নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সাহিত্য, সংস্কৃতি, কবিতা এবং সমসাময়িক সামাজিক বিষয়াদি নিয়ে গঠনমুলক লেখা লেখি ও মুক্ত আলোচনা

ডঃ এম এ আলী

সাধারণ পাঠক ও লেখক

ডঃ এম এ আলী › বিস্তারিত পোস্টঃ

উঠেনি আকাশে কোন তারা আজ

২৯ শে এপ্রিল, ২০১৬ ভোর ৫:০৫


নিকশকালো আধার রাত উঠেনি আকাশে কোন তারা আজ
বসে আছি উঠানে মাথার পর ঝুলে থাকা সাজনার চিকন ফাক
গলে দখিনের মৃদু ঝির ঝির হাওয়ায় শান শান শব্দ অনুগত,
দিগন্ত জোরা নিকশ রাতে ডুবে গেছে কাল কেশবতী কন্যা
যেন আকাশে ; আমার চোখের পরে লম্বা চুল তার ভাসে ।

কতদিন গেল কত যুগ গেল দেখিনি তাকে বসেনি এমন আধারে
পৃথিবীর কোন পথে নরম ঘাসের গালিচা পেরিয়ে উঠে গেল আকাশে,
অন্ধকারে মিশে যাওয়ার আগে বাড়াল না কেন সরু হাত দুখান
রেখে গেল কিশোরী পায়ে দলা ঘাস ওরনাখানি সজনে গাছের ডালে ।

বুঝিনি কখনো এই তারাহীন রাতের আগে রূপসীর কালো কেশ হতে
অন্ধকারে স্নিগ্ধ গন্ধ ঝরে, নিয়ুত চুলের চুমা আছরে পরে সাজনা তলে,
পাগল করা পরশ শর পুকুরের জলের মত মৃদু তালে হাসের পালকসম
ক্লান্তির নিরবতা ভাংগে , ধানের গন্ধ কলমীর ঘ্রাণ যেন বাংলার প্রাণ
ভুলে যাই আজ আকাশে তারা উঠে নাই আড়াল পরেছে কেশবতীর চুলে ।

মন্তব্য ১২ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (১২) মন্তব্য লিখুন

১| ২৯ শে এপ্রিল, ২০১৬ ভোর ৬:১২

ইসমাইলহোসেন০০৭ বলেছেন: ভালো লেগেছে।++++

২৯ শে এপ্রিল, ২০১৬ ভোর ৬:৫২

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: ভাল লাগার জন্য অনেক ধন্যবাদ । ভাল থাকুন এ শুভ কামনা থাকল ।

২| ২৯ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ৭:৩৫

চন্দ্ররথা রাজশ্রী বলেছেন: জীবনানন্দ স্বাদ পেলাম।
তাই আরো ভাল লাগলো।

সুন্দর প্রকাশ।
প্লাস

২৯ শে এপ্রিল, ২০১৬ বিকাল ৩:৩২

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ । জীবনান্দের অনেক কথা হৃদয়ে আছে গাঁথা, তাঁর প্রভাব রোধে সাধ্যকার, তবে চন্দ্রের প্রভাব সেই বা কম কিসে এটা লিখার আগে পড়েছি তার কবিতা সম্ভার বিস্তারিতভাবে । ভাল থাকুন এ শুভ কামনা রইল ।

৩| ২৯ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ৭:৪৬

বিজন রয় বলেছেন: শুভ সকাল প্রিয় লেখক।

২৯ শে এপ্রিল, ২০১৬ বিকাল ৩:২৩

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: শুভ অপরাহ্ন দাদা । যতার্থ অনুধাবন , ভালবাসা ও শুভেচ্ছা থাকল ।

৪| ২৯ শে এপ্রিল, ২০১৬ সকাল ১০:৪২

জনৈক অচম ভুত বলেছেন: ভাল লাগল।

২৯ শে এপ্রিল, ২০১৬ বিকাল ৩:১৭

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ, ভাল লাগার কথা শুনে খুবই খুশি হলাম । ভাল থাকুন এ শুভকামনা থাকল ।

৫| ২৯ শে এপ্রিল, ২০১৬ বিকাল ৫:৪৮

দেবজ্যোতিকাজল বলেছেন: বেশ ভাল

২৯ শে এপ্রিল, ২০১৬ সন্ধ্যা ৭:৩৭

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: আপনার লিখা বেশ ভাল টুকু হবে ক্রমশ; আশির্বাদ তব রইল শীরে তুলা । ভাল থাকুন এ শুভকামনা থাকল ।

৬| ০২ রা মে, ২০১৬ সকাল ১১:৫৭

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: আহ কি সুন্দর

ঢাকাবাসীদের কেশ আয়রনে উঠে যায় এই একটা সমস্যা :(

০২ রা মে, ২০১৬ রাত ৯:০৪

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: উপরে গাছের নীচে ছেলেটার পাশে বসা মেয়েটার নিকশকাল ঘনকেশের শেষ প্রান্ত কোথায় গিয়ে মিশেছে তার হদিস মিলছেনা ।
আয়রণে কেশ খেয়ে খেয়েও শেষ করতে পারবেনা ।
আয়রণে ঢাকাবাসীর কেশ পড়া বন্ধের একটা উপায় বাতলে দিলাম : গোছলের আগে বড় বাকেটে কয়েক কুচি কচুরী পানা ( কোন জলাশয় থেকে সংগ্রহ করতে হবে) এর সাথে লেবু টুকরা মিশিয়ে ঘন্টা দুয়েক কিংবা বেশী রেখে দিলে পানি থেকে অায়রণ শুশে নিবে ) এটা পরিক্ষিত ও ন্যাশনাল সাইন্স এক্জিবিশনে প্রথম পুরস্কার প্রাপ্ত । এই পানি দিয়ে গোছল করলে কেশ পরা বন্ধ হবে ।
অনেক ধন্যবাদ ব্লগে এসে মুল্যবান সময় দেয়ার জন্য । ভাল থাকুন এ কামনা থাকল ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.