নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

কাউকে ছোট মনে করতে নেই। লেখক-কবিকেও নয়; তিনি যে মাপেরই হোন না কেন। সাহিত্যের পিউরিফিকেশন বলে কিছু নেই, বা ধরুন শব্দচয়ন, বানান, উপস্থাপনা ইত্যাদি আপনার মনমতো নাও হতে পারে, হতে হবে, এমন কথা নেই। এটা যোগাযোগ মাত্র। যদি কেউ কোনকিছু পড়ে তার জীবন, বেঁচে থাকা এব

ইসিয়াক

কাউকে ছোট মনে করতে নেই। লেখক-কবিকেও নয়; তিনি যে মাপেরই হোন না কেন। সাহিত্যের পিউরিফিকেশন বলে কিছু নেই, বা ধরুন শব্দচয়ন, বানান, উপস্থাপনা ইত্যাদি আপনার মনমতো নাও হতে পারে, হতে হবে, এমন কথা নেই। এটা যোগাযোগ মাত্র। যদি কেউ কোনকিছু পড়ে তার জীবন, বেঁচে থাকা এবং অস্তিত্বের সামান্যতম ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারেন, তবেই সেই লেখা সফল। চমৎকার ছাপা বাঁধাই লেখা বই শুধু সাজিয়ে রাখার জন্য হতে পারে যদি সেখানে মানবিক কিছু না থাকে।

ইসিয়াক › বিস্তারিত পোস্টঃ

ভালোবাসার গল্পঃএক বরষার দিনে হঠাৎ দেখা ইরাবতীর সাথে

১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ৯:৩৩


ঝিরঝিরিয়ে বৃষ্টি হচ্ছে গত রাত থেকে।দীর্ঘ বর্ষার আলামত।অনবরত বৃষ্টির ছোঁয়ায় সমস্ত চরাচর ভিজে একাকার।চিরচেনা প্রকৃতির এই হঠাৎ বদল মনে বেশ অন্যরকম দোলা দেয় ।ভালো লাগে বর্ষার সদ্য স্নাত স্নিগ্ধ প্রকৃতি। ভালো লাগে আকাশ, খোলা মাঠ, জল টলমল পুকুর, ভেজা সবুজ ঘাস ও লতা পাতা।

এই সময় প্রকৃতিকে বেশি করে ভালোবাসতে ইচ্ছে করে। মনের গতিপ্রকৃতিও কেমন যেন বদলে যায় ।কাব্যকথার জলছবিতে ভরে ওঠে।
আমার একলা জীবনে আমি প্রায় বেড়াতে বের হই প্রাকৃতিক এই নৈসর্গিক দৃশ্য উপভোগ করার মনোবাসনায় ।রাস্তায় গাড়ির চাপ থাকে কম,মোটামুটি জনশূন্য রাস্তাঘাট।ইচ্ছা মতো হেঁটে চলে এক অন্য রকম অনুভুতির প্রকাশ খেলা করে যায় মনের অলিন্দ জুড়ে।ভালো লাগলে সাথে থাকা ক্যামেরায় টুপটাপ ছবি তুলতে কখনো ভুল করিনা।চারপাশটা দেখি খুব নিবিড়ভাবে, ভেজা কাক,শালিক………


আজ মনে হলো কিছুদিন আগে কলেজপাড়ার দীঘিতে অনেক লাল শাপলা ফুটতে দেখেছিলাম।সেই ছবি তুললে কেমন হয় ।টুপটাপ জল গড়িয়ে পড়ছে পাতায় আর ফুলে ।সেই ছবি ফ্রেমে ধরার আশায় নানা ভাব কল্পনায় একটু বেখেয়ালই ছিলাম মনে হয়।হঠাৎ সড়গড় কথায় আমি চমকে উঠলাম।

-আরে তুই?এখানে এই বৃষ্টিতে কি করছিস।

প্রথমে বুঝতে পারলাম না সামনের মানুষটি কে? সে নারী নাকি পুরুষ। কারণ পুরোদস্তুর রেইনকোটে মোড়ানো মানুষটাকে সহসা ঠাওর করা আমার জন্য কিছুটা দুষ্কর মনে হলো্।অকস্মাৎ বিষ্ময়ে আমি কিছুটা নির্বাক তাকিয়ে রইলাম।

-কন্ঠটি আবার ঝনঝনিয়ে উঠলো,
-কিরে ভ্যবলা কান্তর মতো হাঁ করে তাকিয়ে আছিস কেন?চিনতে পারছিস নাে ?এত সহজে ভুলে গেলি আমায়?

হঠাৎ ধুলোর রাশি ঝড়ো হাওয়ার মতো উড়িয়ে নিয়ে গেল যেন স্মৃতিপটের উপর থেকে।নিজের অজান্তে মুখ ফুটে বেরিয়ে এলো,
-আরে ইরা তুই? এখানে? এখানে কি করে? কি করছিস?
-আরে বাবা এতো প্রশ্ন উত্তর একসাথে কি করে দেবো? তবে ভালো লাগছে তুই আমাকে চিনতে পেরেছিস্ দেখে।
-কি যে বলিস তোকে কি করে ভুলবো তবে তোকে তোর বর্তমান অবস্থায় চেনা কষ্ট । একেবারে চিকনি চামেলী হয়ে গেছিস তার উপরে রেইনকোট পড়ে অদ্ভুতুড়ে অবস্থা।তবে তোর বিখ্যাত কণ্ঠ আমাকে চিনতে সাহায্য করেছে।একেবারে মার্কা মারা হা হা হা।
-তারপর কেমন আছিস দোস্ত?
-ভালো বেশ ভালো ।তবে তুই এই শহরে ?দেখে একটু অবাক হচ্ছি।
-আছি তো অনেকদিন। আমার পোষ্টিং এখানেই।

শুনে বেশ অবাক হলেও ভালো লাগলো এতদিন বাদে ইরার দেখা পেয়ে।কথায় কথায় জানা হলো ,শোনা হলো অনেক কিছু।ইরা জানালো তার এখনো সংসার করা হয়নি নানা ব্যস্ততায়। আমি বেশ অবাক হলাম। সে আরো জানতে চাইলো চারুলতা,দীপা,আলেয়া সহ আরো অনেকের কথা ।আমি বললাম কারো সাথেই তেমন যোগাযোগ নাই।তবে ইরা চাইলে যোগাযোগের ব্যবস্থা করে দেওয়া যেতে পারে।একথা শুনে ইরার সেকী হাসি।

হাসতে হাসতে ইরা বললো
-আচ্ছা একসাথে এতোগুলো মেয়েকে কীভাবে তুই ম্যানেজ করতিস বলতো? এটা কিন্তু আমার কাছে এখনো সেইরকম রহস্যময় লাগে।তোর ওই বিশ্ব প্রেমিক ইমেজ হি হি হি।

আমি হেসে সপাটে মনের কথা বলে দিলাম গড়গড়িয়ে,আচ্ছা তুই যে একজন মেয়ে এতো ছেলে তোর মতো রুপসীর পিছনে লাইন লাগিয়ে ঘুরঘুর করতো,তোর জন্য ফিদা ছিলো ।এমনকি আমি পর্যন্ত। তুই কারো প্রেমে পড়লি না কেন?

হঠাৎ করে পরিবেশটা গম্ভীর হয়ে গেল যেন।ইরাবতীর চোখটা ছলছল করে উঠলো।সে আমার হাতের উপর হাতটা রেখে বলল,
-দেখা যখন হলো ,সব কথাই হবে।তুই কেমন আছিস অপূর্ব?
এমন আবেগঘন পরিবেশে আমার দুচোখ ভিজে গেলো যেন ঘোর বরষায়।মুখে কিছু না বললেও মনে মনে বললাম ।আমি ভালো নেই ইরাবতী । একটুও ভালো নেই।

মন্তব্য ৪০ টি রেটিং +১২/-০

মন্তব্য (৪০) মন্তব্য লিখুন

১| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ৯:৪৫

রাজীব নুর বলেছেন: মধুরিমার সাথে দেখা হলো না কেন??

১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ৯:৫২

ইসিয়াক বলেছেন: গল্প কেমন হলো বললেন নাতো?
কোন একদিন মধুরিমার সাথে নিশ্চয় দেখা হবে।
শুভকামনা ।

২| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ১০:৪১

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: ভালো লাগলো গল্প
লিখে যান
আমি গল্প লিখতে পারি না :(

১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ১০:৪৩

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো আপু্ ।
মন্তব্যে অনুপ্রাণিত হলাম।
ভালো থাকুন সবসময়।

৩| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:৪৭

নীল আকাশ বলেছেন: রাজীব ভাইয়ের স্ট্যাইলে মন্তব্য করি-
বিশ্বপ্রেমিক (নায়কের নাম দেন নি) এবং ইরাবতী ভালো থাক সব সময়।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ১০:১৩

ইসিয়াক বলেছেন: প্রিয় নীল আকাশ ভাইয়া মন্তব্যে ভালো লাগা।
আমি গল্পে নায়কের নাম দিয়েছি তো !একেবারে শেষে আছে, একটু খেয়াল করবেন প্লিজ ।
নায়কের নাম অপূর্ব।
কৃতজ্ঞতা সহ শুভকামনা রইলো।
ভালো থাকুন সবসময় ।

৪| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:৫০

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ভিন্ন পরিস্থিতিতে হঠাৎ করে মানুষ চেনা নাই যেতে পারে....কিন্তু কন্ঠস্বরে লিঙ্গ সনাক্তকরনে সমস্যা হওয়া কতোটা যুক্তিযুক্ত!

গল্পে প্রকৃতির বর্ণনা ভালো লাগলো। গল্পও ভালো হয়েছে, তবে পরিপূর্ণ হয়নি.......পাঠকের জন্য অনেক কিছু রেখে দিয়েছেন। :)

যতিচিহ্ন 'দাঁড়ি'র ব্যবহারে আরেকটু যত্নবান হওয়া দরকার।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:০৭

ইসিয়াক বলেছেন: ভুয়া মফিজ ভাইয়া আপনাকে আমার ব্লগে স্বাগতম।
মন্তব্যে অনুপ্রাণিত হলাম । আপনার পরামর্শগুলো আমার মনে থাকবে ।
শুভকামনা রইলো ।

৫| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:০৮

রানার ব্লগ বলেছেন: ইরাবতিরা বর্ষায় কেন আসে, শীত গ্রীষ্ম এই গুলা চোখে দেখে না ?

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:০৯

ইসিয়াক বলেছেন: গল্প পাঠেও মন্তব্যে কৃতজ্ঞতা রইলো ভাইয়া ।

৬| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:২০

ফয়সাল রকি বলেছেন: আবার আরেকটা প্রেম!

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:১০

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও শুভকামনা রইলো।

৭| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:২৬

এম এ হানিফ বলেছেন: ভালই ছিল শুরুটা। মাঝপথের কথোপকথোনগুলো সাধারণ মনে হল তবে শেষটা ভাল হয়েছে।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:১০

ইসিয়াক বলেছেন: ধন্যবাদ সহ শুভকামনা রইলো ভাইয়া।

৮| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:২৮

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: কাব্যে মধুরিমা অধরা। পূর্ণিমা রাতে কখনওবা উজ্জ্বল হয়ে কুহেলিকা আকারে দেখা দেয়।সুনীল গাঙ্গুলীর কথাতে বললে 33 বছর কাটলো কিন্তু মধুরিমা কথা রাখেনি। অধরা আজও।
মধুরিমা নেই ক্ষতি নেই কারণ আজ গদ্যে ইরার দেখা পেলাম। পেলাম এক উষ্ণ ছোঁয়া। মনের অলিন্দে মরচে পড়া প্রেমানুভূতি উঠলো জেগে।
পাঠক হিসাবে আমাদের হৃদয়ও ভালো নেই। ইরাবতীর বাসা না খুঁজে পাওয়া পর্যন্ত মনের যন্ত্রণায় ছটফট করতে লাগলাম।
প্রথম গদ্য লেখক হিসেবে পোস্টটি যথেষ্ট ভালো হয়েছে।
কিছু বলার,
শিরোনাম ও বাক্যের মধ্যে বর্ষা বানানটি একই হওয়া কাম্য।
ঝিরঝিরে/ঝিরঝিরিয়ে,
অনবরত বৃষ্টির ছোঁয়ায় সমস্ত চরাচর ভিজে একাকার। বাক্যটি আর একবার ভাববেন কনস্ট্রাকশনে বেশ দুর্বল লাগলো।
সদ্যস্নাত(স্পেস হবে না), জল টলটলে (পরিপূর্ণতা অর্থে)) টলমলে বলতে মাদকাসক্ত বোঝায়,
হয় বলুন প্রাকৃতিক দৃশ্য নতুবা প্রকৃতির এই নৈসর্গিক দৃশ্য,
রাস্তায় যানবাহনের আধিক্য, চোখে পড়েনি তেমন পথচলতি লোকের আনাগোনা। বিশেষ একটি জায়গায় কেমন আলুনি লাগলো বাক্য দুটিতে।
সুন্দর প্রচেষ্টা এভাবে লিখতে থাকুন। মফিজ ভাইয়ের পরামর্শটি মাথায় রাখবেন। আগামী দিনে আমরা পাব আরো এক শক্তিশালী গদ্য লেখকের।
নিরন্তর শুভেচ্ছা প্রিয় ইসিয়াক ভাইকে।




১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:১৩

ইসিয়াক বলেছেন: ওরে বাবা এতো মনোযোগী পাঠক! চুলচেরা বিশ্লেষণ।
সত্যি দাদা কৃতজ্ঞতা জানানোর ভাষা নেই।আমি চেষ্টা করবো আরো ভালো লিখতে।
শুভকামনা রইলো্ প্রিয় দাদা।

৯| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:০৫

রাজীব নুর বলেছেন: গল্প মোটামোটি হয়েছে।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:১৪

ইসিয়াক বলেছেন: জেনে ভালো লাগলো বন্ধু্ ।

১০| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:৪১

নিভৃতা বলেছেন: ভালো লাগছে। আরো পর্ব আছে?

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:১৫

ইসিয়াক বলেছেন: না আপু, আপাতত আরো পর্ব নেই ।
ভালো লেগেছে জেনে ভালো লাগলো্।
শুভকামনা রইলো্।

১১| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:৪৭

অজ্ঞ বালক বলেছেন: সুন্দর তবে ক্লিফহ্যাঙ্গার রাইখা দিলেন। এরপর কি হইলো, কি সেই গোপন কথা জানতে ইচ্ছা করতাসে।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:১৬

ইসিয়াক বলেছেন: অজ্ঞ বালক আপনাকে আমার ব্লগে স্বাগতম।
মন্তব্যে ও পাঠে কৃতজ্ঞতা রইলো।

১২| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০১

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: দারুণ লাগলো। ছোট্ট অথচ কী সাবলীল!

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:১৭

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ রইলো ভাইয়া্

১৩| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৩৮

নেওয়াজ আলি বলেছেন: অনুপম

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:১৭

ইসিয়াক বলেছেন: মন্তব্যে ভালো লাগা ।
শুভকামনা।

১৪| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:২৯

শরীফ আজিম বলেছেন: গোছানো তথ্যবহুল লেখা!

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:১৮

ইসিয়াক বলেছেন: শরীফ আজিম ভাইয়া আপনাকে আমার ব্লগে স্বাগতম।
শুভেচ্ছা ও শুভকামনা রইলো্

১৫| ১০ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:৪৭

এমজেডএফ বলেছেন: গ্রীষ্মের তাপদাহ, বর্ষার মুষলধারে বৃষ্টি কিংবা শীতকালের হাড় কাঁপানো ঠাণ্ডা—এসব কোনো কিছুই প্রেমের ফেরিওয়ালাদের ঠেকিয়ে রাখতে পারে না! পারে না!! :)। সাবাস বিশ্বপ্রেমিক!!!

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:২০

ইসিয়াক বলেছেন: মন্তব্যে ও পাঠে কৃতজ্ঞতা রইলো ভাইয়া ।
ভালো থাকুন সবসময়।

১৬| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ১:২৭

শের শায়রী বলেছেন: শেষ হইয়াও হইল না শেষ। দারুন।।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:২১

ইসিয়াক বলেছেন: প্রিয় ভাইয়া/প্রিয় ব্লগার ,
আপনার ভালো লেগেছে জেনে আমার খুব ভালো লাগলো। শুভকামনা্ রইলো।

১৭| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ৯:৩৭

রাজীব নুর বলেছেন: এতজন মন্তব্য করে রেখেছে উত্তর দেন নি কেন??

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:২৫

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক ব্যস্ততায় মাথার মধ্যে শুধু কেমন কেমন করে।
এই গল্পে এত মন্তব্য আর লাইক পাবো আশা করি নাই্।আমি অবাক।
খুব বেশি সময় দিয়ে লিখি নাই,ব্লগ আমার রাফ খাতা। বলতে পারেন লেখাগুলো জমিয়ে রাখছি পরে এডিট করবো। সময় দিলে হয়তো আরো ভালো লেখা হতো।
ধন্যবাদ

১৮| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ৯:৪৭

শামছুল ইসলাম বলেছেন: ঝিরঝির বৃষ্টি ও প্রকৃতির বর্ণনা দিয়ে চমৎকার শুরু ।

সাবলীল গদ্যে গল্প এগিয়েছে অনায়াসে।

শেষটাও সুন্দর, বেদনার।

০৫ ই মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০১

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া।

১৯| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:১২

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
কেন যেন গল্পটা পরিপূর্ণ হয়নি ? ১ম গল্প নাকি ?

০৫ ই মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০২

ইসিয়াক বলেছেন: শুভকামনা রইলো্

২০| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:১৯

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: পৃথিবীতে সবাই সূখী কেন হয় না? আর অসুখী গল্পগুলো আমরা কেন বেশী শুনতে চাই?

০৫ ই মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০২

ইসিয়াক বলেছেন: ভালো থাকুন সবসময় কামাল ভাই।
শুভসন্ধ্যা

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.