হয়ে গেল ।আজ তিনি টকটকে লাল আর সবুজ মিশানো সুন্দর একটা শাড়ী পড়েছেন।খুব সুন্দর দেখাচ্ছে তাকে।
-কি আদনান কি খবর ?
-স্লামালেকুম [আস সালামু আলাই কুম]ম্যাম ।
- ওয়া আলায় কুমুস সালাম ।
-পড়াশোনা কেমন চলছে ?
- ভালো।
-ছোট বোনটার খবর কি ?
-স্কুলে গেছে ম্যাম।
-ভালো ।মনে রাখবে জীবনের যে কোন পরিস্থিতিতে পড়া লেখাটা ধরে রাখবে।ওকে।
-জ্বী ম্যাম।
-সকালে কিছু খাওয়া হয়েছে ।
-হু ।
-আবার মিথ্যা , মিথ্যা বলতে নিষেধ করেছি না । করেছি ?
আদনান মাথা নাড়ালো ।
-টিফিনে আমার সাথে দেখা করো ।
-আচ্ছা
-আচ্ছা বললেই হবে না ,দেখা করবে । আমি কাউকে মার দেয়ার পক্ষপাতি নই কিন্তু তুমি টিফিনে দেখা না করলে পিটাবো । বুঝছো ।
যাও ক্লাসে বসো । আমি আসছি ।
সপ্তম শ্রেণির এই ক্লাসে মোট বিয়াল্লিশ জন ছাত্র । আদনানের রোল বারো। প্রথম ক্লাস ইংরেজী । রোল কল শেষে মিস জেবা আজকে wh question বোঝাচ্ছেন । খুব খটমটে একটা ব্যাপার । কিন্তু কি সুন্দর যে তার বোঝাবার ভঙ্গি, মুগ্ধতা এসে যায় । আদনান পাস্ট টেনসের ডিড এর পর প্রেজেন্ট ফর্ম বসছে কেন সেটা ধরতে পারছে না ।প্রশ্ন করতে যাবে এমন সময় বেশ একটু শোরগোল উঠলো ।এর মধ্যে কে যেনো বলছে জেবা কই রে জেবা । কোন রুমে ?
হুড়মুড় করে কিছু লোক ক্লাসে ঢকে পড়ল ।একজন মাঝবয়সী বেশ মোটাসোটা ভদ্রলোক জেবা ম্যাম এর দিকে এগিয়ে এসে রুক্ষ গলায় বলল - এই তুমি জেবা ?
-হ্যাঁ আমি জেবা । বলুন।আপনাদের কি আমি চিনি?
-অত চেনা চিনির কিছু নাই ।তুই আমার পোলারে কান ধইরা উঠবোস করাইছোস ক্যান।
-কে ?বুঝতে পারলাম না ..ও...জামিলের কথা বলছেন।
-শালী ঠিকই তো চিনস ।আমার নামও শুনছোস নিশ্চয় ।তাইলে এতো সাহস পাইলি কই ।নিজেরে কি ভাবস ।
-প্লিজ আপনার ভাষা ঠিক করুণ । ভদ্র ভাবে কথা বলুন।
-দুই দিনের মাইয়া কয় কি ওর কাছে আমার ভাষা শিখতে হইবো ।ভদ্রতা শিখতে হইবো ।সাথে সাথে জামিলের বাবার সাথে আসা লোকগুলো হে হে করে হাসতে লাগলো।বিশ্রি হাসি।
এই ফাকে আদনান গিয়ে বড় ম্যাডামকে ডেকে নিয়ে এলো ।বেশ গোলমেলে অবস্থা। সেদিন অনেক ঝামেলা হলো ।অনেক......।আদনান অত বোঝে না ।তবে শুনেছে।জেবা ম্যমকে নাকি অফিস রুমে কান ধরে দাড়িয়ে থাকতে হয়েছে।জামিলের বাবাএই এলাকার এম পি র খাস লোক। যাকে বলে ডান হাত।তাকে ঘাটিয়ে এই এলাকায় স্কুল চালানো মুশকিল।সেদিন স্কুলের ক্লাস গুলো ঠিক মতো হলো না ।এই প্রথম জেবা ম্যামকে সে কাঁদতে দেখলো। টিফিনের সময় জেবা ম্যামের ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে কান্না দেখে তার বুকের ভেতরটা মুচড়ে উঠলো।কেউ কেউ বলতে লাগলো জেবা ম্যাম নাকি চাকরি ছেড়ে দেবেন।আদনানের বুকটা হঠাৎ খাঁখাঁ করে উঠলো।সে স্কুল থেকে বেরিয়ে এলো ।রোদ বেশ চড়েছে ।আদনান রাস্তার এক ধার ধরে ছোট ছোট পা ফেলে হাটতে লাগলো ।
শরতের আকাশে বিভিন্ন আকৃতির অনেকগুলো মেঘ ভেসে বেড়াচ্ছে।আদনান আকাশের দিকে তাকিয়ে রইলো ।তার চোখ আদ্র হয়ে উঠেছে। সে অনেক কষ্টে কান্না চাপলো ।

মন্তব্য ১৮ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (১৮) মন্তব্য লিখুন

১| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২১

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: আপনি আমার পছন্দের মানুষ, পোষ্টে সমালোচনা করা যাবে? সমালোচনা নিতে পারবেন তো?

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪৪

ইসিয়াক বলেছেন: ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: আপনি আমার পছন্দের মানুষ, পোষ্টে সমালোচনা করা যাবে? সমালোচনা নিতে পারবেন তো?
অবশ্যই সমালোচনা নিতে পারবো। খারাপ লাগতেই পারে । প্রিয় স্যারের মার ও তো অনেক সময় হজম করতে হয়। আমি শিখতে চাই । না হলে আমি ভুল গুলো শুধরাবো কি করে।
আমি তো শিশু সবে কথা বলার চেষ্টা করছি।

প্রিয় মাহমুদ ভাই অনেক ধন্যবাদ ও শুভকামনা

২| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৬

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: তাহলে প্রিয় স্যারের ধমক দিয়ে শুরু হোক।

আপনি কি ব্লগে হিন্দি সিরিয়াল শুরু করেছেন?

আপনার পোষ্টের নামের কি অভাব পরেছে?

সিরিয়াল পর্ব শেষ করুন, প্রতিটি লেখার ভিন্ন ভিন্ন নাম দিন, তাতে পোস্টের নাম ও গল্প নিয়ে পাঠক বিভ্রান্ত হবে না।

গল্প লিখুন মাথা ব্যাথার হিন্দি সিরিয়াল না। পরবর্তিতে পুরস্কার নয়তো তিরস্কার ঠিক করুন কোনটি দরকার।

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:০৪

ইসিয়াক বলেছেন: প্রিয় মাহমুদ ভাই ,
অনেক ধন্যবাদ ।
শুভসন্ধ্যা

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৪৯

ইসিয়াক বলেছেন: নাম বদলানো হলো

৩| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৩৫

রাজীব নুর বলেছেন: ফুলটা চেনা চেনা লাগছে।

জেবা ম্যামের সাথে দেখা করতে চাই।

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৩৭

ইসিয়াক বলেছেন: সুরভী ভাবি বকবে । তখন আমার দোষ হবে।হু-হু-হু.................

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৪৪

ইসিয়াক বলেছেন: রাজীব নুর বলেছেন: ফুলটা চেনা চেনা লাগছে।
ফুলের ছবিকা আপনারটা না ।নেট থেকে রীতি মত ডাউনলোড করেছি।দেখলেই মনে হয় চেনা চেনা। ইশ্‌্‌্‌্‌্‌্‌।
এই নিন আপনার জন্য। চা দিতে পারবো না ফুল নেন।

৪| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:৪২

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: মাঝে মাঝে মনে হয় এই দেশে মহিলাদের চাকুরী করা আজন্ম এক পাপ !!!

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:১৩

ইসিয়াক বলেছেন: ঠিক বলেছেন মাহমুদ ভাই
শুভসকাল

৫| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ভোর ৬:০২

আনমোনা বলেছেন: দেখা যাক আদনানের জীবকে জেবা ম্যামের প্রভাব।

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:১৭

ইসিয়াক বলেছেন: আচ্ছা আনমোনা ......।
আসলে আপনাকে আপু বলবো না ভাইয়া বুঝতে পারছি না ।কেন জানি মনে হচ্ছে আপু বললেই ঠিক হবে । যা হয়ে যায় যাক।বকা খেলে খাব ।
অনেক ধন্যবাদ ।
শুভসকাল।

৬| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:৩৬

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: বেসরকারি স্কুল, পাড়ার প্রভাবশালী লোক ও জেবা ম্যাডাম এবং আদনানকে নিয়ে পর্বটি ভালো লাগলো।

শুভকামনা রইলো প্রিয় ইসিয়াক ভাইকে।

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:৪১

ইসিয়াক বলেছেন: তাহলে কি আর করা বিস্কুট নেন । দুধচা না রং চা । আমি দুধ চা খাবো । মেঘ করেছে বৃষ্টি আসতে পারে । দোকানের ভেতরে আসুন।

৭| ০৩ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:৪০

আনমোনা বলেছেন: নাহ। বকা দিব কেন? ওটা ঠাকুরমাহমুদ স্যারের কাজ। আমি আপু।

০৩ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:৪৫

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ ।
শুভসকাল

৮| ১০ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১:৪১

আনমোনা বলেছেন: আদনান আবার কবে ফিরছে?

১০ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৮:২৬

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ আপু । কয়েকটা কবিতার থিম মাথার মধ্যে গিজগিজ করছিল। না লিখলে অন্য যেকোন কাজে মনোযোগে খুব সমস্যা হয় । অস্বস্তি হয়। না হয় কবিতা গুলো হারিয়ে যায়। গল্পে সমস্যা হলো পুরোনো পড়ে তারপর লিখতে হয় না হলে ভুলভাল হয়ে যাবার সম্ভাবনা থাকে। আমার আবার উল্টা পালটা কমেন্টে এলার্জি আছে। অনেকক্ষন মন ভার হয়ে থাকে। আদনান কে নিয়ে ফিরছি শিঘ্রই । দেখি আজ তো স্কুল মহর্‌মের বন্ধ । সময় পেলে নিশ্চয়....
ধন্যবাদ

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.